আজঃ বুধবার ০৪ আগস্ট ২০২১
শিরোনাম

সহস্র বছরের সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাতে চীনে বন্যা, মৃত ১২

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২২ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২২ জুলাই ২০২১ | ১১২জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

চীনের হেনান প্রদেশে হাজার বছরের ইতিহাসের সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত এবং বৃষ্টিপাতে সৃষ্ট বন্যা, বাড়িঘর ও দেয়াল ধসে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ২৫ জনে দাঁড়িয়েছে। বুধবার (২১ জুলাই) এক সংবাদ সম্মেলনে কেন্দ্রীয় সরকারের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা এ তথ্য জানিয়েছেন।

চীনের রাষ্ট্রীয় বার্তাসংস্থা সিনহুয়া নিউজের বরাতে বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, প্রবল বর্ষণে আটকা পড়া মানুষদের উদ্ধারের জন্য প্রদেশটিতে সেনাবাহিনী পাঠিয়েছে সরকার। ৫ হাজার ৭০০ সেনা সদস্য হেনান প্রদেশে উদ্ধার কাজ চালাচ্ছে এবং ঝোংঝৌ থেকে ইতোমধ্যে ১ লাখ মানুষকে নিরাপদ আশ্রয়স্থলে নিয়েছেন।

ইয়োলো নদীর তীরবর্তী অঞ্চলে ঝেংঝৌয়ের রেল ও সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা বৃষ্টিতে নাজুক হয়ে গেছে। শহরটির পাতাল রেলের লাইন ডুবে গেছে এবং এতে অন্তত ১২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়াও সরকারি বাহিনীর সদস্যরা এসব রেল লাইন থেকে ৫০০ জনেরও বেশি মানুষকে নিরাপদে উদ্ধার করেছেন বলে জানিয়েছে সিনহুয়া নিউজ। 


আরও খবর
ভারতে আবারও বেড়েছে মৃত্যু

বুধবার ০৪ আগস্ট ২০২১




দেশে করোনায় মৃত্যু-শনাক্ত কিছুটা কমেছে

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২০ জুলাই ২০21 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২০ জুলাই ২০21 | ১৩০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে মৃত্যু কিছুটা কমেছে। এই সময়ে আরও ২০০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে এখন পর্যন্ত দেশে মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৮ হাজার ৩২৫ জনে।

এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছেন ১১ হাজার ৫৭৯ জন। এ নিয়ে দেশে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ১১ লাখ ২৮ হাজার ৮৮৯ জনে। মঙ্গলবার (২০ জুলাই) বিকেলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৯ হাজার ৯৯৭ জন। এ নিয়ে মোট সুস্থ হয়েছেন ৯ লাখ ৫১  হাজার ৩৪০ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় ৩৯ হাজার ৫১০ জনের নমুনা পরীক্ষায় শনাক্তের হার ২৯ দশমিক ৩১ শতাংশ।

এর আগে সোমবার (১৯ জুলাই) দেশে সর্বোচ্চ ২৩১ জনের মৃত্যু হয় এবং করোনা শনাক্ত হয় ১৩ হাজার ৩২১ জনের। তারও আগে ১১ জুলাই দেশে ২৩০ জন মারা যান। যা দ্বিতীয় সর্বোচ্চ।

এদিকে, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও প্রাণহানির পরিসংখ্যান রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডওমিটারের তথ্যানুযায়ী, বাংলাদেশ সময় মঙ্গলবার (২০ জুলাই) সকাল সাড়ে ৮টা পর্যন্ত পূর্ববর্তী ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে করোনায় মারা গেছেন আরও ৬ হাজার ৮৪০ জন এবং আক্রান্ত হয়েছেন ৪ লাখ ১৮ হাজার ২৭০ জন।

এ নিয়ে বিশ্বে এখন পর্যন্ত মোট করোনায় মৃত্যু হলো ৪১ লাখ ১২ হাজার ৭৯২ জনের এবং আক্রান্ত হয়েছেন ১৯ কোটি ১৭ লাখ ১২ হাজার ৯৬৭ জন। এদের মধ্যে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১৭ কোটি ৪৫ লাখ ৬৬ হাজার ৩৩৪ জন।

করোনায় এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ও মৃত্যু হয়েছে বিশ্বের ক্ষমতাধর দেশ যুক্তরাষ্ট্রে। তালিকায় শীর্ষে থাকা দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনা সংক্রমিত হয়েছেন ৩ কোটি ৫০ লাখ ১৮ হাজার ৬০০ জন। মৃত্যু হয়েছে ৬ লাখ ২৪ হাজার ৯৮৩ জনের।

আক্রান্তে দ্বিতীয় ও মৃত্যুতে তৃতীয় অবস্থানে থাকা ভারতে এখন পর্যন্ত মোট সংক্রমিত হয়েছেন ৩ কোটি ১১ লাখ ৭৩ হাজার ১৯ জন এবং এখন পর্যন্ত মোট মৃত্যু হয়েছে ৪ লাখ ১৪ হাজার ৫১৩ জনের।

আক্রান্তে তৃতীয় এবং মৃত্যুতে দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা ব্রাজিলে এখন পর্যন্ত করোনায় এক কোটি ৯৩ লাখ ৯১ হাজার ৮৪৫ জন সংক্রমিত হয়েছেন। মৃত্যু হয়েছে ৫ লাখ ৪২ হাজার ৮৭৭ জনের।

আক্রান্তের দিক থেকে চতুর্থ স্থানে রয়েছে রাশিয়া। দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৫৯ লাখ ৮২ হাজার ৭৬৬ জন। মারা গেছেন এক লাখ ৪৯ হাজার ১৩৮ জন। এ তালিকায় পঞ্চম স্থানে রয়েছে ফ্রান্স। দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন ৫৮ লাখ ৭১ হাজার ৮৮১ জন। এর মধ্যে মারা গেছেন এক লাখ ১১ হাজার ৪৯২ জন।

এদিকে আক্রান্তের তালিকায় তুরস্ক ষষ্ঠ, যুক্তরাজ্য সপ্তম, আর্জেন্টিনা অষ্টম, কলম্বিয়া নবম ও ইতালি দশম স্থানে রয়েছে।

এই তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান ২৬তম, যা গত ৭২ ঘণ্টার তুলনায় চার ধাপ এগিয়েছে। ওয়ার্ল্ডওমিটারের তালিকায় শনিবার পর্যন্ত বাংলাদেশের অবস্থান ছিল ২৯তম। ২০১৯ সালের ডিসেম্বরের শেষ দিকে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান থেকে করোনাভাইরাস সংক্রমণ শুরু হয়। এখন পর্যন্ত বাংলাদেশসহ বিশ্বের ২১৮টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে কোভিড-১৯।


আরও খবর
করোনায় আরও ২৩৫ জনের মৃত্যু

মঙ্গলবার ০৩ আগস্ট ২০২১




ময়মনসিংহ মেডিক‌্যাল হাসপাতালে করোনা ইউনিটে ২১ মৃত্যু

প্রকাশিত:রবিবার ০১ আগস্ট ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ০১ আগস্ট ২০২১ | ৫৮জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ময়মনসিংহ মেডিক‌্যাল কলেজ (মমেক) হাসপাতালের করোনা ইউনিটে গত ২৪ ঘণ্টায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় আরও ২১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এরমধ্যে করোনায় ৯ জন ও উপসর্গ নিয়ে মৃত্যু হয়েছে ১২ জনের। রবিবার (০১ আগস্ট) সকালে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন হাসপাতালের করোনা ইউনিটের ফোকাল পারসন ডা. মহিউদ্দিন খান মুন।

ডা. মহিউদ্দিন খান মুন জানান, শনিবার সকাল ৮টা থেকে রবিবার সকাল ৮টা পর্যন্ত হাসপাতালের করোনা ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ২১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়াও করোনা ও উপসর্গ নিয়ে নতুন ভর্তি হয়েছেন ৯৪ জন ও সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৫০ জন।

ডা. মহিউদ্দিন খান মুন আরও জানান, হাসপাতালে করোনা ইউনিটে ভর্তি রোগীর চাপ ব্যাপক বেড়েছে। দেখা দিয়েছে শয্যা সংকট। মেঝেতেও ঠাঁই হচ্ছে না রোগীদের। হাসপাতালের আইসিইউতে ২২ জনসহ মোট ৫২৮ জন রোগী করোনা ও উপসর্গ নিয়ে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। ফাঁকা নেই আইসিইউ।

ময়মনসিংহ জেলা সিভিল সার্জন ডা. মো. নজরুল ইসলাম জানান, শনিবার ময়মনসিংহ মেডিক‌্যাল কলেজের পিসিআর ল্যাব ও হাসপাতালে অ‌্যান্টিজেন টেস্টে মোট ১১৩৬ টি নমুনা পরীক্ষা করে নতুন ৩২২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। নমুনা পরীক্ষায় শনাক্তের হার ২৭.৪৬ শতাংশ।



আরও খবর



খুলনায় একদিনে রেকর্ড ২২ জনের মৃত্যু

প্রকাশিত:বুধবার ০৭ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ০৭ জুলাই ২০২১ | ১১৬জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

খুলনার চার হাসপাতালে করোনায় ২২ জন মরা গেছেন। এর মধ্যে করোনায় ২১ জন এবং উপসর্গ নিয়ে ১ জন মারা গেছেন। মঙ্গলবার (০৬ জুলাই) সকাল ৮টা থেকে বুধবার (০৭ জুলাই) সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় চার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাদের মৃত্যু হয়েছে।

জানা গেছে, গাজী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ৫ জন, খুলনা করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালে ১০ জন, জেনারেল হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ৫ জন ও আবু নাসের হাসপাতালে ২ জন মারা গেছেন।

খুলনা করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালের ফোকাল পার্সন ডা. সুহাস রঞ্জন হালদার জানান, হাসপাতালে একদিনে ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে করোনায় ৯ জন ও উপসর্গ নিয়ে ১ জন মারা গেছেন।


আরও খবর



খুলনা বিভাগে ২৪ ঘণ্টায় করোনায় ৬০ জনের মৃত্যু

প্রকাশিত:বুধবার ০৭ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ০৭ জুলাই ২০২১ | ১৪৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালকের দফতর সূত্র জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় বিভাগের মধ্যে সর্বোচ্চ ২১ জনের মৃত্যু হয়েছে খুলনায়। কুষ্টিয়ায় ১১ জন, ঝিনাইদহে সাতজন, যশোরে ছয়জন

করোনাভাইরাসের কারণে মৃত্যুকূপে পরিণত হয়েছে খুলনা বিভাগ। একের পর এক মৃত্যু ও শনাক্তের রেকর্ড ভাঙছে। গত ২৪ ঘণ্টায় সব রেকর্ড ভেঙে বিভাগে সর্বোচ্চ ৬০ জনের মৃত্যু হয়েছে। একই সময়ে সর্বোচ্চ ১ হাজার ৯০০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

বুধবার (০৭ জুলাই) বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিচালক ডা. রাশেদা সুলতানা এসব তথ্য নিশ্চিত করেন। এর আগে গত সোমবার খুলনা বিভাগে সর্বোচ্চ ৫১ জনের মৃত্যু হয়েছিল। এছাড়া গতকাল মঙ্গলবার সর্বোচ্চ ১ হাজার ৮৬৫ জনের শনাক্তের রেকর্ড হয়েছিল।

বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালকের দফতর সূত্র জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় বিভাগের মধ্যে সর্বোচ্চ ২১ জনের মৃত্যু হয়েছে খুলনায়। কুষ্টিয়ায় ১১ জন, ঝিনাইদহে সাতজন, যশোরে ছয়জন, চুয়াডাঙ্গায় পাঁচজন, নড়াইলে চারজন, বাগেরহাটে তিনজন, মেহেরপুরে দুজন ও মাগুরায় একজন মারা গেছেন।

খুলনা বিভাগের মধ্যে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয় চুয়াডাঙ্গায় গত বছরের ১৯ মার্চ। করোনা সংক্রমণের শুরু থেকে মঙ্গলবার সকাল পর্যন্ত বিভাগের ১০ জেলায় মোট শনাক্ত হয়েছে ৬৩ হাজার ৯৩৪ জন। আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ১ হাজার ৩২৫ জন। এ সময় সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৪২ হাজার ৮৪৪ জন।

বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদফতরের জেলাভিত্তিক করোনা সংক্রান্ত তথ্য বিশ্লেষণে দেখা যায়, গত ২৪ ঘণ্টায় বিভাগে সর্বোচ্চ করোনা শনাক্ত হয়েছে খুলনায়। জেলায় করোনা শনাক্ত হয়েছে ৫৮৫ জনের। এ পর্যন্ত জেলায় করোনা শনাক্ত হয়েছে ১৭ হাজার ৫৬০ জনের। এ সময় মারা গেছেন ৩৪৮ জন ও সুস্থ হয়েছেন ১১ হাজার ৯৪৩ জন।

বাগেরহাটে নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছে ১১৮ জনের। এ নিয়ে জেলায় মোট করোনা শনাক্ত হয়েছে ৪ হাজার ১৩৯ জনের। আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৯৫ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ২ হাজার ৯৪৮ জন। সাতক্ষীরায় ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে শনাক্ত হয়েছে ১১১ জন। এ নিয়ে জেলায় মোট করোনা শনাক্ত হয়েছে ৩ হাজার ৯৬৪ জন এবং মারা গেছেন ৭৬ জন। এ সময় সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ২ হাজার ৮৩৯ জন। যশোরে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে শনাক্ত হয়েছে ৩৭৩ জন। এ নিয়ে জেলায় মোট করোনা শনাক্ত হয়েছে ১৪ হাজার ১৭৩ জন। মোট মারা গেছেন ১৮৭ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ৮ হাজার ৯৫৮ জন।

ঝিনাইদহে ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে শনাক্ত হয়েছে ১৫৬ জন। এ নিয়ে জেলায় মোট করোনা শনাক্ত হয়েছে ৫ হাজার ১৭৬ জন। মোট মারা গেছেন ১১৫ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ৩ হাজার ১২৮ জন। মাগুরায় ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ৭৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ জেলায় মোট করোনা শনাক্ত হয়েছে ১ হাজার ৮৫৪ জনের। মোট মারা গেছেন ৩১ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৩৪৭ জন। নড়াইলে ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে শনাক্ত হয়েছে ৫১ জন। এ নিয়ে জেলায় মোট করোনা শনাক্ত হয়েছে ৩ হাজার ১৫৭ জনের। মোট মারা গেছেন ৫৪ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ২ হাজার ২৬৫ জন।

কুষ্টিয়ায় ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে শনাক্ত হয়েছে ২৩৪ জন। এ নিয়ে জেলায় মোট করোনা শনাক্ত হয়েছে ৯ হাজার ৪৩১ জনের। মোট মারা গেছেন ২৮৬ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ৬ হাজার ১৪৫ জন। চুয়াডাঙ্গায় ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে শনাক্ত হয়েছে ১৩০ জন। এ নিয়ে জেলায় মোট করোনা শনাক্ত হয়েছে ৪ হাজার ৭৫ জন। মোট মারা গেছেন ১০৬ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ২ হাজার ৩৫৯ জন। মেহেরপুরে নতুন করে শনাক্ত হয়েছে ৫৯ জন। এ নিয়ে জেলায় মোট শনাক্ত হয়েছে ২ হাজার ২৭০ জন। আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৬৭ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৪৪৬ জন।


আরও খবর



২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড বরিশালে

প্রকাশিত:সোমবার ১২ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১২ জুলাই ২০২১ | ১১৮জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সোমবার সকাল পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় তাদের মৃত্যু হয়। আর এই সময়ে বিভাগে নতুন করে ৫৭৫ জন করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছেন। বরিশাল বিভাগে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা ও উপসর্গ নিয়ে ২২ জনের মৃত্যু হয়েছে, যা এযাবৎকালের সর্বোচ্চ।

এর আগের দিন ২৪ ঘণ্টায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা ছিল এযাবৎকালের সর্বোচ্চ ৭১০ জন। এ নিয়ে বিভাগে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ২২হাজার ৬৮৪ জন।

জানা যায়, বরিশাল শের ই বাংলা মেডিকেল কলেজ (শেবাচিম) হাসাপাতালের করোনার আইসোলেশন ওয়ার্ডে উপসর্গ নিয়ে এযাবৎকালের সর্বোচ্চ ১৯ জনের মৃত্যু হয়েছে গত ২৪ ঘণ্টায়। এছাড়া এর মধ্যে বরগুনায় দুজন ও ঝালকাঠিতে একসহ মোট তিনজন করোনা রোগীর মৃত্যু শনাক্ত হয়েছে। যা নিয়ে বরিশাল বিভাগে করোনায় মোট মৃত্যুর সংখ্যা ৩৫২ জনে দাঁড়িয়েছে বলে জানিয়েছেন বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক।

বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. বাসুদেব কুমার দাস জানান, মোট আক্রান্ত ২২ হাজার ৬৮৪ জনের মধ্যে এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১৫ হাজার ৯৩৮ জন।

আক্রান্ত সংখ্যায় বরিশাল জেলায় নতুন সর্বোচ্চ ২১৬ জন নিয়ে মোট ৯ হাজার ৬১২ জন,পটুয়াখালী জেলায় নতুন ৪৯ জন নিয়ে মোট ২৮৯২, ভোলা জেলায় নতুন ৩৭ জনসহ মোট ২২৯৩,পিরোজপুর জেলায় নতুন ৯৪ জন নিয়ে মোট ৩১৯৭, বরগুনা জেলায় নতুন ৬৬ জন নিয়ে মোট আক্রান্ত ১৯০৩ এবং ঝালকাঠি জেলায় নতুন ১১৩ শনাক্ত নিয়ে মোট সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৭৮৭ জন।

এদিকে শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পরিচালকের দপ্তর সূত্রে জানা গেছে, গত ২৪ ঘণ্টায় শুধুমাত্র বরিশাল শেবাচিম হাসাপাতালের করোনার আইসোলেশন ওয়ার্ডে উপসর্গ নিয়ে ১৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। যা নিয়ে শুধুমাত্র শেবাচিম হাসপাতালেই করোনায় আক্রান্ত হয়ে ২৩১ জন এবং আইসোলেশন ওয়ার্ডে উপসর্গ নিয়ে ৬১৩ জনের মৃত্যু হয়েছে।


আরও খবর