আজঃ সোমবার ০৮ মার্চ ২০২১
শিরোনাম

যুক্তরাজ্যে ২০২৭ সাল পর্যন্ত জিএসপি সুবিধা পাবে বাংলাদেশ

প্রকাশিত:বুধবার ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ৯৭জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

যুক্তরাজ্যে ২০২৭ সাল পর্যন্ত অগ্রাধিকার বাজার সুবিধা (জিএসপি) পাবে বাংলাদেশ বলে জানিয়েছেন ঢাকায় নিযুক্ত ব্রিটিশ হাইকমিশনার রবার্ট চ্যাটার্টন ডিকসন।

বুধবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

বাংলাদেশ-যুক্তরাজ্য প্রথম বাণিজ্য ও বিনিয়োগ সম্মেলন নিয়ে ব্রিটিশ হাইকমিশনে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে ঢাকায় নিযুক্ত ব্রিটিশ হাইকমিশনার রবার্ট চ্যাটার্টন ডিকসন জানান, দুই ধাপে তিন বছর করে যুক্তরাজ্যের বাজারে জিএসপি সুবিধা পাবে। প্রথম ধাপে ২০২৪ সাল আর দ্বিতীয় ধাপে ২০২৭ সাল পর্যন্ত জিএসপি সুবিধা পাবে।

Share

আরও খবর
স্বর্ণের দাম আরেক দফা কমলো

শনিবার ০৬ মার্চ ২০২১




‘আমরা চাই, মানুষ বীমা সম্পর্কে আরও আস্থাশীল হোক’

প্রকাশিত:সোমবার ০১ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ০১ মার্চ ২০২১ | ১১০জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
বঙ্গবন্ধু শিক্ষা বীমা চালু করা হয়েছে। বার্ষিক ৮৫ টাকা দিয়ে একটা পলিসি করতে পারবে। এক্ষেত্রে নতুন বিবাহিত কাপল বীমা করলে সন্তান শিক্ষা সমাপনী পর্যন্ত আর কোনো সমস্যায় পড়তে হবে না, এরকম ব্যবস্থা করতে হবে

বীমার প্রিমিয়াম জমা দেয়া ও ক্ষতি নিরূপণে আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহারের পরামর্শ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সোমবার (১ মার্চ) রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে জাতীয় বীমা দিবস-২০২১ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন। গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে অনুষ্ঠানে যুক্ত হন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা চাই, মানুষ বীমা সম্পর্কে আরও আস্থাশীল হোক। এতে তারা যেন সুফলটা ভোগ করতে পারে। সেজন্য বীমা পদ্ধতির আধুনিকায়ন ও যাবতীয় আইন করে দিয়েছি। বীমায় গ্রাহকদের সর্বোচ্চ সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করতে হবে। বীমার দাবি পূরণে সতর্ক থাকতে হবে। গ্রাহকের পাওনা সহজে পাওয়ার বিষয়ে যত্নবান হতে হবে। পাশাপাশি আর্টিফিশিয়াল ক্ষতি দেখিয়ে কেউ যেন বীমা দাবি করতে না পারে, সে ব্যাপারে সতর্ক থাকতে হবে।

শেখ হাসিনা বলেন, আমাদের দেশে এই সমস্যা আছে। একটা সুবিধার ব্যবহারের চেয়ে অপব্যবহার করতে চায় অনেকে। এ বিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে। আমি হাতেনাতে ধরতে পেরেছি বলে বললাম। বীমা জীবন ঘনিষ্ঠ সেবা। এই সেবাকে যাতে অন্যভাবে ব্যবহার করতে না পারে, খেয়াল রাখতে হবে। অবশ্য এটা এখন অনেকে কমে গেছে। বীমার সুফল সম্পর্কে সচেতনতার অভাব আছে। সচেতনতা বাড়াতে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে হবে। জাতির পিতা এই সচেতনতা তৈরিতে কাজ করেছিলেন। ১৯৬১ সালের ১ মার্চ আলফা ইনস্যুরেন্স কোম্পানিতে আঞ্চলিক প্রধান হিসেবে যোগদান করেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। এখানে বসেই ৬ দফা রচনা করেছিলেন। তাই এটা শুধু বীমার নয়, রাজনৈতিকভাবেও গুরুত্বপূর্ণ।

শেখ হাসিনা বলেন, বঙ্গবন্ধু শিক্ষা বীমা চালু করা হয়েছে। বার্ষিক ৮৫ টাকা দিয়ে একটা পলিসি করতে পারবে। এক্ষেত্রে নতুন বিবাহিত কাপল বীমা করলে সন্তান শিক্ষা সমাপনী পর্যন্ত আর কোনো সমস্যায় পড়তে হবে না, এরকম ব্যবস্থা করতে হবে। বার্ষিক ২৮৫ টাকা দিয়ে একজন খেলোয়াড়ও নিজের জীবন সুরক্ষিত রাখতে পারবে প্রবাসীদের জন্যও বীমার সুযোগ রাখা হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধু যুদ্ধ বিধ্বস্ত দেশ গড়ার কাজ করে গেছেন। শূন্য থেকে শুরু করেন। অর্থনৈতিক উন্নতিসহ সব জায়গায় হাত দিয়েছেন। একটি রাষ্ট্র গঠনে সব কাজই তিনি করে গেছেন। উন্নয়নের এই পথেই আসে আঘাত। তাকে হত্যা করা হয়। শুধু তাকে নয় পুরো পরিবারকে। এতে পরিবার শুধু নয় বাঙালি জাতি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে৷ জাতি তাদের সম্ভাবনাকে হারিয়েছে।

সম্মাননাপ্রাপ্ত ও শিক্ষা বীমাপ্রাপ্তদের শুভেচ্ছা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমি নিজে গিয়ে সম্মাননা দিতে পারলে ভালো লাগত। কিন্তু করোনা আমাকে একরকম বন্দি করে দিয়েছে। কারণ আমি বের হলে হাজারখানেক লোকের কাজে সম্পৃক্ততা হয়। এতে ঝুঁকি তৈরি হয়। নিজের জন্য তো অন্যের জীবন ঝুঁকিতে ফেলতে পারি না। তবে সমস্যা কাটিয়ে উঠতে আমরা টিকা নিয়ে আসছি। দেয়াও হচ্ছে। টিকা গ্রহণের পরও স্বাস্থ্য সুরক্ষা মেনে চলতে হবে। হাত ধোয়া, মাস্ক পরা, এগুলোর মাধ্যমে নিজেকে সুরক্ষিত রাখতে হবে।

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মোস্তফা কামালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন ইনস্যুরেন্স এসোসিয়েশনের সভাপতি শেখ কবির হোসেন ও আর্থিক বিভাগের সিনিয়র সচিব আসাদুল ইসলাম।

Share

আরও খবর
স্বর্ণের দাম আরেক দফা কমলো

শনিবার ০৬ মার্চ ২০২১




প্রিয়াঙ্কা চোপড়াকে খোঁচা মেরে বার্তা দিলেন মিয়া খলিফা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ১০১জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ভারতে চলমান কৃষক আন্দোলন নিয়ে নীরবতার অভিযোগ তুলে বলিউড অভিনেত্রী প্রিয়াঙ্কা চোপড়াকে খোঁচা মেরে বার্তা দিয়েছিলেন সাবেক মার্কিন পর্ন তারকা ও অন্তর্জাল ব্যক্তিত্ব মিয়া খলিফা। সেই টুইটের জবাব প্রিয়াঙ্কা না দিলেও তাঁর অনুরাগীরা মিয়াকে একহাত নিয়েছেন।

গত ৩ ফেব্রুয়ারি কৃষক আন্দোলনের সমর্থনে টুইটের পর ৮ ফেব্রুয়ারি প্রিয়াঙ্কা চোপড়া জোনাসকে একহাত নেন মিয়া খলিফা। ভারতীয় গণমাধ্যমের খবর, রিহানার টুইটের পর কৃষক আন্দোলনের পক্ষে প্রিয়াঙ্কা তেমনভাবে সোচ্চার না হওয়ায় হতাশ মিয়া।

ভারতের বিনোদনভিত্তিক সংবাদমাধ্যম বলিউড বাবলের খবর, মিয়া খলিফার ওই টুইটের পর নেটিজেনরা তাঁকে স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন, গেল ডিসেম্বরে প্রিয়াঙ্কা কৃষকদের পক্ষে টুইট করেছিলেন। আর এ নিয়ে মিয়ার ওপর ক্ষুব্ধ অন্তর্জালবাসীর একাংশ।

৮ ফেব্রুয়ারি বৈরুত বিস্ফোরণের পর শাকিরার নীরবতার সঙ্গে প্রিয়াঙ্কার তুলনা করে মিয়া খলিফা টুইটারে লেখেন, মিসেস জোনাসও কি কোনো সূত্রের সঙ্গে সুর মেলাতে চাইছেন? আমার শুধু কৌতূহল জাগল। এটা আমাকে বৈরুত বিস্ফোরণের সময় শাকিরার নীরবতার কথা মনে করিয়ে দিচ্ছে। নেটনাগরিকেরা বলছেন, ডিসেম্বরেই কৃষকদের সমর্থন করে বার্তা দিয়েছেন প্রিয়াঙ্কা।

অন্তর্জালবাসীর অনেকের দাবি, প্রিয়াঙ্কাকে নিয়ে অমন টুইট করার আগে তাঁকে নিয়ে গবেষণা করা উচিত ছিল মিয়া খলিফার।

গত ডিসেম্বরে পাঞ্জাবি গায়ক-অভিনেতা দিলজিৎ দোসাঞ্জের টুইট সমর্থন করে প্রিয়াঙ্কা লিখেছিলেন, কৃষকেরাই ভারতের খাদ্যসেনা। তাঁদের আকাঙ্ক্ষা পূরণের দাবি করেন প্রিয়াঙ্কা এবং দ্রুত সমস্যা সমাধানের তাগিদ দেন।

যা হোক, ভারতে চলমান কৃষক আন্দোলনের ঢেউ সীমানা ছাড়িয়ে আছড়ে পড়ছে দেশের বাইরেও। এ আন্দোলনের সমর্থনে গত সপ্তাহে টুইট করেছিলেন মার্কিন পপ তারকা রিহানা, জলবায়ুকর্মী গ্রেটা থুনবার্গ, অন্তর্জাল তারকা আমান্ডা কার্নি ও মিয়া খলিফা।  

Share

আরও খবর



পাকিস্তানে চার নারী এনজিওকর্মীকে গুলি করে হত্যা

প্রকাশিত:সোমবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ৯৩জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
নিহত চারজন নারীদের প্রশিক্ষণ দানকারী একটি এনজিওতে কাজ করতেন। সন্ত্রাসীরা নারীদের লক্ষ্যবস্তু বানাচ্ছে এবং হত্যা করছে। তবে এই হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে কে বা কারা জড়িত তা এখনই বলা যাচ্ছে না

পাকিস্তানে দুষ্কৃতদের গুলিতে এবার প্রাণ হারালেন চার নারী এনজিওকর্মী। সোমবার দেশটির উত্তরপূর্বাঞ্চলীয় খাইবার পাখতুনখাওয়া প্রদেশে নিজেদের গাড়িতে করে যাওয়ার সময় রাস্তায় গুলি করে হত্যা করা হয় তাদের। খবর রয়টার্সের।

উত্তর ওয়াজিরিস্তানের পুলিশপ্রধান শফিউল্লাহ গন্দপুর জানান, নিহত চারজন নারীদের প্রশিক্ষণ দানকারী একটি এনজিওতে কাজ করতেন। সন্ত্রাসীরা নারীদের লক্ষ্যবস্তু বানাচ্ছে এবং হত্যা করছে। তবে এই হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে কে বা কারা জড়িত তা এখনই বলা যাচ্ছে না। এখন পর্যন্ত কোনো দল বা গোষ্ঠী এই বর্বর হত্যাকাণ্ডের দায় স্বীকার করেনি। তবে নারীদের পড়াশোনা ও বাইরে কাজের বিরোধিতা করা কোনো উগ্র মুসলিম গোষ্ঠী এই হামলা চালাতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

২০১২ সালে নারী শিক্ষার পক্ষে কথা বলায় কিশোরী মালালা ইউসুফজাইকে গুলি করে মারাত্মকভাবে জখম করেছিল পাকিস্তানি তালেবান গোষ্ঠী। তিনি অবশ্য প্রাণে বেঁচে যান এবং দুবছর পর বিশ্বের সর্বকনিষ্ঠ নারী হিসেবে শান্তিতে নোবেল পুরস্কার পান।

Share

আরও খবর



সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে রাষ্ট্র নিয়ে অসত্য তথ্য প্রচারে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা

প্রকাশিত:বুধবার ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ১০৭জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ফেসবুকসহ যেকোনো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে অসত্য তথ্য প্রচারে জড়িত বাংলাদেশি নাগরিকদের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহিতার মামলার প্রস্তাব করেছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি। দেশে ও দেশের বাইরে অবস্থানকারী যারাই এ কাজে জড়িত তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে এ প্রস্তাব করা হয়েছে।

বুধবার (১০ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে অনুষ্ঠিত বৈঠকে বিষয়টি নিয়ে আলোচনায় কমিটির সদস্যরা বলেন, অপপ্রচারের সঙ্গে জড়িতদের কোনোভাবেই ছাড় দেয়া যাবে না। তাদের আইনের আওতায় এনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে হবে।

কমিটির সভাপতি মো. শামসুল হক টুকুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বৈঠকে কমিটির সদস্য স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, মো. আফছারুল আমীন, মো. হাবিবুর রহমান, সামছুল আলম দুদু, পীর ফজলুর রহমান, নূর মোহাম্মদ, সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমদ ও বেগম রুমানা আলী এবং সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

কমিটি সূত্র জানায়, বৈঠকে চলমান কোভিড-১৯ পরিস্থিতি ও দেশের সমসাময়িক পরিস্থিতিতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অধীন জননিরাপত্তা, সুরক্ষা ও সেবা বিভাগ এবং অন্য সংস্থাগুলোর সার্বিক কার্যক্রমের প্রতিবেদন উপস্থাপন ও আলোচনা করা হয়। এছাড়া ১৯৭১ সালে সংঘটিত মানবতাবিরোধী অপরাধের তদন্তকাজ পরিচালনায় গঠিত তদন্ত সংস্থা, আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের সার্বিক কার্যক্রমের বিষয়েও প্রতিবেদন উপস্থাপন করা হয়।

বৈঠকে মাদকাসক্ত আসামিদের বিশেষ অপরাধী হিসেবে আখ্যা দিয়ে তারা যাতে সহজে জামিন না পেতে পারে সে লক্ষ্যে প্রয়োজনে আইন, বিচার ও সংসদবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে আলোচনা করে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের সুপারিশ করা হয়। এছাড়া আগ্নেয়াস্ত্র বরাদ্দের ক্ষেত্রে সংসদ সদস্যদের অগ্রাধিকার দিতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে প্রত্যেক জেলা প্রশাসককে পত্র দেয়ারও সুপারিশ করা হয়েছে।

Share

আরও খবর
ঢাবিতে ভর্তির আবেদন শুরু

সোমবার ০৮ মার্চ ২০২১




তালা ভেঙে হলে ঢুকছেন জাবির শিক্ষার্থীরা

প্রকাশিত:শনিবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০21 | হালনাগাদ:শনিবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০21 | ৭৬জন দেখেছেন
Share
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে তালা ভেঙে আবাসিক হলে প্রবেশ করছেন বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা। শনিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে আল বেরুনি হলের তালা ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করেন শিক্ষার্থীরা।

পরে শিক্ষার্থীরা ফজিলাতুন্নেসা হল, নওয়াব ফয়জুন্নেসা হল, শেখ হাসিনা হল, খালেদা জিয়া হল ও জাহানারা ইমাম হলের গেট ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করেন।

এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা ছাত্রীদের হলগুলোতে গেট ভেঙে প্রবেশের চেষ্টা করছেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর আ স ম ফিরোজ উল হাসান বলেন, আমি শিক্ষার্থীদের এ ধরনের অনৈতিক কার্যক্রমে অংশ না নেওয়ার আহ্বান জানাই।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা জানান, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন আমাদের হল খোলার দাবি মেনে নেয়নি। আমরা এভাবে অনিরাপদভাবে বিশ্ববিদ্যালয়ের বাইরে থাকতে পারি না। তাই আমরা বাধ্য হয়েই তালা ভেঙে হলে প্রবেশ করছি।

Share

আরও খবর
ঢাবিতে ভর্তির আবেদন শুরু

সোমবার ০৮ মার্চ ২০২১