আজঃ সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

ভারতীয় চালের রপ্তানি মূল্য কমেছে

প্রকাশিত:শনিবার ০৯ ডিসেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:শনিবার ০৯ ডিসেম্বর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
কূটনৈতিক প্রতিবেদক

Image

চলতি সপ্তাহে বিশ্বের শীর্ষ রপ্তানিকারক ভারতের সেদ্ধ চালের রপ্তানি মূল্য হ্রাস পেয়েছে। মূলত চাহিদা ধীরগতির হওয়ায় এই নিম্নমুখিতা তৈরি হয়েছে। বার্তা সংস্থা রয়টার্সের বরাত দিয়ে বিজনেস রেকর্ডারের এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য পাওয়া গেছে।

এতে বলা হয়, এই সপ্তাহে ভারতের ৫ শতাংশ ভাঙা সেদ্ধ চালের দাম কমেছে। প্রতি মেট্রিক টনের দর স্থির হয়েছে ৪৯৭ থেকে ৫০৫ ডলারের মধ্যে। গত সপ্তাহে যা ছিল ৫০০ থেকে ৫০৭ ডলার। 

মধ্য ভারতের রায়পুর শহরের এক রপ্তানিকারক বলেন, সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলোতে পর্যাপ্ত পরিমাণে চাল কিনেছেন বাইরের ব্যবসায়ীরা। ফলে চলমান সপ্তাহে খাদ্যপণ্যটি কেনা থেকে বিরত থেকেছেন তারা। গত মঙ্গলবার দক্ষিণ ভারতীয় উপকূলে ঘূর্ণিঝড় মিগজাউম আঘাত হানে। এতে অন্ধ্রপ্রদেশের কাকিনাদা বন্দরে লোডিং কার্যক্রম ব্যাহত হয়। চালের দরপতনে যা উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রেখেছে।

ব্যবসায়ীরা বলছেন, গত বৃহস্পতিবার ভিয়েতনামের প্রতি মেট্রিক টন ৫ শতাংশ ভাঙা চাল বিক্রি হয়েছে ৬৫৫ থেকে ৬৬৫ ডলারে। আগের সপ্তাহ থেকে যা প্রায় অপরিবর্তিত রয়েছে।

হো চি মিন সিটি ভিত্তিক এক ব্যবসায়ী বলেন, চালের বেচাকেনা মন্থর রয়েছে। কারণ, ক্রেতাদের কাছে খাদ্যশস্যটির দর চড়া আছে। শিগগিরই ভোগ্যপণ্যটির মূল্য কমবে বলে মনে হয় না। কারণ, সরবরাহ কম রয়েছে। এছাড়া অভ্যন্তরে ধানের দাম ঊর্ধ্বগামী আছে।

থাইল্যান্ডের ৫ শতাংশ ভাঙা চালের দরপতন ঘটেছে। মেট্রিক টনপ্রতি দাম স্থির হয়েছে ৬২০ থেকে ৬২৫ ডলারে। গত সপ্তাহে যা ছিল ৬৩০ ডলার। দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার অন্যান্য দেশগুলোতে চাহিদা স্থানান্তরিত হওয়ায় এই নিম্নগমিতা সৃষ্টি হয়েছে।

নিউজ ট্যাগ: চাল চালের দাম

আরও খবর
২৪ দিনে প্রবাসী আয় ১৮ হাজার কোটি টাকা

রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




অনূর্ধ্ব-১৯ নারী দল

পাকিস্তানকে ৪ উইকেটে হারিয়ে বাংলাদেশের উড়ন্ত জয়

প্রকাশিত:বুধবার ৩১ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ৩১ জানুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
ক্রীড়া প্রতিবেদক

Image

বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ নারী দল ঘরের মাঠে ত্রিদেশীয় সিরিজে উড়ছে। টানা তিন জয়ে আগেই ফাইনাল নিশ্চিত করেছিল স্বাগতিকরা। বুধবার পাকিস্তানকে ৪ উইকেটে হারিয়ে জয়ের ধারা অব্যাহত রাখল যুবা টাইগ্রেসরা।

আগামী ২ ফেব্রুয়ারি শিরোপার লড়াইয়ে শ্রীলঙ্কার মেয়েদের মুখোমুখি হবে সুমাইয়া আক্তার বাহিনী।

বুধবার কক্সবাজার শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস জিতে পাকিস্তানের মেয়েদের ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানিয়েছিল বাংলাদেশ।

টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটের এই সিরিজে নির্ধারিত ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ৯৫ রানের পুঁজি গড়ে পাকিস্তান। জবাবে ১৮ বল বাকি থাকতেই ৪ উইকেটের জয় পেয়েছে স্বাগতিকরা।

গত ২৪ জানুয়ারি উদ্বোধনী ম্যাচে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৫ উইকেটের জয়ে সিরিজ শুরু করেছিল বাংলাদেশের মেয়েরা। নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে পাকিস্তানের বিপক্ষেও খুব একটা বেগ পেতে হয়নি। স্বাগতিকরা জিতেছে ৩৬ রানে। তৃতীয় ম্যাচে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে ১ রানের জয় পায় বাংলাদেশ।

৪ ম্যাচে চার জয়ে বয়সভিত্তিক এই ত্রিদেশীয় সিরিজে গ্রুপপর্বে অপরাজিতই থাকল বাংলাদেশ। অন্যদিকে ৪ ম্যাচে ১ জয়ে দ্বিতীয় দল হিসেবে ফাইনালে উঠে গেছে লঙ্কান মেয়েরা। এ ছাড়া কোনো জয় না পাওয়া পাকিস্তান ছিটকে গেছে সিরিজ থেকে।

আজ টস হেরে শুরুতে ব্যাট করতে নেমে দলীয় ১৫ রানের মাথায় উদ্বোধনী জুটি ভাঙলেও দ্বিতীয় উইকেটে ঘুরে দাঁড়ায় পাকিস্তান। যদিও তাদের রানটা ঠিক টি-টোয়েন্টি সুলভ ছিল না। এর মধ্যে দলীয় ৮৮ থেকে স্কোরবোর্ডে মাত্র ৪ রান যোগ করতেই আরও চার উইকেট হারিয়ে ফেলে সফরকারীরা। যার ভেতর রান আউটই ছিল তিনটি। শেষমেশ নির্ধারিত ২০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ৯৫ রানের সংগ্রহ দাঁড় করায় পাকিস্তানের মেয়েরা।

সফরকারীদের হয়ে সর্বোচ্চ ৫৮ বলে ৪৮ রানের ইনিংস খেলেন সামিয়া আফসার। এ ছাড়া ৪১ বল মোকাবিলায় ২৬ রান করেন আরেশা আনসারি। বাংলাদেশের হয়ে দুটি উইকেট শিকার করেন রাবেয়া খাতুন। হাতের নাগালে থাকা টার্গেট তাড়ায় শুরুতেই উইকেট হারায় বাংলাদেশ। এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়েন সুমাইয়া আক্তার সুবর্ণা। ৫ বল খেলে কোনো রান করতে পারেননি এই উইকেটকিপার ব্যাটার।

এর পর ব্যাক্তিগত ১৪ রানে সাজঘরে ফেরেন আরেক ওপেনার ইভা। রান তাড়ায় নিয়মিত বিরতিতেই উইকেট হারিয়েছে বাংলাদেশ। যদিও জয় পেতে তেমন বেগ পেতে হয়নি। দলীয় ১৭ ওভার শেষেই জয় নিশ্চিত হয় স্বাগতিকদের।

বাংলাদেশের ব্যাটারদের মধ্যে ৪০ বলে ৩৮ রানের ইনিংস খেলেছেন অধিনায়ক সুমাইয়া আক্তার। এ ছাড়া দুই অঙ্ক পেরিয়েছেন কেবল দুজন-ইভা (১৪) ও ইরা (১৬)। পাকিস্তানের হয়ে সর্বোচ্চ তিনটি উইকেট শিকার করেছেন মুবিন আহমেদ।


আরও খবর
হাথুরুসিংহেকে ‘শোকজ’ করবেন পাপন!

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




বইমেলায় পলিয়ার ওয়াহিদ’র কাব্যগ্রন্থ ‘আলিফ লাম মীম ও মহুয়ার মরমী গম’

প্রকাশিত:বুধবার ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

অমর একুশে বইমেলা ২০২৪ এ প্রকাশিত হয়েছে জনপ্রিয় কবি পলিয়ার ওয়াহিদের নতুন কবিতার বই আলিফ লাম মীম ও মহুয়ার মরমী গম

নতুন বই সম্পর্কে কবি পলিয়ার ওয়াহিদ বলেন, আলিফ লাম মীম মূলত সংস্কৃতি ও বিশ্বাসের দ্বন্দ্বমূলক লড়াই। অজানা বিষয়কে জানার চেষ্টা। সভ্যতা সংস্কৃতির শিরা উপশিরা, ভাষার ডিজাইন ও কৃষি উপমায় আধুনিক মননের সরল কিন্তু গভীর ডায়ালগে সুমিষ্ট পরিবেশন। পাঠক বইটি সংগ্রহ করলে বিস্মিত হবে, চমকে যাবে। গম ভাগাভাগি হোক। সুষম কবিতার ঘরোয়া আলোচনায় ঢুকে পড়ুক। মুখ থেকে বুকে। তখন অধরা বিষষকে তারা ধরতে পারবে।

কাব্যগ্রন্থটি প্রকাশ করেছে ঘাসফুল। পাওয়া যাবে মেলার ঘাসফুল-এর ১৪৭-১৪৮ নম্বর স্টলে। চার ফর্মার বইটির মূল্য মাত্র ১৪০ টাকা। প্রচ্ছদ করেছেন শামীম আরেফিন।

ঘাসফুল-এর স্বত্বাধিকারী মাহ্দী আনাম জানান, বইটি প্রকাশ করেছি নতুন চিন্তা ও কবির সাহসীকতার জন্য। সুফির সহজ পথের মন ধরে বাউলের গরল দেহের বাড়িতে পৌঁছানোর তরিকা এই কিতাব। আসমানী ভাষা-নকশা ও মরমী আবহের কঠিন কাজটি সফলভাবে করতে পেরেছেন বিশ্বাস করি। দেহের শেকড় ও মনোদৈহিক এইসব জার্নি বাংলা কবিতার নতুনত্ব ও গর্বের।

ইতিপূর্বে পলিয়ার ওয়াহিদের ৫টি কবিতার বই প্রকাশিত হয়েছে। পৃথিবী পাপের পালকি (২০১৫), সিদ্ধ ধানের ওম (২০১৬), সময়গুলো ঘুমন্ত সিংহের (২০১৮), দোআঁশ মাটির কোকিল (২০২০)। ভারতের ব্ল্যাকহোল থেকে তার ইংরেজি অনুবাদের কবিতার বই সঙ অফ সয়েল প্রকাশিত হয় ২০২২ সালে।

এ ছাড়া সিদ্ধ ধানের ওম প্রকাশের বছরে সেরা দশটি বইয়ের আলোচনায় স্থান করে নেয়। অন্যদিকে দোআঁশ মাটির কোকিলর জন্য পশ্চিমবঙ্গের কলকাতা থেকে পেয়েছেন কৃত্তিবাস, তারাপদ রায় সম্মাননা পুরস্কার। এরপর দুই বাংলায় ব্যাপক পাঠকপ্রিয় হয়ে উঠেছেন প্রতিভাবান এই কবি।


আরও খবর
শেষ ছুটির দিনে জমজমাট বইমেলা

রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




সেনা-বিদ্রোহী সংঘর্ষ

বাংলাদেশে পালিয়ে এলেন মিয়ানমারের ৯৫ সীমান্তরক্ষী

প্রকাশিত:সোমবার ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
বান্দরবান প্রতিনিধি

Image

মিয়ানমারের অভ্যন্তরে চলমান সংঘর্ষে প্রাণহানি এড়াতে দেশটির বর্ডার গার্ড পুলিশের (বিজিপি) ৯৫ জন সদস্য অস্ত্রসহ পালিয়ে বাংলাদেশে চলে এসেছেন।

সোমবার (৫ ফেব্রুয়ারি) সকালে বিজিবির জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. শরীফুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, মিয়ানমারের অভ্যন্তরে চলমান সংঘর্ষের জেরে এখন পর্যন্ত দেশটির সীমান্তরক্ষী বাহিনী বর্ডার গার্ড পুলিশের (বিজিপি) ৯৫ জন সদস্য অস্ত্রসহ বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে। বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) তাদের নিরস্ত্রীকরণ করে নিরাপদ আশ্রয়ে নিয়েছে। এ ব্যাপারে পরবর্তী কার্যক্রম চলমান।

এর আগে গতকাল রোববার বিজিবির এ কর্মকর্তা জানিয়েছিলেন, রোববার ভোর থেকে মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিজিপির সদস্যরা প্রাণ বাঁচাতে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া শুরু করেন। বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির তুমব্রু সীমান্ত এলাকা দিয়ে তারা বাংলাদেশে প্রবেশ করেন।

গত সপ্তাহ থেকে বাংলাদেশ সীমান্তেও সংঘর্ষ ভয়ংকর রূপ নিয়েছে। দুপক্ষের ছোড়া গুলি ও মর্টার শেল এসে পড়ছে বাংলাদেশের ভেতরে।

এদিকে রোববার (৪ ফেব্রুয়ারি) সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, আমরা কোনো যুদ্ধে জড়াতে চাই না। যুদ্ধ চাইও না। আমাদের প্রধানমন্ত্রী সব সময় সে নির্দেশনা দিয়ে থাকেন। তবে আমরা সব সময় তৈরি আছি।

তিনি বলেন, আমরা মিয়ানমার সীমান্তে শক্তি বৃদ্ধি করেছি। আমরা পুলিশকে বলে দিয়েছি, কোস্টগার্ডকেও আমরা নির্দেশনা দিয়েছি। যাতে কোনোভাবেই কেউ আমাদের সীমানায় অনুপ্রবেশ করতে না পারে। সে ব্যাপারে আমরা খুব সতর্ক রয়েছি। যুদ্ধ কতদিন চলে আমরা জানি না। কিন্তু সীমান্ত পার হয়ে কাউকে আসতে দেবো না। বিজিবিকে আমরা সেই নির্দেশনাটাই দিয়েছি।

আত্মরক্ষার্থে মিয়ানমারের সরকারি বাহিনী বাংলাদেশে ঢুকলে তাদের ধরে আবার ফেরত পাঠানো হবে বলেও জানিয়েছেন আসাদুজ্জামান খান।


আরও খবর
ঝিনাইদহ জেলা কারাগারে কয়েদির মৃত্যু

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




আট বিভাগেই ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টির পূর্বাভাস

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | অনলাইন সংস্করণ
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

শীত কাটিয়ে ক্রমেই বাড়ছে তাপমাত্রা। পাশাপাশি বাড়ছে বৃষ্টির প্রবণতা। এমন অবস্থায় দেশের আট বিভাগে ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া দফতর।

সোমবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় দেয়া আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাসে বলা হয়, পূবালী লঘুচাপের বর্ধিতাংশ গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গ ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছে। মৌসুমের স্বাভাবিক লঘুচাপ দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে।

এ অবস্থায় রাতে আংশিক মেঘলা আকাশসহ সারাদেশের আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে। শেষরাত থেকে ভোর পর্যন্ত সারাদেশের কোথাও কোথাও হালকা থেকে মাঝারি ধরনের কুয়াশা পড়বে।

সারাদেশে রাত এবং দিনের তাপমাত্রা দুই ডিগ্রির মতো বাড়তে পারে।

তবে মঙ্গলবার (২০ ফেব্রুয়ারি) ছয় বিভাগে বৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া দফতর। সিলেট বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় এবং কুমিল্লা ও নোয়াখালী অঞ্চলসহ ঢাকা, ময়মনসিংহ, খুলনা ও বরিশাল বিভাগের দুয়েক জায়গায় দমকা হাওয়া ও বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। এছাড়া দেশের অন্যত্র আংশিক মেঘলা আকাশসহ আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে।

বুধবারও (২১ ফেব্রুয়ারি) ঢাকা, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় এবং রংপুর, রাজশাহী, খুলনা, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের দুয়েক জায়গায় দমকা ও ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি এবং বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে।


আরও খবর
সারা দেশে কমতে পারে রাতের তাপমাত্রা

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




জাতিসংঘের ফিলিস্তিন শরণার্থী সংস্থাকে প্রতিস্থাপন করা যাবে না : গুতেরেস

প্রকাশিত:শনিবার ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

জাতিসংঘের ফিলিস্তিন শরণার্থী সংস্থাকে (ইউএনআরডব্লিউএ) বদল করা যাবে না বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস। ইসরায়েলে হামাসের হামলায় ইউএনআরডব্লিউএ-এর ১২ জন কর্মীর জড়িত থাকার অভিযোগ থাকার পরও তিনি এ সতর্কতা জানান।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন, জার্মানি ও জাপানসহ বেশ কয়েকটি দেশ ইউএনআরডব্লিউ-সংস্থাকে অর্থায়ন স্থগিত করেছে। গুতেরেস দাতা দেশগুলোর সঙ্গে আবারও অর্থ প্রদানের বিষয়ে আলোচনায় প্রাধান্য দেন। খবর এএফপির।

গুতেরেস এক মিডিয়া ব্রিফিংয়ে বলেন, গাজার অভ্যন্তরে আর কোনো সংস্থার অর্থবহ উপস্থিতি নেই এবং এই পরিস্থিতিতে আর কোনো সংস্থাই এর সঙ্গে তুলনীয় নয়। কোনো সংস্থা এটিকে প্রতিস্থাপন করতে সক্ষম হবে না।

গত মাসের শেষের দিকে গাজা উপত্যকায় ইউএনআরডব্লিউএকে হামাসের সামরিক কার্যকলাপের জন্য সংস্থার অবকাঠামো ব্যবহার করার অনুমতি দেওয়ার জন্য ইসরায়েল অভিযুক্ত করার পরে বিরোধ তীব্রতর হয়।

ইসরায়েলের অভিযোগের বিষয়ে অবিলম্বে ব্যবস্থা গ্রহণের ইউএনআরডব্লিউএর বক্তব্যকে গুতেরেস বিশ্বাসযোগ্য বলে অভিহিত করে বলেন, ১২ জন কর্মী হামাসের হামলায় জড়িত থাকায় অর্থায়ন হ্রাস সাধারণ ফিলিস্তিনিদের প্রভাবিত করবে।

জাতিসংঘের সংস্থাটি দীর্ঘদিন ধরে ইসরায়েলের তদন্তে আছে। ইসরায়েল সংস্থাটিকে  দেশের স্বার্থের বিরুদ্ধে পরিকল্পিতভাবে এগিয়ে যাওয়ার বিষয়ে অভিযুক্ত করে, যুদ্ধের পরে গাজায় সংস্থাটির কাজ বন্ধ করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। গাজায় অব্যাহত সহায়তায় সর্বোত্তম সংস্থা উল্লেখ করে গুতেরেস ইউএনআরডব্লিউএর ব্যয় কার্যকর করার প্রতি ইঙ্গিত দিয়েছেন।


আরও খবর