আজঃ মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

শহীদ জিয়া মেডিকেলে চিকিৎসা সেবা দিতে হিমশিম খাচ্ছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৩ অক্টোবর ২০২৩ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৩ অক্টোবর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
বগুড়া প্রতিনিধি

Image

বগুড়া ৫০০ শয্যা বিশিষ্ট শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে প্রতিদিন ধারণ ক্ষমতার তিনগুন রোগীকে স্বাস্থ্যসেবা দেওয়া হচ্ছে। জনসংখ্যা বৃদ্ধির প্রভাবে প্রতিদিনই বাড়ছে রোগীর চাপ।

জানা যায় হাসপাতালে ৫০০টি সিট বরাদ্দ থাকলে ও প্রতিদিন রোগী ভর্তি থাকে গড়ে ১৫০০-১৬০০ জন। এছাড়া প্রতিটি রোগীর সাথে কমপক্ষে ২-৩ অ্যাটেন্ডেন্ট ত আছেই। অপরদিকে ১২০০জন রোগীর খাবার অনুমোদন থাকলেও দিতে হয় ১৫০০-১৬০০ জন রোগীকে। এছাড়া প্রতিদিন প্রায় ২০০০-২৫০০ জন রোগী আউটডোরে সেবা গ্রহণ করেন এবং গড়ে ৫০-৭০টি সার্জারি করা হয়। ফলে চিকিৎসা সেবা দিতে হিমসিম খাচ্ছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

সরেজমিনে দেখা গেছে, হাসপাতালটি ১০তালার ফাউন্ডেশনে ৬-৭ তালা সম্পূন্ন হয়েছে। আবাসনসহ নানা সমস্যার মধ্য দিয়ে চলছে রোগীদের সেবা। তাই এই বিপুল সংখ্যক রোগীর আবাসন সংকট সমাধান করতে বাকি তালা দ্রুততার সাথে সম্পন্ন করা অতীব জরুরী। সেই সাথে জনবলসহ হাসপাতালটি ১৫০০ শয্যায় উন্নিত করার দাবি জানায় সেবা গ্রহিতারা।

দীর্ঘদিন ধরে চিকিৎসক, তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী সংকটে শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের  চিকিৎসা সেবা মারাত্নক ভাবে ব্যহত হচ্ছে। বাড়তি রোগীদেরকে সেবা দিতে চাপ পড়েছে চিকিৎসক, তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারির উপর। বগুড়া জেলা ছাড়াও বিভিন্ন জেলার লক্ষাধিক মানুষ চব্বিশ ঘন্টা নির্ভর করে এ হাসপাতালের উপর।

হাসপাতাল সুত্রে জানা যায়, ২৩০টি চিকিৎসকের মধ্যে ৩৫টি পদ খালি এবং ৫২৩টি পদের বিপরীতে ৫২১ জন নার্স কর্মরত আছেন। এছাড়া ৩য় শ্রেণীর কর্মচারীর ১৭২টি পদের ১১৫ জন কর্মরত আছেন, যেখানে ৪র্থ শ্রেণীর কর্মচারীর ৪১৪টি পদের বিপরীতে কর্মরত আছেন ২৯৩ জন। বিভিন্ন পদে দীর্ঘদিন ধরে পদ শূন্য থাকায় রোগীরা স্বাস্থ্য সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন।

ডাক্তাররা রোগীদের নাগরিক সেবা নিশ্চিত করার চেষ্টা করছেন তবে তারা প্রতিদিন আউটডোর এবং ইনডোর উভয় জায়গায় বিপুল সংখ্যক রোগীদের সেবা দিতে হাঁপিয়ে উঠেছেন।

দুপচাঁচিয়া উপজেলার রোগী শাওন বলেন, হাসপাতালে জায়গার সংকটে আউটডোরের রোগীদের দীর্ঘ লাইনে দাড়িয়ে সেবা গ্রহণ করতে হয়। সংশিষ্ট কর্তৃপক্ষ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করলে রোগীদের কাঙ্ক্ষিত স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করা সম্ভব হবে।

খুলনা জেলার নভারণ উপজেলার রোগী রাইহান জানান, আমার এক আত্নীয় কাছে শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের কথা শুনে আমি এখানে ভর্তি হয়েছি। বেড সংকটে প্রথমে আমাকে কিছুদিন বারান্দায় থাকতে হয়েছে তবে পরে আবার বেড পেয়েছি।

এলাকার সুধীজনরা বলেন, হাসপাতালটি ২০০৬ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। সেই সময়ে রোগী ভর্তি ছিল প্রতিদিন গড়ে ৫০০ থেকে ৬০০ জন। কিন্তু বর্তমানে ২০২৩ সালে জনসংখ্যা বৃদ্ধির ফলে প্রতিদিন গড়ে প্রায় ১৫০০-১৬০০ জন ভর্তি থাকে তাই বেড় সংখ্যা বৃদ্ধি করা সময়ের দাবি।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানান, রোগীদের নির্বিঘ্নে সেবা নিশ্চিত করতে তিনি একাধিকবার ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে ডাক্তার ও অন্যান্য পদের কর্মচারীর পদায়নে চিঠি পাঠিয়েছেন।

হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. জুলফিকার আলম বলেন, আধুনিক উন্নত সকল প্রকার স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে আমরা সার্বক্ষণিক কাজ করে যাচ্ছি।


আরও খবর
ঝিনাইদহ জেলা কারাগারে কয়েদির মৃত্যু

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




আজ সারাদেশে কালো পতাকা মিছিল করবে বিএনপি

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ৩০ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ৩০ জানুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

অবৈধ ডামি সংসদ বাতিল, নির্দলীয় নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে জাতীয় সংসদের নির্বাচনের দাবিতে আজ মঙ্গলবার দেশের সব মহানগর, থানা, জেলা, সদর, সব উপজেলায় এবং সব পৌরসভায় কালো পতাকা মিছিল কর্মসূচি পালন করবে বিএনপি। দ্বাদশ সংসদ অধিবেশনের দিনে আজ ঢাকা মহানগর উত্তরে তিনটি স্থানে এবং দক্ষিণে চারটি স্থানে কালো পতাকা মিছিল করতে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) কাছে আবেদন করেছে বিএনপি। গতকাল সোমবার ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সদস্য ও দপ্তরের চলতি দায়িত্বপ্রাপ্ত সাইদুর রহমান মিন্টুর স্বাক্ষরে এই আবেদন করা হয়।

আজ মঙ্গলবার বেলা ২টায় ঢাকা মহানগরের থানায় থানায় কালো পতাকা মিছিল কর্মসূচি পালন করবে। এর মধ্যে রয়েছে, দক্ষিণে পীরজঙ্গি মাজার-আরামবাগ, যাত্রাবাড়ী কদমতলী, দয়াগঞ্জ এবং নিউমার্কেট-আজিমপুর। আর উত্তরে মিরপুর-১২ নম্বর বাসস্ট্যান্ড, উত্তরা-১২ নম্বর সেক্টর কবরস্থানের পাশে এবং বাড্ডা রিংরোড থেকে মিছিল করতে চায়।

বিএনপির যুগপৎ আন্দোলনের শরিক দল ও জোটগুলোও কর্মসূচি পালন করবে। এর মধ্যে গণতন্ত্র মঞ্চ বিকাল ৩টা ৩০ মিনিট জাতীয় প্রেসক্লাব সামনে সমাবেশ শেষে মিছিল করবে। ১২ দলীয় জোট বিকাল ৩টা ৩০ মিনিট বিজয়নগর পানির ট্যাংক সামনে থেকে, জাতীয়তাবাদী সমমনা জোট বেলা ৩টা জাতীয় প্রেসক্লাব সামনে থেকে, গণ ফোরাম ও পিপলস পার্টি বিকাল ৩টা ৩০ মিনিট বিজয় নগর পানির ট্যাংক সামনে থেকে, এলডিপি বেলা ১১টা পল্টন মোড় থেকে গণ অধিকার পরিষদ, বিকাল ৩টা ৩০মিনিট বিজয় নগর পানির ট্যাংক সামনে থেকে গণতান্ত্রিক বাম ঐক্য বেলা ১১টা ৩০ মিনিট তোপখানা রোড মেহরাব প্লাজা সামনে থেকে, বাংলাদেশ লেবার পার্টি বেলা ১১টা পুরানাপল্টন আলরাজী কমপ্লেক্স সামনে থেকে, এবি পার্টি বেলা ৩টা মিনিট বিজয়নগর দলীয় অফিসের সামনে থেকে মিছিল করবে।


আরও খবর



বিশ্ব ইজতেমায় চলছে দ্বিতীয় দিনের বয়ান

প্রকাশিত:শনিবার ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

টঙ্গীর তুরাগ নদীরতীরে বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্বের দ্বিতীয় দিনের বয়ান চলছে। আজ শনিবার ফজরের নামাজের পর দেশ-বিদেশের লাখো মুসল্লির উদ্দেশ্যে পবিত্র কোরআন-হাদিসের আলোকে শুরু হয় এই বয়ান।

টঙ্গীর ইজতেমা ময়দান এর মধ্যে কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে গেছে। আগামীকাল রবিবার আখেরি মোনাজাতের মধ্যদিয়ে শেষ হবে এবারের ইজতেমা।

দুদিন ধরে সার্বক্ষণিক ইবাদত-বন্দেগিতে নিয়োজিত রয়েছেন মুসল্লিরা। প্রতিদিন ফজর থেকে এশা পর্যন্ত ঈমান, আমল, আখলাক ও দ্বীনের পথে মেহনতের ওপর আমবয়ান অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

শনিবার ফজরের পর বয়ান করেন ভারতের মাওলানা সাঈদ বিন সাদ, বাংলা তরজমা করেন মুফতি ওসামা ইসলাম। সকাল সাড়ে ১০টায় তালিমে হালকা মোয়াল্লেমদের সঙ্গে কথা বলবেন ভারতের মাওলানা আব্দুল আজিম। জোহরের নামাজের পর বয়ান করবেন ভারতের মাওলানা শরিফ। বাংলা তরজমা করবেন মাওলানা মাহমুদুল্লাহ।

আসরের নামাজের পর বয়ান করবেন পাকিস্তানের মাওলানা ওসমান। বাংলা তরজমা করবেন মাওলানা আজিম উদ্দিন। বয়ানের পর যৌতুকবিহীন বিবাহ পড়ানো হবে।

মাগরিবের নামাজের পর বয়ান করবেন ভারতের মুফতি ইয়াকুব। বাংলা তরজমা করবেন মাওলানা মনির বিন ইউসুফ।

এছাড়া আগামীকাল রবিবার ফজরের পর বয়ান করবেন ভারতের মুফতি মাকসুদ। বাংলা তরজমা করবেন মাওলানা আব্দুল্লাহ। বয়ানের পরই হেদায়েতের কথা ও দোয়া পরিচালনা করবেন ভারতের মাওলানা ইউসুফ বিন সাদ। বয়ান বাংলায় তরজমা করবেন মাওলানা মনির বিন ইউসুফ।

বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্বের মিডিয়া সমন্বয়কারী মোহাম্মদ সায়েম বলেন, আগামীকাল সকাল ১০টা থেকে সাড়ে ১০টার মধ্যে আখেরি মোনাজাত অনুষ্ঠিত হতে পারে।

২ ফেব্রুয়ারি শুরু হয়ে ৪ ফেব্রুয়ারি আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব শেষ হয়। মাঝে ৪ দিন বিরতি দিয়ে ৯ ফেব্রুয়ারি দিল্লির নিজামুদ্দিন মারকাযের অনুসারী (মাওলানা সাদপন্থি) মুসল্লিরা বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্বে অংশ নিচ্ছেন। ১১ ফেব্রুয়ারি আখেরি মোনাজাতের মাধ্যমে এবারের বিশ্ব ইজতেমার পরিসমাপ্তি ঘটবে।


আরও খবর
ঝিনাইদহ জেলা কারাগারে কয়েদির মৃত্যু

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




জাবিতে স্বামীকে আটকে রেখে স্ত্রীকে গণধর্ষণের ঘটনায় আটক ৪

প্রকাশিত:রবিবার ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি

Image

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের হলে এক ব্যক্তিকে আটকে রেখে তার স্ত্রীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় ছাত্রলীগ নেতা মোস্তাফিজুর রহমানসহ চারজনকে আটক করেছে পুলিশ।

আটক অন্যরা হলেন- আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের ৪৫তম ব্যাচের শিক্ষার্থী হাসান, ৪৬তম ব্যাচের শিক্ষার্থী মোস্তফা মনোয়ার সিদ্দিকী সাগর, উদ্ভিদবিদ্যা বিভাগের ৪৭তম ব্যাচের শিক্ষার্থী সাব্বির হোসেন সাগর। রোববার সকাল ৬টার দিকে সাধারণ শিক্ষার্থীরা তাদের আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেন।

আর সকাল ৮টার দিকে সাভার মডেল থানায় আত্মসমর্পণ করেন মূল অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা মোস্তাফিজুর রহমান। তবে তার সহযোগী মামুন (বহিরাগত) এখনো পলাতক রয়েছেন।

শনিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের মীর মশাররফ হোসেন হলসংলগ্ন জঙ্গলে গণধর্ষণের ঘটনা ঘটে।

এদিকে সিসিটিভি ফুটেজ বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে, শনিবার দিনগত রাত ১২টার দিকে মূল অভিযুক্ত মোস্তাফিজুর রহমান মীর মশাররফ হোসেন হলের রান্নাঘরের তালা ভেঙে পালিয়ে যান। তাকে পালিয়ে যেতে সাহায্য করার অভিযোগে শিক্ষার্থী হাসান, মোস্তফা মনোয়ার সিদ্দিকী সাগর ও সাব্বির হোসেন সাগরকে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর আ.স.ম ফিরোজ-উল-হাসান বলেন, মূল অভিযুক্ত মোস্তাফিজুর রহমান থানায় আত্মসমর্পণ করেছে। বাকি তিনজনকে পুলিশে সোপর্দ করা হয়েছে। বহিরাগত মামুন পলাতক।

অভিযুক্ত মোস্তাফিজুর বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের ৪৫তম ব্যাচের শিক্ষার্থী মোস্তাফিজুর রহমান। তিনি বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক‌ এবং শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি আক্তারুজ্জামান সোহেলের অনুসারী।

জানা গেছে, ওই দম্পতির বাড়িতে ভাড়া থাকেন অভিযুক্ত মামুন। শনিবার সন্ধ্যায় ভুক্তভোগীর স্বামীকে বিশ্ববিদ্যালয়ে ডেকে নিয়ে আসেন তিনি। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের আসলে তাকে নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের মীর মশাররফ হোসেন হলের ব্লকের ৩১৭ নম্বর কক্ষে আটকে রাখেন অভিযুক্তরা। এরপর তার স্ত্রীকে দিয়ে নিজের রেখে আসা জিনিসপত্র আনতে বলেন মামুন। তার পরিপ্রেক্ষিতে মামুনের জিনিসপত্র নিয়ে ক্যাম্পাসে আসেন ভুক্তভোগী নারী। পরে জিনিসপত্র নিয়ে মামুন হলের ভেতরের ওই কক্ষে রেখে আসেন। এরপর তার স্বামী অন্যদিক থেকে আসবে বলে ওই নারীকে হল সংলগ্ন জঙ্গলে নিয়ে যান অভিযুক্তরা। পরে সেখানে তাকে ধর্ষণ করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন ওই নারী।

ভুক্তভোগী ওই নারী বলেন, মামুন ভাই আমাদের বাসায় ভাড়া থাকতো। তিনি আমার স্বামীর মাধ্যমে ফোন দিয়ে আমাকে তার রেখে যাওয়া জিনিসপত্র নিয়ে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে যেতে বলেন। আমি তার জিনিসপত্র নিয়ে ক্যাম্পাসে যাই। তখন তিনি আমাদের বাসায় থাকবেন না বলে জানান। এছাড়া তিনি মীর মশাররফ হোসেন হলের মোস্তাফিজ ভাইয়ের কাছে থাকবে বলেও জানান।

ওই নারীর অভিযোগ, এরপর মামুন আমার কাছ থেকে তার জিনিসপত্রগুলো নিয়ে হলে রেখে আসে। পরে আমার স্বামী অন্যদিকে থেকে আসবে বলে আমাকে হলের সামনে থেকে পাশের জঙ্গলের মধ্যে নিয়ে যায়। তার সঙ্গে মোস্তাফিজ ভাইও ছিলো। তখন তারা আমাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে।

এ ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান লিটন বলেন, সে একটি জঘন্যতম কাজ করেছে। এটি কোনোভাবেই কাম্য নয়। আমরা এ ঘটনার তদন্ত সাপেক্ষে সর্বোচ্চ শাস্তি চাই।

শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি আকতারুজ্জামান সোহেল বলেন, মোস্তাফিজের বিরুদ্ধে উত্থাপিত অভিযোগের ভিত্তিতে তাকে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগ থেকে বহিস্কার করা হয়েছে। এছাড়া স্থায়ী বহিষ্কারের জন্য কেন্দ্রে সুপারিশ করা হবে।


আরও খবর



সৈকতে একের পর এক ভেসে আসছে মৃত মা কাছিম

প্রকাশিত:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | অনলাইন সংস্করণ
জেলা প্রতিনিধি

Image

কক্সবাজার সমুদ্র উপকূল জুড়ে ভেসে আসছে সামুদ্রিক মৃত মা কাছিম। শুক্রবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) একদিনে ভেসে এসেছে ২৪টি মৃত মা কাছিম। গত দেড় মাসে সাগরের পানির তোড়ে ভেসে এসেছে ৮৩টি সামুদ্রিক মা কাছিম। মৃত এসব কাছিমের প্রত্যেকটির পেটে ডিম রয়েছে। ভেসে আসা মৃত মা কাছিমগুলোকে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার পর সৈকতের বালিতে পুঁতে ফেলেছেন বাংলাদেশ সমুদ্র গবেষণা ইনস্টিটিউটের কর্মকর্তারা।

উদ্বেগ প্রকাশ করে বাংলাদেশ সমুদ্র গবেষণা ইনস্টিটিউটের (বোরি) জ্যেষ্ঠ বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা মো. তরিকুল ইসলাম জানান, শুক্রবার বেলা ১০টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত কক্সবাজার সমুদ্রসৈকতের হিমছড়ি থেকে টেকনাফ পর্যন্ত ২৪টি মৃত কচ্ছপ পাওয়া গেছে। গত জানুয়ারি থেকে চলতি মাসের ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ৮৩টি মৃত মা কাছিম ভেসে এসেছে উপকূলে। এসব কাছিমের প্রত্যেকটির পেটে রয়েছে ডিম।

একের পর এক মা কাছিমের মৃত্যু অনুসন্ধানের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, যে কাছিমগুলো মৃত অবস্থায় পাওয়া গেছে সেগুলোর বেশিরভাগের শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। এছাড়া কিছু কিছু মৃত কাছিমের শরীরে জেলেদের জাল ও রশি প্যাঁচানো অবস্থায় পাওয়া গেছে।

তরিকুল ইসলাম বলেন, ইতোমধ্যে বোরির একদল গবেষক মৃত মা কাছিমের তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করে প্রাথমিকভাবে একটি ফলাফল পেয়েছেন। তা হচ্ছে সামুদ্রিক মা কাছিমের এখন প্রজনন মৌসুম। সমুদ্রের বালিয়াড়িতে ডিম দিতে আসার পথে জেলেদের জালে আটকা পড়ে মারা যাচ্ছে।

বাংলাদেশ সমুদ্র গবেষণা ইনস্টিটিউটসহ বিভিন্ন এনজিও সংস্থার সমন্বয়ে এ পর্যন্ত ৭৮টি কাছিম থেকে ৯ হাজার ১০৮টি ডিম সংগ্রহ করা হয়েছে। এসব মা কাছিম সমুদ্রপাড়ে ডিম দিয়ে সুস্থ ও জীবিত অবস্থায় সাগরে ফিরতে সক্ষম হয়েছে। তাই সমুদ্রে মাছ ধরার নৌযান ও জেলেদের গতিবিধিসহ নানাভাবে সচেতনতার কোনও বিকল্প নেই বলে মনে করেন সমুদ্রবিজ্ঞানিরা।


আরও খবর
ঝিনাইদহ জেলা কারাগারে কয়েদির মৃত্যু

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




৫৫ দেশে গাধার চামড়া ব্যবসা নিষিদ্ধ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

গাধার চামড়া বিক্রির বিতর্কিত চর্চা নিষিদ্ধ করল আফ্রিকান ইউনিয়ন। আফ্রিকা মহাদেশভিত্তিক এই জোটের ৫৫টি দেশে দেশে চামড়ার জন্য গাধা হত্যা বন্ধ করা হলো। এই সিদ্ধান্তকে প্রাণী অধিকার সংগঠনলো স্বাগত জানিয়েছে। গত রোববার ইথিওপিয়ায় অনুষ্ঠিত আফ্রিকান ইউনিয়ন শীর্ষ সম্মেলনে নেতারা এই নিষেধাজ্ঞায় অনুমোদন দেয়।

এজিয়াও নামে প্রাচীন চীনা ওষুধের কাঁচামাল হিসেবে ব্যবহৃত হয় গাধার চামড়া। ধারণা করা হয়, এজিয়াও মানুষের যৌবন বা তারুণ্য ধরে রাখে; ত্বক সুস্থ ও সুন্দর রাখে। বৈজ্ঞানিক প্রমাণ না থাকলেও দিন দিনই ওষুধটির চাহিদা বাড়ছে। এ কারণে গাধার চামড়া বিক্রিও বাড়ছে।

প্রাণী অধিকার সংস্থা দ্য চ্যারিটি, দ্য ডংকি স্যাংকচুয়ারি বিবিসিকে বলেন, চামড়া বিক্রির চর্চার কারণে আফ্রিকা ও লাতিন আমেরিকার দেশগুলোতে গাধার সংখ্যা ব্যাপক হারে কমে যাচ্ছে।

এজিয়াও উৎপাদনের জন্য আগে দেশীয় গাধার চামড়া ব্যবহার করতো চীনা কোম্পানিগুলো। চাহিদার চেয়ে সরবরাহে টান পড়ায় তাঁরা গাধার চামড়ার জন্য দেশের বাইরে খোঁজ শুরু করে। 

আরও পড়ুন>> ইসরায়েলের বর্বরতা : খাবারের জন্য অপেক্ষারত ফিলিস্তিনিদের ওপর গুলি বর্ষণ

কেনিয়ার গাধা অভয়ারণ্যের ডা. সোলোমোন অনয়াঙ্গো বিবিসিকে জানান, শুরুতে সরকার এটাকে সুযোগ হিসেবে বিবেচনা করে এবং আফ্রিকায় অনেক বৈধ জবাইখানা তৈরি হতে থাকে। কিন্তু এর ফলে ২০১৬ ও ২০১৯ সালের মধ্যে আমাদের অর্ধেকের বেশী গাধা মারা পড়ে।

ডা. অনয়াঙ্গো আরো জানান, এই নিষেধাজ্ঞা গাধা সংরক্ষণে এবং গাধার উপর নির্ভরশীল লাখো মানুষের জীবিকা বাঁচাতে সহায়ক হবে। বিশ্বের দুইতৃতীয়াংশ বা ৫ কোটি ৩০ লাখ গাধার চারণভূমি আফ্রিকা। দরিদ্র ও প্রান্তিক মানুষ যোগাযোগ ও মালামাল বহনের কাজে গাধা ব্যবহার করে থাকে।

ইথিওপিয়ায় গাধার অর্থনৈতিক মূল্য পরিমাপের এক সমীক্ষায় দেখা যায়, পরিবারে কোনো গাধা না থাকার অর্থ হলো একেবারে নিঃস্ব হওয়া।

পূর্ব আফ্রিকার প্রাণী কল্যাণ দাতব্য সংস্থা দ্য ব্রুকের আঞ্চলিক পরিচালক রাফায়েল কিনোটি বলেন, আফ্রিকার সেসব সম্প্রদায়ের জন্য এটি নিঃসন্দেহে দুর্দান্ত এক মুহূর্ত যারা দীর্ঘদিন ধরে গাধা থেকে উপকৃত হয়েছে। মানুষের তারুণ্য ধরে রাখতে জীবন যায় লাখো গাধারমানুষের তারুণ্য ধরে রাখতে জীবন যায় লাখো গাধার

কিনোটি আরো জানান, চামড়ার জন্য গাধা হত্যার এই প্রক্রিয়া আফ্রিকার মানুষের জীবন বিভীষিকাময় করে দেয়। এ সম্প্রদায়ের সংস্কৃতি ও পরিচয়; এ আঞ্চলের জীববৈচিত্র্য- সবকিছু হুমকির মুখে ফেলে দিয়েছিল।  সকলের সর্বোচ্চ কল্যাণার্থে এ সিদ্ধান্তে আফ্রিকান ইউনিয়নের সকল সদস্যকে অনড় ও অবিচল থাকতে হবে।


আরও খবর