আজঃ বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২
শিরোনাম

রাজধানীতে ওমিক্রনের তিন রূপ

প্রকাশিত:সোমবার ২৪ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৪ জানুয়ারী ২০২২ | ৯৯৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সামাজিক সংক্রমণের মাধ্যমে দেশজুড়ে বিস্তার ঘটছে করোনার নতুন ধরন ওমিক্রনের। শিগগিরই যা ডেলটাকেও ছাড়িয়ে যেতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। বিশেষ করে রাজধানী ঢাকায় ওমিক্রনের প্রভাব যেন বেড়েই চলেছে। এরই মধ্যে বিভাগীয় এই নগরীতে ওমিক্রনের ৩টি পরিবর্তিত রূপের (উপধরন) অস্তিত্ব মিলেছে।

আন্তর্জাতিক উদরাময় গবেষণা কেন্দ্র, বাংলাদেশের (আইসিডিডিআরবি) এক গবেষণায় এমন তথ্য উঠে এসেছে। আজ সোমবার প্রতিষ্ঠানটির ওয়েবসাইটে এক প্রতিবেদনে এ তথ্য তুলে ধরা হয়েছে।

আইসিডিডিআরবি বলছে, ওমিক্রন ধরনের জিনোম সিকোয়েন্স বিশ্লেষণ থেকে জানা যায়, ঢাকা শহরে তিনটি সাব টাইপ (উপধরন) রয়েছে। এগুলো আফ্রিকান, ইউরো-আমেরিকান এবং এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলের ওমিক্রন ধরনের সঙ্গে মিলে যায়।

এতে আরও বলা হয়, জানুয়ারির প্রথম দুই সপ্তাহে তাঁদের ল্যাবরেটরিতে ১ হাজার ৩৭৬টি নমুনা পরীক্ষা করে ২৮ শতাংশের করোনা শনাক্ত হয়। যেখানে আক্রান্তদের মধ্যে ওমিক্রনের অস্তিত্ব পাওয়া যায় ৬৯ শতাংশের দেহে।

গবেষণা প্রতিষ্ঠানটি জানায়, গত ৬ ডিসেম্বর দেশে প্রথম ওমিক্রন শনাক্ত হয়। যদিও সরকারের পক্ষ থেকে ঘোষণা আসে ১১ ডিসেম্বর। আফ্রিকার দেশ জিম্বাবুয়ে ফেরত দুই নারী ক্রিকেটারের শরীরে প্রথম ওমিক্রন পাওয়া যায়। পরে ওই মাসেই আইসিডিডিআরবির পরীক্ষাগারে ঢাকা শহরের ৭৭ জন কোভিড রোগীর মধ্যে পাঁচটিতে ওমিক্রন শনাক্ত করা হয়েছিল। বাকিগুলো ছিল ডেলটার।

ওমিক্রনে আক্রান্ত ২৯ জনের সাক্ষাৎকার নেওয়ার কথাও উল্লেখ করা হয়েছে আইসিডিডিআরবি প্রতিবেদনে। এর মধ্যে পুরুষ ১৩ জন ও মহিলা ১৬ জন। ২৭ জনের কোনো উপসর্গও ছিল না।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, ২৪ জন টিকার দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন। আর প্রথম ডোজ পেয়েছেন ৩ জন। ২৯ জনের মধ্যে মাত্র একজনকে একদিনের জন্য হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। করোনার এই ধরনে আক্রান্ত একজন সৌদি আরব থেকে ফেরা। বাকিরা দেশেই ছিলেন।


আরও খবর



মৃত্যু হবে ‘রহস্যময় পরিস্থিতিতে’, মাস্কের নয়া টুইট নিয়ে জোর চর্চা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১০ মে ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১০ মে ২০২২ | ৩৭০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মাত্র দুই সপ্তাহ আগেই ৪ হাজার ৪০০ কোটি ডলার দিয়ে সোশ্যাল মিডিয়া জায়ান্ট টুইটার কিনেছেন ইলেকট্রিক গাড়ি নির্মাতা ও প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান টেসলার প্রধান নির্বাহী ইলন মাস্ক। এরপর থেকেই বিশ্বজুড়ে আলোচনায় রয়েছেন তিনি। সোমবার (৯ মে) মার্কিন এই ধনকুবেরের একটি টুইট ঘিরে জল্পনা শুরু হয়েছে বিশ্বজুড়ে। এরপরই প্রশ্ন উঠেছে, প্রাণহানির আশঙ্কায় ভুগছেন টেসলা কর্তা? নাকি কেউ তাকে হত্যার হুমকি দিয়েছে? সোমবার ইলন মাস্কের একটি টুইট ঘিরেই শুরু হয়েছে যাবতীয় জল্পনা।

সদ্য টুইটার কিনে নেওয়ার পরই ইলন মাস্ক বিভিন্ন বিষয়ে একের পর এক টুইট করেই চলেছেন। তবে তিনি সোমবার যে টুইট করেছেন, তা বাকি সকল টুইটের থেকে আলাদা। সর্বশেষ এই টুইটে ইলন মাস্ক যা বলেছেন তার অর্থ হলো, যদি তার (মাস্কের) রহস্যজনক কোনো পরিস্থিতিতে মৃত্যু হয়, তবে তিনি আগে থেকেই জানাতে চান যে সকলের সঙ্গে পরিচিত হতে পেরে তিনি খুশি।

গত মাসের শেষের দিকে ৪ হাজার ৪০০ কোটি মার্কিন ডলারের বিনিময়ে টুইটার কিনে নিয়েছেন ইলন মাস্ক। এর দুই সপ্তাহের মাথায় তিনি বলছেন, যদি আমার রহস্যজনক কোনো পরিস্থিতিতে মৃত্যু হয়, তবে জানবেন আপনাদের সঙ্গে আলাপ হয়ে ভালো লাগলো।

তবে এই টুইটের নেপথ্যে বিশেষ কারণ লুকিয়ে রয়েছে। এই টুইট করার কিছুক্ষণ আগেই তিনি আরও একটি টুইট করেছিলেন। সেই টুইটে তিনি ইউক্রেনে সামরিক সাহায্য পাঠানো নিয়ে কথা বলেছেন। রাশিয়ান ভাষায় লেখা একটি বার্তাও তিনি পোস্ট করেন, যেখানে ইউক্রেনকে সাহায্য করার জন্য মাস্ককে একজন প্রাপ্তবয়স্কের মতোই গণ্য করা হবে বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

ওই বার্তায় এ কথাও উল্লেখ করা রয়েছে যে, ইউক্রেনে যে সামরিক অস্ত্র সাহায্য পাঠানো হয়েছে, তা যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা বিভাগের সদর দপ্তর পেন্টাগন থেকে পাঠানো হয়েছে। মার্কিন এই ধনকুবেরের এই দুটি পোস্ট ঘিরেই যাবতীয় রহস্য দানা বেঁধেছে। ইউক্রেনকে সাহায্য করার জন্য রাশিয়ার পক্ষ থেকে ইলন মাস্ককে প্রাণনাশের হুমকি দেওয়া হচ্ছে কি না, তা নিয়েও জল্পনা শুরু হয়েছে।

অবশ্য ঠিক মজা করে নাকি সত্যিই প্রাণহানির আশঙ্কা করছেন ইলন মাস্ক, তা নিয়ে একাধিক তত্ত্ব উঠে আসতে শুরু করেছে। কয়েকজনের দাবি, ইলন মাস্ক মদ্য়প অবস্থায় এই টুইট করেছেন। আবার অন্যদের দাবি, টুইটার কেনার পর প্রচুর করের চাপে পড়েছেন মাস্ক।

উল্লেখ্য, ফেব্রুয়ারি মাসে রাশিয়া ইউক্রেনে সামরিক অভিযান শুরু করার পরই পূর্ব ইউরোপের এই দেশটির এক মন্ত্রী ইলন মাস্কের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। এরপরই মাস্কের স্যাটেলাইট সংস্থা স্পেসএক্সের পক্ষ থেকে স্টারলিংক স্যাটেলাইট ব্রডব্যান্ড পরিষেবা চালু করা হয় ইউক্রেনে।

নিউজ ট্যাগ: ইলন মাস্ক

আরও খবর



তরমুজ নিয়ে বাবার উপর অভিমান, ছেলের আত্মহত্যা

প্রকাশিত:বুধবার ২০ এপ্রিল ২০22 | হালনাগাদ:বুধবার ২০ এপ্রিল ২০22 | ৬১০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মোংলায় বাবার উপর অভিমান করে আত্মহত্যা করেছেন ছেলে। মঙ্গলবার (১৯ এপ্রিল) বিকালে উপজেলার জয়খাঁ গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার পর রাতেই নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহটি বুধবার বাগেরহাট সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হবে।

পুলিশ ও স্থানীয় ইউপি মেম্বার মনমতো বৈরাগী জানান, উপজেলার সোনাইলতলা ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের জয়খাঁ গ্রামের বাসিন্দা পিযুষ বৈরাগীর ছেলে পথিক বৈরাগী বাবার সঙ্গে বন্ধুদের নিয়ে তরমুজের ক্ষেত করেন। বাবার পাশাপাশি বন্ধুদের সঙ্গে নিয়ে সেই ক্ষেতের পরিচর্যা করেন পথিকও। পথিক খুলনার একটি বেসরকারী ইউনিভার্সিটিতে পড়াশুনার সুবাদে খুলনায় চলে যান। পরে বাড়িতে এসে দেখেন তার বাবা সেই তরমুজ ক্ষেত বিক্রি করে দেন।

ক্ষেত বিক্রির আগে পথিক বাবার কাছে বন্ধুদের জন্য তরমুজ রাখতে বলেন। কিন্তু বাবা বন্ধুদের তরমুজ না দিয়ে ক্ষেত বিক্রি করে দেয়ার ঘটনায় মঙ্গলবার (১৯ এপ্রিল) বিকালে বাবার সঙ্গে কথা-কাটাকাটি ও অভিমান করেন পথিক। বন্ধুদের তরমুজ দিতে না পারায় ও বাবার উপর অভিমান করে বিকালে ঘরের আড়ার সঙ্গে গলায় গামছা পেচিয়ে আত্মহত্যা করেন তিনি। পরে খবর পেয়ে পুলিশ রাতেই ঘটনাস্থল থেকে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসেন।

ইউপি মেম্বার বলেন, পাঁচ বন্ধুকে সঙ্গে নিয়ে ক্ষেত পরিচর্যা করে তাদের খাওয়ার জন্য একটি করে তরমুজ দিতে না পারায় বাবার সঙ্গে ঝগড়া ও অভিমান করে আত্মহত্যা করেন।

তিনি আরো বলেন, পথিক খুবই বদরাগী ছিলেন। দুই ভাই ও এক বোনের মধ্যে পথিক সবার ছোট।

এ ব্যাপারে মোংলা থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম বলেন, খবর পেয়ে লাশ উদ্ধার করে এনে থানায় রাখা হয়েছে। বুধবার (২০ এপ্রিল) সকালে লাশের ময়নাতদন্তের জন্য বাগেরহাট সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হবে। এ ঘটনায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান তিনি।

নিউজ ট্যাগ: আত্মহত্যা

আরও খবর



নারায়ণগঞ্জে ৭৬ কেজি গাঁজাসহ গ্রেফতার ২

প্রকাশিত:শনিবার ০৭ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০৭ মে ২০২২ | ৩২০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

নারায়ণগঞ্জের বন্দরে ৭৬ কেজি গাঁজাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-১১। গ্রেপ্তাররা হলো- বন্দর থানার একরামপুর এলাকার মো. হাবিবুর রহমান এর ছেলে মো. রমজান আলী ও একই এলাকার মৃত আঃ লতিফ বেপারীর ছেলে মোঃ রুবেল।

রবিবার (৭ মে) সকালে বন্দর উপজেলার ইস্পাহানী বাজার একরামপুর এলাকায় মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালনা করে ওই গাঁজাসহ তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। র‌্যাব-১১র উপ-পরিচালক লেঃ কমান্ডার মাহমুদুল হাসান বিষয়িিট নিশ্চিত করেছেন।

লেঃ কমান্ডার মাহমুদুল হাসান জানান, গ্রেপ্তারকৃতরা দীর্ঘদিন যাবৎ অভিনব কায়দায় কুমিল্লাসহ বিভিন্ন জেলার সীমান্তবর্তী এলাকা হতে নিষিদ্ধ মাদকদ্রব্য গাঁজা সংগ্রহ করে নিয়ে এসে ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় সরবরাহ করে আসছে। তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।


আরও খবর



জাতীয় মসজিদে ঈদ জামাতে মুসল্লিদের ঢল

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৩ মে ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৩ মে ২০২২ | ৪১৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমে পবিত্র ঈদুল ফিতরের জামাতে মুসল্লিদের ঢল নেমেছে।মঙ্গলবার ফজরের নামাজের পর রাজধানীর বিভিন্ন প্রান্ত থেকে মুসল্লিরা ঈদুল ফিতরের দুই রাকাত ওয়াজিব নামাজ পড়তে জাতীয় মসজিদে আসতে থাকেন। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বায়তুল মোকাররম ও এর আশপাশের এলাকা মুসল্লিদের পদচারণায় মুখর হয়ে ওঠে।

বায়তুল মোকাররমে ঈদের প্রথম জামাত সকাল ৭টায় শুরু হওয়ার কথা থাকলেও মসজিদে প্রবেশে সাড়ে ৬টার দিকেই মুসল্লিদের দীর্ঘ সারি দেখা গেছে। দক্ষিণ গেইট দিয়ে লাইন ধরে আর্চওয়ের ভেতর দিয়ে মুসল্লিরা মসজিদে প্রবেশ করেন।

দুই বছর পর বড় কোনো জামাতে অংশ নিয়ে নামাজ আদায়ের জন্য মুসুল্লিদের ছিল বিশেষ প্রস্তুতি। সবাই কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে নামাজ আদায় করেছেন।

মুসল্লিদের সারি মাওলানা ভাসানী হকি স্টেডিয়াম ছাড়িয়ে বঙ্গবন্ধু স্কয়ার পর্যন্ত চলে গেছে। প্রবেশ গেইটে বিপুল সংখ্যক আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে তৎপর দেখা গেছে।

বায়তুল মোকাররম মসজিদে ঈদুল ফিতরের ৫টি জামাত হচ্ছে। প্রথম জামাত শুরু হয় সকাল ৭টায়। এতে ইমাম ছিলেন বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের সিনিয়র পেশ ইমাম হাফেজ মুফতি মাওলানা মিজানুর রহমান।

প্রথম জামাত সকাল ৭ টা ২৭ মিনিটে শেষ হয়। প্রথম জামাত চলাকালীন বিপুল সংখ্যক মুসল্লি দক্ষিণ গেটের বাইরে রাস্তায় অপেক্ষা করতে থাকেন।

প্রথম জামাত শেষ হলে মুসল্লিরা দুটি আর্চওয়ে দিয়ে হুড়মুড় করে প্রবেশ করতে থাকেন। মুসল্লিদের চাপে আর্চওয়ের কিছু অংশ ভেঙে পড়ে। একপর্যায়ে আর্চওয়ে দুটি সরিয়ে দেওয়া হয়।

দ্বিতীয় জামাত শুরু হয় সকাল ৮টায়। তৃতীয় জামাত সকাল ৯টায়, চতুর্থ জামাত সকাল ১০টায়। পঞ্চম ও সর্বশেষ জামাত সকাল ১০টা ৪৫ মিনিটে অনুষ্ঠিত হবে।জামাতে নামাজ আদায়ের পর মুসল্লিদের মোসাফাহা ও কোলাকুলির মাধ্যমে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় করতে দেখা গেছে।

বহুদিন পর বড় জামাতে নামাজ পড়তে পারায় মুসুল্লিদের মধ্যে বাড়তি উচ্ছ্বাস কাজ করেছে। আজ স্বাস্থ্যবিধি কিছুটা শিথিল ছিল। অনেকে মাস্ক ছাড়াই জামাতে অংশ নিয়েছেন।  


আরও খবর



কুষ্টিয়ায় আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপে সংঘর্ষে নিহত ৪

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৩ মে ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৩ মে ২০২২ | ৪০০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে কুষ্টিয়ায় দুই গ্রুপের সংঘর্ষে চারজন নিহত হয়েছেন। আজ সোমবার সন্ধ্যায় সদর উপজেলার ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় থানাধীন ঝাউদিয়া ইউনিয়নের আস্থানগর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষে উভয়পক্ষে অন্তত ১৮ জন আহত হয়েছেন।

সোমবার (০২ মে) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। বর্তমানে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

নিহতদের মরদেহ কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে। আহতরা কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ঝাউদিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি কেরামত উল্লাহ এবং আওয়ামী লীগ সমর্থিত সাবেক ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ফজলুর রহমানের অনুসারীদের মধ্যে এই সংঘর্ষ হয়।

নিহতরা হলেন, আস্থানগর গ্রামের হোসেন আলীর (মৃত) ছেলে কাশেম আলী (৫০), দাদ মণ্ডলের ছেলে লাল্টু মণ্ডল (৩০), আব্দুল মালিথার ছেলে রহিম মালিথা (৫০) ও আফজাল মণ্ডলের ছেলে মতিয়ার মণ্ডল (৪০)। রহিম মালিথা বাদে বাকি তিনজন ফজলু মণ্ডলের সমর্থক।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, ঝাউদিয়া ইউনিয়নের সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান কেরামত আলী ও ফজলু মণ্ডল গ্রুপের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে এলাকায় বিল ও হাট-বাজার দখল, আধিপত্য বিস্তার নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। সর্বশেষ ইউপি নির্বাচন নিয়ে সেই বিরোধ চরমে ওঠে। এরই জের ধরে আজ ইফতারের পর ইউনিয়নের আস্তানগরে কেরামত আলী গ্রুপের লোকেরা মোক্তারের নেতৃত্বে লাঠিসোঠা, হাসুয়াসহ দেশীয় অস্ত্র নিয়ে ফজলু মণ্ডলের বাড়ির ভেতর অতর্কিতে প্রবেশ করে এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকে। এ সময় ফজলু মণ্ডলের লোকজনের সঙ্গে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়। এতে ঘটনাস্থলেই চারজন নিহত হন। এ ঘটনায় উভয় পক্ষের জাফর, সাবু, মনোয়ার, কামলা, আতিয়ার, মুসাসহ অন্তত ১৮ জন আহত হয়েছেন।

কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার খায়রুল আলম জানান, ঘটনা শোনার পরপরই এলাকাই প্রচুর পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পরিস্থিতি এখন পুলিশের নিয়ন্ত্রণে। তবে এ ঘটনায় এখনো কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ।


আরও খবর