আজঃ সোমবার ০৮ মার্চ ২০২১
শিরোনাম

যারা বিয়ে করতে ভয় পায় তারা এক ধরনের মানসিক রোগী

প্রকাশিত:শনিবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০21 | হালনাগাদ:শনিবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০21 | ৩১৮জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বিয়ে নামক শব্দটার সঙ্গে ছোট থেকেই আমাদের পরিচিতি রয়েছে বেশ। ছোট থেকে বড় হতে হতে আমরা পরিবারের বন্ধন দেখতে পাই বিয়ের মাধ্যমেই। কিন্তু বড় হতে হতে অনেকেরই পারিপার্শ্বিক পরিস্থিতির কারণে বিয়ে নামক বস্তুটায় আপত্তি চলে আসে।

আমাদের সমাজের এরকম অনেক মানুষ আছে যাদের বিয়ের নামেই অ্যালার্জি রয়েছে। তারা মনে করেন বিয়ে মানেই একটি সম্পর্কে আবদ্ধ হয়ে যাওয়া, আর সেখান থেকে বের না হতে পারার একটি ভয়ও কাজ করে। তবে এই বিয়ে ভীতি বা অনীহা এক ধরনের মানসিক রোগ- যাকে আমরা গ্যামোফোবিয়া নামে চিনে থাকি।

গ্যামোফোবিয়া হলো, বিয়ে কিংবা কোনও ধরনের স্থায়ী সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ার ভয়। যারা মানসিকভাবে এই ফোবিয়ায় আক্রান্ত তারা আসলে নতুন সম্পর্ক নিয়ে আতঙ্কে থাকেন, বিবাহিত জীবন নিয়ে একটা ভয় কাজ করে, নিজের ব্যক্তি স্বাধীনতার জায়গাটুকু খর্ব হতে পারে কিংবা মানিয়ে চলা যাবে কি না এধরনের একটা চিন্তায় থাকেন এই ফোবিয়ায় আক্রান্ত মানুষরা।

অনেকেই সম্পর্ক জড়ান ঠিকই তবে বিয়ের বিষয় আসলেই তারা ভড়কে যান। তাদের এরকম ফোবিয়া থাকলে বুঝতে হবে তিনি গ্যামোফোবিয়ায় ভুগছেন।

গ্যামোফোবিয়া বিভিন্ন কারণে হতে পারে। বাবা-মায়ের বিচ্ছেদ, পরিবারের মধ্যে ঝগড়া-বিবাদ বা সত্যিকারের প্রেম ভেঙ্গে যাওয়ার পর অনেকেই মানসিকভাবে এতোটাই ভেঙ্গে পড়েন যে, কাউকে আর তার আপন মনে হয় না। এরকম যাদের পরিবারে রয়েছে তারাই বেশিরভাগ এই রোগে ভোগেন।

এই রোগ থেকে উত্তরণের জন্য অবশ্যই সাইকোলজিস্টদের কাউন্সেলিং এর প্রয়োজন। এরকম লক্ষণ যাদের মাঝে থাকবে তাদের সঙ্গে অবশ্যই ধীরস্থিরভাবে চলতে হবে। কোন কিছু নিয়ে প্রেশার না দিয়ে সম্পর্কের মহত্ব ও গভীরতাকে সামনে নিয়ে আসতে হবে। তাহলেই এক সময় সে মানুষটাও বিয়ের মত সুন্দর সম্পর্কের বিষয়টা বুঝতে পারবে।

 

নিউজ ট্যাগ: বিয়ে
Share

আরও খবর



আফগানিস্তানে তিন নারী গণমাধ্যমকর্মীকে গুলি করে হত্যা

প্রকাশিত:বুধবার ০৩ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ০৩ মার্চ ২০২১ | ৭৬জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
নিহত তিনজনেরই বয়স ১৮ থেকে ২০ বছর। সবে উচ্চ মাধ্যমিকের পড়াশোনা শেষ করেছিলেন। এনিকাস টিভির ডাবিং বিভাগে কাজ করতেন তাঁরা। টেলিভিশন স্টেশনটির প্রধান জালমাই লতিফি এসব তথ্য জানিয়ে বলেন তাদের স্টেশনে ১০

আফগানিস্তানের জালালাবাদ শহরে একটি বেসরকারি টেলিভিশনের তিন কর্মীকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। দুটি পৃথক হামলায় তাঁদের হত্যা করা হয়। এ ছাড়া গুলিবিদ্ধ একজন গুরুতর আহত অবস্থায় চিকিৎসাধীন রয়েছেন। বিবিসির খবরে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।

পুলিশ বন্দুকধারী একজনকে আটক করেছে, অন্যদেরও খুঁজছে। পুলিশ তালেবানকে এ ঘটনায় দায়ী করছে। তবে, তালেবানের পক্ষ থেকে জড়িত থাকার কথা অস্বীকার করা হয়েছে।

নিহত তিনজনেরই বয়স ১৮ থেকে ২০ বছর। সবে উচ্চ মাধ্যমিকের পড়াশোনা শেষ করেছিলেন। এনিকাস টিভির ডাবিং বিভাগে কাজ করতেন তাঁরা। টেলিভিশন স্টেশনটির প্রধান জালমাই লতিফি এসব তথ্য জানিয়ে বলেন তাদের স্টেশনে ১০ জন নারীকর্মীর মধ্যে চারজনকেই হত্যা করা হলো। এর আগে গত ডিসেম্বরে মালালাই মাইওয়ান্দ আইএসের হামলায় নিহত হন। এ ছাড়া গত মাসে রাজধানী কাবুলে সুপ্রিম কোর্টের দুই নারী বিচারককে গুলি করে হত্যা করা হয়।

টিভিতে কাজ শেষে বাড়ি ফেরার পথে একইভাবে দুই জায়গায় হামলা চালিয়ে গুলি করে তাঁদের হত্যা করা হয়। ইদানীং সাংবাদিক, মানবাধিকারকর্মী ও রাজনীতিবিদদের টার্গেট করে হত্যার ঘটনায় আফগানিস্তানে নতুন করে আতঙ্ক ছড়িয়েছে। সংবাদ সংস্থা অ্যাসোসিয়েটেড প্রেস জানায়, একা বাড়ি ফেরার পথে মুরসাল ওয়াহিদিকে এবং শাহনাজ ও সাদিয়াকে পৃথক ঘটনায় গুলি করা হয়।

নানগারহার পুলিশ প্রধান জুমা গুল হেমাত বলেন, পালানোর সময় একজনকে ধরেছি আমরা। সে নিজেকে তালেবান সদস্য হিসেবে স্বীকার করেছে।

নিউজ ট্যাগ: আফগানিস্তান
Share

আরও খবর



বিএনপির আন্দোলন সুদূরপরাহত: কাদের

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ৭৪জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
ওবায়দুল কাদের বলেন, একদফা আর এগারো দফা যাই বলুন, বিএনপির আন্দোলনের মরা গাঙ্গে আর জোয়ার আসবে না। তাদের তথাকথিত এক দফা আন্দোলনও

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনমুখী রাজনীতির জন্যই বিএনপি ইস্যু নির্বাচনে ব্যর্থ হয়ে একযুগ কাটিয়ে দিয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, বিএনপির আন্দোলন সুদূরপরাহত, তাই তাদের আন্দোলন দূর আকাশের নীলিমা, যা দেখা যায় কিন্তু ছোঁয়া যায় না। ওবায়দুল কাদের আজ শুক্রবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) সকালে তার সরকারি বাসভবনে নিয়মিত ব্রিফিংয়ে এসব কথা বলেন।

শেখ হাসিনা সরকার নাকি দেউলিয়াত্বের শেষ পর্যায়ে, বিএনপি নেতাদের এমন অভিযোগের জবাবে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, শেখ হাসিনা সরকার নয়, বিএনপি'র রাজনীতিই এখন গভীর সমুদ্রে কম্পাসহীন নাবিকের মতো। বিএনপির মিথ্যাচারই তাদের রাজনীতিকে এখন গ্রাস করছে।

বিএনপির এক দফা আন্দোলনের জন্য কর্মীদের প্রস্তুতি নেওয়া প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, একদফা আর এগারো দফা যাই বলুন, বিএনপির আন্দোলনের মরা গাঙ্গে আর জোয়ার আসবে না। তাদের তথাকথিত এক দফা আন্দোলনও জনবিচ্ছিন্নতায় মুখ থুবড়ে পড়বে।

আওয়ামী লীগ সভাপতির প্রতি দেশের জনগণের আস্থা শতভাগ উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, সাম্প্রতিক পৌরসভা নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের বিপুল বিজয় তারই নজির। যে কোনো জনঘনিষ্ট ইস্যুতে শেখ হাসিনা সরকার সবার আগে রেসপন্স করেন এবং আওয়ামী লীগও দেশের মানুষে সঙ্গে আছে বলেই বিএনপি আন্দোলনের ইস্যু সংকটে পড়ছে।

Share

আরও খবর



মাদক মামলায় এক মানিকের নামে অন্য মানিক জেলে

প্রকাশিত:বুধবার ০৩ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ০৩ মার্চ ২০২১ | ৭৮জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মাদক মামলায় এক মানিকের স্থলে অন্য মানিক জেল খাটছেন এমন অভিযোগ এনে নির্দোষ মানিকের পক্ষে তার স্ত্রী হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছেন। চেয়েছেন স্বামীর মুক্তি। আজ বুধবার (৩ মার্চ) বিচারপতি জেবিএম হাসান ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলমের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ বিষয়ে আদেশের জন্য আগামি রোববার (৭ মার্চ) দিন ধার্য করেছেন। আদালতে আবেদনের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী পার্থ সারথী রায়। ডেপুর্টি অ্যাটর্নি জেনারেল তুষার কান্তি রায়।

আইনজীবীরা জানান, ২০০৯ সালে একটি গাড়িতে ৬৬৮ বোতল ফেনসিডিল পাওয়ার অভিযোগে ওই বছরের ২ জুন সিরাজগঞ্জের সলঙ্গা থানায় ৪ জনের বিরুদ্ধে করা মামলা হয়। পরে ওই মামলার আসামি মো. মানিক মিয়াকে ২০০৯ সালের ৩ জুন গ্রেফতার করেন পুলিশ। কিছু দিন কারাভোগের পর একই বছর হাইকোর্ট থেকে জামিন পান মানিক।

মামলার বিচার শেষে ২০১৯ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি সিরাজগঞ্জ আদালতে রায় ঘোষণা করেন। রায়ে চার আসামিকে ৪ বছরের কারাদণ্ড দেন।

আসামিরা হলেন- ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গার মন্টু শেখ ওরফে জামাল উদ্দিন ও সোহরাব হোসেন, পটুয়াখালী বাউফল থানার মো. জামাল হোসেন ও শরীয়তপুর জেলার সখিপুর থানার মো. মানিক মিয়া।

মানিক হাওলাদারের ছোট ভাই রতন হাওলাদার বলেন, আমাদের গ্রামের বাড়ি শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জ উপজেলার সখিপুরের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের আলম চাঁন ব্যাপারী কান্দী গ্রামে। আমার বাবার নাম নজরুল ইসলাম আর মায়ের নাম রেজিয়া বেগম।

অন্যদিকে মামলার যে প্রকৃত আসামি মো. মানিক মিয়া। তার বাবার নাম ইব্রাহিম মৃধা, মায়ের নাম লুতফা বেগম। গ্রাম হচ্ছে মালতকান্দি। সখিপুরের ৬ নম্বর ওয়ার্ড। চলতি বছরের ১৩ জানুয়ারি সাজাপ্রাপ্ত মো. মানিক মিয়ার স্থলে শুধু নামের মিল থাকার কারণে মানিক হাওলাদারকে শরীয়তপুর থেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

নিউজ ট্যাগ: মাদক মামলা
Share

আরও খবর



করোনা: সুস্থের সংখ্যা ৯ কোটি ১০ লাখ ছাড়িয়েছে

প্রকাশিত:বুধবার ০৩ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ০৩ মার্চ ২০২১ | ৭১জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
সবশেষ তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে। দেশটিতে ৫ লাখ ২৯ হাজার ২১৪ জন এখন পর্যন্ত মারা গেছেন। বিশ্বে সর্বোচ্চ আক্রান্তের সংখ্যাও এই দেশটিতে

বিশ্বে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও প্রাণহানির সংখ্যা কোনোভাবেই কমছে না। সবশেষ করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১১ কোটি ৫২ লাখ ৮১ হাজার ৮৩৭ জন। আর এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বিশ্বে মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৫ লাখ ৫৯ হাজার ২২২ জনে। এর মধ্যে সুস্থ হয়েছে ৯ কোটি ১০ লাখ ৯৩ হাজার ২৪৯ জন। করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ও প্রাণহানির পরিসংখ্যান রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডওমিটার থেকে এই তথ্য জানা যায়।

ওয়ার্ল্ডওমিটারের সবশেষ তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে। দেশটিতে ৫ লাখ ২৯ হাজার ২১৪ জন এখন পর্যন্ত মারা গেছেন। বিশ্বে সর্বোচ্চ আক্রান্তের সংখ্যাও এই দেশটিতে। এই পর্যন্ত ২ কোটি ৯৩ লাখ ৭০ হাজার ৭০৫ জন এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের পর মৃত্যু বিবেচনায় করোনায় সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশ হচ্ছে ব্রাজিল। লাতিন আমেরিকার দেশটিতে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছে ১ কোটি ৬ লাখ ৪৭ হাজার ৮৪৫ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ২ লাখ ৫৭ হাজার ৫৬২ জনের। তবে মৃত্যু বিবেচনায় মেক্সিকোর অবস্থান তৃতীয়। আক্রান্তের দিক থেকে দ্বিতীয় স্থানে উঠে আসা ভারত মৃত্যু বিবেচনায় আছে চতুর্থ অবস্থানে। এ পর্যন্ত দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা ১ কোটি ১১ লাখ ৩৯ হাজার ৩২৩ জন। আর মৃত্যু হয়েছে ১ লাখ ৫৭ হাজার ৩৮৫ জনের।

দেশে করোনাভাইরাসের আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে। এখন পর্যন্ত মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৮ হাজার ৪২৩ জনে। এছাড়াও এখন পর্যন্ত দেশে মোট শনাক্তের সংখ্যা ৫ লাখ ৪৭ হাজার ৩১৬ জন।

নিউজ ট্যাগ: করোনাভাইরাস
Share

আরও খবর



ড. ইউনূসকে তলব করেছেন হাইকোর্ট

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ৯৬জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

নিজ প্রতিষ্ঠানের শ্রমিকদের বিষয়ে আদালতের আদেশ পালন না করায় আদালত অবমাননার অভিযোগে শান্তিতে নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ ড. ইউনূসকে তলব করেছেন হাইকোর্ট।

একইসঙ্গে গ্রামীণ ব্যাংকের একজন পরিচালককেও আদালতে তলব করা হয়েছে। আগামী ১৬ মার্চ তাদের আদালতে উপস্থিত হয়ে আদালত অবমাননার বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে বলেছেন হাইকোর্ট।

বৃহস্পতিবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) হাইকোর্টের বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি মো. কামরুল হোসেন মোল্লার সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আদালতের আদেশের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন অ্যাডভোকেট মো. ইউসুফ আলী।

নিউজ ট্যাগ: ড. ইউনূস
Share

আরও খবর