আজঃ সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

সাময়িকভাবে গর্ভপাত নিষিদ্ধ করল টেক্সাস সুপ্রিম কোর্ট

প্রকাশিত:শনিবার ০৯ ডিসেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:শনিবার ০৯ ডিসেম্বর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাস সুপ্রিম কোর্ট নারীদের জরুরি পরিস্থিতিতে গর্ভপাতকে সাময়িকভাবে নিষিদ্ধ করেছে। অঙ্গরাজ্যটির অ্যাটর্নি জেনারেলের অনুরোধের পর গতকাল শুক্রবার আদালত এ আদেশ দেয়।

মার্কিন সুপ্রিম কোর্ট গত বছর গর্ভপাতের সাংবিধানিক অধিকার বাতিল করার পর থেকে এই আইনি লড়াই দেশটিতে মূখ্য বিষয় হয়ে উঠেছে। এতে টেক্সাসের মতো অঙ্গরাজ্যগুলো নারীর স্বেচ্ছা গর্ভপাতকে সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ করছে।

টেক্সাসের সুপ্রিম কোর্ট দিনের শুরুতে অঙ্গরাজ্যর অ্যাটর্নি জেনারেল কেন প্যাক্সটনের একটি পিটিশনের প্রেক্ষিতে নিম্ন আদালতের দেওয়া জরুরি গর্ভপাতের অনুমতির রায় স্থগিত করেছে।

গর্ভপাতের নিষেধাজ্ঞার মধ্যে শুধুমাত্র একটি ব্যতিক্রম ধারা রয়েছে। তা হলো, যদি মায়ের জীবন বাঁচানো যায় বা বড় কোনো শারীরিক ক্ষতি রোধ করা যায়- সেক্ষেত্রে গর্ভপাত করা যেতে পারে।


আরও খবর



অতিরিক্ত আইজিপি হলেন সিএমপি কমিশনার কৃষ্ণ পদ রায়

প্রকাশিত:সোমবার ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
চট্টগ্রাম প্রতিনিধি

Image

অতিরিক্ত পুলিশ মহাপরিদর্শক (অতিরিক্ত আইজিপি) পদে পদোন্নতি পেয়েছেন চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ (সিএমপি) কমিশনার কৃষ্ণ পদ রায়।

রবিবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জননিরাপত্তা বিভাগ পুলিশ-১ শাখার উপসচিব মো. মাহাবুব রহমান শেখের সই করা এক আদেশে এ পদোন্নতি দেওয়া হয়।

একই আদেশে আরও ৯ জনকে অতিরিক্ত আইজিপি পদে পদোন্নতি দেওয়া হয়েছে। তারা হলেন-ঢাকা পুলিশ টেলিকমের উপ-পুলিশ মহাপরিদর্শক এ কে এম শহিদুর রহমান ও বশির আহম্মদ, ঢাকা ট্রেনিং ড্রাইভিং স্কুলের কমান্ড্যান্ট মো. ময়নুল ইসলাম, ঢাকা স্পেশাল সিকিউরিটি এন্ড প্রটেকশন ব্যাটালিয়নের উপ-পুলিশ মহাপরিদর্শক গোলাম কিবরিয়া, ঢাকা অপরাধ তদন্ত বিভাগের উপ-পুলিশ মহাপরিদর্শক কুসুম দেওয়ান, ঢাকা পুলিশ অধিদপ্তরের উপ-পুলিশ মহাপরিদর্শক মো. আনোয়ার হোসেন, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার এ কেম এম হাফিজ আক্তার ও ড. খ. মহিদিউদ্দিন এবং রংপুর রেঞ্জের উপ-পুলিশ মহাপরিদর্শক মো. আবদুল বাতেন।

উল্লেখ্য, ২০২২ সালের ৩০ জুন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের উপসচিব ধনঞ্জয় কুমার দাস স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার কৃষ্ণ পদ রায়কে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার হিসেবে পদায়ন করা হয়।

হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলার সদর ইউনিয়নের হালিতলা গ্রামের গোপাল চন্দ্র রায় এবং রমা রানী রায়ের প্রথম সন্তান কৃষ্ণ পদ রায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিষয়ে অনার্স ও মাস্টার্স ডিগ্রি অর্জন করেন।

ঢাকায় ইংরেজি দৈনিক ডেইলি স্টারের স্টাফ রিপোর্টার পদে বেশ কিছুদিন দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৯৫ সালে ১৫তম বিসিএস পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে বাংলাদেশ পুলিশে নিয়োগ পান তিনি। তার কর্মজীবন শুরু হয় বগুড়ায়।

শেরপুর ও চাঁদপুর জেলার পুলিশ সুপার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন কৃষ্ণ পদ রায়। এরপর চট্টগ্রাম মেট্রোপিলিটন পুলিশের (সিএমপি) সহকারী কমিশনার পদে দায়িত্ব পালন করেন তিনি। ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের রমনা জোনের ডেপুটি কমিশনার, ডিবি পুলিশের ডেপুটি কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন কৃষ্ণ পদ রায়।

পরবর্তীতে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের যুগ্ম পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম) হিসেবে দায়িত্ব পালনকাল করেন কৃষ্ণ পদ রায়। ডিআইজি পদমর্যাদায় অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার ক্রাইম ও অপারেশন পদেও দায়িত্ব পালন করেন। গত বছরের ৭ নভেম্বর ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার পূর্ণ দায়িত্ব পান তিনি।

নিউজ ট্যাগ: কৃষ্ণ পদ রায়

আরও খবর



৫৫ দেশে গাধার চামড়া ব্যবসা নিষিদ্ধ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

গাধার চামড়া বিক্রির বিতর্কিত চর্চা নিষিদ্ধ করল আফ্রিকান ইউনিয়ন। আফ্রিকা মহাদেশভিত্তিক এই জোটের ৫৫টি দেশে দেশে চামড়ার জন্য গাধা হত্যা বন্ধ করা হলো। এই সিদ্ধান্তকে প্রাণী অধিকার সংগঠনলো স্বাগত জানিয়েছে। গত রোববার ইথিওপিয়ায় অনুষ্ঠিত আফ্রিকান ইউনিয়ন শীর্ষ সম্মেলনে নেতারা এই নিষেধাজ্ঞায় অনুমোদন দেয়।

এজিয়াও নামে প্রাচীন চীনা ওষুধের কাঁচামাল হিসেবে ব্যবহৃত হয় গাধার চামড়া। ধারণা করা হয়, এজিয়াও মানুষের যৌবন বা তারুণ্য ধরে রাখে; ত্বক সুস্থ ও সুন্দর রাখে। বৈজ্ঞানিক প্রমাণ না থাকলেও দিন দিনই ওষুধটির চাহিদা বাড়ছে। এ কারণে গাধার চামড়া বিক্রিও বাড়ছে।

প্রাণী অধিকার সংস্থা দ্য চ্যারিটি, দ্য ডংকি স্যাংকচুয়ারি বিবিসিকে বলেন, চামড়া বিক্রির চর্চার কারণে আফ্রিকা ও লাতিন আমেরিকার দেশগুলোতে গাধার সংখ্যা ব্যাপক হারে কমে যাচ্ছে।

এজিয়াও উৎপাদনের জন্য আগে দেশীয় গাধার চামড়া ব্যবহার করতো চীনা কোম্পানিগুলো। চাহিদার চেয়ে সরবরাহে টান পড়ায় তাঁরা গাধার চামড়ার জন্য দেশের বাইরে খোঁজ শুরু করে। 

আরও পড়ুন>> ইসরায়েলের বর্বরতা : খাবারের জন্য অপেক্ষারত ফিলিস্তিনিদের ওপর গুলি বর্ষণ

কেনিয়ার গাধা অভয়ারণ্যের ডা. সোলোমোন অনয়াঙ্গো বিবিসিকে জানান, শুরুতে সরকার এটাকে সুযোগ হিসেবে বিবেচনা করে এবং আফ্রিকায় অনেক বৈধ জবাইখানা তৈরি হতে থাকে। কিন্তু এর ফলে ২০১৬ ও ২০১৯ সালের মধ্যে আমাদের অর্ধেকের বেশী গাধা মারা পড়ে।

ডা. অনয়াঙ্গো আরো জানান, এই নিষেধাজ্ঞা গাধা সংরক্ষণে এবং গাধার উপর নির্ভরশীল লাখো মানুষের জীবিকা বাঁচাতে সহায়ক হবে। বিশ্বের দুইতৃতীয়াংশ বা ৫ কোটি ৩০ লাখ গাধার চারণভূমি আফ্রিকা। দরিদ্র ও প্রান্তিক মানুষ যোগাযোগ ও মালামাল বহনের কাজে গাধা ব্যবহার করে থাকে।

ইথিওপিয়ায় গাধার অর্থনৈতিক মূল্য পরিমাপের এক সমীক্ষায় দেখা যায়, পরিবারে কোনো গাধা না থাকার অর্থ হলো একেবারে নিঃস্ব হওয়া।

পূর্ব আফ্রিকার প্রাণী কল্যাণ দাতব্য সংস্থা দ্য ব্রুকের আঞ্চলিক পরিচালক রাফায়েল কিনোটি বলেন, আফ্রিকার সেসব সম্প্রদায়ের জন্য এটি নিঃসন্দেহে দুর্দান্ত এক মুহূর্ত যারা দীর্ঘদিন ধরে গাধা থেকে উপকৃত হয়েছে। মানুষের তারুণ্য ধরে রাখতে জীবন যায় লাখো গাধারমানুষের তারুণ্য ধরে রাখতে জীবন যায় লাখো গাধার

কিনোটি আরো জানান, চামড়ার জন্য গাধা হত্যার এই প্রক্রিয়া আফ্রিকার মানুষের জীবন বিভীষিকাময় করে দেয়। এ সম্প্রদায়ের সংস্কৃতি ও পরিচয়; এ আঞ্চলের জীববৈচিত্র্য- সবকিছু হুমকির মুখে ফেলে দিয়েছিল।  সকলের সর্বোচ্চ কল্যাণার্থে এ সিদ্ধান্তে আফ্রিকান ইউনিয়নের সকল সদস্যকে অনড় ও অবিচল থাকতে হবে।


আরও খবর



মনোনয়নের প্রার্থী সংখ্যাই প্রমাণ করে নারী জাগরণ ঘটেছে : শেখ হাসিনা

প্রকাশিত:বুধবার ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক

Image

জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত আসনে আওয়ামী লীগের ৪৮ আসনের বিপরীতে মনোনয়নপ্রত্যাশী ১৫৫৩ জন। এ সংখ্যাই প্রমাণ করে যে নারী জাগরণ ঘটেছে।

বুধবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) সকালে গণভবনে সংরক্ষিত আসনে মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সঙ্গে সাক্ষাতের সময় এসব কথা বলেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, যে আদর্শ নিয়ে জাতির পিতা দেশ স্বাধীন করেছিলেন তা ব্যর্থ হতে পারে না। সে আদর্শকে ধরে রাখতেই দেশে ফিরে আসা। কবরের মাটি ছুঁয়ে শপথ নিয়েছিলাম, এ স্বাধীনতা ব্যর্থ হতে দেবো না। তাই করেছি। তবে সে চলার পথ সহজ ছিল না।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা সব সময় অত্যাচার নির্যাতন সহ্য করেছে। জেল-জুলুম সব সহ্য করেই ক্ষমতায় এসেছি। জীবনের হুমকি ছিল বারবার। লক্ষ্য ছিল, যুদ্ধ করে বিজয় অর্জন করা এ দেশকে সম্মানের জায়গায় নিয়ে যাওয়া। আজ তা অর্জন করেছি।

শেখ হাসিনা বলেন, মেয়েরা সাফ্যলের সঙ্গে যে কোনো কাজ সম্পন্ন করে। পড়াশোনায় নারী আজ এগিয়ে। কর্মক্ষেত্রেও সফলতার স্বাক্ষর রাখছে। বিভিন্ন পেশায় ভালো করছে। নানান বাধা পেরিয়ে মেয়েরা আজ খেলাধুলার মাঠে আসছে। এখানেও এগিয়েছে তারা। এখন মেয়েরা অনেক পদক আনছে।

তিনি বলেন, মেয়েরা খেলতে পারবে না, ব্যবসা করবে না- ইসলাম ধর্মেও এমন বলা নেই। প্রথম ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করে একজন নারী, কোনো পুরুষ নয়। সাহস করে বিবি খাদিজা এগিয়ে এসেছেন। তিনি ব্যবসা করতেন।

আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনা মনোনয়ন প্রত্যাশীদের উদ্দেশ্য করে বলেন, দলের সবাইকে কাজ করতে হবে। দলের সব নেত্রী বিভিন্ন আন্দোলন সংগ্রাম করেছে, নির্যাতনের শিকার হয়েছে। তাই মনোনয়ন না পেলেও নেতৃত্ব দেওয়ার আকাঙ্ক্ষা যেন চলে না যায়। নেতৃত্ব দেওয়ার মনোভাব নিয়ে এগিয়ে যেতে হবে। নিজে কী পেলাম, তা না ভেবে জনগণের জন্য কাজ করে যেতে হবে। কাউকে পিছিয়ে রেখে নয়, সবাইকে নিয়ে কাজ করতে হবে।


আরও খবর
জানুয়ারিতে সড়ক দুর্ঘটনায় ৪৮৬ মৃত্যু

রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




ঘুমধুম সীমান্তে অনুপ্রবেশের অপেক্ষায় মিয়ানমারের ৪০০ চাকমা

প্রকাশিত:সোমবার ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম সীমান্তের ওপারে চলমান সংঘর্ষের মধ্যে দেশটির চাকমা সম্প্রদায়ের প্রায় ৪০০ জন বাংলাদেশে অনুপ্রবেশের অপেক্ষায়। পাশাপাশি কিছুসংখ্যক রোহিঙ্গাও বাংলাদেশে অনুপ্রবেশের অপেক্ষায় সীমান্তে জড়ো হচ্ছেন।

কক্সবাজারের শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার (আরআরআরসি) মো. মিজানুর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, মিয়ানমারে দেশটির সরকারের জান্তা বাহিনীর সঙ্গে বিদ্রোহী গোষ্ঠী আরকান আর্মির সংঘর্ষ চলছে। এতে মিয়ানমার সীমান্তে বসবাসকারীদের মধ্যে খাদ্যসংকট দেখা দিয়েছে। তাদের জীবন ঝুঁকির মধ্যে আছে। এই অবস্থায় তারা জীবন বাঁচাতে বাংলাদেশে ঢোকার চেষ্টা করছেন।

প্রসঙ্গত, মিয়ানমারের সরকারি বাহিনী ও বিদ্রোহী গোষ্ঠী আরাকান আর্মির (এএ) মধ্যে চলা সংঘর্ষে দেশটির সীমান্তরক্ষী বাহিনী বর্ডার গার্ড পুলিশের (বিজিপি) ৯৫ জন সদস্য অস্ত্রসহ বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে।

বিজিবি সদর দপ্তরের জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. শরীফুল ইসলাম জানান, মিয়ানমারের অভ্যন্তরে চলমান সংঘর্ষের জেরে এখন পর্যন্ত দেশটির সীমান্তরক্ষী বাহিনী বর্ডার গার্ড পুলিশের (বিজিপি) ৯৫ জন সদস্য অস্ত্রসহ বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে। বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) তাদের নিরস্ত্রীকরণ করে নিরাপদ আশ্রয়ে নিয়েছে।

এদিকে সোমবার (৫ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে মিয়ানমার থেকে ছোড়া মর্টারশেলের আঘাতে ঘুমধুম সীমান্তের জলপাইতলীতে এক বাংলাদেশিসহ দুইজন নিহত হয়েছেন। নিহতরা হলেন ঘুমধুম সীমান্তের জলপাইতলীর বাসিন্দা হাসিনা বেগম এবং অপরজন মিয়ানমার থেকে আসা রোহিঙ্গা বৃদ্ধা। তিনি ওই বাড়িতে কাজ করছিলেন। তার পরিচয় জানা যায়নি।

সীমান্ত এলাকায় চলমান অস্থিরতার কারণে বান্দরবান পার্বত্য জেলার নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার সীমান্তবর্তী ৫টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। বিদ্যালয়গুলা হলো- বাইশপারি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ভাজবনিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, তুমব্রু সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, পশ্চিমকুল তুমব্রু সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও দক্ষিণ ঘুমধুম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়।


আরও খবর



স্বর্ণ কেনার সেরা সময় এখনই

প্রকাশিত:শনিবার ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
অর্থ ও বাণিজ্য ডেস্ক

Image

শতাব্দীর পর শতাব্দী ধরে মহামূল্যবান সম্পদ হিসেবে বিবেচিত হয়ে আসছে স্বর্ণ। নেপথ্যে রয়েছে নানা কারণ। বিশেষ করে ধাতুটির দাম কখনও কমে না। অধিকন্তু অর্থনৈতিক অস্থিরতার সময় ব্যাপক আর্থিক নিরাপত্তা দেয় এটি। যুগ যুগ ধরে স্বর্ণের চাহিদা রয়েছে। কারণ, এটি সবসময় কেনা ও বেচা যায়। ফলে সময়ের পরিক্রমায় দামি সম্পদে পরিণত হয়েছে নিরাপদ আশ্রয় ধাতুটি।

তবে স্বর্ণ কেনা সবসময় লাভজনক নয়। নির্দিষ্ট কিছু সময়ে এটি কিনলে ব্যাপক মুনাফা করা যায়। অর্থাৎ মোটা অংকের লাভের মুখ দেখা যায়। প্রভাবশালী মার্কিন সংবাদমাদ্যম সিবিএসের এক প্রতিবেদনের আলোকে তা আলোচনা করা হলো।

১. গত ডিসেম্বরের শেষদিকে ১ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ স্তরে উঠেছিল স্বর্ণের দাম। সেই থেকে এখন পর্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ধাতুটির দর কমেছে ৬০ ডলার ০৯ সেন্ট বা ২ দশমিক ৮৯ শতাংশ। বর্তমানে বুলিয়ন বাজার নিম্নমুখী রয়েছে। তবে অদূর ভবিষ্যতে এ ধারা অব্যাহত থাকবে না। আগামী কয়েক মাসের মধ্যেই স্বর্ণের মূল্য বৃদ্ধি পাবে। ফলে এখন কিনে রাখলে সামনে সেটি বিক্রি করে লাভবান হওয়া যাবে।

২. মূল্যস্ফীতি বাড়লে স্বর্ণের দাম বৃদ্ধি পায়। বিশ্লেষকদের পূর্বাভাস, আগামী দিনেও পণ্যদ্রব্যের দর ঊর্ধ্বমুখী থাকবে। তাদের আভাস আমলে নিয়ে নিশ্চিত বলা যায়, সামনে স্বর্ণের মূল্যও বৃদ্ধি পাবে। তাই এখন কিনে রাখলে নিকটবর্তী সময়ে অধিক মুনাফা করা যাবে।

৩. বিভিন্ন পণ্যের ব্যবসা করলে লোকসানের ঝুঁকি কম থাকে। যেমন-শেয়ারবাজারে যেকোনো মুহূর্তে ধস নামতে পারে। আবার অনেক সময় বন্ডে বিনিয়োগ করেও প্রত্যাশা অনুযায়ী মুনাফা পাওয়া যায় না। কিন্তু স্বর্ণ ব্যবসায় ক্ষতির সম্ভাবনা কম। ফলে বিনিয়োগেও বৈচিত্র্য আনতে হয়। এতে এক পণ্য মুখ থুবড়ে পড়লেও অন্য পণ্যে লাভ হয়। এক্ষেত্রে উত্তম মাধ্যম স্বর্ণ। তাতে কখনও লোকসান গুনতে হবে না।

৪. বিদায়ী ২০২৩ সালের শুরুতে আন্তর্জাতিক বাজারে প্রতি আউন্স স্বর্ণের দাম ছিল ১৮৩৪ ডলার। গত বছরের শেষদিকে তা ছিল ২০১৯ ডলার। এ সময় মূল্যবান ধাতুটির মূল্য বৃদ্ধি পেয়েছে ১৮৪ ডলার বা ১০ শতাংশ। নেপথ্য কারণ বিশ্বজুড়ে ভূ-রাজনৈতিক অস্থিরতা এবং অর্থনৈতিক সংকট বিদ্যমান। শিগগিরই এ অবস্থার পরিবর্তন ঘটবে বলে মনে হচ্ছে না। এর মানে অদূর ভবিষ্যতে স্বর্ণের দাম আরও বাড়বে। সবমিলিয়ে দুঃসময়ের বন্ধু ধাতুটি কেনার সেরা সময় এখনই।


আরও খবর
২৪ দিনে প্রবাসী আয় ১৮ হাজার কোটি টাকা

রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪