আজঃ রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২
শিরোনাম

সংবাদ সম্মেলন করে আত্মহত্যার হুমকি দিলেন ছাত্রলীগ নেত্রী

প্রকাশিত:বুধবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ৩৩৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক


Image

যৌন হয়রানিরর অভিযোগে কুষ্টিয়া মডেল থানায় এজাহার জমা দিলেও মামলা না নেওয়ার অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন করেছেন জেলা ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক নওরীন রহমান।

আজ বুধবার সকাল ১১টায় সংবাদ সম্মেলন করেন তিনি। এ সময় কুষ্টিয়া জেলা ছাত্রলীগের সধারণ সম্পাদক শেখ হাফিজ চ্যালেঞ্জসহ দোষীদের গ্রেপ্তার ও বিচারের দাবি জানান নওরীন। তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নিলে তিনি আত্মহত্যা করবেন বলে হুমকি দেন।

লিখিত সংবাদ সম্মেলনে নওরীন রহমান বলেন, আমার জীবন আজ বিপন্নের পথে। শুধুমাত্র ছাত্রলীগকে ভালোবেসে এবং ছাত্রলীগের রাজনীতি করতে গিয়ে আমি নানাভাবে নির্যাতনের শিকার হয়েছি। বাংলাদেশ ছাত্রলীগের আদর্শ বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে বুকে ধারণ করে কুষ্টিয়া জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক হাফিজ শেখ চ্যালেঞ্জের হাত ধরে কুষ্টিয়া জেলা ছাত্রলীগে সাধারণ কর্মী হিসেবে কাজ শুরু করি।

নওরীন বলেন, তখন থেকে তার (চ্যালেঞ্জ) বাসায় আমাকে বিভিন্ন কারণে ডাকতো। পরবর্তীতে একদিন তার সঙ্গে দল করতে যে কোনো শর্তে রাজি হতে বলে। আমি তার প্রস্তাব এড়িয়ে যাই। কিন্তু আমার এক দাদার সঙ্গে একটি পারসোনাল টি-শার্ট পরা ছবি চ্যালেঞ্জ কোনোভাবে পায় এবং বাসায় ডেকে ওই ছবি দেখিয়ে ব্ল্যাকমেইল করে কুপ্রস্তাব দেয়। আমি তার প্রস্তাবে রাজি না হলে ওই ছবি ভাইরাল করার কথা বলে। আমি ভয় পেয়ে দ্রুত চলে আসি এবং নিজেকে একা রাখার চেষ্টা করি।

ছাত্রলীগের এ নেত্রী বলেন, এই অপমানের প্রতিশোধ নিতে চ্যালেঞ্জ তার সহযোগীদেরকে ওই ছবি এবং আমার আরও কিছু এডিট করা ছবি ফেক আইডি খুলে বাজে ক্যাপশন দিয়ে ফেসবুকে প্রচার করে। রাস্তা-ঘাটে দেখা হলেই চ্যালেঞ্জের সহযোগীরা আজেবাজে কথাবার্তাসহ আমাকে নানাভাবে হুমকি দিচ্ছে। দিনদিন এর মাত্রা বেড়ে যাওয়ায় আমি কোনো উপায়য়ান্ত না পেয়ে গত ১৯ সেপ্টেম্বর কুষ্টিয়া মডেল থানায় একটি অভিযোগ দেই। কিন্তু থানায় অভিযোগ দেওয়ার তিনদিন অতিবাহিত হলেও পুলিশ কোন ব্যবস্থা নেয়নি। উল্টো চ্যালেঞ্জসহ তার সহযোগিরা আমাকে নানাভাবে হুমকি দিয়ে যাচ্ছে। এমনকি তারপর থেকে বিভিন্ন ফেসবুক আইডি থেকে আমার নামে আরও বেশি আজেবাজে কথা লিখে পোস্ট করা হচ্ছে।

নওরীন রহমান বলেন, আমি বারবার পুলিশকে জানালেও কোন প্রতিকার পাচ্ছি না। আমি গতকাল মঙ্গলবার এসপি আফিসে গিয়েছিলাম, তিনি অফিসে ছিলেন না। আমি এই বিষয়টা জেলা নেতাদের জানিয়েছি, তারা এর কোনো পদক্ষেপ নিচ্ছেন না। তারা শুধু আমাকে আশ্বাস দিচ্ছেন যে, ‘‘হ্যাঁ আমরা ব্যবস্থা গ্রহণ করব’’

তিনি বলেন, আমি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। আমার এটার যদি কেউ কোনো প্রতিকার না করে, তাহলে আমার আত্মহত্যা করা ছাড়া কোনো পথ থাকবে না। আমি যদি আত্মহত্যা করি তার জন্য পুলিশ প্রশাসন, জেলার নেতারা সবাই দায়ী থাকবে।

জানা গেছে, গত ১৯ সেপ্টেম্বর সোমবার কুষ্টিয়া মডেল থানায় জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ হাফিজ চ্যালেঞ্জসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দেন নওরীন। গতকাল মঙ্গলবার তিনি জেলা ছাত্রলীগের ৬ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে এজাহার জমা দেন।

এ বিষয়ে কুষ্টিয়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. দেলোয়ার হোসেন জানান, অভিযোগে উল্লেখিত আসামিদের বিরুদ্ধে আজ মামলা নেওয়া হয়েছে। তবে মামলার নম্বর ও ধারা জানাননি তিনি।


আরও খবর
১৪ দলীয় জোট ছাড়ল বাংলাদেশ জাসদ

শনিবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২