আজঃ মঙ্গলবার ২৫ জানুয়ারী ২০২২
শিরোনাম

রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সংলাপে যায়নি বিএনপি

প্রকাশিত:বুধবার ১২ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১২ জানুয়ারী ২০২২ | ৩৩০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

নির্বাচন কমিশন (ইসি) গঠনে রাষ্ট্রপতির সংলাপে যায়নি বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি)। আজ বিকেল চারটায় বঙ্গভবনে আমন্ত্রণ থাকলেও দলটির কেউ যায়নি। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন দলটির চেয়ারপারসনের প্রেস উইং শাখার সদস্য শায়রুল কবির খান।

গত ২০ ডিসেম্বর থেকে এখন পর্যন্ত ৩২টি দল আমন্ত্রণ পেয়েছে। নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে এ সংলাপে মো. আবদুল হামিদের আহ্বানে ১৮টি দল সাড়া দিয়ে বঙ্গভবনে গিয়েছে। চারটি দল আগেই আনুষ্ঠানিক চিঠিতে বর্জন করেছে। অনানুষ্ঠানিকভাবে আরও তিন দল বঙ্গভবনে যাবে না বলে জানান দিয়েছে। ২০১২ ও ২০১৪ সালে যে প্রত্যাশায় সংলাপ হয়েছিল তা পূরণ হয়নি বলেই দলগুলো এবার বর্জনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

তাদের ভাষ্য, রাষ্ট্রপতির সঙ্গে চলমান এই সংলাপ পুরোটাই অর্থহীন। সরকার তথা ক্ষমতাসীন দল যা চাইবে ইসি গঠনে তারই প্রতিফলন ঘটবে। এমনটা ধারণা থেকেই সংলাপে অংশ নেওয়া থেকে বিরত থাকছে বর্জনকারী দলগুলো।

এদিকে একের পর এক না বলায় চলমান এই সংলাপ গুরুত্বহীন হয়ে উঠছে বলেও মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। আবার যে ১৮টি দল এখন পর্যন্ত রাষ্ট্রপতির সংলাপে অংশ নিয়েছে তাদের বেশির ভাগই কেউ ক্ষমতাসীনদের জোটের কিংবা সরকারঘেঁষা।

যে সাতটি দল সংলাপে যাচ্ছে না তারা হলো-বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি), ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশ, বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ), এলডিপি, বিএনপি, জেএসডি ও বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি।

আগামী ১৪ই ফেব্রুয়ারি বর্তমান দায়িত্বে থাকা কেএম নুরুল হুদার নেতৃত্বাধীন কমিশনের মেয়াদ শেষ হচ্ছে। সাংবিধানিকভাবে এই কমিশনের বিদায়ের পরই নতুন কমিশন দায়িত্ব নেবে ইসির। তারই অংশ হিসেবে রাষ্ট্রপতি কমিশন গঠনের জন্য বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের সঙ্গে বৈঠকে বসছেন। আগামী ১৭ জানুয়ারি ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের সঙ্গে সংলাপে বসবেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ।

নিউজ ট্যাগ: বিএনপি

আরও খবর



সাভারে অনিয়মের অভিযোগ করে জাপা প্রার্থীর নির্বাচন বয়কট

প্রকাশিত:বুধবার ০৫ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ০৫ জানুয়ারী ২০২২ | ৫৭৫জন দেখেছেন

Image

সাভার থেকে আসাদুজ্জামান খাইরুল

সাভারের আশুলিয়ায় প্রকাশ্যে ব্যালট পেপারে সিল মারা ও প্রশাসনের পক্ষপাতিত্তের অভিযোগ করে ভোট বয়কট করেন জাতীয় পার্টির মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী।

বুধবার (৫ জানুয়ারি) দুপুর ১২টার দিকে এ ঘোষণা দেন লাঙ্গল প্রতীক নিয়ে দাঁড়ানো এই চেয়ারম্যান পদ প্রার্থী।

সকালের দিকে ইয়ারপুর ইউনিয়নের বিভিন্ন ভোটকেন্দ্রে ঘুরে দেখা যায়, ভোটার উপস্থিতি ভালো। তবে দিন গড়াতেই ভোটারদের কেন্দ্রে আসতে বাধা, জোরপূর্বক অন্যের ভোট দেওয়ার অভিযোগ আসতে থাকে।

এ অবস্থায় বেলা ১২টায় মো: আল কামরান (লাঙ্গল প্রতীক) ভোট বর্জনের ঘোষণা দেন। জাতীয় শ্রমিক পার্টির প্রচার সম্পাদক ও ইয়ারপু্র ইউনিয়ন পরিষদের জাতীয় পার্টি মনোনীত প্রার্থী।

আল কামরান বলেন, ভোটকেন্দ্র দখল করা হয়েছে। ভোটারদের কেন্দ্রে যেতে বাধা দেওয়া হয়েছে। বার বার প্রশাসন ও কর্তৃপক্ষকে জানিও কাজ হয়নি। এ অবস্থায় আমি কোন উপায় না পেয়ে ভোট বর্জন করলাম।

প্রার্থীদের এসব অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে ঢাকা জেলা সিনিয়র নির্বাচন কর্মকর্তা মুনীর হোসাইন খান বলেন, 'ভোট সুষ্ঠু হচ্ছে। অভিযোগ পেলে কর্মকর্তারা ব্যবস্থা নিচ্ছেন।'


আরও খবর
নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পুকুরে বাস, আহত ২৫

সোমবার ২৪ জানুয়ারী ২০২২




হিলি ট্রেন ট্র্যাজেডি দিবস আজ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৩ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জানুয়ারী ২০২২ | ৩৮৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আজ দিনাজপুরের হিলি ট্রেন ট্র্যাজেডি দিবস। ২৭ বছর আগে হিলি রেলস্টেশনে দুটি ট্রেনের মুখোমুখি সংঘর্ষে বহু হতাহতের ঘটনা ঘটে। সেই দিনের কথা আজও ভুলতে পারেনি হিলিবাসী। দিনটি উপলক্ষে বিভিন্ন কর্মসূচি হাতে নিয়েছেন স্থানীয়রা।

১৯৯৫ সালের ১৩ জানুয়ারি, দিনটি ছিল শুক্রবার। রাত সোয়া ৯টার দিকে গোয়ালন্দ থেকে পার্বতীপুরগামী ৫১১ নম্বর লোকাল ট্রেনটি হিলি রেলস্টেশনের ১ নম্বর লাইনে এসে দাঁড়ায়। এর কিছুক্ষণ পর সৈয়দপুর থেকে খুলনাগামী ৭৪৮ নম্বর আন্তঃনগর সীমান্ত এক্সপ্রেস ট্রেনটি একই লাইনে ঢুকে পড়ে। এ সময়ই ঘটে ভয়াবহ মুখোমুখি সংঘর্ষ। এতে বিকট শব্দে গোয়ালন্দ লোকাল ট্রেনের ইঞ্জিনসহ দুটি বগি দুমড়েমুচড়ে আন্তঃনগর ট্রেনের ওপর উঠে যায়।

ভয়াবহ এই ট্রেন দুর্ঘটনায় দুটি ট্রেনের অর্ধশতাধিক যাত্রী নিহত হয়। আহত হয় দুই শতাধিক। নিহতদের অনেকের দেহ ছিন্নবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে থাকে। পরে স্থানীয় মানুষ, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের লোকজনের সহায়তায় লাশ উদ্ধারসহ আহতদের দ্রুত উপজেলা হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠায়। সে সময় সরকারিভাবে নিহতের সংখ্যা ২৭ জন ঘোষণা করা হয়। আর আহতের সংখ্যা বলা হয় শতাধিক।

খবর পেয়ে ছুটে আসেন বিএনপি সরকারের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া। ঘোষণা দেন নিহত ও আহতদের আর্থিক ক্ষতিপূরণের। এদের মধ্যে অনেকে ক্ষতিপূরণ পেলেও কয়েকজন আজও পায়নি তাদের ক্ষতিপূরণের টাকা।

হাকিমপুর প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি জাহিদুল ইসলাম জাহিদ বলেন, সেদিনের কথা আজও মনে পড়লে শরীর শিউরে উঠে। সে রাতে দুর্ঘটনার সময়ে আমরা হিলি বাজারে প্রেসক্লাবে বসে ছিলাম। এমন সময় একটি বিকট শব্দ শুনতে পাই। এতো বিকট শব্দ ছিলো যে আমরা স্থির করতে পারছিলাম না, কোথায় কি হচ্ছে। ছুটে যাই রেলস্টেশনের দিকে। গিয়ে দেখি এই মর্মান্তিক দুর্ঘটনা, শত শত মানুষের আহাজারি। ক্ষতবিক্ষত মানুষের দেহের বিভিন্ন অংশ পড়ে আছে। আহতরা বাঁচার জন্য আহাজারি করছে, অনেকের শরীর ছিন্নবিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। বুঝে উঠতে পারছিলাম না আমার কি করা উচিত। অবশেষে স্থানীয়দের সহযোগিতায় আহতদের উদ্ধার করে হিলি হাসপাতালে নিয়ে যাই। এতো লাশ, এতো রক্তমাখা ক্ষতবিক্ষত দেহ আগে কখনও দেখিনি। সেই দিনের ভয়াবহ ট্রেন দুর্ঘটনাটি আজও হিলির মানুষকে আতঙ্কে রাখে।

ক্ষতিগ্রস্ত কয়েকটি পরিবার ও এলাকার লোকজন জানান, তাৎক্ষণিক ট্রেন দুর্ঘটনার কারণ হিসেবে স্থানীয় প্রশাসন ও রেল কর্তৃপক্ষ তাদের প্রাথমিক তদন্তে হিলি রেলস্টেশনের কর্তব্যরত স্টেশন মাস্টার ও পয়েন্টসম্যানের দায়িত্বহীনতাকেই দায়ী করেছেন।

হিলি রেলওয়ে একতা ক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন বুলু জানান, প্রতি বছরের ন্যায় এবছরও হিলি রেলস্টেশন প্লাটফর্মে ট্রেন দুর্ঘটনায় নিহতদের রুহের মাগফিরাত কামনায় দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে। পাশাপাশি আলোচনা সভা ও কালো ব্যাজ ধারণের কর্মসূচি হাতে নেওয়া হয়েছে।


আরও খবর



শামীম ওসমানের সমর্থন আমার প্রয়োজন নেই: আইভী

প্রকাশিত:সোমবার ১০ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১০ জানুয়ারী ২০২২ | ৬৩৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন (নাসিক) নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভী বলেছেন, শামীম ওসমান কীসের পক্ষে প্রচারণা করবেন জানি না, আমার জানার প্রয়োজনও নেই। আমার সমর্থন জনগণ। বিগত নির্বাচনগুলোর দিকে তাকালে দেখা যাবে, যতকিছুই হোক না কেন এখানে উৎসবমুখর পরিবেশেই নির্বাচন হয়, এবারও তাই হবে।

শামীম ওসমানকে ইঙ্গিত করে আইভী আরও বলেন, তার সমর্থন দেওয়া বা না দেওয়ায় খুব বেশি কী ডিফারেন্স হয়ে যাচ্ছে। তার সমর্থন আমার প্রয়োজন নেই। গণমাধ্যম তাকে নিয়ে সারাক্ষণ ব্যস্ত। আমি ব্যস্ত আমার জনগণকে নিয়ে।

সোমবার নগরের ২ নম্বর রেলগেটের জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ কার্যালয়ের সামনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, স্থানীয় সরকারের কাজগুলো সবসময়ই চলমান থাকে। তবে আমি বলতে পারি নারায়ণগঞ্জবাসী আমাকে সবসময় যে কোনো কাজে তাদের কাছে পেয়েছে। নগরবাসী আমাকে বেছে নেবে, কারণ যখন এ শহরের মানুষ একদমই কথা বলতে পারত না, ভয়ে ভীত থাকত, তখন জানি না অন্য প্রার্থী কোথায় ছিলেন। আমি আলোচিত ত্বকী হত্যাকাণ্ডের বিরুদ্ধে তৈমূর আলম খন্দকারকে একটা সমাবেশ করতে দেখিনি। এ শহরে আশিক, বুলু, চঞ্চলকে হত্যা করা হয়েছে। দেখিনি কখনও একটি প্রতিবাদ করতে।

আইভী বলেন, 'আজ তিনি (তৈমূর) যার ক্যান্ডিডেট, তার বিরুদ্ধেই তিনি বলেছিলেন, আমাকে শামীম ওসমান গুলি করেছে, আমার অফিসে গিয়ে গুলি করেছে। আমার বিরুদ্ধে তিনি অনেক কিছু বলছেন, যা উনার বলা উচিত হয়নি। আমাকে না শুধু আমার বাবাকেও উনি চেনেন। সংবাদ সন্মেলনে তিনি যে অভিযোগ এনেছেন, সেগুলো সর্ম্পূণ বেমানান। দেড় বছর ধরে শামীম ওসমান আমার বিরুদ্ধ এই গ্রাউন্ড তৈরি করেছেন। শামীম ওসমান যে কথা বলেছেন, কালকে উনি তোতাপাখির মতো সেগুলোই বলেছেন।

আইভী আরও বলেন, আমার ভোটার ফিক্সড, নারায়ণগঞ্জের মানুষ সিদ্ধান্ত নিয়ে রেখেছে কাকে ভোট দেবে। আমার জয় বড় ব্যবধানেই হবে। এখানে কেউ আমার ভোটারকে খুব বেশি প্রভাবিত করতে পারবে, তা মনে হয় না। কারণ নারায়ণগঞ্জের মানুষ খুব সচেতন। এই শহরের মানুষ প্রতিদিন যা দেখে নিজের চোখে তাই বিশ্বাস করে। আমি মনে করি আমার ভোটাররা তাদের জায়গাতেই থাকবে।


আরও খবর



ইভ্যালিকে ব্যাংক থেকে ২ কোটি ৩৫ লাখ টাকা তোলার অনুমতি

প্রকাশিত:রবিবার ১৬ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ১৬ জানুয়ারী ২০২২ | ১৯০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সিটি ও সাউথ ইস্ট ব্যাংকের অ্যাকাউন্ট থেকে ইভ্যালিকে ২ কোটি ৩৫ লাখ টাকা তোলার অনুমতি দিয়েছেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে ইভ্যালির নামে থাকা ২২টি গাড়ি ভাড়া বা বিক্রি করে দেওয়ারও অনুমতি দিয়েছেন আদালত।

আজ রোববার বিচারপতি মুহাম্মদ খুরশীদ আলম সরকারের একক বেঞ্চ এ আদেশ দেন। সেই সঙ্গে ইভ্যালির সম্পদসহ যাবতীয় তথ্য দিতে বাংলাদেশ ব্যাংক ও এনবিআরকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। 

আদালতে ইভ্যালির বোর্ডের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার মোরশেদ আহমেদ খান। রিটের পক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার সৈয়দ মাহসিব হোসাইন। মাহসিব হোসাইন বলেন, ইভ্যালির প্রধান কার্যালয়ে প্রতিদিন গ্রাহকেরা ভিড় করছে। নিরাপত্তার স্বার্থে সেখানে পুলিশ মোতায়েন করতে নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। এ ছাড়া ইভ্যালির সাবেক চেয়ারম্যান ও এমডি কোথায় কীভাবে টাকা ব্যয় করেছেন তার তালিকা দিতে বাংলাদেশ ব্যাংক ও এনবিআরকে বলা হয়েছে।

গত বছরের ১৮ অক্টোবর ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালি পরিচালনায় আপিল বিভাগের সাবেক বিচারপতি এইচএম শামসুদ্দিন চৌধুরীকে প্রধান করে পাঁচ সদস্যের বোর্ড গঠন করে দেন হাইকোর্ট। বোর্ডের অন্য সদস্যরা হলেন- স্থানীয় সরকার ও পল্লী উন্নয়ন বিভাগের সাবেক সচিব মোহাম্মদ রেজাউল আহসান, তৎকালীন ওএসডিতে থাকা (বর্তমানে অবসরপ্রাপ্ত) অতিরিক্ত সচিব মাহবুব কবীর মিলন, চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্ট ফখরুদ্দিন আহম্মেদ ও ব্যারিস্টার খান মোহাম্মদ শামীম আজিজ।


আরও খবর



গোপনাঙ্গে বিষ প্রয়োগ করে স্ত্রীকে হত্যা

প্রকাশিত:শনিবার ২২ জানুয়ারী 20২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২২ জানুয়ারী 20২২ | ৫৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগরে রিয়ামনি (২০) নামে এক গৃহবধূকে নিশংসভাবে হত্যার অভিযোগ উঠেছে স্বামীর বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় শুক্রবার (২১ জানুয়ারি) বিকেলে ঘাতক স্বামীকে পুলিশ গ্রেফতার করে জেল হাজতে পাঠিয়েছে। এর আগে বৃহস্পতিবার (২০ জানুয়ারি) রাতে উপজেলার শিবপুর ইউনিয়নের নোয়াগাঁও গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, গত কয়েক মাস আগে নবীনগর উপজেলার নোয়াগাঁও গ্রামের সরকার বাড়ির মো. ফরিদ মিয়ার ছেলে নেয়ামত উল্লাহ বাবুর সঙ্গে একই গ্রামের মো. হুমায়ুন সরকারের মেয়ে রিয়ামনির বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই বিভিন্ন কারণে পারিবারিক কলহের কারণে রিয়ামনি তার বাবার বাড়িতে বসবাস করতেন।

বৃহস্পতিবার রিয়ামনি শ্বশুরবাড়িতে দাওয়াত খেতে আসেন। স্বামীর অনুরোধে শ্বশুরবাড়িতে থেকে যান রিয়ামনি। ওই রাতে শারীরিক সম্পর্ক করা কালে কৌশলে গোপনাঙ্গে বিষ ঢুকিয়ে দেন স্বামী নেয়ামত উল্লাহ বাবু। ফলে ভোর ৫টার দিকে রিয়ামনি ঘুম থেকে উঠে অনবরত বমি করাসহ ছটফট করতে থাকেন।

এই অবস্থায় স্থানীয় লোকজন রিয়ামনিকে চিকিৎসার জন্য ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। সারা শরীরে বিষ ছড়িয়ে গেলে ওই দিন সকাল সাড়ে ১০টার দিকে রিয়ামনি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

নবীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিনুর রশিদ জানান, এই ঘটনায় রিয়ামনির মা মাজেদা বেগম বাদী হয়ে শুক্রবার নবীনগর থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। পুলিশ অভিযান চালিয়ে শুক্রবার এজাহারনামীয় আসামি রিয়ামনির স্বামী নেয়ামত উল্লাহ বাবুকে (২২) গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠিয়েছে। পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছে।


আরও খবর