আজঃ বৃহস্পতিবার ২৪ জুন ২০২১
শিরোনাম

ভালোবাসার মানুষের সঙ্গে সমস্যার সুন্দর সমাধান হয় যেভাবে

প্রকাশিত:সোমবার ৩১ মে ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ৩১ মে ২০২১ | ৪০৯জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দুজন মানুষ মিলে একটি সম্পর্কে দীর্ঘদিন থাকার ফলে মাঝে মধ্যে কথা কাটাকাটি বা তর্ক-বিতর্ক হতেই পারে। অনেক সময় ছোট ছোট বিষয় নিয়ে ঝামেলা হয়ে তা বিশাল সমস্যাও সৃষ্টি করে সম্পর্কের মধ্যে। এসব কারণে সম্পর্কে থাকা একজন তো অবশ্যই রেগে থাকেন। কিংবা ক্ষোভের জন্য তাৎক্ষণিক সময় ভুল সিদ্ধান্ত নেয়াও হয়। সঙ্গীর সঙ্গে বিভিন্ন সময় ঝামেলা কিংবা সমস্যা হতেই পারে, তবে তাৎক্ষণিক কোনো সিদ্ধান্ত নয়। এসব সমস্যা সমাধানে কিছু কার্যকরী উপায় তুলে ধরা হলো।

সঙ্গী কেন রেগে আছে বুঝার চেষ্টা করা : সঙ্গী কেন রেগে আছে তা অবশ্যই বুঝার চেষ্টা করতে হবে। আপনিই যে তার সুখ-দুঃখের সঙ্গী। আপনি যদি বুঝতে না চান তাহলে তার রাগ কিংবা ক্ষোভ ভেতরেই থেকে যাবে। হতে পারে এখান থেকে সম্পর্কের ইতি টানা।

অনুভূতি বুঝতে চাওয়া : প্রেমিকা ভালোবাসে আপনাকে। তাহলে তিনি কখনোই কারণ ছাড়া রাগ করবে না। অভিমান করেছে হয় তো, এর পেছনেও তো কারণ রয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে সঙ্গীর অভিমান ভাঙানোর চেষ্টা করুন। সে কি চাচ্ছে তা বুঝার চেষ্টা করুন। দেখবেন সঙ্গীর মুখে মৃদু হাসি ফুটে উঠেছে।

নিজেকে নির্দোষ ভাববেন না : নিজেরও ভুল হতে পারে। মানুষ কখনো কোনো ভুলের ঊর্ধ্বে নয়। সেদিক থেকে কোনো কারণে আপনারও ভুল হতে পারে। সঙ্গী যদি কখনো আপনার কোনো বিষয় ভুল বলে বিবেচনা করে তাহলে রেগে যাবেন না। আপনি সহজভাবে বিষয়টি নিয়ে ভাবুন। এতে আপনি ছোট হবেন না, বরং সম্পর্ক হবে আরও মজবুত।

প্রতিশ্রুতি : কখনো কোনো ভুল হয়ে থাকলে সেই ভুল মেনে নিন এবং কথা দিন যে, কখনো এমন ভুল হবে না। এতে সঙ্গী বুঝতে পারবে আপনি আপনার ভুলের জন্য অনুতপ্ত। আর ভুলগুলো মনে রাখার চেষ্টা করুন। দেখবেন পরবর্তীতে এমন ভুল হবে না।

সমাধান নিয়ে ভাবুন : প্রতিটি সমস্যারই সমাধান রয়েছে। ঝগড়া, সমস্যা ও তর্ক-বিতর্ক সম্পর্কের মাঝে থাকবেই। তাই বলে তা জটিল করবেন না। এসবের সমাধান রয়েছে। সমাধান নিয়ে ভাবুন। প্রয়োজনে সঙ্গীর সহায়তা নিন। দুজন একসঙ্গে সমাধান নিয়ে ভাবুন। সম্পর্ক গভীর হবে। সমস্যা সমাধান হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ভালোবাসাও মজবুত হবে।


নিউজ ট্যাগ: ভালোবাসার মানুষ

আরও খবর
বাবার জন্য ভালোবাসা

রবিবার ২০ জুন ২০21




নেত্রকোনায় আকস্মিক ঘূর্ণিঝড়, শতাধিক ঘর বিধ্বস্ত

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০১ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০১ জুন ২০২১ | ১২৯জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলায় আকস্মিক ঘূর্ণিঝড় হয়েছে। এতে শতাধিক ঘর ও অসংখ্য গাছপালা উপড়ে গেছে। 

সোমবার (৩১ মে) বিকেলে উপজেলার বলাইশিমুল ইউনিয়নের লস্করপুর, ভরাপাড়া গ্রাম ও নোয়াপাড়া ইউনিয়নের পুড়াবাড়ী গ্রামে ঘূর্ণিঝড় হয়। এতে সড়কে গাছপালা পড়ে যাতায়াত ব্যবস্থা বন্ধ হয়ে গেছে। এলাকায় বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মঈন উদ্দিন খন্দকার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তিনি জানান, বিকেলে হঠাৎ করে দু-তিন মিনিটের ঘূর্ণিঝড়ে শতাধিক ঘর বিধ্বস্ত হয়েছে। অসংখ্য গাছপালা ও শাকসবজির ক্ষেত ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা তৈরি করা হচ্ছে। মঙ্গলবার (১ জুন) থেকে তাদের মাঝে শুকনো খাবার বিতরণ করা হবে বলে জানান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা।


আরও খবর



রাজধানীতে বাসা থেকে বাবা-মা-মেয়ের লাশ উদ্ধার

প্রকাশিত:শনিবার ১৯ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ১৯ জুন ২০২১ | ৮৩জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রাজধানীর কদমতলীতে একই পরিবারের তিনজনের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এছাড়া আরও দুজনকে অচেতন অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

মুরাদপুর এলাকা থেকে শনিবার সকালে লাশগুলো উদ্ধার করা হয়। কদমতলী থানার ওসি মীর জামাল উদ্দিন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

নিহতরা হলেন, মাসুদ রানা (৫০), তার স্ত্রী মৌসুমী ইসলাম (৪০) ও মেয়ে জান্নাতুল (২০)।

হত্যাকারী সন্দেহে এই পরিবারের বড় মেয়ে মেহজাবিনকে আটক করেছে পুলিশ। মেহজাবিনের স্বামী শফিকুল ইসলাম (৪০) ও মেয়ে মারজান তাবাসসুম তৃপ্তিয়া (৬) ঢামেকে চিকিৎিসাধীন আছেন।

হাসপাতালে শফিকুল বলেন, রাতে শ্বশুরবাড়িতে বেড়াতে এসেছিলাম। খাবার ও চা খেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়ি। আমার মেয়েও অচেতন হয়ে যায়।

পুলিশের ধারণা, শুক্রবার রাতে নেশাজাতীয় দ্রব্য খাইয়ে তিনজনকে গলায় ফাঁস দিয়ে শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যা করা হয়ে থাকতে পারে।

ওসি জামাল উদ্দিন বলেন, আমরা মরদেহগুলো হাত পা বাঁধা অবস্থায় পেয়েছি। গতকালকে রাতে তাদের হত্যা করা হয়েছে। হত্যা করেছে তাদেরই আরেক মেয়ে। সেই মেয়েকে আটক করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, ঘটনাস্থলে আমাদের টিম রয়েছে। তারা এলে এ বিষয়ে বিস্তারিত বলা যাবে।


আরও খবর



স্বাস্থ্যবিধির বালাই নেই, গণপরিবহনে শুধু ভাড়া বাড়ল

প্রকাশিত:রবিবার ২০ জুন ২০21 | হালনাগাদ:রবিবার ২০ জুন ২০21 | ৯৯জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

স্বাস্থ্যবিধি মানার শর্তে গণপরিবহন চালু হলেও নজরদারির অভাবে তা ভেঙে পড়েছে। কেবল ৬০ শতাংশ ভাড়া বৃদ্ধি ছাড়া অর্ধেক আসন শূন্য রাখা মাস্ক পরা বা দূরত্ব বজায় রাখার শর্তগুলো মানা হচ্ছে না। ফলে করোনা সংক্রমণ আরও ছড়িয়ে পড়ার শঙ্কা বাড়ছে।

স্বাস্থ্যবিধি মেনে অর্ধেক আসনে যাত্রী পরিবহনের শর্তে সবশেষে ২৪ মে থেকে গণপরিবহন চালু করে পরিবহণ মালিকরা। এক মাস না যেতেই বাস-মিনিবাসে শারীরিক দূরত্ব না মেনে পূর্ণ আসনে যাত্রী পরিবহন শুরু হয়েছে। মাস্ক পড়তে চান না অনেকেই তবে ৬০ ভাগ বা তারও বেশি ভাড়া ঠিকই আদায় করা হচ্ছে।

শিল্প কারখানা ব্যবসা প্রতিষ্ঠান আর সরকারি-বেসরকারি অফিস খুলে দেয়ায় যাত্রী চাপ বেড়েছে। এ অবস্থায় অর্ধেক আসনে যাত্রী পরিবহনের শর্তে ভাড়া বৃদ্ধির খেসারত সাধারণ যাত্রীদেরই দিতে হচ্ছে। কারণ গাদাগাদিতে সংক্রমণ ঝুঁকির সাথে অতিরিক্ত ভাড়া তাদেরই গুনতে হচ্ছে।

যাত্রী নিয়ে চালক-হেলপার বলেন, অফিস শুরু ও শেষের সময়ে যাত্রী চাপেই শর্ত মানা যাচ্ছে না। আর আমরা ইচ্ছে করে যাত্রী নেই না। তারাই জোর করে গাড়িতে উঠে।

ভাড়া নিয়ে যাত্রীরা বলেন, আগের ভাড়ায় নিরাপদ। কোন নিয়ম মানা হচ্ছে না। তাহলে শুধু শুধু আমরা কেন এত ভাড়া বেশি দিব।

স্বাস্থ্য বিধি মানা নিয়ে ওয়েলকাম ও মৌমিতা বাস ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. কালু শেখ বলেন, মালিক ও শ্রমিক সমন্বয়ে স্বাস্থ্য বিধি মেনে গাড়ি রাস্তায় চলছে। নিয়ম ভঙ্গ করছে সরকারি পরিবহন বিআরটিসির কর্মীরা।

এই সমস্যা বিষয়ে বুয়েটের এআরআই এর পরিচালক ড. মো. হাদিউজ্জামান বলেন, করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত যাত্রীদের উপর ভাড়ার চাপ না বাড়িয়ে পিক আওয়ারে বাসের রুট ভাগ করে পরিস্থিতি সামাল দেয়া যেতে পারে।

নিউজ ট্যাগ: গণপরিবহন

আরও খবর



১১ দেশের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নিল সৌদি আরব

প্রকাশিত:রবিবার ৩০ মে ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ৩০ মে ২০২১ | ১১৬জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

করোনাভাইরাস সংক্রমণের বিস্তার রোধে ১১টি দেশের ভ্রমণার্থীদের ওপর আরোপ করা নিষেধাজ্ঞা তুলে নিচ্ছে সৌদি আরব।  এ খবর দেশটির রাষ্ট্রায়ত্ত বার্তা সংস্থা এসপিএর বরাত দিয়ে জানিয়েছে রয়টার্স।

রবিবার (৩০) থেকে এসব দেশের ভ্রমণার্থীদের জন্য সৌদি আরবের সীমান্ত খুলে দেওয়া হবে বলে দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দেওয়া এক বিবৃতির বরাত দিয়ে জানিয়েছে বার্তা সংস্থাটি।

কিন্তু ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হলেও এসব দেশের ভ্রমণার্থীরা সৌদি আরবে প্রবেশের পর তাদের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিন প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে যেতে হবে।

১১টি দেশের তালিকায় রয়েছে- সংযুক্ত আরব আমিরাত, জার্মানি, যুক্তরাষ্ট্র, আয়ারল্যান্ড, ইতালি, পর্তুগাল, যুক্তরাজ্য, সুইডেন, সুইজারল্যান্ড, ফ্রান্স ও জাপান। করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে এসব দেশকে ভ্রমণের লাল তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করেছিল সৌদি আরব।

সৌদি কর্র্তৃপক্ষ জানিয়েছে, এই ১১ দেশ থেকে ভ্রমণকারীরা সৌদি আরবে পৌঁছানোর সঙ্গে সঙ্গেই সাত দিনের কোয়ারেন্টাইন শুরু হবে। সপ্তম দিনে তাদের বাধ্যতামূলকভাবে পিসিআর টেস্ট করাতে হবে।


নিউজ ট্যাগ: সৌদি আরব

আরও খবর
করোনার ডেল্টা প্লাসে প্রথম মৃত্যু

বৃহস্পতিবার ২৪ জুন ২০২১




যুক্তরাষ্ট্রে বন্দুকধারীর গুলিতে আটজন নিহত

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৭ মে ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৭ মে ২০২১ | ৮৬জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার একটি কমিউটার ট্রেন ইয়ার্ডে এক বন্দুকধারীর গুলিতে ৮ জন নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছে বেশ কয়েকজন।

বুধবার (২৬ মে) স্থানীয় সময় সকাল পৌনে ৭টার দিকে সান জোসের সান্তা ক্লারা ভ্যালি ট্রান্সপোর্টেশন অথরিটির (ভিটিএ) রেল ইয়ার্ডে এ ঘটনা ঘটে। এ খবর বিবিসি, আলজাজিরার।

দেশটির পরিবহন কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, নিহতরা পরিবহনকর্মী ছিলেন। এছাড়া হামলাকারীও একজন পরিবহনকর্মী। তিনিও আত্মঘাতী হয়েছেন।স্থানীয় সিবিএস (সম্প্রচার) স্টেশনের তথ্যমতে, বুধবার ভোরে একজন বন্দুকধারী ভিটিএ হালকা রেল ইয়ার্ডে গুলি চালায়। তখন সেখানে রেল কর্মচারীদের একটি মিটিং হচ্ছিল। বন্দুকধারীর হামলার আগে সান্তা ক্লারা ভ্যালি ট্রান্সপোর্টেশন অথরিটির (ভিটিএ) কর্মচারীর মালিকানাধীন একটি বাড়িতে আগুন লাগে।

কর্মকর্তারা বলছেন, গুলি চলমান অবস্থায়ই পুলিশ সেখানে পৌঁছায়। ওই ঘটনায় বন্দুকধারীসহ ৯ জন নিহত হয়।স্থানীয় মিডিয়া বলছে, বন্দুকধারী আত্মহত্যা করেছেন। তবে, পুলিশ এ বিষয়টি এখনও নিশ্চিত করেনি।

সান জোস শেরিফসের ডেপুটি রাসেল ড্যাভিস জানিয়েছেন, ঘটনার তদন্ত চলছে। গান ভায়োলেন্স আর্কাইভের তথ্যমতে, এ বছর আমেরিকাজুড়ে ২৩০টি গণ বন্দুকহামলা হয়েছে।গণ বন্দুকহামলা বলতে, যে গুলিতে চার বা তার অধিক মানুষ মারাত্মকভাবে গুলিবিদ্ধ হন।


আরও খবর
করোনার ডেল্টা প্লাসে প্রথম মৃত্যু

বৃহস্পতিবার ২৪ জুন ২০২১