আজঃ বৃহস্পতিবার ২৪ জুন ২০২১
শিরোনাম

যেসব জেলা-উপজেলায় উদ্বোধন হবে মডেল মসজিদ

প্রকাশিত:বুধবার ০৯ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ০৯ জুন ২০২১ | ১৫৭জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
৫০টি মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র আগামীকাল বৃহস্পতিবার (১০ জুন) উদ্বোধন করা হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভার্চুয়ালি সংযুক্ত হয়ে এর উদ্বোধন ঘোষণা করবেন

ধর্ম মন্ত্রণালয়ের অধীন ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে দেশের প্রতিটি জেলা-উপজেলায় একটি করে মোট ৫৬০টি মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র স্থাপন করা হচ্ছে।

এ প্রকল্পের অধীনে ৫০টি মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র আগামীকাল বৃহস্পতিবার (১০ জুন) উদ্বোধন করা হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভার্চুয়ালি সংযুক্ত হয়ে এর উদ্বোধন ঘোষণা করবেন।

যে ৫০টি এলাকায় মডেল মসজিদ ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র উদ্বোধন হচ্ছে সেগুলো হলো- ঢাকার সাভার, ফরিদপুরের মধুখালী ও সালথা, কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়া ও কুলিয়ারচর, মানিকগঞ্জের শিবালয়, রাজবাড়ী সদর উপজেলা, শরীয়তপুরের সদর উপজেলা ও গোসাইরহাট, বগুড়ার সারিয়াকান্দি, শেরপুর ও কাহালু, নওগাঁর সাপাহার ও পোরশা, পাবনার চাটমোহর, সিরাজগঞ্জের জেলা ও উপজেলা সদর, রাজশাহীর গোদাগাড়ী ও পবা, দিনাজপুরের খানসামা ও বিরল, লালমনিরহাটের পাটগ্রাম, পঞ্চগড় সদর উপজেলা ও দেবীগঞ্জ, রংপুরের জেলা ও উপজেলা সদর, মিঠাপুকুর, পীরগঞ্জ ও বদরগঞ্জ, ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুর, জামালপুরের সদর উপজেলা ও ইসলামপুর, ময়মনসিংহের গফরগাঁও ও তারাকান্দা, ভোলার সদর উপজেলা, ঝালকাঠির রাজাপুর, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগর ও নবীনগর, চাঁদপুরের কচুয়া, চট্টগ্রাম জেলা সদর, লোহাগাড়া, মিরসরাই ও সন্দ্বীপ, কুমিল্লার দাউদকান্দি, খাগড়াছড়ির পানছড়ি, নোয়াখালীর সুবর্ণচর, চুয়াডাঙ্গা জেলা সদর, খুলনা জেলা সদর, কুষ্টিয়া সদর উপজেলা ও সিলেটের দক্ষিণ সুরমা।

প্রতিটি মসজিদের নির্মাণ ব্যয় ১২ কোটি থেকে ১৬ কোটি টাকা।


আরও খবর



ইয়াস উপকূল থেকে ৪৬৫ কিলোমিটার দূরে অবস্থান করছে (লাইভ)

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৫ মে ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৫ মে ২০২১ | ১৭৭জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় ইয়াস উপকূল থেকে এখনও ৪৬৫ কিলোমিটার দূরে অবস্থান করছে। ঘূর্ণিঝড়টি ঘণ্টায় ১০-১৫ কিলোমিটার গতিবেগে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ ও উড়িষ্যার দিকে অগ্রসর হচ্ছে। যদি গতিপথ পরিবর্তন না করে তবে ঘূর্ণিঝড়টি বাংলাদেশে আঘাত হানার সম্ভাবনা নেই।

সাতক্ষীরা আবহাওয়া অধিদপ্তরের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জুলফিকার আলী বলেন, ঘূর্ণিঝড়টির কেন্দ্র বাংলাদেশের উপকূলে না হলেও এর প্রভাবে উপকূলীয় এলাকায় ঝড়ো হাওয়া, জলোচ্ছ্বাসসহ ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। মঙ্গলবার (২৫ মে) রাত থেকে এর প্রভাব শুরু হবে। বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

মঙ্গলবার (২৫ মে) সকাল থেকে সাতক্ষীরার আবহাওয়া স্বাভাবিক থাকলেও আকাশে মেঘের আনাগোনা রয়েছে। এ ছাড়া উপকূলীয় এলাকায় বাতাসের গতিবেগ বৃদ্ধি পেয়েছে। নদীতে জোয়ার থাকায় ঢেউগুলো আছড়ে পড়ছে বাঁধে।

ইয়াস সম্পর্কিত ১০ নম্বর বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে মঙ্গলবার (২৫ মে) সকালে ঢাকার আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত ঘূর্ণিঝড় ইয়াস উত্তর-উত্তরপশ্চিম দিকে অগ্রসর ও আরও ঘনীভূত হয়ে শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিয়েছে। চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরকে ২ নম্বর দূরবর্তী হুঁশিয়ারি সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

আবহাওয়া অধিদপ্তর পূর্বাভাসে আরও জানিয়েছে, প্রবল ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের ৬৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ৮৯ কিলোমিটার, যা দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়া আকারে ১১৭ কিলোমিটার পর্যন্ত বাড়ছে। প্রবল ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের নিকট সাগর খুবই বিক্ষুব্ধ রয়েছে। উত্তর বঙ্গোপসাগর ও গভীর সাগরে অবস্থানরত সকল মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলালকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত নিরাপদ আশ্রয়ে থাকতে বলা হয়েছে।

অনুকূল আবহাওয়া পরিস্থিতির কারণে প্রবল ঘূর্ণিঝড়টি আরও ঘনীভূত হয়ে উত্তর-উত্তরপশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে ২৬ মে ভোর নাগাদ উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগর এলাকায় পৌঁছাতে পারে।

বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়, ঘূর্ণিঝড়টি আজ সকাল ৬টায় (২৫ মে) চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে ৫৭৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণপশ্চিমে, কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে ৫২৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণপশ্চিমে, মোংলা সমুদ্রবন্দর থেকে ৪৯০ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণপশ্চিমে এবং পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে ৪৬৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণপশ্চিমে অবস্থান করছিল।

মঙ্গলবার রাত ৯টা পর্যন্ত আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, ঢাকা, খুলনা, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের অনেক জায়গায় এবং রংপুর, রাজশাহী, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা ও ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি ও বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে বিচ্ছিন্নভাবে দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী থেকে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। রংপুর, রাজশাহী, ময়মনসিংহ, ঢাকা, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের উপর দিয়ে মৃদু থেকে মাঝারি ধরনের তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে এবং তা অনেক জায়গা থেকে প্রশমিত হতে পারে।

লাইভ লিংক

নিউজ ট্যাগ: ঘূর্ণিঝড় ইয়াস

আরও খবর



আবারো ফুঁসে উঠলেন মমতা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৫ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৫ জুন ২০২১ | ৮৩জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

উত্তরবঙ্গকে কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল করার দাবি নিয়ে এবার মুখ খুললেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

সোমবার নবান্নে এ নিয়ে কড়া ভাষায় তিনি বলেন, কোনো রকম ডিভাইড অ্যান্ড রুল আমরা করতে দেব না। রাজ্য সরকারের অনুমতি ছাড়া এ সব করা যায় না।

উত্তরবঙ্গের জেলাগুলোকে নিয়ে পৃথক রাজ্য করার দাবি উঠতে শুরু করেছে বিজেপির অন্দরমহল থেকে। এ নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় নানা পোস্টও হয়েছে। বিগত দিনে পৃথক রাজ্যের দাবিতে কেপিপি, জিসিপিএ, মোর্চার আন্দোলন দেখেছে উত্তরবঙ্গ।

এবার উত্তরবঙ্গকে কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল করার নতুন দাবি তুলছে বিজেপি। তারই পরিপ্রক্ষিতে সোমবার ফুঁসে উঠলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এদিন তিনি বলেন, মনে হচ্ছে যেন মহারাণী নিজেই যেন নিজের ঘরের অলঙ্কার বিলি করছেন। যেন দেশটাকে এমন মনে করছে বিজেপি। এত সহজ? উত্তরবঙ্গ আর দক্ষিণবঙ্গের পার্থক্যটা কোথায়। পশ্চিমবঙ্গ ইস পশ্চিমবঙ্গ। দক্ষিণবঙ্গও পশ্চিমবঙ্গের মধ্যে। উত্তরবঙ্গও পশ্চিমবঙ্গের মধ্যে। কোনো রকম ডিভাইড অ্যান্ড রুল করতে দেব না।রাজ্য সরকারের অনুমতি ছাড়া এসব হবে না।

মমতা বলেন, কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল মানে কী? কাশ্মীরের মতো নজরবন্দি করে রাখা? মুখ বন্ধ করে রেখে দেওয়া? তাদের অধিকার কেড়ে নেওয়া? বাংলাটাকে টুকরো টুকরো করতে চেয়ে  কার স্বার্থ ওরা মেটাচ্ছে। এত বড় ধাক্কা খাওয়ার পরেও লজ্জা করে না। বাংলা ভাগের দিকে যারা তাকাবে বাংলার মানুষ তাদের উপযুক্ত জবাব দেবে। উত্তর ও দক্ষিণবঙ্গ দুটোই আমার প্রিয়। দুটোই কন্যা। কোথাও কোথাও দক্ষিণবঙ্গের থেকেও উত্তরের কাজ বেশি হয়েছে।পুরোটা ঢেলে সাজানো হয়েছে। দিল্লিকা লাড্ডু খাবে, সব ভবিষ্যৎ বিক্রি করে দিয়ে। উত্তরবঙ্গকে পরাধীন হতে দেব না। বিজেপির এই দাবিকে ধিক্কার জানাই।


আরও খবর
করোনার ডেল্টা প্লাসে প্রথম মৃত্যু

বৃহস্পতিবার ২৪ জুন ২০২১




টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ওমানে

প্রকাশিত:বুধবার ০২ জুন 2০২1 | হালনাগাদ:বুধবার ০২ জুন 2০২1 | ৮৬জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ভারতে করোনা পরিস্থিতির ঊর্ধ্বগতির কারণে শঙ্কা আছে সেখানে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হওয়া নিয়ে। যদিও ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড তাদের সিদ্ধান্ত জানাতে আইসিসির কাছে সময় চেয়েছে আরও এক মাস।

এর মাঝে আইসিসি তাদের তালিকায় থাকা ভেন্যু নিয়ে পর্যালোচনা করবে। তাতে বেশি সম্ভাবনা সংযুক্ত আরব আমিরাত। শুরু থেকেই আলোচনা চলছে ভারতে বিশ্বকাপ না হলে সেটি আরব আমিরাতে নিয়ে যাওয়া হবে।

ক্রিকেট ভিত্তিক ওয়েবসাইট ইএসপিএনক্রিকইনফো জানিয়েছে, এখন শুধু আরব আমিরাত নয়, আইসিসির তালিকায় আছে মধ্যপ্রাচ্যের আরেক দেশ ওমান।

ভেন্যু আরব আমিরাত হোক কিংবা ওমান, আয়োজক থাকবে ভারত। আইসিসি এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ভারত যেহেতু সময় চেয়েছে তাই আয়োজক দেশের ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হবে চলতি মাসের শেষে। তাছাড়া টুর্নামেন্ট যেখানেই হোক, আয়োজন স্বত্ব থাকবে বিসিসিআইয়ের কাছে।এদিকে ভারতে ভারতে করোনা আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা আগের চেয়ে কিছুটা কমলেও বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন অক্টোবর-নভেম্বরে আসতে পারে তৃতীয় ঢেউ। তাই এ ব্যাপারেও ভাবতে হচ্ছে আইসিসিকে।


আরও খবর
কলম্বিয়াকে ২-১ গোলে হারাল ব্রাজিল

বৃহস্পতিবার ২৪ জুন ২০২১




ইয়াসের মূল আঘাতে ব্যাপক ক্ষতির আশঙ্কা

প্রকাশিত:বুধবার ২৬ মে ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ২৬ মে ২০২১ | ১০৭জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
বাতাসের গতিবেগ ১১৫ কিলোমিটার থেকে বেড়ে ঘণ্টায় ১৩০ থেকে ১৪০ কিলোমিটার গতিবেগে বয়ে যাবে। তাই ওড়িশার জনপদে বেশ ক্ষয়ক্ষতির শঙ্কা করা হচ্ছে। ওড়িশা ছাড়াও বালেশ্বর উপকূলে প্রায় একই গতিতে বাতাসের

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় ইয়াস আঘাত হানতে শুরু করেছে বাংলাদেশ ও ভারতের নিম্নাঞ্চলে। তবে বাংলাদেশে ক্ষয়ক্ষতির মাত্রাটা তুলনামূলক কম আশা করলেও ভারতের পূর্বাঞ্চলীয় এলাকা ওডিশা উপকূলে ব্যাপক হারে ক্ষতির আশঙ্কা করা হচ্ছে।

এরইমধ্যে সেখানে শুরু হয়েছে ইয়াসের তাণ্ডব। আবহাওয়া বার্তার দেয়া সময়ের আগেই অতিপ্রবল বেগে আঘাত হানতে শুরু করেছে বুধবার সকাল ৯টার দিকে। বলা হচ্ছে ঘণ্টায় ১৫৫ কিলোমিটার গতির বাতাসের শক্তি নিয়ে ওড়িশায় আছড়ে পড়েছে ঘূর্ণিঝড় ইয়াস।

ভারতের আবহাওয়া বিভাগ জানাচ্ছে, ওডিয়াশার বালাশোর ও ধামারা এলাকা অতিক্রম করে মূল কেন্দ্রভাগে আছড়ে পড়তে সময় লাগতে পারে আরও ৩-৪ ঘণ্টা । যা আজ দুপুরের মধ্যে আঁচড়ে পড়বে ওডিশার স্থলভাগে।

ওই সময়ে বাতাসের গতিবেগ ১১৫ কিলোমিটার থেকে বেড়ে ঘণ্টায় ১৩০ থেকে ১৪০ কিলোমিটার গতিবেগে বয়ে যাবে। তাই ওড়িশার জনপদে বেশ ক্ষয়ক্ষতির শঙ্কা করা হচ্ছে। ওড়িশা ছাড়াও বালেশ্বর উপকূলে প্রায় একই গতিতে বাতাসের তাণ্ডব চলতে পারে বলে সতর্ক করেছে ভারতের আবহাওয়া অধিদপ্তর।

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আশঙ্কা করছেন, দুপুরের দিকে প্রচণ্ড টর্নেডো হতে পারে কলকাতায়। তাই তিনি অনুরোধ করেছেন, সবাইকে সাবধানে থাকার। এদিকে গতকাল মঙ্গলবার কলকাতার হালিশহর ও ব্যান্ডেলে টর্নেডোর আঘাতে দুজনের প্রাণহানি ঘটে। এছাড়াও প্রবল বাতাসে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ৪০টির বেশি বাড়িঘর।

তবে বার্তা সংস্থা রয়টার্স ও ভারতীয় দৈনিক টাইমস অব ইন্ডিয়া জানিয়েছে, ইয়াস আঘাত হানার আগেই ভারী বৃষ্টিতে তিন জনের মৃত্যু হয়েছে পশ্চিমবঙ্গে।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আরও বলেছেন, উপকূলবর্তী এলাকার পূর্ব মেদিনীপুরের ৫১টির মতো নদী বাঁধ ভেঙে গেছে তীব্র পানির স্রোতে। এতে প্লাবিত হয়েছে দিঘা ও শঙ্করপুরের ২০ হাজারের বেশি বাড়িঘর। ডুবে গেছে নন্দীগ্রামে গ্রামের বেশির ভাগ এলাকা।

নিউজ ট্যাগ: ঘূর্ণিঝড় ইয়াস

আরও খবর
করোনার ডেল্টা প্লাসে প্রথম মৃত্যু

বৃহস্পতিবার ২৪ জুন ২০২১




পুঁজিবাজারে খুবই ভালো ভবিষ্যৎ দেখছি : সালমান এফ রহমান

প্রকাশিত:শনিবার ১৯ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ১৯ জুন ২০২১ | ৯৩জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান বলেছেন, গত ১ বছর ধরে পুঁজিবাজারে নতুন ধরন দেখছি। নতুন কমিশন অনেকগুলো সুন্দর পদক্ষেপ নিয়েছে।

এখানে বিনিয়োগকারীদের আস্থা ফিরেছে। এছাড়া লেনদেন ও বাজার মূলধন বেড়েছে। একইসঙ্গে বেসিক সমস্যা ইক্যুইটিভিত্তিক মার্কেট থেকে বেরিয়ে আসার চেষ্টা করা হচ্ছে। সব মিলিয়ে পুঁজিবাজারের খুবই ভালো ভবিষ্যৎ দেখছি।

শনিবার (১৯ জুন) বাংলাদেশ মার্চেন্ট ব্যাংকার্স অ্যাসোসিয়েশন (বিএমবিএ) ও ক্যাপিটাল মার্কেট জার্নালিস্টস ফোরাম (সিএমজেএফ) আয়োজিত বাজেট পরবর্তী আলোচনা ও শেয়ারবাজারের উন্নয়নের পথ শীর্ষক অনলাইন সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

সালমান এফ রহমান বলেন, আমি মনে করি আমাদের মার্কেটে এখন অনেক সুযোগ আছে। নতুন নতুন অনেক ইন্সট্রুমেন্ট নিয়ে আসা হচ্ছে। বাজার স্থিতিশীল করার জন্য বিএসইসি অনেকগুলো সুন্দর পদক্ষেপ নিয়েছে। যখন যেটা প্রয়োজন ঠিক সে সময় সিদ্ধান্তগুলো নেওয়া হচ্ছে। আমি দেখলাম কোম্পানিগুলোর লোয়ার একটা ক্যাপ (ফ্লোর প্রাইস) ছিল, সেটা তুলে দেওয়া হয়েছে। আমরা যেভাবে এগোচ্ছি তাতে পুঁজিবাজারের খুবই ভালো ভবিষ্যৎ আমি দেখছি।

তিনি বলেন, পুঁজিবাজার ভালো হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে স্টেকহোল্ডারদের দায়িত্ব বাড়বে। এক্ষেত্রে দেশের ঊভয় স্টক এক্সচেঞ্জের ম্যানেজমেন্টের সক্ষমতা বাড়াতে হবে। এছাড়া বিশ্বের উন্নত দেশগুলোর পুঁজিবাজার যেভাবে পরিচালিত হয় এবং সেখানে যে ধরনের সুযোগ-সুবিধা আছে সেগুলো আমাদেরও চালু করতে হবে।

সালমান এফ রহমান বলেন, এ মাসের ৩০ তারিখে বাজেট পাস হবে। তার আগে কিছু কিছু সংশোধন আনা হবে। আপনারা যে দাবিগুলো তুলেছেন দেখা যাক এ সময়ের মধ্যে আমরা সংশোধনগুলো আনতে পারবো কিনা। আমরা চেষ্টা করবো এ প্রস্তাবগুলো চূড়ান্ত বাজেটে অন্তর্ভুক্ত করার।

তিনি বলেন, অপ্রদর্শিত অর্থ পুঁজিবাজারে বিনিয়োগের সুযোগ দেওয়ার দাবি আমরা আগেই জানিয়েছি। যাতে তারা (যাদের কাছে অপ্রদর্শিত অর্থ আছে) সেটা (অপ্রদর্শিত অর্থ) লিগ্যাল ফর্মে (বৈধ পদ্ধতিতে) নিয়ে আসতে পারেন সে সুযোগটি রাখার জন্য।

সালমান এফ রহমান বলেন, বন্ডগুলো নিয়ে আমরা কিছু প্রোগ্রাম হাতে নিয়েছি। আশা করবো বন্ড ও সুকুক নিয়ে আমাদের যে পরিকল্পনা আছে তা ফিসক্যাল পলিসির মাধ্যমে সামনে এগিয়ে যাওয়ার বিষয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ সাহায্য-সহযোগিতা করবে।

সিএমজেএফের সাধারণ সম্পাদক মনির হোসেনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) কমিশনার ড. শেখ সামসুদ্দিন আহমেদ, ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) চেয়ারম্যান মো. ইউনুসুর রহমান ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) চেয়ারম্যান আসিফ ইব্রাহিম।

অনুষ্ঠানে আয়োজকদের পক্ষে বক্তব্য রাখেন বিএমবিএর সভাপতি মো. ছায়েদুর রহমান ও সিএমজেএফের সভাপতি হাসান ইমাম রুবেল।


আরও খবর