আজঃ বৃহস্পতিবার ০৯ ডিসেম্বর ২০২১
শিরোনাম

সড়কে ব্যর্থ হলে উন্নয়ন ম্লান হয়ে যাবে : কাদের

প্রকাশিত:শুক্রবার ২২ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২২ অক্টোবর ২০২১ | ৭৭০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সড়কে কাজের মান ও গতি দুটোই ঠিক রাখতে হবে। এখানে শৃঙ্খলা আনা আমাদের বড় চ্যালেঞ্জ। এখন সংকট শৃঙ্খলা, পরিবহন ও সড়কের। এখানে ব্যর্থ হলে আমাদের উন্নয়ন ম্লান হয়ে যাবে।

শুক্রবার (২২ অক্টোবর) তেজগাঁওয়ে সড়ক ভবনে জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবসের আলোচনায় মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্টদের উদ্দেশ্যে তিনি একথা বলেন।

জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবসে ‌এবারের প্রতিপাদ্য গতিসীমা মেনে চলি, সড়ক দুর্ঘটনা রোধ করি। সেতুমন্ত্রীর বক্তব্যের আগে হাইওয়ে পুলিশের আইজিপি মল্লিক ফখরুল ইসলাম গত ৯ মাসের জরিমানার পরিসংখ্যান তুলে ধরেন।

এ প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, কতটাকা জরিমানা তুলেছেন, এটার হিসাব দিয়ে কোনো লাভ নেই। এটা কোনো বিষয় নয়। আমার কাছে বিষয় সড়ক নিরাপদ আছে-কী না। গাড়িগুলো নিয়ম অনুযায়ী চলছে কী না, গাড়ির ফিটনেস আছে কী না, চালকের গাড়ি চালানোর যোগ্যতা কী না, ড্রাইভিং লাইসেন্স আছে কী না এগুলো আমার কাছে বিবেচনার বিষয়। আমি এটাই দেখবো। আমার কাছে বিষয় দুর্ঘটনা কমেছে কী না।

দুর্ঘটনা দুর্ভাবনার কারণ হয়ে আছে উল্লেখ করে কাদের বলেন, প্রতিদিনই দুর্ঘটনা ঘটছে। পাখির মতো মানুষ মরে, মাছির মতো মানুষ মরে। এ মর্মান্তিক দৃশ্যপট মানুষ হিসেবে সইতে পারি না। অনেক কষ্ট হয়। সুন্দর সুন্দর ব্যানার পোস্টার করলেই আমাদের দায়িত্ব শেষ হয় না। নিরাপদ সড়ক দিবস করতে হবে প্রতিদিন।

সড়কে মৃত্যু কষ্ট দেয় উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, সবার দিন শুরু হয় একভাবে, আর আমার দিনটি শুরু হয় অন্যভাবে। কাগজের পাতায় অপ্রত্যাশিত মর্মান্তিক দুর্ঘটনা খবর পড়ে আমার দিন শুরু হয়। মন্ত্রী হলেও আমি তো মানুষ। আমারও কষ্ট হয়। আমিও দগ্ধ হই অদেখা দহনে। মনে হয় আমিও সেই অসহায় পরিবারের একজন। যে পরিবারের কয়েকজনও একসঙ্গে পথের বলি হয়। কখনও দুই পরিবহনের সংঘর্ষে। কখনও তিন চাকার গাড়ি ইজিবাইকে, নসিমন, করিমনে।

মন্ত্রী বলেন, অবকাঠামোগতভাবে পরিবর্তন দৃশ্যমান। আগামী বছর সড়কে বৈপ্লবিক পরিবর্তন পুরোপুরি দৃশ্যমান হবে। পদ্মা সেতু নির্মাণ কাজ শেষ পর্যায়ে, মেগা প্রকল্পগুলো আগামী বছর উদ্বোধন হবে। সেগুলো হলো- পদ্মা সেতু, এমআরটি লাইন ৬, মেট্রোরেল, বাস র‌্যাপিড ট্রানজিট ও চট্টগ্রামে বঙ্গবন্ধু কর্ণফুলী টানেল। আগামীতে চট্টগ্রামের মিরসরাই থেকে আরেকটি মেরিনড্রাইভ উদ্বোধন করা হবে বলেও জানান তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, আগামী ২৪ অক্টোবর পায়রা সেতুর উদ্বোধন হবে। আর দীর্ঘদিনের প্রত্যাশা ঢাকা-সিলেট ও সিলেট-তামাবিল মহাসড়কের ভিত্তিপ্রস্তর উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তার মন্ত্রণালয়ে রাজনৈতিক তদবির বন্ধ করেছেন উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, আমার মন্ত্রণালয়ে রাজনৈতিক তদবির বন্ধ করে দিয়েছি। ইঞ্জিনিয়ার ট্রান্সফার, বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথোরিটির (বিআরটিএ) অফিসার ট্রান্সফার এসব তদবির শুরুতে আমার জন্য ছিল চ্যালেঞ্জিং। কিন্তু আমি কঠোর হয়েছি, প্রধানমন্ত্রী আমাকে সাপোর্ট দিয়েছেন, সচিবরা আমার সঙ্গে ছিল, যে কারণে আমি এসব প্র্যাকটিস বন্ধ করতে পেরেছি। মন্ত্রীকে কিছু দিয়ে চিফ ইঞ্জিনিয়ার হওয়ার একটা প্র্যাকটিস মন্ত্রণালয়ে আগে ছিল, কিন্তু আমি আসার পর তা বন্ধ করেছি। সেই প্র্যাকটিস এখন আর নেই। আমাকে টাকা দিয়ে যদি চিফ ইঞ্জিনিয়ার হতে হয় ওই টাকা সে উঠাবে যখন দায়িত্ব পাবে। এটাই তো স্বাভাবিক।

এ সময় উপস্থিত ইঞ্জিনিয়ারদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, অনেক ইঞ্জিনিয়ার ভালো কাজ করেন। কিন্তু কেউ কেউ যে কাজ করেন, এক পশলা বৃষ্টি হলেই সেই রাস্তা ভেসে যায়। এরকম রাস্তা করার কোনো দরকার নেই। কাজের মান ঠিক রাখুন। যারা ভালো কাজ করেন আমি তাদের প্রশংসা করবো।

সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব নজরুল ইসলামের সভাপতিত্বে আলোচনায় অংশ নেন নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলনের ইলিয়াস কাঞ্চন, সড়ক ও জনপদ বিভাগের প্রধান প্রকৌশলী আব্দুস সবুর, হাইওয়ে পুলিশের আইজিপি মল্লিক ফখরুল ইসলাম।


আরও খবর



যৌন কেলেঙ্কারিতে অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেট দল, অধিনায়কের পদত্যাগ

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৯ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৯ নভেম্বর ২০২১ | ২৯০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটে নতুন বিতর্ক। যৌন কেলেঙ্কারিতে উত্তাল অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেট। এর জেরে পদত্যাগ করলেন টেস্ট দলের অধিনায়ক টিম পেন। তাঁর বিরুদ্ধেই যাবতীয় অভিযোগ করেছেন ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার এক মহিলা কর্মী। বিষয়টি অস্ট্রেলিয়ার মানবাধিকার কমিশনেও গিয়েছে।

শুক্রবার সাংবাদিক সম্মেলন করে নিজেই পদত্যাগের কথা জানান পেন। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়াকে তিনি পদত্যাগপত্র পাঠিয়ে দিয়েছেন। অস্ট্রেলিয়ার ত্রিকেট বোর্ড তা মেনে নিয়েছে।

ঘটনাটি ২০১৭ সালে ব্রিসবেনের গাব্বায় অ্যাশেজের প্রথম টেস্টের দিন এবং তার আগের দিনের। অস্ট্রেলিয়ার হেরাল্ড সান সংবাদপত্রের খবর অনুযায়ী, পেন এক মহিলা কর্মীকে নিজের কিছু অশ্লীল ছবি পাঠান। যৌন সম্পর্কে লিপ্ত হওয়ার জন্য প্রকাশের অযোগ্য কিছু ভাষায় ম্যাসেজ পাঠান।

২০১৮ সালের জুন মাসে ওই মহিলা বিষয়টি ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়াকে জানান, পেনের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনেন। অস্ট্রেলিয়ার মানবাধিকার কমিশনেও পেনের বিরুদ্ধে যৌন নিগ্রহের অভিযোগ আনেন এই মহিলা। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া তদন্ত শুরু করে।

শুক্রবার নিজের অপরাধ স্বীকার করে পেন অস্ট্রেলিয়ার টেস্ট দলের অধিনায়কের পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নেন। পরিবারের কাছেও ক্ষমা চেয়ে নেন তিনি।

লিখিত বিবৃতিতে পেন জানান, অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়কের পদ থেকে আমি সরে যাচ্ছি। খুব কঠিন সিদ্ধান্ত। কিন্তু নিজের, পরিবার ও ক্রিকেটের জন্য এটাই সঠিক সিদ্ধান্ত।

পরিবারের সঙ্গে কথা বলে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন জানিয়ে পেন লেখেন, প্রায় চার বছর আগের ঘটনা এটা। তখন থেকে আজ পর্যন্ত এর জন্য আমার আক্ষেপের শেষ নেই। তখনই স্ত্রী এবং পরিবারের সঙ্গে কথা বলেছিলাম। ওরা আমার পাশে রয়েছে। আমাকে ক্ষমা করেছে। তার জন্য আমি ওদের কাছে কৃতজ্ঞ। আমরা ভেবেছিলাম, বিষয়টি মিটে গিয়েছে। ফলে গত তিন-চার বছর ধরে আমি সম্পূর্ণ ভাবে ক্রিকেটে মন দিয়েছিলাম। কিন্তু এখন দেখলাম বিষয়টি জনসমক্ষে এসেছে। তখন যা করেছি, সেটা অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেট দলের অধিনায়কের পক্ষে কখনোই করা উচিত নয়। তা ছাড়া স্ত্রী, পরিবারকেও আঘাত দিয়েছি।

এটা পড়ার পরেই কেঁদে ফেলেন পেন। বলেন, অস্ট্রেলিয়ার অসংখ্য ক্রিকেটপ্রেমীর কাছে আমি ক্ষমাপ্রার্থী। সামনেই অ্যাশেজ সিরিজ আছে। অস্ট্রেলিয়া দলের একজন সদস্য হিসেবে নিজের পুরোটা দেব।

২০১৮ সালে আর এক বিতর্কের জেরে পেনকে অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক করা হয়েছিল। সে বার দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে বল বিকৃতির অভিযোগে তৎকালীন অধিনায়ক স্টিভ স্মিথকে দু বছরের জন্য নির্বাসিত করা হয়। এরপর আরও এক বিতর্ক। আরও এক নতুন অধিনায়ক পাবে অস্ট্রেলিয়া।


আরও খবর



২৪ ঘণ্টায় করোনায় দুইজনের মৃত্যু

প্রকাশিত:বুধবার ০১ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ০১ ডিসেম্বর ২০২১ | ২৬৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাতে নতুন শনাক্ত হওয়া রোগী, মৃত্যু এবং শনাক্তের হার সবই বেড়েছে। এসময় শনাক্ত হয়েছেন ২৮২ জন আর মারা গেছেন দুইজন। বুধবার (১ ডিসেম্বর) করোনা বিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে স্বাস্থ্য অধিদফতর এ তথ্য জানায়। গতকাল (৩০ নভেম্বর) অধিদফতর জানিয়েছিল, আগের ২৪ ঘণ্টায় করোনাতে শনাক্ত হয়েছিলেন ২৭৩ জন আর মারা গিয়েছিলেন একজন।

অধিদফতরের তথ্যমতে, গত ২৪ ঘণ্টায়  (৩০ নভেম্বর সকাল ৮টা থেকে ১ ডিসেম্বর সকাল ৮টা পর্যন্ত) করোনাতে রোগী শনাক্তের হার এক দশমিক ৫০ শতাংশ। গতকাল এক দশমিক ৩৮ শতাংশের কথা জানানো হয়েছিল। 

নতুন শনাক্ত হওয়া ২৮২ জনকে নিয়ে দেশে এখন পর্যন্ত করোনাতে মোট শনাক্ত হলেন ১৫ লাখ ৭৬ হাজার ৫৬৬ জন আর মোট মারা গেলেন ২৭ হাজার ৯৮৩ জন। করোনাতে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৩৮৩ জন। তাদের নিয়ে দেশে করোনাতে আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত মোট সুস্থ হলেন ১৫ লাখ ৪১ হাজার ৩৪৮ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনার নমুনা সংগৃহীত হয়েছে ১৮ হাজার ৯২৮টি আর নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ১৮ হাজার ৮৫১টি। দেশে এখন পর্যন্ত করোনার মোট নমুনা পরীক্ষা হয়েছে এক কোটি ৯ লাখ সাত হাজার ৬০২টি। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় পরীক্ষা হয়েছে ৭৭ লাখ ৮২ হাজার ৪১৮টি আর বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় পরীক্ষা হয়েছে ৩১ লাক ২৫ হাজার ১৮৪টি।

দেশে এখন পর্যন্ত করোনাতে রোগী শনাক্তের হার ১৪ দশমিক ৪৫ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৯৭ দশমিক ৭৭ শতাংশ আর শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুহার এক দশমিক ৭৭ শতাংশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া দুইজনের মধ্যে পুরুষ একজন আর নারী একজন। তাদের নিয়ে দেশে করোনাতে আক্রান্ত হয়ে মোট পুরুষ মারা গেলেন ১৭ হাজার ৯০৬ জন আর নারী মারা গেলেন ১০ হাজার ৭৭ জন। তাদের মধ্যে ৪১ থেকে ৫০ বছরের রয়েছেন একজন আর ৭১ থেকে ৮০ বছরের মধ্যে রয়েছেন একজন।

মারা যাওয়া দুইজনের মধ্যে একজন ঢাকা বিভাগের আর আরেকজন খুলনা বিভাগের। তাদের একজন মারা গেছেন সরকারি হাসপাতালে, আরেকজনের মৃত্যু হয়েছে বেসরকারি হাসপাতালে।


আরও খবর
করোনায় মৃত্যু ও শনাক্ত বেড়েছে

মঙ্গলবার ০৭ ডিসেম্বর ২০২১




সেন্টমার্টিনে আটকা পড়েছেন সহস্রাধিক পর্যটক

প্রকাশিত:রবিবার ০৫ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ০৫ ডিসেম্বর ২০২১ | ২৮৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট নিম্নচাপ ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদ-এর প্রভাব পড়তে শুরু করেছে কক্সবাজার জেলা জুড়ে। জেলার সর্বত্র আকাশ মেঘাচ্ছন্ন রয়েছে। সকাল থেকেই গুঁড়িগুঁড়ি বৃষ্টি হচ্ছে। জাওয়াদের প্রভাবে উত্তাল রয়েছে সমুদ্র। এ কারণে টেকনাফ-সেন্টমার্টিন নৌরুটে জাহাজ চলাচল বন্ধ ঘোষণা করায় সেন্টমার্টিনে সহস্রাধিক পর্যটক আটকা পড়েছেন।

শনিবার (৪ ডিসেম্বর) বৈরী আবহাওয়ায় টেকনাফ-সেন্টমার্টিন রুটে জাহাজ চলাচল বন্ধ থাকায় সেখানে আটকা পড়েন তারা। শুক্রবার  ও তার আগে এসব পর্যটক প্রবাল দ্বীপ সেন্টমার্টিন ভ্রমণে গিয়েছিলেন।

বঙ্গোপসাগরের নিম্নচাপ থেকে জাওয়াদ ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হয়ে উপকূলের দিকে ধেয়ে আসায় আবহাওয়া অধিদফতর শনিবার বিকেলেই ৩ নম্বর সতর্কতা সংকেত জারি করেছিল। ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদের প্রভাবে সাগর উত্তাল হতে শুরু করায় জাহাজ চলাচল বন্ধের সিদ্ধান্ত নেয় জেলা প্রশাসন।

টেকনাফের ইউএনও পারভেজ চৌধুরী জানান, আবহাওয়া খারাপ এবং সমুদ্রবন্দরে ৩ নং সতর্ক সংকেত থাকায় সেন্টমার্টিন রুটে জাহাজ পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচল বন্ধের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। রোববার (৫ ডিসেম্বর) থেকে সোমবার (৬ ডিসেম্বর) পর্যন্ত জাহাজ সেন্টমার্টিনের উদ্দেশে জাহাজ ছাড়বে না। আবহাওয়া পরিস্থিতি যতদিন ভালো না হচ্ছে ততদিন এ নিষেধাজ্ঞা জারি থাকবে।

কক্সবাজার আবহাওয়া অফিসের আবহাওয়াবিদ মো. মনোয়ার হোসেন বলেন, ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত কেটে যেতে দু-একদিন সময় লাগবে। এরপর আবহাওয়া স্বাভাবিক হতে শুরু করবে। ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রে ৫৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ৬২ কিলোমিটার, যা দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়ার আকারে ৮৮ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। এ মুহূর্তে ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের কাছে সাগর উত্তাল রয়েছে। সমুদ্রবন্দরগুলোকে ২ নম্বর 


আরও খবর
তেজ বাড়ছে ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদের

রবিবার ০৫ ডিসেম্বর ২০২১




যান চলাচলের জন্য খুলছে টঙ্গী ব্রিজ

প্রকাশিত:শনিবার ২০ নভেম্বর ২০21 | হালনাগাদ:শনিবার ২০ নভেম্বর ২০21 | ৫২০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
সেতু এলাকা পরিদর্শন করে দেখা গেছে, ঢাকামুখী যানবাহনগুলো কামারপাড়া রোডের মোড় ঘুরে রাজধানীতে প্রবেশ করছে। ব্রিজের একপাশ দিয়ে সাধারণ মানুষ হেঁটে পার হচ্ছেন

ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে চলাচল করা যাত্রীদের দশ দিনের দুর্ভোগের অবসান হচ্ছে আজ রাতে। গাজীপুরের তুরাগ নদীর ওপরে টঙ্গী ব্রিজের ঝুঁকিপূর্ণ অংশের সংস্কারকাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। শনিবার (২০ নভেম্বর) দিবাগত রাত ১২টার পর ব্রিজটি চলাচলের জন্য খুলে দেওয়ার কথা থাকলেও রাত ৯টার দিকে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ ও গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে সঙ্গে নিয়ে খুলে দেওয়া হবে। বিআরটি প্রকল্পের সেতু বিভাগের প্রকল্প পরিচালক মহিরুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মহিরুল ইসলাম বলেন, নতুন সেতুর নির্মাণকাজ সম্পন্ন না হওয়া পর্যন্ত মেরামত করা সেতু দিয়ে যান চলাচল করবে। পাশাপাশি নতুন সেতুর নির্মাণকাজ চলমান থাকবে।

সেতু এলাকা পরিদর্শন করে দেখা গেছে, ঢাকামুখী যানবাহনগুলো কামারপাড়া রোডের মোড় ঘুরে রাজধানীতে প্রবেশ করছে। ব্রিজের একপাশ দিয়ে সাধারণ মানুষ হেঁটে পার হচ্ছেন।

ময়মনসিংহ থেকে আসা মাইক্রোবাস চালক রবিউল ইসলাম বলেন, প্রায় এক সপ্তাহ যাবৎ এ সড়ক দিয়ে চলাচলকারী যাত্রী ও যানবাহন চালকরা ব্রিজের জন্য দুর্ভোগে আছেন। থেমে থেমে যান চলাচল ও যানজটের কারণে মানুষ সময় মতো অফিস-আদালত ও গন্তব্যে পৌঁছতে পারেনি। দ্রুত চলাচল উপযোগী করার চেয়ে সেতুটি ভালোভাবে সংস্কার করে ঝুঁকিমুক্ত করাই জরুরি ছিল। এটি যেন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বিবেচনা করেন।

ঢাকাগামী ইসলামীয়া পরিবহনের চালক আবুল কালাম জানান, ব্রিজটির সংস্কার কাজের জন্য বেশ কয়েকদিন যাত্রী ও চালকদের ধুলোবালি আর যানজটের মধ্যে চলাচল করতে হচ্ছে। ব্রিজটি চালু হলে মানুষের দুর্ভোগ কমবে।

গাজীপুরের শ্রীপুরের একটি পোশাক কারখানায় চাকরি করেন আল-আমিন। ঢাকা থেকে প্রতিদিন তিনি সেখানে যাতায়াত করেন। আল-আমিন বলেন, ব্রিজটি ভেঙে যাওয়ায় প্রতিদিন সকালে এক ঘণ্টা এবং অফিস থেকে ফেরার সময় দুই থেকে তিন ঘণ্টা টঙ্গী ব্রিজের কাছে এসে জ্যামে বসে থাকতে হয়।

প্রসঙ্গত, গত ৯ নভেম্বর টঙ্গী ব্রিজের ঝুঁকিপূর্ণ অংশটি চিহ্নিত হয়। ১০ নভেম্বর রাতে ব্রিজের ঢাকামুখী চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়। ঢাকামুখী যানবাহনগুলো কামারপাড়া রোডের মোড় ঘুরে রাজধানীতে প্রবেশের বিকল্প ব্যবস্থা করা হয়। ১২ নভেম্বর থেকে ব্রিজটি চলাচল উপযোগী করার জন্য সংস্কার কাজ শুরু হয়।

নিউজ ট্যাগ: টঙ্গী ব্রিজ

আরও খবর



টিকিট ক্রয়ের জন্য উপচেপড়া ভিড়

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৮ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৮ নভেম্বর ২০২১ | ৪০০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বাংলাদেশ-পাকিস্তান সিরিজ দিয়ে দীর্ঘসময় পর স্টেডিয়ামে প্রবেশের সুযোগ পাচ্ছেন ক্রীড়াপ্রেমীরা। আজ বৃহস্পতিবার থেকে টিকিট বিক্রি শুরু হয়েছে। ভোর থেকেই টিকিট ক্রয়ের জন্য লাইনে অপেক্ষা শুরু করেন দর্শকরা। নারীদের লাইনের চেয়ে পুরুষদের জন্য নির্ধারিত লাইনে ভিড় বেশি দেখা গেছে।

শহীদ সোহরাওয়ার্দী ইনডোর স্টেডিয়ামে চলছে প্রথম টি-টোয়েন্টি ম্যাচের টিকিট বিক্রির কার্যক্রম। সকাল ৯টায় শুরু হয়েছে টিকিট বিক্রির কার্যক্রম। টিকিট থাকা সাপেক্ষে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত খোলা থাকবে টিকিট বুথ। শহীদ সোহরাওয়ার্দী ইনডোর স্টেডিয়ামে বিক্রয়ের পর যদি ম্যাচের দিন টিকিট পর্যাপ্ত থাকে, তাহলে স্টেডিয়াম সংলগ্ন বুথে (এক নম্বর গেট সংলগ্ন) বিক্রি করা হবে।

স্টেডিয়ামে ধারণ ক্ষমতার ৫০ শতাংশের বেশি টিকিট দেওয়া হবে না। সঙ্গে শর্ত হলো করোনাভাইরাসের ডাবল ডোজ টিকা নিয়েছেন কেবল তারাই খেলা দেখার সুযোগ পাবেন।

টিকিট পাওয়া যাচ্ছে মোট ৫ ক্যাটাগরিতে। যেখানে সর্বোচ্চ টিকিট মূল্য ধরা হয়েছে ১০০০ টাকা, সর্বনিম্ন ১০০ টাকা। গ্র্যান্ড স্ট্যান্ড ১০০০, ভিআইপি স্ট্যান্ড ৫০০, ক্লাব হাউজ ৩০০, সাউদার্ন-নর্দার্ন স্ট্যান্ড ১৫০ ও ইস্টার্ন স্ট্যান্ড গ্যালারির টিকিট মিলবে ১০০ টাকায়।

 


আরও খবর