আজঃ বুধবার ০৪ আগস্ট ২০২১
শিরোনাম

পিরোজপুরে ক্রিস্টাল মেথ আইস সহ ‘কাউয়া রাজ’ গ্রেফতার

প্রকাশিত:রবিবার ১৮ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১৮ জুলাই ২০২১ | ১৪২৩জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে সেখানে থাকা অন্য মাদক ব্যবসায়ীরা পালিয়ে গেলেও মাসুম খান দৌড়ে পালানোর সময় আটক হয়

পিরোজপুরে মূল্যবান ক্রিস্টাল মেথ আইস মাদক সহ মোহাম্মদ মাসুম খান রাজ (২৭) ওরফে কাউয়া রাজ এক মাদক ব্যবসায়ীকে র‌্যাব গ্রেফতার করেছে। সে ওই ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। গ্রেফতারকৃত মাসুম খান রাজ জেলার সদর উপজেলার টোনা ইউনিয়নের ওধনকাঠী গ্রামের মৃত মতিউর রহমান খানের ছেলে।

রবিবার (১৮জুলাই) র‌্যাব-৮ এক প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। পরে ওই দিন দুপুরে তাকে পিরোজপুর সদর থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়। এ ঘটনায় বরিশাল র‌্যাব-৮ এর ডিএডি মোহাম্মদ আল মামুন শিকদার বাদী হয়ে পিরোজপুর সদর থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনে একটি মামলা দায়ের করেছেন।

র‌্যাব-৮ জানান, গত শনিবার (১৭ জুলাই) রাত পৌনে ৯টার দিকে জেলার সদর উপজেলার টোনা ইউনিয়নের ওধনকাঠী গ্রামের আটককৃত মাসুম খানের বাড়ির সামনের ইটের রাস্তার উপর বসে মাদক জাতীয় দ্রব্য বেচা-কেনা হচ্ছে এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব সদস্যরা সেখানে অভিযান চালান। এ সময় র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে সেখানে থাকা অন্য মাদক ব্যবসায়ীরা পালিয়ে গেলেও মাসুম খান দৌড়ে পালানোর সময় আটক হয়। এ সময় তার কাছে থাকা একশত গ্রাম ক্রিস্টাল মেথ আইস নামের দামীয় মাদক উদ্ধার করা হয়।

সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. রেজাউল করিম শিকদার মন্টু গ্রেফতারকৃত মোহাম্মদ মাসুম খান রাজ ওই ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের প্রস্তাবিত কমিটির সাধারণ সম্পাদক হিসাবে নিশ্চিত করেছেন। তবে ওই কমিটি এখনো অনুমোদিত হয় নি।

র‌্যাব সূত্র আরও জানায়, মূল্যবান ক্রিস্টাল মেথ আইস মাদক একটি ভয়াবহ ক্ষতিকর মাদক। যা দেশের প্রচালিত অন্যান্য সকল মাদকের থেকে ক্ষতিকর ও ভয়াবহ।

জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) একাধীক সূত্র জানান, আটককৃত মোঃ মাসুম খান রাজ একজন তালিকা ভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী।এর আগে মাদকসহ তার ভাই মামুন ও তার স্ত্রীসহ গ্রেফতার করা হয়েছিলো।

পিরোজপুর সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আ.জ.ম মাসুদুজ্জামান জানান, ওই মাদক ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। তাকে থানার কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এ মাদক অত্যন্ত দামি। যার একশ গ্রামের দাম ১৫ লক্ষ টাকা। জেলা শহরে এই মাদক ঢুকে পড়েছে সত্যিই দুঃখজনক।


আরও খবর



বিশ্বে করোনার সর্বশেষ অবস্থা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৭ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ জুলাই ২০২১ | ৭৩জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মহামারি করোনার ধাক্কা সামলাতে হিমশিম খাচ্ছে পুরো বিশ্ব। করোনার নতুন নতুন ভ্যারিয়েন্টের কাছে বিশ্বের ক্ষমতাধর রাষ্ট্রগুলোও ধরাশায়ী। পৃথিবীজুড়ে টিকা কর্যক্রম চললেও থামছে না সংক্রমণের গতি। এখন পর্যন্ত বিশ্বে করোনায় মৃত্যু ছাড়িয়েছে ৪১ লাখ ৮২ হাজার। আর আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ১৯ কোটি ৫৩ লাখ।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও প্রাণহানির পরিসংখ্যান রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডওমিটারের তথ্যানুযায়ী, বাংলাদেশ সময় মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) সকাল ৮টা পর্যন্ত পূর্ববর্তী ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে করোনায় মৃতের সংখ্যা ও সংক্রমণ বেড়েছে। এ সময় মারা গেছেন আরও ৭ হাজার ৩৮৭ জন এবং আক্রান্ত হয়েছেন ৪ লাখ ৪৩ হাজার ৬৮ জন।

এর আগে সোমবার (২৬ জুলাই) সকাল ৮টা পর্যন্ত পূর্ববর্তী ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে করোনায় মারা গিয়েছিল ৬ হাজার ৮৫৯ জন এবং আক্রান্ত হয়েছিলেন ৪ লাখ ২৭ হাজার ৮০ জন।

বিশ্বে এখন পর্যন্ত মোট করোনায় মৃত্যু হলো ৪১ লাখ ৮২ হাজার ৮২৮ এবং আক্রান্ত হয়েছেন ১৯ কোটি ৫৩ লাখ ৪৫ হাজার ৫১৬ জন। এদের মধ্যে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১৭ কোটি ৭১ লাখ ৮২ হাজার ৬২৫ জন।

করোনায় এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ও মৃত্যু হয়েছে বিশ্বের ক্ষমতাধর দেশ যুক্তরাষ্ট্রে। তালিকায় শীর্ষে থাকা দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন ৩ কোটি ৫২ লাখ ৮৭ হাজার ২৬৯ জন। মৃত্যু হয়েছে ৬ লাখ ২৭ হাজার ৩৯ জনের।

আক্রান্তে দ্বিতীয় ও মৃত্যুতে তৃতীয় অবস্থানে থাকা ভারতে এখন পর্যন্ত মোট সংক্রমিত হয়েছেন ৩ কোটি ১৪ লাখ ৩৯ হাজার ৭৬৪ জন এবং এখন পর্যন্ত মোট মৃত্যু হয়েছে ৪ লাখ ২১ হাজার ৪১১ জনের।

আক্রান্তে তৃতীয় এবং মৃত্যুতে দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা ব্রাজিলে এখন পর্যন্ত করোনায় এক কোটি ৯৭ লাখ ৭ হাজার ৬৬২ জন সংক্রমিত হয়েছেন। মৃত্যু হয়েছে ৫ লাখ ৫০ হাজার ৫৮৬ জনের।

আক্রান্তের দিক থেকে চতুর্থ স্থানে রয়েছে রাশিয়া। দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৬১ লাখ ৪৯ হাজার ৭৮০ জন। মারা গেছেন ১ লাখ ৫৪ হাজার ৬০১ জন।

এ তালিকায় পঞ্চম স্থানে রয়েছে ফ্রান্স। দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন ৫৯ লাখ ৯৯ হাজার ২৪৪ জন। এর মধ্যে মারা গেছেন ১ লাখ ১১ হাজার ৬৬৭ জন।

আক্রান্তের তালিকায় যুক্তরাজ্য ষষ্ঠ, তুরস্ক সপ্তম, আর্জেন্টিনা অষ্টম, কলম্বিয়া নবম ও ইতালি দশম স্থানে রয়েছে। এই তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান ২৬তম।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরের শেষ দিকে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান থেকে করোনাভাইরাস সংক্রমণ শুরু হয়। এখন পর্যন্ত বাংলাদেশসহ বিশ্বের ২১৮টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে কোভিড-১৯।



আরও খবর
ভারতে আবারও বেড়েছে মৃত্যু

বুধবার ০৪ আগস্ট ২০২১




ফকির আলমগীরের দাফন সম্পন্ন

প্রকাশিত:শনিবার ২৪ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ জুলাই ২০২১ | ১০৪জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের শব্দ সৈনিক, দেশবরেণ্য গণসংগীত শিল্পী ফকির আলমগীরের দাফন সম্পন্ন হয়েছে। জোহরের নামাজের পর দুপুর ১টা ৫০ মিনিটে রাজধানীর খিলগাঁও মাটির মসজিদে দ্বিতীয় নামাজে জানাজা শেষে করোনার স্বাস্থ্যবিধি মেনেই তার দাফন সম্পন্ন হয়।

ফকির আলমগীরের ছেলে মাশুক আলমগীর রাজীব বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, বেলা ১১টায় পল্লীমা সংসদে ফকির আলমগীরের প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এরপর দুপুর ১২টায় ফকির আলমগীরের মরদেহ শ্রদ্ধা জানানোর জন্য নেওয়া হয় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে। সবশেষ বাদ যোহর রাজধানীর খিলগাঁও মাটির মসজিদে শেষ জানাজা শেষে তাকে তালতলা কবরস্থানে দাফন করা হয়।

এর আগে, দুপুর পৌনে ১২টায় তার মরদেহ শহীদ মিনারে নেওয়া হয়। সেখানে তার মরদেহে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয়। আর সকালেই খিলগাঁওয়ের পল্লীমা সংসদ মাঠে এই বীর মুক্তিযোদ্ধাকে নেওয়া হয়েছিল। সেখানে তার প্রথম জানাজা সম্পন্ন হওয়ার পর বেলা ১১টার দিকে তাকে গার্ড অব অনার দেওয়া হয়।

শুক্রবার (২৩ জুলাই) রাত ১০টা ৫৬ মিনিটে করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত হয়ে লাইফ সাপোর্টে থাকা অবস্থায় মারা যান একাত্তরের কণ্ঠযোদ্ধা, গণসংগীত শিল্পী ফকির আলমগীর। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭১ বছর। তিনি স্ত্রী, তিন ছেলে ও অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

ফকির আলমগীর এর মৃত্যুতে শোক বার্তায় প্রধানমন্ত্রী, রাষ্ট্রপতি, মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী ও বিশিষ্টজনরা গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন। শোক বার্তায় রহুমের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করা হয়। শোকাহত পরিবারের সদস্য ও ফকির আলমগীরের অগণিত ভক্তের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করা হয়।

ফকির আলমগীর ১৯৬৬ সালে ছাত্র ইউনিয়নের সক্রিয় সদস্য ছিলেন। রাজপথে বিভিন্ন আন্দোলনে তাকে বহুবার দেখা গেছে। তিনি ষাটের দশক থেকে গণসংগীতের সঙ্গে যুক্ত। ক্রান্তি শিল্পী গোষ্ঠী ও গণশিল্পী গোষ্ঠীর সদস্য হিসেবে ১৯৬৯-এর গণঅভ্যুত্থানে শামিল হন এ গণসংগীত শিল্পী। এরপর ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধ শুরু হলে তিনি যোগ দেন স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রে। তিনি একাত্তরের কণ্ঠযোদ্ধা হিসেবে পরিচিত।

স্বাধীনতার পর পাশ্চাত্য সংগীতের সঙ্গে দেশজ সুরের মেলবন্ধন ঘটিয়ে বাংলা পপ গানের বিকাশে ভূমিকা রাখেন এ শিল্পী। সংগীতে গুরুত্বপূর্ণ অবদানের জন্য সরকার ১৯৯৯ সালে ফকির আলমগীরকে একুশে পদক দেয়।

জগন্নাথ কলেজ থেকে স্নাতক ডিগ্রি নিয়ে পরবর্তী পর্যায়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগ থেকে স্নাতকোত্তর করা ফকির আলমগীর গানের পাশাপাশি নিয়মিত লেখালেখিও করেন। মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি ও বিজয়ের গান, গণসংগীতের অতীত ও বর্তমান, আমার কথা, যারা আছেন হৃদয় পটেসহ বেশ কয়েকটি বই প্রকাশ হয়েছে তার।


আরও খবর



জুম মিটিংয়ের কারণে কারাগারে যে সাজা পাবেন রফিকুল আমিন

প্রকাশিত:শনিবার ১৭ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ১৭ জুলাই ২০২১ | ১৯০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বহুল আলোচিত বহুস্তর বিপণন কোম্পানি (এমএলএম) ডেসটিনি ২০০০ লিমিটেডের কর্ণধার মো. রফিকুল আমীন কারাগারে বসে ব্যবসায়িক বৈঠক করায় কারাবিধি লঙ্ঘন করেছেন। এ বিধি লঙ্ঘন করায় তাকে শাস্তির মুখোমুখি হতে হবে। ১ জুলাই রফিকুল আমীন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রিজন সেলে বসেই জুমে ব্যবসায়িক বৈঠক করেন।

বৈঠকের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে এ নিয়ে দেশজুড়ে তোলপাড় সৃষ্টি হয়। এ ঘটনার পর রফিকুল আমীনের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা প্রধান কারারক্ষীসহ আটজনকে প্রত্যাহার (ক্লোজড) করা হয়। রফিকুল আমীন জুম বৈঠক কীভাবে করলেন, তা খতিয়ে দেখতে তিন সদস্যের একটি কমিটি গঠন করে কারা অধিদপ্তর। সম্প্রতি রিপোর্টটি কারা মহাপরিদর্শকের (আইজি-প্রিজন্স) কাছে জমা দিয়েছে কারা অধিদফতরের তদন্ত কমিটি।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় রফিকুল আমীন গত ১১ এপ্রিল থেকে ২ জুলাই পর্যন্ত ৫ বার জুম মিটিং করেন। এর ফলে তিনি কারাবিধি ৭০৪(১) ও ৭০৫(৩)(৭)(৮)(৯)(৪৩) ধারা লঙ্ঘন করেছেন। এজন্য তার বিরুদ্ধে কারাবিধি মোতাবেক পদক্ষেপ গ্রহণের সুপারিশ করা হয়েছে।

এসব ধারা লঙ্ঘন করায় রফিকুল আমীন যেসব শাস্তি পেতে পারেন- জেলার শহরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের মাধ্যমে শুনানি করে ৬ মাস থেকে ১ বছরের অতিরিক্ত সাজা, ডাণ্ডাবেড়ি পড়িয়ে রাখা, আনুষ্ঠানিকভাবে সতর্ক করা, আসামি সশ্রম কারাদণ্ডপ্রাপ্ত না হলেও তাকে দিয়ে ৭ দিন কঠোর পরিশ্রমের কাজ করানো, ৩ মাসের জন্য একঘরে করে রাখা, ৯৬ ঘণ্টার জন্য খাদ্যাভ্যাসে পরিবর্তন আনা।

প্রসঙ্গত, ২০১২ সালের ৩১ জুলাই রাজধানীর কলাবাগান থানায় ডেসটিনির কর্ণধার রফিকুল আমিন এবং প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান মোহাম্মদ হোসেনসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে দুটি মামলা দায়ের করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। এরপর ওই বছরের ১১ অক্টোবর গ্রেপ্তার হন রফিকুল আমিন ও মোহাম্মদ হোসেন।



আরও খবর



নিজেকে প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা করে মিয়ানমারে জরুরি অবস্থা বাড়ালেন জান্তা নেতা

প্রকাশিত:সোমবার ০২ আগস্ট 2০২1 | হালনাগাদ:সোমবার ০২ আগস্ট 2০২1 | ৭৪জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

নির্বাচিত সরকারের কাছ থেকে ক্ষমতা দখলের ছয় মাস পর মিয়ানমারের সামরিক প্রধান মিন অং হ্লাইং রবিবার নিজেকে প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা করেছেন।

একইসঙ্গে তিনি জানিয়েছেন, আগামী দুই বছরের মধ্যে নির্বাচন না হওয়া পর্যন্ত বর্ধিত জরুরি অবস্থার অধীনে তিনি দেশটির নেতৃত্ব দেবেন। মার্কিন বার্তা সংস্থা অ্যাসোসিয়েটেড প্রেসের (এপি) প্রতিবেদনে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।

জান্তা প্রধান মিন অং হ্লাইং টেলিভিশনে এক রেকর্ড করা ভাষণে বলেন, আমাদের অবশ্যই একটি অবাধ ও সুষ্ঠু বহুদলীয় সাধারণ নির্বাচন আয়োজনের পরিস্থিতি তৈরি করতে হবে। আমাদের প্রস্তুতি নিতে হবে। আমি সুষ্ঠুভাবে বহুদলীয় সাধারণ নির্বাচনের অঙ্গীকার করছি।

এপি জানায়, একটি পৃথক ঘোষণায় সামরিক সরকার তত্ত্বাবধায়ক সরকার এবং মিন অং হ্লাইংকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে। চলতি বছরের ১ ফেব্রুয়ারি অং সান সু চির নির্বাচিত সরকারের হটিয়ে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করে মিয়ানমারের সামরিক জান্তা।

তখন জেনারেলরা বলেন, ২০০৮ সালের সামরিক সংবিধানের অধীনে এই উদ্যোগের অনুমতি দেওয়া আছে। সামরিক বাহিনী দাবি করে, গত বছরের জাতীয় নির্বাচনে সু চির দল ভোটে জালিয়াতির মাধ্যমে জয় অর্জন করেছে। তবে, এই অভিযোগের কোনো বিশ্বাসযোগ্য প্রমাণ দেয়নি তারা।

সামরিক সরকার গত মঙ্গলবার আনুষ্ঠানিকভাবে নির্বাচনের ফলাফল বাতিল করে এবং নির্বাচনের দায়িত্ব গ্রহণের জন্য একটি নতুন নির্বাচন কমিশন নিয়োগ করে।


আরও খবর
ভারতে আবারও বেড়েছে মৃত্যু

বুধবার ০৪ আগস্ট ২০২১




ফের ২০৪ জনের প্রাণহানি, শনাক্ত ৮ হাজার ৪৮৯ জন

প্রকাশিত:শনিবার ১৭ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ১৭ জুলাই ২০২১ | ১২৬জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

করোনাভাইরাসে দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ২০৪ জন মারা গেছেন। এখন পর্যন্ত করোনায় মোট মৃত্যুর হয়েছে ১৭ হাজার ৬৬৯ জনের। শনিবার (১৭ জুলাই) স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে পাঠানো করোনাবিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে। নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে ৮ হাজার ৪৮৯ জন।

এর আগে, গত ১১ জুলাই দেশে করোনায় সর্বোচ্চ মৃত্যু হয়েছিল ২৩০ জনের। আর ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ মৃত্যু হয়েছে ১৫ জুলাই ২২৬ জনের।

প্রসঙ্গত, ২০২০ সালের ৮ মার্চ দেশে প্রথম করোনাভাইরাস শনাক্ত হয় এবং এর ১০ দিন পর ১৮ মার্চ প্রথম এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে একজনের মৃত্যু হয়।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীন থেকে সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর বিশ্বব্যাপী ছড়িয়েছে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস। গত বছরের ১১ মার্চ করোনাভাইরাস সংকটকে মহামারি ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।


আরও খবর
করোনায় আরও ২৩৫ জনের মৃত্যু

মঙ্গলবার ০৩ আগস্ট ২০২১