আজঃ মঙ্গলবার ২০ এপ্রিল ২০21
শিরোনাম

সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ গেল বাবা-ছেলের

প্রকাশিত:রবিবার ২৮ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ মার্চ ২০২১ | ১১৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদায় ট্রাক ও করিমন (শ্যালোইঞ্জিন চালিত যান) মুখোমুখি সংঘর্ষে বাবা-ছেলে নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও ৩ জন।

আজ রবিবার সকাল ৯টার দিকে চুয়াডাঙ্গা-দর্শনা আঞ্চলিক মহাসড়কের লোকনাথপুর তালবাগান এলাকায় ওই দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- করিমন চালক আশানুর রহমান (৩৮) ও তার ছেলে আজম আলী (১১)। তাদের বাড়ি দামুড়হুদা উপজেলার ডুগডুগি গ্রামে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, সকালে করিমনে সিমেন্ট বোঝাই করে দর্শনার দিকে যাচ্ছিলেন চালক আশানুর রহমান। এসময় দর্শনা দিক থেকে আসা একটি ট্রাকের সাথে তার করিমনের সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। পরে ট্রাকটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পুলিশ বক্সে গিয়ে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই মারা যান করিমনে থাকা চালক আশানুরের ছেলে আজম আলী। আহত হন করিমন যাত্রী ডুগডুগি গ্রামের জামাত আলীর ছেলে জীবন আলী (১০), ট্রাক চালক ঝিনাইদহ জেলার মহেশপুর উপজেলার মাইলবাড়ি গ্রামের ইয়াসিন আলী (২৫) ও ট্রাক শ্রমিক একই উপজেলার ঝিষ্টিপোতা গ্রামের নওশের আলম ছেলে মনিরুল ইসলাম (৩০)।

খবর পেয়ে দর্শনা ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের সদস্যরা তাদের উদ্ধার করে দামুড়হুদা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে করিমন চালক আশানুর রহমানকে মৃত ঘোষণা করেন কর্তব্যরত চিকিৎসক।

দামুড়হুদা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. ফারহানা ওয়াহিদ জানান, অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হওয়ায় হাসপাতালে নেয়ার আগেই মারা যান করিমন চালক আশানুর। দুর্ঘটনায় আহত বাকিদের হাসপাতালে ভর্তি রেখে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

দামুড়হুদা মডেল থানার ওসি আব্দুল খালেক জানান, দুর্ঘটনার পর সহকারী পালিয়ে গেলেও ট্রাকটি জব্দ করা হয়েছে। নিহতের মরদেহের সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করে ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

তিনি আরও জানান, ট্রাকটি ইট নিতে কুষ্টিয়ার দিকে যাচ্ছিল। ওই ঘটনায় আইনগত বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে দুর্ঘটনায় নিহতদের পরিবারকে আর্থিক সহায়তা দেয়া হয়েছে বলে জানান দামুড়হুদা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দিলারা রহমান।


আরও খবর



কোভিড-১৯ বিদায় নিতে অনেক দেরি: ডব্লিউএইচও

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৩ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৩ এপ্রিল ২০২১ | ৭১জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
আমরাও চাই সামাজিক এবং অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড পুনরায় খুলে দেয়া হোক। যোগাযোগ এবং ব্যবসা-বাণিজ্য শুরু হোক। কোভিড-১৯ মহামারি বিদায় এখনো অনেক দেরি

কোভিড-১৯ ভাইরাসের দ্বিতীয় ও তৃতীয় ঢেউয়ে বিশ্বব্যাপী মৃত্যু বাড়ছেই। এমন একটি সময়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) জানায়, সহসাই প্রাণঘাতী এই ভাইরাস থেকে মুক্তি মিলছে না।

মঙ্গলবার (১৩ এপ্রিল) এক ব্রিফিংয়ে ডব্লিউএইচও মহাসচিব তেদ্রোস আধানম গেব্রেয়েসুস বলেন, আমরাও চাই সামাজিক এবং অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড পুনরায় খুলে দেয়া হোক। যোগাযোগ এবং ব্যবসা-বাণিজ্য শুরু হোক। কোভিড-১৯ মহামারি বিদায় এখনো অনেক দেরি। কিন্তু আমাদের আশাবাদী হওয়ার অনেক কারণ আছে। গেলো দুই মাসে সংক্রমণ ও মৃত্যু হ্রাস পাওয়ায় দেখা যায় এই ভাইরাস এবং ভাইরাসের ভ্যারিয়েন্টগুলো প্রতিরোধ সম্ভব। দ্বিধা, আত্মতুষ্টি এবং গণস্বাস্থ্যে নেয়া পদক্ষেপে অসামঞ্জস্যতার কারণে সংক্রমণ ছড়াচ্ছে।

কোভিডে বৈশ্বিক সংক্রমণ ১৩ কোটি ৭২ লাখ সাড়ে ৫৩ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। এখন পর্যন্ত মারা গেছেন ২৯ লাখ ৫৮ হাজার ৬৩১ জন। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১১ কোটি ৪ লাখ সাড়ে ৩৩ হাজারের বেশি।


আরও খবর



লকডাউন : জরুরি পরিষেবার আওতায় যা যা রয়েছে

প্রকাশিত:সোমবার ১২ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১২ এপ্রিল ২০২১ | ১০৮জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

কঠোর বিধিনিষেধসহ জারি করে সোমবার (১২ এপ্রিল) নতুন প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। এ অনুযায়ী আগামী ১৪ এপ্রিল থেকে সাত দিনের লকডাউন দেওয়া হয়েছে। এসময় জরুরি পরিষেবা চালু থাকবে।

প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী জরুরি পরিষেবার আওতায় রয়েছে, আইনশৃঙ্খলা এবং জরুরি পরিষেবা, যেমন-কৃষি উপকরণ (সার, বীজ, কীটনাশক, কৃষি যন্ত্রপাতি ইত্যাদি), খাদ্যশস্য ও খাদ্যদ্রব্য পরিবহন, ত্রাণ বিতরণ, স্বাস্থ্যসেবা, কোভিড-১৯ টিকা প্রদান, বিদ্যুৎ, পানি, গ্যাস্য জ্বালানি, ফায়ার সার্ভিস, বন্দরসমূহের (স্থলবন্দর, নদীবন্দর ও সমুদ্রবন্দর) কার্যক্রম, টেলিফোন ও ইন্টারনেট (সরকারি-বেসরকারি), গণমাধ্যম (প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া), বেসরকারি নিরাপত্তা ব্যবস্থা, ডাক সেবাসহ অন্যান্য জরুরি ও অত্যাবশ্যকীয় পণ্য ও সেবার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট অফিসসমূহ, তাদের কর্মচারী ও যানবাহন এ নিষেধাজ্ঞার আওতা বহির্ভূত থাকবে।

অতি জরুরি প্রয়োহন ছাড়া (ওষুধ ও নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি ক্রয়, চিকিৎসা সেবা, মৃতদেহ দাফন/সৎকার ইত্যাদি) কোনোভাবেই বাড়ির বাইরে বের হওয়া যাবে না। তবে টিকা কার্ড প্রদর্শন সাপেক্ষে টিকা গ্রহণের জন্য যাতায়াত করা যাবে।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, করোনাভাইরাস পরিস্থিতি অবনতির কারণে ১৪ এপ্রিল ভোর ৬টা থেকে ২১ এপ্রিল মধ্যরাত পর্যন্ত কঠোর বিধি-নিষেধ আরোপ করা হয়েছে।

নিউজ ট্যাগ: লকডাউন

আরও খবর



দাম কমেছে মুরগির মাংসের, স্থিতিশীল রয়েছে সবজি-পেঁয়াজ

প্রকাশিত:বুধবার ০৭ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ০৭ এপ্রিল ২০২১ | ৮৮জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দ্বিতীয় দফায় করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বাড়ায় লকডাউনে গিয়েছে সরকার। এর মধ্যে বেশিরভাগ পণ্যের মূল্য যেমন- পেঁয়াজ, আলু, গরুর মাংসসহ বেশিরভাগ পণ্যের দাম স্থিতিশীল রয়েছে। মুরগির মাংসের দাম কেজিতে কমেছে ২০ টাকা। বুধবার (৭ এপ্রিল) সকালে রাজধানীর বিভিন্ন বাজার ঘুরে এমন চিত্র দেখা গেছে।

রাজধানীর কারওয়ান বাজারে গিয়ে দেখা যায়, আলু ২০ টাকা, পেঁয়াজ ৪০ টাকা, গরুর মাংস ৬০০ টাকা, কাঁচামরিচ ১০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। লকডাউনের আগে ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হতো ১৮০ টাকা, এখন তা বেড়ে ১৫০-১৬০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

কারওয়ান বাজারে বাজার করতে আসা ফার্মগেটের ব্যবসায়ী নিজামুল কবির বলেন, সকল পণ্যের দাম একই আছে। কোনও মালের দাম বাড়েনি। তবে লকডাউনের ঘোষণা দেওয়ার আগের দিন ক্রেতারা বেশি বাজার করায় দাম একটু বেড়েছিল।

নিউজ ট্যাগ: বাজার দর

আরও খবর
সব সবজির দাম ঊর্ধ্বমুখী

শুক্রবার ১৬ এপ্রিল ২০২১




যেকোনো সময় মৃত্যু হবে নাভালনির!

প্রকাশিত:রবিবার ১৮ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১৮ এপ্রিল ২০২১ | ৫১জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
কারাগারে পর্যাপ্ত সুচিকিৎসা পাচ্ছেন না বলে অভিযোগ জানিয়ে গত ৩১ মার্চ থেকে কোনো ধরনের খাবার গ্রহণ করছেন না ৪৪ বছর বয়সী অ্যালেক্সাই নাভালনি। রাজধানী মস্কো থেকে ১০০ কিলোমিটার

রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের কট্টর সমালোচক ও দেশটির বিরোধী দলীয় নেতা অ্যালেক্সি নাভালনি যেকোনো সময় মারা যেতে পারেন বলে জানিয়েছে তার চিকিৎসকরা। যথাযথ চিকিৎসা না দেওয়া হলে আগামী কয়েকদিনের মধ্যে তার মৃত্যু হতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন তারা। আজ রবিবার এ খবর জানায় ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসি।

খবরে বলা হয়, নাভালনি বর্তমানে রাশিয়ায় কারাগারে আছেন। তিনি কারাগারে গত ৩১ মার্চ থেকে অনশন করছেন। পিঠে তীব্র ব্যথা ও পায়ের অসাড়তার জন্য সঠিক চিকিৎসার দাবিতে তিনি এ অনশন করছেন। চিকিৎসকরা বলছেন, যেকোনো মুহূর্তে তার কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট বা কিডনি বিকল হওয়ার শঙ্কা রয়েছে। নাভালনির সাম্প্রতিক রক্ত পরীক্ষার ফলাফল যাচাইয়ের পর এ তথ্য জানান তারা।

অর্থ আত্মসাতের পুরোনো মামলায় গত ফেব্রুয়ারি মাসে নাভালনিকে কারাদণ্ড দেওয়া হয়। ক্রেমলিন সমালোচকের ব্যক্তিগত চিকিত্সক আনাস্তাসিয়া ভাসিলিভাসহ চারজন চিকিৎসক কারাগারের কর্মকর্তাদের কাছে তাকে জরুরিভাবে দেখার অনুমতি চেয়ে চিঠি দিয়েছেন। সেখানে বলা হয়েছে, নাভালনির শরীরে পটাশিয়ামের লেভেল সংকটময় অবস্থায় পৌঁছে গেছে। এক টুইট বার্তায় চিঠিটি শেয়ার করা হয়েছে।

চিঠিটি নাভালনির ব্যক্তিগত চিকিৎসক আনাস্তাসিয়া ভ্যাসিলেভা টুইটারে পোস্ট করেছেন। চিঠিতে চিকিৎসকেরা বলেছেন, নাভালনির পটাশিয়ামের মাত্রা গুরুতর পর্যায়ে পৌঁছে গেছে। যার অর্থ হলো তার মূত্রাশয়সংশ্লিষ্ট কার্যক্রম বিকল হয়ে যেতে পারে। যেকোনো সময় তার হৃদযন্ত্রে গুরুতর সমস্যা দেখা দিতে পারে।

চিঠিতে আরও বলা হয়েছে, রেনাল ফাংশন এবং হার্টের ছন্দপতন যেকোনো সময় ঘটতে পারে। সাধারণত রক্তের পটাশিয়াম লেভেল ৬.০ মিলিমোল হলেই জরুরি ভিত্তিতে চিকিৎসার প্রয়োজন। কিন্তু নাভালনির রক্ত পরীক্ষার রিপোর্টে দেখা গেছে, তার পটাশিয়াম লেভেল বর্তমানে ৭.১।

কারাগারে পর্যাপ্ত সুচিকিৎসা পাচ্ছেন না বলে অভিযোগ জানিয়ে গত ৩১ মার্চ থেকে কোনো ধরনের খাবার গ্রহণ করছেন না ৪৪ বছর বয়সী অ্যালেক্সাই নাভালনি। রাজধানী মস্কো থেকে ১০০ কিলোমিটার (৬০ মাইল) পূর্বদিকে অবস্থিত আই কে-২ সংশোধনমূলক পেনেল কলোনিতে কারাভোগ করছেন এই নেতা।

এদিকে গত শুক্রবার প্রায় ৮০ জন বিখ্যাত লেখক, অভিনেতা, ইতিহাসবীদ, সাংবাদিক ও পরিচালক তার মুক্তির দাবি জানিয়ে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বরাবর একটি খোলা চিঠি লিখেছেন। এর মধ্যে আছেন জে কে রাওলিং ও সালমান রুশদির মতো বিখ্যাত লেখকরাও।

গত বছর আগস্টে বিমানযাত্রা করার সময় মৃত্যুর মুখোমুখি হন নাভলানি। সাইবেরিয়ার টমসক শহর থেকে উড়োজাহাজে করে মস্কো ফেরার সময় অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। বিমানের জরুরি অবতরণ করিয়ে তাকে হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে তিনি কোমায় চলে যান। চিকিৎসার জন্য তার বার্লিনে নিয়ে যাওয়া হয়। বিশেষজ্ঞদের পরীক্ষা-নিরীক্ষার ভিত্তিতে গত সেপ্টেম্বরে জার্মানি জানায়, নাভালনিকে রাশিয়ান নার্ভ এজেন্ট নোভিচক’ প্রয়োগ করা হয়েছিল। পরে অন্য দেশের বিশেষজ্ঞরাও একই কথা বলেন। বিষ প্রয়োগের জন্য সরাসরি পুতিনকে দায়ী করেন নাভালনি। তবে পুতিন এ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।


আরও খবর



‘করোনা মোকাবিলায় ফের আগের মতো পদক্ষেপ নিতে হবে’

প্রকাশিত:রবিবার ২৮ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ মার্চ ২০২১ | ১০০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

করোনা মোকাবিলায় ফের আগের মতো পদক্ষেপ নিতে হবে বলে জানিয়েছে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

রবিবার (২৮ মার্চ) সকালে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হয়ে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে আওয়ামী লীগের আলোচনা সভায় এ মন্তব্য করেন তিনি।

হঠাৎ করোনার সংক্রমণ ও মৃত্যু বেড়ে যাওয়ায় আবারও সকলকে বাধ্যতামুলকভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার তাগিদ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, কেউ যেন মাস্ক না পরে বাহিরে যায়। সকলকে অবশ্যই নিরাপদ দূরত্ব মানতে হবে।' অনুষ্ঠান আয়োজনের ক্ষেত্রে অবশ্যই স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে। এটা সবার জন্য প্রযোজ্য।'

করোনা সংক্রমণের বিরুদ্ধে মাঠে সক্রিয় হতে দলীয় নেতাকর্মীদের প্রস্তুতির নির্দেশ দেন প্রাচীন রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগের সভাপতি।

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী নিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, 'বাংলাদেশে পাঁচ দেশের প্রধান এসেছেন, বিশ্বের বিভিন্ন দেশ ও ২৭টি প্রতিষ্ঠান থেকে শুভেচ্ছাবার্তা আমরা পেয়েছি। এটা জনগণের জন্য অত্যন্ত সম্মানের। এটাই আমাদের সার্থকতা।'

তিনি আরও বলেন, সবুজ বাংলা আরও সবুজ করতে বৃক্ষরোপণ করতে হবে। এক ইঞ্চি জমিও যেন অনাবাদি না থাকে।

স্কুল-কলেজ খোলার প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা স্কুল-কলেজ খুলতে চেয়েছিলাম। কিন্তু হঠাৎ করে সংক্রমণ বেড়েছে। তাই এখন না খুলে সিদ্ধান্ত নিয়েছি যে ঈদের পরে খুলব।

তবে করোনার টিকা কার্যক্রম চলমান থাকবে বলে জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।


আরও খবর