আজঃ বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১
শিরোনাম

রংপুরে পরকীয়ায় বাধা দেয়ায় স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৩ আগস্ট ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৩ আগস্ট ২০২১ | ৮৫৫জন দেখেছেন
Image

রংপুর প্রতিনিধিঃ

রংপুরের পীরগাছায় পরকীয়ায় বাধা দেয়ায় স্বামী সাহেব আলীর বিরুদ্ধে স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় পারিবারিক ভাবে দফারফার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়ে গা ঢাকা দিয়েছে অভিযুক্ত সাহেব আলী।

শুক্রবার (১৩ আগস্ট) ভোরে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আহত হাজেরা বেগমের মৃত্যু হয়।

এর আগে বৃহস্পতিবার (১২ আগস্ট) রাতে উপজেলার হাউদারপাড় নামক গ্রামে এঘটনা ঘটে। নিহত হাজেরা বেগম তিন সন্তানের জননী।

নিহতের পরিবার ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, হাউদারপাড় গ্রামের মোন্নাফ মিয়ার ছেলে সাহেব আলীর সাথে প্রায় ১৫ বছর আগে হাজেরা বেগমের বিয়ে হয়। তাদের সংসারে তিন কন্যা সন্তান রয়েছে। তবে ছেলে সন্তানের জন্ম না হওয়ায় স্ত্রী হাজেরা বেগমের সাথে প্রায়ই সাহেব আলী ঝগড়া হতো।

একপর্যায়ে সাহেব আলী ছেলে সন্তানের আশায় দ্বিতীয় বিয়ের জন্য স্ত্রীর অনুমতি চান। এতে হাজেরা বেগম সায় না দেয়ায় তার ওপর দিনের পর দিন শরীরিক নির্যাতন বাড়তে থাকে। সম্প্রতি সময় সাহেব আলী একাধিক পরকীয়া প্রেমে জড়িয়ে পড়েন। বিষয়টি জানাজানি  হলে হাজেরা তার স্বামীকে বাধা দেয়ায় দ্বন্দ্বের সৃষ্টি হয়।

এরই জের ধরে বৃহস্পতিবার রাতে স্ত্রী হাজেরা বেগমকে বেধরক মারপিট করেন সাহেব আলী। এতে গুরুত্বর অসুস্থ হলে তাকে উদ্ধার করে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার ভোরে মারা যান ছত্রিশ বছর বয়সী হাজেরা।

পরিবারের দাবি হাজেরা বেগমকে পিটিয়ে হত্যা করেছে তার স্বামী সাহেব আলী। এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করে অভিযুক্ত সাহেব আলীর শাস্তির দাবি জানিয়েছে।

এদিকে রংপুর মেডিকেল কলেজের ফরেনসিক বিভাগের অধ্যাপক ডা. আসমাউল হুসনা লাশের ময়নাতদন্ত করেন। তিনি জানান, নিহত গৃহবধূর মাথা ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে ক্ষত থাকলেও তার মৃত্যুর সঠিক কারণ এখনই বলা যাচ্ছে না। ফরেনসিক প্রতিবেদনের পর প্রকৃত কারণ জানা যাবে।

মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে পীরগাছা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আজিজুল ইসলাম বলেন, হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গৃহবধূ হাজেরা বেগমের মৃত্যু হয়েছে বলে আমি জেনেছি। এখন পর্যন্ত থানায় কোন অভিযোগ করা হয়নি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।


আরও খবর
মসজিদ থেকে জঙ্গি সন্দেহে আটক ৪৫

শুক্রবার ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১




ফেরি পারের অপেক্ষা করছে শত শত যানবাহন

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৭ আগস্ট ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ আগস্ট ২০২১ | ৪২৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

পদ্মার পানি বিপৎসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হওয়ায় নদীতে তীব্র স্রোত দেখা দিয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় দৌলতদিয়া পয়েন্টে পদ্মার পানি ৪ সেন্টিমিটার কমলেও বিপৎসীমার ৪৫ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। ফলে তীব্র স্রোতে দৌলতদিয়ায় লঞ্চ ও ফেরি চলাচল ব্যাহত হচ্ছে।

এতে ঘাট এলাকায় ও ঘাট থেকে সাড়ে ১৩ কিলোমিটার পেছনে ফেরি পারের জন্য অপেক্ষা করছে শত শত যানবাহন। ফেরি পারের জন্য দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করায় ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে চালক ও সহকারীদের।

শুক্রবার (২৭ আগস্ট) দৌলতদিয়া ফেরিঘাট এলাকায় গিয়ে এমন চিত্র দেখা যায়।

সরেজমিনে ঘাট এলাকায় দেখা যায়, দৌলতদিয়া ফেরিঘাটের জিরো পয়েন্ট থেকে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের দৌলতদিয়া ইউনিয়ন পরিষদ পর্যন্ত সাড়ে ৩ কিলোমিটার এলাকায় মহাসড়কের দুই লাইনজুড়ে প্রায় ৩০০ গাড়ির দীর্ঘ লম্বা লাইন তৈরি হয়েছে। অপেক্ষমাণ এসব যানবাহনের মধ্যে পণ্যবাহী ট্রাকের সংখ্যা বেশি।

অন্যদিকে ফেরিঘাটে যানজট কমাতে ঘাট থেকে সাড়ে ১৩ কিলোমিটার পেছনে রাজবাড়ী-কুষ্টিয়া আঞ্চলিক মহাসড়কের গোয়ালন্দ মোড় থেকে কল্যাণপুর জামে মসজিদ পর্যন্ত দুই কিলোমিটার এলাকায় প্রায় ২০০ অপচনশীল পণ্যবাহী ট্রাককে আটকে রাখা হয়েছে, যা অগ্রাধিকার ভিত্তিতে পার করা হবে।

গোয়ালন্দ মোড়ে আটকে থাকা ট্রাকচালক আকাশ শেখ বলেন, বেনাপোল থেকে মাল নিয়ে ঢাকা যাচ্ছি। গতকাল রাতে গোয়ালন্দ মেড়ে এলে ট্রাফিক পুলিশ আটকে দেয়। পরবর্তী সিরিয়ালে আটকে থাকি। রাত পার হয়ে সকাল হলেও এখনো ফেরির দেখা পাইনি।

ঘাটসংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, পদ্মা নদীতে তীব্র স্রোত। ফলে দৌলতদিয়া ঘাটে ফেরি ভিড়তে সময় বেশি লাগছে। দৌলতদিয়া থেকে মানিকগঞ্জের পাটুরিয়া ঘাটে যাওয়ার সময় স্রোত কমবেশি অনুকূলে থাকছে। ফলে ফেরি পৌঁছে যাচ্ছে ২০-২৫ মিনিটেই। কিন্তু পাটুরিয়া থেকে দৌলতদিয়ায় আসার সময় বিপত্তি বাধছে।

তীব্র স্রোতের বিপরীতে চলতে গিয়ে সময় বেশি লাগছে। আবার স্রোতের কারণে ঘাটে ভিড়তেও বেগ পেতে হচ্ছে। সব মিলিয়ে ৪৫ থেকে ৫৫ মিনিট পর্যন্ত লেগে যাচ্ছে। বিশেষ করে এই নৌপথের অধিকাংশ ফেরির বয়স অনেক বেশি। ফলে ইঞ্জিনের শক্তি কমে এসেছে। এ কারণে সমস্যা বাড়ছে।

 


আরও খবর
শিয়ালের ফাঁদে মানুষের মৃত্যু

শুক্রবার ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১




জনপ্রিয় সাহিত্যিক বুদ্ধদেব গুহ আর নেই

প্রকাশিত:সোমবার ৩০ আগস্ট ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ৩০ আগস্ট ২০২১ | ৫৯০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের প্রবীণ সাহিত্যিক বুদ্ধদেব গুহ মারা গেছেন। তার বয়স হয়েছিল ৮৫ বছর। দক্ষিণ কলকাতার বেলভিউ হাসপাতালে রবিবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে তার মৃত্যু হয়। গত ৩১ জুলাই থেকে এই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন তিনি।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের খবর অনুযায়ী, চলতি বছরের এপ্রিলে করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন বুদ্ধদেব গুহ। ৩৩ দিন চিকিৎসাধীন থাকার পর করোনামুক্ত হয়ে বাড়ি ফেরেন তিনি। তবে এবার আর হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফেরা হলো না তার।

হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যার পাশাপাশি বুদ্ধদেবের মূত্রনালীতে সংক্রমণ ধরা পড়েছিল। এ ছাড়া তার লিভার এবং কিডনিতেও সামান্য সমস্যা ছিল। ফের কোভিড পরীক্ষাও করা হয়েছিল। তবে তাতে সংক্রমণ ধরা পড়েনি। দৃষ্টিশক্তির সমস্যায় ভোগা বুদ্ধদেব বয়সজনিত নানা সমস্যাতেও ভুগছিলেন।

বর্ষীয়ান সাহিত্যিক বুদ্ধদেব গুহ বহু কালজয়ী উপন্যাসের স্রষ্টা। তার উল্লেখযোগ্য লেখা, জঙ্গল মহল, বাবলি, মাধুকরী, কোজাগর, হলুদ বসন্ত, একটু উষ্ণতার জন্য, কুমুদিনী, খেলা যখন, চানঘরে গান সাহিত্যজগতে চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবে।

হলুদ বসন্ত উপন্যাসের জন্য ১৯৭৬ সালে তিনি পান আনন্দ পুরস্কার। কিশোর সাহিত্যেও তার অবদান অনস্বীকার্য। তার সৃষ্ট ঋজুদা বা ঋভুর মতো চরিত্র আকৃষ্ট করে রেখেছে কয়েক প্রজন্মের বহু কিশোর-কিশোরীর মনকে।



আরও খবর
বিশ্বজুড়ে বেড়েছে করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যু

বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১




ময়মনসিংহে একদিনে আরও ৭ জনের মৃত্যু

প্রকাশিত:শনিবার ০৪ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ০৪ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৪৯৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ডেডিকেটেড করোনা ইউনিটে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্তে কোনো রোগী মারা না গেলেও উপসর্গ নিয়ে সাতজনের মৃত্যু হয়েছে।

শুক্রবার সকাল ৮টা থেকে শনিবার সকাল ৮টা পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় তাদের মৃত্যু হয়। এদের মধ্যে ময়মনসিংহে ছয়জন এবং জামালপুরের একজন রয়েছেন। গত আগস্ট মাসে এ নিয়ে ময়মনসিংহ মেডিকেলে করোনা ও উপসর্গে ৪১৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর আগে জুলাই মাসে করোনা ও উপসর্গে ৪৮২ জনের মৃত্যু হয়েছিল।

করোনা উপসর্গে মৃত ব্যক্তিরা হলেন- ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার আনোয়ারা (৪০), সাহেব আলী (৮০), মো. জিসান (১৬), ভালুকা উপজেলার হাসমত আলী (৭৫), ফুলবাড়িয়া উপজেলার আবুল হোসেন (৭০), নান্দাইল উপজেলার শাহনাজ (৪০) এবং জামালপুর সদরের নাসিমা (২২)।

ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডেও ফোকাল পারসন মহিউদ্দিন খান জানান, করোনা ডেডিকেটেড ইউনিটে নতুন ১৪ জনসহ হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে ১৩৭ রোগী ভর্তি আছেন। এদের মধ্যে আইসিউতে আটজন চিকিৎসাধীন আছেন। এছাড়াও সুস্থ হয়ে ১৭ জন হাসপাতাল ছেড়ে গেছেন।

এদিকে সিভিল সার্জন নজরুল ইসলাম জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় ৩৮৭টি নমুনা পরীক্ষায় ৩৭ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার ৯ দশমিক ৫৬ শতাংশ। এ পর্যন্ত জেলায় মোট আক্রান্ত ২১ হাজার ২৯৮ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ১৯ হাজার ৩২৭ জন।



আরও খবর
বিস্কুটের কার্টন থেকে নবজাতক উদ্ধার

বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১

বগুড়ায় ধানক্ষেতে মিলল নারী ইউপি সদস্যের লাশ

বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১




মাদক খাইয়ে আমার পর্ন ভিডিও ধারণ করা হয়: পরী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০২ সেপ্টেম্বর 2০২1 | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০২ সেপ্টেম্বর 2০২1 | ১৬৩৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

পর্নকাণ্ডে বলিউডের অবস্থা টালমাটাল। অভিনেত্রী শিল্পা শেঠির স্বামী রাজ কুন্দ্রা গ্রেফতার হওয়ার পর থেকেই এক এক করে বেরিয়ে আসছে এই সংশ্লিষ্ট অভিযুক্ত ও ভুক্তভোগীদের নাম। বিস্ফোরক সব অভিযোগ আসছে প্রকাশ্যে। এবার সেই তালিকায় যুক্ত হলেন প্রাক্তন মিস ইউনিভার্স ইন্ডিয়া পরী পাসওয়ান।

তিনি অভিযোগ করেছেন, বলিউডে কাজ করতে গিয়ে প্রতারিত হয়েছেন তিনি। পরী বলেন, এক প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের অফিসে ডাকা হয়েছিল আমাকে। সেখানে কোমল পানিয়র সঙ্গে মাদক মিশিয়ে খাওয়ানো হয়। এরপর আমি অজ্ঞান হয়ে পড়ি। সেই অজ্ঞান অবস্থাতেই আমার পর্ন ভিডিও ধারন করা হয়। এবং সেটা ছড়িয়ে দেওয়া হয় অন্তর্জালে।

পরী জানান, এই বিষয়ে মুম্বাইয়ের একটি থানায় অভিযোগও দায়ের করেছিলেন। কিন্তু তাতে কোনো ফল হয়নি।

ভারতের ধনবাদের বাসিন্দা পরী পাসওয়ান। ছোট বেলা থেকেই তার স্বপ্ন ছিল মডেলিং করার। গ্ল্যামার দুনিয়ায় ক্যারিয়ার গড়তে মুম্বাই পাড়ি জমিয়েছিলেন। ২০১৯ সালে তিনি মিস ইউনিভার্স ইন্ডিয়া খেতাব পেয়েছিলেন।

প্রসঙ্গত, শিল্পা শেঠির স্বামী রাজ কুন্দ্রাকে পর্ন ভিডিও বানানোর অভিযোগে গত ১৯ জুলাই গ্রেফতার করে পুলিশ। এরপর থেকে কয়েক দফায় তার জামিন আবেদন করা হলেও তা মেলেনি। এখনো পর্যন্ত তাকে কারাগারে রাখা হয়েছে।

নিউজ ট্যাগ: পরী পাসওয়ান

আরও খবর
হাইকোর্টে জামিন পেলেন মডেল মৌ

বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১

আমার পছন্দের পুরুষকে একটু রাফ হতে হবে

বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১




পিরোজপুরে অস্ত্র মামলায় যুবকের ১৭ বছর সশ্রম কারাদন্ড

প্রকাশিত:বুধবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ২২০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

পিরোজপুরের ভান্ডারিয়ার একটি অস্ত্র মামলায় মো: মন্টু কবিরাজ (৩৮) নামের এক যুবকের ১৭ বছরের সশ্রম কারাদন্ড দিয়েছে পিরোজপুরের একটি আদালত।

বুধবার দুপুরে পিরোজপুর আদালতের স্পেশাল ট্রাইব্যুনাল নং-২ এর বিচারক এস,এম, নূরুল ইসলাম এ রায় প্রদান করেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ২০১৫ সালের ১৬ জুন  ঝালকাঠি জেলার কাঠালিয়া থানার একটি ডাকাতি মামলায়  আন্তঃজেলা ডাকাত দলের সদস্য নিজ ভান্ডিারিয়া এলাকার আজাহার কবিরাজের ছেলে মো: মন্টু কবিরাজকে গ্রেফতার করেন ভান্ডারিয়া থানার এস আই মো: আ: হক। পরে তার দেয়া তথ্যে অভিযান চালিয়ে মন্টুর বসত ঘরের সামনে লাকড়ির ঘর থেকে একটি দেশী তৈরী পাইপগান ও ৩ রাউন্ড বন্দুকের গুলি উদ্ধার করা হয়।

পরবর্তীতে পিরোজপুর আদালতে এস.টি.সি -২১/২০১৫ নম্বরের একটি মামলা হয়। মামলায় মন্টু কবিরজের বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ সন্দেহাতীত ভাবে প্রমাণিত হওয়ায়  ১৮৭৮ সালের অস্ত্র আইনের ১৯(এফ) ধারায় ০৭ (সাত) বছর সশ্রম কারাদন্ড এবং  ১৯এ ধারার ১০ (দশ) বছর সশ্রম কারাদন্ডে দন্ডিত করা হয়। রায়ে আরোও বর্ণিত হয় উভয় ধারার দন্ড একের পর এক কার্যকর হবে। সাথে সাথে বিচারক আসামীর বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানাইস্যুর নির্দেশ দেন। আসামী মন্টু কবিরাজ ২০১৭ সালের ১২ অক্টোবর থেকে পলাতক আছে বলে কোর্ট সূত্রে জানা গেছে।

নিউজ ট্যাগ: পিরোজপুর

আরও খবর