আজঃ শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪
শিরোনাম

রাফাহ শরণার্থী শিবিরে ইসরাইলি হামলা, নিহত ৩৭

প্রকাশিত:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

ফিলিস্তিনের অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকার দক্ষিণাঞ্চলীয় রাফাহ শহরে ইসরায়েলি হামলায় ৩৭ জন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও কয়েক ডজন মানুষ। সোমবার (১২) জানুয়ারি স্থানীয় স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা এই তথ্য জানিয়েছেন। ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স এই খবর জানিয়েছে।

হামলার ঘটনাটি এমন সময় ঘটলো যখন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ইসরায়েলি কর্তৃপক্ষকে বেসামরিক নাগরিকদের সুরক্ষায় একটি বিশ্বাসযোগ্য পরিকল্পনা ছাড়া রাফাহ আক্রমণ করতে নিষেধ করেছিলেন।

একটি চ্যাট অ্যাপ ব্যবহার করে রাফাহ শহরের বাসিন্দাদের সঙ্গে যোগাযোগ করেছে রয়টার্স। তারা বার্তা সংস্থাটিকে জানিয়েছেন, হামলা যখন শুরু হয় তখন অনেক মানুষ ঘুমিয়ে ছিলেন। ফলে শহরটিতে ব্যাপক আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। তাদের মধ্যে কিছু মানুষের আশঙ্কা ছিল ইসরায়েল রাফাতে স্থল হামলা শুরু করেছে।

ইসরায়েলি বিমান, ট্যাংক এবং জাহাজ ব্যবহার করে এই হামলাটি চালানো হয়েছে। বাসিন্দারা জানিয়েছেন, দুটি মসজিদ এবং বেশ কয়েকটি বাড়িতে বোমা হামলা হয়েছে।

সোমবার দক্ষিণ গাজায় একটি সিরিজ হামলা পরিচালনা করার কথা জানিয়েছে ইসরায়েলি সামরিক বাহিনী। যেটি এখন সমাপ্ত হয়েছে। তবে এ ব্যাপারে আরও বিস্তারিত কিছু জানায়নি তারা।

গাজা শহরগুলোতে পূর্ববর্তী হামলার আগে, বেসামরিক নাগরিকদের উচ্ছেদে কোনও সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা না করেই তাদের সরে যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছিল ইসরায়েলের সামরিক বাহিনী।

নেতানিয়াহুর কার্যালয় জানিয়েছে, সেনাবাহিনীকে তারা রাফাহ খালি করার এবং সেখানে মোতায়েন করা চারটি হামাস ব্যাটালিয়ন ধ্বংস করার পরিকল্পনা তৈরির নির্দেশ দিয়েছে।

ইসরায়েলি কর্তৃপক্ষের মতে, ফিলিস্তিনের সশস্ত্রে গোষ্ঠী হামাসের যোদ্ধারা ৭ অক্টোবর দক্ষিণ ইসরায়েলে এক হাজার ২০০ ইসরায়েলিকে হত্যা করেছে। এসময় কমপক্ষে ২৫০ জনকে জিম্মি করে নিয়ে যায় সশস্ত্র যোদ্ধারা।

হামাস পরিচালিত স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মতে, গাজা উপত্যকায় ইসরায়েলি হামলায় এখন পর্যন্ত ২৮ হাজারেরও বেশি  ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে।


আরও খবর



প্রথম ইনিংসে সাড়ে ৪’শ ছোঁয়া রান ভারতের

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
ক্রীড়া প্রতিবেদক

Image

রাজকোট টেস্টে সেঞ্চুরি করেছেন রোহিত শর্মা ও রবীন্দ্র জাদেজা। দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে আলো কেড়েছেন অভিষিক্ত সরফরাজ খান। ভালো ব্যাটিং করেছেন আরেক অভিষিক্ত উইকেটরক্ষক ব্যাটার ধ্রুব জুরেল। তাদের ব্যাটে ভর করে প্রথম ইনিংসে ৪৪৫ রান তুলেছে ভারত।

টসে জিতে ব্যাট করতে নেমে স্বাগতিকরা ৩৩ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে যায়। চতুর্থ উইকেটে রবীন্দ্র জাদেজার সঙ্গে ২০৪ রানের জুটি গড়ে ওই বিপদ সামলান অধিনায়ক রোহিত শর্মা। স্লিপে শুরুতে জীবন পাওয়া রোহিত ১৩১ রানের দারুণ ইনিংস খেলে ফেরেন।

এরপর উইকেটে এসে সরফরাজ সাবলীল খেলতে শুরু করেন। সময়ের সঙ্গে ক্ষুরধার ব্যাটিংয়ে ২৫ বছরের তরুণ ব্যাটার হার্টলি, রেহান, রুটদের স্পিনে সুযোগ পেলেই চড়াও হন। ৪৮ বলে হাফ সেঞ্চুরি করা সরফরাজের ইনিংসের ইতি পড়ে জাদেজার ভুলে ৬২ রানে রান আউটে।

তখন ৯৯ রানে ক্রিজে রবীন্দ্র জাদেজা। শেষ পর্যন্ত তিনি ১১২ রান করে দ্বিতীয় দিন আউট হন। পরে ধ্রুব জুরেল ১০৪ বলে ৪৬ এবং অশ্বিন ৮৯ বলে ৩৭ রান করেন। জাসপ্রিত বুমরাহর ব্যাট থেকে আসে ২৬ রান। ইংল্যান্ডের হয়ে মার্ক উড ৪ উইকেট নিয়েছেন। ২ উইকেট পেয়েছেন রেহান আহমেদ।


আরও খবর



চাকরি পরীক্ষার্থীর কান থেকে ডিভাইস বের করলেন চিকিৎসক

প্রকাশিত:শনিবার ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
যশোর প্রতিনিধি

Image

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক পদের প্রার্থী জাহিদ হাসান জালিয়াতি করার জন্য কানের মধ্যে একটি ডিভাইস রেখেছিলেন। আরেকটি ছিল তার পকেটে। বাইরে থাকা চক্র কথা দিয়েছিল ডিভাইসের মাধ্যমে প্রশ্নের উত্তর জানিয়ে দেবেন তাকে। তবে উত্তর আসতে বিলম্ব হওয়ায় তিনি অপেক্ষা করছিল।

এরইমধ্যে ডিভাইসটিতে সমস্যা ভেবে চাপাচাপি করলে কানের ভেতরে ঢুকে যায়। তাৎক্ষণিকভাবে পরীক্ষা থেকে বহিষ্কার করে পুলিশে সোপর্দ করা হয় জাহিদকে। পরে পুলিশ তাকে যশোর জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা সেটি কানের ভেতর থেকে সেটি বের করেন। আটকের পর তিনি নিজেই এ বিষয়ে স্বীকারোক্তি দিয়েছেন বলে জানা গেছে।

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক পদের নিয়োগ পরীক্ষায় শুক্রবার (২ ফেব্রুয়ারি) যশোর সরকারি এমএম কলেজ কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে। জাহিদ সদর উপজেলার নওদাগ্রামের বাসিন্দা বলে জানা গেছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, এম এম কলেজের নতুন বিজ্ঞান ভবনের ১০৫ নম্বর কক্ষে পরীক্ষায় বসেছিলেন জাহিদ। তবে উত্তরপত্র পেয়েও বসে ছিলেন, কিছু লিখছিলেন না। এতে সন্দেহ হয় দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের। এরমধ্যে একটি শব্দ হওয়ায় তার জালিয়াতির বিষয়টি নজরে আসে।

এম এম কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক মরজিনা আক্তার বলেন, কেন্দ্রের দায়িত্বরতদের হাতে ধরা পড়লে তাৎক্ষণিকভাবে পরীক্ষার্থীকে বহিষ্কার করে পুলিশে দেওয়া হয়েছে।

কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি আব্দুর রাজ্জাক বলেন, আটক পরীক্ষার্থীকে হাসপাতালে নিয়ে কানের ভেতর থেকে ডিভাইস বের করা হয়েছে। বিষয়টি তদন্ত করা হচ্ছে। এর সঙ্গে কোনো চক্র জড়িত কিনা, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোফাজ্জেল হোসেন খান বলেন, তাৎক্ষণিক পরীক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়েছে। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছেন। নেপথ্যে অন্য কোনও ঘটনা রয়েছে কিনা, তা খতিয়ে দেখছেন তারা।


আরও খবর



জয়পুরহাটে হত্যা মামলায় একজনের যাবজ্জীবন

প্রকাশিত:বুধবার ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
সুজন কুমার মন্ডল, জয়পুরহাট

Image

জয়পুরহাটে হত্যা মামলায় সুমন মিয়া নামে একজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে তাকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। বুধবার দুপুরে অতিরিক্ত দায়রা জজ-২ আদালতের বিচারক আব্বাস উদ্দীন এ রায় দেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত সুমন মিয়া জয়পুরহাট সদর উপজেলার পলিকাদোয়া গ্রামের সুজাউলের মেয়ের জামাই। তার বাবার নাম নুরুন্নবী।

মামলার বিবরণে জানা গেছে, দণ্ডপ্রাপ্ত সুমন মিয়া পলিকাদোয়া গ্রামে ঘর জামাই থাকতেন। এ ব্যাপারে একই গ্রামের মৃত মহিম উদ্দিনের ছেলে আমির হোসেন আসামী সুমনকে তাচ্ছিল্য করেন। এ নিয়ে তাদের মধ্যে মনোমালিন্য সৃষ্টি হয়। ২০০৮ সালের ২৮ আগস্ট বিষয়টি নিয়ে আমির আসামী সুমনের শশুর বাড়িতে যান। সেখানে আসামীর সাথে তার তর্ক-বিতর্ক হয়। এরই এক পর্যায়ে সুমন ভিটটিমের ঘাড়ের কাছে একটি ঘুষি মারেন। সে সময় স্থানীয়রা এগিয়ে এসে তাদের গন্ডগোল থামিয়ে আমিরকে কিছু দূর নিয়ে যাবার পর সে পড়ে যায় এবং সেখানেই মারা যান।

এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী জোসনা বেগম বাদী হয়ে জয়পুরহাট সদর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। এ মামলার দীর্ঘ শুনানি শেষে বিজ্ঞ আদালত এ রায় দেন।


আরও খবর



জেল থেকে জ্যাকলিনকে হুমকি দিচ্ছেন তার প্রেমিক

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
বিনোদন ডেস্ক

Image

নিজের নিরাপত্তা নিয়ে দুশ্চিন্তায় আছেন অভিনেত্রী জ্যাকলিন ফার্নান্দেজ। প্রেমিক সুকেশ চন্দ্রশেখরই নাকি এর জন্য দায়ী।

গেলো দুবছর ধরে আর্থিক তছরুপের কেসে জেলবন্দি জ্যাকলিন ফার্নান্দেজের প্রেমিক সুকেশ চন্দ্রশেখর। এ মুহূর্তে দিল্লির ম্যান্ডোলি জেলে বন্দি রয়েছেন তিনি। জেলে বসেই নাকি প্রতিনিয়ত হুমকি দিচ্ছেন জ্যাকলিনকে। আর তাতেই ভয় রয়েছেন জ্যাকলিন।

এবার সুকেশের বিরুদ্ধে দিল্লি পুলিশ কমিশনর সঞ্জয় অরোরার কাছে লিখিত অভিযোগ জমা দিলেন তিনি। তার অভিযোগের ভিত্তিকে দিল্লি পুলিশের একটি বিশেষ দল প্রাথমিক তদন্ত শুরুও করেছেন।

শোনা যায়, এক সময় নাকি কনম্যান সুকেশের প্রেমে পড়েছিলেন কিক খ্যাত অভিনেত্রী। সম্পর্কে থাকাকালীন সুকেশের কাছ থেকে একাধিক দামি উপহারও পেয়েছেন তিনি। সুকেশের সঙ্গে নাম জড়ানোর জেরে একাধিক বার বিতর্কের মুখে পড়েছেন জ্যাকলিন। প্রতারণাকাণ্ডের তদন্ত চলাকালীন একাধিক বার আদালতে হাজিরা দিতে হয়েছে অভিনেত্রীকে।

শুধু তাই-ই নয়, অভিনেত্রীর বিদেশযাত্রাতেও জারি করা হয়েছিল নিষেধাজ্ঞা। সেই নিষেধাজ্ঞা তোলা হয় গেলো বছর। সম্পর্কের কথা জ্যাকলিন যতই অস্বীকার করুন না কেন সুকেশে ছাড়ার পাত্র নয়। তিনি জেলে বসেই ক্রমাগত প্রেমপত্র লিখে গিয়েছেন অভিনেত্রীকে। তাতেই বিব্রত হয়েছেন জ্যাকলিন। সুকেশের প্রেমপত্র কখনও রয়েছে ভালবাসার কথা, কখনও ছিল প্রচ্ছন্ন হুমকি। অবশেষে দিল্লি পুলিশের দ্বারস্থ হয়ে অভিনেত্রী জানান, দ্রুত সুকেশের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে, এবং তার নিরাপত্তার দিকটা সুনিশ্চিত করতে।


আরও খবর
টেইলর সুইফট ইফেক্টে আক্রান্ত সিঙ্গাপুর

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




মিরাজ-মালিকের ব্যাটে রোমাঞ্চকর জয় বরিশালের

প্রকাশিত:শনিবার ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
ক্রীড়া প্রতিবেদক

Image

কঠিন সমীকরণ, শেষ দুই ওভারে দরকার ৩৭ রান। ১৯তম ওভারের শেষ বল পর্যন্ত একপ্রকার অনিশ্চিতই ছিল ফরচুন বরিশালের জয়। ওই বলে ছক্কা হাঁকিয়ে সমীকরণ কিছুটা সহজ করেন শোয়েব মালিক। শেষ ছয় বলে বরিশালের দরকার ছিল ১৮ রান। প্রথম বলে ছক্কা মেরে পরের বলে সিঙ্গেল নিলে স্ট্রাইকে যান শোয়েব মালিক। তৃতীয় বলে চার ও চতুর্থ বলে মারলেন ছক্কা। এতেই দুই বল বাকি থাকতে খুলনা টাইগার্সকে ৫ উইকেটে হারিয় ফরচুন বরিশাল। আগে ব্যাট করে ৮ উইকেট হারিয়ে ১৫৫ রান করে খুলনা। ম্যাচ হারলেও ৫ ম্যাচ খেলে ৪ জয় ও এক হারে শীর্ষে এখনো খুলনা। অন্যদিকে ৬ ম্যাচের ৩ জয়ে পাঁচে বরিশাল।

টসে হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতে খুব একটা সুবিধা করতে পারেনি খুলনা। দলটির অধিনায়ক এনামুল হক বিজয় ১৩ বলে ১২ রান করে আউট হতেই শুরু হয় ব্যাটিং ধস। রান আউটে কাটা পড়েন হাবিবুর রহমান সোহান। একপ্রান্ত আগলে রাখা ইমন আউট ২৪ বলে ৩৩ রানের ইনিংস খেলে। পরের বলেই সাজঘরে ফেরেন আফিফ। ব্যক্তিগত ১৩ রানে তাইজুলের বলে ফেরেন মাহমুদুল জয়। এরপর নাহিদুল ইসলামও বিদায় নিলে ৮৮ রানে ৭ উইকেট হারায় খুলনা।

শেষদিকে ফাহিম আশরাফ ও মোহাম্মদ নওয়াজের ঝড়ে ৮ উইকেটে ১৫৫ রানের লড়াকু পুঁজি গড়েছে এনামুল হক বিজয়ের দল। নওয়াজ ২৩ বলে ৪ ছক্কায় খেলেন ৩৮ রানের ইনিংস। ফাহিম ১৩ বলে ৫ চার ও ১ ছক্কায় করেন ৩২ রান। তাইজুল ইসলাম মাত্র ৭ রান দিয়ে শিকার করেন দুই উইকেট। সমান উইকেট নেন ২৪ রান দেওয়া শোয়েব মালিকও।

জবাবে মাঠে নেমে শুরুতেই হোঁচট খায় বরিশাল। দলীয় ৭ রানের মাথায় আহমেদ শেহজাদের উইকেট হারায় দলটি। তিন বল খেলেও রানের খাতা খুলতে পারেননি এই ডানহাতি ব্যাটার। তৃতীয় উইকেটে সৌম্য সরকারকে সঙ্গে নিয়ে রান তুলতে থাকেন তামিম ইকবাল। এই জুটিতে যোগ হয় ২৭ রান। দলীয় ৩৪ রানের মাথায় তামিমের বিদায়ে ভাঙে এই জুটি। ১৮ বলে ২০ রান করে ফেরেন বাঁহাতি এই ব্যাটার। এরপর ২৩ বলে ২৬ রান করে আশরাফের দ্বিতীয় শিকার হন সৌম্য। তার বিদায়ের পর মুশফিক-মাহমুদউল্লাহ বেশিক্ষণ টিকতে পারেনি। মুশফিক ২৭ ও মাহমুদউল্লাহ চার রান করে বিদায় নেন। শেষদিকে, মিরাজ ও শোয়েব মালিক জুটিতে জয়ের সম্ভাবনা জাগিয়ে তোলে বরিশাল। শেষমেশ তাদের হাত ধরেই জয় নিশ্চিত হয় বরিশালের।


আরও খবর