আজঃ মঙ্গলবার ২৫ জানুয়ারী ২০২২
শিরোনাম

যেখানে তদবির দরকার সেখানেই চালাব: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৪ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৪ জানুয়ারী ২০২২ | ২৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দেশের স্বার্থে যেখানে তদবির চালানো দরকার সেখানেই সরকার তদবির করবে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন।

শুক্রবার সকালে রাজধানীর বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ল অ্যান্ড ইন্টারন্যাশনাল অ্যাফেয়ার্সে (বিলিয়া) এক সেমিনার শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি একথা জানান।

র‌্যাব ও এর সাত কর্মকর্তার ওপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞার পরিপ্রেক্ষিতে বাংলাদেশ যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সম্পর্ক উন্নয়নে লবিস্ট নিয়োগ করবে কিনা, জানতে চাইলে আবদুল মোমেন বলেন, আমি এসব বলতে পারব না। লবিস্ট নিয়োগ যুক্তরাষ্ট্রের চর্চা। এটা বোধ হয় ২০১৩-১৪ সালে করেছিল এবং ওরা কাজ করে। প্রত্যেক দেশই লবিস্ট নিয়োগ দেয়।  আমাদের দেশে বলা হয় তদবির। তবে যেখানে তদবির দরকার, সেখানে আমরা চালাব। দেশেও তো কাজ করতে গেলে অনেক সময় তদবির লাগে।

মার্কিন নিষেধাজ্ঞার প্রসঙ্গে এক প্রশ্নের জবাবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, সময়-সময় আমাদের অনেক ধরনের দুর্যোগ আসে। আমরা সেগুলো সমাধান করি। এখনো একটা হয়তো অসুবিধা আসছে। আমেরিকানরা পরিপক্ব জাতি। তারা দেখবে। যদিও র‌্যাবের ওপর যুক্তরাষ্ট্র নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে, মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তর বলছে গত কয়েক বছরে সন্ত্রাস কমেছে। এটা তাদের নিরপেক্ষ সমীক্ষা। সেগুলো নিয়ে তারা চিন্তাভাবনা করবে নিশ্চয়ই।

গণতন্ত্রে বাংলাদেশ দিন দিন পরিকপক্কতা অর্জন করছে জানিয়ে আবদুল মোমেন বলেন, গণতন্ত্রে অনেক ধাক্কা আসে। সব গণতন্ত্রেই অপরিপূর্ণতা আছে। এটা একটি ধারাবাহিক প্রক্রিয়া। আমরা দিনে দিনে পরিপক্বতা অর্জন করেছি।

তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্র পরিপক্বতা অর্জন করার মধ্যেও ধাক্কা খায়। এ ধরনের ধাক্কাটাক্কা সব দেশে আসে। কোথাও দুর্বলতা থাকলে আমরা অবশ্যই তা দূর করার চেষ্টা করব।


আরও খবর



১৩ জানুয়ারি থেকে বিধিনিষেধ আরোপ করে প্রজ্ঞাপন

প্রকাশিত:সোমবার ১০ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১০ জানুয়ারী ২০২২ | ১১৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

করোনাভাইরাসের নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রন ইস্যুতে নতুন করে বিধিনিষেধ আরোপ করছে সরকার। আগামী ১৩ জানুয়ারি (বৃহস্পতিবার) থেকে এ বিধিনিষেধ কার্যকর হবে।

সোমবার (১০ জানুয়ারি) বিকেলে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে।

নিউজ ট্যাগ: করোনাভাইরাস

আরও খবর



ঠাকুরগাঁওয়ে বাস চাপায় পথচারী নিহত

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৮ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৮ জানুয়ারী ২০২২ | ২০০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ঠাকুরগাঁও-ঢাকা মহাসড়কে ইসলাম পরিবহন নামের একটি বাসের চাপায় আব্দুল হামিদ (৫০) নামে এক পথচারী নিহত হয়েছেন। ঘটনার পর বিক্ষুদ্ধ লোকজন রাস্তায় গাছের গুড়ি ফেলে সড়ক অবরোধ করে। এতে ওই সড়কে ১ ঘণ্টা যান চলাচল বন্ধ ছিল। পরে প্রশাসনের মধ্যস্ততায় পরিস্থিত শান্ত হয়।

মঙ্গলবার (১৮ জানুয়ারি) সকাল ৯টার দিকে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা ২৯ মাইল নামক এলাকায় এই দুর্ঘটনা ঘটে।  নিহত আব্দুল হামিদ জগন্নাথপুর ইউনিয়নের গৌরীপুর এলাকার ধোদা মোহাম্মদের ছেলে।

হামিদের ছোট ভাই রশিদুল বলেন, মঙ্গলবার সকালে আমার ভাই কাজের জন্য বাইরে যায়। ঠাকুরগাঁও-ঢাকা মহাসড় দিয়ে যাওয়ার সময় ইসলাম পরিবহনের একটি বাস পেছন থেকে তাকে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই আব্দুল হামিদ মারা যান।

ঠাকুরগাঁও ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন কর্মকর্তা সরোয়ার হোসেন বলেন, ঢাকা থেকে ইসলাম পরিবহণ নামে বাসটি পঞ্চগড়-তেঁতুলিয়ার উদ্দেশে ছেড়ে আসে। ঠাকুরগাঁও শহরে প্রবেশকালে চালক গাড়িটির নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলেন। এতে দুর্ঘটনাটি ঘটেছে। নিহতের লাশ আইনি প্রক্রিয়া শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।


আরও খবর



পুতিনের সামনে দুটি পথ খোলা আছে: বাইডেন

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২০ জানুয়ারী ২০22 | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২০ জানুয়ারী ২০22 | ৩৪৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ইউক্রেনে হামলা ইস্যুতে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে কড়া হুঁশিয়ারি দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

তিনি বলেন, পুতিনের সামনে দুটি পথ খোলা আছে- হয় পালাতে হবে, নয়তো কূটনৈতিক সমঝোতায় আসতে হবে। স্থানীয় সময় বুধবার হোয়াইট হাউসের ইস্ট রুমে এক সংবাদ সম্মেলনে এ হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন বাইডেন। তিনি বলেন, আমার ধারণা পুতিন (ইউক্রেনে) হামলা চালাবেন। তিনি সেখানে কিছু একটা করতে যাচ্ছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বলেন, আমি কি বলবো তিনি আমাদের পরীক্ষা করছেন? আমার মনে হয় হয়তো তাই। তবে এর জন্য তাকে চরম মূল্য দিতে হবে।

বাইডেনের এই হুঁশিয়ারির পর হোয়াইট হাউসের প্রেস সেক্রেটারি জেন সাকি বলেন, যদি ইউক্রেন সীমান্তে নতুন হামলার জন্য রাশিয়ার সেনাবাহিনী অগ্রসর হয়, তাহলে খুব দ্রুত এর জবাব দেওয়া হবে।

এদিকে ইউক্রেন সীমান্তে এক লাখের বেশি সেনা এবং যুদ্ধসরঞ্জাম মোতায়েন করে চাপ অব্যাহত রেখেছে মস্কো। তারা বলেছে, পশ্চিমা বিশ্ব কিয়েভের জন্য হুমকি হয়ে উঠছে।

অব্যাহত উত্তেজনার মধ্যেই শুক্রবার জেনেভায় যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন ও রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরভের মধ্যে বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে।


আরও খবর
সৌদি আরবে প্রতি ঘণ্টায় ৭ ডিভোর্স

সোমবার ২৪ জানুয়ারী ২০২২




সোশ্যাল মিডিয়া সাংবাদিকদের চ্যালেঞ্জের মুখে ঠেলে দিয়েছে: আইনমন্ত্রী

প্রকাশিত:বুধবার ২৯ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ২৯ ডিসেম্বর ২০২১ | ৬১৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সোশ্যাল মিডিয়া এখন সাংবাদিকদের চ্যালেঞ্জের মুখে ঠেলে দিয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। তিনি বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের প্রসারের কারণে এখন সবাই সাংবাদিক হয়ে গেছেন। সবাই সাংবাদিক হয়ে যাওয়ার কারণে প্রকৃত সাংবাদিকরা চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েছেন।  যারা পড়ালেখা করে, কাজ করে এই পেশায় আছেন তারা এখন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহারকারীদের কারণে কোণঠাসা অবস্থায়। 

আপনারা যারা লেখাপড়া করে সাংবাদিক হয়েছেন তারা মানসিকভাবে নিজেকে যেভাবে তৈরি করেছেন।  কিন্তু ফেসবুক ব্যবহারকারীরা ঘরের মধ্যে বসেই সাংবাদিকতা করছেন। এই যে পার্থক্য, এই পার্থক্যের জন্য আপনাদেরকে লড়াই করে বেঁচে থাকতে হবে। বুধবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে এক অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

আইনমন্ত্রী বলেন, আপনারাই কিন্তু আসল সাংবাদিকতা করার জন্য শিক্ষিত-প্রশিক্ষিত।  এজন্য আপনাদের যে জায়গা তথা পেশাদারিত্বের জায়গাটায় যেন অ্যামেচারিজম না আসে সেদিকে সজাগ করতে হবে।  সেই দায়িত্বও আপনাদের।  সেই জায়গায় সরকার আপনাদের সব রকম সহায়তা করবে।


আরও খবর



‘চসিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে বিশ্বমানের গড়তে হবে’

প্রকাশিত:বুধবার ১৯ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১৯ জানুয়ারী ২০২২ | ৩০৫জন দেখেছেন

Image

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি:

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী বলেন, যে জাতি জ্ঞানের আলোয় আলোকিত নয় তার স্থান সভ্য সমাজ থেকে অনেক পিছিয়ে থাকে। চির সবুজ সোনার বাংলাকে উন্নত থেকে আরো উন্নততর করতে শিক্ষার কোন বিকল্প নেই। তিনি শিল্পায়নের ঝুঁকি ও একুশ শতকের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় আমাদের শিক্ষা ও প্রতিষ্ঠানকে বিশ্বমানের গড়ে তুলতে দক্ষ, প্রশিক্ষিত শিক্ষকগণকে আলোকবর্তিকা হিসেবে শিক্ষার উন্নয়নে অবদান রাখতে আহ্বান জানান।

তিনি আরো বলেন, কোভিড-১৯ অতিমারিতে শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় শিক্ষকদের গুরুদায়িত্ব পালন করতে হবে। ১২-১৮ বছরের কোন ছাত্রছাত্রী যাতে টিকার বাইরে না থাকে সেটি নিশ্চিত করতে হবে।

বুধবার সকালে টাইগারপাসস্থ অস্থায়ী নগর ভবনে চসিক সম্মেলন কক্ষে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন কায়সার নিলুফার কলেজ, পাথরঘাটা মেনকা সিটি কর্পোরেশন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, আলকরন নুর আহম্মদ সিটি কর্পোরেশন বালক উচ্চ বিদ্যালয়, গোসাইলডাঙ্গা কে.বি.এইচ দোভাষ সিটি কর্পোরেশন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, হালিশহর আহমদ মিয়া সিটি কর্পোরেশন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, চরচাক্তাই সিটি কর্পোরেশন উচ্চ বিদ্যালয়ের পরিচালনা কমিটির সভায় সভাপতির বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি একথা বলেন।

প্রধান শিক্ষা কর্মকর্তা লুৎফুন নাহারের সঞ্চালনায় এতে আরো বক্তব্য রাখেন চসিক শিক্ষা স্ট্যান্ডিং কমিটির সভাপতি ড. নিছার উদ্দিন আহমেদ মঞ্জু, কাউন্সিলর হাজী নুরুল হক, আবদুস সালাম মাসুম, মো. নুরুল আলম, মেয়রের একান্ত সচিব মোহাম্মদ আবুল হাশেম, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমূহের সদস্যসচিব অধ্যক্ষ শেখ মো. ওমর ফারুক, প্রধান শিক্ষক এ.কে.এম মোহাম্মদ উল্লাহ, বিধুভুষণ পাল, মানিক চন্দ্র বৈদ্য, জালাল আহমেদ, রোমা বড়ুয়া প্রমুখ।

মেয়র বলেন, শিক্ষা সমৃদ্ধির নিয়ামক আর শিক্ষকরাই জাতির পথ প্রদর্শক। শিক্ষকেরা জাতি গঠনের মূল হাতিয়ার। শিক্ষার্থীদের আলোকিত ও আদর্শবান মানুষ হিসেবে গড়ে তোলার অন্যতম কারিগর হল শিক্ষকরা। প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মানন্নোয়নে শিক্ষক ও ম্যানেজিং কমিটির ভূমিকা অনস্বীকার্য। বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটি ও শিক্ষকরা যদি সক্রিয়ভাবে কাজ করে তাহলে ঐ বিদ্যালয়টি একটি আদর্শ বিদ্যালয় হিসেবে প্রতিষ্ঠা লাভ করবে। শিক্ষকদের আধুনিক শিক্ষাপদ্ধতির সাথে তালমিলিয়ে শ্রেণিকক্ষে ও অনলাইনে পাঠদানে পারদর্শী হতে হবে।

মেয়র শিক্ষকদের উদ্দেশ্য বলেন, প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার পাশাপাশি সৎ, চরিত্রবান ও ভালো মানুষ হিসেবে শিক্ষার্থীদের গড়ে তুলতে হবে। ক্লাসে পাঠদানের পূর্বেই মানবিক, নৈতিক মূল্যবোধ সম্পর্কে আলোচনা করার উপর গুরুত্বারোপ করেন। তিনি বলেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের দেখভাল শুধু প্রধান শিক্ষকের নয়। এ ক্ষেত্রে পরিচালনা কমিটি ও অভিভাবকদেরও দায়িত্ব রয়েছে। তারা প্রতিষ্ঠান প্রধানকে সহযোগিতার মাধ্যমে শিক্ষার মান আরো উন্নয়নে কার্যকর ভূমিকা রাখবে।

চসিক প্রধান শিক্ষা কর্মকর্তা লুৎফুন নাহার বলেন, সরকার ও চসিকের বিধিবিধান অনুসরণ করে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমুহ পরিচালনা করতে হবে। বিনা রশিদে কোন ফি আদায় করা যাবে না। শিক্ষকদের নিয়মিত প্রাতিষ্ঠানিক শ্রেণী কাযর্যক্রম সফলতার সাথে সম্পন্ন করতে হবে। সভায় চসিক পরিচালিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমূহে শিক্ষক, কর্মচারীদের শূন্যপদে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে নিয়োগের ব্যবস্থাকরণ, শিক্ষক-কর্মচারীদের এমপিও ভুক্তকরণ, অবকাঠামো নির্মাণ সম্পন্নকরণ, শহীদ মিনার নির্মাণ, শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাব, বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ কর্ণার স্থাপনসহ গুরুত্বপূর্ণ কিছু বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।


আরও খবর