আজঃ সোমবার ০৮ মার্চ ২০২১
শিরোনাম

শরীর এবং মনকে সুস্থ করবে বিশ্বাস

প্রকাশিত:বুধবার ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ১০৫জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

স্পিরিচুয়ালিটি এন্ড মেডিসিন', যে কোর্সটিতে ছাত্রছাত্রীদের শেখানো হয়, রোগীদের সাথে তারা কীভাবে বিশ্বাস, নিরাময় ইত্যাদি বিষয় নিয়ে কথা বলবে। 

আমেরিকার অর্ধেকেরও বেশি মেডিকেল স্কুলে এখন এ ধরনের কোর্স আছে। তিন দশক আগে যা ভাবাই যেত না। কেন? কারণ রোগীরা এখন নিজেদের সুস্থতা নিয়ে অনেকটাই মাথা ঘামাচ্ছেন।

নিউজউইকের এক জরিপে দেখা গেছে, ৭২ শতাংশ আমেরিকানই বলেছেন, এসব বিষয় নিয়ে ডাক্তারের সাথে কথা বলতে পছন্দ করেন তারা। ৮৪% আমেরিকানই মনে করেন, অসুস্থদের জন্যে প্রার্থনা করলে তার রোগমুক্তির সম্ভাবনা বাড়ে।

বিলিফনেট একটি জনপ্রিয় ধর্মীয় ওয়েবসাইট। এখানে যে ৩৫ হাজার প্রেয়ার সার্কেল আছে, তার তিন চতুর্থাংশই নিরাময় সংক্রান্ত। সদস্যরা তো বটেই, অপরিচিত যে কেউই এখানে লগ অন করে তার হিলিং বা দোয়ার জন্য অনুরোধ পাঠাতে পারে।

চিকিৎসাবিজ্ঞানীরা এখন মনে করেন, একজন মানুষের সুস্থ থাকার জন্যে তার মনে বা আত্মায় কী ঘটে, তা তার দেহের কোষের স্তরে কী ঘটে তার চেয়ে কোনো অংশেই কম গুরুত্বপূর্ণ নয়।

আর এজন্যে গোটা মার্কিন মুলুক জুড়ে চলছে নানা উদ্যোগ। ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব হেলথ ঘোষণা দিয়েছে আগামী কয়েক বছর ধরে তারা মোট সাড়ে তিন মিলিয়ন ডলার ব্যয় করবে মাইন্ড-বডি মেডিসিন গবেষণায়। আধ্যাত্মিকতা ও নিরাময় বিষয়ে রীতিমতো কনফারেন্সের আয়োজন করেছে হার্ভার্ড মেডিকেল স্কুল যার উপজীব্য হলো ক্ষমার নিরাময় গুণ। এ বিষয়ে চিকিৎসাবিজ্ঞানীদের দৃষ্টিভঙ্গিতে গত কয়েক বছরের মধ্যে যে ব্যাপক পরিবর্তন ঘটেছে, তারই ফসল হলো এসব, বলেন পেনসিলভানিয়া ইউনিভার্সিটির নিউরোলজিস্ট ড. এন্ড্রু নিউবার্গ, মস্তিষ্কের ওপর ধ্যান এবং প্রার্থনার ভূমিকা নিয়ে যিনি ব্যাপক গবেষণা করেছেন। 

প্রশ্ন হলো, এ প্রসঙ্গে বিজ্ঞান কী বলে? ডিউক বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর মিশেল ক্রাকোফ ৭৫০ জন রোগীর কথা বলেন, যাদের এনজিওপ্লাস্টি করা হয়েছে সম্প্রতি। এ রোগীদের জন্যে প্রার্থনা করা হয়। যদিও এ রোগীদের সাথে কোনো পার্থক্য ডাক্তাররা পেলেন না প্রচলিত চিকিৎসা করানো দ্বিতীয় গ্রুপের সাথে বা তৃতীয় গ্রুপের সাথে সঙ্গীত, নিরাময়ের মনছবি বা স্পর্শ হিলিং করা হয়েছে যাদের। কিন্তু একটা মজার বিষয় হলো, যেসব রোগী মিউজিক থেরাপি এবং প্রার্থনা দুটোই পেয়েছেন, তারা অন্যদের তুলনায় মৃত্যুবরণের হার ৩০ ভাগ কম।

লিন্ডা এইচ পাওয়েল- শিকাগোর এই গবেষক এ সংক্রান্ত সব গবেষণাগুলোর একটা মেটা এনালিসিস করেন। অপ্রাসঙ্গিক বা দুর্বল গবেষণাগুলোকে তিনি খুব কঠোরভাবে বাদ দেন তার তালিকা থেকে। তবে তিনি একটি বিষয়ে খুব চমৎকৃত হন যে, যে মানুষগুলো নিয়মিত চার্চে যায়, অন্যদের তুলনায় তাদের দ্রুত মারা যাওয়ার হার ২৫% কম।

আসলে বেশিরভাগ ধর্মীয় চর্চাতেই রয়েছে ধ্যান, শিথিলায়ন, সুস্থ জীবনাচারের কথা যা আসলে সুস্বাস্থ্যের গুরুত্বপূর্ণ শর্তগুলোকেই নিশ্চিত করে।

Share

আরও খবর
আজকের রাশিফল: আজ কেমন যাবে?

রবিবার ০৭ মার্চ ২০২১




পরীক্ষার দাবিতে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ

প্রকাশিত:রবিবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ১০০জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ঘোষিত পরীক্ষার নতুন সময়সূচি বাতিল, অনার্স চতুর্থ বর্ষের ব্যবহারিক ও মৌখিক পরীক্ষা গ্রহণ এবং ডিগ্রি ও মাস্টার্স পরীক্ষা মার্চের মধ্যে নেওয়ার দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করছেন বিভিন্ন কলেজের শিক্ষার্থীরা। গাজীপুরে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের  ফটক আটকে রেখে আজ রোববার বেলা ১১টার দিকে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ শুরু করেন তাঁরা।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত বিভিন্ন কলেজের শতাধিক শিক্ষার্থী এই মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশে অংশ নেন। এ সময় শিক্ষার্থীরা মার্চের মধ্যে পরীক্ষা গ্রহণের দাবি জানান। পরীক্ষার ব্যাপারে কোনো ইতিবাচক সিদ্ধান্ত না আসা পর্যন্ত তাঁরা দাবি থেকে সরে আসবেন না বলে জানিয়েছেন।

এদিকে, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তা রক্ষায় পুলিশ ও আনসার সদস্যদের মোতায়েন করা হয়েছে।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে গত বৃহস্পতিবার জানানো হয়, আগামী ২৪ মে থেকে সংশোধিত সময়সূচি অনুযায়ী স্থগিত হয়ে যাওয়া পরীক্ষা গ্রহণ শুরু হবে। ২০১৯ সালের ডিগ্রি পাস ও সার্টিফিকেট কোর্স দ্বিতীয় বর্ষের স্থগিত পরীক্ষা এবং ২০১৮ সালের মাস্টার্স শেষ পর্বের পরীক্ষাসহ অন্যান্য সব প্রফেশনাল কোর্সের স্থগিত পরীক্ষাও একই দিনে শুরু হবে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়, চলতি ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষের প্রথম বর্ষে ভর্তির কার্যক্রম আগামী ৮ জুন থেকে শুরু হবে। শিক্ষার্থীদের পরীক্ষার প্রস্তুতি নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। পরীক্ষার সময়সূচি বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে পাওয়া যাবে।

এর আগে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সব ধরনের পরীক্ষা স্থগিত রাখার ঘোষণা দিয়েছিল কর্তৃপক্ষ। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ, তথ্য ও পরামর্শ দপ্তরের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক মো. ফয়জুল করিম স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে গত সোমবার এ তথ্য জানানো হয়।

এর পর থেকেই পরীক্ষা নেওয়ার দাবিতে আন্দোলনে নামে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত বিভিন্ন কলেজের শিক্ষার্থীরা।

Share

আরও খবর



জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা স্থগিত

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ১১৩জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তাদের চলমান পরীক্ষাগুলো পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

আজ সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) রাতে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য হারুন-অর- রশিদ এই তথ্য জানিয়েছেন। তিনি জানান, শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলে পরীক্ষাগুলো স্থগিত করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

বিশ্ববিদ্যালয়টির জনসংযোগ দপ্তর জানিয়েছে, বর্তমানে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীন স্নাতক (সম্মান), স্নাতক (পাস), স্নাতকোত্তরসহ বিভিন্ন পরীক্ষা চলছিল। বেলা সোয়া দুইটায় অনলাইন সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি জানান, পবিত্র ঈদুল ফিতরের পর ২৪ মে থেকে দেশের সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে আবারও শ্রেণিকক্ষে পাঠদান শুরু হবে। তার আগে ১৭ মে আবাসিক হলগুলো খুলবে। তবে হলের ওঠার আগেই আবাসিক শিক্ষার্থীদের করোনার টিকা নিতে হবে। আর খোলার আগে কোনও পরীক্ষা হবে না। যেসব বিশ্ববিদ্যালয় পরীক্ষা ও হল খোলার ঘোষণা দিয়েছিল সেই সিদ্ধান্তও বাতিল হবে। তবে অনলাইনে ক্লাস চলবে।

Share

আরও খবর



নতুন করে আরো ১৭টি মসজিদ বন্ধ করেছে ফ্রান্স

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৪ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৪ মার্চ ২০২১ | ১০৫জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
২৪ জানুয়ারি ইসলামী বিচ্ছিন্নতাবাদের কথা উল্লেখ করে ফরাসি সরকার প্রজাতন্ত্রের মূল্যাবোধের সনদ শিরোনামে একটি আইন প্রকাশ করে। অতঃপর তা গত ১৬ ফেব্রুয়া পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষে পাশ হয়

নিরাপত্তা বিষয়ক আইন লঙ্ঘনের অজুহাতে আরো ১৭টি মসজিদ বন্ধ করেছে ফ্রান্স। গতকাল মসজিদ বিষয়ক এক প্রশ্নের জবাবে একথা জানিয়েছেন ফ্রান্সের স্বরাস্ট্রমন্ত্রী জেরাল্ড দারমানিন। ফ্রান্সে বর্তমানে দুই হাজার পাঁচ শয়ের বেশি মসজিদ চালু আছে। এর মধ্যে ৮৯টি মসজিদের সঙ্গে বিভিন্ন বিচ্ছিন্নতাবাদী কাজে সম্পৃক্ততার অভিযোগ পাওয়া গেছে বলে জানান ফরাসি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

তবে ফ্রান্সের প্রচলিত আইনের অভিযোগ তুলে দারমানিন জানান, ফরাসি প্রজাতন্ত্রের আইন মতে কোনো ধর্মীয় উপাসনালয় বন্ধের অনুমোদন নেই। শুধুমাত্র সন্ত্রাসে সরাসরি সম্পৃক্ততার অভিযোগ প্রমাণিত হলে এবং নিরাপত্তা আইন লঙ্ঘন হলে তা বন্ধের অনুমোদন আছে। তাই বর্তমানের প্রচলিত আইন সরকারকে কঠিন পরিস্থিতির সম্মুখীন করবে।

এর আগে গত ২৪ জানুয়ারি ইসলামী বিচ্ছিন্নতাবাদের কথা উল্লেখ করে ফরাসি সরকার প্রজাতন্ত্রের মূল্যাবোধের সনদ শিরোনামে একটি আইন প্রকাশ করে। অতঃপর তা গত ১৬ ফেব্রুয়া পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষে পাশ হয়।

ফ্রান্সে বসবাসরত দ্বিতীয় বৃহত্তম মুসলিম জনগোষ্ঠীকে চরম বৈষম্যের মধ্যে ফেলবে বলে অভিযোগ করেছে অনেক ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান। এতে মসজিদ ও মাদরাসায় বিভিন্ন বিধি-নিষেধ আরোপের কথা বলা হয়। এবং ঘরোয়াভাবে শিশুদের শিক্ষা প্রদানেও অনেক বিধি-নিষেধ আরোপ করা হয়। এর আগে ফ্রান্সে বিশ্ববদ্যালয়ের আগ পর্যন্ত সব শিক্ষার্থীদের হিজাব পরিধানের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে।

গত বছর অক্টোবর মাসে কিছু কট্টরপন্থী ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসসহ বিভিন্ন স্থানে কয়েকটি হামলা চালায়। এর মধ্যে একজন শিক্ষকের শিরশ্ছেদের ঘটনা ঘটে, যিনি ক্লাসে আলোচনার সময় মহানবী (সা.)-এর কার্টুন দেখিয়েছিলেন।

নিউজ ট্যাগ: ফ্রান্স
Share

আরও খবর



ঢাকায় নেমেই গ্রেপ্তার রন হক সিকদার

প্রকাশিত:শুক্রবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ১৫১জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ঢাকায় নেমেই গ্রেপ্তার হলেন সিকদার গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) রন হক সিকদার। শুক্রবার (১২ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১০টার দিকে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করে ডিবি পুলিশ।

রন হক সিকদার তার বাবার মৃত্যুর কারণে ঢাকায় আসেন। তিনি একটি হত্যাচেষ্টার মামলার আসামি হওয়ার পর থেকে পলাতক ছিলেন।

ডিবির অতিরিক্ত উপ কমিশনার গোলাম সাকলায়েন বলেন, এক্সিম ব্যাংকের করা একটি মামলায় তাঁকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। এই মামলার অপর আসামি রন হক সিকদারের ভাই দিপু হক সিকদার দেশে ফেরেননি। এ কারণে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়নি।

এক্সিম ব্যাংকের দুই কর্মকর্তাকে নির্যাতন ও গুলি করে হত্যাচেষ্টার অভিযোগে সিকদার গ্রুপ অব কোম্পানিজের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) রন হক সিকদার ও তার ভাই দিপু হক সিকদারের বিরুদ্ধে গত ১৯ মে রাজধানীর গুলশান থানায় মামলা করে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ।

মামলার বিবরণীতে বলা হয়, গত ৭ মে রন ও দিপু এক্সিম ব্যাংকের এমডি মুহাম্মদ হায়দার আলী মিয়া ও অতিরিক্ত এমডি মুহাম্মদ ফিরোজ হোসনেকে একটি অ্যাপার্টমেন্টে বন্দি করে রাখেন। পরে তাঁদেরকে গুলি করে হত্যা করার চেষ্টা করা হয়।

এক্সিম ব্যাংকের কর্মকর্তাদের নির্যাতন করা হয়েছে উল্লেখ করে তিনি আরও জানান, পরে সাদা কাগজে সই নিয়ে তাঁদের ছেড়ে দেওয়া হয়। সিকদার গ্রুপ ব্যাংকটির কাছে ৫০০ কোটি টাকা ঋণ প্রস্তাব দিলে এর বিপরীতে গ্রুপের বন্ধকি সম্পত্তি পরিদর্শনে যান ব্যাংকের দুই কর্মকর্তা। সেসময় এ ঘটনা ঘটে।

Share

আরও খবর



দেশে ৫৫ পৌরসভায় ভোট গ্রহণ চলছে

প্রকাশিত:রবিবার ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ১১০জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
৫৫ পৌরসভায় মেয়র পদে লড়ছেন ২২৩ জন। এছাড়া ৫১০টি সাধারণ ওয়ার্ডে কাউন্সিলর প্রার্থী দুই হাজার ৯৯ জন এবং ১৭০ সংরক্ষিত ওয়ার্ডে কাউন্সিলর প্রার্থী ৬২৯ জন

চতুর্থ ধাপে ৫৫ পৌরসভায় ভোট গ্রহণ চলছে। আজ রবিবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৮টা থেকে শুরু হওয়া এ ভোট গ্রহণ চলবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত । এ ধাপে ২৫ পৌরসভায় ব্যালট পেপারে ভোট হচ্ছে আর ৩০ পৌরসভায় হচ্ছে ইভিএমে ভোট। করোনাকালে এ নির্বাচনে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার নির্দেশনাও দিয়েছে ইসি।

৫৫ পৌরসভায় মেয়র পদে লড়ছেন ২২৩ জন। এছাড়া ৫১০টি সাধারণ ওয়ার্ডে কাউন্সিলর প্রার্থী দুই হাজার ৯৯ জন এবং ১৭০ সংরক্ষিত ওয়ার্ডে কাউন্সিলর প্রার্থী ৬২৯ জন। এসব পৌরসভায় ৮০২টি ভোটকেন্দ্রে কক্ষ সংখ্যা চার হাজার ৯২৭টি। মোট ভোটার ১৭ লাখ ৬২৪ জন।

সুষ্ঠুভাবে ভোটগ্রহণের জন্য ৫০১ জন নির্বাহী ও ৫৫ জন জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মাঠে থাকছেন। পুলিশের ১৬৭টি মোবাইল ও ৫৫টি স্ট্রাইকিং ফোর্স টিম, র‌্যাবের ১৬৭টি টিম, প্রত্যেক পৌরসভায় গড়ে দুই প্লাটুন বিজিবি ও উপকূলীয় এলাকায় প্রতি পৌরসভায় এক প্লাটুন কোস্টগার্ড মোতায়েন করা হয়েছে।

দেশে ৩২৯টি পৌরসভা রয়েছে। করোনাভাইরাস মহামারীর মধ্যে এবার পাঁচ ধাপে এসব পৌরসভায় ভোট করছে ইসি। প্রথম দফায় গত ২৮ ডিসেম্বর, দ্বিতীয় ধাপে ১৬ জানুয়ারি এবং তৃতীয় ধাপে ৩০ জানুয়ারি ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। পঞ্চম ধাপে ভোট হবে ২৮ ফেব্রুয়ারি।

Share

আরও খবর