আজঃ বুধবার ০৪ আগস্ট ২০২১
শিরোনাম

যানজটে আটকা পড়ার ভয়ে নৌপথে ঢাকায় যাচ্ছে কোরবানির গরু

প্রকাশিত:রবিবার ১৮ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১৮ জুলাই ২০২১ | ১৪২জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষে সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর থেকে এ বছর ৪০ হাজার ষাঁড় গরু ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন পশুর হাটে নিয়ে যাওয়া শুরু হয়েছে। এর সিংহভাগ নৌপথে যাচ্ছে। নৌপথে গরু পরিবহণ খরচ অনেক কম, যানজটে আটকা পড়ার ভয় নেই, দ্রুত সময়ের মধ্যে হাটে পৌঁছানো যায়। এসব কারণে ব্যবসায়ী ও খামারিরা নৌপথে গরু পরিবহণে স্বস্তি বোধ করেন। ফলে গত কয়েকদিন ধরে শাহজাদপুর থেকে নৌপথে গরু পরিবহণ শুরু হয়েছে। তবে নৌপথে গরু পরিবহনে ডাকাতের আক্রমণের ভয়ে শঙ্কিত হয়ে পড়েছেন ব্যবসায়ীরা।

শাহজাদপুর উপজেলার সোনাতনী গ্রামের গরু ব্যবসায়ী মোল্লা ফকির চান জানান, শাহজাদপুর উপজেলার পৌর এলাকাসহ ১৩টি ইউনিয়নের অধিকাংশ গ্রামের বাড়িতে কোরবানি উপলক্ষে ২/৪টি করে ষাঁড় বা বলদ গরু লালন পালন করে হৃষ্টপুষ্ট করা হয়। এসব গরু স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে সিংহ ভাগ ঢাকা, নারায়ণগঞ্জসহ বিভিন্ন বড় বড় কোরবানির পশুর হাটে নিয়ে বিক্রি করা হয়।

এ বিষয়ে শাহজাদপুর উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. মিজানুর রহমান জানান, এ বছর ঈদুল আযহা উপলক্ষে শাহজাদপুরে ৬০ হাজার ষাঁড় ও বলদ গরু মোটাতাজা করা হয়েছে। এলাকার চাহিদা মিটিয়ে প্রায় ৪০ হাজার গরু নৌপথে বিভিন্ন বড় বড় হাটে নিয়ে যাওয়া শুরু হয়েছে। নৌপথে কোরবানির গরু পরিবহণে ব্যাপক নিরাপত্তার ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। ইতোমধ্যেই শাহজাদপুর উপজেলা প্রশাসন, থানা পুলিশ ও নৌ-পুলিশকে এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে। তারপরও পথে কোনও সমস্যা হলে ব্যবসায়ীদের আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে।

শাহজাদপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহ মো. শামসুজ্জোহা জানান, নৌপথে যেনও কোরবানির গরু নির্বিঘ্নে ব্যবসায়ীরা নিয়ে যেতে পারে সে জন্য সকল পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। তিনি এ বিষয়ে ব্যবসায়ীদের আতঙ্কিত না হওয়ার জন্য পরামর্শ দিয়েছেন।


আরও খবর
আজ ব্যাংক বন্ধ

বুধবার ০৪ আগস্ট ২০২১




আজ পালিত হচ্ছে পবিত্র হজ

প্রকাশিত:সোমবার ১৯ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১৯ জুলাই ২০২১ | ১৪১জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

লাব্বাইক, আল্লাহুম্মা লাব্বাইক। লাব্বাইক, লা শারিকা লাকা লাব্বাইক। ইন্নাল হামদা, ওয়াননিমাতা, লাকা ওয়ালমুলক, লা শারিকা লাক। এই ধ্বনিতে মুখরিত হবে পবিত্র আরাফাত ময়দান। সেখানে আজ পালিত হচ্ছে পবিত্র হজ। বিশ্বের ১৫০টি দেশের ৬০ হাজার (অভিবাসী) ধর্মপ্রাণ মুসলমান এবার হজে অংশ নিয়েছেন।

করোনা মহামারির মধ্যে দ্বিতীয়বারের মতো আজ সীমিত পরিসরে অনুষ্ঠিত হচ্ছে পবিত্র হজ। গত বছরও হজ পালনের ক্ষেত্রে সীমাবদ্ধতা ছিল। এবারও লোকজনকে পরিপূর্ণ স্বাস্থ্যবিধি মেনে মাস্ক পরে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখেই হজ পালন করতে হচ্ছে।

আজ সোমবার ফজরের সালাতের পরেই মিনা থেকে দলে দলে হাজিগণ উপস্থিত হবেন আরাফার ময়দানে। সফেদ-শুভ্র দুই খণ্ড কাপড়ের এহরাম পরিহিত হাজিরা সেখানে সূর্যাস্ত পর্যন্ত থাকবেন। আরাফাত ময়দানের মসজিদে নামিরায় জোহরের নামাজের আগে খুতবা পাঠ করবেন মসজিদুল হারামের খতিব শায়খ ড. বান্দার বিন আবদুল আজিজ বালিলা। খুতবা পাঠ শেষে জোহর ও আসরের ওয়াক্তের মাঝামাঝি সময়ে হাজিরা জামাতের সঙ্গে কছর নামাজ আদায় করবেন। সূর্যাস্ত পর্যন্ত তারা আরাফাতের ময়দানে অবস্থান করে আল্লাহ তাআলার জিকির-আসকার ও ইবাদতে মশগুল থাকবেন।

এরপর মুজদালিফার উদ্দেশে আরাফার ময়দান ত্যাগ করবেন এবং মুজদালিফায় গিয়ে মাগরিব ও এশার নামাজ এশার ওয়াক্তে একত্রে পড়বেন এবং সমস্ত রাত অবস্থান করবেন। মিনায় জামরাতে নিক্ষেপ করার জন্য ৭০টি কংকর এখান থেকে সংগ্রহ করবেন। মুজদালিফায় ফজরের নামাজ পড়ে মিনার উদ্দেশে রওনা হবেন। ১০ জিলহজ মিনায় পৌঁছার পর হাজিদের পর্যায়ক্রমে চারটি কাজ সম্পন্ন করতে হয়।

আগামীকাল মঙ্গলবার ঈদুল আজহার দিন মিনায় হাজির হয়ে তিনটি জামারায় শয়তানকে প্রতীকী পাথর নিক্ষেপকালে ভিড় এড়াতে নির্ধারিত দূরত্বে জায়গা চিহ্নিত করা হয়েছে, যেখানে দাঁড়িয়ে হাজিরা পাথর নিক্ষেপ করবেন।

করোনা ভাইরাস সংক্রমণের কারণে এ বছরও সৌদি আরবের বাইরে থেকে কোনো হজযাত্রীকে অংশ নিতে দেওয়া হচ্ছে না। সৌদি আরবে বাস করা দেশটির নাগরিক ও বিদেশি বাসিন্দাদের মধ্য থেকে ৬০ হাজার ব্যক্তি হজ করার অনুমতি পেয়েছেন। শুধু ১৫ থেকে ৬৫ বছর বয়সি সৌদি নাগরিক এবং দেশটিতে বাস করা ১৫০ দেশের নাগরিক হজ করার সুযোগ পেয়েছেন। সবাই দুই ডোজ ভ্যাকসিন নিয়েছেন। গতবারও বিধিনিষেধের মধ্যে ১ হাজার মুসলিমকে হজ পালনের সুযোগ দেওয়া হয়েছিল।


আরও খবর



খুলনা বিভাগে রেকর্ড ৭১ জনের মৃত্যু

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৯ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৯ জুলাই ২০২১ | ১২৭জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

করোনাভাইরাসে খুলনা বিভাগে একদিনে সর্বোচ্চ ৭১ জনের মৃত্যু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে শুক্রবার সকাল ৮টা পর্যন্ত সময়ে তাদের মৃত্যু হয়। এ নিয়ে বিভাগটিতে ১ হাজার ৪৮৭ জনের মৃত্যু হলো করোনায়। 

এই সময়ে খুলনা বিভাগে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ১ হাজার ৬৫৬ জন। এ পর্যন্ত মোট আক্রান্ত ৬৭ হাজার ৫৩১ জন।

বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক রাশেদা সুলতানা এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় খুলনা বিভাগের সর্বোচ্চ ৭১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে খুলনা জেলায় ২৩ জন, বাগেরহাটে ২, যশোরে ৯, নড়াইলে ১, মাগুরায় ১, ঝিনাইদহে ১০, কুষ্টিয়ায় ১৪, চুয়াডাঙ্গায় ৬ এবং মেহেরপুরে ৫ জন মারা গেছেন।

কোভিড-১৯ মহামারির হটস্পটে পরিণত হয়েছে খুলনা। এর আগে বৃহস্পতিবার সকাল পর্যন্ত ৫১ জনের মৃত্যু হয়। আর বুধবার ৬০ জনের মৃত্যু হয়েছিল।

খুলনা বিভাগের মধ্যে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয় চুয়াডাঙ্গায় গত বছরের ১৯ মার্চ।


আরও খবর



রাঙামাটিতে খুঁটিঁ থেকে মাটি সরে একশো ফুট নিচে ৫ দোকান

প্রকাশিত:সোমবার ০৫ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ০৫ জুলাই ২০২১ | ১৭৩জন দেখেছেন
Image

রাঙামাটি থেকে শহিদুল ইসলাম হৃদয়

রাঙামাটিতে ৫টি দোকানঘর আকস্মিকভাবে ভেঙ্গে অন্তত একশো ফুট নিচে পড়ে বিধ্বস্ত হয়েছে। সোমবার সকাল সাড়ে নয়টার সময় শহরের রিজার্ভ বাজারের আব্দুল আলী একাডেমী এলাকায় এই দুর্ঘটনা ঘটলেও হতাহতের কোনো ঘটনা ঘটেনি বলে নিশ্চিত করেছেন কোতয়ালী থানার ওসি কবির হোসেন।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, দোকানগুলো কাঠের খুঁটিঁর উপর নির্মিত ছিলো। গত কয়েকদিন বৃষ্টির কারণে নিচের দিকে মাটি সরে গিয়ে অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় ছিলো দোকান গুলো। সকাল থেকেই বিষয়টি আঁচ করতে পেরে দোকানদাররা নিরাপদ দূরত্বে সরে যায়।

সকালে মুড়মুড়িয়ে মালামাল ভর্তি পাঁচটি দোকান নিয়ে পুরো ঘরটি ভেঙ্গে অন্তত একশো ফুট নিচে পড়ে যায়। এই ঘটনার সাথে সাথেই পুরো এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে রাঙামাটি ফায়ার সার্ভিস ও কোতয়ালী থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে আসে। হতাহতের কোনো ঘটনা ঘটেনি বলে জানিয়েছেন কোতয়ালী থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ কবির হোসেন।

ক্ষতিগ্রস্ত দোকানদাররা জানিয়েছেন, এই দুর্ঘটনায় অন্তত ৪০ লাখ টাকার ক্ষতির সম্মুখিন হয়েছেন তারা। ক্ষতিগ্রস্থদের অভিযোগ মালিকপক্ষকে বারংবার বলার পরেও দোকানগুলো মেরামতের কোনো উদ্যোগ গ্রহণ না করায় সোমবার সকালে দুর্ঘটনাটি ঘটে।


আরও খবর



একুশে পদকের জন্য মনোনয়ন আহ্বান

প্রকাশিত:রবিবার ১৮ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১৮ জুলাই ২০২১ | ৯২জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

২০২২ সালের একুশে পদকের জন্য মনোনয়ন আহ্বান করেছে সরকার। আগামী ১৫ অক্টোবরের মধ্যে মনোনয়ন বা প্রস্তাব সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ে পাঠানোর অনুরোধ জানানো হয়েছে।

রবিবার (১৮ জুলাই) সরকারি এক তথ্য বিবরণীতে এ আহ্বান জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়, একুশে পদক প্রদান সংক্রান্ত নীতিমালা অনুযায়ী অন্যান্য বছরের মতো ২০২২ সালেও সরকারের ভাষা আন্দোলন, শিল্পকলা (সংগীত, নৃত্য, অভিনয়, চারুকলাসহ সব ক্ষেত্র), মুক্তিযুদ্ধ, সাংবাদিকতা, গবেষণা, শিক্ষা, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি, অর্থনীতি, সমাজসেবা, রাজনীতি, ভাষা ও সাহিত্য এবং সরকার কর্তৃক নির্ধারিত অন্য কোনো ক্ষেত্রে প্রশংসনীয় ও গৌরবোজ্জ্বল অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ ব্যক্তি (জীবিত/মৃত), গোষ্ঠী, প্রতিষ্ঠান ও সংস্থাকে একুশে পদক প্রদান করার নীতিগত সিদ্ধান্ত রয়েছে।

এ লক্ষ্যে সরকারের সব মন্ত্রণালয় ও বিভাগ, সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন দফতর ও সংস্থা, সব পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ, সব জেলা প্রশাসক এবং স্বাধীনতা পদক ও একুশে পদকে ভূষিত সুধীদের আগামী ১৫ অক্টোবরের মধ্যে মনোনয়ন বা প্রস্তাব সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ে পাঠানোর অনুরোধ জানিয়েছে সরকার।

এ সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্যাবলি ও একুশে পদক নীতিমালা এবং মনোনয়ন প্রস্তাবের ফরম সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় (www.moca.gov.bd) এবং তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের (www.moi.gov.bd) ওয়েবসাইটে পাওয়া যাবে বলেও তথ্য বিবরণীতে উল্লেখ করা হয়েছে।

নিউজ ট্যাগ: একুশে পদক

আরও খবর



টস হেরে ফিল্ডিংয়ে বাংলাদেশ

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৩ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ জুলাই ২০২১ | ৮৭জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

প্রথম টি-টোয়েন্টি বড় ব্যবধানে জিতেছে বাংলাদেশ। তিন ম্যাচের সিরিজের দ্বিতীয়টি জিতলেই সিরিজ নিশ্চিত। সেই লক্ষ্যে আজ (শুক্রবার) টস হেরে ফিল্ডিংয়ে লাল-সবুজ জার্সিধারীরা। জিম্বাবুয়ে অধিনায়ক সিকান্দার রাজা টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

লিটন দাসের ইনজুরি আমিনুল ইসলাম বিপ্লবের বাবার মৃত্যুতে দলে কিছুটা গুমোট পরিস্থিতি থাকলেও সবাই নির্ভারই আছেন। আগের ম্যাচে ব্যাটিং অর্ডারে বেশ কিছু রদবদল হয়েছে। বিশেষ করে, লিটনের চোটে ওপেনিংয়ে ব্যাট করার সুযোগ পান সৌম্য সরকার। সুযোগটা ভালো করেই কাজে লাগিয়েছেন। ক্যারিয়ারের চতুর্থ হাফসেঞ্চুরি (৫০) তুলে নিয়ে ম্যাচসেরার পুরস্কারও জিতেছেন তিনি। অন্যদিকে মাহমুদউল্লাহ নুরুল হাসান সোহান ওপরের দিকে ব্যাটিং করেছেন। সাকিব আল হাসান অবশ্য ব্যাটিংয়ে নামার সুযোগই পাননি।

টেস্ট ওয়ানডের মতো টি-টোয়েন্টির পরিসংখ্যানেও এগিয়ে বাংলাদেশ দল। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ১৪ টি-টোয়েন্টির ১০টিই জিতেছে লাল-সবুজ জার্সিধারীরা। আফ্রিকার দেশটির কাছে বাংলাদেশ সবশেষ টি-টোয়েন্টি  হেরেছিল ২০১৬ সালে খুলনায়। এরপর আরও ৫টি ম্যাচ খেললেও কোনটিতেই হারাতে পারেনি জিম্বাবুয়ে। সবমিলিয়ে কোনও দ্বিপাক্ষিক সিরিজে জিম্বাবুয়ে জিততে পারেনি।


আরও খবর