আজঃ মঙ্গলবার ০৩ আগস্ট ২০২১
শিরোনাম

সংবাদে আজকের বাংলাদেশ | ০১ ডিসেম্বর ২০২০ | দর্পণ টেলিভিশিন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০১ ডিসেম্বর ২০২০ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ৩০১জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

সংবাদে আজকের বাংলাদেশ 

নিউজ ট্যাগ: দর্পণ

আরও খবর



সুর চৌধুরী ও তার স্ত্রীর অ্যাকাউন্ট থেকে অর্থ উত্তোলন-স্থানান্তর স্থগিত

প্রকাশিত:বুধবার ০৭ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ০৭ জুলাই ২০২১ | ১২৬জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
পি কে হালদারের ক্ষমতার অন্যতম উৎস ছিলেন বাংলাদেশ ব্যাংকের তৎকালীন ডেপুটি গভর্নর এস কে সুর চৌধুরী। তার মাধ্যমেই পি কে হালদার বিভিন্ন অনিয়ম চাপা দিতেন

বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক ডেপুটি গভর্নর এস কে সুর চৌধুরী ও তার স্ত্রী সুপর্না সুর চৌধুরীর ব্যাংক অ্যকাউন্ট থেকে অর্থ উত্তোলন ও স্থানান্তর স্থগিত করেছে এনবিআর।

বুধবার জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সেল থেকে সব ব্যাংকে এ নির্দেশনা পাঠানো হয়। পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত তাদের অ্যাকাউন্ট থেকে অর্থ উত্তোলন ও স্থানান্তর বন্ধ রাখতে বলা হয়েছে।

বিভিন্ন আর্থিক প্রতিষ্ঠান দখল করে সাড়ে তিন হাজার কোটি টাকা আত্মসাতে অভিযুক্ত প্রশান্ত কুমার হালদারকে (পি কে হালদার) সহযোগিতার অভিযোগ রয়েছে সুর চৌধুরীর বিরুদ্ধে।

এনবিআরের চিঠি পাওয়ার সঙ্গে-সঙ্গে নির্দেশনা কার্যকর করতে বলা হয়েছে। একই সঙ্গে একটি পরিপালন প্রতিবেদন পাঠাতে হবে এনবিআরে।

পি কে হালদারের অনিয়মের সহযোগী হিসেবে আটক ইন্টারন্যাশনাল লিজিংয়ের সাবেক এমডি রাশেদুল হক ও পিপলস লিজিংয়ের সাবেক চেয়ারম্যান উজ্জল কুমার নন্দি আদালতে দেওয়া স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে বাংলাদেশ ব্যাংকের কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ঘুষ নেওয়ার অভিযোগ করেন। রাশেদুল হক জবানবন্দিতে বলেন, পি কে হালদারের ক্ষমতার অন্যতম উৎস ছিলেন বাংলাদেশ ব্যাংকের তৎকালীন ডেপুটি গভর্নর এস কে সুর চৌধুরী। তার মাধ্যমেই পি কে হালদার বিভিন্ন অনিয়ম চাপা দিতেন। আর আর্থিক প্রতিষ্ঠান দেখভালের দায়িত্বপ্রাপ্ত তৎকালীন মহাব্যবস্থাপক ও বর্তমানে নির্বাহী পরিচালক মো. শাহ আলমকে প্রতি মাসে দেওয়া হতো দুই লাখ টাকা। এ ছাড়া বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিদর্শন বিভাগের সহকারী পরিচালক থেকে যুগ্ম পরিচালক পর্যায়ের কর্মকর্তারা বছরে দু'বার পরিদর্শনে আসতেন। অনিয়ম না ধরার জন্য প্রতিবার তাদের পাঁচ থেকে সাত লাখ টাকা দেওয়া হতো। এরপর গত ফেব্রুয়ারিতে তাদের ও পরিবারের সদস্যদের অ্যাকাউন্ট তলব করে এনবিআর।

আদালতে জবানবন্দির বিষয়টি খতিয়ে দেখতে ইতোমধ্যে উচ্চপর্যায়ের একটি কমিটি গঠন করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। আর শাহ আলমকে আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। তবে পরিদর্শন বিভাগের কোনো কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার খবর পাওয়া যায়নি।


আরও খবর



চেক ক্লিয়ারিংয়ে নতুন সময়সূচি নির্ধারণ

প্রকাশিত:বুধবার ১৪ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ১৪ জুলাই ২০২১ | ১৬৬জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
পাঁচ লাখ টাকার বেশি অংকের চেক ক্লিয়ারিংয়ের জন্য বেলা ১২ টার মধ্যে পাঠাতে হবে। এসব চেক বিকাল ৩ টার মধ্যে নিষ্পত্তি হবে। আর যেকোনো রেগুলার চেক বেলা ১২.৩০ টার মধ্যে ক্লিয়ারিং হাউজে পাঠাতে হবে

করোনা সংক্রমণ কমাতে কঠোর লকডাউন শিথিল করায় আন্তঃব্যাংক চেক নিষ্পত্তির নতুন সময়সূচি দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। বুধবার (১৪ জুলাই) কেন্দ্রীয় ব্যাংকের পেমেন্ট সিস্টেমস ডিপার্টমেন্ট থেকে নির্দেশনা জারি করা হয়েছে। নির্দেশনাটি সব ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট পাঠানো হয়েছে।

নির্দেশনা অনুযায়ী, করোনা পরিস্থিতিতে নিরবচ্ছিন্ন ব্যাংকিং ও পরিশোধ সেবা কার্যক্রম অব্যাহত রাখতে জরুরি আন্তঃব্যাংক লেনদেনের সুবিধার্থে বিধিনিষেধ চলাকালীন সময়ে বাংলাদেশ ব্যাংকে স্থাপিত রিয়েল টাইম গ্রস সেটেলমেন্ট বা আরটিজিএস, স্বয়ংক্রিয় চেক নিকাশ ঘর (বাংলাদেশ অটোমেটেড ক্লিয়ারিং হাউজ-বিএসিএইচ বা ব্যাচ) এবং বাংলাদেশ ইলেকট্রনিক ফান্ডস্ ট্রান্সফার নেটওয়ার্ক (বিইএফটিএন)- এই তিন প্ল্যাটফর্মের কার্যক্রমও সীমিত পরিসরে চালু থাকবে। এসব সেবার মাধ্যমে এক শাখা থেকে অন্য শাখায় বা অন্য ব্যাংকের গ্রাহককে অর্থ পরিশোধ ও স্বয়ংক্রিয় চেক নিষ্পত্তি করে থাকে।

বাংলাদেশ অটোমেটেড ক্লিয়ারিং হাউজ-বিএসিএইচর মাধ্যমে হাই ভ্যালু চেক (৫ লাখ টাকার বেশি) এবং রেগুলার ভ্যালু চেকের (৫ লাখ টাকার কম) নিকাশ ব্যবস্থার নতুন সময়সূচি নির্ধারণ করা হয়েছে। নতুন নির্দেশনা অনুযায়ী, ১৫, ১৮, ১৯ জুলাই এই তিন দিন চেক ক্লিয়ারিংয়ের সময়।

পাঁচ লাখ টাকার বেশি অংকের চেক ক্লিয়ারিংয়ের জন্য বেলা ১২ টার মধ্যে পাঠাতে হবে। এসব চেক বিকাল ৩ টার মধ্যে নিষ্পত্তি হবে। আর যেকোনো রেগুলার চেক বেলা ১২.৩০ টার মধ্যে ক্লিয়ারিং হাউজে পাঠাতে হবে। এসব চেক বিকাল ৫ টার মধ্যে নিষ্পত্তি হবে।

রিয়েল টাইম গ্রস সেটেলমেন্ট-আরটিজিএস এর লেনদেন হবে সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত। তবে কাস্টমস শুল্ক সংক্রান্ত করাদি, ফি, চার্জ প্রভৃতি পরিশোধ ও আন্তঃব্যাংক লেনদেন আরটিজিএস-এর মাধ্যমে বিকাল ৫টা পর্যন্ত পরিশোধ করা যাবে।

১৭ ও ২০ জুলাই চেক ক্লিয়ারিংয়ের সময়:

পাঁচ লাখ টাকার বেশি অংকের চেক ক্লিয়ারিংয়ের জন্য বেলা ১১.৩০ টার মধ্যে পাঠাতে হবে। এসব চেক দুপুর ১ টার মধ্যে নিষ্পত্তি হবে। আর যেকোনো রেগুলার চেক বেলা ১২.০০ টার মধ্যে ক্লিয়ারিং হাউজে পাঠাতে হবে। এসব চেক বেলা ২.৩০ টার মধ্যে নিষ্পত্তি হবে।

রিয়েল টাইম গ্রস সেটেলমেন্ট-আরটিজিএস এর লেনদেন হবে সকাল ১০টা থেকে বেলা ২ টা পর্যন্ত। তবে কাস্টমস শুল্ক সংক্রান্ত করাদি, ফি, চার্জ প্রভৃতি পরিশোধ ও আন্তঃব্যাংক লেনদেন আরটিজিএস-এর মাধ্যমে বিকাল ৩টা পর্যন্ত পরিশোধ করা যাবে।

বাংলাদেশ ইলেকট্রনিক ফান্ডস্ ট্রান্সফার নেটওয়ার্ক (বিইএফটিএন) সেবা বিদ্যমান নিয়মে চলবে বলে নির্দেশনায় বলা হয়েছে।

ঈদের পর লকডাউন চলাকালীন চেক ক্লিয়ারিংয়ের সময় (২৫ জুলাইয়ের পর থেকে পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত)। পাঁচ লাখ টাকার বেশি অংকের চেক ক্লিয়ারিংয়ের জন্য সকাল ১১.৩০ টার মধ্যে পাঠাতে হবে। এসব চেক দুপুর ১.০০ টার মধ্যে নিষ্পত্তি হবে। আর যেকোনো রেগুলার চেক বেলা ১২টার মধ্যে ক্লিয়ারিং হাউজে পাঠাতে হবে। এসব চেক বেলা ২.৩০ টার মধ্যে নিষ্পত্তি হবে।

রিয়েল টাইম গ্রস সেটেলমেন্ট-আরটিজিএস এর লেনদেন হবে সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১.৩০ টা পর্যন্ত। তবে কাস্টমস শুল্ক সংক্রান্ত করাদি, ফি, চার্জ প্রভৃতি পরিশোধ ও আন্তঃব্যাংক লেনদেন আরটিজিএস-এর মাধ্যমে বেলা ২.৩০ টা পর্যন্ত পরিশোধ করা যাবে।


আরও খবর



মঠবাড়িয়ায় জমি দখলের অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন

প্রকাশিত:রবিবার ২৫ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ জুলাই ২০২১ | ১১০জন দেখেছেন
মনিরুল ইসলাম, মঠবাড়িয়া

Image

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ গোলাম মোস্তফার বিরুদ্ধে পৌরসভাধীন ৮নং ওয়ার্ডের মো: জিয়া খানের বসত বাড়ির জমি জবর দখলের অভিযোগ উঠেছে।

রবিবার দুপুরে মঠবাড়িয়া রিপোর্টার্স ইউনিটির অফিস কার্যালয়ে দৈনিক আমাদের অর্থনীতি পত্রিকার মঠবাড়িয়া উপজেলা প্রতিনিধি জিয়া খান লিখিত বক্তব্যে বলেন, পৌরসভাধীন ৮নং ওয়ার্ডের ২২ নং জে,এল এর বকসির ঘটিচোরা মৌজার এস.এ ৯১৩ নং খতিয়ানের রেকর্ডীয় মালিক ফয়জর আলীর ওয়ারিশের নিকট হইতে ১৯৮৪ সন হইতে সাব কবলা দলিল মুলে মালিকের নিকট হইতে ক্রয় করে দীর্ঘদিন যাবত শান্তিপূর্ণ ভাবে ভোগ দখল করে আসছি। উক্ত জমিতে আমার জানামতে অন্যান্য অংশীদারি মালিকগন হলেন, আলহাজ্ব আবু হানিফ, সোহরাফ হোসেন, ইয়াহিয়া ও বাদশা মিয়া সবাই শান্তিপূর্ণ ভাবে যার যার জমিতে বসবাস করে আসছে। এখানে মঠবাড়িয়ায় সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ গোলাম মোস্তফার কোন অংশ নাই এবং আছে বলে আমরা জানি না। এ ছাড়া কাগজ পত্রে তার নাম পর্যন্ত নেই। কিন্তু লোকমুখে জানতে পারি আফছের আলীর অংশ থেকে ৫.৫৮ শতাংশ জমির খরিদ মুলে মালিক আছে। উক্ত তথ্য জানার পর সমাধানের জন্য তাহাকে বার বার তাগিদ দেয়া স্বত্তেও প্রমাণ স্বরূপ সে কোন কাগজ পত্র উপস্থাপন করতে পারেনি। সঠিক মিমাংসার জন্য পৌরসভার সার্ভেয়ার দ্বারা সীমানা নির্ধারণের আবেদন করি যার প্রেক্ষিতে সার্ভেয়ার সাহেব উভয় পক্ষকে জমির বৈধ কাগজপত্র নিয়ে যথা সময় উপস্থিত থাকতে বলেন, আমি কাগজ পত্র নিয়ে হাজির হলেও গোলাম মোস্তফা সাহেব কোন কাগজ পত্রের যথার্থ প্রমাণ দেখাতে পারেননি। গত রোজার ঈদের পর আমি নিজের শারীরিক চিকিৎসার জন্য ঢাকায় যাই। চিকিৎসা জনিত কারণে দীর্ঘ সময় ঢাকায় অবস্থান করি। এ সুযোগে আমার দখলীয় জমির সিমানা ভেঙ্গে টিনের বেড়া ও দেয়াল নির্মাণ করেন। আমি স্থানীয় লোকের মাধ্যমে জানতে পেরে ঢাকা থেকে বাড়িতে আসি এবং আমার জমি জোর পূর্বক দখলের সত্যতা পেয়ে শিক্ষা বিভাগের উর্ধ্বতণ কর্তৃপক্ষের নিকট সু বিচারের জন্য আবেদন করি। অধ্যক্ষ গোলাম মোস্তফা সাহেব থানা থেকে শুরু করে সকল জায়গায় তার ক্ষমতার অপব্যবহার করে চলছেন এবং মাঝে মধ্যে তার কলেজের ছাত্রদের দিয়ে প্রতিপক্ষকে ভয় ভীতি প্রদর্শণ করেন। দুঃখের বিষয় উর্ধ্বতণ কর্তৃপক্ষ অদ্যবদি আমার অভিযোগের ব্যাপারে কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করেননি। এ ঘটনার সুষ্ঠু সমাধানের জন্য আমি অত্র সংবাদ সম্মেলনে ইলেট্রনিক্স ও প্রিন্ট মিডিয়ায় সংবাদ প্রকাশের জন্য সহকর্মীদের বিশেষ ভাবে অনুরোধ জানাই।

এ বিষয় অধ্যক্ষ গোলাম মোস্তফা তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমি জিয়া খানের জমি অবৈধভাবে দখল করিনি বরং পৌরসভার সার্ভেয়ার ও গণ্যমান্য ব্যাক্তির চুলচেরা বিশ্লেষনের মাধ্যমে সুষ্ঠরুপে বন্ঠন করা হয়েছে।

নিউজ ট্যাগ: মঠবাড়িয়া

আরও খবর



ইসরাইলকে অত্যাধুনিক ১৮ হেলিকপ্টার দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৩ আগস্ট ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৩ আগস্ট ২০২১ | ৪৩জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ইহুদিবাদী রাষ্ট্র ইসরাইলকে ৩.৮ বিলিয়ন ডলার মূল্যের অত্যাধুনিক ১৮টি সিএইচ-৫৩কে মডেলের হেভি-লিফট হেলিকপ্টার দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় গত শুক্রবার এ ঘোষণা দিয়েছে। খবর রয়টার্স ও আরব নিউজের।

একই সঙ্গে এসব হেলিকপ্টারের স্পেয়ার ইঞ্জিন, নেভিগেশন সিস্টেম, অন্যান্য যন্ত্রপাতি ও কারিগরি সহায়তা দেওয়ারও ঘোষণা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। ইসরাইলকে অর্থ ও সমরাস্ত্র দিয়ে সাহায্যকারী প্রধান দেশই হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র।  

ফিলিস্তিনের গাজা ও পশ্চিমতীরে যুদ্ধাপরাধের অভিযোগে ইসরাইলের কাছে সমরাস্ত্র বিক্রির ব্যাপারে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের চাপ উপেক্ষা করে যুক্তরাষ্ট্র এসব সামরিক হেলিকপ্টার দিচ্ছে। 

গত মে মাসে গাজায় বেসামরিক এলাকায় বোমাবর্ষণের অভিযোগে সম্প্রতি মার্কিন কংগ্রেসে ৭৩ কোটি ৫০ লাখ ডলারের ইসরাইলের সামরিক সহায়তার বিল আটকে দেন ভেরমন্ট থেকে নির্বাচিত সিনেটর বের্নি স্যান্ডার্স। পরে বাইডেন প্রশাসন ওই বিলটিও অনুমোদন করে।


আরও খবর



অনুমতি পেলেই বাংলাদেশে টিকা উৎপাদন শুরু করবে চীন

প্রকাশিত:সোমবার ১২ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১২ জুলাই ২০২১ | ১২০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সরকারের অনুমতি পেলেই চীন বাংলাদেশে যৌথ টিকা উৎপাদন শুরু করতে প্রস্তুত বলে জানিয়েছেন ঢাকায় নিযুক্ত চীনের ডেপুটি চিফ অব মিশন হুয়ালং ইয়ান। সোমবার (১২ জুলাই) অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ-চায়না অ্যালামনাই (এবিসিএ) আয়োজিত এক ওয়েবিনারে এ কথা জানান তিনি।

চীনের ডেপুটি চিফ অব মিশন হুয়ালং ইয়ান বলেন, বাংলাদেশের সঙ্গে টিকার যৌথ উৎপাদন শুরু করতে চায় চীন। টিকার যৌথ উৎপাদনে প্রস্তুত চীন। বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে অনুমতি পেলে চীন টিকা উৎপাদন শুরু করবে।

চীনা কমিউনিস্ট পার্টির শতবছর পূর্তিতে আয়োজিত ওয়েবিনারে এবিসিএর প্রেসিডেন্ট সাবেক রাষ্ট্রদূত মুন্সি ফয়েজ আহমেদ স্বাগত বক্তব্য রাখেন। ওয়েবিনারে কি-নোট স্পিকার হিসেবে বক্তব্য রাখেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইমেরিটাস অধ্যাপক ড. সৈয়দ আনোয়ার হোসেন ও আলোচক হিসেবে বক্তব্য রাখেন নিরাপত্তা বিশ্লেষক ও সাবেক নির্বাচন কমিশনার এম সাখাওয়াত হোসেন।

এ সময় সিনোফার্ম থেকে বাংলাদেশ সরকারের কেনা ৫০ লাখ টিকা আগস্টের শুরুর দিকে আসতে পারে বলে জানান চীনের ডেপুটি চিফ অব মিশন।

এর আগে গত ৬ জুলাই হুয়ালং ইয়ান জানিয়েছিলেন, করোনাভাইরাসের টিকার যৌথ উৎপাদনে চীনা কোম্পানিগুলো বাংলাদেশের সঙ্গে কাজ করবে।

ওই দিন ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে চীনের ডেপুটি চিফ অব মিশন লেখেন, চীনা কোম্পানি আর অ্যান্ড ডি সংস্থা ভবিষ্যতে ভ্যাকসিন উৎপাদনে বাংলাদেশি অংশীদারদের সঙ্গে কাজ করবে। চীন বহু উন্নয়নশীল দেশের সঙ্গে যৌথ গবেষণা ও উন্নয়ন ও সমবায় উৎপাদন পরিচালনা করেছে এবং তৃতীয় পর্যায়ের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল পরিচালনায় বিদেশি দেশগুলোকে সহযোগিতা করার জন্য সংশ্লিষ্ট সংস্থাগুলোকে সমর্থন করেছে।

গত ৭ জুলাই পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন জানান, যৌথভাবে দেশে টিকা উৎপাদনে বাংলাদেশ অনেক দূর অগ্রসর হয়েছে। ড. মোমেন বলেছিলেন, আমরা টিকার যৌথ উৎপাদনের জন্য চীন ও রাশিয়ার সঙ্গে কথা বলেছি। তাদের কাছে আমরা দেশে টিকা উৎপাদনে যাওয়ার প্রস্তাব রেখেছি। এটা নিয়ে আলোচনা অনেক দূর অগ্রসর হয়েছে। সবশেষ গত শনিবার পররাষ্ট্রমন্ত্রী এক ভিডিও বার্তায় জানান, চীন ও রাশিয়ার সঙ্গে টিকার যৌথ উৎপাদনে আলাপ চলছে।


আরও খবর