আজঃ মঙ্গলবার ২৫ জানুয়ারী ২০২২
শিরোনাম

একাদশে ভর্তিতে সতর্ক করে যে নতুন নির্দেশনা

প্রকাশিত:বুধবার ১২ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১২ জানুয়ারী ২০২২ | ২৩০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

একাদশ শ্রেণিতে অনলাইনে ভর্তির আবেদনের ক্ষেত্রে শিক্ষা বোর্ডের নির্দিষ্ট ওয়েবসাইট থেকে আবেদন করতে বলা হয়েছে। এর বাইরে ভুয়া ওয়েবসাইটের মাধ‌্যমে আবেদন করে কোনো শিক্ষার্থী ও অভিভাবক প্রতারিত হলে বোর্ড কর্তৃপক্ষ  দায় বহন করবে না বলে জানানো হয়েছে।

বুধবার (১২ জানুয়ারি) আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় কমিটির সভাপতি এবং ঢাকা মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক নেহাল আহমেদ সই কার সতর্কীকরণ বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, লক্ষ্য করা যাচ্ছে, কিছু প্রতারক চক্র সংশ্লিষ্ট শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের থেকে কৌশলে তথ্য সংগ্রহ করে তাদের অনুমতি ছাড়াই অনলাইনে ভর্তির আবেদন করছে। শিক্ষার্থী ও অভিভাবকসহ সবাইকে এ ধরনের প্রতারক চক্র থেকে সাবধান থাকার জন্য সতর্ক করেছে ঢাকা বোর্ড।

বোর্ড জানিয়েছে, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের সঙ্গে প্রতারণায় জড়িত কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে প্রমাণ পাওয়া গেলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রে তাদের প্যানেল বা সার্ভার বন্ধসহ পাঠদান স্থগিত করা হবে বলেও উল্লেখ করা হয়।

একাদশে শ্রেণিতে ভর্তির কেন্দ্রীয় ওয়েবসাইটের http://www.xiclassadmission.gov.bd মাধ্যমে এসএসসি উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে আবেদন নেওয়া হচ্ছে।


আরও খবর



আমতলীতে সোয়া লক্ষ বইয়ের ঘাটতি!

প্রকাশিত:রবিবার ০২ জানুয়ারী 2০২2 | হালনাগাদ:রবিবার ০২ জানুয়ারী 2০২2 | ৪৭৫জন দেখেছেন

Image

আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি:

আমতলীতে বই বিতরণের প্রথম দিনে উপজেলার মাধ্যমিক, মাদরাসা ও প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চাহিদার তুলুলনায় সোয়া লক্ষ বই ঘাটতি থাকায় শিক্ষার্থীদের হাতে সকল বিষয়ের নতুন বই পৌছানো সম্ভব হয়নি।

জানা গেছে, উপজেলায় ২৬টি মাধ্যমিক, ১৪টি নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ২৯টি মাদরাসা, ১৫২টি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, ১৬টি কিন্ডার গার্ডেন ও ৩০টি প্রাইভেট ও এনজিওর ৩টিসহ মোট ২৭০টি বিদ্যালয় রয়েছে। এসকল বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী অনুযায়ী মাধ্যমিক স্তরে ৪ লক্ষ ৪ হাজার ২০টি এবং প্রাথমিকস্তরে  ১ লক্ষ ১৫ হাজার ৮১৮টিসহ মোট বইয়ের চাহিদা ছিল ৫ লক্ষ ৫৫ হাজার ৮৩৮টি।

গত ৩১ ডিসেম্বর  শুক্রবার পর্যন্ত বই পাওয়া গেছে মাধ্যমিকে ৩ লক্ষ ২১ হাজার  ৮৪০টি এবং প্রাথমিকে পাওয়া গেছে ১ লক্ষ ১১ হাজার ২১৮টি বই। ঘাটতি রয়েছে মাধ্যমিকে ১ লক্ষ ১৮ হাজার ১৮০টি বই। এর মধ্যে সপ্তম শ্রেণির বাংলা এবং ইংরেজী বই ছাড়া আর কোন বিষয়ের বই পাওয়া জায়নি বলে জানান মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা। প্রাথমিকে ঘাটতি রয়েছে প্রাকের ৪ হাজার ৬০০ বই।

আমতলী উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. মজিবুর রহমান জানান, প্রাথমিক স্তরের সকল বই পাওয়া গেছে। শুধু প্রাকের ৪ হাজার ৬০০ বই পাওয়া যায়নি। আশাকরি তা দ্রুত সময়ে পাওয়া যাবে।

আমতলী উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ জিয়াউল হক মিলন বলেন, মাধ্যমিক স্তরের ১ লক্ষ ১৮ হাজার ১৮০টি বই ঘাটতি রয়েছে। এ বই কবে নাগাদ পাওয়া যাবে তা জানা যায়নি। তিনি আরো বলেন, সপ্তম শ্রেণির বাংলা এবং ইংরেজী ছাড়া অন্য কোন বই পাওয়া যায়নি।


আরও খবর
ঢাকা-বরগুনা মহাসড়কে বাস উল্টে খাদে

রবিবার ২৩ জানুয়ারী ২০২২




ট্রেনে অর্ধেক ও বাসে পূর্ণ যাত্রী নিয়ে চলাচল শুরু

প্রকাশিত:শনিবার ১৫ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ১৫ জানুয়ারী ২০২২ | ৩১৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দেশে করোনাভাইরাসের নতুন ধরন (ওমিক্রন) সংক্রমণ বৃদ্ধি রোধে ১১টি বিধিনিষেধ দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে সরকার। শনিবার (১৫ জানুয়ারি) সকাল থেকে এসব বিধিনিষেধ মানাবিষয়ক নির্দেশনা কার্যকর শুরু হয়েছে। এসব নির্দেশনার মধ্যে বাসে পূর্ণ ও ট্রেনে অর্ধেক আসনে যাত্রী পরিবহনের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। এরআগে গত বৃহস্পতিবার ১১টি বিধিনিষেধ দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করে সরকার।

নতুন এই নির্দেশনা অনুযায়ী স্বাস্থ্যবিধি মেনে সব সিটে যাত্রী নিয়ে চলবে বাস। আসন সংখ্যার অর্ধেক যাত্রী নেবে ট্রেন। আর লঞ্চের বিষয়ে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। ফলে আগের মতোই যাত্রী পরিবহন করা হচ্ছে লঞ্চে।

সরকার প্রথমে মোট আসনের অর্ধেক যাত্রী নিয়ে বাস চলাচলের নির্দেশনা দিয়েছিল। পরিবহনমালিকদের বিরোধের প্রেক্ষাপটে সেই সিদ্ধান্ত পরিবর্তন হয়। আজ থেকে কার্যকর হতে যাওয়া নির্দেশনা অনুযায়ী তাই স্বাস্থ্যবিধি মেনে সব আসনে যাত্রী নিয়ে চলাচল শুরু করেছে বাস। তবে বাসে দাঁড়িয়ে কোনো যাত্রী নেওয়া যাবে না বলে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ) থেকে মৌখিকভাবে বাসমালিকদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

স্বাস্থ্যবিধি মেনে বাস চালাতে বিআরটিএর দেওয়া নির্দেশনায় বলা হয়েছে, গণপরিবহনে যাত্রী, চালক, সুপারভাইজার, হেলপারসহ টিকিট বিক্রয়কেন্দ্রের দায়িত্বে নিয়োজিত ব্যক্তিদের মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে। একই সঙ্গে তাঁদের জন্য প্রয়োজনীয় হ্যান্ড স্যানিটাইজারের ব্যবস্থা রাখতে হবে। সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে গণপরিবহনে যাত্রী ওঠানামা করতে হবে। মোটরযানের চালক ও সহযোগীদের করোনার টিকা দেওয়ার সনদ থাকতে হবে। যাত্রার শুরু এবং শেষে মোটরযান পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করাসহ জীবাণুনাশক দিয়ে মোটরযান জীবাণুমুক্ত করতে হবে। এ ছাড়া মোটরযানের মালিকদের যাত্রীদের হ্যান্ডব্যাগ, মালপত্র জীবাণুনাশক ছিটিয়ে জীবাণুমুক্ত করার ব্যবস্থা রাখতে হবে।

সকাল থেকে আসনসংখ্যার অর্ধেক যাত্রী নিয়ে চলাচল করবে যাত্রীবাহী ট্রেন। ট্রেনের ৫০ শতাংশ আসনের ২৫ শতাংশ টিকিট অনলাইনে এবং ২৫ শতাংশ টিকিট কাউন্টারে পাওয়া যাবে। শুক্রবার এ সম্পর্কিত সব প্রস্তুতি শেষ করেছে বাংলাদেশ রেলওয়ে। যাত্রীদের মাস্ক ছাড়া স্টেশনে প্রবেশের ক্ষেত্রে থাকবে কড়াকড়ি।

অর্ধকে যাত্রী পরিবহনের ক্ষেত্রে রেলের নির্দেশনায় বলা হয়েছে, আন্তনগর ট্রেনগুলোর স্ট্যান্ডিং টিকিট ও স্টেশনের প্ল্যাটফর্ম টিকিট বিক্রি সম্পূর্ণ বন্ধ থাকবে। রেলপথ মন্ত্রণালয় অনুমোদিত ইমার্জেন্সি কোটা ও ম্যানুয়াল অনুযায়ী কোটা ছাড়া আন্তনগর ট্রেনের টিকিট বিক্রিতে সব ধরনের কোটা ব্যবস্থা বন্ধ থাকবে। কাউন্টারে টিকিট বিক্রি ও ট্রেনে ভ্রমণের ক্ষেত্রে যাত্রীদের মাস্ক পরা নিশ্চিত করতে হবে। প্রচলিত নিয়মানুযায়ী ও স্বাস্থ্যবিধি কঠোরভাবে মেনে আন্তনগর ট্রেনে ক্যাটারিং সেবা প্রদান ও রাত্রিকালীন বেডিং সরবরাহ করা হবে।

লঞ্চে যাত্রী পরিবহন কীভাবে হবে, সে বিষয়ে সুনির্দিষ্ট কোনো নির্দেশনা এখনো নেই। এ বিষয়ে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) ঢাকা নদীবন্দরের নৌ নিরাপত্তা ও ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা বিভাগের যুগ্ম পরিচালক জয়নাল আবেদীম বলেন, কোভিডের নির্দেশনা মেনে লঞ্চে যাত্রী পরিবহন করা হচ্ছে। তবে অর্ধেক যাত্রী পরিবহনের বিষয়টি থেকে সরে এসেছে। এ বিষয়ে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় থেকে আগামী রোববার সিদ্ধান্ত আসতে পারে। বর্তমানে নিরাপদ দূরত্বে সব যাত্রীর মাস্ক পরা নিশ্চিত করে প্রতিটি লঞ্চ ছাড়া হচ্ছে। মন্ত্রণালয় থেকে নতুন নির্দেশনা এলে সে অনুযায়ী লঞ্চ চালানো হবে।

নিউজ ট্যাগ: বিআরটিএ

আরও খবর



ফেব্রুয়ারির প্রথম সপ্তাহে হতে পারে এইচএসসির ফল

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১১ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১১ জানুয়ারী ২০২২ | ৪৩০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

আগামী ফেব্রুয়ারি মাসের প্রথম সপ্তাহে উচ্চমাধ্যমিক সার্টিফিকেট (এইচএসসি) ও সমমানের ফল প্রকাশ হতে পারে। করোনা সংক্রমণের কারণে শিক্ষার্থীদের সশরীরে ক্লাস না হাওয়া বিভাগভিত্তিক তিনটি নৈর্বাচনিক বিষয়ে ছয়টি পত্রে এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। ২ ডিসেম্বর এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা শুরু হয়ে ৩০ ডিসেম্বর শেষ হয়। ওই দিন শিক্ষামন্ত্রী জানিয়েছিলেন, পরীক্ষা শেষ হওয়ার এক মাসের মধ্যে ফল প্রকাশ করা হবে।

মঙ্গলবার (১১ জানুয়ারি) ফল প্রকাশের প্রস্তুতির বিষয়ে আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় কমিটির সভাপতি ও ঢাকা মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক নেহাল আহমেদ জানান, ৩০ দিনের মধ্যে যাতে ফল প্রকাশ করা যায় সে লক্ষ্যে কাজ করা হচ্ছে। আশা করা যাচ্ছে, ফেব্রুয়ারির প্রথম সপ্তাহের মধ্যে ফল প্রকাশ করা যাবে। তবে এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের তিনটি বিষয়ের পরীক্ষা হলেও তাদের পত্র কিন্তু ছয়টি। তাই কিছুটা সময় বেশিও লাগতে পারে।

২০২১ শিক্ষাবর্ষে ১১টি শিক্ষা বোর্ডে ১৩ লাখ ৯৯ হাজারের বেশি শিক্ষার্থী এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় অংশ নেন। এবার দেশের সাধারণ ৯টি শিক্ষা বোর্ডে শুধু এইচএসসি পরীক্ষার্থী ছিলেন ১১ লাখ ৩৮ হাজার ১৭ জন। আর মাদ্রাসা বোর্ডের অধীনে আলিম পরীক্ষার্থী ছিলেন এক লাখ ১৩ হাজার ১৪৪ জন। এছাড়া, কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের এইচএসসি বিএম ও ভোকেশনাল পরীক্ষা দিয়েছেন এক লাখ ৪৮ হাজার ৫২৯ জন।


আরও খবর



কক্সবাজারে হোটেলে নিয়ে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ : গ্রেপ্তার ১

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৮ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৮ ডিসেম্বর ২০২১ | ৬৫৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

কক্সবাজারে হোটেলে নিয়ে অষ্টম শ্রেণির এক স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে মোহাম্মদ আশিক (২৭) নামে একজনকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। মঙ্গলবার (২৮ ডিসেম্বর) দুপুরে র‌্যাব-১৫ এর সিনিয়র সহাকরী পরিচালক মো. আবু সালাম চৌধুরী এ তথ‌্য নিশ্চিত করে জানান, এ ঘটনায় দায়ের করা মামলার প্রধান আসামি মোহাম্মদ আশিক। আজ ভোরে চট্টগ্রামের আনোয়ারা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। আশিকের বাড়ি কক্সবাজার সদরের উত্তর নুনিয়াছড়া এলাকায়। তার বাবার নাম নজরুল ইসলাম।

এছাড়া, দুপুরে কক্সবাজার র‌্যাব কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাব ১৫-এর অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মো. খায়রুল ইসলাম সরকার বলেন, গত ১৩ ডিসেম্বর ৬টার দিকে ওই স্কুলছাত্রী এক প্রতিবেশীর বাড়িতে যাচ্ছিলো। এ সময় তাকে জোর করে আশিক তার সহযোগীরা তুলে নিয়ে যায়। এরপর কক্সবাজারের কলাতলীর মমস নামক হোটেলে নিয়ে তাকে ধর্ষণ করা হয়। পরে ১৫ ডিসেম্বর ওই ছাত্রীকে তার বাড়ির সামনে রেখে পালিয়ে যায়। এরপর অভিভাবকরা তাকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসার ব্যবস্থা করেন।

তিনি বলেন, এ ঘটনায় স্কুলছাত্রীর বাবা অপরাধীদের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দিলে কক্সবাজার সদর মডেল থানায় এ সংক্রান্তে একটি মামলা রুজু হয়। এরপর তাকে গ্রেপ্তারে অভিযান চালানো হয়।

র‌্যাব জানায়, মোহাম্মদ আশিক প্রায়ই এভাবে অপ্রাপ্ত বয়স্ক মেয়েদের ফাঁদে ফেলে ধর্ষণ করে। সে কিশোর গ্যাং অপরাধী চক্রের সঙ্গে জড়িত। তার বিরুদ্ধে ছিনতাই, চাঁদাবাজির অভিযোগ রয়েছে।


আরও খবর



১১ দফা বিধিনিষেধ যা যা থাকছে

প্রকাশিত:সোমবার ১০ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১০ জানুয়ারী ২০২২ | ৮২৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মহামারি করোনাভাইরাসের প্রকোপ রোধে ১১ দফা বিধিনিষেধ জারি করেছে সরকার। এর মধ্যে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক, করোনার টিকার সনদ নিয়ে হোটেল-রেস্তোরাঁয় খাবার গ্রহণ, সবধরনের সভা-সমাবেশ বন্ধ এবং স্বাস্থ্যবিধি মানাতে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার কথা জানানো হয়েছে।

সোমবার সন্ধ্যায় মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ এই বিধিনিষেধ জারি করে।

আগামী ১৩ জানুয়ারি থেকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত এই ১১ দফা নির্দেশনা মেনে চলতে হবে বলে জানিয়েছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।

নির্দেশনাগুলো হলো:

১. দোকান, শপিং মল ও বাজারে ক্রেতা-বিক্রেতা এবং হোটেল-রেস্তোরাঁসহ সকল জনসমাগমস্থলে বাধ্যতামূলকভাবে সবাইকে মাস্ক পরিধান করতে হবে। অন্যথায় তাকে আইনানুগ শাস্তির সম্মুখীন হতে হবে।

২. ১২ বছরের বেশি বয়সী সকল শিক্ষার্থীকে শিক্ষা মন্ত্রণালয় কর্তৃক নির্ধারিত তারিখের পরে টিকা সনদ ছাড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হবে না।

৩. রেস্তোরাঁয় বসে খাবার গ্রহণ এবং আবাসিক হোটেলে থাকার জন্য অবশ্যই করোনা টিকা সনদ প্রদর্শন করতে হবে।

৪. অফিস-আদালতসহ ঘরের বাইরে অবশ্যই মাস্ক ব্যবহার করতে হবে। স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালনে ব্যত্যয় রোধে সারাদেশে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করতে হবে।

৫. বিদেশ থেকে আসা যাত্রীসহ সবাইকে বাধ্যতামূলক কোভিড-১৯ টিকা সনদ প্রদর্শন করতে হবে।

৬. ট্রেন, বাস এবং লঞ্চে সক্ষমতার অর্ধেকসংখ্যক যাত্রী নেওয়া যাবে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এ বিষয়ে কার্যকারিতার তারিখসহ সুনির্দিষ্ট নির্দেশনা জারি করবে। সর্বপ্রকার যানের চালক ও সহকারীদের আবশ্যিকভাবে কোভিড-১৯ টিকা সনদধারী হতে হবে।

৭. স্থলবন্দর, সমুদ্রবন্দর ও বিমানবন্দরে স্ক্রিনিং-এর সংখ্যা বাড়াতে হবে। পোর্টগুলোতে ক্রুদের জাহাজের বাইরে আসার ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা প্রদান করতে হবে। স্থলবন্দরগুলোতেও আগত ট্রাকের সঙ্গে শুধু ড্রাইভার থাকতে পারবে। কোনো সহকারী আসতে পারবে না। বিদেশগামীদের সঙ্গে আসা দর্শনার্থীদের বিমানবন্দরে প্রবেশ বন্ধ করতে হবে।

৮. স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালন এবং মাস্ক পরিধানের বিষয়ে সকল মসজিদে জুমার নামাজের খুতবায় ইমামরা সংশ্লিষ্টদের সচেতন করবেন। জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী অফিসাররা এ বিষয়টি নিশ্চিত করবেন।

৯. সর্বসাধারণের করোনার টিকা এবং বুস্টার ডোজ গ্রহণ ত্বরান্বিত করার লক্ষ্যে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় প্রয়োজনীয় প্রচার এবং উদ্যোগ গ্রহণ করবে। এক্ষেত্রে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের সহায়তা গ্রহণ করবে।

১০. উন্মুক্ত স্থানে সর্ব সামাজিক, রাজনৈতিক, ধর্মীয় অনুষ্ঠান এবং সমাবেশ পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত বন্ধ রাখতে হবে।

১১. কোনো এলাকার ক্ষেত্রে বিশেষ কোনো পরিস্থিতির সৃষ্টি হলে সেক্ষেত্রে স্থানীয় প্রশাসন সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে আলোচনা করে ব্যবস্থা নিতে পারবে।


আরও খবর