আজঃ বৃহস্পতিবার ১৩ মে ২০২১
শিরোনাম

সিরাজগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৩

প্রকাশিত:সোমবার ০৩ মে ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ০৩ মে ২০২১ | ৮২জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলায় পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় তিনজন নিহত হয়েছেন। এ সময় আহত হয়েছেন আরও একজন। উপজেলার মহিষলুটি বাজার এলাকায় হাটিকুমরুল-বনপাড়া মহাসড়কে এবং ৯ নম্বর ব্রিজ এলাকায় আজ রবিবার সকালে এই দুর্ঘটনা দুটি ঘটে।

নিহত তিনজনের মধ্যে একজনের পরিচয় পাওয়া গেছে। তিনি হলেন, উল্লাপাড়া উপজেলার পাগলা মধ্যপাড়া গ্রামের সলিম উদ্দিনের ছেলে শাহীন (৪৫)।

হাটিকুমরুল হাইওয়ে থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আব্দুল্লাহ হেল বাকি জানান, আজ সকালে মহিষলুটি বাজারে একটি ট্রাক দাঁড়িয়ে ছিল। এ সময় পেছন থেকে অপর একটি ট্রাক ধাক্কা দেয়। এতে শাহীন নামের এক ব্যক্তি নিহত হন।

অপরদিকে, ৯ নম্বর ব্রিজ এলাকায় একই মহাসড়কে ট্রাক ও কাভার্ডভ্যানের মুখোমুখি সংঘর্ষে ঘটনাস্থলেই অজ্ঞাত এক ব্যক্তি নিহত হন। এ সময় আহত হন আরও দুজন। খবর পেয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে হতাহতদের উদ্ধার করেন। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় ঢাকায় নেওয়ার পথে আরও একজনের মৃত্যু হয়।


আরও খবর



আজ ডিএনসিসির করোনা হাসপাতাল উদ্বোধন

প্রকাশিত:রবিবার ১৮ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১৮ এপ্রিল ২০২১ | ১৩২জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
হাসপাতাল হতে যাচ্ছে দেশের সবচেয়ে বড় করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতাল। এখানে থাকছে ২১২টি আইসিইউ বেড, ৫০টি এইচডিইউ বেড, ৫০টি ইমার্জেন্সি অবজারভেশন বেড এবং ৫৪০টি আইসোলেশন রুম

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হচ্ছে আজ রবিবার (১৮ এপ্রিল)। তবে রোগী ভর্তি শুরু হবে সোমবার (১৯ এপ্রিল) সকালে। আজ মহাখালীতে এই হাসপাতাল উদ্বোধন করবেন স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক।

জানা গেছে, এই হাসপাতাল হতে যাচ্ছে দেশের সবচেয়ে বড় করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতাল। এখানে থাকছে ২১২টি আইসিইউ বেড, ৫০টি এইচডিইউ বেড, ৫০টি ইমার্জেন্সি অবজারভেশন বেড এবং ৫৪০টি আইসোলেশন রুম।

হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ কে এম নাসির উদ্দিন বলেন, 'এটি দেশের সবচেয়ে বড় করোনা চিকিৎসা প্রতিষ্ঠান। এরই মধ্যে সব প্রস্তুতি শেষ করে আনা হয়েছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বিশেষায়িত ওই হাসপাতালে চিকিৎসাসেবা দিতে ৫০০ চিকিৎসক, ৭০০ নার্স, ৭০০ স্টাফ এবং ওষুধ, সরঞ্জামের ব্যবস্থা করেছে। ইতোমধ্যে কাজে যোগ দিয়েছেন শতাধিক চিকিৎসক ও দুই শতাধিক নার্স।


আরও খবর



মিসরে ট্রেন দুর্ঘটনায় নিহত ১১

প্রকাশিত:সোমবার ১৯ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১৯ এপ্রিল ২০২১ | ৮৯জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মিসরে একটি ট্রেন লাইনচ্যুত হয়ে কমপক্ষে ১১ জন নিহত এবং ৯৮ জন আহত হয়েছেন। রবিবার দেশটির রাজধানী কায়রোর উত্তরে কালিউবিয়া প্রদেশে এ দুর্ঘটনা ঘটে। মিসরীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

মিসরের রেল বিভাগ এক সংক্ষিপ্ত বিবৃতিতে জানিয়েছে, ট্রেনটি কায়রো থেকে মানসুরার নিল ডেল্টা শহরে যাচ্ছিল। পথিমধ্যে স্থানীয় সময় দুপুর ২টার দিকে ট্রেনটির চারটি বগি লাইনচ্যুত হয়।

মিসরীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ৫০টিরও বেশি অ্যাম্বুলেন্স হতাহতদের উদ্ধার করে স্থানীয় তিনটি হাসপাতালে পৌঁছে দিয়েছে।

মিসরে গত কয়েক মাসে বেশ কয়েকটি ট্রেন দুর্ঘটনা হয়েছে। গত মার্চে দেশটির তাহতা শহরের কাছে দুটি ট্রেনের সংঘর্ষে ২০ জন নিহত এবং প্রায় ২০০ জন আহত হয়েছিলেন।

চলতি মাসেই কায়রো থেকে প্রায় ৭০ কিলোমিটার দূরবর্তী মিনিয়া আল-কামহ শহরে ট্রেনের দুটি বগি লাইনচ্যুত হয়। এতে অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছিলেন।

পরপর একাধিক দুর্ঘটনার জেরে মিসরের পরিবহনমন্ত্রী কামেল এল-ওয়াজিরের পদত্যাগের দাবি উঠেছে দেশটিতে। অবশ্য তিনি সেই দাবি প্রত্যাখান করেছেন এবং মিসরের রেল নেটওয়ার্ক উন্নয়নে কাজ অব্যাহত রাখার ঘোষণা দিয়েছেন।


আরও খবর



সরকারের পতন ঘটাতে জামায়াত নেতাদের সঙ্গে সখ্য ছিল মামুনুলের

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২০ এপ্রিল ২০21 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২০ এপ্রিল ২০21 | ৮৮৭জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
ইসলামি রাষ্ট্র কায়েম করতে হবে এই সরকারের পতন ঘটাতেই হতো। আর এই সরকার পড়ে গেলে হেফাজতের অনুগ্রহ ছাড়া কেউ রাষ্ট্র ক্ষমতায় আসতে পারবে না। এই কারণে তিনি রাজধানীর যেকোনো কর্মসূচিতে সহিংসতার

হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হক বর্তমান সরকারের পতনের মাধ্যমে ইসলামী রাষ্ট্র কায়েমের জন্য হেফাজত নেতাকর্মীদের উদ্বুদ্ধ করতেন। তিনি বিশ্বাস করেন, বর্তমান সরকারের পতন হলে কাউকে রাষ্ট্র ক্ষমতায় যেতে হলে হেফাজতের সমর্থন লাগবে। এই মিশনে তিনি আফগান ফেরত মুজাহিদ ও জামায়াত নেতাদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখতেন। গোয়েন্দা পুলিশ কর্মকর্তাদের জিজ্ঞাসাবাদে তিনি এ সব কথা বলেছেন।

এদিকে রাজধানীর মোহাম্মদপুর থানায় করা মোবাইল চুরির মামলায় গ্রেফতার মামুনুল হককে সাতদিন রিমান্ডে নেওয়ার অনুমতি দিয়েছে আদালত। গোয়েন্দা পুলিশের একজন কর্মকর্তা বলেন, হেফাজতের মধ্যে অন্যতম উগ্রপন্থীনেতা মামুনুল হক। তিনি যেকোনো মূল্যে এই সরকারের পতন ঘটাতে চেয়েছেন। পরের দুই স্ত্রীর বিষয়ে জানতে চাইলে গোয়েন্দাদের জিজ্ঞাসাবাদে মামুনুল হক বলেছেন, তিনি পরের দুইজনকে বিয়ে করেননি। তবে দুইজন সাক্ষীর উপস্থিতিতে তাদের সঙ্গে পৃথকভাবে মামুনুলের চুক্তি হয়েছিল। এই চুক্তির কপিও উদ্ধার করেছে গোয়েন্দা পুলিশ। চুক্তিতে বলা হয়েছে, মামুনুল হক তাদের বিয়ে করবেন না। স্ত্রীর মর্যাদাও দেবেন না। তবে তাদের ভরণপোষণ দেবেন। এই শর্তে যে, তিনি স্ত্রীর মতো করে তাদের সঙ্গে মিশবেন। যেখানে যেতে বলবেন, সেখানে যেতে হবে এবং তার সঙ্গে রাত্রিযাপন করতে হবে।

গোয়েন্দা পুলিশের ওই কর্মকর্তা বলেন, মামুনুল হকের কাছে তারা জানতে চেয়েছিলেন, বিয়ে না করে কারো সঙ্গে চুক্তি করে থাকা যায় কি-না? জবাবে মামুনুল হক তাদের বলেছেন, এই শরীয়ত সম্মত। তিনি স্ত্রীর মর্যাদা না দিলেও তাদের ভরণপোষণ দিচ্ছেন। তার বিনিময়ে তারা তাকে সঙ্গ দিচ্ছেন। এটা ইসলামের বিধিবিধানের মধ্যেই তিনি করেছেন বলে দাবি করেছেন। তবে এই পরিস্থিতিতে সোনারগাঁওয়ের রিসোর্টে যাওয়া তার ঠিক হয়নি। আর গেলেও আগে থেকে প্রস্তুতি নিয়ে নেতাকর্মীদের জানিয়ে যাওয়া উচিৎ ছিল।

সরকারের পতনের বিষয়ে তাদের পরিকল্পনার বিষয়ে জানতে চাইলে গোয়েন্দাদের এই হেফাজত নেতা বলেন, ইসলামি রাষ্ট্র কায়েম করতে হবে এই সরকারের পতন ঘটাতেই হতো। আর এই সরকার পড়ে গেলে হেফাজতের অনুগ্রহ ছাড়া কেউ রাষ্ট্র ক্ষমতায় আসতে পারবে না। এই কারণে তিনি রাজধানীর যেকোনো কর্মসূচিতে সহিংসতার উস্কানি দিতেন। তার মতে, হেফাজতের আমীর জুনায়েদ বাবুনগরীর চেয়েও বেশি উগ্রপন্থীতিনি। অন্য নেতাদের দিয়ে বিপ্লব হবে না। এই কারণে তিনি নিজেই দায়িত্ব নিয়ে নানা আন্দোলন সংগ্রামে নেতৃত্ব দিয়েছেন।

এদিকে সোমবার ঢাকা মহানগর হাকিম দেবদাস চন্দ্র অধিকারীর আদালতে হাজির করা হয় মামুনুল হককে। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদপুর থানার এসআই সাজেদুল হক আসামিকে সাতদিন রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করেন। এ সময় প্রথমে রাষ্ট্রপক্ষে ঢাকা মহানগর পাবলিক প্রসিকিউটর আব্দুল্লাহ আবু আসামিকে সাতদিন রিমান্ড মঞ্জুরের প্রার্থনা করেন। পরে আসামির পক্ষে জয়নুল আবেদীন মেজবা রিমান্ড বাতিল চেয়ে জামিন আবেদন করেন। পরে বিচারক মামুনুল হকের কাছে জানতে চান তার কিছু বলার আছে কি না।

তখন মামুনুল হক আদালতে বলেন, স্যার, আমাকে গ্রেফতার করে গতকাল যেখানে রাখা হয়েছিল সেটি থাকার মতো জায়গা না। ওই রকম জায়গায় ইবাদত করা যায় না। অন্যান্য রমজানে আমি নিয়মিত কোরআন খতম করি। রিমান্ডে পাঠালে সুষ্ঠু পরিবেশ থাকবে না এবং আমার ইবাদত করা কঠিন হয়ে যাবে। গ্রেফতারের পর আমাকে অনেক জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। আমাকে রিমান্ড দিয়েন না। এ মামলার বিষয়ে আমি কিছুই জানি না। শুনানি শেষে মামুনুলের ইবাদতে যেন বিঘ্ন না হয় সেদিকে খেয়াল রাখার নির্দেশ দিয়ে আদালত ৭ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

আদালতে দাখিল করা রিমান্ড আবেদনে পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, মাওলানা মামুনুল হক এবং তার ভাইয়ের নির্দেশে অন্যান্য আসামিরা এ মামলার বাদির একটি স্যামসাং এ-৫০ মডেলের মোবাইল, নগদ ৭ হাজার টাকা, ২০০ ইউএস ডলার, ব্র্যাক ব্যাংকের একটি ডেবিট কার্ডসহ মানিব্যাগ চুরি করে নিয়ে যায়। গত বছরের ৬ মার্চ রাত সাড়ে ৮টার দিকে মোহাম্মদপুর সাত গম্বুজ মসজিদে আমল করাকালীন মামুনুল হক এবং তার ভাই মোহতামিম মাহফুজুল হকের নির্দেশে জামিয়া রহমানিয়া আরাবিয়া মাদ্রাসার ছাত্র ওমর ও ওসমান এ মামলার বাদি জি এম আলমগীর শাহিনসহ অন্যদের আমল করতে বাঁধা দেয়।

আবেদনে আরও বলা হয়েছে, তাদের ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত করে এবং মসজিদ থেকে বের হয়ে যেতে বলে। রাত ৮টা ৪০ মিনিটের দিকে আসামি ওমর, ওসমান, শাহিন, মাওলানা আনিস, জহির মসজিদে এসে বাদিসহ তার সঙ্গে থাকা অন্যদের কিল-ঘুষি মারে। মামুনুল হক এবং তার ভাইয়ের নির্দেশে মাদ্রাসার আরও প্রায় ৭০/৮০ জন এসে তাদের আবারও মারধর করে। বাদি জি এম আলমগীর শাহিনের একটি স্যামসাং মোবাইল, ৭ হাজার টাকা, ২০০ ইউএস ডলার, ব্র্যাক ব্যাংকের একটি ডেবিট কার্ডসহ বাদির মানিব্যাগ নিয়ে যায় আসামিরা।

তদন্ত কর্মকর্তা আদালতকে জানান, প্রাথমিকভাবে মামুনুল হকের বিরুদ্ধে এ মামলার ঘটনায় জড়িত থাকার সাক্ষ্য-প্রমাণ পাওয়া গেছে। এ আসামি ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করে রাষ্ট্রবিরোধী বিভিন্ন বক্তব্যের মাধ্যমে মুসলমান ও মাদরাসা ছাত্রদের উষ্কে দেয়। আসামির বিরুদ্ধে বাংলাদেশের বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা রয়েছে। মামলার সুষ্ঠু তদন্ত, এজাহারনামীয় পলাতক অন্য আসামিদের গ্রেফতার, অজ্ঞাত আসামিদের নাম-ঠিকানা সংগ্রহ ও তাদের শনাক্তপূর্বক চোরাই যাওয়া মালামাল উদ্ধারের লক্ষ্যে তার ৭ দিনের রিমান্ড প্রয়োজন।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, আসামিরা বেআইনি সংঘবদ্ধ হয়ে হত্যার উদ্দেশ্যে বাদিকে এলোপাথাড়ি মারধর করে গুরুতর আঘাত করে। এ ঘটনায় রাজধানীর মোহম্মদপুরের চাঁন মিয়া হাউজিংয়ের ৪১/৪০ নম্বর বাসার বি/১ ফ্লাটের বাসিন্দা জি এম আলমগীর শাহীন বাদি হয়ে ৬ মার্চ মামলা করেন।

নিউজ ট্যাগ: হেফাজতে ইসলাম

আরও খবর



বাংলাদেশের শুরুটা দারুণ হলেও ছাড়ছে না হতাশা

প্রকাশিত:শনিবার ০১ মে ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ০১ মে ২০২১ | ৯৬জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

৭ উইকেট হারিয়ে ৪৯৩ রান তুলে ক্যান্ডিতে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টের প্রথম ইনিংস ঘোষণা করেছে শ্রীলঙ্কা। জবাবে ব্যাট করতে নামা বাংলাদশের শুরুটা দারুণ হলেও লাঞ্চ বিরতির আগের ওভারে দুই উইকেট হারানোয় বেড়েছে হতাশা।

প্রথম সেশনে টাইগারদের সংগ্রহ ২ উইকেটে ৯৯ রান। তামিম ৭০ রানে অপরাজিত আছেন। ও সাইফ হাসান ২৫ ও নাজমুল হোসেন শান্ত শুন্য রানে আউট হয়েছেন সকালের সেশনের শেষের ওভারে।

পাল্লেকেলে স্টেডিয়ামে তৃতীয় দিন সকালে ১৫ মিনিট ব্যাট করার পর লঙ্কানরা ইনিংস ঘোষণা করে। আলোর স্বল্পতায় আগের দিন খেলা শেষ হয় ২৪.১ ওভার আগেই। শনিবার তাই খেলা শুরু হয় ১৫ মিনিট আগে।

৬ উইকেটে ৪৬৯ রান নিয়ে দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষ করেছিল শ্রীলঙ্কা। আজ ৩.৩ ওভার ব্যাট করেছে তারা। ১৫৯.২ ওভারে তাসকিন আহমেদ রমেশ মেন্ডিসকে তুলে নেওয়ার পর প্রথম ইনিংস ঘোষণা করে শ্রীলঙ্কা।

১২৭ রানে ৪ উইকেট নেন তাসকিন। এটিই তার ক্যারিয়ার সেরা বোলিং। আগের টেস্টে পাওয়া ৩ উইকেট ছিল আগের সেরা।


আরও খবর



ইফতারে তৈরি করুন পুষ্টিকর কাস্টার্ড

প্রকাশিত:সোমবার ১৯ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১৯ এপ্রিল ২০২১ | ১১৭জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

গরমের এই সময় রোজা থেকে সন্ধ্যায় শুধু ঠান্ডাজাতীয় খাবার খেতে ইচ্ছা হয়। একটু শীতল অনুভূতি চায় মন। দিনের বেলায় আইসক্রিম না থাকলেও সন্ধ্যায় কিন্তু অনেকেই ইফতারে আইসক্রিম রাখেন। কিন্তু ফ্রুট কাস্টার্ডইফতারের তালিকায় হয়তো কমই রাখা হয়। কাস্টার্ড যদি ঠান্ডা করে খাওয়া যায় তাহলে বেশ ভালো লাগে। এখন তাহলে সহজে কাস্টার্ড তৈরির রেসিপি তুলে ধরা হলো-

দুধের কাস্টার্ড :

উপকরণ : ২ লিটার তরল দুধ, আধা চা চামচ লবণ, ৪ টেবিল চামচ কাস্টার্ড পাউডার, দেড় চা চামচ ভ্যানিলা এসেন্স ও স্বাদমতো লবণ।

প্রক্রিয়া : ২ লিটার দুধ জাল করে ঘন করে নিতে হবে। ঘন করে দেড় কেজির মতো করে নিন। তবে এক্ষেত্রে সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে যে দুধে যেন সর না পড়ে। এরপর অন্য সকল উপকরণ (কাস্টার্ড পাউডার ছাড়া) একসঙ্গে দিয়ে দিন। এখন একটি কাপে দেড় টেবিল পানিতে কাস্টার্ড পাউডার গুলিয়ে দুধে দিয়ে নাড়তে থাকুন। নাড়া না দিলে পাউডার জমাট বাধার সম্ভাবনা থাকবে। দুধ ঘন হয়ে আসলে আরও কিছুক্ষণ নেড়ে নামানোর পর ঠান্ডা করে নিন।

ফলের কাস্টার্ড :

উপকরণ : ৪ কাপ দুধ, ২ কাপ লাল ও সবুজ আপেল কিউব কাট (অবশ্যই চিনি মিশ্রিত পানিতে ভিজিয়ে রাখবেন), ২-৩ টুকরো করে কাটা ১ কাপ সবুজ ও কালো আঙুর, ১ কাপ কলা কিউব কাট, ১ কাপ পাঁকা আম কিউব কাট, ১টি আনার, পরিমাণমতো প্লেন কেকের পাতলা স্লাইস, চেরি কুচি, পেস্তা, রঙিন মোরব্বা কুচি, স্ট্রবেরি ও আমন্ড।

প্রক্রিয়া : প্রথমে একটি পাত্রে কেকের স্লাইস পেতে রাখুন। তার উপর ১ কাপ দুধ ঢেলে দিয়ে আপেল ও কলা দেয়ার পর আবার ১ কাপ দুধ ঢালুন। এখন আঙুর, চেরি, আম ও আনার দিয়ে ফের ১ কাপ দুধ দিন। তারপর চেরি কুচি, পেস্তা বাদাম, কালো ও সবুজ আঙুরের টুকরো, রঙিন মোরব্বা দিয়ে এবার সাজিয়ে রাখুন।

প্রসঙ্গত, দুইটি রেসিপিই প্রস্তুত হওয়ার পর ঘণ্টাখানেক ফ্রিজে রেখে দিন। এতে করে ঠান্ডা হবে। ইফতারের ১৫-২০ মিনিট আগে ফ্রিজ থেকে বের করে সাজিয়ে রাখুন।

নিউজ ট্যাগ: কাস্টার্ড

আরও খবর