আজঃ মঙ্গলবার ২৫ জানুয়ারী ২০২২
শিরোনাম

প্রাথমিক স্কুলেও নতুন শপথ পাঠের নির্দেশ

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৪ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৪ জানুয়ারী ২০২২ | ২৯৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

স্কুল-কলেজ ও মাদ্রাসার মতো প্রাথমিক বিদ্যালয়েও নতুন শপথ পাঠ করার বিষয়ে দিকনির্দেশনা দিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর। গতকাল বৃহস্পতিবার প্রতিষ্ঠানটির এক আদেশে জেলা ও উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা ও বিভাগীয় উপপরিচালকদের প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রতিদিনের সমাবেশে জাতীয় সংগীতের পর নতুন শপথ পাঠ করানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

নতুন শপথে বলা হয়েছে, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে পাকিস্তানি শাসকদের শোষণ ও বঞ্চনার বিরুদ্ধে এক রক্তক্ষয়ী মুক্তিসংগ্রামের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ স্বাধীনতা অর্জন করেছে। বিশ্বের বুকে বাঙালি জাতি প্রতিষ্ঠা করেছে তার স্বতন্ত্র জাতিসত্তা। আমি দৃপ্ত কণ্ঠে শপথ করছি যে, শহীদদের রক্ত বৃথা যেতে দেব না। দেশকে ভালোবাসব, দেশের মানুষের সার্বিক কল্যাণে সর্বশক্তি নিয়োগ করব। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের আদর্শে উন্নত, সমৃদ্ধ ও অসাম্প্রদায়িক চেতনার সোনার বাংলা গড়ে তুলব। মহান সৃষ্টিকর্তা আমাকে শক্তি দিন।

এর আগে ৩০ ডিসেম্বর দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের এই শপথ পাঠ করার বিষয়ে দিকনির্দেশনা দেয় শিক্ষা মন্ত্রণালয়। ওইদিন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উপসচিব আলমগীর হুসাইনের সই করা অফিস আদেশে বলা হয়, সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রতিদিনের সমাবেশে জাতীয় সংগীত পরিবেশনের পর নতুন শপথ পাঠ করতে হবে। ইংরেজি ও বিদেশি মাধ্যমের স্কুল-কলেজগুলোকেও মানতে হবে এ নির্দেশনা।

নিউজ ট্যাগ: শপথ পাঠ

আরও খবর



ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় এতিমখানায় হামলা, ৩১ ছাত্রকে পিটিয়ে আহত

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৪ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৪ জানুয়ারী ২০২২ | ৪১৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা শহরে ক্রিকেট ও ফুটবল খেলা নিয়ে বাগবিতণ্ডার জেরে একটি এতিমখানায় হামলা চালিয়ে ৩১ ছাত্রকে পিটিয়ে আহত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

বৃহস্পতিবার (১৩ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় শহরের কলেজপাড়া এলাকার মদিনাতুল তাহফিজ একাডেমি ও এতিমখানায় এ হামলার ঘটনা ঘটে। আহতরা ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছে।

আহতরা হলো- সালমান ফারসি (৯), নাদিম (১০), ওসমান (১০), সামাউন (১০), আব্দুলাহ (১৩), জাকারিয়া (৯), ইব্রাহিম (১৫), সাইদুল ইসলাম (১১), ফরহাদ (৯), মুজ্জামেল (১৪), জাহিদ (১৩), জুনায়েদ (১৩), ইয়ামিন (৯), ইসমাইল (১১), আমির হামজা (১২), ওমর ফারুক (১০), আসাদ উল্লাহ (১২), রিফাত (১৩), ওয়াসিম (১২), সিয়াম (১৩), ফজলে রাব্বী (১৪), সালমান (১৭), তোফাজ্জল (১৩), রেদুয়ান (১০), মোবারক (১৪), সালমান ফারসি (১৬), আকিব (৮), তানভীর (১৪), সিয়াম (১৪) ও আশরাফুল (১০) এবং রাকিব (১০)।

এতিমখানার পরিচালক হাফেজ মো. ইমরান জানান, বিকেলে এতিমখানার পাশে ছাত্ররা খেলাধুলা করছিল। এসময় স্থানীয় এক ছেলের সঙ্গে এতিমখানার এক ছাত্রের বাগবিতণ্ডা হয়। পরবর্তীতে সন্ধ্যায় দলবেঁধে স্থানীয় নারী-পুরুষ মিলে এতিমখানায় হামলা চালিয়ে ছাত্রদেরকে পিটিয়ে আহত করে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ এমরানুল ইসলাম জানান, এতিমখানার ছাত্ররা কলেজপাড়া বালুরমাঠে ফুটবল খেলছিল। এসময় স্থানীয় এক তরুণ ছাত্রদের খেলতে বাধা দেয়। এ নিয়ে বাগবিতণ্ডার জেরে হামলার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় দুজনকে আটক করা হয়েছে।


আরও খবর
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ট্রাকচাপায় নিহত ২

বৃহস্পতিবার ১৩ জানুয়ারী ২০২২




নেটফ্লিক্সের শীর্ষে কোরিয়ান সিরিজ ‘হেলবাউন্ড’

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ৩০ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ৩০ ডিসেম্বর ২০২১ | ৪৫৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

কোরিয়ান সিরিজ স্কুইড গেম গত মাসেই বাজিমাৎ করেছিল। স্ট্রিমিং প্ল্যাটফর্মটির ইতিহাসে সবচেয়ে বেশিবার দেখা স্কুইড গেমকে হটিয়ে শীর্ষস্থান দখল করে নিয়েছে আরও একটি কোরিয়ান সিরিজ হেলবাউন্ড

ভৌতিক ঘরানার এ সিরিজ নির্মাণ করেছেন ট্রেন টু বুসান খ্যাত ইয়ন সাং-হো। গত ১৯ নভেম্বর মুক্তির পর এই কয়েক দিনেই এটি স্কুইড গেম-এর রেকর্ড ভেঙে দিয়েছে। যার ফলে রাতারাতি আলোচনার কেন্দ্রে চলে এসেছে সিরিজটি।

২০ নভেম্বর এটি স্কুইড গেমকে টপকে শীর্ষে চলে যায়। ২৪ ঘণ্টায় এটি বিশ্বের অন্তত ৮০টি দেশে দেখা হয়েছে। আর ভিউ ছাড়িয়ে যায় ৪৩ দশমিক ৫ মিলিয়ন ঘণ্টা!

ভৌতিক ঘরানায় নির্মিত এই সিরিজে দেখা যায়, বিভিন্ন মানুষ তার মৃত্যুর সময় ও ধরন আগে থেকেই শুনতে পায়। যখন ওই সময়টা আসে তখন এক অপার্থিব এক দূত এসে তার সামনে দাঁড়ায় এবং হত্যা করে।

সিরিজটির বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন ইয়ো আহ-ইন, কিম হুং-জো, পার্ক জেওং-মিন ও ও জিং-আ প্রমুখ। দক্ষিণ কোরিয়ার সিরিজটিতে রয়েছে ৬টি পর্ব।


আরও খবর



শাবির ১৬ শিক্ষার্থীকে হাসপাতালে ভর্তি

প্রকাশিত:শনিবার ২২ জানুয়ারী 20২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২২ জানুয়ারী 20২২ | ২৩০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

শিক্ষার্থীদের ওপর পুলিশি হামলার প্রতিবাদে ভিসি অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদকে পদত্যাগের দাবিতে আমরণ অনশনরত শিক্ষার্থীরা অসুস্থ হয়ে পড়ছেন। কিছুক্ষণ পরপর বেজে উঠছে অ্যাম্বুলেসের সাইরেন। অনশনরত ২৪ শিক্ষার্থীর মধ্যে ১৬ জনই হাসপাতালে।

বর্তমানে ৭ জন শিক্ষার্থী ভিসির বাসভবনের সামনে আমরণ অনশন চালিয়ে যাচ্ছেন। তারাও অসুস্থ হয়ে আসছেন। সবার শরীরে স্যালাইন চলছে। একজন প্রথম দিনেই বাবা অসুস্থ হওয়ায় বাড়ি চলে যান।

ওদিকে হাসপাতালে যারা আছেন, তাদের কেউই এখন পর্যন্ত অনশন ভাঙেননি। তবে তাদের চিকিৎসা চলছে।

এর আগে অনশনের তৃতীয় দিন শুক্রবার (২১ জানুয়ারি) শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির আহ্বানে ঢাকায় প্রতিনিধিদল যাওয়ার কথা থাকলেও শেষে প্রত্যাখ্যান করে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। অবশ্য বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির একটি প্রতিনিধিদল শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে ঢাকায় অবস্থান করছেন।

অন্যদিকে অনশনকারী শিক্ষার্থী শাহরিয়ার আবেদিন শনিবার সকালে অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে হাসপাতালে পাঠানো হয়। অনশনকারীরা তিন দিন ধরে পানিসহ কোনো ধরনের তরল খাদ্য গ্রহণ করছেন না। ফলে অনেকেই নিস্তেজ হয়ে যাচ্ছে। তবে ভিসির পদত্যাগ না করা পর্যন্ত কেউ অনশন ভাঙবেন না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন।

রোববার (১৬ জানুয়ারি) পুলিশ-শিক্ষার্থী সংঘর্ষের পর শাবিপ্রবি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি ফরিদ উদ্দিন আহমেদের পদত্যাগের দাবিতে আন্দোলনে নামেন শিক্ষার্থীরা। ফলে বিশ্ববিদ্যালয়র কার্যক্রমে অচলাবস্থা সৃষ্টি হয়। ওই দিনই জরুরি সিন্ডিকেট সভা ডেকে বিশ্ববিদ্যালয় ও হল বন্ধ ঘোষণা করে কর্তৃপক্ষ। কিন্তু কর্তৃপক্ষের সেই সিদ্ধান্ত প্রত্যাখ্যান করে হলে অবস্থান করে শিক্ষার্থীরা ভিসির পদত্যাগের আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেন।

প্রসঙ্গত, ১৩ জানুয়ারি বৃহস্পতিবার থেকে আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছেন শিক্ষার্থীরা। বেগম সিরাজুননেসা ছাত্রী হলের প্রভোস্টের পদত্যাগসহ চার দফা দাবিতে আন্দোলন শুরু করেন তারা। আন্দোলনের এক পর্যায়ে শিক্ষার্থীদের ওপর পুলিশি হামলা হয়। এরপর আন্দোলন ভিসির পদত্যাগের এক দফা দাবিতে পরিণত হয়। বর্তমানে দশম দিনের মতো কর্মসূচি চলছে।


আরও খবর



পাইলটের ত্রুটিতে রাওয়াতের হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত

প্রকাশিত:শনিবার ১৫ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ১৫ জানুয়ারী ২০২২ | ৩১৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মেঘলা আবহাওয়ায় পাইলটের ত্রুটির কারণে ভারতের চিফ অব ডিফেন্স স্টাফ বিপিন রাওয়াতকে বহনকারী হেলিকপ্টারটি বিধ্বস্ত হয় বলে তদন্তকারী দল প্রাথমিকভাবে জানিয়েছে। গত মাসের ওই দুর্ঘটনায় সস্ত্রীক মারা যান জেনারেল বিপিন রাওয়াত।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি জানায়, আবহাওয়ার পরিবর্তন ও মেঘলা আবহাওয়া এবং মেঘের আস্তরণের ভেতরে ঢুকে পড়ায় পাইলটের বিভ্রান্তির কারণে এই দুর্ঘটনা ঘটেছে।

ভারতের বিমান বাহিনী এক বিবৃতিতে বলেছে, উপত্যকায় অপ্রত্যাশিতভাবে আবহাওয়ার পরিবর্তনে মেঘের মধ্যে হেলিকপ্টার ঢুকে যেতেই দুর্ঘটনা ঘটেছে। পাইলটের বিভ্রান্তিবোধ তথা স্প্যাটিয়াল ডিসওরিয়েন্টেশনর জন্যই এই ঘটনা ঘটেছে।

ভারতীয় বিমানবাহিনী বিবৃতিতে জানিয়েছে, তদন্তকারী দল বিশ্লেষণ করেছে বিমানের ডেটা রেকর্ডার আর ককপিট ভয়েস রেকর্ডার। এছাড়াও জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে প্রত্যক্ষদর্শীদের যাতে দুর্ঘটনার কারণ জানা যায়।

হিন্দুস্তান টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়, গত ৫ জানুয়ারি বিমান বাহিনীর তরফে এমআই-১৭ভি৫ (যে হেলিকপ্টারে ছিলেন বিপিন রাওয়াত সহ ১৩ জন) নিয়ে তদন্তের গতিপ্রকৃতি ও তথ্য ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংয়ের কাছে পেশ করা হয়।

গত ৮ ডিসেম্বর ভারতের তামিলনাড়ুর কুন্নুরে বিপিন রাওয়াতকে বহনকারী উড়োজাহাজ দুর্ঘটনা ঘটে। এতে সস্ত্রীক চিফ অফ ডিফেন্স স্টাফ জেনারেল বিপিন রাওয়াত সহ ১৪ জনের মৃত্যু হয়। সেই দুর্ঘটনারই তদন্ত রিপোর্ট জমা পড়ল।

সেই দুর্ঘটনায় প্রাণ হারান চিফ অফ ডিফেন্স স্টাফ জেনারেল বিপিন রাওয়াত, তার স্ত্রী মধুলিকা রাওয়াত, ব্রিগেডিয়ার এলএস লিড্ডার, লেফটেন্যান্ট কর্নেল হরজিন্দর সিং, নায়েক গুরসেবক সিংহ, নায়েক জিতেন্দ্র কুমার, ল্যান্সনায়েক বিবেক কুমার, ল্যান্সনায়েক বি সাই তেজা, দার্জিলিঙের তাকদার বাসিন্দা হাবিলদার সৎপাল রাইয়ের।

হেলিকপ্টারটি চালাচ্ছিলেন উইং কমান্ডার পৃথ্বী সিংহ চৌহান। তারও মৃত্যু হয়েছে। গুরুতর জখম হন গ্রুপ ক্যাপ্টেন বরুণ সিংহ। তাকে গুরুতর জখম অবস্থায় প্রথমে ওয়েলিংটনের সেনা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে সেখান থেকে নিয়ে যাওয়া হয় বেঙ্গালুরুর একটি হাসপাতালে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তাকেও বাঁচানো সম্ভব হয়নি।


আরও খবর
সৌদি আরবে প্রতি ঘণ্টায় ৭ ডিভোর্স

সোমবার ২৪ জানুয়ারী ২০২২




ঢাবির অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপককে ‘অপহরণের পর’ হত্যা

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৪ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৪ জানুয়ারী ২০২২ | ৬০৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সাভারে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পুষ্টি ও খাদ্যবিজ্ঞান ইনস্টিটিউটের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক সাইদা খালেকের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। তিন দিন আগে নিখোঁজ হয়েছিলেন তিনি। বিরোধের জেরে অপহরণের পর তাকে হত্যা করা হয়েছে বলে ধারণা ঢাবির প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের।

শুক্রবার (১৪ জানুয়ারি) সকালে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের আবাসন প্রকল্প এলাকা থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় কয়েকজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. একেএম গোলাম রব্বানী বলেন, অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক সাইদা খালেক ঢাকার সাভারে বসবাস করতেন। পূর্ব শত্রুতার জের ধরে তাকে হত্যা করা হয়েছে। পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করেছে। সন্দেহভাজন ব্যক্তিদের আটক করে পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদ করলে তারা ঘটনার দায় স্বীকার করে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. নিজামুল হক ভূইয়া বলেন, সাভারে তিনি একটি ভাড়া বাসায় থাকতেন। সেখানে নতুন বাড়ি নির্মাণের কাজ চলছিল। শ্রমিকরা বাড়ি নির্মাণের জন্য কিছু দাবি করছিল তার কাছে। তাদের সঙ্গে হয়তো সাইদা খালেকের মনোমানিল্য হয়েছিল। তিনদিন আগে তিনি নিখোঁজ হন। আজ সকালে পুলিশ তার মরদেহ উদ্ধার করে। সন্দেহজনক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হলে তিনি হত্যার দায় স্বীকার করেন।


আরও খবর