আজঃ শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪
শিরোনাম

স্বরূপকাঠিতে সাবেক চেয়ারম্যানের নিহতের ঘটনায় বর্তমান চেয়ারম্যানসহ গ্রেফতার ৬

প্রকাশিত:বুধবার ৩১ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ৩১ জানুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
হযরত আলী হিরু, স্বরূপকাঠি

Image

পিরোজপুরের স্বরূপকাঠিতে বিদ্যালয়ের বার্ষিক ক্রীড়া অনুষ্ঠানে অতিথি করা ও এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে সংগঠিত সংঘর্ষে আটঘর-কুড়িয়ানা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান শেখর কুমার সিকদার (৫৫) নিহত হওয়ার ঘটনায় ওই ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান মিঠুন হালদারসহ ৬ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বুধবার এ ঘটনায় নিহত চেয়ারম্যান শেখর সিকদারের স্ত্রী মালা মন্ডল বাদী হয়ে এজাহার নামীয় ১৫ জন এবং অজ্ঞাত আরও ১০/১২ জনকে আসামী করে নেছারাবাদ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন, মামলার প্রধান আসামী আটঘর-কুড়িয়ানা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মিঠুন হালদার (৪৫), শংকর সরকার (৪৬), আমিনুল ইসলাম ওরফে বাকিবিল্লাহ (২৫), তাপস মজুমদার (৫০), স্বাধীন হালদার (৩২) ও বাবুল হাওলাদার (৫৫)। মামলার অন্য আসামীরা হলেন, পংকজ সরকার (৫৫), মো. জহির (৪৫), মনি বড়াল (৪০), বুলু মন্ডল (৪০), শান্তি বড়াল (৫০), সঞ্জিব মিস্ত্রী ওরফে মোডাই (৪৫), মিলন পাইক (৪২), স্বপন মন্ডল (৪৮), সঞ্জয় বিশ্বাস (৩৬)।

এর আগে মঙ্গলবার রাতে র‌্যাব-৮ এর একটি দল চেয়ারম্যান মিঠুন হালদার ও বাকিবিল্লাহকে সাতক্ষীরার সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে আটক করে। বাকি ৪ জন আসামীকে কুড়িয়ানা এলাকা থেকে গ্রেফতার করে পুলিশ। বুধবার সকালে পিরোজপুরের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শরিফুল ইসলাম (পিপিএম), অতিরিক্ত পুলিশ (অপরাধ) সুপার মুকিত হাসান খাঁন, নেছারাবাদের ইউএনও মনিরুজ্জামান, সহকারি পুলিশ সুপার সাবিহা মেহেবুবা ও নেছারাবাদ থানার ওসি গোলাম ছরোয়ারের নেতৃত্বে পুলিশ ঘটনার স্থান পরিদর্শন করে কুড়িয়ানা বাজার সংলগ্ন কেন্দ্রিয় দুর্গা মন্দিরে উপস্থিত এলাকাবাসীকে এ ঘটনার সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনগত সর্বোচ্চ ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দিয়ে তাদেরকে শান্ত থাকার অনুরোধ জানান। পরে পুলিশ সুপার ও অন্যান্য পুলিশ কর্মকর্তারা নিহত চেয়ারম্যানের বাসভবনে গিয়ে তার পরিবারের সদস্যদের সাথে কথা বলেন। দুপুরে নেছারাবাদ থানা প্রাঙ্গনে সাংবাদকিদের উদ্দেশ্যে প্রেস ব্রিফিং করেন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শরিফুল ইসলাম (পিপিএম)।

মঙ্গলবার বেলা আনুমানিক ১১ টার দিকে উপজেলার আটঘর-কুড়িয়ানা ইউনিয়নের ৪২ নং কুড়িয়ানা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বার্ষিক ক্রীড়া অনুষ্ঠানে ওই ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান মিঠুন হালদারের আগে ওই ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান শেখর সিকদারকে অতিথি করা নিয়ে দুই চেয়ারম্যান সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষে সাবেক চেয়ারম্যান শেখর সিকদার সহ আরও ৪ জন আহত হন। স্থানীয়রা আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক শেখর সিকদারকে মৃত ঘোষনা করেন।

এ ঘটনার প্রতিবাদে নিহত সাবেক চেয়ারম্যান শেখর সিকদারের সমর্থকরা উত্তেজিত হয়ে কুড়িয়ানা বাজারের একটি অফিসঘরে, দুটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ও বর্তমান চেয়ারম্যানের বাড়িতে এবং তার দুই সমর্থকের বাড়িতে ভাংচুর চালায়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের জন্য ওই এলাকায় স্থানীয় পুলিশের সাথে র‌্যাব, অতিরিক্ত পুলিশ, ডিবি পুলিশ ও আনসার সদস্যদের মোতায়েন করা হয়।

বুধবার বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিহত চেয়ারম্যান শেখর সিকদারের লাশ ময়নাতদন্ত শেষে কুড়িয়ানার ব্রাক্ষ্মনকাঠিতে নিহতের নিজ বাড়িতে তার শেষকৃত্য সম্পন্ন হয়।


আরও খবর



৫৫ দেশে গাধার চামড়া ব্যবসা নিষিদ্ধ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

গাধার চামড়া বিক্রির বিতর্কিত চর্চা নিষিদ্ধ করল আফ্রিকান ইউনিয়ন। আফ্রিকা মহাদেশভিত্তিক এই জোটের ৫৫টি দেশে দেশে চামড়ার জন্য গাধা হত্যা বন্ধ করা হলো। এই সিদ্ধান্তকে প্রাণী অধিকার সংগঠনলো স্বাগত জানিয়েছে। গত রোববার ইথিওপিয়ায় অনুষ্ঠিত আফ্রিকান ইউনিয়ন শীর্ষ সম্মেলনে নেতারা এই নিষেধাজ্ঞায় অনুমোদন দেয়।

এজিয়াও নামে প্রাচীন চীনা ওষুধের কাঁচামাল হিসেবে ব্যবহৃত হয় গাধার চামড়া। ধারণা করা হয়, এজিয়াও মানুষের যৌবন বা তারুণ্য ধরে রাখে; ত্বক সুস্থ ও সুন্দর রাখে। বৈজ্ঞানিক প্রমাণ না থাকলেও দিন দিনই ওষুধটির চাহিদা বাড়ছে। এ কারণে গাধার চামড়া বিক্রিও বাড়ছে।

প্রাণী অধিকার সংস্থা দ্য চ্যারিটি, দ্য ডংকি স্যাংকচুয়ারি বিবিসিকে বলেন, চামড়া বিক্রির চর্চার কারণে আফ্রিকা ও লাতিন আমেরিকার দেশগুলোতে গাধার সংখ্যা ব্যাপক হারে কমে যাচ্ছে।

এজিয়াও উৎপাদনের জন্য আগে দেশীয় গাধার চামড়া ব্যবহার করতো চীনা কোম্পানিগুলো। চাহিদার চেয়ে সরবরাহে টান পড়ায় তাঁরা গাধার চামড়ার জন্য দেশের বাইরে খোঁজ শুরু করে। 

আরও পড়ুন>> ইসরায়েলের বর্বরতা : খাবারের জন্য অপেক্ষারত ফিলিস্তিনিদের ওপর গুলি বর্ষণ

কেনিয়ার গাধা অভয়ারণ্যের ডা. সোলোমোন অনয়াঙ্গো বিবিসিকে জানান, শুরুতে সরকার এটাকে সুযোগ হিসেবে বিবেচনা করে এবং আফ্রিকায় অনেক বৈধ জবাইখানা তৈরি হতে থাকে। কিন্তু এর ফলে ২০১৬ ও ২০১৯ সালের মধ্যে আমাদের অর্ধেকের বেশী গাধা মারা পড়ে।

ডা. অনয়াঙ্গো আরো জানান, এই নিষেধাজ্ঞা গাধা সংরক্ষণে এবং গাধার উপর নির্ভরশীল লাখো মানুষের জীবিকা বাঁচাতে সহায়ক হবে। বিশ্বের দুইতৃতীয়াংশ বা ৫ কোটি ৩০ লাখ গাধার চারণভূমি আফ্রিকা। দরিদ্র ও প্রান্তিক মানুষ যোগাযোগ ও মালামাল বহনের কাজে গাধা ব্যবহার করে থাকে।

ইথিওপিয়ায় গাধার অর্থনৈতিক মূল্য পরিমাপের এক সমীক্ষায় দেখা যায়, পরিবারে কোনো গাধা না থাকার অর্থ হলো একেবারে নিঃস্ব হওয়া।

পূর্ব আফ্রিকার প্রাণী কল্যাণ দাতব্য সংস্থা দ্য ব্রুকের আঞ্চলিক পরিচালক রাফায়েল কিনোটি বলেন, আফ্রিকার সেসব সম্প্রদায়ের জন্য এটি নিঃসন্দেহে দুর্দান্ত এক মুহূর্ত যারা দীর্ঘদিন ধরে গাধা থেকে উপকৃত হয়েছে। মানুষের তারুণ্য ধরে রাখতে জীবন যায় লাখো গাধারমানুষের তারুণ্য ধরে রাখতে জীবন যায় লাখো গাধার

কিনোটি আরো জানান, চামড়ার জন্য গাধা হত্যার এই প্রক্রিয়া আফ্রিকার মানুষের জীবন বিভীষিকাময় করে দেয়। এ সম্প্রদায়ের সংস্কৃতি ও পরিচয়; এ আঞ্চলের জীববৈচিত্র্য- সবকিছু হুমকির মুখে ফেলে দিয়েছিল।  সকলের সর্বোচ্চ কল্যাণার্থে এ সিদ্ধান্তে আফ্রিকান ইউনিয়নের সকল সদস্যকে অনড় ও অবিচল থাকতে হবে।


আরও খবর



গাজায় গণহত্যা’র প্রতিবাদে শরীরে আগুন নেওয়া মার্কিন সেনার মৃত্যু

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকায় চলমান গণহত্যার প্রতিবাদে ওয়াশিংটন ডিসিতে অবস্থিত ইসরায়েলি দূতাবাসের সামনে নিজের শরীরে আগুন নেওয়া সেই মার্কিন বিমানসেনা মারা গেছেন।

বিভিন্ন গণমাধ্যমের প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, আগুন নেওয়ার সময় ইন্টারনেটে সরাসরি সম্প্রচারিত একটি ভিডিওতে সামরিক পোশাক পরা মার্কিন বিমান বাহিনীর ওই সদস্য বলেন- আমি আর গণহত্যার সঙ্গে নিজেকে জড়িত রাখতে চাই না।

এরপর তিনি এক ধরনের স্বচ্ছ তরল জিনিস নিজের গায়ে ঢেলে আগুন ধরিয়ে নেন। এ সময় তিনি ফ্রি প্যালেস্টাইন বলে চিৎকার করতে থাকেন।

যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটনে ইসরায়েলি দূতাবাসের সামনে স্থানীয় সময় গত রবিবার বিকালে এই ঘটনা ঘটে। ওই সেনাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় সেখানকার একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হলে সোমবার তিনি মারা যান।

বিমানবাহিনীর ওই সদস্য ২৫ বছর বয়সী অ্যারন বুশনেল বলে জানা গেছে। তিনি টেক্সাসের বাসিন্দা। চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়েছে বলে মেট্রোপলিটন পুলিশ বিভাগ জানিয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত বছরের ৭ অক্টোবর থেকে ফিলিস্তিনের গাজায় আগ্রাসন শুরু করে ইহুদিবাদী ইসরায়েল। এরপর থেকে দীর্ঘ সময় ধরে অবরুদ্ধ ওই উপত্যাকায় নির্বিচারে মানুষ হত্যা চালিয়ে যাচ্ছে ইসরায়েলি বাহিনী। এতে রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত প্রায় ৩০,০০০ ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে। এর মধ্যে অধিকাংশই নারী ও শিশু। এছাড়া আহত হয়েছে আরও প্রায় ৭০ হাজার ফিলিস্তিনি।

গাজায় ইসরায়েলের এই বর্বরতা এরই মধ্যে বিশ্বব্যাপী গণহত্যা হিসেবে আখ্যা পেয়েছে। বিষয়টি নিয়ে জাতিসংঘের আন্তর্জাতিক বিচার আদালতেও একটি মামলা চলমান।

এই পরিস্থিতিতে যুদ্ধবিরতির জন্য ইসরায়েলের ওপর আন্তর্জাতিক চাপ বৃদ্ধি পাচ্ছে। কিন্তু তারপরও কোনও কিছুরই তোয়াক্কা করছে না ইহুদিবাদী দেশটি। আর তাদের জোরালো সমর্থন দিয়ে যাচ্ছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র।


আরও খবর



ট্রাম্পের কাছে ‘ঘরের মাঠেও’ হারলেন নিকি হেইলি

প্রকাশিত:রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

যুক্তরাষ্ট্রের আসন্ন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রিপাবলিকান পার্টির প্রার্থিতার দৌড়ে নিজের জন্মস্থান সাউথ ক্যারোলিনাতেও ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে হেরেছেন নিকি হেইলি। এর ফলে আগামী নভেম্বরে অনুষ্ঠিতব্য প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার প্রতিযোগিতায় আরও এগিয়ে গেলেন ট্রাম্প।

এর আগের চারটি অঙ্গরাজ্যে অনুষ্ঠিত রিপাবলিকান পার্টির প্রাথমিক প্রার্থী নির্বাচনেও বড় জয় পেয়েছিলেন ৭৭ বছর বয়সী এ নেতা।

ট্রাম্পের মানসিক সুস্থতা নিয়ে প্রশ্ন ও তিনি ফের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হলে যুক্তরাষ্ট্রে অরাজকতা সৃষ্টি হবে দাবি করে জোরালো প্রচারণা চালিয়েছিলেন নিকি হেইলি। কিন্তু তার সেসব দাবি যে রিপাবলিকান শিবিরে খুব একটা প্রভাব ফেলতে পারেনি, তা প্রাথমিক ভোটের ফলাফলেই স্পষ্ট।

তাৎক্ষণিকভাবে সাউথ ক্যারোলিনায় ট্রাম্পের জয় ব্যবধান জানা যায়নি। তবে সেটি বেশ বড় হবে বলেই ধারণা করা হচ্ছে। ২০১০র দশকে সাউথ ক্যারোলিনার গভর্নর হিসেবে ব্যাপক জনপ্রিয়তা লাভ করেন নিকি হেইলি। রিপাবলিকান পার্টির প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হওয়ার দৌড়ে অংশ নেওয়া একমাত্র নারীও তিনি।

অন্যান্য অঙ্গরাজ্যে হারলেও নিজের ঘরের মাঠ সাউথ ক্যারোলিনায় জেতার আশা করেছিলেন নিকি। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ট্রাম্পের ডানপন্থি আমেরিকা ফার্স্ট ব্র্যান্ডের জনপ্রিয়তার সামনে দাঁড়াতে পারলেন না তিনি।

ট্রাম্প এর আগে আইওয়ায় ৩০ পয়েন্টে এবং নিউ হ্যাম্পশায়ারে ১০ পয়েন্টের ব্যবধানে জিতেছেন। নেভাদায় জয়ী হয়েছেন একেবারে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায়। জয় পেয়েছেন ভার্জিন আইল্যান্ডের নির্বাচনেও।

বিশ্লেষকদের ধারণা, সাউথ ক্যারোলিনায় অন্তত ১৫ পয়েন্টের ব্যবধানে জয়ী হয়েছেন ট্রাম্প।


আরও খবর



সাড়ে তিন মাস পর কারামুক্ত হলেন ফখরুল-খসরু

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আদালত প্রতিবেদক

Image

দ্বাদশ জাতীয় নির্বাচনের আগে বিএনপির মহাসমাবেশ কেন্দ্র করে সংঘর্ষের ঘটনার মামলায় গ্রেপ্তার হওয়ার সাড়ে তিন মাস পর জামিনে কারামুক্ত হয়েছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী।

বৃহস্পতিবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) বিকাল পৌনে ৪টার দিকে কেরানীগঞ্জে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে বের দুজনের নিজ বাসার উদ্দেশে রওনা হয়েছেন।

গত ২৮ অক্টোবর রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির মহাসমাবেশ কেন্দ্র করে সংঘর্ষের ঘটনায় ফখরুলের বিরুদ্ধে ১১টি ও খসরুর বিরুদ্ধে ১০টি মামলা হয়েছিল। সবগুলো মামলায় তারা জামিন পেয়েছেন। সবশেষ গতকাল বুধবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) প্রধান বিচারপতির বাসভবনে হামলা ও নাশকতার মামলায় জামিনের মাধ্যমে কারামুক্ত হলেন তারা।

গত ২৮ অক্টোবর বিএনপির মহাসমাবেশ শুরুর আগেই কাকরাইলে দুপুর থেকে বিএনপির নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হয়। এ সংঘর্ষ পরে বিজয়নগর পানির ট্যাংক ও শান্তিনগর এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে। বেলা ৩টার দিকে বিএনপির মহাসমাবেশ পণ্ড হয়ে যায়। এ সংঘর্ষে পুলিশের এক সদস্য ও যুবদলের ওয়ার্ড পর্যায়ের এক নেতা নিহত হন। আহত হন পুলিশের ৪১ ও আনসারের ২৫ সদস্য। এ ছাড়া কমপক্ষে ২০ জন সাংবাদিক আহত হন।

সমাবেশ থেকেই পরদিন সারা দেশে হরতালের ডাক দেয় বিএনপি। ২৯ অক্টোবর হরতালের সকালে গুলশানের বাসা থেকে ফখরুলকে গ্রেপ্তার করে গোয়েন্দা পুলিশ। আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরীকে ২ নভেম্বর রাতে গুলশানের একটি বাসা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।


আরও খবর
জজ কোর্ট চত্বরে ককটেল বিস্ফোরণ

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




বেইলি রোডে আগুন: নিহত ৩৮ জনকে স্বজনদের কাছে হস্তান্তর

প্রকাশিত:শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

রাজধানীর বেইলি রোডের কাচ্চি ভাই রেস্টুরেন্টে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় এখন পর্যন্ত ৪৬ জন মারা গেছেন। এরমধ্যে ৪০ জনকে শনাক্ত করা হয়েছে। তাদের মধ্যে ৩৮ জনের মৃতদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

শুক্রবার (০১ মার্চ) সকাল ১১টা পর্যন্ত ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল থেকে এসব মৃতদেহ হস্তান্তর করা হয়। ঢাকা জেলা প্রসাশকের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট এ কে এম হেদায়েতুল ইসলাম এসব তথ্য জানান।

এদিকে আজ সকালে অগ্নিদগ্ধদের দেখতে হাসপাতালে যান স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. সামন্ত লাল সেন। তিনি জানান, অগ্নিকাণ্ডে ৪৬ জন মারা যান। আর অগ্নিদগ্ধ ১২ জন হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। তাদের মধ্যে বার্ন ইউনিটে ১০ জন ও ঢাকা মেডিক্যালে দুইজন শঙ্কটাপন্ন অবস্থায় রয়েছেন।


আরও খবর