আজঃ শনিবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২১
শিরোনাম

শীতে কাঁপছে কুড়িগ্রাম

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৯ জানুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ১৫৯জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
তাপমাত্রা কমে যাওয়ায় চরম ভোগান্তিতে পড়েছে জেলার পাঁচ শতাধিক চর ও দ্বীপ চরের মানুষসহ নিম্নবিত্ত ও ছিন্নমূল মানুষেরা। প্রয়োজন ছাড়া লোকজন বাড়ির বাইরে বের হচ্ছে না

কুড়িগ্রামে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ চলছে। জেলায় আজকের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ফেব্রুয়ারি মাসে আরও দুটি শৈত্যপ্রবাহের আশঙ্কা রয়েছে বলে জানিয়েছে রাজারহাট আবহাওয়া অফিস। এতে ঘন কুয়াশা ও ঠাণ্ডা বাতাসের কারণে কুড়িগ্রামের জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। দিনে সামান্য কিছু সময় সূর্যের দেখা মিললেও অধিকাংশ সময় মিলছে না সূর্যের দেখা। দিনেও হেডলাইট জ্বালিয়ে চলছে যানবাহন। কনকনে ঠাণ্ডায় নাকাল খেটে খাওয়া ও শ্রমজীবী মানুষ।

তাপমাত্রা কমে যাওয়ায় চরম ভোগান্তিতে পড়েছে জেলার পাঁচ শতাধিক চর ও দ্বীপ চরের মানুষসহ নিম্নবিত্ত ও ছিন্নমূল মানুষেরা। প্রয়োজন ছাড়া লোকজন বাড়ির বাইরে বের হচ্ছে না। রাস্তা-ঘাট ও বাজারে কমেছে লোকজনের আনাগোনা। খড়কুটো জ্বালিয়ে শীত নিবারণের চেষ্টা করছেন অনেকেই। এ কনকনে ঠাণ্ডায় গরম কাপড়ের অভাবে দুর্ভোগ বেড়েছে হতদরিদ্র পারিবারের শিশু ও বৃদ্ধদের। অন্যদিকে টানা শীতে জেলার হাতপাতালগুলোতে বেড়েছে ঠাণ্ডাজনিত রোগীর সংখ্যা। বিশেষ করে শিশুরা আক্রান্ত হচ্ছে ডায়রিয়া, নিউমোনিয়া ও শ্বাসকষ্টসহ নানা রোগে।

রাজারহাট আবহাওয়া পর্যবেক্ষণাগারের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সুবল চন্দ্র সরকার জানান, শুক্রবার (২৯ জানুয়ারি) কুড়িগ্রামের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এতে জেলাজুড়ে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ চলমান রয়েছে। এছাড়া ফেব্রুয়ারি মাসে আরও দুটি শৈত্যপ্রবাহের আশঙ্কা রয়েছে।

Share

তীব্র শীত কাঁপছে কুড়িগ্রাম

শনিবার ০৯ জানুয়ারী ২০২১




প্রায় ২৫ লাখ ভ্যাকসিন দেওয়া শেষ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ৫৯জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
মঙ্গলবার টিকা নিয়েছেন এক লাখ ৮২ হাজার ৮৯৬ জন। দেশে গত ৭ ফেব্রুয়ারি জাতীয়ভাবে করোনার টিকাদান কর্মসূচি শুরু হয়। প্রতিদিন সকাল সাড়ে ৮টা থেকে দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত এই কার্যক্রম চলে

দেশে করোনাভাইরাসের টিকাদান কর্মসূচি শুরুর পর থেকে আজ মঙ্গলবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) পর্যন্ত ভ্যাকসিন নিয়েছেন ২৪ লাখ ৯১ হাজার ৫৩ জন। এরমধ্যে পুরুষ ১৬ লাখ ৩৪ হাজার ৩৩ জন, নারী ৮ লাখ ৫৭ হাজার ২০ জন। তাদের মধ্যে ৬৩০ জনের মাথা ব্যথা, গলা ব্যথা, হালকা জ্বরের মতো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা গেছে, যা মোট গ্রহীতার শতকরা শূন্য দশমিক ০২৫ শতাংশ।

মঙ্গলবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) স্বাস্থ্য অধিদফতর টিকাদান বিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে। বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, মঙ্গলবার টিকা নিয়েছেন এক লাখ ৮২ হাজার ৮৯৬ জন। দেশে গত ৭ ফেব্রুয়ারি জাতীয়ভাবে করোনার টিকাদান কর্মসূচি শুরু হয়। প্রতিদিন সকাল সাড়ে ৮টা থেকে দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত এই কার্যক্রম চলে।

স্বাস্থ্য অধিদফতর জানিয়েছে, ঢাকা বিভাগে টিকা নিয়েছেন ৬২ হাজার ২৩৯ জন, ময়মনসিংহ বিভাগে ৮ হাজার ১৮৮ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে ৩৭ হাজার ৭০৮ জন, রাজশাহী বিভাগে ১৮ হাজার ৬৫১ জন, রংপুর বিভাগে ১৫ হাজার ৭৬৫ জন, খুলনা বিভাগে ২২ হাজার ৮১৬ জন, বরিশাল বিভাগে ৮ হাজার ৪৪৩ জন আর সিলেট বিভাগে ৯ হাজার ৮৬ জন।

নিউজ ট্যাগ: করোনাভাইরাস
Share

করোনা : দেশে ২৪ ঘণ্টায় নতুন শনাক্ত ৪১০

বৃহস্পতিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২১

ভ্যাকসিন নিয়েও করোনায় আক্রান্ত ত্রাণ সচিব

বৃহস্পতিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২১




নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে বাংলাদেশের দল ঘোষণা

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ৯৩জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
আগামী ২৩ ফেব্রুয়ারি নিউজিল্যান্ডের উদ্দেশে দেশ ছাড়বে বাংলাদেশ দল। সফরে বিশ্বকাপ সুপার লিগের অধীনে তিনটি করে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ

বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারকে ছাড়াই নিউজিল্যান্ডে যাচ্ছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। সফরের জন্য ২০ সদস্যের দল ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। আজ শুক্রবার নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টির জন্য দল ঘোষণা করেছে বিসিবি। দলে ফিরেছেন মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। এ ছাড়াও আছেন পেসার আল আমিন হোসেন ও বাঁহাতি স্পিনার নাসুম আহমেদ। এ ছাড়া কোনো চমক নেই।

আগামী ২৩ ফেব্রুয়ারি নিউজিল্যান্ডের উদ্দেশে দেশ ছাড়বে বাংলাদেশ দল। সফরে বিশ্বকাপ সুপার লিগের অধীনে তিনটি করে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ।

নিউজিল্যান্ড সিরিজের দল: তামিম ইকবাল (অধিনায়ক), মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, নাজমুল হোসেন শান্ত, মুশফিকুর রহিম, মোহাম্মদ মিঠুন, লিটন দাস, মাহমুদউল্লাহ, আফিফ হোসেন, সৌম্য সরকার, মোহাম্মদ নাঈম, তাসকিন আহমেদ, আল আমিন হোসেন, শরিফুল ইসলাম, হাসান মাহমুদ, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, মুস্তাফিজুর রহমান, মেহেদী হাসান মিরাজ, রুবেল হোসেন, মেহেদী হাসান ও নাসুম আহমেদ।

Share

মেসির জোড়া গোলে দুর্দান্ত জয়ে বার্সেলোনা

বৃহস্পতিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২১




স্নাতক ভর্তি পরীক্ষার তারিখ চূড়ান্ত

প্রকাশিত:বুধবার ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ৬১জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দেশের বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (অনার্স) ভর্তি পরীক্ষার তারিখ চূড়ান্ত হয়েছে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় পরিষদের সভাপতি ও চুয়েট ভিসি অধ্যাপক ড. মো. রফিকুল আলম।

বুধবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) সব বিশ্ববিদ্যালয়ের উপচার্যদের (ভিসি) সংগঠন বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় পরিষদের ভার্চুয়াল সভায় এ সিদ্ধান্ত হয়।

২০টি বিশ্ববিদ্যালয়ে জুনের শেষ দুই শনিবার এবং জুলাইয়ের প্রথম দুই শনিবার বিজ্ঞান, মানবিক ও বাণিজ্য শাখার পরীক্ষা হবে।

গুচ্ছ পদ্ধতিতে ৭টি কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা ২৯ মে। এছাড়া বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বুয়েট) ১০ জুন এবং রাজশাহী, খুলনা ও চট্টগ্রাম প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে (রুয়েট,কুয়েট, চুয়েট) ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে ১২ জুন। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে ২০ জুন।

Share

এইচএসসি মানোন্নয়নের ফল রবিবার

শনিবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২১




দুই যুগ পর চালু হলো আরিচা-কাজিরহাট নৌরুট

প্রকাশিত:শনিবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ৫০জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দুই যুগ পর চালু হলো আরিচা-কাজিরহাট নৌরুট। এতে আনন্দিত যমুনা পারের মানুষ ও এ নৌরুটের যাত্রীরা। শনিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে নৌ প্রতিমন্ত্রী খালেদ মাহমুদ চৌধুরী রুটটি উদ্বোধন করেন।

নৌ প্রতিমন্ত্রী বলেন, এ নৌরুট চালু হওয়ার ফলে যাত্রী ও যানবাহনের শ্রমিকদের প্রত্যাশা পূরণ হয়েছে। তারা দ্রুত সময়ে রাজধানীর সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারবে। প্রয়োজনে এ রুটে ফেরি আরও বাড়ানো হবে বলেও আশ্বাস দেন তিনি।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে নৌ প্রতিমন্ত্রী খালেদ মাহমুদ চোধুরী ছাড়াও স্থানীয় এমপি নাঈমুর রহমান দুর্জয়সহ বিআইডব্লিউটির চেয়ারম্যান উপস্থিত ছিলেন। পরে আগে থেকেই প্রস্তত করে রাখা বেগম রোকেয়া নামের ফেরি নিয়ে যমুনা নদী পাড়ি দেন তারা।

উদ্বোধনের পরই যাত্রী পারাপার শুরু করে ফেরিগুলো। তাই ঘটে ভিড় করতে শুরু করেছে যানবাহন। দীর্ঘদিনের প্রত্যাশা পূরণে উল্লাস ও আনন্দের কথা জানিয়েছেন যাত্রী ও ঘাট এলাকার ব্যবসায়ীরা। আরিচা-কাজিরহাট নৌরুট পার হওয়ার জন্য আরিচা ৩নং ঘাটে ট্রাক নিয়ে অপেক্ষা করছেন সাগর। তিনি বলেন, পাবনা-কুষ্টিয়া-ঈশ্বরদী থেকে যমুনা সেতু হয়ে ঘুরে ঢাকায় আসতে তিন থেকে চার ঘণ্টা বেশি সময় লাগে। আজ তার অবসান হলো। তাছাড়া তেল খরচও কমে আসবে। এটি আমাদের একটি বড় সুখের সংবাদ।

আরিচা-কাজিরহাট নৌরুট চালুর জন্য গত তিন মাস আগে থেকে ১৪ কোটি টাকা ব্যয়ে ড্রেজিংসহ মার্কিং পয়েন্ট ও বিকন বাতি স্থাপন করাসহ সকল কাজ সম্পূন্ন করে বিআইডব্লিউটিএ। শনিবার ফেরি বেগম রোকেয়া, বীরশ্রেষ্ঠ মতিউর রহমান ও কেতকী দিয়ে যাত্রা শুরু হলো।

Share



করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত খামারিদের ৫৬৮ কোটি টাকা প্রণোদনা প্রদান

প্রকাশিত:বুধবার ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ৩৬৬জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ খাতে করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত ৪ লক্ষ ৮৫ হাজার ৪৭৬ জন হাজার খামারিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার হিসেবে মোট ৫৬৮ কোটি ৮৬ লক্ষ ৪১ হাজার ২৫০ টাকা নগদ প্রণোদনা দিয়েছে সরকার। মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় এ প্রণোদনা প্রদান কার্যক্রম বাস্তবায়ন করেছে।

আজ বুধবার রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে আয়োজিত মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ খাতে করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত খামারিদের আর্থিক প্রণোদনা প্রদান অনুষ্ঠানে খামারিদের নগদ, বিকাশ ও ব্যাংক একাউন্টের মাধ্যমে তাৎক্ষণিকভাবে প্রণোদনার অর্থ পৌঁছে দেওয়া হয়েছে।

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিমের সভাপতিত্বে প্রণোদনা প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কৃষিমন্ত্রী ড. মোঃ আব্দুর রাজ্জাক, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান। অপর বিশেষ অতিথি মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ধীরেন্দ্র দেবনাথ শমভু অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি সংযুক্ত হন। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব রওনক মাহমুদ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে কৃষিমন্ত্রী ড. মোঃ আব্দুর রাজ্জাক বলেন, কৃষি খাতে উন্নয়ন হলে দেশের সার্বিক উন্নয়ন হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকারের বিগত তিন মেয়াদে কৃষির সবক্ষেত্রেই উৎপাদন বেড়েছে। এখন আমাদের চ্যালেঞ্জ হলো পুষ্টি জাতীয় খাবারের নিশ্চয়তা দেওয়া। পুষ্টিসম্মত খাবারের জন্য মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ খাত অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এ লক্ষ্যেই এ খাতে প্রণোদনা দেওয়া হয়েছে।

২০৩০ সালের মধ্যে অতি দারিদ্র্যকে শূন্যের কোঠায় নামিয়ে আনতে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় সবচেয়ে বড় অবদান রাখতে পারে বলেও তিন মন্তব্য করেন। এজন্য বাজারজাতকরণ ব্যবস্থার উপর গুরুত্বারোপের অনুরোধও জানান কৃষিমন্ত্রী। একইসাথে খামারিদের উৎপাদিত ব্রয়লার মুরগির মাংস, দুধ, ডিম ও মাছ ক্ষতিকর নয় বলেও আশ্বস্ত করেন তিনি। নতুন প্রজন্মকে মেধাবী ও সৃজনশীল করতে মাছ, মাংস, দুধ ও ডিম খাওয়ানোর উপর গুরুত্ব আরোপ করেন প্রধান অতিথি।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, আমাদের দেশের মূল শক্তি জনগণের পরিশ্রম। তাদের উঠে দাঁড়াবার ক্ষমতা বারবার পরীক্ষিত। এ জন্য করোনা আমাদের তুলনামূলকভাবে তেমন ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারেনি। করোনার মধ্যেও আমরা প্রায় সাড়ে পাঁচ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জন করতে পেরেছি। মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ খাতের যেকোন কাজ শেখ হাসিনা সরকারের উচ্চ অগ্রাধিকার তালিকায় রয়েছে বলেও এসময় মন্তব্য করেন পরিকল্পনা মন্ত্রী।

সভাপতির বক্তব্যে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বলেন, শেখ হাসিনার শাসনামল বাংলাদেশের ইতিহাসে স্বর্ণালী অধ্যায়। তাঁর নেতৃত্বে বাংলাদেশ তার অপ্রতিরোধ্য গতি নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে। সকল দুর্যোগ মোকাবেলা করে দেশের মানুষকে ভালো রাখার জন্য শেখ হাসিনা অবিরাম পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। তাঁরই নির্দেশনায় মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ খাতে ক্ষতিগ্রস্ত প্রায় পাঁচ লক্ষ খামারিকে তাদের নির্ধারিত মোবাইল নম্বরে আমরা নগদ প্রণোদনা পৌঁছে দিয়েছি। আরো প্রায় দুই লক্ষ খামারিকে প্রণোদনা দেওয়ার বিষয়ে আমরা পরিকল্পনা নিয়েছি। এটা আমরা যাচাই-বাছাই করছি, যাতে কোনভাবে মধ্যস্বত্ত্বভোগীরা প্রান্তিক পর্যায়ের মানুষদের জন্য শেখ হাসিনার এ প্রণোদনা সহায়তা নষ্ট করতে না পারে।

এসময় তিনি আরো বলেন, শেখ হাসিনার জাদুকরী নেতৃত্বে বিশ্বে বাংলাদেশ আজ উন্নয়নের রোল মডেল। এক সময়ের অন্ধকারের বাংলাদেশকে আলোর প্রদীপ হাতে নিয়ে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন শেখ হাসিনা। তাঁর এ উন্নয়ন প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখতেই প্রান্তিক খামারিদের এ প্রণোদনা দেওয়া হয়েছে। শেখ হাসিনা বেঁচে আছেন বিধায় বাংলাদেশ আজ সমৃদ্ধ। তিনি আমাদের আশা-আকাঙ্ক্ষার শেষ আশ্রয়স্থল।

এছাড়াও অপর বিশেষ অতিথি মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ধীরেন্দ্র দেবনাথ শমভু এবং বাংলাদেশে বিশ্ব ব্যাংকের কান্ট্রি ডিরেক্টর মিজ্ মার্চি মিয়াং টেম্বন (Ms Mercy Miyang Tembon) অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি সংযুক্ত হয়ে বক্তব্য প্রদান করেন।

অনুষ্ঠানে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্যবৃন্দ, বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব ও সচিববৃন্দসহ প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ডাঃ আবদুল জব্বার শিকদার, মৎস্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক কাজী শামস্ আফরোজ, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব শাহ্ মোঃ ইমদাদুল হক, শ্যামল চন্দ্র কর্মকার, সুবোল বোস মনি ও মোঃ তৌফিকুল আরিফ এবং মন্ত্রণালয় ও সংশ্লিষ্ট অধিদপ্তরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ ও সংশ্লিষ্ট প্রকল্প পরিচালকগণ উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া পিরোজপুর, টাঙ্গাইল, সুনামগঞ্জ, বরগুনা, পটুয়াখালী ও সিরাজগঞ্জ জেলার জেলার জেলা প্রশাসকগণ ও সংশ্লিষ্ট জেলার উপকারভোগী খামারিরা অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি সংযুক্ত হয়ে তাদের অনুভূতি ব্যক্ত করেন।

উল্লেখ্য, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের প্রাণিসম্পদ ও ডেইরি উন্নয়ন এবং মৎস্য অধিদপ্তরের সাসটেইনেবল কোস্টাল অ্যান্ড মেরিন ফিশারিজ প্রকল্প দুটির আওতায় উল্লিখিত প্রণোদনা দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে দেশের ৪৬৬টি উপজেলা থেকে যাচাইকৃত প্রাণিসম্পদ খাতের ৪ লক্ষ ৭ হাজার ৪০২ জন খামারিকে (ডেইরী, লেয়ার মুরগী, পোল্ট্রি মুরগি, সোনালী মুরগি, ব্রয়লার মুরগি ও হাঁস খামারি) ১৫টি ক্যাটাগরিতে বিভিন্ন হারে ৪৬৮ কোটি ৮৬ লক্ষ ৪১ হাজার ২৫০ টাকা এবং ৭৫টি উপজেলা হতে যাচাইকৃত মৎস্য খাতের ৭৮ হাজার ৭৪ জন খামারিকে (মৎস্য চাষি, চিংড়ি চাষি ও কাঁকড়া/কুঁচিয়া সংগ্রাহক) ৭টি ক্যাটাগরিতে বিভিন্ন হারে  ১০০ কোটি টাকা প্রণোদনা দেওয়া হয়েছে।

Share