আজঃ সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

ভূমিকম্পে কুবিতে সব আবাসিক হলের দেয়ালে ফাটল

প্রকাশিত:শনিবার ০২ ডিসেম্বর 2০২3 | হালনাগাদ:শনিবার ০২ ডিসেম্বর 2০২3 | অনলাইন সংস্করণ
Image

কুবি প্রতিনিধি

রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে আঘাত হানা ৫ দশমিক ৫ মাত্রার ভূমিকম্পে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে (কুবি) সবক'টি আবাসিক হলের দেয়ালে ফাটল দেখা দিয়েছে। প্রাথমিকভাবে কোনো ক্ষয়ক্ষতি না হলেও আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে শিক্ষার্থীদের মাঝে। শনিবার সকাল ৯টা ৩৫ মিনিটে এ ভূমিকম্প অনুভূত হয়।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের দক্ষিণ ব্লকের দুই করিডরের মাঝের সংযোগস্থলে পুরো পাঁচতলাব্যাপী, একই হলের দ্বিতীয় ও পঞ্চম তলা, নতুন ও পুরাতন ব্লকের সংযোগস্থল, কাজী নজরুল ইসলাম হলের দোতলা, নওয়াব ফয়জুন্নেছা চৌধুরানী হলের ছাদ এবং চতুর্থ ও পঞ্চম তলা, শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত হলের পঞ্চম তলা ও নবনির্মিত শেখ হাসিনা হলের রিডিং রুমে ফাটল দেখা দিয়েছে। এসব ফাটলের কোথাও স্থায়ীভাবে চিড় ধরা দিয়েছে। এর ফলে শিক্ষার্থীদের মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে।

আব্দুর রহমান নামে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের এক শিক্ষার্থী বলেন, ভূমিকম্প আর কিছুক্ষণ স্থায়ী হলেই বড় কোনো দুর্ঘটনা ঘটতে পারতো। মাত্র ৫ মাত্রার ভূমিকম্পেই সবগুলো ভবন যেভাবে দুলে উঠেছে, ৬ বা ৭ মাত্রার ভূমিকম্পে সকল ভবন তাসের ঘরের মতো ভেঙে পড়বে মনে হয়।

তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রকৌশল দপ্তরের তত্ত্ববধায়ক প্রকৌশলী এসএম শহিদুল হাসান বলেন, ভূমিকম্পে যেসব ভবনে ফাটল সৃষ্টি হয়েছে, সেগুলো ঝুঁকিপূর্ণ নয়। কারণ এই ভবনগুলোর দেয়াল এমনভাবে তৈরি করা হয়েছে, যেখানে ভূমিকম্প হলে মূল কাঠামোতে সরাসরি প্রভাব পড়ার আগেই দেয়ালে প্রভাব পড়বে এবং ঝাঁকুনিটা দেয়ালেই লাগবে।

হলগুলোর প্রাধ্যক্ষরা বিষয়গুলো পর্যবেক্ষণ করে ব্যবস্থা নেবেন বলে জানান তিনি।


আরও খবর



আরভিএন্ডএফ কোরের বাৎসরিক অধিনায়ক সম্মেলন অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
প্রেস বিজ্ঞপ্তি

Image

বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর আরভিএন্ডএফ কোরের বাৎসরিক অধিনায়ক সম্মেলন বৃহস্পতিবার (২২ ফেব্রুয়ারি) সাভারে অবস্থিত রিমাউন্ট ভেটেরিনারি এন্ড ফার্ম (আরভিএন্ডএফ) ডিপোতে অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ, এসবিপি (বার), ৩এসপি, এনডিইউ, পিএসসি, পিএইচডি।

সেনাবাহিনী প্রধান বাৎসরিক অধিনায়ক সম্মেলনে উপস্থিত আরভিএন্ডএফ কোরের অধিনায়ক ও অন্যান্য কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখেন এবং সেনাবাহিনীর পুষ্টি ও জাতীয় নিরাপত্তা রক্ষাসহ এ কোরের প্রযুক্তিগত উন্নয়ন, গবেষণা, পেশাগত দক্ষতা বৃদ্ধি ও ভবিষ্যৎ পরিকল্পনাসহ বিভিন্ন বিষয়ে মতবিনিময় করেন।

বক্তব্যের শুরুতেই তিনি স্বাধীনতার মহান স্থপতি এবং সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এছাড়া সেনাবাহিনীর আধুনিকায়নে প্রধানমন্ত্রীর সার্বক্ষণিক দিক নির্দেশনা ও সকল প্রকার সহায়তার জন্য তিনি প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ এবং ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। একই সাথে তিনি স্মরণ করেন মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে আত্মোৎসর্গকারী আরভিএন্ডএফ কোরের বীর সেনানীসহ সকল বীর মুক্তিযোদ্ধাদের।

সেনাবাহিনী প্রধান আরভিএন্ডএফ কোরের গৌরবোজ্জ্বল ঐতিহ্য এবং দেশমাতৃকার সেবায় এই কোরের অবদানের কথা উল্লেখ করেন। এছাড়াও, তিনি আধুনিক ও যুগোপযোগী প্রশিক্ষণের মাধ্যমে একবিংশ শতাব্দীর চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় সদা প্রস্তুত থাকতে এই কোরের সকল সদস্যের প্রতি আহ্বান জানান।

একই দিন সকালে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর রিমাউন্ট ভেটেরিনারি এন্ড ফার্ম কোরের ২য় 'কর্নেল কমান্ড্যান্ট' হিসেবে অভিষিক্ত হলেন জেনারেল অফিসার কমান্ডিং (জিওসি) ও এরিয়া কমান্ডার সাভার এরিয়া মেজর জেনারেল মোঃ মঈন খান, এনডিসি, পিএসসি। সাভারে অবস্থিত রিমাউন্ট ভেটেরিনারি এন্ড ফার্ম ডিপোর প্যারেড গ্রাউন্ডে সামরিক রীতি ও ঐতিহ্য মেনে এ অভিষেক অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়। অভিষেক অনুষ্ঠানে আরভিএন্ডএফ কোরের জ্যেষ্ঠতম অধিনায়ক এবং মাস্টার ওয়ারেন্ট অফিসার কর্তৃক জেনারেল অফিসার কমান্ডিং (জিওসি) ও এরিয়া কমান্ডার সাভার এরিয়াকে গৌরবমন্ডিত 'কর্নেল কমান্ড্যান্ট ব‍্যাংক-ব্যাজ' পরিয়ে দেন। অনুষ্ঠানের শুরুতে নবনিযুক্ত কর্নেল কমান্ড্যান্ট উপস্থিত সকলের উদ্দেশ্যে তাঁর দিক-নির্দেশনামূলক বক্তব্য প্রদান করেন।

অনুষ্ঠানে উর্ধ্বতন সামরিক কর্মকর্তাবৃন্দ, অন্যান্য অফিসার, জুনিয়র কমিশন্ড অফিসার, অন্যান্য পদবির সেনাসদস্য এবং গণমাধ্যম ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। রিমাউন্ট ভেটেরিনারি এন্ড ফার্ম কোরের বাৎসরিক অধিনায়ক সম্মেলন উপলক্ষ্যে সেনাবাহিনী প্রধানের উপস্থিতির মধ্য দিয়ে এই কোরের সদস্যদের মাঝে নতুন উদ্দীপনা সৃষ্টি ও কোরের প্রতিটি সদস্যের মাঝে আগামী দিনে দেশ সেবার অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপনের প্রত্যয় পুনর্ব্যক্ত হয়েছে।

উল্লেখ্য, সেনাবাহিনী প্রধান আরভিএন্ডএফ ডিপোতে পৌছালে তাঁকে অভ্যর্থনা জানান জেনারেল অফিসার কমান্ডিং (জিওসি) আর্মি ট্রেনিং এন্ড ডকট্রিন কমান্ড, নবনিযুক্ত কর্নেল কমান্ড্যান্ট জেনারেল অফিসার কমান্ডিং (জিওসি) ও এরিয়া কমান্ডার সাভার এরিয়াসহ ঊর্ধ্বতন সামরিক কর্মকর্তাবৃন্দ।


আরও খবর



রাশিয়ার গোয়েন্দা বিমান ভূপাতিত করার দাবি ইউক্রেনের

প্রকাশিত:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

ইউক্রেনের সামরিক বাহিনীর দাবি, শুক্রবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) চলতি মাসে দ্বিতীয়বারের মতো এ-৫০ নামের বিমানটিকে রাশিয়ার রোস্তভ-অন-ডন এবং ক্রাসনোদরের মধ্যবর্তী স্থানে ভূপাতিত করা হয়।

গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, জরুরি পরিষেবার কাজে নিয়োজিত ব্যক্তিরা রাশিয়ার কানেভস্কয় শহরে ওই বিমানটির ভগ্নাংশ পরিষ্কার এবং বিস্ফোরিত যানটির আগুন নির্বাপিত করেছে বলে দাবি করেছে ইউক্রেনের সামরিক বাহিনী। তবে কিয়েভের বিবৃতিতে বলা হয়নি কিভাবে বিমানটি ধ্বংস করা হয়েছে।

রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় তাৎক্ষণিকভাবে এ ব্যাপারে কোনও মন্তব্য করেনি।

এই ঘটনায় সংশ্লিষ্টদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন ইউক্রেনের বিমান বাহিনীর প্রধান মাইকোলা ওলেশ্চুক। তিনি জানিয়েছেন, শুক্রবার ইউক্রেনের বিমান বাহিনী শত্রুদের একটি দূরপাল্লার রাডার শনাক্তকরণ বিমান এ-৫০ ভূপাতিত করা হয়েছে। কিয়েভের দাবি, রাশিয়ার গোয়েন্দা কাজে ব্যবহৃত হতো ভূপাতিত বিমানটি।

এর আগে গত ১৫ ফেব্রুয়ারি আজভ সাগরে রাশিয়ার আরেকটি গোয়েন্দা বিমান ভূপাতিত করার দাবি করে ইউক্রেন।


আরও খবর



মেট্রোরেলে ভাইরাল হওয়া ছবিটি আসলে কোন জায়গার ?

প্রকাশিত:শনিবার ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

সম্প্রতি মেট্রোরেলে আলিঙ্গনরত তরুণ-তরুণীর একটি ছবি ভাইরাল হয়েছে। বলা হচ্ছে, বিশ্ব ভালোবাসা দিবসে তোলা ছবি এটি। আর বুঝানো হয়েছে, ঘটনাটি ঢাকার মেট্রোরেলে। এরপরই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ব্যাপক প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে।

গতকাল শুক্রবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) ভিডিও শেয়ারিং প্ল্যাটফর্ম টিকটকে আলিঙ্গনরত ওই তরুণ-তরুণীর ছবিটি প্রচার করা হয়। ক্যাপশনে লেখা হয়, এর পরক্ষণেই মেট্রোরেলে ফুল নিয়ে ওঠা নিষিদ্ধ করা হলো। এই হলো ১৪ ফেব্রুয়ারি।

অর্থাৎ বিশ্ব ভালোবাসা দিবসের আগের দিন (১৩ ফেব্রুয়ারি) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় মেট্রোরেল স্টেশনে ফুল নিয়ে ট্রেনে ভ্রমণ নিষেধ সংক্রান্ত একটি সাদা কাগজে লেখা নোটিশ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়। নোটিশটি স্টেশনের সিঁড়ির মুখেই ঝোলানো ছিল। এই ভিডিওতে সেই ফুল নিষিদ্ধের বিষয়টি ইঙ্গিত করা হয়েছে যে, ঘটনাটি ঢাকার মেট্রোরেলের।

এই ভিডিও যে শুধু টিকটকে প্রচার হচ্ছে তা নয়, ফেসবুকের বিভিন্ন গ্রুপ এবং ব্যক্তিগত আইডি থেকেও অনেকে শেয়ার করে সমালোচনা করছেন। 

কিন্তু আলিঙ্গনরত যে ভিডিও নিয়ে এতো সমালোচনা তা কি ঢাকার? শুরুতেই যদি মেট্রোরেলের মেঝের দিকে তাকান তাহলে দেখবেন, লাল মেঝের উপর তরুণ-তরুণী দাঁড়িয়ে আছে। আর উপরে ভারতের পতাকা সংবলিত লোগো। যেখানে লেখা, আজাদি কা অমৃত মহোৎসব। এটি হলো ভারতের স্বাধীনতার ৭৫তম বার্ষিকী উপলক্ষে ২০২১ সালে শুরু হওয়া একটি অনুষ্ঠান।

এবার ঢাকার মেট্রোরেলের দিকে তাকালে লাল মেঝেযুক্ত কোন ট্রেনই বাংলাদেশে নেই। এ দেশের কোনো ট্রেনে ভারতের পতাকা সংবলিত লোগোও নেই। ফলে এখানেই অনেকটা নিশ্চিত, মেট্রোরেলে ভাইরাল হওয়া ছবিটি বাংলাদেশের নয়, এটি ভারতের।

এবার আরেকটু নিশ্চিত হতে চোখ রাখতে পারেন কৃ ত্তি কা নামের একটি ফেসবুক পেজে। ১৪ ফেব্রুয়ারি রাত ১০টা ৫ মিনিটে এই ছবিটি পোস্ট করা হয়। ক্যাপশনে লেখা হয়, মেট্রোটা কেও ছাড়ছে না। সেখানে পশ্চিমবঙ্গের নদীয়া জেলার হরিণঘাটা শহরের ছবি বলে জানানো হয়েছে।

এরপর সেই কৃ ত্তি কা পেজের ক্রেডিট দিয়ে তিলোত্তমা kolokata নামের একটি ফেসবুক পেজেও ওইদিন রাত সাড়ে ১১টায় এই ছবিটি পোস্ট করা হয়। লেখা হয়, মেট্রো টাকে অন্তত রেহাই দে ভাই

ছবিটি নিয়ে কলকাতার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমেও ব্যাপক প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন নেটিজেনরা। 

অর্থাৎ তরুণ-তরুণীর আলিঙ্গনের ভাইরাল ছবিটি ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের মেট্রোরেলের। এটি বাংলাদেশের ঢাকার মেট্রোরেলের কোনো ছবি নয়। 


আরও খবর
বাংলাদেশের অর্ধেক পানিতেই আর্সেনিক : গবেষণা

বৃহস্পতিবার ১৮ জানুয়ারী ২০২৪




বিশ্বব্যাপী পরিবহন প্রতিবন্ধকতায় জিনিসের দাম বেড়ে যাচ্ছে : প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বিশ্বব্যাপী অশান্ত পরিবেশ সৃষ্টি হতে যাচ্ছে, যার জন্য বিশ্বব্যাপী পণ্য পরিবহনে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হচ্ছে। ফলে জিনিসের দামও বেড়ে যাচ্ছে, পণ্য আনতে সময়ও লেগে যাচ্ছে। নানা কারণে বহির্বিশ্বের চাপটা আমাদের ওপর এসে পড়ছে। মঙ্গলবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) একনেক সভায় প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাইরের দেশের ওপর আমাদের নির্ভরশীল থাকার দরকার নেই, আমরা নিজেরা সব উৎপাদন করবো। এজন্য সবাইকে বলেছি এক ইঞ্চি জমিও যেন পড়ে না থাকে।

তিনি বলেন, কিছু কিছু প্রয়োজনীয় জিনিস আমাদের বাইরের দেশ থেকে আনতেই হচ্ছে। আমরা নিজেরা যদি উৎপাদন বাড়াতে চেষ্টা করি, সেটা কিন্তু আমরা পারবো। ধীরে ধীরে স্বয়ংসম্পূর্ণ হওয়াই আমাদের লক্ষ্য।

তিনি বলেন, প্রতিটি মন্ত্রণালয়ে যেসব প্রকল্পগুলো অল্প খরচ করলেই শেষ হয়ে যাবে, সেগুলো দ্রুত সম্পন্ন করে ফেলতে হবে। পুরাতন প্রকল্প সম্পন্ন করলে, নতুন প্রকল্প নিতে পারবো। কিছু কিছু প্রকল্পের মেয়াদ বৃদ্ধি করা হয়েছে। সেগুলোও দ্রুত শেষ করা উচিত। তা নাহলে অহেতুক খরচও বাড়ে, কালক্ষেপণ হয়। সেটি যেন না হয়।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, বাংলাদেশে যেভাবে প্রবৃদ্ধি বাড়ছিল, অগ্রগতি হচ্ছিল তখন প্রথমে আসলো কোভিড-১৯ অতিমারি, তার ধাক্কায় সারা বিশ্বব্যাপী, সব কিছু স্থবির। এরপর আসলো ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধ, পাল্টাপাল্টি নিষেধাজ্ঞা, এখন আবার গাজায় গণহত্যা, আক্রমণ চলছে।


আরও খবর
জানুয়ারিতে সড়ক দুর্ঘটনায় ৪৮৬ মৃত্যু

রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




ঢাকায় আসছেন মার্কিন উপসহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী আফরিন আক্তার

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

ঢাকা-ওয়াশিংটনের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক এগিয়ে নেওয়ার বিষয়ে আলোচনার জন্য যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়াবিষয়ক উপসহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী আফরিন আক্তার আগামী সপ্তাহে ঢাকায় আসছেন। দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর এটি হবে যুক্তরাষ্ট্রের কোনো জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তার প্রথম ঢাকা সফর।

কূটনৈতিক সূত্রে জানা গেছে, আফরিন আক্তার ২৪ ফেব্রুয়ারি তিন দিনের সফরে বাংলাদেশে আসতে পারেন।

সংসদ নির্বাচনের আগে গত অক্টোবরে আফরিন আক্তার ঢাকা সফর করেন। নির্বাচনের আগে সেটাই ছিল যুক্তরাষ্ট্রের কোনো জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তার শেষ বাংলাদেশ সফর।

কূটনেতিক সূত্র জানিয়েছে, তিন দিনের ঢাকা সফরের সময় আফরিন আক্তার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মহাপরিচালক (উত্তর আমেরিকা অনু বিভাগ) খন্দকার মাসুদ আলমের সঙ্গে আনুষ্ঠানিক আলোচনা করবেন। এর পাশাপাশি পররাষ্ট্রসচিব মাসুদ বিন মোমেনের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করতে পারেন তিনি।

অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের ব্যাপারে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে বাংলাদেশ তথা আওয়ামী লীগ সরকারের মতপার্থক্য রয়েছে। নির্বাচনের আগে ও পরে যুক্তরাষ্ট্র এ বিষয়ে তাদের অবস্থান পরিবর্তন করেনি। এমন এক প্রেক্ষাপটে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন এ মাসের শুরুতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে চিঠি লেখেন। ওই চিঠিতে তিনি দুই দেশের সম্পর্ক এগিয়ে নেওয়ার ঐকান্তিক ইচ্ছার’ কথা উল্লেখ করেন।

কূটনৈতিক সূত্রগুলো জানিয়েছে, আফরিন আক্তার বাংলাদেশ সফরের সময় একটি অবাধ ও মুক্ত ভারত-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চল প্রতিষ্ঠা, জলবায়ু পরিবর্তন, অর্থনৈতিক উন্নয়ন এবং রোহিঙ্গা শরণার্থীর পাশাপাশি মিয়ানমারের বর্তমান পরিস্থিতি আলোচনায় আসতে পারে।

গত বছরের অক্টোবরে বাংলাদেশে এসেছিলেন আফরিন আক্তার। পররাষ্ট্রসচিব মাসুদ বিন মোমেনের সঙ্গে আলোচনার এক পর্যায়ে তিনি জানিয়েছিলেন, বাংলাদেশে একটি অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র তাদের প্রত্যাশার কথা অব্যাহতভাবে বলে যাচ্ছে। তাই আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে বাংলাদেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতির ওপর তীক্ষ্ণ নজর থাকবে দেশটির। দুই দেশের গুরুত্বপূর্ণ অংশীদারত্বকে এগিয়ে নিতে বাংলাদেশের গণতন্ত্রের শান্তিপূর্ণ উত্তরণে যুক্তরাষ্ট্র জোর দিচ্ছে।

নির্বাচন নিয়ে দুই দেশের মতপার্থক্য, এ নিয়ে ওয়াশিংটনে যুক্তরাষ্ট্রের নিয়মিত ব্রিফিংয়ে তাদের অবস্থানের সঙ্গে জো বাইডেনের চিঠির গুণগত পার্থক্য রয়েছে। বিশেষ করে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীকে লেখা চিঠিতে নির্বাচনের বিষয়টি এড়িয়ে গেছেন। এ নিয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে বাংলাদেশের জ্যেষ্ঠ কূটনীতিকেরা বলছেন, ডেমোক্রেটিক পার্টির পররাষ্ট্রনীতিতে গণতন্ত্র, সুশাসনের মতো মূল্যবোধের বিষয়গুলো সব সময় থাকবে। তবে বাংলাদেশের নির্বাচন–পরবর্তী পরিস্থিতিতে অংশীদারত্বের বিষয়টিকে যুক্তরাষ্ট্র সামনে রাখবে।


আরও খবর
জানুয়ারিতে সড়ক দুর্ঘটনায় ৪৮৬ মৃত্যু

রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪