আজঃ বৃহস্পতিবার ১৩ মে ২০২১
শিরোনাম

সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রধানমন্ত্রীকে খুন করে মরদেহ গুম করার হুমকি

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৪ মে ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৪ মে ২০২১ | ১১৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফেসবুকে টিকটক ভিডিও বানিয়ে আপলোড করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে খুন করার হুমকি, লাশ খুঁজে না পাওয়া ও সাম্প্রদায়িক উসকানি দেওয়াসহ নানা অভিযোগে এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

সোমবার (৩ এপ্রিল) রাতে থানায় মামলাটি দায়ের করা হয়। পরে নিরাপত্তা হুমকিসহ এসব বিষয় নজরে আসার পর তাকে নিজ গ্রাম থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারকৃত মো. নূর আলম (২১) উপজেলার খুটাখালী ইউনিয়নের চার নম্বর ওয়ার্ডের পশ্চিম গর্জনতলী এলাকার মৃত শামসুল আলমের ছেলে।

এ ঘটনায় উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা সৃজন দে বাদী হয়ে ওই যুবকের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, গত ২২ এপ্রিল মো. নূর আলম তার নিজ নামীয় 'মোহাম্মদ আলম নূর' ও ফেসবুক পেজ টিম উইথ এআর কক্স মিডিয়া তে একটি ভিডিও পোস্ট করেন। যে ভিডিওতে এক ব্যক্তি সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উদ্দেশ করেন বলেন, শেখ হাসিনা আপনাকে যখন মারা হবে, লাশটাও খুঁজে পাওয়া যাবে না, খোদার কসম।

এজাহারে আরও বলা হয়, অভিযুক্ত ওই যুবক তার ফেসবুক পেজ গত ৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১ তারিখ থেকে ২৫ এপ্রিল ২০২১ পর্যন্ত ৮টি লিংক ব্যবহার করে মিথ্যা, বানোয়াট ও ধর্মীয় উসকানিমূলক ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে আপলোড করে। এসব ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল করে দেশকে অস্থিতিশীল করার জন্য সাধারণ ধর্মপ্রাণ মানুষকে উসকানি এবং ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেয়ার শামিল। এমনকি তার একটি ইউটিউব চ্যানেল থেকে ইলেক্ট্রনিক ডিভাইসের মাধ্যমে হত্যার হুমকি, মানহানিকর মিথ্যা তথ্য প্রকাশ করে স্থানীয় বিভিন্ন দল তথা শ্রেণীর মানুষের মধ্যে শত্রুতা, ঘৃণা, বিদ্বেষ সৃষ্টিসহ দেশের বিভিন্ন ধর্মের মানুষের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করেছে।

মামলার বাদী চকরিয়া উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা সৃজন দে বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে খুন করার হুমকি ও মরদেহ গুম করাসহ ওই যুবকের রাষ্ট্রবিরোধী কর্মকাণ্ড বর্তমান শান্তিপূর্ণ পরিস্থিতিতে আইন-শৃঙ্খলার অবনতি হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। তাই উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক কাউছার উদ্দিন কছিরের সাথে পরামর্শ করে এই মামলাটি দায়ের করেছি। ওই যুবকের রাজনৈতিক পরিচয় শনাক্তের চেষ্টা চলছে।

এ বিষয়ে চকরিয়া থানার ওসি শাকের মোহাম্মদ যুবায়ের বলেন, অভিযুক্ত ওই যুবকের বানানো টিকটক ভিডিওসহ বিভিন্ন ফেসবুক পোস্ট রাষ্ট্রের নিরাপত্তার জন্য চরম হুমকিস্বরূপ। তাই বিষয়টি নজরে আসায় এবং লিখিত এজাহার পেয়ে প্রাথমিক তদন্তে সত্যতা পাওয়ার পর ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা নেওয়া হয়েছে।


আরও খবর



বাসার দরজা ভেঙে অধ্যাপক তারেক শামসুর রেহমানের লাশ উদ্ধার

প্রকাশিত:শনিবার ১৭ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ১৭ এপ্রিল ২০২১ | ১৬৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
রাতে বাসায় একা ঘুমিয়ে ছিলেন অধ্যাপক রেহমান। অনেক সকাল হলেও ঘুম থেকে না ওঠায় বিষয়টি পুলিশকে জানানো হয়। পরে পুলিশ গিয়ে ফ্ল্যাটের দরজা ভেঙে মৃত অবস্থায় তার লাশ উদ্ধার করে

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ও রাজনৈতিক বিশ্লেষক ড. তারেক শামসুর রেহমান মারা গেছেন। শনিবার উত্তরা অ্যাপার্টমেন্ট প্রজেক্টে নিজের ফ্ল্যাটে মৃত অবস্থায় তাকে পাওয়া যায়।  এ সময় বাসায় কেউ ছিলেন না। পুলিশ দরজা ভেঙে তার লাশ উদ্ধার করে। তার মৃত্যুর কারণ এখনও জানা যায়নি।

রাজউকের উত্তরা অ্যাপার্টমেন্ট প্রজেক্টের প্রকল্প পরিচালক মো. মোজাফফর আহমেদ তাঁর মৃত্যুর সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

জানা গেছে, রাতে বাসায় একা ঘুমিয়ে ছিলেন অধ্যাপক রেহমান। অনেক সকাল হলেও ঘুম থেকে না ওঠায় বিষয়টি পুলিশকে জানানো হয়। পরে পুলিশ গিয়ে ফ্ল্যাটের দরজা ভেঙে মৃত অবস্থায় তার লাশ উদ্ধার করে।

বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের সাবেক সদস্য তারেক শামসুর রেহমান জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক ও বিভাগের সাবেক চেয়ারম্যান ছিলেন। আন্তর্জাতিক রাজনীতি, আন্তঃরাষ্ট্রীয় সম্পর্ক ও বৈদেশিক নীতি এবং তুলনামূলক রাজনীতি নিয়ে তার একাধিক গ্রন্থ রয়েছে। আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিষয়ে পিএইচডি ডিগ্রির অধিকারী অধ্যাপক রেহমান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অনার্স ও মাস্টার্স ডিগ্রি সম্পন্ন করেন। অধ্যাপনার পাশাপাশি ড. রেহমান নিয়মিত কলাম লিখতেন। প্রায় প্রতিটি জাতীয় দৈনিকে তার কলাম নিয়মিত ছাপা হতো।

তার উল্লেখযোগ্য গ্রন্থগুলোর মধ্যে রয়েছে- ইরাক যুদ্ধ পরবর্তী আন্তর্জাতিক রাজনীতি, গণতন্ত্রের শত্রু-মিত্র, নয়া বিশ্বব্যবস্থা ও আন্তর্জাতিক রাজনীতি, বিশ্ব রাজনীতির চালচিত্র, উপআঞ্চলিক জোট, ট্রানজিট ইস্যু ও গ্যাস রফতানি প্রসঙ্গ, বাংলাদেশঃ রাষ্ট্র ও রাজনীতি, বাংলাদেশঃ রাজনীতির ২৫ বছর, বাংলাদেশঃ রাজনীতির চার দশক, গঙ্গার পানি চুক্তিঃ প্রেক্ষিত ও সম্ভাবনা, সোভিয়েত-বালাদেশ সম্পর্ক, বিশ্ব রাজনীতির ১০০ বছর ইত্যাদি।


আরও খবর



ঈদের ছুটির দাবিতে পোশাক শ্রমিকরা রাস্তায়

প্রকাশিত:শনিবার ০৮ মে ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ০৮ মে ২০২১ | ১০০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

তিন দিন নয়, ঈদ উপলক্ষে ১০ দিনের ছুটির দাবিতে আন্দোলনে নেমেছেন পোশাকশ্রমিকেরা। রাজধানীর মিরপুর ১০ থেকে ১৪ নাম্বার সড়ক পর্যন্ত রাস্তায় বিক্ষোভ করছেন তাঁরা। এতে রাস্তায় যানজট সৃষ্টি হয়। চলাচল বন্ধ না হলেও ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে চলাচলকারীদের।

আজ শনিবার সকাল থেকে শ্রমিকেরা এই বিক্ষোভ শুরু করেন। তারপর থেকে রাস্তায় অবস্থান নিয়েছে কাফরুল থানা পুলিশ। পুলিশ বলছে, তারা শ্রমিকদের সঙ্গে কথা বলেছে এবং মালিক পক্ষের সঙ্গেও কথা বলার চেষ্টা করছে।

আন্দোলনরত শ্রমিকেরা বলছেন, ঈদের বাকি আর মাত্র চার-পাঁচদিন। এখনও বেতন হয়নি, বোনাস হয়নি। দ্রুত বেতন-বোনাসের দাবিসহ তিন দিনের পরিবর্তে ১০ দিন ঈদের ছুটি চান শ্রমিকেরা। তাঁরা বলছেন, এত কম ছুটিতে বাড়ি গিয়ে ফিরতে অসুবিধা হবে তাঁদের। এসব দাবিতে রাস্তায় আন্দোলন করছেন শ্রমিকেরা। তাঁরা আমাদের দাবি মানতে হবেসহ নানা ধরনের স্লোগান দিচ্ছেন।

কাফরুল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আবু আজিজ বলেন, সকাল থেকেই শ্রমিকেরা রাস্তায় নেমেছেন। তারপর আমরা তাঁদের সঙ্গে কথা বলি। তাঁদের দাবি, তিন দিনের স্থলে তাঁদের ১০ দিনের ছুটি দিতে হবে। তাঁরা বলছেন, তাঁদের তিন দিনের ঈদের ছুটি দেওয়া হয়েছে। এই ছুটির মেয়াদ না বাড়ালে তাঁরা সড়ক ছাড়বেন না।

কেন শ্রমিকেরা ১০ দিনের ছুটি দাবি করছেন, তাঁরা কি কিছু জানিয়েছেন এ ব্যাপারে- এমন প্রশ্নে আবু আজিজ বলেন, শ্রমিকদের দাবি, করোনা পরিস্থিতিতে তাঁরা অনেকদিন গ্রামের বাড়িতে যান না। এদিকে এখন দূরপাল্লার বাস চলছে না। ফলে যাঁদের গ্রামের বাড়ি দূরে, তাঁদের তিন দিনের মধ্যে বাড়িতে যেতে-আসতে সমস্যা হবে। ফলে ছুটি বেশি দেওয়ার দাবি তাঁদের।

থানার পরিদর্শক (অপারেশন) জাহানুর আলম বলেন, ১০ দিনের ছুটি না দিলে তাঁরা বিক্ষোভ করেই যাবেন বলে বলছেন। কাফরুল এলাকার হামিম গার্মেন্টসহ কয়েকটি গার্মেন্ট শ্রমিকেরা এই বিক্ষোভ করছেন। এ ছাড়া তাঁদের মধ্যে কেউ কেউ দ্রুত বেতন-বোনাস দেওয়ারও দাবি জানাচ্ছে। এখন রাস্তা মোটামুটি ক্লিয়ার আছে। যদিও শ্রমিকেরা এখনও রাস্তায় অবস্থান করছেন।

নিউজ ট্যাগ: পোশাক শ্রমিক

আরও খবর



অবৈধ ভূমি দখলের সাথে জড়িত পাকিস্তান সেনাবাহিনী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৯ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৯ এপ্রিল ২০২১ | ৯২জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

অবৈধ ভূমি দখলে জড়িত থাকার অভিযোগে পাকিস্তানের প্রতিরক্ষা আবাসন কর্তৃপক্ষের (ডিএইচএ) ব্যাপক সমালোচনা করেছেন লাহোরের হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি মোহাম্মদ কাসিম খান।

সেনাবাহিনী দেশটির সবচেয়ে বড় ভূমি দখলকারী হওয়ায়আফসোসের কথাও জানান তিনি।-খবর ডন অনলাইনের

ইভাকিউই ট্রাস্ট প্রোপার্টি বোর্ডের (ইটিপিবি) কাছ থেকে বৈধভাবে জমি ইজারা নেওয়া তিন ব্যক্তি ডিএইচএর বিরুদ্ধে আদালতে রিট আবেদন করেন। তাদের বৈধ জমিতে যাতে সেনাবাহিনী হস্তক্ষেপ না করে, আদালতের কাছে সেই নিশ্চয়তা দাবি করেন।

এমনকি হাইকোর্টের জমিও সেনাবাহিনী দখলে নিয়েছে বলে জানান কাসিম খান। এ নিয়ে সেনাবাহিনীর প্রধানকে একটি চিঠি লিখতে লাহোর হাইকোর্টের রেজিস্ট্রারকে নির্দেশ দিয়েছেন প্রধান বিচারপতি।

তবেই হাইকোর্টের জমিদখল নিয়ে ডিএইচএর কাউন্সেল আলতাফুর রহমান কিছু জানেন না বলে দাবি করেন। প্রধানবিচারপতি বলেন, এই ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করতে লাহোরের কোর্পস কমান্ডারকে তলব করা হতে পারে। তিনি আরও বলেন, সেনাবাহিনীর উর্দি মানুষের সেবার জন্য, রাজা হিসেবে শাসন করার জন্য না।

সেনাবাহিনী নিয়ে ন্যূনতম ভুল কিছু বলেননি জানিয়ে কাসিম খান বলেন, আল্লাহ আমাকে সত্য বলার সাহস দিয়েছেন। সেনাবাহিনী যেভাবে সাধারণ মানুষের জমি দখল করছে, তা ভূমিদস্যুতা ছাড়া আর কিছু না।


আরও খবর



ঈদগাহে নয়, ঈদের জামাত হতে পারে মসজিদে

প্রকাশিত:রবিবার ২৫ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ এপ্রিল ২০২১ | ৯৪জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দেশে মহামারি করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) সংক্রমণ পরিস্থিতির কারণে এবারও ঈদের জামাত উন্মুক্ত স্থান বা ঈদগাহে পড়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা দিতে পারে সরকার। গত বছরের মতো স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঈদুল ফিতরের জামাত মসজিদে আদায়ের সিদ্ধান্ত আসতে পারে।

তবে ঈদ জামাতের বিষয়ে আগামী মঙ্গলবার (২৭ এপ্রিল) সভা করে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে ধর্ম মন্ত্রণালয় থেকে জানা গেছে।

চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামী ১৩ বা ১৪ মে দেশে মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর উদযাপিত হবে। ঈদের দিন মুসলমানরা মসজিদ কিংবা ঈদগাহে ২ রাকাত ঈদের ওয়াজিব নামাজ আদায় করে থাকেন।

রবিবার (২৫ এপ্রিল) দুপুরে ধর্ম বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফরিদুল হক খানের কাছে ঈদ জামাতের বিষয়ে জানতে চাইলে বলেন, আমি মনে করি ঈদের জামাতের বিষয়ে সিদ্ধান্ত গত বছরের মতোই থাকবে। আরো কঠিন হয়তো হবে না। আমরাও চাই গত বছরের সিদ্ধান্তটাই থাক। তবে সবকিছুই আলোচনা করে আমরা ফাইনাল করবো।

তিনি বলেন, আগামী পরশু দিন আমরা একটা সিদ্ধান্তে যাব। আমাদের একটি অফিসিয়াল মিটিং হবে, সেখানে আমরা সিদ্ধান্ত নেব।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, গত বছর যে পরিস্থিতি ছিল, এবার এর চেয়ে পরিস্থিতি আরো খারাপ। আমাদের সচিব, মন্ত্রিপরিষদ সচিবসহ সবাইকে বলেছি বসে একটা সিদ্ধান্ত নিন। গত বছর যে সিদ্ধান্ত ছিল সেটা ঠিক রাখবেন নাকি, আরও কঠিন করবেন নাকি কিছুটা রিল্যাক্স করবেন, বসেই সেই সিদ্ধান্ত নেয়া যেতে পারে।

কোভিড-১৯ সংক্রমণ রোধে গত ১৪ এপ্রিল ভোর ৬টা থেকে আট দিনের কঠোর লকডাউন (বিধিনিষেধ) শুরু হয়। লকডাউনের মধ্যে পালনের জন্য ১৩টি নির্দেশনা দেয়া হয় সরকারের পক্ষ থেকে। সেই মেয়াদ শেষ হয় গত বুধবার (২১ এপ্রিল) মধ্যরাতে। পরে লকডাউনের মেয়াদ আগামী ২৮ এপ্রিল মধ্যরাত পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে।

যদিও ২৯ এপ্রিল থেকে লকডাউনের মেয়াদ আর বাড়ছে না, বিধিনিষেধ শিথিল হচ্ছে বলে জানিয়েছেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী।


আরও খবর
আগামীকাল সৌদিতে ঈদ

বুধবার ১২ মে ২০২১




ভারতে করোনায় একদিনে রেকর্ড ২৮১২ জনের মৃত্যু

প্রকাশিত:সোমবার ২৬ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ এপ্রিল ২০২১ | ১০১জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

করোনাভাইরাসে ভারতে গত ২৪ ঘণ্টায় ২৮১২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এটিই দেশটিতে একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যু। এর আগে ২৫ এপ্রিল করোনায় দেশটিতে ২৭৬৭ জনের মৃত্যু হয়।

খবরে বলা হয়, সোমবার (২৬ এপ্রিল) দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রণায় এ তথ্য জানায়। এদিন করোনা আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছে ৩ লাখ ৫২ হাজার ৯৯১ জন।


আরও খবর