আজঃ শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪
শিরোনাম

শিবগঞ্জে আধিপত্য বিস্তারে ৪০ ককটেল বিস্ফোরণ

প্রকাশিত:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি

Image

চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ৪০টি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে দুই পক্ষ। এ সময় কয়েকটি বসত বাড়িতেও ভাঙচুর করা হয়।

সোমবার (১২ ফেব্রুয়ারি) সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত উপজেলার নয়ালাভাঙা ইউনিয়নের উপর সুন্দরপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় কেউ হতাহত না হলেও সাধারণ মানুষের মাঝে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। পরে খবর পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে দুই পক্ষই পিছু হটে।

স্থানীয়রা বলেন, পূর্ব শত্রুতার জেরে স্থানীয় বিএনপি নেতা বাবু আলীর নেতৃত্বে ৬০-৭০ জনের একটি দল ককটেল ফোটাতে ফোটাতে সাবেক ইউপি সদস্য ও আওয়ামী লীগ নেতা আঙ্গুর আলীর বাড়ির দিকে এগোতে থাকে। বিষয়টি টের পেয়ে আঙ্গুর আলীর লোকজন প্রতিরোধ গড়লে পিছু হটে বাবুর লোকজন। এসময় শতাধিক ককটেল বিস্ফোরণ ঘটানো হয়।

শিবগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাজ্জাদ হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন- আমরা খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়েছিলাম। মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

নয়ালাভাঙ্গা ইউনিয়নে প্রায়ই এমন ঘটনা ঘটে বলেও জানান এই কর্মকর্তা। বর্তমানে বিশৃঙ্খলা এড়াতে ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।


আরও খবর



মুন্সীগঞ্জে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বাস খাদে, আহত ২০

প্রকাশিত:রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
সাকিব আহম্মেদ, মুন্সিগঞ্জ

Image

মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখানে যাত্রীবাহী বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খাদে পড়ে ১৫-২০ জন যাত্রী আহত হয়েছেন। এদের মধ্যে ৪ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

শনিবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) রাত ৯টার দিকে সিরাজদিখান উপজেলার কাজীর বাগ চৌরাস্তায় এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, ঢাকা-টঙ্গীবাড়ী রুটে ডিএম পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাস (ঢাকা মেট্রো গ ১৫-৯৬৬১) সন্ধ্যা ৭টার দিকে ঢাকার গুলিস্তান এলাকা থেকে টঙ্গীবাড়ীর উদ্দেশ্যে রওনা হয়। তখন গাড়ির মূল ড্রাইভার কাইয়ুম গাড়িটি চালাচ্ছিলেন।

কাইয়ুম সিরাজদিখান উপজেলার ইছাপুরা গ্রামের বাসিন্দা। এই গাড়িটি ইছাপুরা হয়ে টঙ্গীবাড়ি আসার পথে কাইয়ুম তার গ্রামের বাড়ি ইছাপুরায় নেমে যান। পরে হেলপার গাড়ি চালাচ্ছিলেন।

গাড়িটি রাত ৯টার দিকে সিরাজদিখান উপজেলার কাজিরবাগ বনভিটা এলাকায় পৌঁছালে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খাদে পড়ে যায়। এ সময়ে গাড়িতে ৩০ থেকে ৩৫ জন যাত্রী ছিলেন।

গাড়ির মালিকের নাম ইলিয়াস। তিনি সিরাজদিখান উপজেলার কুচিয়ামোড়া এলাকার বাসিন্দা।

ঘটনাস্থলে উদ্ধার অভিযান চালাচ্ছে সিরাজদীখান ফায়ার সার্ভিসের একটি টিম।


আরও খবর



বেইলি রোডে আগুনে ৪৩ জন নিহত : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত:শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

রাজধানীর বেইলি রোডে বহুতল ভবনে আগুনে ৪৩ জন নিহত হয়েছেন। স্বাস্থ্যমন্ত্রী সামন্ত লাল সেন বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ২টার দিকে সাংবাদিকদের এই তথ্য জানিয়েছেন।

সামন্ত লাল সেন বলেন, বেইলি রোডে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে ৩৩ জন এবং পার্শ্ববর্তী শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ১০ জন মারা গেছেন। জরুরি বিভাগ ও বার্ন ইনস্টিটিউট মিলিয়ে এখন পর্যন্ত আহত ২২ জন চিকিৎসাধীন আছেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আমি সংবাদ পেয়ে দ্রুত চলে এসেছি। প্রধানমন্ত্রী আমাকে দ্রুত যেতে বলেছেন। এখানে এসে ভয়াবহ অবস্থা দেখলাম। যারা এখন পর্যন্ত বেঁচে আছেন, তাদের বেশির ভাগের শ্বাসনালী পুড়ে গেছে। এটা অত্যন্ত দুঃখজনক। যারা বেঁচে আছেন তাদের বাঁচিয়ে রাখার চেষ্টা করা হচ্ছে। আহতরা ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও বার্ন ইনস্টিটিউটে ভর্তি আছেন। বাইরে কেউ আছে কি না, সে তথ্য এখনও পাওয়া যায়নি।

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে আহত ও দগ্ধদের চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়েছে বলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী সামন্ত লাল সেন।

বৃহস্পতিবার রাত ৯টা ৫০ মিনিটের দিকে ভবনের দ্বিতীয় তলায় কাচ্চি ভাই নামের একটি রেস্তোরাঁয় আগুন লাগে। ফায়ার সার্ভিসের ১৩টি ইউনিটের চেষ্টায় রাত ১১টা ৫০ মিনিটে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

এরপর ফায়ার সার্ভিসের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. মাইন উদ্দিন হতাহতদের সম্পর্কে জানান।

ওই ভবনটি সাত তলা। উপরের তলাগুলোতেও রেস্তোরাঁ এবং তৃতীয় তলায় একটি পোশাকের দোকান ছিল। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, দ্বিতীয় তলায় আগুন লাগার পর তা উপরের তলাগুলোতে ছড়িয়ে পড়ে। আতঙ্কিত লোকজন উপরের দিকে উঠে যায়। এ সময় ভবন থেকে তাড়াহুড়ো করে নামতে গিয়ে কয়েকজন আহত হন। তাঁদের মধ্যে ১২ জনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

আগুন নেভানোর পাশাপাশি ভবনে আটকা পড়া ব্যক্তিদের মই দিয়ে নামিয়ে আনেন ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা।


আরও খবর



ভারতকে হারিয়ে ফাইনালে বাংলাদেশ

প্রকাশিত:রবিবার ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
ক্রীড়া প্রতিবেদক

Image

ভারতকে হারিয়ে সাফ অনূর্ধ্ব-১৯ নারী চ্যাম্পিয়ন শিপের ফাইনালে উঠে গেছে বাংলাদেশ। রোববার (৪ ফেব্রুয়ারি) কমলাপুরে বাংলাদেশ ইনজুরি সময়ে সাগরিকার গোলে জয় পায় বাংলাদেশ। তবে নির্ধারিত ৯০ মিনিটের খেলায় গোলশূন্য ড্র ছিল।

প্রথম আসরে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পথে দুইবার ভারতকে হারিয়েছিল বাংলাদেশ। লিগ পর্ব ও ফাইনালের জয় ছিল ১-০ গোলে। তিন বছর পর দ্বিতীয় আসরের লিগ পর্বে একই ব্যবধানে ভারতকে হারিয়ে ফাইনাল নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশ।

শুরু থেকেই ম্যাচের চেষ্টা ছিল ড্রয়ের। ম্যাচ ড্র হলে ফাইনালের জন্য অপেক্ষা করতে হতো বাংলাদেশকে। ইনজুরি সময়ে আফঈদার বাড়ানো বল ধরে সাগরিকা গোলরক্ষকের পাশ দিয়ে বল পাঠিয়ে দেন ভারতের জালে।

টুর্নামেন্টের প্রথম ম্যাচেরও জয় এনেছিলেন সাগরিকা। নেপালের বিপক্ষে ৩ গোলের মধ্যে ২ গোলই দিয়েছিলেন তিনি। টানা দুই ম্যাচ জয়ের নায়ক এই নারী ফুটবলার।

দুই ম্যাচে বাংলাদেশের পয়েন্ট ৬। ভারতের ৩। বাংলাদেশ শেষ ম্যাচ খেলবে মঙ্গলবার (৬ ফেব্রুয়ারি) ভুটানের বিপক্ষে। ভারতের প্রতিপক্ষ নেপাল। ৮ ফেব্রুয়ারি টুর্নামেন্টের ফাইনাল।


আরও খবর



মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষা শুক্রবার, মানতে হবে যেসব নিয়ম

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

সরকারি ও বেসরকারি মেডিকেল কলেজসমূহে ২০২৩-২৪ শিক্ষাবর্ষে এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে ৯ ফেব্রুয়ারি (শুক্রবার)। সকাল ১০টা থেকে ১১টা পর্যন্ত ১ ঘণ্টাব্যাপী দেশের ১৯টি কেন্দ্রের ৪৪টি ভেন্যুতে একযোগে অনুষ্ঠিত হবে এ পরীক্ষা।

বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানিয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী ডা. সামন্ত লাল সেন।

তিনি জানান, ২০২৩-২৪ শিক্ষাবর্ষের এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষা আগামীকাল শুক্রবার অনুষ্ঠিত হবে। ৩৭টি সরকারি মেডিকেল কলেজে ৫৩৮০টি আসন এবং বেসরকারি পর্যায়ে অনুমোদিত ৬৭টি মেডিকেল কলেজে মোট ৬২৯৫টি আসনের বিপরীতে এই ভর্তি পরীক্ষায় অনুষ্ঠিত হবে।

মন্ত্রী বলেন, এমবিবিএস ভর্তি প্রক্রিয়ায় স্বচ্ছতা আনা, প্রকৃত শিক্ষার্থীদের হয়রানি ও অনিয়ম বন্ধ এবং মেধাবী শিক্ষার্থীদের ভর্তি নিশ্চিতকরণের লক্ষ্যে ভর্তি প্রক্রিয়া ডিজিটালাইজেশনের কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে। সরকারি মেডিকেল কলেজে বিগত কয়েক বছর অনলাইনে ভর্তি প্রক্রিয়া সম্পন্নকরণ এবং ডিজিটালাইজেশনের ফলে প্রশ্নপত্র ফাঁস বন্ধ হয়েছে এবং একটি স্বচ্ছ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে ভর্তি কার্যক্রম সম্পন্ন করা সম্ভব হয়েছে।

সামন্ত লাল সেন বলেন, ভর্তি প্রক্রিয়ায় অনিয়ম রোধ এবং শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত অর্থ আদায় বন্ধের লক্ষ্যে ২০২২-২৩ শিক্ষাবর্ষে বেসরকারি মেডিকেল কলেজের ভর্তি প্রক্রিয়া ডিজিটালাইজেশনের কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়। বেসরকারি মেডিকেল কলেজে ২০২২-২৩ শিক্ষাবর্ষে এমবিবিএস ভর্তি প্রক্রিয়া ডিজিটালাইজেশনের মাধ্যমে অনলাইন প্রক্রিয়ায় শুরু হওয়ায় প্রকৃত শিক্ষার্থীদের হয়রানি, অনিয়ম ও অতিরিক্ত অর্থ আদায়ের পথ বন্ধ হয়েছে এবং মেধাবী শিক্ষার্থীদের ভর্তি নিশ্চিতের সুযোগ সৃষ্টি হওয়ায় বিষয়টি জনগণের মধ্যে ব্যাপকভাবে সমাদৃত হয়েছে।

ভর্তি পরীক্ষা সংক্রান্ত তথ্য

প্রশ্নপত্র বহনকারী ট্রাকে একটি ইলেক্ট্রনিক ডিভাইস রয়েছে যার মাধ্যমে অধিদপ্তর হতে পরীক্ষা কেন্দ্রে আনা নেওয়া কার্যক্রম মনিটরিং করা হয়।

পরীক্ষার দিন কেন্দ্র/ভেন্যুর গেট খুলবে সকাল ৮টায়। পরীক্ষার দিন সকাল ৯.৩০ মিনিটের পর কোন পরীক্ষার্থী হলে প্রবেশ করতে পারবেন না।

পরীক্ষার্থীরা প্রবেশপত্রের রঙিন প্রিন্ট কপি নিয়ে আসবেন।

কেন্দ্র/ভেন্যু-তে পরীক্ষার্থীদের (ছেলে ও মেয়ে) পৃথক পৃথক তল্লাশির ব্যবস্থা থাকবে। পরীক্ষার্থীরা প্রবেশপত্র ও বল পয়েন্ট কলম ব্যতীত অন্য কোনো ইলেকট্রনিক ডিভাইস নিয়ে যাতে প্রবেশ করতে না পারে সেলক্ষ্যে মেটাল ডিটেক্টরের পাশাপাশি আর্চওয়ে দিয়ে শিক্ষার্থীদের প্রবেশের বিষয়টি তদারক করা হবে।

ভর্তি পরীক্ষার কেন্দ্র/ভেন্যুতে সকাল ৮টা থেকে শিক্ষার্থীরা প্রবেশ করতে ইনভিজিলেটরগণ (কক্ষ পরিদর্শক) সকাল ৮টা হতে পরীক্ষার দায়িত্বপ্রাপ্ত কক্ষে অবস্থান করে প্রবেশপত্রে পরীক্ষার্থীর ছবির জলছাপ ও রঙিন ছবির সঙ্গে পরীক্ষার্থীর চেহারা মিলিয়ে পরীক্ষা কক্ষে প্রবেশের অনুমতি প্রদান করবেন। দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাগণ কেন্দ্রে উপস্থিত থেকে বিষয়টি নিশ্চিত করবেন।

পরীক্ষার্থী, ইনভিজিলেটর ও ভেন্যুর কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ মন্ত্রণালয়/অধিদপ্তরের কর্মকর্তাগণ কোনোভাবেই মোবাইল, ইলেকট্রনিক ডিভাইস, ব্লুটুথ, এয়ারফোন, ইত্যাদি বহন করবেন না। ভর্তি পরীক্ষার হলে ভর্তি পরীক্ষা সংশ্লিষ্ট কাজের সঙ্গে জড়িত কেউ মোবাইল নিয়ে প্রবেশ করতে পারবে না।

ভর্তি পরীক্ষার কেন্দ্র/ভেন্যুতে ভর্তি পরীক্ষা সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গ ছাড়া অন্য কোনো ব্যক্তি প্রবেশ করতে পারবে না।

১০ জানুয়ারি ২০২৪ হতে মেডিকেল ভর্তি কোচিং সেন্টারসমূহ বন্ধের নির্দেশনার জেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনার মাধ্যমে অফলাইন কোচিং সেন্টার বন্ধ করা হয়েছে। এছাড়াও অনলাইন কোচিং বন্ধ ও সাইবার অপরাধ রোধকল্পে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী এবং গোয়েন্দা সংস্থাসমূহের তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে।

পরীক্ষার দিন পরীক্ষা কেন্দ্রসমূহের আশেপাশের ফটোকপি মেশিন বন্ধ থাকবে।

পরীক্ষার সাথে সংশ্লিষ্ট যেকোনো প্রকার অসদাচরণ/প্রতারণা/গুজব ছড়ানোর সঙ্গে জড়িত কাউকে চিহ্নিত করা গেলে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করে ব্যাপক প্রচারের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।


আরও খবর
জাবির ‘ডি’ ইউনিটের ফল প্রকাশ

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




বগুড়ার চরাঞ্চলে বাদামের বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা

প্রকাশিত:সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
বগুড়া প্রতিনিধি

Image

বগুড়া সারিয়াকান্দি উপজেলার উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া যমুনা নদীর চরে এখন সবুজের সমারোহ । শুরু হয়েছে কৃষি বিপ্লব। আগে চরের মানুষ যেখানে দুমুঠো খাবার খেতে পেতনা। তারা এখন তাদেরও আদরের ছেলে মেয়েদের স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসায় পাঠায় লেখাপড়া শেখার জন্য। বদলে গেছে চরের অবকাঠামো গত চেহারা।

সারিয়াকান্দি চালুয়াবাড়ী ইউনিয়নের হাটবাড়ি চরে গিয়ে দেখা গেছে সেখানকার জনবসতি দাড়ানোর সময় নেই। সব সময় তারা ব্যস্ত সময় পার করছে।

সুইজারল্যান্ড ও বাংলাদেশ সরকারের যৌথ অর্থায়নে এমফরসি প্রকল্পের আওতায় দেশের অন্যান্য জেলা উপজেলার ন্যায় সারিয়াকান্দি ও ফুলছড়ি উপজেলায় শুরু হয়েছে কৃষি বিপ্লব। চীনা বাদাম একটি স্বল্পমেয়াদি অর্থকরী ফসল। এটি একটি উৎকৃষ্ট ভোজ্য তেলবীজ। চীনা বাদামের বীজে শতকরা ৪৮ থেকে ৫০ ভাগ তেল এবং শতকরা ২২ থেকে ২৯ ভাগ আমিষ রয়েছে।

বাদাম মুলত বছরে দুই বার চাষ করা যায়। বাসন্তী বাদাম মূলত দুই দানা থাকে। এছাড়া ঝিংগা বাদামে তিন থেকে চারটি করে দানা থাকে। ত্রিদানা বাদামেও তিন-চারটি করে দানা থাকে। কৃষকরা তরমুজ, শিম, বেগুন, মরিচ, গোল আলু, ভুট্টা, সরিষা, তিলের পাশাপাশি চাষ করছেন চীনা বাদাম। জামালপুরের সরিষাবাড়ী, মাদারগঞ্জ, ইসলামপুর, দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার যমুনার দুই পাশে জেগে ওঠা চরে বাদাম চাষ হয়।

দেশের অন্যান্য জেলায় উৎপাদিত বাদামের তুলনায় সারিয়াকান্দির বাদাম আকারে বেশ বড় ও সুস্বাদু হয়। ফলে চাহিদাও ব্যাপক। দেশের চাহিদার প্রায় ৩০ ভাগ বাদাম পাওয়া যায় উত্তর অঞ্চলে। এসব বাদাম রাজধানীসহ সারা দেশে ছড়িয়ে পড়ে।

হাটবাড়ি গ্রামের কৃষক সজিব ও মামুন জানান, আমরা পড়াশুনার পাশাপাশি মাঠে বাবাকে সাহায্য করি। আমাদের চরে এবার বাদামের মূল মৌসুমে আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় বাদামের ফলন বেশি হবে বলে আশা করছেন কৃষকরা।

এ উপজেলার বাদাম চাষি শাকিল জানান, এবার বৃষ্টিপাত ও শীত কম হওয়ায় বাদাম গাছে রোগ-বালাই নেই বললেই চলে। ফলে ফলন বেশি হবে। তিনি আরও বলেন আর ১৫ থেকে ২০ দিনের মধ্যেই বাদাম তোলা শুরু হবে। আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় এবার তুলনামূলক বাদামের ফলন বেশি হবে।

পল্লী উন্নয়ন একাডেমীর যুগ্মপরিচালক ও প্রকল্প পরিচালক (এমফোরসি) ড. মোঃ আব্দুল মজিদ প্রামানিক বলেন, এমফোরসি-২য় পর্যায় শীর্ষক প্রকল্পের মাধ্যমে চরাঞ্চলে অনাবাদী জমি আবাদের আওতায় আনতে আমরা এক যোগে কাজ করে যাচ্ছি।

বগুড়া কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মো. মতলুবর রহমান জানান, চলতি বছর বেশ জমিতে বাদাম চাষ হচ্ছে। হেক্টর প্রতি চীনা বাদামের গড় ফলন মাত্র ১.৫০ মেট্রিক টন। উন্নত প্রযুক্তি প্রয়োগের মাধ্যমে চীনা বাদামের ফলন বৃদ্ধির যথেষ্ট সুযোগ রয়েছে।

তিনি আরও জানান মূলত ঝিংগা বাদাম, ত্রিদানা বাদাম ও বারি বাদাম চাষ করা হয়। তবে বাসন্তী বাদামের চাষ হয় বেশি।


আরও খবর