আজঃ বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

রায়পুরায় ট্রেনের ধাক্কায় প্রাণ গেল দুইজনের

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৪ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৪ জানুয়ারী ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

নরসিংদীর রায়পুরায় ঢাকা-চট্রগ্রাম সিলেট রেলপথের পৃথক স্থানে ট্রেনের ধাক্কায় ২ জনের মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার সকালে উপজেলার কড়ইতলা রেলক্রসিং এলাকায় একজন, দুপুরে শ্রীনিধি রেলওয়ে স্টেশন আউটার এলাকায় অপরজনের মৃত্যু হয়।

নিহতরা হলেন, রায়পুরার মির্জাপুর ইউনিয়নের গুচ্ছ গ্রামের সিদ্দিক মিয়ার ছেলে শ্রবণ প্রতিবন্ধী কাশেম মিয়া (৬৫)। তিনি পেশায় একজন সেলোমেশিন মেকানিক। চান্দেরকান্দি ইউনিয়নের কড়ইতলা গ্রামের সুচেন্দ্র বিশ্বাসের ছেলে কর্ণ বিশ্বাস (৬২)। তিনি মানসিক ভারসাম্যহীন ছিলেন।

নিহতদের স্বজন ও স্থানীয়রা জানায়, মঙ্গলবার আনুমানিক বেলা সাড়ে আটটার দিকে শ্রবণ প্রতিবন্ধী কাশেম মিয়া উপজেলার মির্জাপুর ইউনিয়নের সাধুনগর গ্রামের পাশে থাকা রেল লাইন ধরে হাটছিলেন, এসময় পেছন থেকে আসা ঢাকা মুখী এগারোসিদ্ধুর এক্সপ্রেস তাকে ধাক্কা দিলে সে রেল লাইনের পাশে ছিটকে পড়ে ঘটনাস্থলেই নিহত হয়। অপর দিখে, একই উপজেলার চান্দেরকান্দি ইউনিয়নের কড়ইতলা গ্রামের মানসিক ভারসাম্যহীন সুচেন্দ্র বিশ্বাসের ছেলে মানসিক ভারসাম্যহীন কর্ণ বিশ্বাস (৬২)। দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে শ্রীনিধি রেলস্টেশনের পশ্চিম পাশে আউটারে পাশ দিয়ে রেল পাড় হতে গেলে চট্রগ্রাম অভিমুখী কর্নফুলি এক্সপ্রেসেরের ধাক্কায় রেললাইনের পাশে ছিটকে পড়ে গুরুতর আহত হন। পরে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। নিহতদের নিজ গ্রামের পাশেই ঘটনাটি ঘটায় পুলিশ খবর পাইয়ার আগেই স্বজনরা মরদেহ দুটো বাড়ি নিয়ে যান।

ভৈরব রেলওয়ে পুলিশের উপপরিদর্শক হাসানুজ্জামান রুমেল বলেন, সাংবাদিকদের মাধ্যমে এ বিষয়ে খবর পেয়ে উর্দতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি। খোঁজ খবর নেয়ার চেষ্টা করছি।


আরও খবর
সিলেট নগরী থেকে গৃহবধূর গলিত লাশ উদ্ধার

বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




আদভানিকে ‘ভারতরত্ন’ প্রদান আমার জন্য খুবই আবেগপূর্ণ মুহূর্ত: মোদি

প্রকাশিত:শনিবার ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

বর্ষীয়ান বিজেপি নেতা লালকৃষ্ণ আদভানি সর্বোচ্চ বেসামরিক পদক ভারতরত্ন সম্মাননা পাচ্ছেন। শনিবার সকালে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এক্স হ্যান্ডেলে অফিসিয়াল অ্যাকাউন্টে এ ঘোষণা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

তিনি লিখেছেন, আদভানিকে ভারতের সর্বোচ্চ বেসামরিক পুরস্কার ভারতরত্ন দেওয়া হবে। এই সম্মান প্রদানের কথা জানাতে সাবেক উপ-প্রধানমন্ত্রী আদভানির সঙ্গে কথাও বলেছি। এই সম্মানে ভূষিত হওয়ার জন্য তাঁকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছি।


নরেন্দ্র মোদি লিখেছেন, তাঁকে (লালকৃষ্ণ আদভানি) ভারতরত্ন পদক প্রদান আমার জন্য খুবই আবেগপূর্ণ মুহূর্ত। নরেন্দ্র মোদি আদভানির সঙ্গে দুটি ছবিও ট্যাগ করেছেন পোস্টে।

ভারতীয় জনতা পার্টির ৯৭ বছর বয়সী প্রবীণ রাজনীতিবিদ আদভানির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে ভারতের প্রধানমন্ত্রী আরও লিখেছেন, তিনি আমাদের সময়ের সবচেয়ে সম্মানিত রাষ্ট্রনায়কদের একজন। ভারতের উন্নয়নে তাঁর অবদান স্মরণীয়। তাঁর এমন একটি জীবন যিনি তৃণমূলে কাজ করা থেকে শুরু করে দেশের উপ-প্রধানমন্ত্রী হিসেবে জাতির সেবা করেছেন।

নরেন্দ্র মোদি বলেন, তিনি আমাদের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এবং আইএন্ডবি মন্ত্রী হিসেবেও নিজেকে আলাদা হিসেবে প্রমাণ করেছেন। তাঁর সংসদীয় ভূমিকা সবসময়ই অনুকরণীয়, তিনি অন্তর্দৃষ্টিতে পূর্ণ সমৃদ্ধ।

তিনি বলেছেন, জনজীবনে আদভানি স্বচ্ছতা ও সততার প্রতি অটল ছিলেন যা রাজনৈতিক নীতিশাস্ত্রে একটি অনুকরণীয় মান স্থাপন করেছে। জাতীয় ঐক্য ও সাংস্কৃতিক পুনরুত্থানের জন্য তিনি অতুলনীয় চেষ্টা চালিয়ে গেছেন। তাঁকে ভারতরত্ন প্রদান আমার জন্য খুবই আবেগঘন মুহূর্ত। আমি সবসময় এটিকে আমার বিশেষত্ব হিসেবে বিবেচনা করব যে, আমি তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করার এবং তাঁর কাছ থেকে শেখার অগণিত সুযোগ পেয়েছি।


আরও খবর
সৌদি আরবে এক দিনে সাতজনের শিরশ্ছেদ

বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




মাগুরায় ফের স্বর্ণের ৩ দোকানে চুরি

প্রকাশিত:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
জেলা প্রতিনিধি

Image

মাগুরায় হরিশ দত্ত সড়কের একটি মার্কেটের স্বর্ণের ৩ দোকানে চুরি হয়েছে। সোমবার (১২ ফেব্রুয়ারি) সকালে এ ঘটনা ঘটে। তবে কি পরিমাণ স্বর্ণালংকার চুরি হয়েছে সে বিষয়ে তাৎক্ষণিক কোনো তথ্য দিতে পারেননি মালিকরা।

এ ঘটনায় মাগুরা সদর থানার অফিসার ইন চার্জ (ওসি) মেহেদি হাসানসহ পুলিশের একটি দলকে দুপুরে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করতে দেখা গেছে।

মাগুরা জেলা জুয়েলার্স সমিতির সভাপতি বিমল কুমার বিশ্বাস বলেন, সকালে অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা ঐ মার্কেটের নিচ তলায় ঢুকে সোহানা জুয়েলার্স, নিউ রেবা জুয়েলার্স ও সুমন জুয়েলার্স এই তিনটি দোকানের সাটার ভেঙ্গে এ চুরি সংঘটিত করে। কী পরিমাণ স্বর্ণালংকার চুরি হয়েছে তা নির্ধারণের চেষ্টা চলছে।

পাশের মার্কেটের সাহা ষ্টোর নামের একটি দোকানের সিসিটিভি ফুটেজে চারজন সন্দেভাজন ব্যক্তিকে সকাল ৭টার দিকে একটি বস্তা ও ব্যাগ হাতে ঐ মার্কেটে দেখা গেছে। যা থেকে ধারনা করা হচ্ছে সকালের দিকে এ ঘটনাটি ঘটতে পারে। মার্কেটের দ্বিতীয় তলার নির্মাণ কাজ শেষ না হওয়ায় এটি অরক্ষিত অবস্থায় পড়ে আছে। দ্বিতীয় তলা থেকে নিচ তলায় নামার পথের সিঁড়িতে প্রতিবন্ধকতামূলক কোনো ফটক নেই। ফলে সহজেই দ্বিতীয় তলায় উঠতে পারলে মার্কেটের নিচতলায় চলে যাওয়া সম্ভব। সম্ভবত চোর চক্রটি এ সুযোগ নিয়েছে।

ক্ষতিগ্রস্থ দোকান মালিকদের একজন জয়দেব কর্মকার জানান, সকালে মার্কেটের দোকান খুলতে এসে সাটার ভাঙ্গা দেখতে পাই। একইভাবে অন্য ২ দোকান মালিক দোকান খুলতে এসে সাটার বাঙ্গা দেখতে পায়। আমার দোকান থেকে ১৪ আনা সোনা ও একটি স্বর্ণের চেন চুরি হয়েছে। অন্যদের কী পরিমাণ সোনা খোয়া গেছে নিরুপনের চেষ্টা চলছে।

মাগুরা সদর থানার অফিসা ইন চার্জ (ওসি) মেহেদি হাসান বলেন, শহরের হরিশ দত্ত সড়কের জুয়েলারি পট্টিতে তিনটি দোকানে চুরির ঘটনা ঘটেছে। চুরি সাথে জড়িতদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

প্রসঙ্গত, গত বছর ১৬ মার্চ ঘটনাস্থলের নিকটবর্তী পুরাতন বাজার সোনাপট্টির বৈদ্যনাথ জুয়েলারিতে সুড়ঙ্গ খুড়ে ১০৬ ভরি স্বর্ণ চুরির ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় অভিযুক্তদের কয়েকজন গ্রেফতার হয়। পরে তারা জামিনে ছাড়া পেয়ে যায়।


আরও খবর
সিলেট নগরী থেকে গৃহবধূর গলিত লাশ উদ্ধার

বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




কুমিল্লায় কাভার্ড ভ্যান-অটোরিকশার সংঘর্ষে নিহত ৫

প্রকাশিত:রবিবার ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
রবিউল বাশার খান, কুমিল্লা

Image

কুমিল্লার দাউদকান্দিতে কাভার্ড ভ্যান ও সিএনজি চালিত অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষে ঘটনাস্থলেই পাঁচজন নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে আরও দুইজন। আহতদেরকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় প্রেরণ করা হয়েছে।

রোববার (১১ ফেব্রুয়ারি) সকালে উপজেলার গৌরিপুর-কচুয়া এলাকার সড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন দাউদকান্দি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মোজাম্মেল হক।

তিনি বলেন, দুর্ঘটনাকবলিত সিএনজিটি গৌরিপুরের দিকে যাচ্ছিল। আর কাভার্ড ভ্যানটি কচুয়ার দিকে। এ সময় যানবাহন দুইটির মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই নিহত হয়েছে ৫ জন।


আরও খবর
সিলেট নগরী থেকে গৃহবধূর গলিত লাশ উদ্ধার

বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




ইন্দোনেশিয়ার জাতীয় নির্বাচন আজ

প্রকাশিত:বুধবার ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

ইন্দোনেশিয়ায় চলছে জাতীয় নির্বাচন। দেশটির নতুন প্রেসিডেন্ট, ভাইস-প্রেসিডেন্ট, সংসদ সদস্য ও স্থানীয় প্রতিনিধি নির্বাচিত হবে এই নির্বাচনে। এই নির্বাচনে প্রায় ২ লাখ ৬০ হাজার প্রার্থী লড়ছেন। বিশ্বের সবচেয়ে বড় একদিনের নির্বাচন এটি। খবর আল জাজিরা।

১৯৯৮ সালে সুহার্তোর একনায়কত্বের অবসানের পর দেশটিতে পঞ্চমবারের মতো প্রেসিডেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এই নির্বাচনে প্রায় ২০ কোটি ৫০ লাখ মানুষ ভোট দেওয়ার যোগ্য।

নির্বাচনের প্রধান তিন প্রেসিডেন্ট প্রার্থীর মধ্যে আছেন বর্তমান প্রতিরক্ষামন্ত্রী প্রাবোও সুবিয়ানতো, জাকার্তার সাবেক গভর্নর আনিয়েস বাসওয়েদান ও সেন্ট্রাল জাভার গভর্নর গাঞ্জার প্রানো। আজকের নির্বাচনের মাধ্যমে সরাসরি প্রেসিডেন্ট হতে প্রার্থীকে মোট ভোটের ৫০ শতাংশের বেশি পেতে হবে। পাশাপাশি তাঁকে দেশটির ৩৮ প্রদেশের অর্ধেকের বেশি স্থানে অন্তত এক-পঞ্চমাংশ ভোট পেতে হবে। এই শর্ত পূরণ না হলে শীর্ষ দুই প্রার্থীকে নিয়ে আগামী জুন মাসে দ্বিতীয় দফার ভোট হবে।

ভোট উপলক্ষে ২৮ কোটি জনসংখ্যার দেশ ইন্দোনেশিয়ায় আজ সরকারি ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। ৮ লাখের বেশি কেন্দ্রে আজ ভোট নেওয়া হচ্ছে। ভোটকেন্দ্রে ৫৭ লাখের বেশি ব্যক্তি নির্বাচনী দায়িত্ব পালন করছেন। ছয় ঘণ্টা ধরে ভোট গ্রহণ চলবে। আজ বুধবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) স্থানীয় সময় বিকেলের দিকে ভোট গ্রহণ শেষ হবে।

ইন্দোনেশিয়ার নির্বাচন প্রতিবারই বিশ্বজুড়ে বেশ আলোচিত হয়। দেশটি আকারে বিশাল। এটি যুক্তরাষ্ট্রের থেকেও বেশি প্রশস্থ। দেশটির আছে ১৮ হাজার দ্বীপ। তিনটি টাইম জোনে ভোটগ্রহণ চলছে দেশটিতে। আজকের মধ্যেই নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণার কথা রয়েছে।

ইন্দোনেশিয়া বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম নির্বাচনি গণতন্ত্রের দেশ। আবার এটি মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশের মধ্যেও সবথেকে বড়। ১৯৯৮ সালে সুহার্তোর শাসনামল শেষ হওয়ার পর থেকে দেশটি নিরবছিন্নভাবে গণতন্ত্রের পথে হাটছে। অর্থনৈতিক দিক থেকে প্রতিবেশী মালয়েশিয়া, সিঙ্গাপুর, ব্রুনেই ও থাইল্যান্ডের থেকে পিছিয়ে থাকলেও, ক্রমশ এই অবস্থার পরিবর্তন হচ্ছে।

মোট ১৫০টিরও বেশি ভাষাভাষির মানুষ রয়েছে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশটিতে। ইন্দোনেশিয়ার নির্বাচনে মোট ২০ হাজার জাতীয় ও আঞ্চলিক আইনপ্রনেতাকে নির্বাচিত করবে সেদেশের জনগণ। নির্বাচনের ফলাফলে সবচেয়ে বড় ভূমিকা রাখবে তরুণ ভোটাররা। ভোটারদের অর্ধেকের বয়সই ৪০ বছরের কম।

নিউজ ট্যাগ: ইন্দোনেশিয়া

আরও খবর
সৌদি আরবে এক দিনে সাতজনের শিরশ্ছেদ

বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




দেশের মানুষের ন্যায় বিচার নিশ্চিত করতে হবে : প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আমি চাই, আমার দেশের মানুষ ন্যায়বিচার পাবে। আমাদের মতো যেন বিচারহীনতায় তাদের কষ্ট পেতে না হয়। তারা যেন ন্যায়বিচার পায় এবং দেশের মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকার এবং অর্থনৈতিক-সামাজিক ও সাংস্কৃতিক অধিকার সুনিশ্চিত হয়। বাংলাদেশ যেন এগিয়ে চলে এবং ভারত-বাংলাদেশ বন্ধুত্ব যেন চিরস্থায়ী হয়।

শনিবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) সকালে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে দক্ষিণ এশিয়ার একবিংশ শতাব্দীর সাংবিধানিক আদালত: ভারত-বাংলাদেশের অভিজ্ঞতা শীর্ষক দুই দিনব্যাপী আন্তর্জাতিক সম্মেলনের সমাপনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

আওয়ামী লীগ সরকারের নেওয়া নানান উদ্যোগ তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আমরা সরকারে আসার পর থেকে মানুষ যাতে ন্যায়বিচার পায়, তার জন্য আমরা বিভিন্ন কর্মসূচি বাস্তবায়ন শুরু করি।

শেখ হাসিনা বলেন, মানবাধিকারের কথা শুনি, ন্যায়বিচারের কথা শুনি। সেই ন্যায়বিচার পাওয়ার অধিকার কি আমাদের ছিল না? আমি অনেকবারই হাইকোর্টে গিয়েছি, অনেক অনুষ্ঠানে গেছি। আমি যখন গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার সংগ্রাম করি, আমি বারবার এ প্রশ্নটাই করেছি, বিচারের বাণী নিভৃতে কাঁদে। আমরা বিচার পাবো না?

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আজ দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নতিটা হচ্ছে, সেটা গণতান্ত্রিক ধারা অব্যাহত আছে বলে এবং একটা স্থিতিশীল পরিবেশ আছে বলেই এটা সম্ভব হয়েছে। আজকে এটা প্রমাণিত সত্য যে, মানুষের জীবনে ন্যায়বিচার প্রাপ্তি, আর্থ-সামাজিক উন্নতি, এটা একমাত্র হতে পরে যখন মানুষের মৌলিক চাহিদা পূরণ করার সুযোগ হয় এবং দেশটা উন্নয়নের পথে এগিয়ে যেতে পারে। আওয়ামী লীগ সরকারই বিচার বিভাগ ও নির্বাচন কমিশনকে স্বাধীন করেছে বলে উল্লেখ করেন শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের সংবিধানে তো বিচার পাওয়ার অধিকার সকলেরই আছে কিন্তু সেখানে আমাদের প্রশ্ন যে, আমরা কি অপরাধ করেছিলাম? ১৯৮১ সালের আগে ছয় বছর আমাকে প্রবাসে থাকতে হয়, কারণ তখনকার মিলিটারি ডিকটেটর আমাকে আসতে দেবে না দেশে। রেহানাকেও আসতে দেবে না এবং তার পাসপোর্টটাও রিনিউ করতে দেয়নি।

তিনি বলেন, সে অবস্থায় আমাকে যখন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি আমার অবর্তমানে নির্বাচিত করা হয়, এক রকম জোর করে, জনগণের সমর্থন নিয়েই আমি দেশে ফিরে আসি। আমি যখন আমার বাবা-মা, ভাইয়ের হত্যার বিচারের জন্য মামলা করতে যাই, সেখানে মামলা করা যাবে না। ইনডেমনিটি অর্ডিন্যান্স দিয়ে খুনীদের বিচারের হাত থেকে মুক্তি দেওয়া হয়েছে। এটা কেমন ধরনের কথা?

সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশের প্রধান বিচারপতি ওবায়দুল হাসান। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ভারতের প্রধান বিচারপতি ধনঞ্জয় যশবন্ত চন্দ্রচূড় (ডি ওয়াই চন্দ্রচূড়) এবং বাংলাদেশের আইনমন্ত্রী আনিসুল হক।


আরও খবর