আজঃ বৃহস্পতিবার ১৩ মে ২০২১
শিরোনাম

শরীয়তপুরে ফের মহিলা কওমী মাদ্রাসায় শিশু ধর্ষণ : গ্রেফতার ১

প্রকাশিত:শনিবার ১৭ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ১৭ এপ্রিল ২০২১ | ৮১৩জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মাত্র ৭ দিন না পেরুতেই ফের এক কওমী মাদ্রাসার অধ্যক্ষের লালসার শিকার হলো ৯ বছরের মাদ্রাসা শিক্ষার্থী। কোন রকম থানা পুলিশ কিংবা আইনের তোয়াক্কা না করে স্থানীয় সমাজপতিরা নির্যাতিত মেয়েটির পরিবারকে জিম্মি করে সম্ভ্রমের দাম উঠিয়েছেন তিন লাখ টাকা। সমাজের মাতুব্বরদের ভয়ে মুখ খুলতে সাহস পাচ্ছেনা নির্যাতিতার পরিবারের কেউ।

শরীয়তপুরের জাজিরা উপজেলার পূর্ব নাওডোবা ইউনিয়নের মাঝিরঘাট সংলগ্ন পাইনপাড়ার চরে অবস্থিত বায়তুল জান্নাত মহিলা মাদ্রাসায় এক শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে ওই মাদ্রাসার অধ্যক্ষ আজিজ শেখের ছেলে মুফতি আমির হামজার বিরুদ্ধে। মাত্র ৭ দিন আগে পার্শ্ববর্তী পালেরচর ইউনিয়নের দড়িকান্দি মহিলা কওমী মাদ্রাসার ৮ বছর বয়সের এক শিশু ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা করে ওই মাদ্রাসার হেড ক্লার্ক আব্দুল হান্নান। এ ঘটনায় ৪ জনকে আসামী করে জাজিরা থানায় মামলা হয়েছিল। ৭ দিন না পেরুতেই একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটলো মাত্র ২ কিলোমিটার দুরে পাইনপাড়া চরের আরেক মহিলা কওমী মাদ্রাসায়।

ঘটনার তিনদিন পর সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, গত মঙ্গলবার (১৩ এপ্রিল) সকাল ৭টা থেকে ৭ টা ৩০ এর মধ্যে বায়তুল জান্নাত মহিলা মাদ্রাসার অধ্যক্ষ আমির হামজা মাদ্রাসারই ৯ বছর বয়সী নাজেরানা বিভাগের এক শিশু ছাত্রীকে ধর্ষণ করে। ভূক্তভোগীর পরিবার আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে চাইলে স্থানীয় মাতুব্বররা সেটা করতে দেননি। পরে বিষয়টি জানাজানি হলে সমাজপতি মাতুব্বররা এলাকায় ১৫ এপ্রিল বিকেলে সালিশ দরবার করে অধ্যক্ষ আমির হামজাকে ৩ লক্ষ টাকা জরিমানা ও দশ ঘা জুতাপেটা করেন।

এ বিষয়ে বিস্তারিত জানতে কিশোরীর বাড়ি গিয়ে তাকে পাওয়া যায় নি। তার মা জানান, মেয়ে বাড়ি নাই। আমাদের তো এলাকায় থাকতে হবে। বিষয়টি এলাকার পাঁচজন মিটমাট করে দিয়েছে। আমি ওর বাবার সাথে কথা না বলে আপনাদের কিছু জানাতে পারব না। যে মিটমাট হয়েছে তাতে আপনারা কী ধরনের বিচার পেয়েছেন, এমন প্রশ্নের জবাবে নির্বাক ছিলেন যৌন নির্যাতনের শিকার কিশোরীর মা। তবে মেয়েটির দুলাভাই পরিচয়ে একজন জানান, ঘটনা সত্য। আপনাদেরও মা বোন আছে, বিষয়টি নিয়ে আপনারাও চুপ থাকেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ভূক্তভোগীর এক প্রতিবেশী বলেন, আপনারা এখন আসছেন? মাতুব্বররা গতকাল বৃহস্পতিবার এলাকায় দরবার সালিশ করে বিষয়টি মিটমাট করে দিয়েছেন। তারা নদীর ওপাড়ে মঙ্গল মাঝির ঘাটে আছেন, সেখানে গিয়ে তাদের সাথে কথা বলুন।

বায়তুল জান্নাত মহিলা মাদ্রাসায় গিয়ে দেখা যায় মাদ্রসাটির প্রধান ফটকে তালা ঝুলছে, জানা যায় এলাকার মাতুব্বররা ছয় মাসের জন্য মাদ্রাসাটি বন্ধ করে দিয়েছেন।

অধ্যক্ষ আমির হামজার বাড়ি গেলে তাকে পাওয়া যায়নি। তবে তার বড় ভাই মনির হোসেন জানান, শয়তানের ধোকায় পড়ে আমার ভাই একটি ভুল কাজ করে ফেলছে, এলাকার মাতুব্বররা দরবার সালিশ করে বিষয়টি মিমাংসা করে দিয়েছেন। লজ্জায় আমরা চোখ তুলে তাকাতে পারিনা। আমির হামজা কোথায় আছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ভাই এলাকায় নাই, তিনি ভালো হলে আবার ফিরে আসবেন।

পাইনপাড়া চর থেকে পদ্মানদী পাড়ি দিয়ে মাঝিরঘাট এসে পাওয়া যায় ঐ সালিশ বোর্ডের এক সদস্যকে। তিনি জানান, একটি ধর্ষণ চেষ্টার ঘটনা ঘটছে। আমরা এলাকার প্রায় চার পাঁচশত মানুষের সামনে গ্রামের মাতুব্বর কালু মাঝি, রাজ্জাক মাঝি, বাচ্চু মাদবর, মোকলেছ মাদবর, লতিফ বেপারী, প্যানেল চেয়ারম্যান আজহার মুন্সীসহ স্থানীয়রা মিলে একটি সিদ্ধান্ত দিয়েছি। তাতে সাড়ে তিন লক্ষ টাকা ধার্য করে পঞ্চাশ হাজার টাকা মাফ করে তিন লক্ষ টাকা নির্যাতিতার ভবিষ্যতের জন্য অধ্যক্ষ আমির হামজাকে জরিমানা করেছি। এ সময় আমির হামজার ভাই দুলাল উত্তেজিত হয়ে সকলের সামনে আমির হামজাকে জুতাপেটা করেছেন।

এবিষয়ে পূর্ব নাওডোবা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান লালচাঁন মাদবর বলেন, ঘটনাটি আমি শুনেছি, আমারও সালিশীতে যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু অন্য একটি দরবার থাকায় আমি যেতে পারিনি, তবে আমি প্যানেল চেয়ারম্যান আজহার মুন্সীকে পাঠিয়েছি। কওমী মাদ্রাসার অধ্যক্ষ কর্তৃক শিশু ধর্ষণের মত একটি গুরুতর বিষয় আপনার প্রতিনিধিত্ব করে প্যানেল চেয়ারম্যানসহ স্থানীয় মুরুব্বীরা মীমাংসা করতে পারেন কি না, জানতে চাইলে তিনি বলেন, কেমনে কি করছে আমি জানি না।

জাজিরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) মিন্টু মন্ডল বলেন, আজকের দর্পণসহ অন্যান্য সংবাদ কর্মীদের কাছ থেকেই প্রথম জেনেছি। জানার পর আমি রাতে প্রায় ১টার দিকে অভিযান পরিচালনা করে অভিযুক্ত আমির হামজাকে গ্রেফতার করেছি। আসামি ধর্ষণের ঘটনা স্বীকার করেছেন। নির্যাতিতাকে মেডিকল পরীক্ষার জন্য শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে পাঠিয়ে দেওয়া হবে।

এঘটনায় নির্যাতিত শিশুটির জবানবন্দির ভিত্তিতে জাজিরা থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ৯/১/৩০ ধারায় মামালা দায়ের করেন ধর্ষিতার পিতা। ধর্ষণের শিকার মেয়েটির স্বাস্থ পরীক্ষার জন্য শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

নিউজ ট্যাগ: শিশু ধর্ষণ

আরও খবর



গত ২৪ ঘণ্টায় বরিশাল বিভাগে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত দেড় হাজার

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২০ এপ্রিল ২০21 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২০ এপ্রিল ২০21 | ৯৬জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

গত ২৪ ঘণ্টায় বরিশাল বিভাগে ১ হাজার ৫১২ জন ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়েছেন। এছাড়া বিভাগের মধ্যে পটুয়াখালী জেলায় ডায়রিয়ায় আক্রান্ত দুইজনের মৃত্যু হয়েছে।

মঙ্গলবার (২০ এপ্রিল) দুপুরে বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক কার্যালয় সূত্রে এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক কার্যালয়ের দৈনিক ডায়রিয়া রোগীর প্রতিবেদন অনুযায়ী, বিভাগের মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ভোলা জেলায় ৩২৫ জন, পটুয়াখালীতে ৩২১ জন, বরগুনায় ২৫৬ জন, বরিশালে ২৪৭ জন, ঝালকাঠিতে ২৩৯ জন ও পিরোজপুরে ১২৪ জন ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়েছেন।

এ নিয়ে বরিশাল বিভাগে চলতি বছরের শুরু থেকে এ পর্যন্ত সাড়ে ৩ মাসে ৩২ হাজার ১৮৩ জন ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়েছেন। যারমধ্যে সর্বোচ্চ ভোলায় আট হাজার ৯০ জন, পটুয়াখালীতে ৭ হাজার ৩৪১ জন, বরগুনায় ৪ হাজার ৮৪৯ জন, বরিশালে ৪ হাজার ৩৬৯ জন, পিরোজপুরে ৪ হাজার দুইজন এবং ঝালকাঠিতে ৩ হাজার ৫৩২ জন আক্রান্ত হয়েছেন।

পরিসংখ্যান অনুযায়ী, চলতি বছরের শুরু থেকে এ পর্যন্ত সাড়ে ৩ মাসের বেশি সময় ধরে বরিশাল বিভাগে যে পরিমাণ মানুষ ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়েছেন তারমধ্যে অর্ধেকের বেশি আক্রান্ত হয়েছে গেলো এক মাসে। গেলো মাসে বরিশাল বিভাগে মোট ১৭ হাজার ৬৭২ জন ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়েছেন। আর মাসিক হিসেবে গত একমাসের মধ্যে সব থেকে বেশি আক্রান্ত হয়েছেন গত সাতদিনে। গত ৭ দিনে বরিশাল বিভাগে আক্রান্ত হয়েছেন ৮ হাজার ২০ জন।

আর গত সাড়ে ৩ মাসের বেশি সময়ে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে আটজনের মৃত্যু হয়েছে। যার মধ্যে গত ৭ দিনেই ৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। আর গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ২ জনের।

মারা যাওয়া আটজনের মধ্যে বরিশাল জেলায় চারজন এবং পটুয়াখালী ও বরগুনায় দুইজন করে চারজন রয়েছেন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের বরিশাল বিভাগীয় কার্যালয়ের উপ-পরিচালক ডা. বাসুদেব কুমার দাস জানান, অতিরিক্ত গরমে অনিরাপদ পানি ও খাবার খাওয়ার ফলেই ডায়রিয়ার সংক্রমণ বাড়ছে। তবে এ বছর হঠাৎ করে ডায়রিয়ায় আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ায় প্রতিটি কারণ খতিয়ে দেখা হচ্ছে। সেইসঙ্গে হাসপাতালে ভর্তি হওয়া রোগীদের চিকিৎসাসেবা নিশ্চিত করা হচ্ছে।

এদিকে, গত দুইদিন বরিশালের বিভিন্ন উপজেলার হাসপাতালগুলোতে আইভি স্যালাইন সঙ্কট দেখা দিলে, স্থানীয় জনপ্রতিনিধিসহ সুশীল সমাজের নেতারা ব্যক্তি উদ্যোগে তা সংগ্রহ করে রোগীর চিকিৎসাসেবা নিশ্চিত করা হয়।

এদিকে সঙ্কট চলাকালীন সময়ে বিভিন্ন হাসপাতালের সামনে ৯২ টাকা মূল্যের খাবার স্যালাইন ১২০ থেকে ২০০ বা তার অধিক মূল্যে বিক্রির খবর পাওয়া গেছে। যদিও চাহিদা অনুযায়ী সরকারিভাবে বাড়তি স্যালাইন সরবরাহ করায় এখন এ সঙ্কট নেই বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তারা।


আরও খবর



পশ্চিমবঙ্গে শেষ দফার ভোট চলছে

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৯ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৯ এপ্রিল ২০২১ | ১০৭জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
ভোটের নিরাপত্তায় মোতায়েন করা হয়েছে মোট ৭৫৩ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী। স্বাস্থ্যবিধি মেনেই ভোট দিচ্ছেন ভোটাররা। প্রতিটি বুথে স্যানিটাইজার ব্যবহার থেকে সবার জন্য মাস্ক ও গ্লাভস বাধ্যতামূলক থেকেছে

ভারতের পশ্চিমবঙ্গে আজ (২৯ এপ্রিল) অষ্টম ও শেষ দফার ভোট। উত্তর কলকাতাসহ সেখানকার মোট ৪ জেলার ৩৫টি কেন্দ্রে চলছে ভোটগ্রহণ। দেশটির বিধানসভা নির্বাচনে মালদহ, মুর্শিদাবাদ, বীরভূমের বেশ কয়েকজন হেভিওয়েট প্রার্থীর ভাগ্য পরীক্ষা আজ।

ভারতের গণমাধ্যমগুলো বলছে, ভোটের নিরাপত্তায় মোতায়েন করা হয়েছে মোট ৭৫৩ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী। স্বাস্থ্যবিধি মেনেই ভোট দিচ্ছেন ভোটাররা। প্রতিটি বুথে স্যানিটাইজার ব্যবহার থেকে সবার জন্য মাস্ক ও গ্লাভস বাধ্যতামূলক থেকেছে আগের দফাগুলোতেও। কিন্তু এ দফায় বাড়তি গুরুত্ব দেয়া হয়েছে ভোটের লাইনে শারীরিক দূরত্ব বজায়ের ক্ষেত্রে।

২০১৬ সালের বিধানসভা নির্বাচনে এই আসনগুলোর মধ্যে তৃণমূল এবং বাম-কংগ্রেস জোট ১৭টি করে আসনে জিতেছিল। এর মধ্যে বামেরা ৩, কংগ্রেস ১৩ এবং জোট সমর্থিত নির্দলীয় প্রার্থী ১টি আসনে জেতে। সেই বিধানসভা ভোটে মালদহের ১টি কেন্দ্রে জিতেছিলেন বিজেপি প্রার্থী।

কিন্তু ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে চিত্র অনেকটাই বদলে গেছে। ৪ জেলার এই ৩৫টি আসনের মধ্যে ১৯টিতে এগিয়ে ছিল তৃণমূল। আর ১১টি আসনে এগিয়ে থেকে তাদের প্রধান প্রতিপক্ষ হিসেবে উঠে আসে বিজেপি। কংগ্রেস এগিয়ে ৫টি বিধানসভা এলাকায়।


আরও খবর



ঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু মহাসড়কে যানবাহনের বাড়তি চাপ

প্রকাশিত:শনিবার ০৮ মে ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ০৮ মে ২০২১ | ৭৭জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ঈদুল ফিতর সামনে রেখে গত দুদিন ধরেই ঢাকা ছাড়ছে মানুষ। এ জন্য শনিবার (৮ মে) সকালে উত্তরবঙ্গের প্রবেশদ্বার ঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু মহাসড়কে যানবাহনের চাপ বেড়েছে।

ফলে ধীর গতিতে চলাচল করছে যানবাহন। এছাড়াও নির্দেশ অমান্য করে চলছে দূরপাল্লার বাস ও অটোরিকশা।

মহাসড়কের ঘারিন্দা, কান্দিলা, রাবনা, বিক্রমহাটি, রসুলপুর ও এলেঙ্গা এলাকায় এ দৃশ্য দেখা যায়। এছাড়া ট্রাক ও মাছের গাড়িতে করোনার ঝুঁকি নিয়ে গন্তব্যে পৌঁছাতে দেখা গেছে অনেককে।

অপরদিকে বাস, প্রাইভেটকারসহ ব্যক্তিগত গাড়িতে গাদাগাদি করে চলাচল করছে সাধারণ মানুষ।

জানা যায়, ঈদ কেন্দ্র করে ঘরমুখো মানুষের চাপ বেড়েছে। যে কারণে সাধারণ মানুষ অতিরিক্ত ভাড়া দিয়ে যার যার মতো গন্তব্যে ছুটছে। বগুড়াগামী ট্রাকচালক হানিফ মিয়া বলেন, সকাল থেকে মহাসড়কে যানবাহনের চাপ বাড়ছে। ফলে ধীর গতিতে চলতে হচ্ছে। ঘারিন্দা থেকে এলেঙ্গা পর্যন্ত ৯ কিলোমিটার আসতে ১০ থেকে ১২ মিনিট লাগলেও এখন সময় একটু বেশি লেগেছে।

এ বিষয়ে এলেঙ্গা হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ইয়াসির আরাফাত বলেন, পাটুরিয়া দৌলদিয়া নৌরুটে ফেরি চলাচল বন্ধ থাকায় ঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কে চাপ বৃদ্ধি পেয়েছে। এছাড়া নির্দেশ অমান্য করায় দূরপাল্লার বাসকে মামলা দেওয়া হচ্ছে। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক হবে বলে তিনি জানান।


আরও খবর



দেশে ছয়জনের দেহে করোনাভাইরাসের ভারতীয় ধরন শনাক্ত

প্রকাশিত:শনিবার ০৮ মে ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ০৮ মে ২০২১ | ৮৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দেশে ছয়জনের দেহে করোনাভাইরাসের ভারতীয় ধরন শনাক্ত হয়েছে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। এর মধ্যে দুইজনের দেহে ডাবল মিউটেশন পাওয়া গেছে। আজ শনিবার দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা বিষয়টি নিশ্চিত করেন।  

জার্মানির গ্লোবাল ইনিশিয়েটিভ অন শেয়ারিং অল ইনফ্লুয়েঞ্জার (জিসএইড) তথ্য বলছে, ভারতীয় ধরন বি-১৬১৭ যাদের শরীরে পাওয়া গেছে সেই দুইজনের বয়স ৪১ ও ২৩ বছর। তারা ভারতে ভ্রমণে গিয়ে আক্রান্ত হয়েছেন। তাদের একজন খুলনার ও একজন ঢাকার। দুইজনই পুরুষ। তাদের নমুনা সংগ্রহ করা হয় গত ২৮ ও ২৯ এপ্রিল। তথ্যগুলো সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের (আইইডিসিআর) পক্ষ থেকে ডাটাবেজে আপলোড করা হয়েছে।

করোনায় প্রতিবেশী ভারতের অবস্থা ভয়াবহ। মৃত্যু ও শনাক্তে নতুন নতুন রেকর্ড হচ্ছে প্রতিদিন। দেশটিতে এবারের পরিস্থিতির জন্য বিশেষভাবে দায়ী করা হচ্ছে কোভিডের ডাবলবা ট্রিপল মিউটেশনভেরিয়েন্টকে। অত্যন্ত বিপজ্জনক এই ধরন বাংলাদেশে যাতে আসতে না পারে, সে জন্য ভারতের সঙ্গে সীমান্ত দুই সপ্তাহের জন্য বন্ধ করে দিয়েছে সরকার। তবে আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্যের স্বার্থে পণ্যবাহী যানবাহন চলাচল অব্যাহত রয়েছে। আর আকাশপথে গত ১৪ এপ্রিল থেকে ভারতের সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে।


আরও খবর



হেফাজতের তিন সদস্যের আহ্বায়ক কমিটি

প্রকাশিত:সোমবার ২৬ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ এপ্রিল ২০২১ | ৯১জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণার পর তিন সদস্যের আহ্বায়ক কমিটি গঠন করেছে সংগঠনটি।

চলমান অস্থির ও নাজুক পরিস্থিতি বিবেচনায় কেন্দ্রীয় কমিটি বিলুপ্তির পর উপদেষ্টা কমিটির পরামর্শক্রমে ৩ সদষ্যের আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন জুনায়েদ বাবুনগরীর ব্যক্তিগত সহকারী ইনআমুল হাসান ফারুকী।

আহ্বায়ক কমিটিতে রয়েছেনপ্রধান উপদেষ্টা আল্লামা মুহিব্বুল্লাহ বাবুনগরী, আমির আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী ও মহাসচিব আল্লামা নুরুল ইসলাম।

৩ সদস্যের এই আহ্বায়ক কমিটি শিগগিরই হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের পূর্ণাঙ্গ আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করবে বলে জানান ইনআমুল হাসান ফারুকী।

এর আগে রবিবার (২৬ এপিল) রাত ১১টায় এক ভিডিও বার্তায় হেফাজতের কেন্দ্রেীয় কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করেন সংগঠনের আমির জুনায়েদ বাবুনগরী।

তিনি বলেন, দেশের সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার অরাজনৈতিক সংগঠন হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় কমিটির গুরুত্বপূর্ণ কিছু নেতার পরামর্শে হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করা হলো। ইনশাআল্লাহ আগামী দিনে আহ্বায়ক কমিটির মাধ্যমে হেফাজতের কার্যক্রম শুরু হবে।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বাংলাদেশ সফরের বিরোধিতা করে তাণ্ডব ও সহিংসতার পর হেফাজতের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে গ্রেফতার অভিযান চলছে। সহিংসতার ঘটনায় দেশের বিভিন্ন জেলায় হেফাজতের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে অন্তত ৭৯টি মামলা হয়েছে। এসব মামলায় ৬৯ হাজারের বেশি জনকে আসামি করা হয়েছে।

এসব মামলায় প্রতিদিনই ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে হেফাজতের নেতাকর্মী ও সমর্থকেরা গ্রেফতার হচ্ছেন।  রবিবার পর্যন্ত সংগঠনটির কেন্দ্রীয় ও গুরুত্বপূর্ণ ১৯ জন নেতাকে গ্রেফতার করা হয়েছেন।

গত রবিবার (১৮ এপ্রিল) রাজধানীর মোহাম্মদপুরের জামিয়া রাহমানিয়া মাদ্রাসা থেকে গ্রেফতার হন হেফাজতের যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হক।


আরও খবর