আজঃ শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪
শিরোনাম

সিলেটে মহাশশ্মান শবদাহের চুলা উদ্বোধন করলেন সিসিক মেয়র

প্রকাশিত:বুধবার ৩১ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ৩১ জানুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
সিলেট প্রতিনিধি

Image

সিলেট নগরীর চালিবন্দর মহাশশ্মানে নবনির্মিত শবদাহের চুলা উদ্বোধন করেছেন সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মো. আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী।

বুধবার (৩১ জানুয়ারি) সকাল ১০টায় নগরীর চালিবন্দর মহাশশ্মানে শবদাহের চুলা উদ্বোধন কালে সিসিক মেয়র সিলেট নগরীকে অসাম্প্রদায়িক ও আদর্শ নগরী হিসেবে গড়ে তুলার প্রতিশ্রুতি দেন।

তিনি বলেন, সিলেটের উন্নয়নে প্রধানমন্ত্রীর সুনজর আছে। সকলের ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্টায় নগরীর উন্নয়নে আমি আমার সর্বোচ্চটুকু দিয়ে কাজ করে যাবো। সিলেটকে সুন্দর পরিচ্ছন্ন এবং উন্নত নগরী হিসেবে গড়ে তুলে নগরবাসীকে একটি গ্রিন-ক্লিন-স্মার্ট সিলেট উপহার দিবো।

মেয়র আরও বলেন, সব ধর্মের লোক একটি বয়সের পর আমাদের পরকালের পথে যেতে হবে। তাই আমরা আমাদের কবর এবং শশ্মান পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন রাখার চেষ্টা করবো।

এসময় উপস্থিত ছিলেন সিলেট সিটি কর্পোরেশনের ১৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ছয়ফুল আমি বাকের, সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর শাহানা বেগম শানু, ১৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শান্তনু দত্ত শন্তু, ০৮ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর জগদীশ চন্দ্র দাশ। প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ইফতেখার আহমেদ চৌধুরী, প্রধান প্রকৌশলী নূর আজিজুর রহমান।

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি বিজিত চৌধুরী, প্রদীপ ভট্টাচার্য, সিলেট জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা গোপীকা শ্যাম পুরকায়স্থ, মহানগর আওয়ামী লীগের কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক তপন মিত্র, মহানগর আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক সম্পাদক রজত কান্তি গুপ্ত, এড. প্রশান্ত কুমার পাল, মলয় পুরকায়স্থ, এড. বিজয় কুমার দেব বুলু, দেবাংশু দাস মিঠু, চন্দন দাশ, বিশ্বজিত দেবরায় বিশু, কিশোর ভট্টাচার্য জনি, বিভাষ শ্যাম যাদন, জয়ন্ত দেব মিন্টু, রাখাল দে, অমিত দে, অংশুমান ভট্টাচার্য  রাকু, এড. দেবতোষ দেব, এড. সন্তু দাস,  উজ্বল দাস, অরূপ শ্যাম বাপ্পি, উত্তম ঘোষ প্রমুখ।


আরও খবর



অপহরণের ১৮ দিন পর নদীর তীরে মিলল জেলের লাশ

প্রকাশিত:সোমবার ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
মোহাম্মদ ফারুক, কক্সবাজার

Image

কক্সবাজারে উখিয়া উপজেলার আঞ্জুমানপাড়া সীমান্তের খালে মাছ ধরতে গিয়ে অপহরণের ১৮ দিন পর নাফ নদীর তীরে এক জেলের লাশ পাওয়া গেছে। স্বজনদের দাবি আরাকান আর্মির সদস্যরা ওই জেলেকে অপহরণ করেছিল।

রবিবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) রাতে উখিয়া উপজেলার পালংখালী ইউনিয়নের রহমতেরবিল সীমান্তের নাফ নদীর তীরের বেড়িবাধ থেকে অপহরণের শিকার জেলের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

মৃত মোস্তাফিজুর রহমান উখিয়ার পালংখালী ইউনিয়নের আঞ্জুমানপাড়ার মৃত আব্দুস ছালামের ছেলে। তিনি পেশায় জেলে ও দিনমজুর।

নিহতের ছোট ভাই মো. আমির হোসেন জানান, গত ১ ফেব্রুয়ারি সকালে নাফ নদীতে অন্য জেলেদের সঙ্গে তার ভাই মোস্তাফিজু মাছ ধরতে যান। এক পর্যায়ে আরাকান আর্মির সদস্যরা অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে তাকে তুলে নিয়ে যায়। পরে বিষয়টি বিজিবি ও পুলিশসহ সংশ্লিষ্টদের অবহিত করা হলেও ভাইয়ের সন্ধান পাননি। অপহরণকারীরা স্বজনদের সঙ্গে কোনো যোগাযোগও করেনি।

স্থানীয়রা জানান, রবিবার সন্ধ্যার আগে উখিয়া উপজেলার রহমতেরবিল সীমান্তে চিংড়ি ঘেরে কাজ করছিলেন স্থানীয় বাসিন্দা আবুল কালাম। এক পর্যায়ে তিনি নাফ নদীর বেড়িবাধের ওপর মোস্তাফিজুর রহমানকে মৃত অবস্থায় দেখতে পান। পরে তিনি বিষয়টি স্বজনদের জানান। রাত সাড়ে ১১ টার দিকে বিজিবির সহায়তায় মরদেহটি উদ্ধার করা হয়। তার শরীরে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়নি। তবে পায়ে শিকল দিয়ে বেঁধে রাখার চিহ্ন রয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, অপহরণকারীরা তাকে বেঁধে রাখায় অনাহারে মৃত্যুর পর মরদেহ বাংলাদেশ অভ্যন্তরে ফেলে রেখে গেছে।

উখিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শামীম হোসেন বলেন, সোমবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) সকালে খবরটি শোনার পর পুলিশ নিহতের বাড়ি থেকে মোস্তাফিজুর রহমানের মরদেহ উদ্ধার করেছে। তার শরীরের আঘাতের কোনো চিহ্ন নেই। তবে তার পায়ে রশি বা শিকল জাতীয় কোন কিছু দিয়ে বেঁধে রাখার চিহ্ন রয়েছে। অপহরণের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, নিহত মোস্তফিজকে অপহরণ করা হয়েছে এব্যাপারে থানায় কোনো অভিযোগ করা হয়নি, এটি তাদের ভাষ্য।

ওসি জানান, মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

নিউজ ট্যাগ: কক্সবাজার

আরও খবর



বিশ্ব ইজতেমায় কে, কখন বয়ান করবেন?

প্রকাশিত:শুক্রবার ০২ ফেব্রুয়ারী 2০২4 | হালনাগাদ:শুক্রবার ০২ ফেব্রুয়ারী 2০২4 | অনলাইন সংস্করণ
ধর্ম ও জীবন

Image

আলমী শূরার বিশ্ব ইজতেমা শুরু হবে শুক্রবার (২ ফেব্রুয়ারি) বাদ ফজর আম বয়ানের মাধ্যমে। বিশ্ব ইজতেমার মূল কার্যক্রম শুক্রবার শুরু হলেও মঙ্গলবার রাত থেকে ইজতেমা ময়দানে আসতে শুরু করেছেন তাবলিগ জামাতের সাথীরা।

ইজতেমা শুরুর আগেই কানায় কানায় পূর্ণ হয়েছে ময়দান। আগত তাবলিগের সাথীদের উদ্দেশ্যে বুধবার (৩১ জানুয়ারি) থেকে বয়ান করছেন আলমী শূরার প্রসিদ্ধ আলেমরা।

বৃহস্পতিবার (১ ফেব্রুয়ারি) বাদ ফজর বয়ান করেছেন ভারতের মাওলানা আহমদ লাট। এদিন বাদ জোহর বয়ান করেছেন বাংলাদেশের মাওলানা রবিউল হক।

ইজতেমার মূল কার্যক্রমের তিন দিনই করা হবে গুরুত্বপূর্ণ বয়ান, তাবলিগের কোন মুরব্বি আলেম কখন বয়ান করবেন এ বিষয়ে জানিয়েছেন আলমী শূরার মিডিয়া সমন্বয়কারী মুফতি জহির ইবনে মুসলিম। তার দেওয়া তথ্যমতে আজ বৃহস্পতিবার (১ ফেব্রুয়ারি) বাদ আসর বয়ান করবেন, বাংলাদেশের মাওলানা ফারুক, বাদ মাগরিব বয়ান করবেন ভারতের মাওলানা ইব্রাহিম দেওলা।

শুক্রবার (২ফেব্রুয়ারি) বাদ ফজর বয়ান করবেন পাকিস্তানের মাওলানা আহমদ বাটলা। সকাল সকাল ১০টায় তালিমের আমল করবেন পাকিস্তানের মাওলানা জিয়াউল হক।

বাদ জুমা বয়ান করবেন জর্ডানের মাওলানা ওমর খতিব। বাদ আছর বয়ান করবেন বাংলাদেশের হাফেজ মাওলানা জুবায়ের। শুক্রবার বাদ মাগরিব বয়ান করবেন ভারতের মাওলানা আহমদ লাট।

শনিবার ইজতেমার ময়দানের আলেম, মাদরাসা ও বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের জন্য বিশেষ বয়ানের ব্যবস্থা রয়েছে। এদিন বাদ আসর ইজতেমা মাঠের মূল মঞ্চের পাশে যৌতুকবিহীন গণ বিয়ের আয়োজন করা হবে। ইজতেমার মাঠের গণবিবাহের আয়োজনে ব্যাপক আগ্রহ রয়েছে তাবলিগের সাথীদের।

এর আগে গত বছর আলমী শূরার বিশ্ব ইজতেমায় নগদ দেন মোহরে শতাধিক যৌতুকবিহীন বিয়ে অনুষ্ঠিত হয়েছে। এই বিয়ে অনুষ্ঠিত হওয়ার আগে তাবলিগের মুরব্বিরা ইসলামি নিয়মে বিয়ের বিধান নিয়ে প্রথমে বয়ান করেন। বয়ান শেষে বর-কনের অভিভাবকদের সম্মতিতে বরের উপস্থিতিতে এ বিয়ে পড়ানো হয়। বিয়ে শেষে উপস্থিত দম্পতিদের স্বজন ও মুসল্লিদের মধ্যে খুরমা খেজুর বিতরণ করা হয়।

নিউজ ট্যাগ: বিশ্ব ইজতেমা

আরও খবর
শবে বরাত সম্পর্কে হাদিসে যা বলা হয়েছে

রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




নিজেদের মাঠে বার্সেলোনাকে রুখে দিল নাপোলি

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
ক্রীড়া প্রতিবেদক

Image

উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শেষ ষোলোর প্রথম লেগে বার্সেলোনাকে রুখে দিয়েছে নাপোলি। নিজেদের মাঠে ম্যাচটি ১-১ গোলে শেষ করেছে ইতালিয়ান ক্লাবটি। দিয়াগো আরমান্দো মারাদোনা স্টেডিয়ামে পুরো ম্যাচে বল দখলের লড়াইয়ে দু'দল ছিল সমানে সমান। তবে লক্ষে বল রাখায় কিছুটা এগিয়ে ছিল বার্সেলোনা।

প্রথমার্ধে লক্ষভেদ করতে পারেনি কোনো দলই। ম্যাচের ৬০ মিনিটে স্বাগতিক দর্শকদের স্তব্ধ করে লেভানদোভস্কির গোলে এগিয়ে যায় বার্সেলোনা। তবে এই লিড বেশিক্ষণ ধরে রাখতে পারেনি তারা।

৭৫ মিনিটে ম্যাচে ফেরে নাপোলি। দলকে সমতায় ফেরান ওসিমেন। বাকি সময় গোল পায়নি কোনো দলই। শেষ পর্যন্ত ১-১ সমতায় নিয়ে মাঠ ছাড়ে বার্সা। আগামী ১২ মার্চ বার্সেলোনার মাঠে হবে ফিরতি লেগ।


আরও খবর



১৫ ফেব্রুয়ারি থেকে বন্ধ থাকবে পোস্তাগোলা ব্রিজ

প্রকাশিত:সোমবার ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

সংস্কার কাজের জন্য পোস্তগোলা ব্রিজে যান চলাচল আগামী ১৫ ফেব্রুয়ারি-২৯ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ভেঙে ভেঙে ৫ দিন বন্ধ থাকবে। আজ রোববার সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব এ বি এম আমিন উল্লাহ নুরী আজকের পত্রিকাকে এ তথ্য জানিয়েছেন।

এ বি এম আমিন উল্লাহ নুরী বলেন, ১৫ ফেব্রুয়ারি থেকে ২৯ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ব্রিজের সংস্কার কাজ চলবে। এর মধ্যে ৫ দিন বন্ধ রাখা হবে। তবে এটি টানা বন্ধ নয়। যেদিন কাজ হবে সেদিন।

তিনি বলেন, ব্রিজের নিচে পিলারে লঞ্চের ধাক্কায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়। সেটিই ঠিক করা হচ্ছে। বন্ধ রাখা হবে কারণ কাজের সময় যানবাহন চলাচল করলে নিচে রেট্রোফিটিং করতে সমস্যা হবে। আমরা বিষয়টি বিজ্ঞপ্তি আকারে জানিয়ে দেব।

ডিএমপি জানিয়েছে, ব্রিজ বন্ধ থাকার সময় সব যানবাহনকে ডাইভারশন করা হবে।

ডিএমপি থেকে বলা হয়, একই দিকে গেন্ডারিয়া রেলস্টেশন সংলগ্ন জুরাইন ক্রসিং গেটে পদ্মা সেতুর রেলের কাজ চলমান (গেট: ই/৬) রয়েছে।

ডিএমপির পক্ষ থেকে পদ্মা সেতুর রেল সংযোগ প্রকল্পের পরিচালককে কাজ দ্রুত সম্পাদন অথবা শুরুর ব্যাপারে পুনঃ বিবেচনার জন্য চিঠি দেওয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, ২০২০ সালের ২৯ জুন বুড়িগঙ্গা নদীর সদরঘাট এলাকায় ময়ূর-২ লঞ্চের ধাক্কায় ডুবে যাওয়া লঞ্চ মর্নিং বার্ডকে উদ্ধার করতে আসে উদ্ধারকারী জাহাজ প্রত্যয়। কিন্তু জাহাজটি পোস্তগোলা সেতু পার হওয়ার সময় সেতুতে ধাক্কা দেয় ও আটকে যায়। উদ্ধারকারী জাহাজ প্রত্যয়ের ধাক্কায় পোস্তগোলা ব্রিজের নিচের পাটাতন বিম ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এরপর থেকে কয়েক দফা সংস্কার করে সেতুতে যানবাহন চলাচল করতে দেওয়া হচ্ছে।


আরও খবর



বাড়ছে দ্বাদশ জাতীয় সংসদের মন্ত্রিসভার কলেবর

প্রকাশিত:রবিবার ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক

Image

দ্বাদশ জাতীয় সংসদের নতুন সদস্যদের শপথ গ্রহণ শেষ হয়েছে। শেষ হয়েছে নতুন মন্ত্রিসভা গঠনও। সংসদের প্রথম অধিবেশন এখন চলছে। বাকি আছে সংরক্ষিত নারী ৫০ আসনের নির্বাচন। চলতি সপ্তাহে হতে পারে তফসিল। এরপর দলীয়ভাবে চূড়ান্ত হবে, কারা হচ্ছেন সংরক্ষিত এমপি। তবে, নতুন করে গুঞ্জন শুরু হয়েছে, বাড়ছে মন্ত্রিসভার কলেবর।

দ্বিতীয় দফায় কারা মন্ত্রিসভায় স্থান পাচ্ছেন, নতুন নাকি পুরাতন সদস্যরা সব মহলে চলছে এমন আলোচনা। তাদের সঙ্গে সুর মিলিয়েছেন ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের জ্যেষ্ঠ নেতারাও। তাদের মন্তব্য, শিগগিরই বাড়তে পারে মন্ত্রিসভার আকার।

গত ১১ জানুয়ারি টানা চতুর্থবারের মতো প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছেন বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রীসহ মোট ৩৭ মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীও শপথ নিয়েছেন। এর মধ্যে ২৫ জন মন্ত্রী ও ১১ জন প্রতিমন্ত্রী। আওয়ামী লীগের জ্যেষ্ঠ নেতারা মনে করছেন, চলতি মাসের (ফেব্রুয়ারি) শেষের দিকে বাড়তে পারে মন্ত্রিসভার আকার। আসন্ন সংরক্ষিত নারী আসনের নির্বাচনের পর মন্ত্রিসভার সদস্য বাড়ানো হতে পারে। এমনকি সংরক্ষিত নারী আসন থেকে টেকনোক্র্যাট কোটায় (সংসদ সদস্য নন এমন) মন্ত্রীও হতে পারেন এমন গুঞ্জনও চলছে। তবে, এটা নিশ্চিত যে দ্বিতীয় দফায় কারা মন্ত্রিসভায় স্থান পাবেন, সেটা দলের হাইকমান্ড ছাড়া কেউ-ই জানেন না।

মন্ত্রিসভার কলেবর বড় হচ্ছে কি না এমন প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, এটা একটু বাড়তে পারে। কারণ, এখানে রিজার্ভ সিটগুলো, নারীদের জন্য সংরক্ষিত যেসব আসন, সেসব আসনের নির্বাচন শেষ হলে সেখান থেকেও যুক্ত হতে পারেন। প্রধানমন্ত্রী ইচ্ছা করলে তিনি যুক্ত করতে পারেন।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকার টিকিট পেয়েও ভোটের মাঠে নেমে হেরেছেন তিন মন্ত্রী। তারা হলেন- বিমান প্রতিমন্ত্রী মাহবুব আলী, ত্রাণ ও দুর্যোগ প্রতিমন্ত্রী এনামুর রহমান এবং স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য। মাহবুব আলী ও এনামুর রহমান দুবারের সংসদ সদস্য ছিলেন। স্বপন ভট্টাচার্য তিনবার জাতীয় সংসদে প্রতিনিধিত্ব করেছিলেন। নির্বাচনের মাঠে তারা এবার পরাজিত হয়েছেন।

এ ছাড়া, এবার নতুন মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীর তালিকা থেকে বাদ পড়েছেন আগের মন্ত্রিসভার ১৪ মন্ত্রী, নয়জন প্রতিমন্ত্রী ও দুজন উপমন্ত্রী। আলোচিত মন্ত্রীদের মধ্যে বাদ পড়েছেন- কৃষিমন্ত্রী মো. আব্দুর রাজ্জাক, অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল, পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন, পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান, বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী, স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক, বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি, সমাজকল্যাণমন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম, পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তনবিষয়ক মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন, পার্বত্য চট্টগ্রামবিষয়ক মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং, ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী, রেলমন্ত্রী মো. নূরুল ইসলাম সুজন এবং প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী ইমরান আহমদ।

প্রতিমন্ত্রীদের মধ্যে বাদ পড়েছেন- শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার, যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মো. জাহিদ আহসান রাসেল, সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী মো. আশরাফ আলী খান খসরু, শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম, স্থানীয় সরকার, গৃহায়ন ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদ এবং মহিলা ও শিশুবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী বেগম ফজিলাতুন নেছা। এ ছাড়া, গতবারের তিন উপমন্ত্রীর মধ্যে দুজনই এবার বাদ পড়েছেন। তারা হলেন- পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তনবিষয়ক উপমন্ত্রী বেগম হাবিবুন নাহার এবং পানি সম্পদ উপমন্ত্রী এ কে এম এনামুল হক শামীম। টেকনোক্র্যাট পদ থেকে পদত্যাগ করা ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার এবং পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী শামসুল আলমও এবারের মন্ত্রিসভায় স্থান পাননি।

আওয়ামী লীগ ও সরকারের একাধিক সূত্র জানায়, বর্তমান মন্ত্রিসভার বেশিরভাগ সদস্য নতুন মন্ত্রিসভায় স্থান পেয়েছেন। বিভিন্ন কারণে বাদ পড়েছেন অনেক পুরাতন মন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রী। মন্ত্রিসভার কলেবর বাড়লে স্থান পেতে পারেন আওয়ামী লীগের ত্যাগী, অভিজ্ঞ ও তৃণমূলের জনপ্রিয় সংসদ সদস্যরা। সরকারের কাজের পরিধি বেড়ে যাওয়ায় মন্ত্রিসভার আকার বড় করার চিন্তাভাবনা চলছে। এক্ষেত্রে তরুণদের প্রাধান্য দেওয়া হতে পারে।

আওয়ামী লীগের জ্যেষ্ঠ এক নেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, সংরক্ষিত নারী আসনের নির্বাচনের পর চলতি মাসের শেষের দিকে মন্ত্রিসভার আকার বাড়তে পারে। দ্বিতীয় দফায় সংরক্ষিত নারী আসনের নির্বাচিত সংসদ সদস্যদের মধ্যে থেকেও একজন মন্ত্রিসভায় সদস্য হতে পারেন। ১৪ দলীয় জোটেরও কেউ এখানে স্থান পেতে পারেন।

গত সংসদে মন্ত্রিপরিষদের সদস্য ছিলেন ৪৭ জন। তাদের মধ্যে প্রথমে শপথ নেন ২৫ মন্ত্রী এবং ১৯ প্রতিমন্ত্রী এবং তিনজন উপমন্ত্রী। দ্বিতীয় দফায় মন্ত্রিপরিষদের সদস্য সংখ্যা বাড়ানো হয়।


আরও খবর
শপথ নিলেন নতুন ৭ প্রতিমন্ত্রী

শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪