আজঃ মঙ্গলবার ২০ এপ্রিল ২০21
শিরোনাম

শবে বরাত নিয়ে হাদিসে যা বলা আছে

প্রকাশিত:সোমবার ২৯ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ২৯ মার্চ ২০২১ | ৫৫২জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
এই রাতে আল্লাহ তাআলার পক্ষ থেকে রহমত ও মাগফেরাতের দ্বার ব্যাপকভাবে উন্মুক্ত হয়। কিন্তু শিরকী কাজকর্মে লিপ্ত ব্যক্তি এবং অন্যের ব্যাপারে হিংসা-বিদ্বেষ পোষণকারী মানুষ

শবে বরাতের নিয়ে সমাজে কিছুটা মতভেদ রয়েছে আলেমদের মাঝে। কেউ কেউ বলে থাকে সহীহ হাদিস দ্বারা শবে বরাত প্রমাণিত না। তারা অন্য রাতের মতই মনে করেন। তবে হাদিসে এ রাতের মহিমা ও ফজিলত বিশেষভাবে উল্লেখ রয়েছে। এ হাদিসগুলো সহীহ।

সম্মিলিত কোন রূপ না দিয়ে এবং এই রাত উদযাপনের বিশেষ কোনও পন্থা উদ্ভাবন না করে বেশি ইবাদত করা নির্ভরযোগ্য বর্ণনা দ্বারা প্রমাণিত। এই রাতকে অন্য সাধারণ রাতের মতো মনে করা এবং এ রাতের ফজিলতের ব্যাপারে যত হাদিস এসেছে তার সবগুলোকে মওযূ বা যয়ীফ মনে করা ভুল। তবে এ রাতকে শবে কদরের মতো বা তার চেয়েও বেশি ফজিলতপূর্ণ মনে করাও একটি ভিত্তিহীন ধারণা। এখানে শবে বরাত তথা পনের শাবানের রাত সম্পর্কে একটি হাদিস সনদের নির্ভরযোগ্যতার বিবরণসহ উল্লেখ করা হলো।

হযরত মুআয ইবনে জাবাল (রাঃ) বলেন, নবী কারীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেছেন, আল্লাহ তাআলা অর্ধ-শাবানের রাতে (শাবানের চৌদ্দ তারিখ দিবাগত রাতে) সৃষ্টির দিকে (রহমতের) দৃষ্টি দেন এবং মুশরিক ও বিদ্বেষ পোষণকারী ব্যতীত সবাইকে ক্ষমা করে দেন।

এই হাদিস দ্বারা প্রমাণ হয় যে, এই রাতে আল্লাহ তাআলার পক্ষ থেকে রহমত ও মাগফেরাতের দ্বার ব্যাপকভাবে উন্মুক্ত হয়। কিন্তু শিরকী কাজকর্মে লিপ্ত ব্যক্তি এবং অন্যের ব্যাপারে হিংসা-বিদ্বেষ পোষণকারী মানুষ এই ব্যাপক রহমত ও সাধারণ ক্ষমা থেকেও বঞ্চিত থাকেন।

এখন আসুন, উল্লেখিত হাদিসটির সনদ নিয়ে আলোচনা করি। উপরোক্ত হাদিসটি অনেক নির্ভরযোগ্য সনদের মাধ্যমে বর্ণিত হয়েছে। ইমাম মুহাম্মাদ ইবনে হিব্বান তার কিতাবুস সহীহ এ (যা সহীহ ইবনে হিব্বান নামেই প্রসিদ্ধ, ১৩/৪৮২এ) এই হাদিসটি উদ্ধৃত করেছেন। এটি এই কিতাবের ৫৬৬৪ নম্বর হাদিস। এ ছাড়া ইমাম বায়হাকী (রহঃ) শুআবুল ঈমান এ(৩/৩৮২, হাদিস ৩৮৩৩) ইমাম তাবরানী আলমুজামুল কাবীর ও আলমুজামুল আওসাতে এ বর্ণনা করেছেন।

এছাড়াও আরও অনেক হাদিসের ইমামগণ তাদের নিজ নিজ কিতাবে হাদিসটি উল্লেখ করেছেন। হাদিসটির সনদ সহীহ। এজন্যই ইমাম ইবনে হিব্বান একে কিতাবুস সহীহ এ বর্ণনা করেছেন। এমনকি শায়খ নাসিরুদ্দীন আলবানী (রহঃ) সিলসিলাতুল আহাদীসিস সাহীহা ৩/১৩৫-১৩৯ এ এই হাদিসের সমর্থনে আরও আটটি হাদিস উল্লেখ করার পর লেখেন, এসব বর্ণনার মাধ্যমে সমষ্টিগতভাবে এই হাদিসটি নিঃসন্দেহ সহী প্রমাণিত হয়

এরপর শায়খ আলবানী (রহঃ) ওই সব লোকের বক্তব্য খণ্ডন করেন, যারা কোনও ধরনের খোঁজখবর ছাড়াই বলে দেন যে, শবে বরাতের ব্যাপারে কোনও সহীহ হাদিস নেই।

শবে বরাতের পরদিন রোজা রাখা সম্পর্কে একটি হাদিস রয়েছে- হযরত আলী ইবনে আবু তালেব (রাঃ) থেকে বর্ণিত নবী কারীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, পনের শাবানের রাত যখন আসে, তখন তোমরা এ রাতটি ইবাদত বন্দেগীতে কাটাবে এবং দিনের বেলা রোজা রাখ। কেননা এ রাতে সূর্যাস্তের পর আল্লাহ তাআলা প্রথম আসমানে আসেন এবং বলেন, কোনও ক্ষমা প্রার্থনাকারী আছে কি? আমি তাকে ক্ষমা করব। আছে কি? কোন রিজিক প্রার্থী? আমি তাকে রিজিক দেব। এভাবে সুবহে সাদিক পর্যন্ত আল্লাহ তাআলা মানুষের প্রয়োজনের কথা বলে তাদের ডাকতে থাকেন।(ইবনে মাজা, হাদিস নম্বর-১৩৮৪)।

নিউজ ট্যাগ: পবিত্র শবে বরাত

আরও খবর
শুরু হলো সিয়াম সাধনার মাস

বুধবার ১৪ এপ্রিল ২০২১

রোজা শুরু কবে জানা যাবে সন্ধ্যায়

মঙ্গলবার ১৩ এপ্রিল ২০২১




শীতলক্ষ্যায় লঞ্চডুবিতে প্রাণহানির ঘটনায় ভারতের শোক

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৬ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৬ এপ্রিল ২০২১ | ৯৬জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
বাংলাদেশের নারায়ণগঞ্জ জেলায় মর্মান্তিক লঞ্চ দুর্ঘটনায় প্রাণহানিতে আমরা গভীর দুঃখ প্রকাশ করছি। শোকাহত পরিবার বর্গ ও বাংলাদেশ সরকারের প্রতি আমাদের গভীর সমবেদনা

নারায়ণগঞ্জের মদনগঞ্জ ঘাট এলাকায় শীতলক্ষ্যা নদীতে কোস্টার ট্যাংকারের ধাক্কায় যাত্রীবাহী লঞ্চডুবিতে ৩৫ জনের প্রাণহানির ঘটনায় গভীর শোক জানিয়েছে প্রতিবেশি দেশ ভারত।

মঙ্গলবার (৬ এপ্রিল) ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র অরিন্দম বাগচী এই শোক প্রকাশ করেন।

টুইটারে অরিন্দম বাগচী বলেন, বাংলাদেশের নারায়ণগঞ্জ জেলায় মর্মান্তিক লঞ্চ দুর্ঘটনায় প্রাণহানিতে আমরা গভীর দুঃখ প্রকাশ করছি। শোকাহত পরিবার বর্গ ও বাংলাদেশ সরকারের প্রতি আমাদের গভীর সমবেদনা। এই দুঃখের মুহূর্তে আমাদের প্রার্থনা বাংলাদেশের ভ্রাতৃপ্রতিম মানুষের সঙ্গে রয়েছে।

উল্লেখ্য, রবিবার (৫ এপ্রিল) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকের শীতলক্ষ্যার চর সৈয়দপুর এলাকার ব্রিজের কাছে এই লঞ্চডুবির ঘটনা ঘটে। সাবিত আল হাসান নামের ডুবে যাওয়া লঞ্চটি মুন্সীগঞ্জের উদ্দেশে যাচ্ছিল। লঞ্চটিতে ৫০ থেকে ৬০ জন যাত্রী ছিল বলে জানান জীবিত উদ্ধার কয়েকজন যাত্রী।


আরও খবর



গরম খাবারে জিহ্বা পুড়ে গেলে কী করবেন ?

প্রকাশিত:শনিবার ১০ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ১০ এপ্রিল ২০২১ | ৭০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

চা বা কফি খেতে গিয়ে হঠাৎ জিহ্বা পোড়েনি এমন মানুষ পাওয়া দুস্কর। গরম খাবারে জিহ্বা, ঠোঁট এবং মুখের তালু পুড়ে যাওয়া খুবই সাধারণ একটা বিষয়। কারণ মানুষ চা, কফি, পিৎজাসহ নানা ধরনের খাবার গরম খেতে পছন্দ করে। অনেক সময় খাবার কিছুটা ঠাণ্ডা হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করে না, তাই এমনটি হয়ে থাকে।

গরম খাবার এবং তরল পানীয় থেকে বেশিরভাগ পোড়া সাধারণত প্রথম ডিগ্রির পোড়া হয়, তাই আপনি ঘরোয়া উপায়ে এ ক্ষেত্রে জিহ্বাকে স্বস্তি দিতে পারেন। জেনে নিন জিহ্বা বা মুখের ভেতরের ত্বক পুড়ে গেলে করণীয় কী।

জিহ্বাকে দ্রুত শীতল করুন:

জিহ্বা পুড়ে গেলে প্রথমেই এটাকে শীতল করার চেষ্টা করা উচিত। যত দ্রুত সম্ভর ঠান্ডা পানি মুখের ভেতরে কিছুটা সময় রেখে দিতে হবে। চাইলে কুলি করে নিন ঠান্ডা পানি দিয়ে। এ ক্ষেত্রে বরফের টুকরা মুখের ভেতরে দিলে সেটি ক্ষতস্থানে আটকে গিয়ে আরো ক্ষতি করতে পারে। এছাড়াও বিশেষজ্ঞদের মতে, সামান্য চিনি ক্ষতস্থানে দেওয়া যেতে পারে, এতে করে ব্যথা কমে যায়।

ঝাল খাবার এড়িয়ে চলুন:

জিহ্বা পুড়ে গেলে এটাকে উক্ত্যক্ত করতে পারে এমন খাবার ও পানীয় এড়িয়ে চলুন। এসময় ঝাল বা মসলা জাতীয় খাবার ও গরম পানীয় অবশ্যই পরিহার করা উচিত, অন্যথায় জিহ্বার অবস্থা আরো খারাপ হতে পারে। অ্যালকোহলও বর্জন করুন। এছাড়া অন্যান্য যেসব খাবার খেলে জিহ্বাতে জ্বালাপোড়া করে বা অস্বস্তি লাগে তাও বাদ দিন। চিপস জাতীয় কর্কশ খাবার খাওয়া যাবে না। নরম ও হালকা খাবার খেতে হবে।

জিহ্বা ব্রাশ করা থেকে বিরত থাকুন:

যারা স্বাস্থ্য সচেতনতার গুরুত্ব বুঝেন তারা প্রতিদিন দাঁতের পাশাপাশি জিহ্বাও ব্রাশ করে থাকেন। দাঁতের চিকিৎসকের কাছে গেলে তিনি আপনাকে দিনে দুইবার জিহ্বা ব্রাশ করার পরামর্শ দিতে পারেন, কিন্তু জিহ্বা পুড়ে গেলে এটা মানতে যাবেন না। বিশেষজ্ঞদের মতে, পোড়া জিহ্বার ব্যথা ও সংবেদনশীলতা প্রতিরোধে এটা নিরাময়কালে জিহ্বা ব্রাশ করা উচিত নয়।

দুধ পান করুন:

দুধ পান করলে অথবা দুগ্ধজাত খাবার খেলে পোড়া জিহ্বায় আরাম পেতে পারেন। বিশেষজ্ঞদের মতে, দুধ পোড়া জিহ্বায় প্রলেপ দিতে পারে ও শীতল করতে পারে। এই উপকারিতা পেতে দইও খেতে পারেন।

লবণ-পানি দিয়ে কুলি করুন:

প্রতিদিন দুই থেকে তিনবার লবণ-পানি দিয়ে কুলি করতে পারেন। লবণ-পানি দিয়ে কুলি করলে তা অ্যান্টিসেফটিকের কাজ করে এবং ইনফেকশন প্রতিরোধ করে। পুড়ে যাওয়া জিহ্বাকে প্রশান্তি দিতে খাবার খাওয়ার পর ও ঘুমাতে যাওয়ার আগে লবণ-পানি দিয়ে কুলি করতে পারেন। এক গ্লাস পানিতে ১/২ চা চামচ লবণ মিশিয়ে লবণ-পানি তৈরি করতে পারেন। এছাড়া জিহ্বার পোড়া স্থান আঙুল দিয়ে স্পর্শ করা যাবে না, কেননা এর ফলে তা আরো অস্বস্তি সৃষ্টি করবে এবং ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমণ ঘটাবে।

ব্যথার ওষুধ খান (যদি প্রয়োজন বোধ করেন): সাধারণত গরম খাবারে জিহ্বা পুড়লে ওষুধের প্রয়োজন হয় না। কিন্তু যদি আপনি অনেক ব্যথা অনুভব করেন তাহলে ব্যথার ওষুধ খেতে পারেন। আমরা সাধারণত চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়াই যেসব ব্যথানাশক ওষুধ ব্যবহার করি তা ব্যবহার করলেই চলবে, যেমন- আইবুপ্রোফেন অথবা অ্যাসিটামিনোফেন/প্যারাসিটামল। এক সপ্তাহ পরও সেরে ওঠার লক্ষণ না দেখলে চিকিৎসকের কাছে যাওয়ার কথা বিবেচনা করুন।


আরও খবর
যেভাবে বানাবেন শসার স্মুদি

সোমবার ১৯ এপ্রিল ২০২১




দোল পূর্ণিমা আজ

প্রকাশিত:রবিবার ২৮ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ মার্চ ২০২১ | ১০৮জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সনাতন ধর্মাবলম্বীদের অন্যতম ধর্মীয় উৎসব দোল পূর্ণিমা বা হোলি উৎসব আজ। বাংলাদেশে এই উৎসবটি দোলযাত্রাদোল পূর্ণিমা নামেও পরিচিত। এ উপলক্ষে রাজধানীহ সারাদেশে বিভিন্ন মন্দিরে পূজা, হোমযজ্ঞ, প্রসাদ বিতরণসহ বিভিন্ন ধর্মীয় অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা।

মহানগর সার্বজনীন পূজা কমিটির উদ্যোগে ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দিরে দোল উৎসবের আয়োজন করা হয়েছে। তবে করোনা পরিস্থিতির কারণে এ বছর উৎসবটি শুধু পূজা, হোমযজ্ঞ, ও প্রসাদ বিতরণের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকবে।

দোলযাত্রা হিন্দু বৈষ্ণবদের উৎসব। বৈষ্ণব বিশ্বাস অনুযায়ী, এ দিন শ্রীকৃষ্ণ বৃন্দাবনে রাধিকা এবং তার সখীদের সঙ্গে আবির খেলেছিলেন। সেই ঘটনা থেকেই দোল খেলার উৎপত্তি। এ কারণে দোলযাত্রার দিন এ মতের বিশ্বাসীরা রাধা-কৃষ্ণের বিগ্রহ আবিরে রাঙিয়ে দোলায় চড়িয়ে নগর কীর্তনে বের হন। এ সময় তারা রং খেলার আনন্দে মেতে ওঠেন।

বিশ্বের অনেক স্থানে উৎসবটি শ্রীকৃষ্ণের দোলযাত্রা নামে অধিক পরিচিত হলেও ভারতের পশ্চিমবঙ্গ, মাদ্রাজ, উড়িষ্যা প্রভৃতি স্থানে দোল উৎসব এবং উত্তর, পশ্চিম ও মধ্য ভারত ও নেপালে হোলি নামে পরিচিত। কোনো কোনো স্থানে এ উৎসবকে বসন্ত উৎসবও বলা হয়।

দ্বাপর যুগ থেকে পুষ্পরেণু ছিটিয়ে রাধা-কৃষ্ণ দোল উৎসব করতেন। সময়ের বিবর্তনে পুষ্পরেণুর জায়গায় এসেছে আবির। সারাদেশে সকাল থেকে শুরু হয়ে বিকেল পর্যন্ত এ উৎসব চলবে। হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা পরস্পরকে আবির মাখিয়ে এ উৎসব উদযাপন করবেন।

এদিকে দোল পূর্ণিমার দিনে হেফাজত ইসলাম আহুত হরতাল প্রত্যাহারের আহ্বান জানিয়েছে বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ। এক বিবৃতিতে পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট রাণা দাশগুপ্ত জনগণের বিশাল একাংশের ধর্মীয় অনুভূতিকে বিবেচনায় নিয়ে আহুত হরতাল প্রত্যাহার করা হবে মর্মে আশা প্রকাশ করেন।

নিউজ ট্যাগ: দোল পূর্ণিমা

আরও খবর
শুরু হলো সিয়াম সাধনার মাস

বুধবার ১৪ এপ্রিল ২০২১

রোজা শুরু কবে জানা যাবে সন্ধ্যায়

মঙ্গলবার ১৩ এপ্রিল ২০২১




মোদিবিরোধী আন্দোলন : ৪০০-৫০০ জনকে আসামি করে মামলা

প্রকাশিত:শনিবার ২৭ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ২৭ মার্চ ২০২১ | ৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররম এলাকায় মোদিবিরোধী বিক্ষোভকে কেন্দ্র সৃষ্ট সংঘর্ষের ঘটনায় রাজধানীর পল্টন থানায় মামলা দায়ের করেছে পুলিশ। এতে অজ্ঞাতনামা ৪০০ থেকে ৫০০ জনকে আসামি করা হয়েছে। আজ শনিবার (২৭ মার্চ) বিকেলে এ তথ্য জানা গেছে।

পুলিশ জানায়, গতকাল শুক্রবার (২৬ মার্চ) রাতে পল্টন থানায় মামলাটি দায়ের করা হয়। তবে এ পর্যন্ত এ ঘটনায় কাউকেই গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়নি।

এ বিষয়ে পল্টন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু বকর সিদ্দিক বলেন, মামলাটিতে সরকারি কাজে বাধাদান, মোটরসাইকেল পোড়ানো ও পুলিশকে আহত করার অভিযোগ আনা হয়েছে। মামলা নম্বর-৫৭।

শুক্রবার মোদিবিরোধী বিক্ষোভকে কেন্দ্র করে রাজধানীর বায়তুল মোকাররম এলাকায় সাধারণ মুসল্লি ও ক্ষমতাসীন দলের নেতা-কর্মীদের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষ হয়। জুমার নামাজের মোনাজাত শেষে মুসল্লিদের একাংশ মোদিবিরোধী বিক্ষোভ শুরু করে।

স্লোগান দেয়ার খানিক পরই ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা মসজিদের উত্তর পাশের ফটকে মিছিলকারীদের ওপর লাঠিসোটা নিয়ে হামলা চালান। প্রায় ৫ মিনিট ধরে তারা মিছিলকারীদের মারধর করেন। এতে বিক্ষোভকারীরা পিছু হটে মসজিদের ভেতরে ঢুকে পড়েন। এর খানিক পরই বিক্ষোভকারীরা আবার সংগঠিত হয়ে ক্ষমতাসীন দলের নেতা-কর্মীদের ওপর পাল্টা হামলা চালান। এ সময় প্রায় ১০ মিনিট ধরে দুই পক্ষের মধ্যে পাল্টাপাল্টি ধাওয়া চলতে থাকে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নিতে পুলিশ মসজিদের দিকে কাঁদানে গ্যাসের শেল নিক্ষেপ করে। ফাঁকা গুলিও ছোড়া হয়।

শুক্রবারের ওই সংঘর্ষে অর্ধশতাধিক মানুষ আহত হন। আহতদের অনেকেই ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন। একই ইস্যুতে এদিন চট্টগ্রামের হাটহাজারি, ব্রাহ্মণবাড়িয়াসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে সংঘর্ষের খবর পাওয়া যায়। এরমধ্যে হাটহাজারীতে হেফাজতের ৪ কর্মী নিহত হয়েছে বলে দাবি করেছে সংগঠনটি। অন্যদিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলস্টেশন এলাকায় ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগের সময় ১ তরুণ নিহত হয়।

একই বিষয়কে কেন্দ্র করে ঢাকায় বায়তুল মোকাররম, পল্টন, চট্টগ্রামের হাটহাজারীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে উত্তেজনা বিরাজ করছে। গুলিতে একাধিক হেফাজতকর্মী নিহত হওয়ার প্রতিবাদে আগামীকাল রবিবার (২৮ মার্চ) হরতালের ঘোষণা দিয়েছে হেফাজতে ইসলাম। অন্যদিকে হরতাল উপেক্ষা করে সারা দেশে বাস চালানোর পাল্টা ঘোষণা দিয়েছে পরিবহন মালিকদের সংগঠন।


আরও খবর
হেফাজতের ২৩ মামলা তদন্তে সিআইডি

মঙ্গলবার ২০ এপ্রিল ২০21




আজকের রাশিফল: জেনে নিন কেমন কাটবে দিন

প্রকাশিত:শনিবার ১০ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ১০ এপ্রিল ২০২১ | ৮১জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

পুরনো জ্যোতিষশাস্ত্রের এমন একটি ধরন, যার মাধ্যমে বিভিন্ন সময়কাল নিয়ে ভবিষ্যদ্বাণী করা হয়। যেমন দৈনিক রাশিফল প্রতিদিনের ঘটনার ভবিষ্যকথন করে, তেমন সাপ্তাহিক, মাসিক তথা বার্ষিক রাশিফল যথাক্রমে সপ্তাহ, মাস এবং বছরের ভবিষ্যদ্বাণী করে। বৈদিক জ্যোতিষে ১২টি রাশি- মেষ, বৃষ, মিথুন, কর্কট, সিংহ, কন্যা, তুলা, বৃশ্চিক, ধনু, মকর, কুম্ভ ও মীন-এর ভবিষ্যদ্বাণী করা হয়। একই রকমভাবে ২৩টি নক্ষত্রেরও ভবিষ্যদ্বাণী করা হয়ে থাকে।

মেষ:

কর্মস্থলে সামান্য চাপ থাকতে পারে। অন্যের কাজ করতে গিয়ে নিজের কাজে ব্যাঘাত ঘটবে। কিছুটা ব্যয় বৃদ্ধি পাবে। বাকসংযম দরকার। উত্তেজনাবশত কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া ঠিক হবে না।

বৃষ:

দৈনন্দিন কাজকর্মে সাফল্য ও সুনাম আসবে। কোনো বন্ধু উপকারে আসতে পারে। সামাজিক সম্মান বৃদ্ধি পাবে। কর্মরতদের পরিবেশ পক্ষে থাকবে। বিনোদন ও রোমান্স শুভ।

মিথুন:

দিনটি ভালো কাটবে। ব্যবসা-বাণিজ্য প্রসারের সুবাতাস বইতে পারে। শেয়ার ব্যবসায় থাকলে আপাতত বন্ধ রাখুন। একটু পরিশ্রম করলেই সৌভাগ্য বৃদ্ধি পাবে। তবে বেশি ঝুঁকি না নেওয়াই ভালো।

কর্কট:

শিক্ষার্থীরা শুভ ফল প্রত্যাশা করতে পারেন। কর্মপ্রার্থীদের ক্ষেত্রে কিছু বাধা-বিঘ্ন আছে। সব কিছু ঠিক হয়েও অজ্ঞাত কারণে তা আটকে যেতে পারে। উপার্জন বৃদ্ধি পাবে। যাত্রা শুভ।

সিংহ:

ব্যবসায় প্রসার ঘটলেও অর্থ পেতে বিলম্ব হবে। প্রিয়জনের অসুস্থতায় চিন্তিত থাকবেন। ব্যয় বৃদ্ধির প্রবণতা বাড়তে পারে। মানসিক হতাশা এবং উদ্বেগ দূরে রাখুন। নিজেকে সংযত রাখবেন।

কন্যা:

প্রেম-ভালোবাসায় নতুন করে আগ্রহ বাড়বে। যোগাযোগ বৃদ্ধি পাবে। কোনো চুক্তি সম্পাদনে অগ্রগতি হতে পারে। দাম্পত্য জীবন শুভ। ব্যবসায় পরিবর্তন আসতে পারে। শরীর ভালো রাখুন।

তুলা:

বেকারদের চাকরি লাভের সম্ভাবনা। কোনো কারণে মনে সংশয় বা ভয় কাজ করতে পারে। অর্থপ্রাপ্তিতে বিলম্ব। ব্যবসায় বাড়তি চাপ আসবে। ইচ্ছাশক্তির জোরে বাধা-বিঘ্ন কাটিয়ে উঠবেন।

বৃশ্চিক:

সামাজিক কাজে অন্যের সহযোগিতা পাবেন। অর্থপ্রাপ্তির সুযোগ আসতে পারে। কাজকর্মে প্রসার লাভ হবে। বিনোদনমূলক কাজে আনন্দ পাবেন। শুভ কর্মে অর্থ ব্যয়। রোমান্স শুভ।

ধনু:

পারিবারিক ব্যয় বৃদ্ধি পাবে। কাজে অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করতে হবে। অনাদায়ি অর্থপ্রাপ্তিতে বেগ পেতে হবে। ব্যবসায় শুভ পরিবর্তন। জীবন সম্পর্কে আশাবাদ অব্যাহত রাখুন।

মকর:

কোনো যোগাযোগে আর্থিক উন্নতির সম্ভাবনা। নিকট ভ্রমণের সম্ভাবনা। ব্যাবসায়িক কাজে আশানুরূপ অগ্রগতি। নতুন কোনো বিষয় আলোচনায় আসবে। প্রার্থনায় শান্তি পাবেন।

কুম্ভ:

অর্থপ্রাপ্তির সম্ভাবনা। সমস্যা সমাধানের পথ খুঁজে পাবেন। সন্তানের ভবিষ্যৎ নিয়ে চিন্তা বাড়তে পারে। ব্যাবসায়িক লেনদেন ও কেনাকাটা শুভ। ভ্রমণে আনন্দ পাবেন।

মীন:

নিজস্ব ভাবনাকে প্রতিষ্ঠিত করতে সক্ষম হবেন। বাড়তি উপার্জন হতে পারে। কোনো বন্ধুর মাধ্যমে কিছু সমস্যা সমাধান করতে পারবেন। পেশাগত দিক ভালো যাবে। শরীরের যত্ন নিন।


আরও খবর
যেভাবে বানাবেন শসার স্মুদি

সোমবার ১৯ এপ্রিল ২০২১