আজঃ শনিবার ২৩ অক্টোবর ২০২১
শিরোনাম

সুন্দর ত্বক পেতে দূর করুন ৪ বদভ্যাস

প্রকাশিত:শনিবার ০৯ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ০৯ অক্টোবর ২০২১ | ৫১৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

নরম, কোমল ও মসৃণ ত্বক কে না চায়। কিন্তু পরিবেশ দূষণ, খাদ্যাভ্যাস, অযত্ন ও অস্বাস্থ্যকর জীবন যাপনের কারণে ত্বক কোমলতা হারায়। ফলে অকালে ত্বকে পড়ে বার্ধক্যের ছাপ।

কিছু খারাপ অভ্যাস আপনার ত্বকে অকালবার্ধক্যের লক্ষণগুলো ফুটিয়ে তোলে। ভারতের জীবনধারা ও স্বাস্থ্যবিষয়ক ওয়েবসাইট বোল্ডস্কাইয়ের প্রতিবেদন অনুযায়ী আজ আমরা চারটি গুরুতর বদভ্যাসের কথা জানব। এগুলো এড়ালে ফিরে পাবেন আপনার ত্বকের জেল্লা।

ধূমপান

ধূমপান যে ক্ষতিকর, এ কথা আমরা সবাই জানি। তবু আমরা সহজে এ বদভ্যাস ত্যাগ করতে পারি না। কিন্তু ত্বকের জেল্লা ফিরে পেতে এবং অকালবার্ধক্য রুখতে আপনাকে অবশ্যই ধূমপান ত্যাগ করতে হবে। ধূমপানের ফলে ত্বকের কোলাজেন ও ইলাস্টিন প্রোটিন ক্ষতিগ্রস্ত হয়। তাছাড়া এটি ত্বকের স্বাভাবিক বার্ধক্যের প্রক্রিয়াকেও গতিশীল করে তোলে। এর কারণে অকালে ত্বকে বলিরেখা লক্ষ করা যায়। তাই দ্রুত এ বদভ্যাস ত্যাগ করুন।

অ্যালকোহল

অ্যালকোহল শরীরের জন্য খুব ক্ষতিকর। তাই মদপানের অভ্যাস থাকলে এখনই ছাড়ুন। অ্যালকোহল শরীরকে ডিহাইড্রেট করে এবং শরীরে ভিটামিন এ-এর মাত্রা কমিয়ে দেয়। ফলে অকালে ত্বকের তারুণ্য হারিয়ে যায়। এ বদভ্যাস যত দ্রুত পারেন দূর করুন।

অনিদ্রা

সুস্বাস্থ্যের জন্য পর্যাপ্ত ঘুম দরকার। অনিদ্রার কারণে চোখের নিচে কালশিটে পড়ে যায়। পর্যাপ্ত ঘুমের অভাবে ত্বক জেল্লা হারায়। এ ছাড়া অনিদ্রার কারণে সূর্যের ক্ষতিকর রশ্মির বিরুদ্ধে লড়াই করার ক্ষমতাও ক্রমশ হারিয়ে ফেলে ত্বক। ফলে বলিরেখা বাড়ে এবং অকালে পড়ে বার্ধক্যের ছাপ।

মানসিক চাপ

শুধু ত্বকের জন্যই নয়, সুস্বাস্থ্যের জন্য মানসিক চাপ এড়ানো জরুরি। অকারণে দুশ্চিন্তা করবেন না। জীবনে উত্থান-পতন থাকবেই। তাই বলে ভেঙে পড়লে চলবে না। মানসিক চাপ শরীরের ওপর যথেষ্ট প্রভাব ফেলে। এর লক্ষণ প্রকাশ হয় ত্বকেও। মানসিক চাপের কারণে বার্ধক্যের প্রক্রিয়া দ্রুত হয়। মানসিক চাপ শরীরে প্রদাহ সৃষ্টি করে, যা ত্বকের তন্তুসহ শরীরের বিভিন্ন অংশকে ক্ষতিগ্রস্ত করে। ফলে অকালে বার্ধক্য আসে ত্বকে।


আরও খবর
আজকের ভালো মন্দ

শুক্রবার ২২ অক্টোবর ২০২১

আজ আপনার জন্মদিন হলে

বুধবার ২০ অক্টোবর ২০21




নভেম্বরে এসএসসি, ডিসেম্বরে এইচএসসি পরীক্ষা: শিক্ষামন্ত্রী

প্রকাশিত:শনিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৬৭০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

নভেম্বরের মাঝামাঝি এসএসসি ও ডিসেম্বরের শেষের দিকে এইচএসসি পরীক্ষা হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি। শনিবার সকালে তিনি এ কথা বলেন। মন্ত্রী বলেন, এসএসসি এবং এইচএসসি পরীক্ষা আশা করছি সময় মতো হবে। নভেম্বর এবং ডিসেম্বরে আমরা তারিখ ঠিক করছি। মধ্য নভেম্বরে এসএসসি এবং ডিসেম্বরের গোড়ায় এইচএসসি পরীক্ষা হবে।

তিনি আরও বলেন, যদি প্রয়োজন হয় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আমরা বন্ধ করে দেব। এখন পর্যন্ত তেমন পরিস্থিতির উদ্ভব হয়নি। যদি কোথাও হয় তাহলে নিশ্চই আমরা ব্যবস্থা নেব। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে শিক্ষার্থীদের করোনা আক্রান্ত হওয়ার সব তথ্য সঠিক নয় বলেও জানান দীপু মনি।


আরও খবর



ঘুমানোর আগে পরিহার করুন ৫ খাবার

প্রকাশিত:বুধবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৪৯৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রাতে ঘুমানোর আগে অনেকেরই খাবার অভ্যাস থাকে। কিন্তু কিছু খাবারের ফলে রাতে ঘুমের ব্যাঘাত ঘটতে পারে। এ বিষয়টি অনেকেই জানে না। ভারতের জীবনধারা ও স্বাস্থ্যবিষয়ক ওয়েবসাইট বোল্ডস্কাইয়ের এক প্রতিবেদনে এমন কিছু খাবারের কথা বলা হয়েছে যা খেলে রাতে ঘুমের সমস্যা হতে পারে। এজন্য এ খাবার গুলোতে ঘুমানোর আগে খেতে নিষেধ করা হয়েছে।

১. আইসক্রিম

রাতে ঘুমানোর আগে আইসক্রিম খাওয়া থেকে বিরত থাকুন। কারণ আইসক্রিম নিদ্রাহীনতা ও বদহজমের কারণ হতে পারে। এতে থাকা চিনি ঘুম নষ্ট করে এবং হজমপ্রক্রিয়াকে বাধাগ্রস্ত করে।

২. ডার্ক চকলেট

রাতে ঘুমানোর আগে ডার্ক চকলেট খেলে ঘুমের সমস্যা হতে পারে। কারণ ডার্ক চকলেটে ক্যাফেইন ও অ্যামিনো অ্যাসিড রয়েছে। তাই রাতে ডার্ক চকলেট এড়িয়ে চলুন।

৩. কফি

কফি সবার কাছে প্রিয় একটি খাবার। কিন্তু রাতে ঘুমানোর আগে কফি খাওয়া এড়িয়ে চলুন। কারণ কফিতে থাকা ক্যাফেইন কেন্দ্রীয় স্নায়ুতন্ত্রকে উদ্দীপিত করতে সক্ষম, যার প্রভাব ৮ থেকে ১৪ ঘণ্টা পর্যন্ত স্থায়ী হতে পারে।

৪. অ্যালকোহল

মাদপান ঘুমের ব্যাঘাত ঘটায়। ঘুমানোর আগে মদ্যপান করলে সারা রাত জেগে থাকার সম্ভাবনা বেশি থাকে।

৫. মিষ্টিজাতীয় খাবারকে না বলুন

মিষ্টি জাতীয় খাদ্য ঘুমে সমস্যার অন্যতম কারণ। চিনি এনার্জি লেভেল বাড়ায়, তাই ঘুমানোর আগে চিনি বা মিষ্টিজাতীয় খাবার এড়িয়ে চলুন।


আরও খবর
আজকের ভালো মন্দ

শুক্রবার ২২ অক্টোবর ২০২১

আজ আপনার জন্মদিন হলে

বুধবার ২০ অক্টোবর ২০21




আইসিসির সেরার দৌড়ে নাসুম আহমেদ

প্রকাশিত:বুধবার ০৬ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ০৬ অক্টোবর ২০২১ | ৫৯০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মুশফিকুর রহিম, সাকিব আল হাসানের পর এবার আইসিসির মাস সেরা ক্রিকেটার হওয়ার দৌড়ে আছেন নাসুম আহমেদ। সেপ্টেম্বর মাসে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের পারফরম্যান্স বিবেচনায় বুধবার টাইগার স্পিনারকে মনোনয়ন দিয়েছে ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা।

বরাবরের মতো আইসিসির মাসের সেরা খেলোয়াড় পুরস্কারের জন্য মনোনয়ন পেয়েছেন ৩ ক্রিকেটার। তারা হলেন- বাংলাদেশের নাসুম আহমেদ, নেপালের সন্দ্বীপ লামিচানে ও যুক্তরাষ্ট্রের জাসকারান মালহোত্রা।

নাসুম মনোনয়ন পেয়েছেন নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজে ধারাবাহিক পারফরম্যান্স বিবেচনায়। গেল মাসের শুরুতে দেশের মাটিতে অনুষ্ঠিত এই সিরিজে নাসুম খেলেছেন পাঁচ টি-টোয়েন্টিতেই, শিকার করেছেন ৮ উইকেট। তবে তার ইকোনোমি ছিল যথেষ্ট ভালো। দলের ৩-২ ব্যবধানে সিরিজ জয়ে তিনি রেখেছিলেন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা। তারই ফলশ্রুতিতে আইসিসির সেরার তালিকায় চলে এসেছেন তিনি।

এদিকে তার প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে আছেন নেপালের লামিচানে। আইসিসির ওয়ার্ল্ড কাপ সুপার লিগের দ্বিতীয় স্তরে দারুণ বোলিং করেছেন তিনি। গেল মাসে ৬ ওয়ানডেতে তিনি তুলে নিয়েছেন ১৮ উইকেট।

আর এ তালিকার তৃতীয় জন, জাসকারান মালহোত্রা মনোনয়ন পেয়েছেন একটি ম্যাচ দিয়েই। পাপুয়া নিউগিনির বিপক্ষে ম্যাচে তিনি এক ওভারেই হাঁকিয়েছেন ছয়টি ছক্কা। সেদিন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে এক ওভারে ছয় ছক্কা হাঁকানো ব্যাটারের তালিকায় চতুর্থজন হিসেবে নাম লেখান তিনি।

এদিকে নারী ক্রিকেটারদের মধ্যে সেরা হওয়ার দৌড়ে আছেন ইংলিশ ক্রিকেটার চার্লি ডিন ও হিদার নাইট এবং দক্ষিণ আফ্রিকান লিজলি লি।

নিউজ ট্যাগ: নাসুম আহমেদ

আরও খবর



পুঁজিবাজারে আরও বড় দরপতন, আতঙ্কে বিনিয়োগকারীরা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৯ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৯ অক্টোবর ২০২১ | ১৬৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দেশের পুঁজিবাজারে আজ (১৯ অক্টোবর) সপ্তাহের তৃতীয় কার্যদিবসের শুরুতে বড় উত্থান দেখা দিলেও শেষ পর্যন্ত ধস দিয়ে লেনদেন শেষ হয়েছে। এর মাধ্যমে চলতি সপ্তাহের তিন কার্যদিবসেই বড় দরপতন হলো শেয়ার বাজারে। একইসঙ্গে পতনের মধ্যে থাকলো টানা সাত কার্যদিবস। টানা বড় দরপতনের কারণে বিনিয়োগকারীদের মধ্যে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে।

মঙ্গলবার লেনদেন হওয়া ৩৭৬টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের মধ্যে দাম কমেছে ২৫৪টির, বেড়েছে মাত্র ৮৭টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার দর। এতে দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) প্রধান সূচক কমেছে ৭৬ পয়েন্ট।‌ আর চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সূচক কমেছে ১৯৬ পয়েন্ট। সূচকের পাশাপাশি বিমা প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ছাড়া বাকি সব খাতের শেয়ারের দাম কমেছে। ফলে টানা সাত কার্যদিবস পুঁজিবাজারে দরপতন হয়েছে।

বাজার পর্যালোচনা করে দেখা গেছে, লেনদেনের প্রথম আড়াই ঘণ্টা বড় উত্থানের প্রবণতা অব্যাহত থাকে। একপর্যায়ে ডিএসইর প্রধান মূল্য সূচক ৮৮ পয়েন্ট পর্যন্ত বেড়ে যায়। কিন্তু দুপুর সাড়ে ১২টার পর থেকে পরিস্থিতি বদলে যেতে থাকে। পতনের তালিকায় নাম লেখাতে থাকে লেনদেনে অংশ নেওয়া একের পর এক প্রতিষ্ঠান। ফলে বড় উত্থান থেকে দেখতে দেখতে ধসে রূপ নেয় শেয়ার বাজার।

ডিএসইর তথ্য মতে, আজ তাদের এখানে ৩৭৬টি প্রতিষ্ঠানের ৩৫ কোটি ৭১ লাখ ৩২৪ হাজার ৯০৯টি শেয়ার হাতবদল হয়েছে। এর মধ্যে ৮৭টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের দাম বেড়েছে, কমেছে ২৫৪টির ও অপরিবর্তিত আছে ৩৫টির। প্রায় সব প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের দাম কমে যাওয়ায় ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স আগের দিনের চেয়ে ৭৬ পয়েন্ট কমে ৭ হাজার ২০ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে।

প্রধান সূচকের পাশাপাশি ডিএসইর অন্য সূচকগুলোর মধ্যে শরিয়াহ সূচক ২০ দশমিক ২৫ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ৫০৪ পয়েন্টে এবং ডিএসই-৩০ সূচক ২২ পয়েন্ট কমে ২ হাজার ৬৫৬ পয়েন্টে অবস্থান করছে।

আজ ডিএসইতে আগের দিনের চেয়ে লেনদেন কিছুটা বেড়েছে। মঙ্গলবার মোট লেনদেন হয়েছে ১ হাজার ৬৮২ কোটি ৮৫ লাখ ১০ হাজার টাকার শেয়ার। সোমবার লেনদেন হয়েছিল ১ হাজার ৩৯৩ কোটি ৮৩ লাখ ৩৬ হাজার টাকার শেয়ার।

এদিকে পুঁজিবাজারের নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল- ইসলামের পদত্যাগের গুজব ছড়িয়ে পড়ার কারণেও বিনিয়োগকারীরা এখন আতঙ্কিত। যদিও এ প্রসঙ্গে বিএসইসির মুখপাত্র ও নির্বাহী পরিচালক মোহাম্মদ রেজাউল করিম বলেন, মার্কেটে চেয়ারম্যান স্যারের নামে গুজব ছড়ানো হয়েছে, যাতে শেয়ার বাজারের খলনায়করা ধরা না পড়ে।



আরও খবর
নাটকীয় উত্থানে ঘুরে দাঁড়াল পুঁজিবাজার

বৃহস্পতিবার ২১ অক্টোবর 20২১

নাটকীয় উত্থানে ঘুরে দাঁড়াল পুঁজিবাজার

বৃহস্পতিবার ২১ অক্টোবর 20২১




আদর্শ শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে তরুণদের স্বনির্ভর হতে হবে : মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী

প্রকাশিত:সোমবার ১১ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১১ অক্টোবর ২০২১ | ১১৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম এমপি বলেছেন, আদর্শ শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে তরুণদের স্বনির্ভর হতে হবে। মেধায়, চিন্তা-চেতনায়, সততা ও নৈতিকতায় কর্মক্ষম মানুষ হতে হবে। শুধু ভালো জিপিএ দিয়ে আদর্শ মানুষ হওয়া যায় না। নিজের প্রতিভা ও যোগ্যতার বিকাশ ঘটাতে হবে। তাদের যেন চাকরির নেশায় পেয়ে না বসে। ঐকান্তিক ইচ্ছা, নিরলস প্রচেষ্টা, গভীর অধ্যাবসায় এবং সততা ধারণ করতে পারলে তরুণরা কখনো ব্যর্থ হবে না। তরুণদের স্বাবলম্বী করার জন্য সরকার সকল সহেযোগিতা করবে

সোমবার (১১ অক্টোবর) পিরোজপুর সদর উপজেলা পরিষদের শহিদ ওমর ফারুক মিলনায়তনে উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত বাংলাদেশ: তারুণ্যের ভাবনায় মিট দ্যা মিনিস্টার শীর্ষক সংলাপে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, তরুণ প্রজন্মের আগ্রই হচ্ছে বাংলাদেশে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা। তাদের মধ্যে আকাঙ্খা জাগ্রত করতে না পারলে মাতৃভূমি বাংলাদেশ সম্পর্কে তাদের ধারণা অস্পষ্ট থেকে যাবে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ছিল-আমরা সবাই ভালো মানুষ হবো। আমাদের মধ্যে কোন বিরোধ থাকবে না, কোনভাবে সাম্প্রদায়িকতায় জড়িত হবো না। হিন্দু, মুসলিম, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান সবাই মিলে-মিশে থাকবো। দেশে দুর্নীতি থাকবে না, ধনী-দরিদ্রের বৈষম্য থাকবে না। গ্রামের একজন মানুষ না খেয়ে মারা যাবে, আরেকজন শত কোটি টাকার মালিক হবে, সেটা হবে না। এ দেশটা আমাদের সকলের। প্রত্যেকটি মানুষের নাগরিক ও সাংবিধানিক অধিকার সমান

সুশাসন সম্পর্কিত তরুণদের এক প্রশ্নের উত্তরে মন্ত্রী এ সময় বলেন, সবার জন্য একই ধরনের শাসনই হলো সুশাসন। সরকারি কর্মকর্তাদের অর্পিত দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন, কেউ দুর্নীতি করলে, অন্যায় করলে ছাড় না পাওয়া-সেটাই সুশাসন। সমাজের জন্য, রাষ্ট্রের জন্য যেটা ন্যায্য, যেটা ভালো সেটা প্রশাসনিকভাবে সবার জায়গা থেকে করাই হচ্ছে সুশাসন

তরুণদের অপর এক প্রশ্নের উত্তরে মন্ত্রী জানান, আইন অনুযায়ী নিম্ন আদালত পরিপূর্ণভাবে স্বাধীন। আদালতের অনিয়ম দূর করার জন্য সরকার সচেষ্ট রয়েছে। অদূর ভবিষ্যতে বিচারের জন্য মানুষের হাহাকার থাকবে না

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কোভিড ব্যবস্থাপনা সম্পর্কিত এক প্রশ্নের উত্তরে শ ম রেজাউল করিম বলেন, কোভিড ব্যবস্থাপনায় বাংলাদেশ যা করতে পেরেছে তা পৃথিবীর অনেক দেশ পারে নি। এটা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পররাষ্ট্র নীতির অভাবনীয় সাফল্য। আমাদের প্রধানমন্ত্রী যেভাবে দূরদৃষ্টির পরিচয় দিয়েছেন, এটা সারা বিশ্বের প্রশংসা কুড়িয়েছে। পররাষ্ট্র নীতিতে ও ভ্যাকসিন ব্যবস্থাপনায় অনন্য নজির দেখিয়েছেন শেখ হাসিনা

এর আগে মন্ত্রী পিরোজপুর সদর উপজেলা পরিষদের পুকুরে মাছের পোনা অবমুক্ত করেন, ঘূর্ণিঝড় ও অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত স্থানীয় ব্যক্তিদের মাঝে ঢেউটিন ও আর্থিক অনুদানের চেক বিতরণ করেন এবং প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের প্রাণিসম্পদ ও ডেইরি উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় সুফলভোগীদের মাঝে মিল্ক ক্রিম সেপারেট মেশিন বিতরণ করেন। পরে পিরোজপুর জেলা ব্যান্ড বুকের মোড়ক উন্মোচন করেন তিনি। একইদিন বিকেলে শারদীয় দুর্গা পূজা উপলক্ষ্যে পিরোজপুর সদর উপজেলার বিভিন্ন দুর্গা মন্দিরে প্রধানমন্ত্রীর অনুদান, ব্যক্তিগত অনুদান এবং জেলা পরিষদের অনুদান প্রদান অনুষ্ঠানে যোগ দেন মন্ত্রী।


মিল্ক ক্রিম সেপারেট মেশিন বিতরণ অনুষ্ঠানে মন্ত্রী বরেন, দেশের যেসব অঞ্চলে অধিক দুধ উৎপাদিত হয় সেসব অঞ্চলে উৎপাদনকারীরা যাতে ক্ষতিগ্রস্ত না হয় এবং দুধ বাজারে বিক্রির সময় প্রতিকূল অবস্থায় পড়লে বিকল্প ব্যবস্থাপনার জন্য সরকার মিল্ক ক্রিম সেপারেটর মেশিন দিচ্ছে। পোল্ট্রি, ডেইরি বা মৎস্য খাতের মাথে সম্পৃক্তদের প্রণোদনা প্রদানের এ ধারাকে অব্যাহত রাখা হবে। প্রান্তিক পর্যায়ে মাছ, মাংস, দুধ, ডিম উৎপাদনকারীদের শেখ হাসিনা সরকার স্বাবলম্বী করতে চায়। শেখ হাসিনা সরকার সব সময় মানুষের পাশে আছে, পাশে থাকবে


পিরোজপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. বশির অহমেদের সঞ্চলনায় এ আয়োজনে প্যানেল আলোচক ছিলেন পিরোজপুরের জেলা প্রশাসক আবু আলী মোঃ সাজ্জাদ হোসেন, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সাঈদুর রহমান, পিরোজপুর জেলা মুক্তিযুদ্ধ সংসদের সাবেক কমান্ডার গৌতম নারায়ণ রায় চৌধুরী ও দৈনিক ইত্তেফাকের পিরোজপুর প্রতিনিধি মুনিরুজ্জামান নাসিম আলী।


আরও খবর