আজঃ মঙ্গলবার ২০ এপ্রিল ২০21
শিরোনাম

টিকাদানে বিশ্বের প্রথম ২০ দেশের মধ্যে বাংলাদেশ: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:বুধবার ০৭ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ০৭ এপ্রিল ২০২১ | ১০১জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
করোনা মহামারি সফলভাবে মোকাবিলা, সময়োচিত ও যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণ, অর্থনীতি পুনরুদ্ধার এবং জীবনযাত্রার মান সচল রাখার ক্ষেত্রে যুক্তরাষ্ট্রের ব্লুমবার্গ প্রণীত কোভিড-১৯ সহনশীল

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বিশ্বের অনেক দেশের আগেই বাংলাদেশে কোভিড-১৯ মোকাবিলায় টিকাদান কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে। এ পর্যন্ত ১ কোটি ২ লাখ ডোজ ভ্যাকসিন দেশে আনা হয়েছে। করোনাভাইরাসের টিকাদানে বিশ্বের প্রথম সারির ২০টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশ চলে এসেছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবস-২০২১ উপলক্ষে দেয়া এক বাণীতে বুধবার (৭ এপ্রিল) তিনি এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ৭ এপ্রিল বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবস পালিত হচ্ছে জেনে আমি আনন্দিত। এ উপলক্ষে আমি সবাইকে জানাই আন্তরিক অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা। এবারের বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবসের প্রতিপাদ্য বিল্ডিং অ্যা ফেয়ারার, হেলদিয়ার ওয়ার্ল্ড; যার মর্মার্থ দাঁড়ায়- সবার জন্য সুন্দর ও স্বাস্থ্যকর বিশ্ব গড়ি। প্রতিপাদ্যটি তাৎপর্যপূর্ণ ও সময়োপযোগী হয়েছে বলে আমি মনে করি।

তিনি আরও বলেন, করোনাভাইরাসের সংক্রমণের কারণে সারাবিশ্ব এখন একটি কঠিন সময়ের মধ্য দিয়ে পার হচ্ছে। আমাদের সরকার করোনা বিস্তারের প্রথম দিক থেকে একটি সমন্বিত ও কার্যকর কর্মসূচি হাতে নেয়। আমাদের সীমিত জনবল, চিকিৎসা-সামগ্রী ও জনগণের মাঝে করোনা রোগ প্রতিরোধের ব্যাপারে সচেতনতা বৃদ্ধি, করোনা টেস্টিং, টেলি-মেডিসিনের মাধ্যমে পরামর্শ প্রদান, সঙ্গনিরোধ, কোভিড হাসপাতাল স্থাপন, হাসপাতালে অক্সিজেনসহ জীবন রক্ষাকারী সামগ্রীর ব্যবস্থা, চিকিৎসক ও নার্স নিয়োগসহ বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করে অন্যান্য দেশের তুলনায় করোনা নিয়ন্ত্রণে সফলতা অর্জন করি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, করোনা মহামারি সফলভাবে মোকাবিলা, সময়োচিত ও যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণ, অর্থনীতি পুনরুদ্ধার এবং জীবনযাত্রার মান সচল রাখার ক্ষেত্রে যুক্তরাষ্ট্রের ব্লুমবার্গ প্রণীত কোভিড-১৯ সহনশীল র্যাং কিংয়ে বাংলাদেশ দক্ষিণ এশিয়ায় শীর্ষ ও বিশ্বে ২০তম স্থান অর্জন করেছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মহাপরিচালক ব্যক্তিগতভাবে বাংলাদেশের করোনা মোকাবিলার জন্য আমাদের বিভিন্ন পদক্ষেপের ভূয়সী প্রশংসা করেন।

তিনি বলেন, গ্রামীণ, প্রান্তিক ও সুবিধাবঞ্চিত জনগোষ্ঠীর জন্য কমিউনিটি ক্লিনিকে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা ও ওষুধ প্রদান করা হচ্ছে। শিশুমৃত্যু ও মাতৃমৃত্যু হার উল্লেখযোগ্য হারে হ্রাসমান। গড় আয়ু ৭২.৬ বছরে এসে দাঁড়িয়েছে। টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট ও সার্বজনীন স্বাস্থ্য সুরক্ষা অর্জনে আমরা বিভিন্ন কর্মসূচি বাস্তবায়ন করে যাচ্ছি। দেশে কোভিড-১৯-এর দ্বিতীয় ঢেউ প্রতিরোধের জন্য মাস্ক ব্যবহার, হাত ধোয়ার স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ, হাঁচি-কাশির শিষ্টাচারসহ অন্যান্য নিরাপদ অভ্যাসসমূহ আমাদের মেনে চলতে হবে। করোনার পাশাপাশি আমাদের অত্যাবশ্যকীয় জরুরি স্বাস্থ্যসেবা যেন কোনো ধরনের ব্যাহত না হয় সে ব্যাপারে সবাইকে সজাগ ও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

শেখ হাসিনা আরও বলেন, আমি বিশ্বাস করি, এ মহামারি মোকাবিলায় আমরা এখন আগের চেয়ে অনেক বেশি অভিজ্ঞ, দক্ষ, প্রশিক্ষিত ও সাহসী। এই সঙ্কটকালে সেবা দিতে গিয়ে অনেক চিকিৎসক, নার্স ও অন্যান্য সেবাদানকারী মারা গেছেন। আমি তাদের আত্মার মাগফেরাত ও শান্তি কামনা করি এবং পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা প্রকাশ করছি। আমি বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবস ২০২১-এর সার্বিক সাফল্য কামনা করি।


আরও খবর



অমর একুশে বইমেলার পর্দা নামছে আজ

প্রকাশিত:সোমবার ১২ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১২ এপ্রিল ২০২১ | ৬৯জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ উদ্বেগজনক হারে বেড়ে যাওয়ায় নির্ধারিত সময়ের দু'দিন আগে আজ সোমবার (১২ এপ্রিল) শেষ হচ্ছে অমর একুশে বইমেলা। করোনা পরিস্থিতির মধ্যে গত ১৮ মার্চ থেকে শুরু হওয়া বই মেলার পর্দা নামছে ২৬ দিনেই। এর আগে পহেলা বৈশাখ অর্থাৎ ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত মেলা পরিচালনার সিদ্ধান্ত থাকলেও তা দুইদিন কমিয়ে নতুন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ।

প্রতিবছর আনুষ্ঠানিকভাবে বই মেলার সমাপ্তি ঘোষণা করা হলেও এবার তেমন কিছু থাকছে না বলে জানিয়েছে বাংলা একাডেমি। শেষদিনে বই মেলা দুপুর ১২টায় খুলবে এবং বিকেল ৫টায় বন্ধ হয়ে যাবে।

সাধারণত প্রতি বছরের ১ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণে বইমেলা শুরু হয়ে চলে পুরো মাস। এবার করোনাভাইরাস মহামারির কারণে অনিশ্চয়তায় পড়ে বইমেলা। করোনা প্রাদুর্ভাবের কারণে এ বছর একুশে বইমেলা ভার্চুয়াল বা অনলাইনে করার কথা উঠেছিল।

পরে অনিশ্চয়তা কাটিয়ে গত ১৮ মার্চ উদ্বোধন করা হয় ৩৭তম অমর একুশে বইমেলার। গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি অমর একুশে বইমেলার উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

শুক্র ও শনিবার বেলা ১১টা থেকে রাত ৯টা এবং অন্যান্য দিন বেলা ৩টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত মেলা চলছিল। করোনার সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ার প্রেক্ষাপটে এখন সময় কমিয়ে রাত ৮টা পর্যন্ত করা হয়।

পরে ৫ এপ্রিল থেকে সাতদিনের বিধি-নিষেধ আরোপ করা হলেও বইমেলা বন্ধ করা হয়নি। এই পরিস্থিতিতেও প্রতিদিন দুপুর ১২টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত একুশে বইমেলা চলছে।

উল্লেখ্য, করোনার দ্বিতীয় ঢেউ ও সংক্রমণ প্রতিরোধে গত ১ এপ্রিল চলমান বইমেলা, সামাজিক অনুষ্ঠান, বিনোদনকেন্দ্র ও অন্যান্য মেলা অবিলম্বে বন্ধের সুপারিশ করেছিল জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটি।


আরও খবর
অগ্নি স্নানে শুচি হোক ধরা

বুধবার ১৪ এপ্রিল ২০২১




কর্মস্থলে যেতে গুণতে হচ্ছে ৩ গুণ ভাড়া

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৫ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৫ এপ্রিল ২০২১ | ৯০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
আট দিনের কঠোর লকডাউনে জরুরি সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান ও সংস্থা ছাড়া গণপরিবহন, সরকারি ও বেসরকারি সকল প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। একই সাথে নিজস্ব পরিবহন ব্যবস্থা ও শতভাগ স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করার নির্দেশনা দিয়ে

করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়াতে সারাদেশে চলমান রয়েছে লকডাউন। অন্যদিকে সরকারের কঠোর বিধি-নিষেধের মধ্যেও খোলা রয়েছে পোশাক শিল্প কারখানা। এ লকডাউনে কারখানার নিজস্ব পরিবহনে শ্রমিকদের যাতায়াতের ব্যবস্থা করার কথা থাকলেও সেটি মানছেন না শিল্প-কারখানার কর্তৃপক্ষ। এ কারণে রিক্সা, ভ্যান, পিকঅ্যাপ ভ্যানে করে কারখানায় যেতে শ্রমিকদের ভাড়া গুণতে হচ্ছে প্রায় ৩ গুণ বেশি।

বৃহস্পতিবার (১৫ এপ্রিল) সকাল ৮টার দিকে সাভার ও আশুলিয়ার বিভিন্ন শিল্প এলাকা ঘুরে দেখা যায় শ্রমিকরা বেশি ভাড়া দিয়ে কারখানায় যাচ্ছে।

এদিকে আট দিনের কঠোর লকডাউনে জরুরি সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান ও সংস্থা ছাড়া গণপরিবহন, সরকারি ও বেসরকারি সকল প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। একই সাথে নিজস্ব পরিবহন ব্যবস্থা ও শতভাগ স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করার নির্দেশনা দিয়ে খোলা রয়েছে পোশাক কারখানা।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ বস্ত্র ও পোশাক শিল্প শ্রমিক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক সারোয়ার হোসেনের বলেন, এই ক্রান্তি-লগ্নে শুধুমাত্র পোশাক কারখানা খোলা রয়েছে। কঠোর লকডাউনে শ্রমিক বলেই কাজে যাচ্ছে তারা। শ্রমিকরা দেশের অর্থনীতির চালিকাশক্তি। তাই তাদের শতভাগ স্বাস্থ্য সুরক্ষার দাবি জানাই।


আরও খবর



ঝড়ো হাওয়া-বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে দেশের অধিকাংশ জেলায়

প্রকাশিত:বুধবার ০৭ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ০৭ এপ্রিল ২০২১ | ১৫৯জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

কুষ্টিয়া অঞ্চলসহ রংপুর, রাজশাহী, ঢাকা, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের দু-এক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা ও ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি ও বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। এছাড়া দেশের অন্যত্র অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে।

আজ বুধবার (৭ এপ্রিল) সকাল ৯টায় পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূবার্ভাসে এসব তথ্য জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

পশ্চিমা লঘুচাপের বর্ধিতাংশ পশ্চিমবঙ্গ ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছে। অপর একটি বর্ধিতাংশ উত্তর বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে।

পূর্বাভাসে আরও বলা হয়েছে, সারাদেশে দিনের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে এবং রাতের তাপমাত্রা সামান্য বৃদ্ধি পেতে পারে। আগামী তিন দিনে আবহাওয়ার সামান্য পরিবর্তন হতে পারে।


আরও খবর



আজ রাজধানীতে চালু হচ্ছে ১০টি ইউটার্ন

প্রকাশিত:শনিবার ০৩ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ০৩ এপ্রিল ২০২১ | ১০১জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
সড়কের উভয়দিকে ডানে মোড় নেওয়ার সব পয়েন্ট বন্ধ করে দেওয়া হবে। এ জন্য ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) ট্র্যাফিক বিভাগের সহযোগিতা নেবে ডিএনসিসি

রাজধানীর তেজগাঁও সাতরাস্তা মোড় থেকে উত্তরা হাউজবিল্ডিং পর্যন্ত সড়কে আনুষ্ঠানিকভাবে আজ শনিবার থেকে চালু হতে যাচ্ছে ১০টি ইউটার্ন। সড়কটিতে ১০টি ইউটার্ন চালুর সঙ্গে সঙ্গে ডানে মোড় নেওয়ার (রাইটটার্ন) পয়েন্টগুলো বন্ধ করে দেওয়া হবে।

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি)এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, বাস্তবায়নাধীন ঢাকার তেজগাঁও সাতরাস্তা মোড় থেকে উত্তরা হাউজবিল্ডিং পর্যন্ত ১১টি ইউটার্ন নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় উত্তরা রাজলক্ষ্মীর সামনে, উত্তরা র্যা ব-১ অফিস, ফ্লাইং ক্লাব কাওলা, বনানী ওভারপাস, বনানী আর্মি স্টেডিয়ামের সামনে, বনানী চেয়ারম্যানবাড়ি, মহাখালীর আমতলী, মহাখালী বাস টার্মিনালের সামনে, তেজগাঁও নাবিস্কো মোড় এবং সাতরাস্তার বিজি প্রেস এলাকায় নির্মিত ১০টি ইউটার্ন যানবাহনের ব্যবহারের জন্য শনিবার উন্মুক্ত করা হবে।

একইসঙ্গে সড়কের উভয়দিকে ডানে মোড় নেওয়ার সব পয়েন্ট বন্ধ করে দেওয়া হবে। এ জন্য ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) ট্র্যাফিক বিভাগের সহযোগিতা নেবে ডিএনসিসি। বন্ধ হতে যাওয়া ডানে মোড় নেওয়ার পয়েন্টগুলো হলোনেভি হেড কোয়ার্টারের শাখা রাস্তা, বনানী রোড নম্বর ২৭, বনানী কাকলী, বনানী রোড নম্বর ১১, মহাখালী আমতলী মোড়, তেজগাঁও কোহিনুর মোড়, লাভ রোড মোড়। রাজধানীর যানজট হ্রাস করতে এসব এলাকায় চলাচলকারী যানবাহনকে ইউটার্নগুলো ব্যবহার করতে অনুরোধ করেছে ডিএনসিসি।

ডিএনসিসির নির্বাহী প্রকৌশলী মোহাম্মদ ফরহাদ বলেন, ইউটার্নগুলো আগেও চালু ছিল। তবে এবার আমরা আনুষ্ঠানিকভাবে এগুলো চালু করতে যাচ্ছি। একইসঙ্গে সড়কটির রাইটটার্ন বন্ধ করে দেব। এটা এই প্রকল্পের অন্যতম দিক। এর ফলে যানজট কমে আসবে।

প্রসঙ্গত, তেজগাঁও সাতরাস্তা মোড় থেকে উত্তরা হাউজবিল্ডিং পর্যন্ত সড়কে ১১টি ইউটার্ন নির্মাণের প্রকল্প হাতে নেওয়া হলেও পরে ১০টি ইউটার্ন নির্মাণের সিদ্ধান্ত হয়।


আরও খবর



ঊর্ধ্বতনদের অনিয়মের তথ্য দিলে পুরস্কৃত হবেন পুলিশ সদস্যরা

প্রকাশিত:সোমবার ২২ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ২২ মার্চ ২০২১ | ১১৯জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে সরাসরি অভিযোগ জানাতে পারবেন অধস্তন পুলিশ সদস্যরা। এজন্য সেই সদস্যের বিরুদ্ধে কোনো ধরনের শাস্তিমূলক বা হয়রানিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া যাবে না। পুলিশের সব ইউনিটে আজ এ সংক্রান্ত একটি নির্দেশনা জারি করছে সদর দপ্তর। গতকাল রবিবার পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদ এ সংক্রান্ত নির্দেশনায় অনুমোদন করেছেন বলে জানা গেছে। নির্দেশনার শিরোনাম দেওয়া হয়েছে (ক) জনস্বার্থ সংশ্লিষ্ট তথ্য প্রকাশ (সুরক্ষা প্রধান) আইন, ২০১১ এবং (খ) জনস্বার্থ সংশ্লিষ্ট তথ্য প্রকাশ (সুরক্ষা প্রদান) বিধিমালা, ২০১৭ প্রতিপালন প্রসঙ্গে।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এ নির্দেশনার ফলে একজন কনস্টেবলও পুলিশ সুপার (এসপি), ডিআইজি বা তারও উচ্চপর্যায়ের কর্মকর্তার বিরুদ্ধে উপযুক্ত কর্তৃপক্ষের কাছে সরাসরি অভিযোগ জানাতে পারবেন।

তবে কেউ যদি হয়রানির উদ্দেশ্যে মিথ্যা তথ্য দিয়ে বা অসৎ উদ্দেশ্যে কাউকে ঘায়েল করার জন্য অভিযোগ দেয় তদন্তে তা প্রমাণিত হলে ওই ব্যক্তির বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা ও চাকরিচ্যুতিসহ শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া যাবে।

একাধিক পুলিশ সুপার গতকাল জানিয়েছেন, ইউনিটপ্রধান বা ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে থাকেন অধস্তন পুলিশ সদস্যরা। তারা ক্ষমতার অপব্যবহার, দুর্নীতি অনিয়মের বিষয়গুলো সরাসরি প্রত্যক্ষ করেন। তাই ওই পুলিশ সদস্য নির্বিঘে্ন রেঞ্জ ডিআইজি বা ঊর্ধ্বতন উপযুক্ত কর্তৃপক্ষের কাছে ওই তথ্য তুলে ধরতে পারবেন। তাই তারাও বিষয়টিকে স্বাগত জানিয়েছেন।

পুলিশের অতিরিক্ত আইজিপি ও সিআইডিপ্রধান ব্যারিস্টার মাহবুবুর রহমান বলেন, দুর্নীতিবিরোধী যেকোনো তৎপরতাকে আমরা সবসময় স্বাগত জানাই। বর্তমান আইজিপি দুর্নীতি অনিয়মের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান ও জিরো টলারেন্স নীতি ঘোষণা করেছেন। আমি আমার ইউনিটকেও বলেছি দুর্নীতি অনিয়ম করলে কেউ রেহাই পাবে না।

পুলিশ সদর দপ্তরের ডিআইজি (মিডিয়া) মো. হায়দার আলী খান বলেন, এ সংক্রান্ত বিধিমালা আগেই বলবৎ রয়েছে। স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতার স্বার্থে বিষয়টি প্রতিপালন করা সবার কর্তব্য।

জানা গেছে, পুলিশে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের দাপ্তরিক কাজের সুবিধার্থে কনস্টেবল, এএসআই ও এসআই পদমর্যাদার কর্মকর্তারা কাজ করেন। বিশেষ করে তাদের গাড়িচালক, আর্দালি, পিয়ন পদে কনস্টেবলরা কাজ করেন। এসব কনস্টেবল ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের অনেক দুর্নীতি, অনিয়মের তথ্য জানতে পারেন। কিন্তু চাকরি যাওয়ার ভয়ে তারা কারও কাছে মুখ খোলেন না। আবার অনেকে সরকারি বাহিনীর সদস্যদের দিয়ে বাজার করানো, বাসার কাজ করানো থেকে শুরু করে বহুবিধ ব্যক্তিগত কাজ করান। এতে বাহিনীর সদস্যদের মধ্যে একধরনের হতাশা দেখা দেয়। কনস্টেবল বা নিম্নপদের কর্মকর্তারা চাকরি হারানোর ভয়ে মুখবুঝে এসব সহ্য করেন। এ নির্দেশনার ফলে তারা সরাসরি অভিযোগ জানাতে পারবেন। সত্য অভিযোগ জানালে কাউকে কোনো শাস্তি দেওয়া যাবে না।

পুলিশ সদর দপ্তর থেকে জারি করা নির্দেশনায় বলা হয়, জনস্বার্থ সংশ্লিষ্ট সঠিক তথ্য প্রদান ও প্রাসঙ্গিক অন্যান্য বিষয় উল্লেখপূর্বক (ক) জনস্বার্থ সংশ্লিষ্ট তথ্য প্রকাশ (সুরক্ষা প্রধান) আইন, ২০১১ এবং (খ) জনস্বার্থ সংশ্লিষ্ট তথ্য প্রকাশ (সুরক্ষা প্রদান) বিধিমালা, ২০১৭ বিদ্যমান রয়েছে। আইন ও বিধিমালায় সরকারি অর্থের নিয়মিত ও অননুমোদিত ব্যয়, সরকারি সম্পদ অব্যবস্থাপনা, ক্ষমতার অপব্যবহার ও দুর্নীতি সংক্রান্ত অপরাধের তথ্য প্রকাশের বিষয়ে তথ্য প্রকাশকারীর সুরক্ষা বিষয়ে নির্দিষ্ট ফরমে সংরক্ষণের বিষয়ে উল্লেখ রয়েছে। যার মাধ্যমে সরকারি প্রতিষ্ঠানের স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিতসহ দুর্নীতি বন্ধ হবে।

আইন ও বিধিমালায় কোনো তথ্য প্রকাশকারী উপযুক্ত কর্তৃপক্ষের নিকট, যুক্তিযুক্ত বিবেচনায়, জনস্বার্থ সংশ্লিষ্ট কোনো তথ্য প্রকাশ করলে, উক্ত ব্যক্তির সম্মতি ব্যতীত, তার পরিচিতি প্রকাশ না করা এবং তথ্য প্রকাশকারীর বিরুদ্ধে কোনো ফৌজদারি বা দেওয়ানি মামলা বা প্রযোজ্য ক্ষেত্রে কোনো বিভাগীয় মামলা দায়ের না করার বিধান রয়েছে। এছাড়া তথ্য প্রকাশকারী কোনো চাকরিজীবী হলে তাকে পদাবনতি, হয়রানিমূলক বদলি, বিভাগীয় ব্যবস্থাগ্রহণ ও বৈষম্যমূলক আচরণ করাসহ তথ্য প্রকাশকারীর সুরক্ষা, মিথ্যা তথ্য প্রকাশ করার দণ্ড, ফৌজদারি কার্যবিধির প্রয়োগ, তদন্ত ও আইনানুগ কার্যক্রম, পুরস্কার বা সম্মাননা প্রদান ইত্যাদি বিষয়ে উল্লেখ রয়েছে।

এ সংক্রান্ত আইন ও বিধিমালা ইউনিটপ্রধানদের নিজ নিজ ইউনিটের সব সদস্যকে অবহিত করে পুলিশ সদর দপ্তরকে জানাতে বলা হয়েছে।

নিউজ ট্যাগ: ড. বেনজীর আহমেদ

আরও খবর