আজঃ রবিবার ০৩ মার্চ ২০২৪
শিরোনাম

ষষ্ঠ ও সপ্তম শ্রেণিতে কোনো পরীক্ষা নয়

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৪ মার্চ ২০২৩ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৪ মার্চ ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

২০২৩ সালের শুরু থেকে মাধ্যমিকের ষষ্ঠ ও সপ্তম শ্রেণিতে নতুন শিক্ষাক্রম চালু হয়েছে। নতুন শিক্ষাক্রম অনুযায়ী এই দুই শ্রেণির শিক্ষার্থীদের মূল্যায়নে কোনো প্রচলিত পরীক্ষা বা মডেল টেস্ট নেওয়া যাবে না বলে জানিয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর মাউশি।

গতকাল সোমবার মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর থেকে এক আদেশে এ নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। অধিদপ্তরের মাধ্যমিক শাখার পরিচালক অধ্যাপক মোহাম্মদ বেলাল হোসাইন স্বাক্ষরিত আদেশটি এরই মধ্যে সব আঞ্চলিক উপপরিচালককে পাঠিয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর।

আদেশে বলা হয়েছে, মাধ্যমিক পর্যায়ের ষষ্ঠ ও সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের নতুন শিক্ষাক্রম অনুযায়ী শিখন-শেখানো ও মূল্যায়ন কার্যক্রমের ক্ষেত্রে এনসিটিবি প্রণীত শিক্ষক সহায়িকা এবং শিক্ষাক্রমের নির্দেশনা অনুসারে করতে হবে। শিক্ষার্থীদের মূল্যায়নের ক্ষেত্রে প্রচলিত কোনো পরীক্ষা বা মডেল টেস্ট নেওয়া যাবে না। ষষ্ঠ ও সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের মূল্যায়নের বিষয়ে এনসিটিবি থেকে যে গাইডলাইন পাওয়া যাবে তা পরবর্তী সময়ে জানিয়ে দেওয়া হবে।

এতে আরও বলা হয়েছে, নতুন শিক্ষাক্রম বাস্তবায়নে শিক্ষক, প্রতিষ্ঠান-প্রধান, উপজেলা বা থানা একাডেমিক সুপারভাইজার, উপজেলা বা থানা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার, জেলা শিক্ষা অফিসার, আঞ্চলিক উপপরিচালক এবং আঞ্চলিক পরিচালকদের নিয়মিত পরিবীক্ষণ জোরদার করতে হবে। নতুন শিক্ষাক্রম বাস্তবায়নে সংশ্লিষ্ট সবাইকে সচেষ্ট ও সচেতন থাকতে হবে। এ বিষয়ে কোনো রকমের ব্যত্যয় ঘটলে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি দায়ী থাকবেন।

এ দুই শ্রেণির শিক্ষার্থীদের মূল্যায়ন হবে জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ডের গাইডলাইন অনুযায়ী। এ গাইডলাইনের বিষয়ে পরে স্কুলগুলোকে জানিয়ে দেওয়া হবে বলেও জানিয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর।


আরও খবর
জাবির ‘ডি’ ইউনিটের ফল প্রকাশ

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




এইচএসসি পরীক্ষা শুরু হতে পারে জুনের শেষ সপ্তাহে

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

২০২৪ সালে এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা জুন মাসের শেষের দিকে হতে পারে। শিক্ষাবোর্ড থেকে জুনের শেষের দিকে পরীক্ষা নেওয়ার একটি প্রস্তাব পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন পেলে পরীক্ষার চূড়ান্ত তারিখ ঘোষণা করা হবে।

আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় কমিটির সভাপতি এবং ঢাকা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক তপন কুমার সরকারের বরাত দিয়ে এমনটাই বলছে বিভিন্ন গণমাধ্যম।

জানা গেছে, এ বছরের এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের নির্বাচনী পরীক্ষার ফল মার্চে প্রকাশ করা হবে। এরপর ফরম পূরণ শুরু হবে। ফরম পূরণ চলাকালীন পরীক্ষার একটি খসড়া রুটিন তৈরি করে তা শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হবে। এরপর প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অনুমোদন পেলে জুনের শেষ সপ্তাহ থেকে এইচএসসি পরীক্ষা শুরু হবে।

এদিকে, আগামী ১৫ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হচ্ছে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা।


আরও খবর
জাবির ‘ডি’ ইউনিটের ফল প্রকাশ

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




চলতি সপ্তাহে টানা ৪ দিন ছুটি কাটানোর সুযোগ

প্রকাশিত:সোমবার ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

চলমান মাসের এই সপ্তাহে একটানা চার দিনের ছুটি কাটানোর সুযোগ রয়েছে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য। আগামী ২২ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবারের ছুটি কোনোভাবে ম্যানেজ করতে পারলেই টানা চার দিনের ছুটি পাবেন তারা।

ক্যালেন্ডার অনুযায়ী, ২১ ফেব্রুয়ারি বুধবার সরকারি ছুটি পড়েছে। একদিন পর ২৩ ও ২৪ ফেব্রুয়ারি শুক্রবার ও শনিবার হওয়ায় এই দুদিন সাপ্তাহিক ছুটি। কোনো সরকারি চাকরিজীবী বা ব্যাংক কর্মী ২২ ফেব্রুয়ারির (বৃহস্পতিবার) ছুটি নিতে পারলে তিনি টানা চারদিন ছুটি ভোগ করতে পারবেন।

এ ছাড়া কোনো সরকারি চাকুরে বা ব্যাংক কর্মী এ সপ্তাহে ছুটি না নিতে পারলে তাদের নিরাশ হওয়ার কোনো কারণ নেই। কারণ ২৩ ও ২৪ ফেব্রুয়ারি শুক্রবার শনিবার হওয়ায় এই দুদিন সাপ্তাহিক ছুটি। একদিন পর ২৬ তারিখ শবে বরাতের সরকারি ছুটি। মাঝের ২৫ ফেব্রুয়ারি (রবিবার) সরকারি অফিস আদালত খোলা রয়েছে। এই এক দিনের ছুটিও কোনোভাবে ম্যানেজ করতে পারলেই সেসময়ও টানা চারদিনের ছুটি ভোগ করা যাবে।

এর আগে গত বছরের ২৫ অক্টোবর জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় ২০২৪ সালের ছুটির তালিকা প্রকাশ করে।


আরও খবর



৫৫ দেশে গাধার চামড়া ব্যবসা নিষিদ্ধ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

গাধার চামড়া বিক্রির বিতর্কিত চর্চা নিষিদ্ধ করল আফ্রিকান ইউনিয়ন। আফ্রিকা মহাদেশভিত্তিক এই জোটের ৫৫টি দেশে দেশে চামড়ার জন্য গাধা হত্যা বন্ধ করা হলো। এই সিদ্ধান্তকে প্রাণী অধিকার সংগঠনলো স্বাগত জানিয়েছে। গত রোববার ইথিওপিয়ায় অনুষ্ঠিত আফ্রিকান ইউনিয়ন শীর্ষ সম্মেলনে নেতারা এই নিষেধাজ্ঞায় অনুমোদন দেয়।

এজিয়াও নামে প্রাচীন চীনা ওষুধের কাঁচামাল হিসেবে ব্যবহৃত হয় গাধার চামড়া। ধারণা করা হয়, এজিয়াও মানুষের যৌবন বা তারুণ্য ধরে রাখে; ত্বক সুস্থ ও সুন্দর রাখে। বৈজ্ঞানিক প্রমাণ না থাকলেও দিন দিনই ওষুধটির চাহিদা বাড়ছে। এ কারণে গাধার চামড়া বিক্রিও বাড়ছে।

প্রাণী অধিকার সংস্থা দ্য চ্যারিটি, দ্য ডংকি স্যাংকচুয়ারি বিবিসিকে বলেন, চামড়া বিক্রির চর্চার কারণে আফ্রিকা ও লাতিন আমেরিকার দেশগুলোতে গাধার সংখ্যা ব্যাপক হারে কমে যাচ্ছে।

এজিয়াও উৎপাদনের জন্য আগে দেশীয় গাধার চামড়া ব্যবহার করতো চীনা কোম্পানিগুলো। চাহিদার চেয়ে সরবরাহে টান পড়ায় তাঁরা গাধার চামড়ার জন্য দেশের বাইরে খোঁজ শুরু করে। 

আরও পড়ুন>> ইসরায়েলের বর্বরতা : খাবারের জন্য অপেক্ষারত ফিলিস্তিনিদের ওপর গুলি বর্ষণ

কেনিয়ার গাধা অভয়ারণ্যের ডা. সোলোমোন অনয়াঙ্গো বিবিসিকে জানান, শুরুতে সরকার এটাকে সুযোগ হিসেবে বিবেচনা করে এবং আফ্রিকায় অনেক বৈধ জবাইখানা তৈরি হতে থাকে। কিন্তু এর ফলে ২০১৬ ও ২০১৯ সালের মধ্যে আমাদের অর্ধেকের বেশী গাধা মারা পড়ে।

ডা. অনয়াঙ্গো আরো জানান, এই নিষেধাজ্ঞা গাধা সংরক্ষণে এবং গাধার উপর নির্ভরশীল লাখো মানুষের জীবিকা বাঁচাতে সহায়ক হবে। বিশ্বের দুইতৃতীয়াংশ বা ৫ কোটি ৩০ লাখ গাধার চারণভূমি আফ্রিকা। দরিদ্র ও প্রান্তিক মানুষ যোগাযোগ ও মালামাল বহনের কাজে গাধা ব্যবহার করে থাকে।

ইথিওপিয়ায় গাধার অর্থনৈতিক মূল্য পরিমাপের এক সমীক্ষায় দেখা যায়, পরিবারে কোনো গাধা না থাকার অর্থ হলো একেবারে নিঃস্ব হওয়া।

পূর্ব আফ্রিকার প্রাণী কল্যাণ দাতব্য সংস্থা দ্য ব্রুকের আঞ্চলিক পরিচালক রাফায়েল কিনোটি বলেন, আফ্রিকার সেসব সম্প্রদায়ের জন্য এটি নিঃসন্দেহে দুর্দান্ত এক মুহূর্ত যারা দীর্ঘদিন ধরে গাধা থেকে উপকৃত হয়েছে। মানুষের তারুণ্য ধরে রাখতে জীবন যায় লাখো গাধারমানুষের তারুণ্য ধরে রাখতে জীবন যায় লাখো গাধার

কিনোটি আরো জানান, চামড়ার জন্য গাধা হত্যার এই প্রক্রিয়া আফ্রিকার মানুষের জীবন বিভীষিকাময় করে দেয়। এ সম্প্রদায়ের সংস্কৃতি ও পরিচয়; এ আঞ্চলের জীববৈচিত্র্য- সবকিছু হুমকির মুখে ফেলে দিয়েছিল।  সকলের সর্বোচ্চ কল্যাণার্থে এ সিদ্ধান্তে আফ্রিকান ইউনিয়নের সকল সদস্যকে অনড় ও অবিচল থাকতে হবে।


আরও খবর



গাজায় ইসরায়েলি হামলায় নিহতের সংখ্যা ৩০ হাজার ছুঁই ছুঁই

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

গাজায় ইসরায়েলি বাহিনীর তাণ্ডবে প্রতিদিনই শত শত নিরীহ ফিলিস্তিনি প্রাণ হারাচ্ছে। এর মধ্যে অধিকাংশই নারী এবং শিশু। সেখানে গত ৭ অক্টোবর থেকে এখন পর্যন্ত প্রায় ৩০ হাজার ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে। গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, গত মঙ্গলবার সন্ধ্যা এবং বুধবার সকালের মধ্যেই ৭৬ জন প্রাণ হারিয়েছে। ফলে সেখানে নিহতের সংখ্যা ২৯ হাজার ৯৫৪ জনে দাঁড়িয়েছে। খবর এএফপি, আল জাজিরা।

এদিকে নতুন করে আরও প্রায় ১১০ জন আহত হয়েছে। ফলে এখন পর্যন্ত গাজায় আহত হয়েছে ৭০ হাজার ৩২৫ জন। গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, কামাল আদওয়ান এবং আল-শিফা হাসপাতালে পানিশূন্যতা এবং অপুষ্টিতে ৬ শিশুর মৃত্যু হয়েছে। অন্য শিশুদের অবস্থাও গুরুতর। ওই দুই হাসপাতালে আরও তিন শিশুর মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে।

এদিকে হামাসের সিনিয়র কর্মকর্তা বাসেম নাইম বলেছেন, ইসরায়েলের সঙ্গে একটি সম্ভাব্য যুদ্ধবিরতি চুক্তি নিশ্চিত করতে এখনও অনেক পথ বাকি রয়েছে।

জাতিসংঘের মানবাধিকার সংস্থা জানিয়েছে, মানবিক সংস্থাগুলো গাজায় প্রবেশ করতে পারছে না। তাছাড়া তারাও হামলার শিকার হচ্ছেন। 

আরও পড়ুন>> অবশেষে পাকিস্তানে পার্লামেন্ট অধিবেশন বসছে আজ

এর আগে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছেন, তিনি আশা করছেন যে, আগামী সোমবারের মধ্যে নতুন যুদ্ধবিরতি হতে পারে। তিনি আরও বলেন, আমার জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা আমাকে বলেছেন যে, আমরা যুদ্ধবিরতির কাছাকাছি আছি।

গাজা উপত্যকায় ইসরায়েলি বাহিনীর অভিযানে এখন পর্যন্ত ২৩৮ জন ইসরায়েলি সেনা নিহত হয়েছে। ইসরায়েলি সেনাবাহিনী জানিয়েছে, গাজার উত্তরাঞ্চলে লড়াইয়ে অংশ নেওয়া গিভাতি ব্রিগেডের ২৫ বছর বয়সী এক মেজর এবং ২৪ বছর বয়সী এক ক্যাপ্টেন নিহত হয়েছেন।

ওই একই ইউনিটের আরও সাত সেনা সদস্য আহত হয়েছেন বলেও জানা গেছে। তাদের অবস্থা গুরুতর। চিকিৎসা সেবা দেওয়ার জন্য তাদেরকে গাজা থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে বলে ইসরায়েলি সামরিক বাহিনীর এক পোস্টে জানানো হয়েছে।

জাতিসংঘ এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, গাজায় স্থল অভিযান শুরু পর থেকে মঙ্গলবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) পর্যন্ত ইসরায়েলের সামরিক বাহিনীর মোট ২৩৮ জন সেনা সদস্য নিহত হয়েছেন। এছাড়া আহত হয়েছেন আরও ১ হাজার ৪০৮ জন। গত ৭ অক্টোবর ইসরায়েলের সীমান্তে প্রবেশ করে আকস্মিক হামলা চালায় ফিলিস্তিনি স্বাধীনতাকামী সংগঠন হামাস। এরপরেই গাজায় পাল্টা আক্রমণ শুরু করে ইসরায়েল।


আরও খবর



বিটিএসে যোগ দিতে ১৮ ভরি স্বর্ণ নিয়ে ঘর ছাড়ল কিশোরী

প্রকাশিত:রবিবার ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি

Image

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার ১৮ ভরি স্বর্ণালঙ্কার নিয়ে ঘর ছেড়েছে এক কিশোরী। কোরিয়ান মিউজিক ব্যান্ড বিটিএসের (BTS) টানে ঘর ছেড়ে পালিয়ে যাওয়ার অভিযোগ উঠেছে তার বিরুদ্ধে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, কিশোরীর ঘরের দেয়ালজুড়ে লাগানো ছিল শুধু বিটিএসের নানা পোস্টার। সেই ব্যান্ডের সঙ্গে দেখা করার স্বপ্নপূরণে মাত্র ৫ হাজার টাকাসহ কিছু স্বর্ণালঙ্কার নিয়ে ঘর ছাড়ে ১৬ বছরের কিশোরী।

শনিবার (১০ ফেব্রুয়ারি) ফতুল্লার মাসদাইর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। তাবাসসুম রহমান ফতুল্লার মাসদাইর সামসুল হকের বাড়ির ভাড়াটিয়া আব্দুল আউয়ালের মেয়ে।

সন্ধ্যায় ওই কিশোরীর বাবা থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগে তার পরিবার জানান, তাবাসসুম প্রায় সময়েই বিটিএসের গান শুনতেন। তার আচারণে পরিবর্তন আসায় পরিবারের অন্যান্য সদস্য কিছু বললে তাদের সঙ্গে বিরূপ আচরণ করতো। গত ২১ জানুয়ারি ঘর থেকে সোনা, নগদ টাকাসহ মূল্যবান জিনিসপত্র নিয়ে বের হয়ে যান তিনি। পরে কিশোরী তার চাচাতো বোনকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে জানায়, সে এখন বিটিএসের গ্রুপের সঙ্গে অবস্থান করে নাচ-গান করছে এবং খুব শিগগিরই কোরিয়া চলে যাবেন।

এ বিষয়ে ফতুল্লা মডেল থানার এসআই কামাল হোসেন বলেন, লিখিত অভিযোগ হয়েছে শুনেছি। তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


আরও খবর