আজঃ বৃহস্পতিবার ২৪ জুন ২০২১
শিরোনাম

৬৬৫১ কোটি টাকা ব্যয়ে একনেকে ১০ প্রকল্প অনুমোদন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৮ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৮ জুন ২০২১ | ১১০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
প্রধানমন্ত্রী ও একনেক চেয়ারপারসন শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে এসব প্রকল্প অনুমোদন দেওয়া হয়। সভা শেষে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান

১০টি উন্নয়ন প্রকল্প অনুমোদন দিয়েছে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক)। প্রকল্পগুলোতে মোট ব্যয় হবে ৬ হাজার ৬৫১ কোটি ৩৪ লাখ টাকা।  এর মধ্যে সরকার দেবে ৫ হাজার ২১৯ কোটি ৮১ লাখ টাকা, সংস্থার নিজস্ব অর্থায়ন ৭৯৮ কোটি ৩ লাখ টাকা এবং বিদেশি ঋণ ৬৩৭ কোটি ৫০ লাখ টাকা।

মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রী ও একনেক চেয়ারপারসন শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে এসব প্রকল্প অনুমোদন দেওয়া হয়। সভা শেষে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান।

নতুন প্রকল্পগুলোর মধ্যে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের বরিশাল (দিনারেরপুল) লক্ষ্মীপাশা-দুমকি সড়ক (জেড-৮০৪৪) এর ২৭তম কিলোমিটারে পান্ডব-পায়রা নদীর উপর নলুয়া-বাহেরচর সেতু নির্মাণ প্রকল্পটিতে ১ হাজার ২৩ কোটি ৫০ লাখ টাকা খরচ করা হবে। 

২০২১ সালের জুলাই থেকে ২০২৬ সালের জুন মেয়াদে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হবে বলেও জানান পরিকল্পনা মন্ত্রী।


আরও খবর



ভারতে দ্বিতীয় ঢেউয়ে স্বস্তি ফিরছে, মৃত্যু কমে ২৬৭৭

প্রকাশিত:রবিবার ০৬ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ০৬ জুন ২০২১ | ১১০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

প্রায় দুই মাস তাণ্ডব চালানোর পর ধারাবাহিকভাবে প্রতিদিনই কিছু কিছু করে করোনাভাইরাসে সংক্রমিত রোগীর সংখ্যা কমছে ভারতে। শনিবারের তুলনায় গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে করোনা শনাক্তের সংখ্যা ছয় হাজার কমেছে। সেদিন সাড়ে ৩ হাজারে পৌঁছানো মৃত্যু কমে রোববার তা কমে এসে দাঁড়িয়েছে আড়াই হাজারের ঘরে।

রবিবার (৬ জুন) করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও প্রাণহানির পরিসংখ্যান রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডওমিটার ও ভারতের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের থেকে জানা গেছে এ তথ্য।

জানা গেছে, ভারতে গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন ১ লাখ ১৪ হাজার ৪৬০ জন। নতুন সংক্রমিত রোগী কমেছে ৬ হাজারের বেশি। এ পর্যন্ত দেশটিতে মোট আক্রান্ত ২ কোটি ৮৮ লাখ ৮ হাজার ৩৭২ জন এবং মারা গেছেন ৩ লাখ ৪৬ হাজার ৭৮৪ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে মৃত্যু হয়েছে ২ হাজার ৬৭৭ জনের। গত দিনের তুলনায় রোববার এই সংখ্যা কমেছে সাত শতাধিক।

এছাড়াও প্রতিদিনই সক্রিয় রোগী থেকে সুস্থ হয়ে উঠছেন অনেক মানুষ। কয়েক মাস আগেও দেশটিতে সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ছিল ৩৭ লাখের বেশি। তবে শেষ এক মাসে সেই সংখ্যা কমতে কমতে ১৪ লাখের ঘরে নেমে এসেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত রোগী কমেছে ৭৮ হাজারের বেশি। এ পর্যন্ত মোট সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ১৪ লাখ ৭৭ হাজার ৭৯৯ জন।



আরও খবর
করোনার ডেল্টা প্লাসে প্রথম মৃত্যু

বৃহস্পতিবার ২৪ জুন ২০২১




বিএনপির রাজনীতি এখন গভীর সংকটে

প্রকাশিত:রবিবার ১৩ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১৩ জুন ২০২১ | ৬৮জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বিএনপির রাজনীতি এখন শেকড় থেকে বিচ্ছিন্ন বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি আজ সকালে তাঁর সরকারি বাসভবনে নিয়মিত ব্রিফিংকালে এ মন্তব্য করেন।

দেশের রাজনীতি এখন সংকটময় অবস্থায় নিমজ্জিত বিএনপি নেতাদের এমন বক্তব্য প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, দেশে কোনো সংকটময় পরিস্থিতি নেই, বরং বিএনপির রাজনীতি এখন গভীর সংকটে।

ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, দেশ ও জনগণের বিপক্ষে অবস্থান নিয়ে বিএনপিই নিজেদের জন্য সংকট তৈরি করেছে।

বিএনপির নেতারা নিজেদের ব্যর্থতা ঢাকতে কর্মীদের উত্তাল আন্দোলনের দিবাস্বপ্ন দেখাচ্ছেন উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, কর্মীদের রোষানল থেকে বাঁচতে বিএনপির নেতাদের বক্তব্য এখন আত্মরক্ষার ঢালমাত্র।

বিএনপির আন্দোলনে আওয়ামী লীগ ভেসে যাবেমির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের এমন বক্তব্যের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, আওয়ামী লীগ কচুরিপানা নয় যে বিএনপির হাঁকডাকে ভেসে যাবে।

জনগণ তাদের আন্দোলনের অনেক মৌসুমি হাঁক-ডাক শুনেছে, আন্দোলনের ডাক দিয়ে বিএনপির নেতাদের শীতনিন্দ্রায় চলে যাওয়াও দেখেছে তাদের কর্মীরা, যোগ করেন ওবায়দুল কাদের।

এ ছাড়া আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, শেখ হাসিনার মানবিক, সুদক্ষ নেতৃত্বের প্রতি আস্থাশীল জনগণ অন্য কারও সন্ত্রাসনির্ভর আন্দোলনের হাঁকডাকে ভয় পায় না।

বিএনপি নতুন করে আন্দোলনের যে হাঁকডাক দিচ্ছে, তা অতীতের ধারাবাহিকতায় আরেকটি ব্যর্থ প্রয়াসের পূর্বাভাস মাত্র বলে মনে করেন ওবায়দুল কাদের।

আওয়ামী লীগের শেকড় এ দেশের মাটি ও মানুষের অনেক গভীরে উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অবস্থান মানুষের মণিকোঠায়।

ওবায়দুল কাদের বলেন, অতীতে অনেক হত্যা,সন্ত্রাস আর ষড়যন্ত্র হয়েছে, তাতে আওয়ামী লীগ আরও শক্তিশালী হয়ে জনগণের পাশে দাঁড়িয়েছে।

এ ছাড়া গতকাল শনিবার সংসদীয় বোর্ডের সভায় আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনা দলের সব পর্যায়ের নেতাকর্মীদের শৃঙ্খলাজনিত নির্দেশনা দেওয়া প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির অনুমতি ব্যতীত কোথাও কেউ কোনো কমিটি বিলুপ্ত, কমিটি গঠন অথবা ব্যক্তি বা দল থেকে কাউকে অব্যাহতি দিতে পারবে না।

সব পর্যায়ে দলীয় শৃঙ্খলা কঠোরভাবে মেনে চলার জন্যও সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের প্রতি নির্দেশনা দেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

নিউজ ট্যাগ: ওবায়দুল কাদের

আরও খবর



ঋতুস্রাবের সময় অসহ্য ব্যথা নিরসনে যা করা উচিত

প্রকাশিত:বুধবার ০২ জুন 2০২1 | হালনাগাদ:বুধবার ০২ জুন 2০২1 | ১২৬জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মেয়েদের মাসিক শুরুর পর তাকে কাউন্সিলিংয়ের পাশাপাশি অন্তত ছয় মাস পর্যবেক্ষণে রাখার জন্য পরামর্শ দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের কৈশোর বান্ধব স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্রের অধ্যাপক শিউলী চৌধুরী বলছেন, জীবনের শুরুতে ভয় বা মাসিক সংক্রান্ত সমস্যা কাটিয়ে ওঠার সঙ্গে মেয়েদের মানিয়ে নিতে সহায়তা করবে।

মাসিকের সময় অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ অনেক মেয়ের জন্যই খুবই কষ্টদায়ক হয়ে দাঁড়ায়। আবার অনেকে স্বাভাবিকের থেকে অনেক বেশি সময় ধরে তলপেটে প্রচুর ব্যথা অনুভব করেন।

মেয়ে এবং তার পরিবারের করণীয়: অধ্যাপক শিউলি চৌধুরীর মতে প্রথমত কাউন্সিলিং প্রয়োজন। দ্বিতীয়ত তাকে পর্যাপ্ত পরিমাণ সুষম ও পুষ্টিকর খাবার খেতে হবে এবং তৃতীয়ত বিশ্রাম। এমন পরিস্থিতিতে এসব বিষয়গুলো নিশ্চিত করতে হবে।

তিনি আরও বলছেন, প্রচুর রক্তক্ষরণের ফলে রক্তস্বল্পতা হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। এ বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ না করলে পরে জটিল সমস্যা হতে পারে। তাই এই সময় পুষ্টিকর বিশেষ করে আয়রন সমৃদ্ধ খাবার অধিক পরিমাণ খেতে হবে। মাসিকের সময় মেয়েদের শরীর থেকে ভিটামিন ও খনিজ বের হয়। তাই এই সময় চিকিৎসক বা পুষ্টিবিদের সঙ্গে কথা বলে সুষম খাদ্যের তালিকা করা উচিত।

এ বিষয়ে মায়েদের উচিত মেয়ের সমস্যার শুরু থেকেই খোলামেলা আলাপ করা এবং কাউন্সিলিংয়ের মাধ্যমে ৬ মাস পর্যন্ত ক্যালেন্ডার বা গণনার মাধ্যমে মাসিকের সময়কাল পর্যবেক্ষণ করে ডায়েরিতে নোট করা।

এ অধ্যাপকের মতে, মাসিকের সময় মেয়েদের শরীরে হরমোনাল পরিবর্তন হয়ে থাকে। অনেকের নিয়মিত মাসিক হলেও কারও কারও ক্ষেত্রে দেরি করে হয়ে থাকে। আবার অনেকের রক্তক্ষরণ বেশি হয় যা রক্তস্বল্পতার কারণ হয়ে দাঁড়ায়। তাই এই সময় উদ্বিগ্ন না হয়ে পরিচর্যা করা উচিত।

মাসিককে কেন্দ্র করে মেয়েদের শরীরের পরিচর্যার কিছু বিষয়কে বিবেচনায় রাখার জন্য বলছেন এ বিশেষজ্ঞ। বিষয়গুলো হলো-

পুষ্টিকর খাবার বিশেষ করে আয়রন সমৃদ্ধ খাবার গ্রহণ।

হাইজিন সম্পর্কে ধারণা।

পর্যাপ্ত বিশ্রাম।

খাবারে পর্যাপ্ত প্রোটিন ও ভিটামিন নিশ্চিত করা।

প্রয়োজনে কৈশোরবান্ধব স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্রের সহায়তা নেয়া।

ইউনিসেফের পরামর্শ :

বাবা-মা ও পরিবারের অন্য নারীদের সঙ্গে কথা বলা।

স্যানিটারি ন্যাপকিন বা পরিষ্কার কাপড় ব্যবহার করা এবং অভিজ্ঞদের কাছে ব্যবহার বিধি জেনে নেয়া।

মাসিকের সময় ব্যবহৃত পোশাক নোংরা পানিতে না ধোয়া বরং সাবান ও পরিষ্কার পানি দিয়ে ভালো করে ধোয়া।

মাসিকের কাপড় অন্ধকার ও স্যাঁতস্যাঁতে জায়গায় না শুকিয়ে বরং পরিষ্কার জায়গায় রোদে শুকানো ও নিরাপদ জায়গায় সংরক্ষণ।

পুষ্টিকর খাবার বিশেষ করে দুধ, মাছ, মাংস, ডিম, শাক সবজি ও ফলমূল খেতে হবে। অন্য সময়ের তুলনায় বেশি খাবার খাওয়া।

তলপেটের ব্যথার সময় বোতলে গরম পানি নিয়ে স্যাক দিলে আরাম পাওয়া যাবে।

অতিরিক্ত ব্যথা বা সংরক্ষণ হলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

বিশ্রামে থাকতে হবে, তবে স্কুলে যাওয়া বা ঘরের কাজ করার মতো স্বাভাবিক কাজ করা অব্যাহত রাখা।

মাসিকের সময় চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে কিছু ব্যায়াম শরীর ও মনকে ভালো রাখতে পারে।


নিউজ ট্যাগ: ঋতুস্রাব

আরও খবর
বাবার জন্য ভালোবাসা

রবিবার ২০ জুন ২০21




চাকরিতে প্রবেশের বয়স ৩২’র দাবিতে আজ শাহবাগে সমাবেশ

প্রকাশিত:শুক্রবার ১১ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১১ জুন ২০২১ | ৮০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

করোনাকালীন যুব সমাজের ক্ষতি বিবেচনা করে সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা স্থায়ীভাবে ৩২-এ উন্নীতকরণের দাবি জানিয়ে জনসমাবেশের ডাক দিয়েছেন চাকরিপ্রত্যাশী যুবপ্রজন্ম। স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তিতে ও মুজিব বর্ষের উপহার হিসেবে এই দাবি জানিয়েছেন তারা। এ লক্ষ্যে আজ শুক্রবার দুপুর ৩টায় শাহবাগ প্রজন্ম চত্বরে জনসমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে।

কর্মসূচীর অংশ হিসেবে ইতোমধ্যেই তারা একাধিকবার স্মারকলিপি জমাদান সাংবাদিক সম্মেলন, সংসদ ভবন এলাকার মৌন সমাবেশ করেছেন। এবার জনসমাবেশের ডাক দিয়ে একটি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছেন। বিজ্ঞপ্তিতে তারা কয়েকটি যুক্তি তুলে ধরেছেন।

১। করোনাকালীন অচলাবস্থায় সকল বয়সের শিক্ষার্থী ও চাকরিপ্রত্যাশীরা ইতোমধ্যেই দেড় বছর হারিয়ে ফেলেছে যা দুই বছরের দিকে ধাবমান।

২। সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা ৩০ হওয়ায় দেড় লাখ তরুণ-তরুণী (করোনার শুরুর সময়ে যারা ২৮+ বয়সের ছিলো) চাকরির পরীক্ষা দেয়ার সুযোগ না পেয়েই ৩০ এর গণ্ডি অতিক্রম করতে চলেছে।

৩। যে ছেলেমেয়েরা ২৬ বছর বয়সে শিক্ষাজীবন শেষ করে সেই করোনা শুরুর সময় থেকে আশায় বসে আছে চাকরি পরীক্ষায় তারাও দেড় বছর হারাতে চলেছে।

সরকারি নিয়ম মোতাবেক ৩০ বছর  অবধি আবেদনের সুযোগ পাওয়ার কথা থাকলেও করোনার প্রকোপে প্রকৃতপক্ষে সেই সুযোগ থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।

৪। ১৯৯১ সালে শেষবার সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা ২৭ থেকে বৃদ্ধি করে ৩০ করা হয় যখন গড় আয়ু ছিল ৫৭ বছর। এই ৩০ বছরে গড় আয়ু ১৬ বছর বৃদ্ধি পেয়ে ৭০ বছর হলেও বৃদ্ধি পাইনি চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা।

৫। ২০১১ সালে এসে অবসরের বয়স বেড়ে হয় ৫৯ আর মহান মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য হয় ৬০। অবসরের বয়স যেহেতু বৃদ্ধি পেয়েছে সেক্ষেত্রে চাকরিতে প্রবেশের বয়স ২ বছর বৃদ্ধি করলে সেটাও আর সাংঘর্ষিক হয় না।

৬। প্রাপ্ত তথ্যমতে, করোনাকালে চাকরির বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পরিমাণ ৮৭% কমে ১০% এ উপনীত হয়েছে বেকারত্বের হার ২০% থেকে ৩৫% এ উন্নীত হয়েছে। করোনাকালীন ক্ষতিগ্রস্তের স্বীকার এই দেড় লাখ চাকরিপ্রত্যাশী বেকার। যা আরও বৃদ্ধি পাবে।

৭। ব্যাকডেট দেওয়ার মাধ্যমে সকল বয়সী শিক্ষার্থী তথা চাকরিপ্রত্যাশীদের ক্ষতিপূরণ সম্ভব নয়। চাকরিতে আবেদনের বয়স স্থায়ীভাবে ২ বছর বাড়িয়ে ৩২ বছর করলে সকলেই তাদের হারিয়ে যাওয়া বছর ফিরে পাবে। উদাহরণ স্বরুপ- করোনাকালে প্রতিবেশী রাষ্ট্র ভারতের আসাম রাজ্যে সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা ২ বছর বৃদ্ধি করা হয়েছে।


আরও খবর



বাংলাদেশের পথে যুক্তরাষ্ট্রের করোনা চিকিৎসা সামগ্রী

প্রকাশিত:শনিবার ০৫ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ০৫ জুন ২০২১ | ১১২জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

করোনা মোকাবিলায় বাংলাদেশের পাশে দাঁড়াতে যুক্তরাষ্ট্র যে চিকিৎসা সামগ্রী দেয়ার কথা বলেছিল, সেগুলো শনিবার ঢাকার উদ্দেশে বিমানে তুলে দিয়েছে দেশটি।

যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত এম শহিদুল ইসলাম এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

দুই দেশের দূতাবাস সূত্রে জানা গেছে, যুক্তরাষ্ট্রের আন্তর্জাতিক উন্নয়ন সংস্থার (ইউএসএইড) মাধ্যমে জীবন রক্ষকারী এই চিকিৎসা সামগ্রী ট্রেভিস এয়ার ফোর্স বেস থেকে স্থানীয় সময় সন্ধ্যায় বিমানে তোলা হয়।

মার্কিন প্রতিরক্ষা সচিব লয়েড অস্টিন এ সময় বলেন, বাংলাদেশের সঙ্গে আমাদের সম্পর্কের গভীর মূল্য দেই আমি। এই সহায়তা মজবুত এবং ক্রমবর্ধমান সম্পর্কের উদাহরণ।

করোনা বাংলাদেশে এখন গ্রাম থেকে গ্রামে ছড়িয়ে পড়ছে। বিভিন্ন বিভাগীয় হাসপাতালে প্রতিদিন উল্লেখযোগ্য সংখ্যক মানুষ মারা যাচ্ছেন, ভর্তি হচ্ছেন।

শুক্রবার পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৮ লাখ ৭ হাজার ৮৬৭ জন। মোট মৃত্যু দাঁড়িয়েছে ১২ হাজার ৭৫৮ জনে।

দেশে করোনাভাইরাসের প্রথম সংক্রমণ ধরা পড়ে গত বছরের ৮ মার্চ। এর ১০ দিন পর প্রথম মৃত্যুর তথ্য নিশ্চিত করে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

এ বছর মার্চে শুরু হয় করোনা সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ। প্রথম ঢেউয়ের চেয়ে এবার সংক্রমণ বেশি তীব্র এবং প্রাণঘাতী।


আরও খবর