আজঃ বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২
শিরোনাম

রাণীশংকৈলে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনা, নিহত ২

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১২ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১২ মে ২০২২ | ৩০০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

হুমায়ুন কবির, রাণীশংকৈল (ঠাকুরগাঁও):

ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈল উপজেলায় বৃহস্পতিবার ১২ মে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় দু'জনের মৃত্যু খবর পাওয়া গেছে। উপজেলার নেকমরদ-কাতিহার পাকাসড়কে ফুটানি টাউনের পাশে গোগরা ব্রিজে বাইসাইকেল আরোহী বিশাল রায় (১০) একটি ট্রাক্টরের সাথে সংঘর্ষে মারা যায়। বিশাল বাচোর ইউনিয়নের ডাংডাং পাড়া গ্রামের হরেণ রায়ের ছেলে।

থানা ও পারিবারিক সুত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার ১২ মে  দুপুর ১২টার দিকে বিশাল গোগরা ব্রিজের পশ্চিম দিক থেকে বাইসাইকেলে আসছিল। এ সময় পিছন থেকে আসা ইট বোঝাই একটি  ট্রাক্টর তাকে ধাক্কা দেয়। গুরুতর আহত বিশালকে নেকমরদে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যাওয়ার পথে সে মারা যায়।

অপরদিকে নন্দুয়ার ইউনিয়নের ভন্ডগ্রাম গ্রামের গোলাম মোস্তফার ছেলে সাকিব (২২) গতকাল বুধবার  রাত ১০ টার দিকে রাণীশংকৈল থেকে বাড়ি ফেরার পথে সড়ক দুর্ঘটনার শিকার হয়। পথচারি তাকে রাস্তায় পড়ে থাকা অবস্থায় দেখতে পেয়ে তার বাসায় খবর দেয়। খবর পেয়ে পরিবারের লোকজন  তাকে উদ্ধার করে রাণীশংকৈল স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে।রোগির শারীরিক অবস্থা আশঙ্কাজনক দেখে কর্মরত ডাক্তার তাকে দিনাজপুর জিয়া হার্ড ফাউন্ডেশনে রেফার্ড করেন। বৃহস্পতিবার  ১২ মে বিকেলে সেখানে সাকিব মারা যায়।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে রাণীশংকৈল থানার ওসি এস এম জাহিদ ইকবাল বলেন,বাচোর ইউনিয়নে সড়ক দুর্ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। পরিবারের পক্ষ থেকে কোন অভিযোগ না থাকায় মরদেহ সৎকারের জন্য বলা হয়েছে।  অপর সড়ক দুর্ঘটনায় বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোনো খবর পাওয়া যায় নি মর্মে ওসি জানান।


আরও খবর



হাতিয়াতে পুকুরে মিললো ৩৫টি ইলিশ

প্রকাশিত:শনিবার ১৪ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ১৪ মে ২০২২ | ৩৫০জন দেখেছেন

Image

নোয়াখালী প্রতিনিধি:

নোয়াখালীর হাতিয়া উপজেলার একটি পুকুরে পাওয়া গেছে ৩৫টি ইলিশ মাছ। পরে মাছ গুলো বাজারে বিক্রি করা হয়।

গতকাল শুক্রবার ১৩ মে বিকেলে উপজেলার নিঝুমদ্বীপ ইউনিয়নের যুগান্তর কিল্লা পুকুরে মাছগুলো পাওয়া যায়। প্রতিটি ইলিশের ওজন প্রায় ৩০০-৪০০ গ্রাম করে। সবগুলো মিলে প্রায় ৮-৯ কেজি মাছ হবে। 

বিষয়টি নিশ্চিত করেন নিঝুমদ্বীপ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুল আফছার দিনাজ। তিনি জানান, পুকুরের মালিক আব্দুল মান্নান পুকুরে সেচের মেশিন বসিয়েছেন। শনিবার সকালের দিকে সেচের পুরো কাজ শেষ হবে। এর আগে শুক্রবার বিকেলের দিকে জেলেদের দিয়ে পুকুরে জাল ফেলা হয় বড় মাছ গুলো ধরার জন্য। ওই জালে ৩৫টি ইলিশ উঠে।

স্থানীয় বাসিন্দা দেলোয়ার হোসেন জানান, গত বছর ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের প্রভাবে জোয়ারের পানিতে যুগান্তর কিল্লা পুকরটি পুরোপুরি ডুবে যায়। তখন জোয়ারের পানিতে ইলিশ মাছ গুলো পুকুরে প্রবেশ করে।

নিউজ ট্যাগ: ইলিশ নোয়াখালী

আরও খবর



‘ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মামলা করা যায় না’

প্রকাশিত:বুধবার ১১ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১১ মে ২০২২ | ৪৭৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, ডিজিটাল সিকিউরিটি আইনের মাধ্যমে যে কারও বিরুদ্ধে বিশেষ করে সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে এখন হুট করে মামলা করা যায় না।

বুধবার (১১ মে) জাতীয় প্রেসক্লাবের জহুর হোসেন হলে ঢাকায় কর্মরত বিদেশি সাংবাদিকদের সংগঠন ওকাব আয়োজিত মিট দ্যা প্রেস অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, প্রথমত ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্টে আগে যে কারও বিরুদ্ধে যে কেউ মামলা করতে পারত। এখন চাইলে পারেন না। বিশেষ করে সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে মামলা করতে হলে এখন সংশ্লিষ্ট বিশেষ করে পুলিশের অনুমতি লাগে এবং সেটি এত সহজ নয়। এখন দেখা যাচ্ছে যে, এই মামলার হারগুলো অনেক কমে গেছে। সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে মামলা অনেক কমে গেছে। অহেতুক কোনো সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে যখন এরকম কোনো মামলা হয়, অনেক প্রতিষ্ঠান করে, দেখা গেল একটি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে দুর্নীতির রিপোর্ট ছাপা হয়েছে। সেটি সত্য এবং সেক্ষেত্রে দেখা যায় ওই প্রতিষ্ঠান সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মামলা করেছে। বিষয়টি যখন আমার নোটিশে আসে আমি চেষ্টা করি তিনি যেন জামিন পান। আমাদের মন্ত্রণালয় থেকে সর্বোচ্চ চেষ্টা করা হয়।

মোবাইল সাংবাদিকতা বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী বলেন, হ্যাঁ, কোনো প্রতিষ্ঠানের হয়ে বা সংবাদ মাধ্যমের হয়ে যদি তিনি মোবাইলে সাংবাদিকতার কাজ করেন সেটি তো অবশ্যই গ্রহণযোগ্য। কিন্তু যে কেউ এসে একটা মোবাইলে ছবি তুলে, ফেসবুকে একটা পেইজ খুলে সেখানে নিউজ করা-সেটা কিন্তু সাংবাদিকতা নয়। সেটির সঙ্গে তো মূলধারার সাংবাদিকতার অবশ্যই পার্থক্য আছে। এই পার্থক্য টানা তো এতো কঠিন কাজ নয়। এই ধরণের কাজগুলোকে অনেকে আছে যে তারা দেখা যায় শুধুমাত্র নিজে পপুলার হওয়ার জন্য কিংবা আলোচনায় থাকার জন্য এ রকম করে এবং দেখা যায় অনেক ভুয়া সংবাদ।

হাছান মাহমুদ বলেন, প্রথমত, এই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম তো গণমাধ্যম নয়। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও গণমাধ্যমের মধ্যে তো পার্থক্য আছে। যারা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম আর গণমাধ্যমকে গুলিয়ে ফেলেন, সেটি তো সঠিক নয়। সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম একটি মাধ্যম। যেখানে সবাই মত প্রকাশ করতে পারেন। সেটি একটি জিনিষ। কিন্তু এটিকে পত্র-পত্রিকা, কনভেনশনাল গণমাধ্যমের সঙ্গে তো গুলিয়ে ফেলা যাবে না। সুতরাং যারা সামাজিক যোগযোগ মাধ্যমে ব্যবহার করে এ ধরণের সংবাদ প্রচার, অপপ্রচার, এগুলো করেন সেটি আসলে সমীচীন নয়। আমি আসলে সেটিই বলতে চাইছি।


আরও খবর



সবাই ভাবত খারাপ কাজ করি: এনা সাহা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৬ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৬ এপ্রিল ২০২২ | ৪২০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

টলিউডের তরুণ অভিনেত্রী এনা সাহা। ছোটবেলা থেকেই শুরু করেছিলেন অভিনয়। বড় হওয়ার পর বেশ কয়েকটি সফল সিনেমায় কাজ করেছেন। কিছুদিন আগে শুরু করেছেন প্রযোজনাও। অল্প বয়সেই তিনি নিজেকে নানাবিধ পরিচয়ে মেলে ধরছেন। এনার বর্তমান অবস্থা দেখে অনুপ্রাণিত আরও অনেকে। কিন্তু তার ফেলে আসা দিনগুলো সহজ ছিল না। যখন অভিনয় শুরু করেছিলেন, তখন অনেকেই ভাবত তিনি খারাপ কাজ করেন। এজন্য তার সঙ্গে মিশতে চাইত না।

সম্প্রতি দিদি নাম্বার ওয়ান অনুষ্ঠানে এসে এনা সাহা নিজেই এ কথা জানিয়েছেন। তিনি বলেন, খুব ছোট থেকেই অভিনয়ে। অভিভাবকেরা বুঝতে পারতেন না, এটা আমার পেশা। ভাবতেন, খারাপ কোনও কাজ করছি। তাই তাদের মেয়েদের মিশতে দিতেন না আমার সঙ্গে।

এ কারণে ছোটবেলায় এনার কোনো বন্ধু ছিল না। সে সময় একমাত্র পরিবারই তার পাশে ছিল। বিশেষ করে মায়ের শতভাগ সমর্থন পেয়েছিলেন অভিনেত্রী।

দিদি নাম্বার ওয়ানে এনার মা বনানী সাহা জানান, ছোটবেলা থেকে তার বড় মেয়ে নাচের অনুষ্ঠান করত। সেখান থেকেই ইন্ডাস্ট্রির নজরে আসে এনা। প্রযোজকরা বনানীর সঙ্গে যোগাযোগ করেন এনাকে অভিনয়ে আনার জন্য। ২০১১ সালে সিনেমায় কাজ শুরু করেছিলেন এনা। তবে পরিচিতি পান ২০১২ সালের বোঝে না সে বোঝে না সিনেমায় অভিনয় করে। এরপর তার ঝুলিতে যুক্ত হয়েছে চিরদিনই তুমি যে আমার ২, রাজকাহিনী, ভূত চতুর্দশী, এসওএস কলকাতার মতো জনপ্রিয় সিনেমাগুলো। একসময় তার কোনো বন্ধু না থাকলেও এখন অনেকেই তার বন্ধু হতে চান, প্রেমিক হতে চান। ভালোবাসা দিবসে নাকি তাকে একসঙ্গে ১৪ হাজার ছেলে ভালোবাসি বলেছিল। অভিনেত্রীর ভাষ্য, যা হয়, তা ভালোর জন্যই হয়।

সম্প্রতি এনা অভিনয় করেছেন চিনে বাদাম নামের একটি সিনেমায়। এতে তার নায়ক যশ দাশগুপ্ত। সিনেমাটি প্রযোজনাও করছেন এনা। এছাড়া মাস্টার মশাই আপনি কিছু দেখেননি নামে আরেকটি সিনেমাও প্রযোজনা করছেন অভিনেত্রী।

নিউজ ট্যাগ: এনা সাহা

আরও খবর



প্রতারণার মামলায় ১১ আফ্রিকান নাগরিক রিমান্ডে

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১০ মে ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১০ মে ২০২২ | ৩৭০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বিভিন্ন ধরনের প্রতারণার অভিযোগে গ্রেপ্তার ১১ আফ্রিকান নাগরিকের তিন দিন করে রিমান্ড দিয়েছেন আদালত। আজ মঙ্গলবার ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মামুনুর রহমান ছিদ্দিকী এই আদেশ দেন।

গুলশান থানার সাধারণ নিবন্ধন শাখার কর্মকর্তা (জিআরও) আলমগীর হোসেন বিষয়টি জানিয়ে বলেন, ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে গত ২৭ এপ্রিল মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের গুলশান বিভাগের উপ-পরিদর্শক মোহাম্মদ শফিকুল আলম গুলশান থানার মামলায় তাদের ১০ দিন করে রিমান্ড নিতে আবেদন করেন। ওই আসামিদের কারাগারে পাঠিয়ে আজ রিমান্ড শুনানির তারিখ নির্ধারণ করেন আদালত।

জিআরও বলেন, রিমান্ডে যাওয়া ১১ বিদেশি নাগরিক হলেন- হেনরি ওসিতা ওকেচুকু, চিসম ইমানুয়েল ওবাইজুলু, ওকাকে পিটার, ওবিনা সান্ডে, ওনেকা এমবা, চিছম এন্থনি ইকুয়েনজে, ওকেয়া আজুবিকে, অনুয়ারাহ ওজুয়েমেনা ডানিয়েল, অনুরুকা জিনিকা ফ্রান্সিস, লকি ও ডোমাডু চিনেডো।

নথি থেকে জানা গেছে, গত ২০ এপ্রিল রাজধানীর পল্লবী ও ভাটারা থানা এলাকা থেকে তাদের আটক করে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের গোয়েন্দা (ডিবি) গুলশান বিভাগ।

এ সময় তাদের কাছ থেকে একটি ডলার ট্রিক মেশিন, সিলভার কাপড়ে মোড়ানো আঠারোটি বান্ডেল, প্রতারণা কাজে ব্যবহৃত ১৭টি মোবাইল ফোন, দুটি ল্যাপটপ, কেমিক্যালের বোতল, বিভিন্ন মামলার ওয়ারেন্টের কপি উদ্ধার করা হয়। এই ঘটনায় প্রতারণার অভিযোগে গুলশান থানায় মামলা করে পুলিশ।


আরও খবর



প্লাস্টিক সার্জারি করাতে গিয়ে অভিনেত্রীর মৃত্যু

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৭ মে ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৭ মে ২০২২ | ৮০০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

প্লাস্টিক সার্জারি করাতে গিয়ে মৃত্যু হল ভারতীয় টিভি অভিনেত্রী চেতনা রাজের।  সোমবার সন্ধ্যায় বেঙ্গালুরুর একটি হাসপাতালে মাত্র ২১ বছর বয়সেই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন এ অভিনেত্রী। 

পরিবারকে না জানিয়ে এদিন সকালে চর্বি কমানোর অস্ত্রোপচারের জন্য বেঙ্গালুরুর শেঠি কসমেটিক হাসপাতালে ভর্তি হন চেতনা। এরপর অস্ত্রোপচারের সময় তার ফুসফুসে পানি জমে যায় এবং তার অবস্থা আশঙ্কাজনক হয়ে পড়ে। বিকাল ৪টা পর্যন্ত চিকিৎসকরা সব চেষ্টা করেও তাকে বাঁচাতে পারেনি।

বেঙ্গালুরুতেই চেতনার বড় হয়ে ওঠা। কলেজের পড়াশোনা এখনও শেষ করতে পারেননি তিনি। মডেলিং জগতে পা রাখার পর বিভিন্ন দক্ষিণী টিভি ধারাবাহিকে অভিনয় করার সুযোগ পান চেতনা।

গীতা, দোরেসানি, ওলাভিনা নিলদানা নামে কন্নড় ধারাবাহিকে অভিনয় করে সুনাম অর্জন করছিলেন তিনি। এ ছাড়াও, কন্নড় সিনেমা হাভাইয়ামিতেও অভিনয় করেন চেতনা।

অভিনয়ে সুনাম করার সঙ্গে স্বাস্থ্য সচেতন হয়ে পড়েন তিনি। হঠাৎ মেদ ঝরানোর শখ জাগে তার। ঘনিষ্ঠজনদের বক্তব্য, সেই শখ ক্রমে মারাত্মক আকার নেয়। এ কারণে সোমবারই প্লাস্টিক সার্জারি করানোর সিদ্ধান্ত নেন কন্নড় নায়িকা।

মেদ কমানোর অস্ত্রোপচারের জন্য বেঙ্গালুরুর একটি হাসপাতালে ভর্তিও হন তিনি। তবে চিকিৎসকদের জানিয়েছিলেন, তারা যেন কোনোভাবেই চেতনার পরিবারকে প্লাস্টিক সার্জারির বিষয়ে না জানান।

মা-বাবার কাছ থেকে লুকিয়েই অস্ত্রোপচার করিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু অস্ত্রোপচারের পর নায়িকার ফুসফুসে নানা ধরনের সমস্যা দেখা দিতে শুরু করে।

হাসপাতাল সূত্রের বরাতে জানিয়েছে, ফুসফুসের ভেতর পানি জমতে শুরু করে চেতনার। হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়ায় হাসপাতালের কর্মীরা তাঁকে বিকেল সাড়ে ৫টা নাগাদ একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে যান। ওই অবস্থাতেও হাসপাতালের চিকিৎসকদের চেতনা নির্দেশ দেন, তার অসুস্থতা সম্পর্কে যেন বাইরের কেউ কিছু জানতে না পারে।

চেতনা বলেছিলেন, কেউ কিছু জিজ্ঞাসা করলে যেন বলা হয়, তিনি হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। চিকিৎসকরা প্রায় ৪৫ মিনিট ধরে বুকে পাম্প করা সত্ত্বেও বাঁচাতে পারেননি চেতনাকে। চেতনার মৃত্যুর খবর পাওয়ার পর তার বাবা-মা ওই হাসপাতালের চিকিৎসকদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছেন।


আরও খবর