আজঃ শনিবার ২৩ অক্টোবর ২০২১
শিরোনাম

সাতক্ষীরা সীমান্তে ১৫টি ময়ূরসহ দুজন আটক

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৬৮৫জন দেখেছেন
Image

সাতক্ষীরা থেকে দিলীপ কুমার দেব:ভারতে পাচারের সময় সাতক্ষীরা সদর উপজেলার বৈকারী সীমান্ত থেকে ১৫টি ময়ূরের বাচ্চাসহ ২জনকে আটক করেছে পুলিশ। সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) বৈকারী সীমান্তের জামতলা গ্রামে অভিযান চালিয়ে ময়ূরগুলো উদ্ধারের পর রাতে বন বিভাগের নিকট হস্তান্তর করা হয়।

সাতক্ষীরা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ দেলোয়ার হুসেন বলেন, পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) সাতক্ষীরা সদর উপজেলার সীমান্ত এলাকা জামতলা অবস্থান নিলে পুলিশ একটি সাদা মাইক্রো দেখতে পায়। পুলিশ তার পিছু নিয়ে নিকটস্থ একটি আম বাগানে মাইক্রোবাসসহ মিন্টু খাঁ (৩৭) ও অর্ণব দাস (২৪)কে আটক করে। তাদের আটকের পর মাইক্রোবাসটি খুললে বাসের সিটের নিচে একে ১৫টি দুর্লভ ময়ূর পাখির বাচ্চা পাওয়া যায়। আটককৃতরা এই ১৫টি ময়ূর পাখির বাচ্চা ভারতে পাচার করার কথা স্বীকার করেন।

আটক হওয়া ২জন ময়মনসিংহের মুক্তাগাছা উপজেলার বাসিন্দা। আটককৃত ১৫টি ময়ূর তাৎক্ষণিকভাবে আদালতের নির্দেশে বন বিভাগের নিকট হস্তান্তর করা হবে বলে জানান, সাতক্ষীরা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ দেলোয়ার হুসেন।

সোমবার বিকালে পুলিশের কাছ থেকে ময়ূরগুলো গ্রহণকালে খুলনা বন অধিদপ্তরের বন্যপ্রাণি ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগের কর্মকর্তা মোঃ মফিজুর রহমান চৌধুরী বলেন, বাংলাদেশে বন অধিদপ্তরের বন্যপ্রাণি ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগের সম্মতি ছাড়া ময়ূর সংরক্ষণ ও বেচাকেনার কোনো সুযোগ নেই। আদালতের নির্দেশ পেলে উদ্ধারকৃত ময়ুরগুলো সাফারি পার্কে সংরক্ষণ করা হবে বলে তিনি জানান।

নিউজ ট্যাগ: সাতক্ষীরা ময়ূর

আরও খবর



‘সাহেদের সঙ্গে আপনার এত মহব্বত কীভাবে’

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৭ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৭ অক্টোবর ২০২১ | ৬২৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আলোচিত রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাহেদ ওরফে সাহেদ করিমের সঙ্গে কী করে খাতির হয়েছিল, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সাবেক মহাপরিচালক (ডিজি) আবুল কালাম আজাদের কাছে তা জানতে চেয়েছেন বিচারক।

রিজেন্ট কেলেঙ্কারির মামলায় ডা. আজাদ বৃহস্পতিবার আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করেন। পরে ঢাকা মহানগরের জ্যেষ্ঠ বিশেষ জজ কেএম ইমরুল কায়েশ ২ নভেম্বর পর্যন্ত জামিন মঞ্জুর করেন। সেই শুনানিতেই স্বাস্থ্যের ডিজিকে বিচারক ওই প্রশ্ন করেন। শুনানি চলাকালে আবুল কালাম আজাদ বিচারককে বলেন,  আমি সারাজীবন কোনো অন্যায় করিনি, আর কখনও অন্যায় করবও না।

তিনি বলেন, সারা পৃথিবীতে করোনার যে অবস্থা, সেই অবস্থায় সচিব মহোদয়ের নির্দেশে মানুষের জীবন বাঁচাতে এটা (রিজেন্টের সঙ্গে চুক্তি) করতে হয়েছিল। স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও সচিব মহোদয়ের সামনে (চুক্তি) স্বাক্ষর করা হয়েছিল।

আবুল কালাম আজাদ বলেন, সাহেদ যে একজন প্রতারক, সেটি আমার জানা ছিল না। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে রিজেন্ট হাসপাতালের মাধ্যমে দৈনিক ৫০টি করোনা টেস্ট করার নির্দেশ দেওয়া হয়।

কিন্তু মানবসেবার নামে করোনাভাইরাস পরীক্ষা করার জন্য টাকা নিচ্ছে রিজেন্ট হাসপাতাল এমনটি অভিযোগ পরে জানতে পারি। এর পর আমি সঙ্গে সঙ্গে বললাম, ওই দুটি শাখা (রিজেন্ট হাসপাতালের) বন্ধ হয়ে যাবে।’ বিচারক এ সময় আজাদকে বলেন, সাহেদের সঙ্গে আপনার এত মহব্বত কীভাবে হয়েছিল?

আজাদ উত্তরে বলেন, চুক্তি স্বাক্ষর হওয়ার দিন সাহেদের সঙ্গে আমার প্রথম দেখা হয়েছিল। স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে মন্ত্রী মহোদয় উপস্থিত ছিলেন। আরও বড় বড় কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। ওই থেকে সাহেদের সঙ্গে আমার পরিচয়।

তিনি আরও বলেন, আমি আগে থেকে জানতাম না সাহেদ একজন প্রতারক ছিলেন। স্যার, আমার ডায়াবেটিস রয়েছে। আমরা জীবন তুচ্ছ করে মানুষের জন্য কাজ করেছি। আমি কোনো অপরাধ করিনি, আর ভবিষ্যতেও করব না।

লাইসেন্সের মেয়াদ না থাকার পরও করোনাভাইরাসের নমুনা সংগ্রহ ও চিকিৎসার জন্য চুক্তি করে সরকারি অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে এ মামলায় রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাহেদ এবং স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের আবুল কালাম আজাদসহ মোট ছয়জনকে আসামি করা হয়েছে। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা দুদকের উপপরিচালক ফরিদ আহমেদ পাটোয়ারী ৩০ সেপ্টেম্বর আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেন।

বাকি চার আসামি হলেনস্বাস্থ্য অধিদপ্তর সাবেক পরিচালক আমিনুল হাসান, উপপরিচালক (হাসপাতাল-১) মো. ইউনুস আলী, সহকারী পরিচালক (হাসপাতাল-১) মো. শফিউর রহমান এবং গবেষণা কর্মকর্তা মো. দিদারুল ইসলাম।



আরও খবর



গৃহবধূকে ধর্ষণ মামলায় ২ আসামির যাবজ্জীবন

প্রকাশিত:সোমবার ০৪ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ০৪ অক্টোবর ২০২১ | ৫৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার একলাশপুর ইউনিয়নে গৃহবধূকে বিবস্ত্র করে ধর্ষণ মামলায় দুজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এসময় ৫০ হাজার টাকা জরিমানা ও অনাদায়ে তিন মাসের বিনাশ্রম কারদণ্ডও দেয়া হয়েছে। সোমবার বেলা ১১টা ১০ মিনিটে নোয়াখালীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক জয়নাল আবেদীন মামলার রায় ঘোষণা করেন।

এর আগে দুই আসামিকে ব্যাপক নিরাপত্তার মধ্যদিয়ে কারাগার থেকে আদালতে আনা হয়। যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- দেলোয়ার হোসেন দেলু ও তার সহযোগী মোহাম্মদ আলী প্রকাশ আবুল কালাম। এদিকে রায়কে ঘিরে সকাল থেকে আদালত প্রাঙ্গণে ব্যাপক নিরাপত্তা জোরদার করা হয় বলে নিশ্চিত করেছেন কোর্ট পরিদর্শক মো. শাহ আলম।

মামলায় রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) অ্যাডভোকেট মামুনুর রশিদ লাবলু জানান, আলোচিত গৃহবধূ ধর্ষণ মামলাটিতে আমরা বিজ্ঞ আদালতে সাক্ষী উপস্থাপন, জেরা ও জবানবন্দি সঠিকভাবে উপস্থাপন করতে সক্ষম হয়েছি। এ মামলায় রাষ্ট্রপক্ষে ১২ ও আসামিপক্ষে তিনজন সাফাই সাক্ষী প্রদান করেন।

সূত্র আরও জানায়, গৃহবধূ ধর্ষণের ঘটনায় গত ২০২০ সালের ৬ অক্টোবর নির্যাতিতা ওই নারী বাদী হয়ে দেলোয়ার হোসেন ও আবু কালমকে আসামি করে বেগমগঞ্জ থানায় একটি ধর্ষণ মামলা করেন। ওই মামলায় অভিযুক্ত দুই আসামিকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পরে মামলাটি অধিকতর তদন্তের জন্য পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনে (পিবিআই) স্থানান্তর করা হয়।

প্রসঙ্গত গত ২০২০ সালের ২ সেপ্টেম্বর রাতে ওই নারীর আগের স্বামী তার সঙ্গে দেখা করতে তার বাবার বাড়ি একলাশপুর ইউনিয়নের জয়কৃষ্ণপুর গ্রামে এসে তাদের ঘরে ঢুকেন। বিষয়টি দেখতে পায় স্থানীয় মাদক ব্যবসায়ী ও দেলোয়ার বাহিনীর প্রধান দেলোয়ার হোসেন দেলু। রাত ১০টার দিকে দেলোয়ারের লোকজন ওই নারীর ঘরে প্রবেশ করে পরপুরুষের সঙ্গে অনৈতিক কাজ ও তাদের কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় তাকে মারধর শুরু করে।

একপর্যায়ে পিটিয়ে নারীকে বিবস্ত্র করে ভিডিও ধারণ করে। এর আগে ওই গৃহবধূর ঘরে ও বিভিন্ন স্থানে নিয়ে দেলোয়ার তাকে একাধিকবার ধর্ষণ করে। ওই বছরের ৪ অক্টোবর দুপুরে নির্যাতনের ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে দেশব্যাপী তোলপাড় সৃষ্টি হয়। পরে এ ঘটনায় নির্যাতিতার দায়েরকৃত নির্যাতন, ধর্ষণ ও পর্নোগ্রাফী মামলা অধিকতর তদন্তের জন্য পিবিআইতে হস্তান্তর করা হয়।


আরও খবর



আরও ২০৮ ডেঙ্গুরোগী হাসপাতালে ভর্তি

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৭ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৭ অক্টোবর ২০২১ | ৫১০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে আরও ২০৮ জন ভর্তি হয়েছেন। বুধবার (৬ অক্টোবর) সকাল ৮টা থেকে বৃহস্পতিবার (৭ অক্টোবর) সকাল ৮টা পর্যন্ত রাজধানীতে ১৭৩ জন এবং অন্যান্য বিভাগে নতুন ভর্তি হয়েছেন ৩৫ জন। বৃহস্পতিবার (৭ অক্টোবর) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুম থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এতে জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন ২০৮ জনসহ দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ৮৭৩ জন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি রয়েছেন। এরমধ্যে ঢাকার সরকারি ও বেসরকারি ৪৬টি হাসপাতালে ৭১৬ জন এবং অন্যান্য বিভাগের হাসপাতালগুলোতে ১৫৭ জন ভর্তি রয়েছেন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্যমতে, ২০২১ সালের ১ জানুয়ারি থেকে বৃহস্পতিবার (৭ অক্টোবর) পর্যন্ত ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে মোট ১৯ হাজার ৫৪৪ জন রোগী ভর্তি হয়েছেন। একই সময়ে হাসপাতাল থেকে সেবা নিয়ে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১৮ হাজার ৫৯৮ জন। এ সময়ে মোট মারা গেছেন ৭৩ জন। এরমধ্যে জুলাই মাসে ১২ জন, আগস্টে ৩৪ জন, সেপ্টেম্বরে ২২ জন এবং অক্টোবরে ০৫ জনের মৃত্যু হয়।


আরও খবর
২৪ ঘণ্টায় করোনায় ৪ জনের মৃত‌্যু

শুক্রবার ২২ অক্টোবর ২০২১

ডেঙ্গু: আরও ১২৩ জন হাসপাতালে

শুক্রবার ২২ অক্টোবর ২০২১




সাধারণ সম্পাদকের স্বাক্ষর জাল করে তালিকা পাঠালেন সভাপতি

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৮ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৮ অক্টোবর ২০২১ | ৬৬৬০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

পিরোজপুর জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদকের স্বাক্ষর জাল করে কেন্দ্রে তালিকা পাঠানোরও অভিযোগ রয়েছে জেলা সভাপতি একেএমএ আউয়ালের বিরুদ্ধে।

একাধিক মনোনয়ন প্রত্যাশী অভিযোগ করে বলেন, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি একেএমএ আউয়াল তৃণমূল নেতা-কর্মীদের মতামতকে গুরুত্ব না দিয়ে বির্তকিতদের নামের তালিকা কেন্দ্রে পাঠিয়েছেন। যে তালিকায় জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের স্বাক্ষর নেয়া হয়নি। এ নিয়ে এলাকাবাসী ও দলীয় নেতা-কর্মীদের মধ্যে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

জানা যায়, পিরোজপুর জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবদুল হাকিম হাওলাদারের স্বাক্ষর জাল করে কেন্দ্রে তালিকা জমা দেওয়া হয়েছে। সেখানে জেলা সভাপতি একেএমএ আউয়ালের স্বাক্ষরও রয়েছে। তবে জেলা সভাপতি এ নিয়ে মুখ খোলেননি। সাধারণ সম্পাদকের স্বাক্ষর জাল করার বিষয়টি প্রথমে বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আফজাল হোসেনকে জানিয়েছেন। পরে দলের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম ও সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরকে অবহিত করেছেন।

এ প্রসঙ্গে অ্যাডভোকেট আবদুল হাকিম হাওলাদার অভিযোগ করে বলেন, জেলা থেকে যে তালিকা জমা দেওয়া হয়েছে সে তালিকায় আমি স্বাক্ষর করিনি।

বিষয়টি নিয়ে জেলা সভাপতির সঙ্গে কথা বলার পরামর্শ দেন তিনি। এ প্রসঙ্গে জেলা সভাপতি এ কে এম আবদুল আউয়ালকে একাধিকার ফোন করা হলেও তিনি ধরেননি।

উল্লেখ্য, দ্বিতীয় ধাপে ৮৪৮টি ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। গত ২৯ সেপ্টেম্বর নির্বাচন কমিশনের (ইসি) কমিশন সভা শেষে ইসি সচিব হুমায়ুন কবীর খোন্দকার নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেন।

ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, দ্বিতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচনের মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ তারিখ ১৭ অক্টোবর। এ ছাড়া মনোনয়নপত্র বাছাই ২০ অক্টোবর, বাছাইয়ের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল দায়ের ২১ থেকে ২৩ অক্টোবর, আপিল নিষ্পত্তি ২৪ ও ২৫ অক্টোবর, প্রার্থিতা প্রত্যাহার ২৬ অক্টোবর, প্রতীক বরাদ্দ ২৭ অক্টোবর ও ১১ নভেম্বর ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।


আরও খবর



ডিসেম্বরে চালু হচ্ছে ৫জি

প্রকাশিত:শনিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৫৯৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বাংলাদেশে ৫জি চালুর প্রস্তুতি দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলেছে বলে জানিয়েছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। ডিসেম্বরের মাঝামাঝিতে অর্থাৎ ১২ বা ১৬ ডিসেম্বর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হবে বলেও জানান তিনি।

শনিবার (২৫ সেপ্টেম্বর) দুপুরে ফাইভজি ইকোসিস্টেম ইন বাংলাদেশ অ্যান্ড আপকামিং টেকনোলজিস শীর্ষক একটি ওয়েবিনারে তিনি এ তথ্য জানান। টেলিকম এবং টেকনোলজি সাংবাদিকদের সংগঠন টেলিকম রিপোর্টার্স নেটওয়ার্ক বাংলাদেশ (টিআরএনবি) এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী জানান, হুট করে বা খুব দ্রুত আমরা সিদ্ধান্ত নিয়ে ৫জি চালু করছি বিষয়টা এমন নয়। আমরা অনেক দিন থেকেই প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছি। কোন তারিখে ৫জি উদ্বোধন করা হবে তা এখন বলতে পারছি না, তবে ডিসেম্বর মাসে অনেকগুলো উৎসবের দিন রয়েছে, সেসব দিনের মধ্যে একটা দিনে উদ্বোধন করা হবে।

শিল্পপণ্য তৈরি প্রতিষ্ঠান যেন ফাইভজি সেবা ভালোভাবে পায় সেটা নিশ্চিতের প্রস্তুতি রয়েছে জানিয়েছে মন্ত্রী বলেন, ৫টি ইকোনমিক জোনে ৫জি নেটওয়ার্ক দেওয়ার কাজ চলছে। আমাদের অনেক পার্টনার রয়েছে তাদের কথাও আমরা চিন্তা করছি। সবকিছু মিলিয়ে আমাদের সব ধরনের প্রস্তুতি রয়েছে। ৫জি কে ঘিরে জনগণের প্রয়োজন ও চাহিদাকে গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে।

বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের চেয়ারম্যান শ্যাম সুন্দর সিকদার বিভিন্ন প্রস্তুতি ও পরিকল্পনার তথ্য তুলে ধরে বলেন, ইতোমধ্যে মোবাইল প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে বৈঠক হয়েছে। মোবাইল অপারেটর ও টাওয়ার অপারেটর বিটিআরসি সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে।

আলোচনায় অংশ নেন বিটিআরসির কমিশনার এ কে এম শহীদুজ্জামান, টেলিটক ব্যবস্থাপনা পরিচালক সাহাব উদ্দীন, বাংলালিংক সিইও অ্যান্ড চেয়ারম্যান এমটব এরিক অস, গ্রামীনফোন সিইও ইয়াসির আজমান, রবি ভারপ্রাপ্ত সিইও, রিয়াজ রশীদসহ অনেকে।


আরও খবর
২৪ ঘণ্টায় করোনায় ৪ জনের মৃত‌্যু

শুক্রবার ২২ অক্টোবর ২০২১

ডেঙ্গু: আরও ১২৩ জন হাসপাতালে

শুক্রবার ২২ অক্টোবর ২০২১