আজঃ বৃহস্পতিবার ০৯ ডিসেম্বর ২০২১
শিরোনাম

সুনামগঞ্জে পরিবহন বন্ধ থাকায় চরম দুর্ভোগে যাত্রীরা

প্রকাশিত:সোমবার ২২ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ২২ নভেম্বর ২০২১ | ২৮০৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মামলা প্রত্যাহার, ট্রাফিক পুলিশ ও হাইওয়ে পুলিশের সকল প্রকার হয়রানি বন্ধ, মেয়াদোত্তীর্ণ সেতু থেকে টোল আদায় বন্ধসহ ৫ দফা দাবি আদায়ে সুনামগঞ্জে পরিবহন ধর্মঘট চলছে। সোমবার (২২ নভেম্বর) সকাল থেকে সিলেটের ন্যায় সুনামগঞ্জে কর্মবিরতি পালন করছে সুনামগঞ্জ জেলা সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়ন।

জানা গেছে, কর্মবিরতির ফলে সোমবার (২২ নভেম্বর) থেকে দূর পাল্লার বাস চলাচল বন্ধের পাশাপাশি সুনামগঞ্জ, ছাতক, জগন্নাথপুর, দিরাই, জামালগঞ্জ, তাহিরপুর বিশ্বম্ভরপুর ও দোয়ারাবাজারসহ ১০টি রুটে বাস-মিনিবাসসহ সবধরনের গণপরিবহন চলাচল বন্ধ রয়েছে।

এদিকে হটাৎ করে জেলাজুড়ে সব ধরনের গণপরিবহন বন্ধ থাকায় চরম দুর্ভোগে পড়েছেন যাত্রীরা। অনেক যাত্রীরা বাসস্ট্যান্ডে এসে জানতে পারেন শ্রমিকরা কর্মবিরতি পালন করছেন। সবধরনের গণপরিবহন বন্ধ থাকায় অনেক যাত্রী এম্বুলেন্স, অটোরিকশা এবং মোটরসাইকেল যোগে গন্তব্যে পৌঁছেছেন।

বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার পলাশ গ্রামের রিনা বেগম তার তিন শিশুকে নিয়ে সুনামগঞ্জ শহরের বাসস্ট্যান্ডে এসেছিলেন সিলেটে যাওয়ার জন্য। বাস না পেয়ে চরম হতাশা ব্যক্ত করে তিনি বলেন, আমার মেয়ের চিকিৎসার জন্য সিলেটের এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে যাওয়ার জন্য ভোরে বাড়ি থেকে এসেছি। সুনামগঞ্জ এসে দেখি বাস চলাচল বন্ধ। আমার মেয়ের চিকিৎসা কিভাবে করবো।

সদর উপজেলার মঙ্গলকাটা এলাকার রফিক মিয়া বলেন, চট্টগ্রাম যাওয়ার জন্য সিলেটে রেলের টিকেট সংগ্রহ করে রেখেছিলাম কিন্তু সকালে বাসস্ট্যান্ডে এসে জানতে পারি ধর্মঘট চলছে।

সুনামগঞ্জ জেলা সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক নুরুল হক জানান, ৫ দফা দাবি নিয়ে প্রশাসনের সঙ্গে অনেক বার শ্রমিকরা বসেছেন কিন্তু কোনো সুরাহা হয়নি। তাই আজ সোমবার থেকে অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতি পালন করা হচ্ছে।

সুনামগঞ্জ জেলা সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মো. সেজাউল করিম বলেন, ৫ দফা দাবি আদায়ের জন্য আমরা কর্মবিরতি কর্মসূচি পালন করছি। আজ সোমবার সকাল থেকে প্রাইভেট যানবাহন ব্যতীত সব গণপরিবহন বন্ধ রয়েছে। শ্রমিকদের দাবি মানা না হলে অনির্দিষ্টকাল পর্যন্ত কর্মবিরতি চলবে।

সুনামগঞ্জ জেলা বাস মিনিবাস-মাইক্রোবাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক জুয়েল মিয়া বলেন, সিলেট পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের ডাকে সুনামগঞ্জ জেলার সড়ক পরিবহন শ্রমিকরাও কর্মবিরতি পালন করছে। শ্রমিকরা গাড়ি চালাবেন না বলে জানিয়েছেন।


আরও খবর
চট্টগ্রামে পাট গুদামে ভয়াবহ আগুন

বৃহস্পতিবার ০৯ ডিসেম্বর ২০২১

আজ নেত্রকোনা ট্র্যাজেডি দিবস

বুধবার ০৮ ডিসেম্বর ২০২১




৩ ব্যাংক কর্মকর্তার ৩১ বছরের সাজা

প্রকাশিত:সোমবার ১৫ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১৫ নভেম্বর ২০২১ | ৮৩০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
দণ্ডবিধির ৪০৯/৪২০/৪৬৮/৪৭১/১০৯ ধারা এবং ১৯৪৭ সালের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫ (২) ধারায় শাস্তিযোগ্য অপরাধ

অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে সোনালী ব্যাংকের তিন কর্মকর্তাকে ৩১ বছরের কারাদণ্ড এবং প্রত্যেককে ২৫ লাখ করে মোট ৭৫ লাখ টাকার অর্থদণ্ড দিয়েছেন আদালত। সোমবার নোয়াখালীর স্পেশাল জজ (জেলা জজ) আদালত এ রায় দেন।

ঘটনার বিবরণে জানা যায়, সোনালী ব্যাংকের ফেনীর সোনাগাজী শাখার ম্যানেজার মো. রহিম উল্যাহ খন্দকার, দ্বিতীয় কর্মকর্তা (সেকেন্ড ম্যান) মো. আবুল কালাম ও সহকারী অফিসার মো. মিজানুর রহমান ক্ষমতার অপব্যবহার করে প্রতারণা ও জালিয়াতির মাধ্যমে ২০১১ সালের ২ অক্টোবর থেকে ২০১২ সালের ১৩ আগস্ট পর্যন্ত দলিলের কাজে ব্যবহৃত ১৬৬টি পে-অর্ডারের ১৯ লাখ ৩৬ হাজার ১৬৫ টাকা উত্তোলন করে আত্মসাৎ করেন।

মামলায় উল্লেখ করা হয়, ২০১১ সালের ২ অক্টোবর থেকে ২০১২ সালের ১৩ আগস্ট পর্যন্ত ফেনী জেলার সোনাগাজীর মতিগঞ্জ সাব রেজিস্ট্রার অফিসে দলিল রেজিস্ট্রির কাজে ব্যবহৃত ও সরকারি খাতে জমা করার জন্য ওই অফিস থেকে ২০ থেকে ২৫ বান্ডিল চালানে পে-অর্ডার নম্বর, টাকা ও তারিখ উল্লেখ করে ব্যাংকে দাখিল করা হয়। এর মধ্যে ২-১টি সরিয়ে রেখে পরবর্তীতে নগদে উত্তোলন, পে-অর্ডারের টাকার অঙ্ক বাড়িয়ে নগদে উত্তোলন এবং সরকারি খাতে জমার জন্য চালানের সঙ্গে ফেরত আসা পে-অর্ডারসমূহ কিছু গায়েব করে সরকারি খাতে জমা না করে আত্মসাৎ করা হয়। এভাবে ১৬৬টি পে-অর্ডারের মোট ১৯ লাখ ৩৬ হাজার ১৬৫ টাকা নগদে উত্তোলন করে আত্মসাৎ করেন আসামিরা।

এটি দণ্ডবিধির ৪০৯/৪২০/৪৬৮/৪৭১/১০৯ ধারা এবং ১৯৪৭ সালের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫ (২) ধারায় শাস্তিযোগ্য অপরাধ।

২০১৪ সালের ৮ সেপ্টেম্বর সোনাগাজী থানায় এ বিষয়ে মামলা দায়ের করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ছিলেন দুদক উপপরিচালক মো. মশিউর রহমান।

এ প্রসঙ্গে দুদকের আইনজীবী আবুল কাশেম বলেন, আসামিরা দীর্ঘদিন ধরে সাব রেজিস্ট্রার অফিস থেকে আসা পে-অর্ডার কৌশলে রেজিস্ট্রার কাজে ব্যবহৃত হয়নি’— এমন তথ্য দিয়ে সোনালী ব্যাংক থেকে টাকা উত্তোলন ও আত্মসাৎ করেন। বিষয়টি ফাঁস হওয়ার পর ব্যাংকের ডিজিএম অফিস ও ঢাকার মতিঝিল অফিস থেকেও দুই দফা তদন্ত করা হয়। তদন্ত কমিটির রিপোর্টেও অভিযোগের সত্যতা মেলে। এরপর সোনালী ব্যাংকের ওই তিন কর্মকর্তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।

ওই রিপোর্ট ও দুদকের অনুসন্ধানের পরিপ্রেক্ষিতে মামলা দায়ের এবং পরবর্তীতে চার্জশিট হয়। সাক্ষ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে আজ আদালত রায় দিয়েছেন বলেন ওই কর্মকর্তা।

নিউজ ট্যাগ: সোনালী ব্যাংক

আরও খবর
আবরার হত্যায় ২০ আসামির মৃত্যুদণ্ড

বুধবার ০৮ ডিসেম্বর ২০২১




রোহিঙ্গা ইস্যুতে সমর্থন অব্যাহত রাখবে জাতিসংঘ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ৩০ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ৩০ নভেম্বর ২০২১ | ৩৪০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

গণহত্যা ও নির্যাতনের মুখে বাংলাদেশে এসে আশ্রয় নেওয়া লাখ লাখ রোহিঙ্গা নাগরিকের অধিকার ফিরিয়ে দেওয়া এবং তাদেরকে নিজ দেশ মিয়ানমারে প্রত্যাবাসন ইস্যুতে বাংলাদেশকে জাতিসংঘ তার সমর্থন অব্যাহত রাখবে। বাংলাদেশে জাতিসংঘের আবাসিক সমন্বয়কারী মিয়া সেপ্পো জানিয়েছেন এই কথা।

মঙ্গলবার সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে তার সরকারি বাসভবন গণভবনে বিদায়ী সাক্ষাৎ করেন মিয়া সেপ্পো। বৈঠক শেষে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের এ ব্যাপারে ব্রিফ করেন।

প্রেস সচিব বলেন, বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী বলেন, মানবিক কারণে আমরা রোহিঙ্গা শরণার্থীদের জন্য বাসস্থানের ব্যবস্থা করেছি। কিন্তু তারা এখন সামাজিক সমস্যা সৃষ্টি করছে। কিন্তু, তাদের উচিত এখন নিজ দেশে ফিরে যাওয়া।

শেখ হাসিনা বলেন, যে সব এনজিও বাংলাদেশে কাজ করছে সেসব এনজিও রোহিঙ্গাদের জন্য তাদের নিজ দেশেও কাজ করতে পারে।

বৈঠকে তারা কোভিড-১৯, জলবায়ু পরিবর্তন এবং নারীর ক্ষমতায়ন নিয়েও আলোচনা করেন।

নারীর ক্ষমতায়ন প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সরকার প্রত্যেক সরকারি চাকরিতে বিশেষ করে সশস্ত্র বাহিনী বিজিবি এবং সামাজিক-রাজনৈতিক ক্ষেত্রে নারীদের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করেছে।

জলবায়ু প্রসঙ্গে শেখ হাসিনা বলেন, পরিবেশ রক্ষায় সরকারের পাশাপাশি তার দল ও সহযোগি সংগঠনগুলোও বিপুলসংখ্যক বৃক্ষরোপণ অভিযান পরিচালনা করছে।

মিয়া সেপ্পো বাংলাদেশে তার অবস্থানের জন্য সন্তোষ প্রকাশ করে বলেন, সরকারের সঙ্গে তার সুসম্পর্ক ছিল।

অ্যাম্বাসেডর এট লার্জ মো. জিয়াউদ্দিন এবং প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ড. আহমেদ কায়কাউস এ সময় উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



শরীয়তপুরে আ.লীগের দুপক্ষের সংঘর্ষে আহত ৫০

প্রকাশিত:বুধবার ০৮ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ০৮ ডিসেম্বর ২০২১ | ৯৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

শরীয়তপুর সদর উপজেলায় আওয়ামী লীগের দুপক্ষের সংঘর্ষে প্রায় ৫০ জন আহত হয়েছেন। এ সময় শতাধিক বোমা বিস্ফোরণ ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে।

বুধবার সকালে উপজেলার চিতলীয়া বাজারে জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য আবদুস সালাম হাওলাদার ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি হারুন-অর রশীদ হাওলাদারের সমর্থকদের মধ্যে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

আহতদের মধ্যে পাঁচজনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। বাকিদের শরীয়তপুর সদর হাসপাতালসহ বিভিন্ন ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে।

উভয়পক্ষ মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে জানিয়েছেন পালং মডেল থানার ওসি মো. আক্তার হোসেন। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

জেলা পরিষদের সদস্য সাখাওয়াত হোসেন হাওলাদার জানান, গত সোমবার রাতে সদর উপজেলার মজুমদারকান্দি এলাকার চিতলীয়া ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য আবদুস সালাম হাওলাদারের সমর্থক লিটন বেপারি, আউয়াল সরদার, সৈয়াদ সরদার আংগারিয়া বাজারে যাচ্ছিলেন।

পথে চিতলীয়া বাজারের কাছে সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি হারুন-অর রশীদ হাওলাদারের সমর্থক জাহাঙ্গীর হাওলাদার রফিক মৃধাসহ ১০-১২ জন মিলে তাদের গতিরোধ করেন। এর পর তাদের অকথ্য ভাষায় গালাগাল করেন। একপর্যায়ে তাদের বেদম মারধর করে আহত করেন।

এর জের ধরে মঙ্গলবার রাতভর দেশীয় অস্ত্রসহ বোমার মজুদ করে বলে অভিযোগ রয়েছে।

বুধবার সকালে দুপক্ষের সমর্থকরা চিতলীয়া বাজারে মুখোমুখি অবস্থান নেয়। একপর্যায়ে উভয়পক্ষ সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। এ সময় একে ওপরের ওপর বোমার বিস্ফোরণ ঘটাতে থাকে। প্রায় দুই ঘণ্টাব্যাপী এ সংঘর্ষ চলে। শরীয়তপুর পালং মডেল থানার পুলিশ, ডিবি পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

আহতদের মধ্যে পাঁচজনকে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে; বাকিদের শরীয়তপুর সদর হাসপাতালসহ বিভিন্ন ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে। সংঘর্ষ চলাকালে চিতলীয়া বাজারে ছয়টি ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান ও একটি স্থানীয় আওয়ামী লীগের ক্লাবঘর ভাঙচুর করা হয়। এ সময় সন্ত্রাসীরা প্রায় শতাধিক বোমা বিস্ফোরণ ঘটায়। এতে পুরো ইউনিয়নে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

বোমা হামলায় আহত আবু গনি চৌকিদার বলেন, সকালে চিতলীয়া বাজারে চা-নাস্তা করতে যাই। এ সময় আওয়ামী লীগের দুপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বেধে যায়। কিছু বুঝে ওঠার আগেই আমার ডান কাধে এসে বোমা লাগে। এতে আমার পিঠের কিছু অংশ ও কানের কিছু অংশ পুড়ে যায়। কোনোমতে আমি প্রাণে রক্ষা পাই।

চিতলীয়া ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের ছাত্রলীগের সভাপতি আহত কাওসার হাওলাদার বলেন, জীবনে অনেক মারামারি দেখেছি। এ রকম বৃষ্টির মতো বোমার বিস্ফোরণ দেখিনি।

এ ব্যাপারে সালাম হাওলাদারের সমর্থক মানিক হাওলাদারকে একাধিকবার ফোন দিয়েও তাকে পাওয়া যায়নি।

শরীয়তপুর সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি হারুন-অর রশীদ হাওলাদার বলেন, চিতলীয়া ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান সালাস হাওলাদারের সমর্থক মানিক হাওলাদারের নির্দেশে আমাদের ক্লাবে ও বাজারে হামলা করা হয়। এতে আমাদের ২৫-৩০ কর্মী-সমর্থক আহত হন। এর পর বাজারের ব্যবসায়ী ও আওয়ামী লীগের লোকজন মিলে সন্ত্রাসীদের গণপিটুনি দিয়ে বাজার থেকে তাড়িয়ে দেয়।

জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও বর্তমার চেয়ারম্যান আবদুস সালাম হাওলাদার বলেন, আমার ৩ সমর্থককে হারুর হাওলাদারের সমর্থকরা কুপিয়ে পিটিয়ে মারান্তকভাবে আহত করে। বুধবার সকালে মানিক হাওলাদার ও সাত্তার হাওলাদার চিতলীয়া বাজারে গেলে তাদেরও লাঞ্ছিত করে হারুর হাওলাদারের সমর্থকরা। এ নিয়ে দুপক্ষের সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষে আমার ২০-২৫ জন আহত হয়।

পালং মডেল থানা ওসি মো. আক্তার হোসেন বলেন, মঙ্গলবার চিতলীয়ার একটি ছোট ঘটনা কেন্দ্র করে বুধবার সকালে বর্তমান চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগের সহসভাপতি হারুর-অর রশীদ হাওলাদারের সমর্থকদের সংঘর্ষ বাধে। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এখনো কোনো পক্ষ মামলা করতে আসেনি।


আরও খবর



হাফ ভাড়ার দাবিতে রাজধানীতে শিক্ষার্থীদের বাস ভাঙচুর

প্রকাশিত:শনিবার ২০ নভেম্বর ২০21 | হালনাগাদ:শনিবার ২০ নভেম্বর ২০21 | ১২০০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রাজধানীতে চলাচলকারী গণপরিবহনে অর্ধেক ভাড়ার দাবিতে চারটি বাস ভাঙচুরের অভিযোগ উঠেছে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে।

শনিবার বেলা ১২টার দিকে রাজধানীর সায়েন্স ল্যাব এলাকায় সিটি কলেজের সামনে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা এসব বাস ভাঙচুর করে বলে জানায় পুলিশ।

তার আগে নিউমার্কেট সায়েন্সল্যাব এলাকার রাস্তা অবরোধ করেন ঢাকা কলেজ ও সিটি কলেজের শিক্ষার্থীরা। সেখান থেকে চারটি বাস ভাঙচুর করলে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে।

তবে এ ঘটনায় কাউকে আটক করা হয়নি বলে জানিয়েছেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের রমনা বিভাগের নিউমার্কেট জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনার শরীফ মো. ফারুকুজ্জামান।

তিনি বলেন, ছাত্ররা হাফ পাশের দাবিতে রাস্তা অবরোধ করে যান চলাচল বন্ধ করে দেয়৷ এর মধ্যে উত্তেজিত ছাত্ররা চারটি বাস ভাঙচুর করে। আমরা সাথে সাথেই তাদের থামিয়ে দিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনি। ছাত্রদের বুঝিয়ে তাদের রাস্তা থেকে সরিয়ে দেয়া হচ্ছে।

ধানমন্ডি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইকরাম আলী মিয়া বলেন, গণপরিবহনে বিশেষ করে বাসে হাফ ভাড়ার দাবিতে কয়েকদিন ধরেই ধানমন্ডি সাইন্সল্যাব এলাকার শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ করছে, রাস্তা অবরোধ করছে। আজকেও বেলা সোয়া ১২টার দিকে সিটি কলেজ ও ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীরা রাস্তা অবরোধ করেছে। এ সময় কয়েকটি বাসের গ্লাস ভাঙচুর করা হয়।

এখন রাস্তায় ঢাকা কলেজের কিছু শিক্ষার্থী অবস্থান করছেন বলে জানান তিনি।

গত বৃহস্পতিবার সকালে ঢাকা কলেজের ছাত্ররা একইভাবে রাস্তা অবরোধ করেছিলেন। সেদিন পুলিশ ও কলেজ শিক্ষকরা তাদের বুঝিয়ে কলেজ প্রাঙ্গনে ফেরত পাঠায়। তবে তারা বাস মালিক-শ্রমিকদের হাফ পাশ কার্যকর করতে শনিবার পর্যন্ত সময় বেঁধে দেয়।

ছাত্রদের অভযোগ, তারা সবসময় অর্ধেক ভাড়া দিয়ে বাসে চলাচল করেন। তবে নতুন ভাড়া কার্যকর হবার পর থেকে কোনো বাসে হাফ ভাড়া নিচ্ছে না বরং তাদের সঙ্গে খারাপ আচরণ করছেন পরিবহন শ্রমিকরা।

এরই মধ্যে ছাত্রদের ঘাড় ধাক্কা দিয়ে বাস থেকে নামিয়ে দেয়ার ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ শিক্ষার্থীদের।


আরও খবর



আফগান শরণার্থী শিশুটি এখন ব্রিটেনের নামকরা ব্যারিস্টার

প্রকাশিত:বুধবার ০৮ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ০৮ ডিসেম্বর ২০২১ | ১৫০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

যুদ্ধবিধ্বস্ত আফগানিস্তান থেকে বাবা-মায়ের হাত ধরে পালিয়ে আসা শরণার্থী শিশুটি এখন যুক্তরাষ্ট্রের নামকরা ব্যারিস্টার। ইংল্যান্ড ও ওয়েলসের প্রথম আফগান নারী ব্যারিস্টার রেহানা পোপাল এখন তার দেশের নারীদের কাছে ভরসার প্রতীক। খবর বিবিসির।

যে কোনো আইনি সহায়তার জন্য ৩১ বছর বয়সি এ আফগান ব্যারিস্টার নিঃস্বার্থভাবে তার দেশের মানুষকে সেবা দিয়ে আসছেন। তার শিশুকালে আরও তিন ভাইবোনের সঙ্গে যুক্তরাজ্যে আসেন রেহানা। মেধাবী এ আফগান নারী এখন বিবিসির ১০০ প্রভাবশালী নারীর তালিকায়। সমাজ, সংস্কৃতি ও বিশ্বকে নতুন করে সাজাতে যে নারীরা ভূমিকা রেখেছেন, এ তালিকায় তাদের অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

এবারের তালিকায় নাম থাকা ১০০ নারীর মধ্যে অর্ধেকই আফগানিস্তানের নাগরিক। আফগানিস্তানে কাজ করতে গিয়ে দমন-পীড়নের শিকার হওয়া নারীদের উৎসর্গ করে এবারের তালিকায় ৫০ জন আফগান নারীকে রাখা হয়েছে। তাদের কেউ কেউ নিজেদের নিরাপত্তার স্বার্থে ছদ্মনাম ব্যবহার করেছেন এবং ছবি দেননি।

এ ছাড়া তালিকায় স্থান পেয়েছেন নোবেলজয়ী মালালা ইউসুফজাই, সামোয়ার প্রথম নারী প্রধানমন্ত্রী ফিয়ামে নাওমি মাতাফা, ভারতের আইনজীবী ও অধিকারকর্মী মঞ্জুলা প্রদীপ, সাবেক আফগান নারী পুলিশ সদস্য মোমেনা ইব্রাহিমি, আফগানিস্তানের বাণিজ্যিক উড়োজাহাজের প্রথম নারী পাইলট মহাদেসি মিরজায়ির মতো নারীরাও।

প্রতিবছর নির্দিষ্ট একটি থিমের ভিত্তিতে প্রভাবশালী নারী বাছাই করা হয়। এ বছরের থিম হলো- পৃথিবীর বদলে নারী

বিশ্বজুড়ে করোনা মহামারির কারণে অনেক মানুষই তাদের জীবনযাপনের পদ্ধতিতে পরিবর্তন আনতে বাধ্য হয়েছেন। এমন পরিস্থিতিতে জীবনযাপনে পরিবর্তন ও যাপনের নতুন পদ্ধতি উদ্ভাবনে যে নারীরা ভূমিকা রেখেছেন, তারা তালিকায় স্থান পেয়েছেন।

বিবিসির একটি দল ১০০ প্রভাবশালী নারীকে বাছাই করার জন্য কাজ করে থাকে। এ দলের সদস্যরা বিশ্বের বিভিন্ন দেশের প্রভাবশালী নারীদের নামের তালিকা জমা দেন।

এর পর বিবিসি ওয়ার্ল্ড সার্ভিস নেটওয়ার্কের ভাষা নিয়ে কাজ করা দলের পরামর্শ অনুযায়ী ছোট একটি তালিকা তৈরি করা হয়। যেসব প্রার্থী গত এক বছরে সংবাদের শিরোনাম হয়েছেন, কর্মকাণ্ডের জন্য প্রশংসিত হয়েছেন কিংবা সমাজের কোনো গুরুত্বপূর্ণ পরিবর্তনে ভূমিকা রেখেছেন; তাদেরই মূলত নির্বাচন করা হয়।



আরও খবর