আজঃ শনিবার ০২ মার্চ 2০২4
শিরোনাম

প্রকৃতিতে ঋতুরাজ বসন্তের আগমনী বার্তা

প্রকাশিত:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
Image

আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি:

প্রকৃতিতে শীতের ক্লান্তি লগ্ন, আসতে শুরু করেছে বসন্তের আগমনী বার্তা। শীতের জীর্ণতা সরিয়ে ফুলে ফুলে সাজতে ব্যস্ত প্রকৃতি। গাছে গাছে নতুন পাতা, স্নিগ্ধ সবুজ কচি পাতার ধীর গতিময় বাতাস জানান দিচ্ছে নতুন লগ্নের। ফাল্গুনের আগমনী বার্তায় পলাশ, শিমুল গাছে উকি দিচ্ছে কলি, বসন্তের সাজ রব সর্বত্র। পুরো প্রকৃতিতে চলছে বসন্তের আগমনের ধ্বনি।

মাঘের তীব্র শীত পেরিয়ে কয়েকদিন পরেই প্রকৃতিতে ঋতুরাজ বসন্তের আগমন ঘটবে। আর সেই আগমনী বার্তা ছড়াচ্ছে শহর আর গ্রামের পথে প্রান্তরে। যেন উদাসী মনে আকাশ পানে চেয়ে ফুটতে শুরু করেছে সদ্যফোটা শিমুলের দল। রক্তিম মনোলোভা শিমুল ফুলগুলো কয়েকদিনের মাঝেই পূর্ণতা পাবে। বসন্ত আসার আগেই গাছে গাছে সীমিত আকারে শিমুল ফুল ফুটতে শুরু করেছে।

মাঘের শেষ হতে এখনো কয়েকদিন বাকি, আর এরই মধ্যে প্রকৃতিতে বইতে শুরু করেছে বসন্তের হাওয়া। ঋতুরাজ বসন্ত তার আগমনী বার্তা নিয়ে প্রকৃতির দরজায় কড়া নাড়ছে।

বসন্তের আগমনী বার্তা পেয়ে শীতের রিক্ততা ভুলিয়ে ফাগুনের আগুনে মানুষের মন আর প্রকৃতিতে লেগেছে পরিবর্তনের ছোঁয়া। বসন্তের রঙ্গ ও রূপে নিজেকে সাজাতে প্রকৃতি এখন মেতে উঠেছে। প্রকৃতি ধারণ করতে শুরু করেছে রূপ লাবণ্যে ভরা মনোহরী ভাব।

ফাল্গুনের আগুনে শীতের তীব্র রুক্ষতা কেটে পাতাঝরা বৃক্ষগুলির মাথায় দেখা দিয়েছে সবুজ পাতা, কলি ও ফুল। প্রকৃতিতে বসন্তের সাজ-সাজ রব।

আমতলী উপজেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুড়ে দেখা যায়, নতুন কুঁড়ি ও ফুলে শিমুল গাছ রঙিন হয়ে উঠতে শুরু করেছে, রাস্তার ধারে শিমুল গাছে প্রকৃতির আদরমাখা স্পর্শ যেন জেগে উঠেছে। শীতের রুক্ষতা কাটিয়ে প্রকৃতি ফিরে পেতে চলছে ফুল, ফল ও সবুজের এক অপরূপ সমারোহ, যা আগমনী বার্তা ছড়াচ্ছে বসন্তের। শিমুলের প্রস্ফুটিত হাসিতে শিমুল বনে যেন লেগেছে লেলিহান লাল রঙ্গের আগুনের ঘনঘটা। নানা প্রজাতির পাখিরা তার মিষ্টি কুহুতানে মাতাল করতে আসা শুরু ঋতুরাজ বসন্ত সবুজ-শ্যামল বাংলায়।

প্রকৃতির নিয়ম অনুযায়ী ঋতু বদলায় তার রূপ, রং আর সৌন্দর্য নিয়ে। আগের প্রকৃতি আর বর্তমান প্রকৃতির মধ্যে অনেক পার্থক্য। প্রকৃতি নিয়ে বয়োজ্যেষ্ঠদের মুখ থেকে শোনা যায় এক ঋতুর আবহাওয়া আরেক ঋতুর ১০ দিন আগেই বিস্তার লাভ করে। তাই তো মাঘ মাস শেষ হতে না হতেই প্রকৃতিতে বইতে শরু করেছে ফাল্গুনের হাওয়া। সেই হাওয়ায় শিমুল গাছে ফুটতে শুরু করেছে ফুল। বসন্তের বার্তা নিয়ে শিমুল গাছের কলি খাওয়ায় মেতে উঠেছে পাখির দল। সেই সাথে আম, লিচু, জাম ও বেল গাছে মুকুলে ভরে উঠছে।

বৈশ্বিক জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবে ষড়ঋতুর বাংলাদেশে ঋতুর চারিত্রিক পরিবর্তন হচ্ছে। আর এর প্রভাব পড়ছে পরিবেশ ও প্রকৃতিতে। বসন্ত ঋতু আসার আগে শিমুল ফুল ফোঁটার পেছনেও আবহাওয়ার পরিবর্তণের প্রভাব পড়েছে। ফুল দেখলে সবার মন অব্যক্ত এক ভালোলাগায় ভরে যায়। আর শিমুল ফুল তো আবেদনময়ী এক ফুল।

নিউজ ট্যাগ: ঋতুরাজ বসন্ত

আরও খবর



জয়পুরহাটে মোটরসাইকেল থেকে পড়ে নারীর মৃত্যু

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
সুজন কুমার মন্ডল, জয়পুরহাট

Image

জয়পুরহাটের ক্ষেতলালে মোটরসাইকেল থেকে পড়ে রেশমা খাতুন নামে এক নারীর মৃত্যু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২২ ফেব্রুয়ারি) সকালে জেলার ক্ষেতলাল উপজেলার পাকারমাথা-বগুড়া সড়কে এই দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত রেশমা খাতুন জয়পুরহাট শহরের দেওয়ানপাড়া মহল্লার মৃত মিরাজ হোসেনের স্ত্রী। তিনি ক্ষেতলাল ভূমি অফিসের অফিস সহায়ক হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

ক্ষেতলাল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ার হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

আনোয়ার হোসেন জানান, জয়পুরহাট শহর থেকে রেশমা খাতুন কালাই উপজেলা ভূমি অফিসের প্রধান সহকারী কোরবান আলীর মোটর সাইকেলে করে ক্ষেতলাল অফিসে যাবার পথে বটতলী হাটখোলায় অটোরিকশার সাথে ধাক্কা লাগে। এতে রেশমা খাতুন পড়ে গিয়ে গুরুতর আহত হন। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে জয়পুরহাট আধুনিক জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করার পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

নিউজ ট্যাগ: জয়পুরহাট

আরও খবর



জানুয়ারিতে বিশ্বে খাদ্যমূল্য কমেছে : ফাও

প্রকাশিত:শনিবার ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থার (ফাও) খাদ্যমূল্য সূচক জানুয়ারিতে কমেছে। ২০২৩ সালের অব্যাহত প্রবণতা মেনেই এ বছরও মূল্যসূচক কমেছে। শুক্রবার সংস্থাটি এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানিয়েছে। ফাও আরও বলেছে, গম ও ভুট্টার দাম কমায় খাদ্যমূল্য কমেছে।

ফাওয়ের খাদ্য মূল্যসূচক বিশ্ব বাজারে বিভিন্ন খাদ্য পণ্যের দামের মাসিক পরিবর্তন পরিমাপ করে। সে অনুযায়ী জানুয়ারিতে খাদ্যমূল্য সূচক দাঁড়িয়েছে ১১৮ পয়েন্ট, যা ডিসেম্বরের তুলনায় ১ শতাংশ এবং ২০২৩ সালের তুলনায় ১০ দশমিক ৪ শতাংশ কম।

সরবরাহকারী দেশগুলোর মধ্যে তীব্র প্রতিযোগিতার কারণে বিশ্বে গমের রপ্তানি মূল্য কমায় ফাওয়ের সিরিয়াল মূল্যসূচক আগের মাসের তুলনায় ২ দশমিক ২ শতাংশ কমেছে। এছাড়া ভুট্টার দামও কমেছে।

এদিকে গত সাত মাস ধরে মাংসের মূল্যসূচকও অব্যাহতভাবে কমছে। গত ডিসেম্বরের তুলনায় এ হার ১ দশমিক ৪ শতাংশ কমেছে। মাংসের প্রধান রপ্তানিকারক দেশগুলো থেকে আন্তর্জাতিক বাজারে পর্যাপ্ত সরবরাহ থাকায় হাঁস, গরুর মাংসের দাম কমেছে।

তবে একই সময়ে চিনির মূল্য বেড়েছে বলে বিবৃতিতে জানানো হয়েছে। আগের মাসের তুলনায় জানুয়ারিতে চিনির মূল্যসূচক ০ দশমিক ৮ শতাংশ বেড়েছে। মূলত চিনি উৎপাদন ও রপ্তানিকারক অন্যতম দেশ ব্রাজিলে তুলনামূলক কম বৃষ্টিপাত হওয়ায় গত বছরের এপ্রিল মাস থেকে আখ চাষের ওপর বিরূপ প্রভাব পড়েছে। এছাড়া থাইল্যান্ড এবং ভারতেও প্রতিকূল পরিবেশের কারণে এ শস্যের দাম বেড়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এছাড়া সবজি, তেলের মূল্যসূচক ডিসেম্বরের তুলনায় শূন্য দশমিক ১ শতাংশ বেড়েছে। তবে আগের বছরের তুলনায় এ মূল্য ১২ দশমিক ৮ শতাংশ কম। পাম তেলের দাম বাড়ার কারণ হিসাবে দেখা হচ্ছে- প্রধান উৎপাদনকারী দেশগুলোতে মৌসুমে কম উৎপাদন এবং মালয়েশিয়ার প্রতিকূল আবহাওয়াকে। এছাড়া আমদানি চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় সূর্যমুখী বীজ তেলের দাম কিছুটা বেড়েছে।


আরও খবর



পাকিস্তান জাতীয় পরিষদের নতুন স্পিকার হলেন আয়াজ সাদিক

প্রকাশিত:শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

পাকিস্তানে পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ জাতীয় পরিষদের স্পিকার নির্বাচিত হয়েছেন পাকিস্তান মুসলিম লিগ-নওয়াজের (পিএমএলএন) নেতা সরদার আয়াজ সাদিক।

শুক্রবার (০১ মার্চ) দেশটির পার্লামেন্টের জাতীয় পরিষদের স্পিকার নির্বাচিত হয়েছেন। স্পিকার নির্বাচিত হওয়ার পর আজই তিনি শপথ নিয়েছেন। তাকে শপথবাক্য পাঠ করান বিদায়ী স্পিকার রাজা পারভেজ আশরাফ।

নির্বাচনের ২১ দিন পর গতকাল বৃহস্পতিবার প্রথমবার পাকিস্তান জাতীয় পরিষদের নতুন অধিবেশন বসে। এদিন শপথ নেন দেশটির নবনির্বাচিত আইনপ্রণেতারা (এমএনএ)।

আজ দ্বিতীয় দিনের অধিবেশনে স্পিকার হিসেবে শপথ নেয়া সরদার আয়াজ সাদিক ১৯৯ ভোট পেয়ে এ পদে নির্বাচিত হয়েছে। তার প্রতিদন্দ্বী পিটিআইসমর্থিত মালিক আমির দোগার পেয়েছেন ৯১ ভোট। স্পিকার নির্বাচনে ২৯১ জন এমএনএ ভোট দেন। এর মধ্যে একটি ভোট বাতিল ঘোষিত হয়।

আয়াজ সাদিক এর আগেও দুই দফায় পাকিস্তানের জাতীয় পরিষদের স্পিকার ছিলেন। এবার তিনি তৃতীয়বার এ পদে নির্বাচিত হয়েছে।


আরও খবর



ইউএনওর নির্দেশে সরকারি ব্যারাকের ঘর ভেঙে নিলেন মেম্বার!

প্রকাশিত:বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি

Image

লক্ষ্মীপুরে যথাযথ প্রক্রিয়া অবলম্বন না করেই অসদুপায়ে সরকারি ব্যারাকের ৩০টি পুরনো ঘরের টিনসহ বিভিন্ন মালামাল খুলে নেওয়ার ঘটনা ঘটেছে। সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আরিফুর রহমানের নির্দেশে পুরনো ঘরগুলো ভাঙা হয়েছে বলে জানিয়েছেন ইউপি সদস্য কামরুল সরকার। আর ইউপি সদস্য নিজেই কাজটি করিয়েছেন। তবে সরকারি পুরনো মালামাল বিক্রিতে নিলামের নির্দেশনা থাকলেও তা করা হয়নি।

সরেজমিনে সদর উপজেলার চররমনী মোহন ইউনিয়নের করাতিরহাট এলাকায় গেলে ব্যারাকগুলো ভাঙার দৃশ্য নজরে পড়ে। আর পুরনো মালামালগুলো বাজারের ওপর ইউপি সদস্য কামরুলের ব্যক্তিগত কার্যালয়ের পাশেই রাখে শ্রমিকরা। কামরুল একই ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য (মেম্বার)।

ব্যারাকে পাশে থাকা ফলকে দেখা যায়, আশ্রয়ণ প্রকল্প-১ এর আওতায় লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার চররমনী মোহন ইউনিয়নের করাতির হাট বাজারে ২০০৬ সালে নৌ-বাহিনী কর্তৃক ৩০টি টিনসেট ঘর তৈরী করা হয়।

সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, দীর্ঘদিন ধরে জরাজীর্ণ হয়ে থাকা ঘরগুলো পুনঃসংস্কারের জন্য অসহায় পরিবারগুলো প্রশাসনের কাছে দাবি জানায়। উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সেখানে নতুন ঘর নির্মাণের আশ্বাস দেওয়া হয়। সেই সূত্রে মন্ত্রণালয়ে বরাদ্দ চেয়ে চিঠি পাঠানো হয়। মন্ত্রণালয় থেকে আশ্রয়ণ প্রকল্প-২ এর অধীনে ৩০টি ঘর বরাদ্দ দেওয়া হয়। প্রতিটি ঘরের জন ৩ লাখ ৪ হাজার টাকা করে বরাদ্দ রয়েছে। এজন্যই পুরনো জীর্ণশীর্ণ ঘরগুলো ভাঙা হয়েছে। অতিদ্রুত সেখানে নতুন ঘর নির্মাণ করা হবে। এর জন্য ইট এনে রাখা হয়েছে ব্যারাকের সামনে।

আশ্রয় কেন্দ্রেটির সভাপতি মোহাম্মদ বেপারী বলেন, ৩০টি পরিবারে দেড়শতাধিক মানুষ ঘরগুলোতে বসবাস করে আসছি। দীর্ঘ কয়েক বছর ধরে ঘরগুলো জরাজীর্ণ হয়ে রয়েছে। বর্ষায় পানি ঢুকে। কয়েবার আমরা নিজ উদ্যোগেই সংস্কার করেছি। পরে প্রশাসনের কাছে সংস্কারের দাবি জানাই। ইউএনও স্যার নতুন করে ঘর নির্মাণের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। এজন্যই ঘরগুলো ভেঙে নেওয়া হয়েছে। আমাদের কোথাও যাওয়ার জায়গা নেই। এজন্য পাশেই একটি পরিত্যক্ত স্কুলের বারান্দায় আশ্রয় নিয়েছি।

ঘর অপসারণে নিয়োজিত শ্রমিক আরিফ হোসেন ও আল-আমিন সরকার জানায়, তারা চুক্তিতে ঘরগুলো ভাঙছে। এতে মেম্বার কামরুল তাদেরকে ৯০ হাজার টাকা দেবেন। পুরনো মালামালগুলো মেম্বারের কার্যালয়ের পাশে রাখা হয়েছে।

ইউপি সদস্য কামরুল ইসলাম সরকার বলেন, ইউএনও আমাকে ঘরগুলো সরিয়ে নিতে বলেছে। এ জন্য পুরনো ঘরগুলো ভাঙা হয়েছে। ঘরগুলো অপসারণে শ্রমিকদের সঙ্গে দেড় লাখ টাকা চুক্তি হয়েছে। পুরনো এসব মালামাল বিক্রি করে এতো টাকা পাওয়া যাবে না। ক্ষতির সম্মুখিন হতে হবে আমাকে।

নাম প্রকাশ্যে অনিচ্ছুক সরকারি এক কর্মকর্তা জানান, ব্যারাকের ঘরগুলো সরকারি। আইন অনুযায়ী ঘরগুলো ভাঙতে নিলামের জন্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা থাকতে হবে। অথবা জেলা-উপজেলা প্রশাসন কর্তৃক রেজুলেশন করে নিলামের ব্যবস্থা করতে হবে। নিলাম ছাড়া সরকারি ঘর ভাঙার সুযোগ নেই।

বক্তব্য জানতে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আরিফুর রহমানের মোবাইল ফোনে একাধিকবার কল করেও কথা বলা সম্ভব হয়নি। এর আগে দুপুরে তার কার্যালয়ে গেলেও তিনি ব্যস্ততা দেখিয়ে কথা বলেননি।

এ ব্যাপারে লক্ষ্মীপুর জেলা প্রশাসক সুরাইয়া জাহান বলেন, ব্যারাকটিতে যিনি যেই ঘরে ছিলেন ওই ঘরটি তিনিই ভেঙে নেবেন। এমনটিই আমাকে ইউএনও আরিফুর রহমান আমাকে জানিয়েছেন। ইউএনওর নির্দেশ ইউপি সদস্য ঘরগুলো ভেঙে নিচ্ছে কি না তা আমার জানা নেই। বিষয়টি নিয়ে ইউএনওর সঙ্গে কথা বলবো।


আরও খবর



ন্যাটোপ্রধান ও ইইউ কাউন্সিলের প্রেসিডেন্টের ট্রাম্পের হুমকির নিন্দা

প্রকাশিত:রবিবার ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

ন্যাটোপ্রধান জেনস স্টলটেনবার্গ রবিবার (১১ ফেব্রুয়ারি) নিরাপত্তাকে দুর্বল করে’—এমন আলোচনার বিরুদ্ধে সতর্ক করেছেন। ন্যাটোর যেসব সদস্য নির্ধারিত চাঁদা পরিশোধ করেনি, তাদের আক্রমণে রাশিয়াকে উৎসাহিত করার বিষয়ে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প হুমকি দেওয়ার পর এ সতর্কবার্তা এলো।

স্টলটেনবার্গ এক বিবৃতিতে বলেছেন, মিত্ররা একে অপরকে রক্ষা করবে নাএমন কোনো পরামর্শ যুক্তরাষ্ট্রসহ আমাদের সবার নিরাপত্তাকে ক্ষুণ্ণ করে।

ট্রাম্প শনিবার (১০ ফেব্রুয়ারি) হুমকি দিয়েছিলেন, যদি তিনি যুক্তরাষ্ট্রে পুনরায় নির্বাচিত হন, তিনি ন্যাটোর সেসব সদস্যকে রক্ষা করবেন না, যারা তাদের আর্থিক বাধ্যবাধকতা পূরণ করেনি।

এ সময় তিনি তাদের আক্রমণ করতে রাশিয়াকে উৎসাহিত করবেন বলেও হুমকি দেন।

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প নিয়মিতভাবে উত্তর আটলান্টিক ট্রিটি অর্গানাইজেশনের (ন্যাটো) মিত্রদের সমালোচনা করেছেন, জোটকে কম অর্থায়নের জন্য।

ইউরোপীয় কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট চার্লস মিশেলও ট্রাম্পের মন্তব্যকে বেপরোয়া বলে নিন্দা করেছেন। তিনি এক্সে বলেছেন, ট্রান্সঅ্যাটলান্টিক অ্যালায়েন্স ৭৫ বছর ধরে মার্কিন, কানাডীয় এবং ইউরোপীয়দের নিরাপত্তা ও সমৃদ্ধির ভিত্তি ধরে রেখেছে।

ন্যাটোর চুক্তি অনুসারে, যদি জোটের একটি দেশ সশস্ত্র আক্রমণের শিকার হয়, তবে জোটের প্রতিটি সদস্যকে অবশ্যই পুরো গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে আক্রমণ হিসেবে বিবেচনা করতে হবে। পাশাপাশি হুমকিতে থাকা দেশটিকে সহায়তা প্রদানের ব্যবস্থা নিতে হবে।

এদিকে ট্রাম্পের মন্তব্যের তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে হোয়াইট হাউস। হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র অ্যান্ড্রু বেটস শনিবার রাতে বলেছেন, হত্যাকারী শাসনের মাধ্যমে আমাদের ঘনিষ্ঠ মিত্রদের আক্রমণে উৎসাহিত করা ভয়ংকর এবং অবিচ্ছিন্ন।


আরও খবর