আজঃ মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম
গুরুদাসপুর গৃহ-ভূমিহীন মুক্ত ঘোষণা

প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর পেল ৫০৬ পরিবার

প্রকাশিত:বুধবার ২২ মার্চ ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ২২ মার্চ ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
গুরুদাসপুর (নাটোর) প্রতিনিধি

Image

নাটোরের গুরুদাসপুরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহারের জমি ও ঘর পেল ৫০৬ টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার। বুধাবার (২২ মার্চ ) সকাল ১০ ঘটিকায় উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে সর্বমোট ৫০৬টি পরিবারের মাঝে এই ঘরের জমির দলিল ও গৃহ হস্তান্তর করা হয়েছে।

সারাদেশের ন্যায় একযোগে প্রধান অতিথি ভার্চুয়ালি বক্তব্য রেখে সাতটি জেলাসহ ১৫৯টি উপজেলায় ভুমিহীন ও গৃহহীন মুক্ত ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এসময় গুরুদাসপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শ্রাবণী রায়ের এর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন নাটোর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নাটোর ৪ আসনের সংসদ সদস্য অধ্যাপক মোঃ আব্দুল কুদ্দুস ।

এ সময়ে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন, ভাইস চেয়ারম্যান আলাল শেখ, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রোখসানা আকতার, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ মেহেদী হাসান শাকিল, ওসি মোঃ আব্দুল মতিন, কৃষি আফিসার মোঃ হারুনর রশিদ, প্রকল্প ব্যাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোঃ আব্দুল হান্নান।

এছাড়া অনুষ্ঠানে সরকারি দপ্তরের সকল কর্মকর্তা, বিভিন্ন ইউনিয়নের চেয়ারম্যানগন, সাংবাদিক , আওয়ামী লীগের  সকল অঙ্গ- সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

 


আরও খবর



এবার কঠোর আন্দোলনের ঘোষণা মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের

প্রকাশিত:বুধবার ১০ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১০ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

সরকারি চাকরিতে নিয়োগের ক্ষেত্রে মুক্তিযোদ্ধা কোটা বহাল রেখে হাইকোর্টের দেওয়া রায় চার সপ্তাহের জন্য স্থগিত করেছে আপিল বিভাগ। এতে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন মুক্তিযোদ্ধার সন্তানরা। বলছেন, সাধারণ শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের বিপরীতে এবার কঠোর কর্মসূচি দেবেন তারা।

বুধবার (১০ জুলাই) সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের রায়ের পর প্রাথমিক প্রতিক্রিয়ায় এ ঘোষণা দেন মুক্তিযোদ্ধার সন্তান, প্রজন্ম ও মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের শক্তির সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

তাদের দাবি আদালতের কাছে নয়, বরং সংসদের কাছে উল্লেখ করে নেতাকর্মীরা বলেন, দেশের মানুষকে জিম্মি করে এই রায় নিয়েছে কোটাবিরোধীরা। এখন আমরাও বসে থাকবো না। এতোদিন সরকারের ভাবমূর্তি নষ্ট হবে দেখে কঠোর আন্দোলন করিনি। কিন্তু এবার বৈঠক করে কঠোর কর্মসূচি দেয়া হবে। কোটা আবার ফিরিয়ে আনতে শীঘ্রই সংসদ ভবন অভিমুখী মিছিল বের করা হবে। প্রয়োজনের সংসদে আমাদের বিষয়টি উত্থাপন করে শীঘ্রই কোটা ফিরিয়ে আনার দাবি জানাচ্ছি।

কোটাবিরোধীরা দেশের স্বাধীনতার বিরুদ্ধে আন্দোলন করছেন দাবি করে মুক্তিযোদ্ধার সন্তানরা বলেন, ৭১ সালে যে স্বাধীনতা হয়েছে তোমরা তার বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছ। এখানে শরীক হয়েছে বিএনপি-জামায়াতের এজেন্ডা। আমরা এই যুদ্ধে অংশ নিতে প্রস্তুত। যতক্ষণ পর্যন্ত তোমরা আন্দোলন চালিয়ে যাবে, ততোক্ষণ পর্যন্ত আমরাও আন্দোলন চালিয়ে যাবো। আমরাও রাস্তায় থাকবো।

আপিল বিভাগের আদেশের প্রতিক্রিয়ায় তারা আরও বলেন, আমরা কোটা পুর্নবহাল চাই। কোটা আন্দোলনকারীদের বিপক্ষে আমাদের অবস্থান। এটি চলবে। দাবি আদায় করেই আমরা ঘরে ফিরবো।

আদালতের রায়ের পর আন্দোলন করার আর কোনো যৌক্তিকতা নেই; প্রধান বিচারপতির এমন বক্তব্যের ব্যাপারে মুক্তিযোদ্ধার সন্তানরা বলেন, আমাদের দাবি হাইকোর্টের কাছে নয়, সংসদের কাছে। আমরা স্থায়ী সমাধান চাই। স্থায়ী সমাধান না পাওয়া পর্যন্ত রাজপথ ছাড়ব না, আন্দোলন চালিয়ে যাব।

প্রসঙ্গত, সরকারি চাকরিতে কোটা বাতিলের আন্দোলনের পর জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় ২০১৮ সালের ৪ অক্টোবর নবম থেকে ১৩তম গ্রেড পর্যন্ত সরাসরি নিয়োগে মুক্তিযোদ্ধা কোটা বাতিল করে একটি পরিপত্র জারি করে। সেখানে বলা হয়, ৯ম গ্রেড (পূর্বতন ১ম শ্রেণি) এবং ১০ম-১৩তম গ্রেড (পূর্বতন ২য় শ্রেণি) পদে সরাসরি নিয়োগের ক্ষেত্রে মেধাতালিকার ভিত্তিতে নিয়োগ দিতে হবে। ওই পদসমূহে সরাসরি নিয়োগের ক্ষেত্রে বিদ্যমান কোটা পদ্ধতি বাতিল করা হলো।

সব মিলিয়ে তখন নারীদের জন্য বরাদ্দ ১০ শতাংশ, মুক্তিযোদ্ধাদের উত্তরসূরীদের জন্য বরাদ্দ ৩০ শতাংশ এবং জেলাভিত্তিক ১০ শতাংশ, উপজাতিদের জন্য বরাদ্দ ৫ শতাংশ ও প্রতিবন্ধীদের জন্য বরাদ্দ ১ শতাংশ কোটা বাতিল করা হয় ওই পরিপত্রে।

পরবর্তীতে পরিপত্রের ৩০ শতাংশ মুক্তিযোদ্ধা কোটা বাতিলের বিষয়টি চ্যালেঞ্জ করে মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও প্রজন্ম কেন্দ্রীয় কমান্ড কাউন্সিলের সভাপতি অহিদুল ইসলাম তুষারসহ সাতজন হাইকোর্টে রিট করেন। সে রিটের শুনানি নিয়ে ৩০ শতাংশ মুক্তিযোদ্ধা কোটা বাতিলের সিদ্ধান্ত কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেন হাইকোর্ট। সে রুল যথাযথ ঘোষণা করে মুক্তিযোদ্ধা কোটা বাতিলের সিদ্ধান্ত অবৈধ বলে গত ৫ জুন রায় দেন হাইকোর্ট। এই রায়ের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষ আবেদন করলে ৪ জুলাই পর্যন্ত হাইকোর্টের রায় বহাল রেখে বিষয়টি আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে শুনানির জন্য নির্ধারণ করেন বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিমের চেম্বার জজ আদালত। কিন্তু ওইদিন রিটের পক্ষের আইনজীবী না থাকায় তার পক্ষে সময় চাইলে সর্বোচ্চ আদালত শুনানি নট টুডের আদেশ দেন।

পরবর্তীতে শনিবার রাজধানীর শাহবাগ থেকে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা 'বাংলা ব্লকেড' কর্মসূচি ঘোষণা করেন। সে অনুযায়ী রোববার ও সোমবার টানা দুদিন বিকেলে রাজধানীর গুরুত্বপূর্ণ বেশ কয়েকটি পয়েন্টে অবস্থান ও অবরোধ কর্মসূচি পালন করেন আন্দোলনকারীরা। এছাড়া দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরাও নিজ নিজ এলাকা থেকে এ কর্মসূচি পালন করেন।

মঙ্গলবার (৯ জুলাই) বিকেলে সাড়ে ৬টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে 'বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলনের' ব্যানারে সংবাদ সম্মেলন করে নতুন কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়। এর আগে ব্লকেড কর্মসূচিতে কয়েকঘণ্টা সড়ক অবরোধ করলেও বুধবার সকাল-সন্ধ্যা ব্লকেড কর্মসূচি দেন আন্দোলনকারীরা।

একইদিন কোটা বহাল করে হাইকোর্টের দেওয়া রায়ের বিরুদ্ধে আপিলের শুনানি হয়। শুনানির পর হাইকোর্টের দেওয়া রাইয়ে চার সপ্তাহের স্থিতাবস্থা জারি করেন আপিল বিভাগ। চার সপ্তাহ পর পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশ করা হবে।


আরও খবর



ট্রাম্পকে গুলি করা যুবক রিপাবলিকান পার্টির নিবন্ধিত ভোটার

প্রকাশিত:রবিবার ১৪ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১৪ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

নির্বাচনী প্রচারণায় সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ওপর গুলি চালানো টমাস ম্যাথিউ ক্রুকস রিপাবলিকান পার্টির নিবন্ধিত ভোটার ছিলেন।

রোববার (১৪ জুলাই) ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া অঙ্গরাজ্য পর্যায়ের একটি ভোট-সংক্রান্ত নথিতে দেখা গেছে, টমাস ম্যাথিউ ক্রুকসের জন্ম ২০০৩ সালের ২০ সেপ্টেম্বর। ওই নথি অনুযায়ী, তিনি ট্রাম্পের রিপাবলিকান পার্টির নিবন্ধিত একজন ভোটার। সেই সঙ্গে ভোটার স্ট্যাটাসের ঘরে ক্রুকসকে সক্রিয় হিসেবে লেখা হয়েছে।

শনিবার (১৩ জুলাই) যুক্তরাষ্ট্রের পেনসিলভানিয়া অঙ্গরাজ্যে নির্বচনী প্রচার সমাবেশে ডোনাল্ড ট্রাম্পকে লক্ষ্য করে গুলি করা হয়। গুলির শব্দ পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ট্রাম্প মঞ্চে বসে পড়েন। পরে গোয়েন্দা সংস্থার তাকে টেনে তুললে তার কান ও মুখমণ্ডল দিয়ে রক্ত ঝরতে দেখা যায়। পরে ট্রাম্প উঠে দাঁড়ানোর চেষ্টা করেন তখন ট্রাম্প মুষ্টিবদ্ধ হাত ওপরে তুলে বলে ওঠেন, ফাইট, ফাইট, ফাইট!

প্রত্যক্ষদর্শী হামলার ঘটনার বর্ণনায় বলেছেন, ট্রাম্পের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা সিক্রেট সার্ভিস টিম মুহূর্তের মধ্যে গুলি করে হামলাকারীর মাথা উড়িয়ে দিয়েছিল।

এদিকে দেশটির কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা (এফবিআই) জানিয়েছে, হামলাকারীর ২০ বছর বয়সী থমাস ম্যাথিউ ক্রুকস। বিবিসির খবর বলছে, হামলাকারী ক্রুকস পেনসিলভানিয়ার বেথেল পার্ক এলাকার বাসিন্দা। বাটলার থেকে এই শহরের দূরত্ব ৭০ কিলোমিটার। গুলির এই ঘটনাকে হত্যাচেষ্টা ধরে তদন্ত চলছে বলে জানিয়েছে সিক্রেট সার্ভিস।

এতো নিরাপত্তার মধ্যে কিভাবে এমন হামলার ঘটনা ঘটলো তা নিয়ে নানা প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমসের খবরে বলা হয়েছে, ডোনাল্ড ট্রাম্পের ওপর হামলাকারী যুবকের দিকে আগে থেকেই নজর ছিল স্নাইপারের। তাহলে কেন এই ঘটনা ঘটল? কেন আগেই শুটারকে থামানো গেল না।

মার্কিন প্রশাসন সূত্রে খবর, ট্রাম্প যেখানে দাঁড়িয়ে বক্তব্য দিচ্ছিলেন, তার থেকে মাত্র দেড়শো মিটার দূরে ছিলেন হামলাকারী। একটি এক তলা বাড়ির ছাদে উঠে গুলি চালান তিনি। জোসেফ নামের এক প্রত্যক্ষদর্শী যুবক বলেন, আমি পর পর অনেকগুলো গুলির শব্দ শুনতে পেয়েছিলাম। আমার পাশের এক ব্যক্তি গুলি খেয়ে লুটিয়ে পড়েন। তার ঠিক মাথায় গুলি লেগেছিল। আর এক মহিলাকেও দেখলাম বসে পড়তে। তার হাতে গুলি লেগেছে।

বিবিসিকে এক প্রত্যক্ষদর্শী জানিয়েছেন, তিনি হামলাকারীকে বন্দুক হাতে এক তলা বাড়ির ছাদে উঠতে দেখেছিলেন। তিনিই চিৎকার করে নিরাপত্তা বাহিনীকে সতর্ক করেন। কিন্তু তার আগেই ট্রাম্পকে লক্ষ্য করে গুলি চালিয়ে দেন। তবে তিনি লক্ষ্যভ্রষ্ট হন।

প্রত্যক্ষদর্শী বলেন, সিক্রেট সার্ভিস টিম হামলাকারীর মাথায় গুলি করে। তার পর তারা হামাগুড়ি দিয়ে ছাদে উঠেছিল। হামলাকারীর মৃত্যু নিশ্চিত করতে বন্দুক তাক করেই এগোচ্ছিল টিম। কিন্তু ততক্ষণে হামলাকারীর মৃত্যু হয়েছিল।


আরও খবর



ব্যবসায়ীর কোটি টাকা নিয়ে ভারতে পালিয়েছে কর্মচারী, উদ্ধার ৯৭ লাখ টাকা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০২ জুলাই 2০২4 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০২ জুলাই 2০২4 | অনলাইন সংস্করণ
রাহুল সরকার, চট্টগ্রাম ব্যুরো

Image

চট্টগ্রাম নগরের কোতোয়ালি থানার ফলমন্ডি এলাকায় একটি দোকান থেকে এক কোটি ৮ হাজার টাকা নিয়ে উধাও হয়ে যায় আব্দুল কাদের নামে এক কর্মচারী। এ ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলার তদন্তে নেমে ৯৬ লাখ টাকা ৮০ হাজার টাকা উদ্ধার করেছে পুলিশ।

থানা সুত্রে জানা যায়, গত ২৮ জুন ফলমন্ডির মেসার্স তৈয়্যবিয়া ফার্মের মালিক মো. আলী হোসেন প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজারের বিরুদ্ধে ১ কোটি ৮ হাজার টাকা আত্মসাৎ করে পালিয়ে যাওয়ার অভিযোগ করেন কোতোয়ালী থানায়।

সোমবার আনোয়ারার গহিরা দোভাষী বাজার বেড়িবাধ এলাকায় অভিযান চালিয়ে ম্যানেজারের খালাতো ভাই ও সহযোগী মাসুদুল আলমকে গ্রেপ্তার করা হয়। এ সময় তার বাড়ি থেকে ৪৬ লাখ ৮০ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়। এর আগে গত ২৯ তারিখ বাকলিয়া এলাকা থেকে আরও ৫০ লাখ টাকা উদ্ধার করা হয়।

কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এসএম ওবায়দুল হক জানান, ব্যবসায়ীর কোটি টাকা আত্মসাতের বিষয়ে মামলা দায়েরের পর পুলিশ তদন্ত কাজ শুরু করে। তথ্যপ্রযুক্তির সহায়তায় জানতে পারি আসামি ভারতে পালিয়েছে। পরে ফোনে যোগাযোগের সূত্র ধরে অভিযান চালিয়ে সহযোগী মাসুদুল আলমকে গ্রেপ্তার করা হয় এবং দুই জায়গা থেকে প্রায় ৯৭ লাখ টাকার মতো উদ্ধার করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদ করার পর তাকে আদালতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।


আরও খবর



‘প্রকৃতি ও জীবনকে সুন্দর করে সাজাতে চাই উদ্যম একাগ্রতা আন্তরিকতা’

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১১ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১১ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
মশিউর রহমান রাহাত, পিরোজপুর

Image

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি পিরোজপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য শ ম রেজাউল করিম বলেছেন, প্রকৃতি ও জীবনকে সুশৃঙ্খলভাবে সাজাতে সকলের একাগ্রতা, উদ্যম ও আন্তরিকতার কোন বিকল্প নেই।

বৃহস্পতিবার সকালে পিরোজপুর করিমুন্নেসা মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে চ্যানেল আইয়ের উদ্যোগে সবুজে সাজাই বাংলাদেশ শীর্ষক প্রকৃতি ও জীবন ক্লাবের আয়োজনে বৃক্ষরোপন কর্মসূচীর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, পিরোজপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মো. নজরুল ইসলাম সিকদার, পিরোজপুর সদর উপজেলা চেয়ারম্যান এস এম বায়েজিদ, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ আরিফ মোরশেদ মিশু, করিমুন্নেছা বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি শিরিনা আফরোজ।

এসময় পিরোজপুর সদর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শিপন কুমার ঘোষ, প্রকৃতি ও জীবন ক্লাব এর উপদেষ্টা খালেদা আক্তার হেনা, জগৎপ্রিয় দাস বিশু, করিমুন্নেছা বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক আব্দুল হালিম, সহকারী প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ জাহিদুল ইসলামসহ বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এদিন করিমুন্নেছা বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ৬ শতাধিক শিক্ষার্থীর মাঝে নারিকেল, পেয়ারা, জাম, বেল, কদবেল, জলপাই, আমলকিসহ বিভিন্ন জাতের ফলদ ও ঔষধি গাছের চারা বিতরণ করা হয়।

এর আগে সদর উপজেলা অডিটরিয়মে পিরোজপুরে ঘূর্ণিঝড় রেমালে ক্ষতিগ্রস্থ অর্ধশত ক্ষতিগ্রস্থ প্রত্যেক পরিবারের মাঝে ১ বান ঢেউটিন ও নগদ ৩ হাজার টাকা সরকারের পক্ষ থেকে তুলে দেন পিরোজপুর -১ আসনের সংসদ সদস্য শ ম রেজাউল করিম। প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ সহযোগিতা পেয়ে খুশি রেমালে ক্ষতিগ্রস্থরা।

এসময় এমপি শ ম রেজাউল করিম বলেন, সদর উপজেলায় পর্যায়ক্রমে প্রায় ৬শ পরিবারের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ সহায়তা দেয়া হবে। ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্থ একটি পরিবারও অসহায় থাকবে না সবার পাশে দাঁড়াবে সরকার।

পরে এমপি ইন্দুরকানী উপজেলার পারেহাট ইউনিয়নের হোগলাবুনিয়া নবনির্মিত বহুমূখী ঘূর্ণিঝড় আশ্রয়কেন্দ্র ও রেখাখালী-সূতারখালী বহুমূখী ঘূর্ণিঝড় আশ্রয়কেন্দ্র উদ্বোধন করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন ইন্দুরকাণী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আবু বকর সিদ্দিকী, ইন্দুরকাণী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা  মো. কামরুজ্জামান তালুকদার উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মতিউর রহমান, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল লতিফ হাওলাদার, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান এস এম বায়জিদ হোসেন প্রমূখ।


আরও খবর



কক্সবাজারে পাহাড় ধসে শিশুসহ ২ জনের মৃত্যু

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১১ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১১ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
কক্সবাজার প্রতিনিধি

Image

ভারী বর্ষণের ফলে কক্সবাজারের পাহাড় ধসে শিশুসহ দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১০ জুলাই) ভোররাতে কক্সবাজার শহরের সিকদার পাড়া ও পলাং কাটা এলাকায় পাহাড় ধসের এ ঘটনা ঘটে।

মৃতরা হলেন, কক্সবাজার শহরের সিকদার পাড়া এলাকার হাসান (১০), পলাং কাটা এলাকার নূর জাহান (২৭)।

কক্সবাজার সদর হাসপাতালের আবাসিক অফিসার ডাক্তার আশিকুর রহমান বলেন, কক্সবাজার ভারী বৃষ্টির কারণে পাহাড় ধসে দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। তার মধ্যে এক শিশু ও নারী রয়েছে। তাদের মরদেহ মর্গে রাখা হয়েছে।

কক্সবাজার সদর মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রকিবুজ্জামান বলেন, কক্সবাজারে শহরের বেশ কয়েকটি এলাকায় পাহাড় ধসে এই পর্যন্ত দুইজনের মৃত্যু সংবাদ শুনেছি।


আরও খবর