আজঃ বৃহস্পতিবার ১৩ মে ২০২১
শিরোনাম

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলছে ২৩ মে

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৯ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৯ এপ্রিল ২০২১ | ১৬৮জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
দেশের পরিস্থিতির উন্নতি হলে আগামী ২৩ মে স্কুল-কলেজ খুলে দেয়া হবে। আমাদের আগের ঘোষণা অনুযায়ী যে সিদ্ধান্ত ছিলো তা এখনো বহাল রয়েছে। এটি বাস্তবায়নে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোকে ব্যবস্থা নিতে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে

করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে আগামী ২৩ মে থেকে দেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়া হবে। পূর্বের সিদ্ধান্তই বহাল রেখেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। সে মোতাবেক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোকে ব্যবস্থা নিতে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের (মাউশি) সচিব মো. মাহবুব হোসেন।

বৃহস্পতিবার (২৯ এপ্রিল) এক ভার্চুয়াল সংলাপে শিক্ষা সচিব বলেন, করোনার মধ্যে শিক্ষা কার্যক্রম চালিয়ে নিতে আমরা টেলিভিশন, অনলাইন ও রেডিওতে ক্লাস সম্প্রচার শুরু করেছি। তার পাশাপাশি মাধ্যমিকের শিক্ষার্থীদের বাসায় অ্যাসাইনমেন্ট কাজ দেয়া হচ্ছে। চলমান লকডাউনের কারণে বর্তমানে তা বন্ধ রাখা হয়েছে।

তিনি বলেন, করোনার ক্ষতি পুষিয়ে নিতে আগামী বছরের জাতীয় বাজেটে শিক্ষার বরাদ্দ বাড়ানো হবে। বাজেটে শিক্ষাকে অধিক গুরুত্ব দেয়া হবে বলে অর্থ মন্ত্রণালয় থেকে আমাদের নিশ্চিত করা হয়েছে। তবে বাজেটের আকার বড় করলেও সমস্যা সমাধান হয় না, এটি ব্যবহারে পরিকল্পনা, সক্ষমতা ও অভিজ্ঞতা প্রয়োজন হয়।

সচিব বলেন, দেশের পরিস্থিতির উন্নতি হলে আগামী ২৩ মে স্কুল-কলেজ খুলে দেয়া হবে। আমাদের আগের ঘোষণা অনুযায়ী যে সিদ্ধান্ত ছিলো তা এখনো বহাল রয়েছে। এটি বাস্তবায়নে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোকে ব্যবস্থা নিতে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

এদিকে গত ২৫ মার্চ প্রাথমিক, করোনাভাইরাস সংক্রান্ত জাতীয় পরামর্শক কমিটির বৈঠক শেষে ২৩ মে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার ঘোষণা দেয় শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, করোনাভাইরাস সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় শিক্ষার্থী, শিক্ষক, কর্মচারী ও অভিভাবকদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা এবং সার্বিক নিরাপত্তার বিষয়টি বিবেচনা করে ও কোভিড-১৯ সংক্রান্ত জাতীয় পরামর্শক কমিটির পরামর্শক্রমে মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আগামী ঈদুল ফিতরের পর ২৩ মে ক্লাস শুরুর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

তবে এসময়ে অনলাইন শিক্ষাকার্যক্রম অব্যাহত থাকবে বলে জানানো হয়। একইসঙ্গে শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহ্বান জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

গত বছরের ৮ মার্চ দেশে প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্তের পর ১৭ মার্চ থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। এরপর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের চলমান ছুটি ধাপে ধাপে বাড়িয়ে গত ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত করা হয়েছিল।


আরও খবর



‘ভ্যাকসিনের জন্য ভারত-বাংলাদেশ সম্পর্কে ভাটা পড়বে না’

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২২ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২২ এপ্রিল ২০২১ | ৯৪জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
করোনাভাইরাস মহামারি মোকাবিলায় ভারতের কাছ থেকে বাংলাদেশ ৭০ লাখ টিকা সরবরাহ করেছে। চুক্তি মতে, খুব দ্রুত বাকি কোভিড ভ্যাকসিন পেয়ে যাবে বাংলাদেশ। দুই দেশের সম্পর্ক উন্নত আছে

বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার বিক্রম দোরাইস্বামী বলেছেন, কোভিড ভ্যাকসিনের জন্য ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের সম্পর্কের কোনো ভাটা পড়বে না।

চার দিনের ভারত সফর শেষে বৃহস্পতিবার সকালে আখাউড়া চেকপোস্ট ইমিগ্রেশন সীমান্তপথে ঢাকায় ফিরে যাওয়ার সময় সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

এ সময় তিনি বলেন, করোনাভাইরাস মহামারি মোকাবিলায় ভারতের কাছ থেকে বাংলাদেশ ৭০ লাখ টিকা সরবরাহ করেছে। চুক্তি মতে, খুব দ্রুত বাকি কোভিড ভ্যাকসিন পেয়ে যাবে বাংলাদেশ। দুই দেশের সম্পর্ক উন্নত আছে। কোভিড ভ্যাকসিনের জন্য দুই দেশের সম্পর্কে বাধা পড়বে না।

বিক্রম দোরাইস্বামী বলেন, ভারতে এ মুহূর্তে নিজেদের কোভিড ভ্যাকসিনের সংকট আছে। উৎপাদন বাড়ানো হচ্ছে। শিগগিরই বাংলাদেশেও কোভিড ভ্যাকসিন সরবরাহ করা হবে। বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের নিবিড় সম্পর্ক রয়েছে। এ কারণেই অন্যান্য দেশের চেয়ে বাংলাদেশের সঙ্গে বেশি ভ্যাকসিন সরবরাহ চুক্তি আছে এবং চুক্তি মতে বাকি টিকাগুলো ক্রমান্বয়ে সরবরাহ করা হবে।

সফর শেষে সস্ত্রীক হাইকমিশনার বিক্রম দোরাইস্বামীকে চেকপোস্টে স্বাগত জানান আখাউড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. নূর এ আলম, ওসি মিজানুর রহমান প্রমুখ।


আরও খবর



সরকারি খরচে হজে পাঠানোর নামে প্রতারণা

প্রকাশিত:বুধবার ০৫ মে ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ০৫ মে ২০২১ | ৭৯জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সরকারি ব্যবস্থাপনায় হজে পাঠানোর প্রলোভন দেখিয়ে সাধারণ মুসল্লিদের কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে এক প্রতারককে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) ডিবি সাইবার অ্যান্ড স্পেশাল ক্রাইম বিভাগ।

বুধবার (৫ মে) দুপুরে ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার (ডিবি) একেএম হাফিজ আক্তার বাংলা ট্রিবিউনকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, সোমবার (৩ মে ) ভোর রাতে খুলনা মেট্রোপলিটন এলাকায় অভিযান চালিয়ে করে তাকে গ্রেফতার করেছে ডিবির অর্গানাইজ ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন টিম। গ্রেফতার ব্যক্তির  নাম মো. নজরুল ইসলাম (৫৮)। গ্রেফতারের সময় তার কাছ থেকে ২টি মোবাইল, ৩টি সিম কার্ড ও নগদ সাড়ে ৫ টাকা উদ্ধার করা হয়।

প্রসঙ্গত, সরকারি ব্যবস্থাপনায় হজ পালনের জন্য নিবন্ধনের নামে প্রতারণার করার অপরাধে মঙ্গলবার (৪ মে) শাহবাগ থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দাযের করা হয়। ধর্ম মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা মুহা. ইয়াকুব আলী জুলমাতির অভিযোগের পর এ মামলা হয়। মামলাটির ছায়া তদন্ত শুরু করে গোয়েন্দা অর্গানাইজ ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন টিম।

ডিবির অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার একেএম হাফিজ আক্তার  বলেন, হজ মৌসুমকে কেন্দ্র করে একটি প্রতারক চক্র বিভিন্ন মাওলানা বিশেষ করে মসজিদের ইমাম ও ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের সরকারিভাবে হজের জন্য নিবন্ধিত হয়েছেন মর্মে ফোন করে। এরপর সরকারি ব্যবস্থাপনায় হজ পালনে নিবন্ধনের কাজ দ্রুত করতে ৭ হাজার ৫শ টাকা পাঠানোর জন্য টার্গেট ব্যক্তিকে একটি  বিকাশ বা নগদ নম্বর পাঠানো হয়। টাকা  না পাঠালে নিবন্ধন বাতিল হবে বলেও জানায় প্রতারকরা।

তিনি আরও বলেন, ‘‘নোয়াখালী-১ আসনের সংসদ সদস্যের এপিএস পরিচয় দিয়ে এ ধরনের প্রতারণা করছে চক্রটি। এই প্রতারককে খুলনা হতে গ্রেফতার করেছে গোয়েন্দা পুলিশ।

এ বছর যারা হজে যাবেন সরকারিভাবে নিবন্ধিত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত হওয়ার জন্য অবশ্যই ধর্ম মন্ত্রণালয়  পরিচালিত হজ কল সেন্টারের ০৯৬০২৬৬৬৭০৭ নম্বরে ফোন করে তথ্য জানার অনুরোধ করেন পুলিশের এই গোয়েন্দা কর্মকর্তা।


আরও খবর



এশিয়ার ১০০ বিজ্ঞানীর তালিকায় স্থান পেলেন তিন বাংলাদেশি

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৯ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৯ এপ্রিল ২০২১ | ১০০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

গবেষণা কাজে অবদান রাখায় এশিয়া মহাদেশের ১০০ জন বিজ্ঞানীদের তালিকায় বাংলাদেশি তিন জন স্থান পেয়েছেন। বিজ্ঞানের নানা ক্ষেত্রে যারা গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখেন তাদের মধ্য থেকে প্রতি বছর ১০০ জনকে বাছাই করে তালিকা প্রকাশিত করে এশিয়ান সায়েন্টিস্ট। প্রতি বছরের মতো এ বছর প্রতিষ্ঠানটি যে তালিকা প্রকাশ করেছে সেখানে বাংলাদেশের তিন নারী বিজ্ঞানী স্থান পেয়েছেন।

গত সোমবার ষষ্ঠবারের মতো ইংরেজি ভাষার ম্যাগাজিন ‘দ্য এশিয়ান সায়েন্টিস্ট ১০০’শিরোনামে এ তালিকা প্রকাশ করেছে সিঙ্গাপুরভিত্তিক সাময়িকী ‘এশিয়ান সায়েন্টিস্ট’। বাংলাদেশের তিন নারী হলেন- ড. সালমা সুলতানা, ড. ফেরদৌসী কাদরী এবং অধ্যাপক সামিয়া সাবরিনা।

কোনো গবেষক যদি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বা শিল্প সংস্থায় যুক্ত থাকা অবস্থায় উল্লেখযোগ্য কোনো বৈজ্ঞানিক আবিষ্কার করেন তাহলে তাকেও এই তালিকায় স্থান দিয়ে সম্মান জানানো হয়।

ম্যাগাজিনের ওয়েবসাইট অনুসারে, সালমা সুলতানা হচ্ছেন মডেল লাইভস্টক অ্যাডভান্সমেন্ট ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা। ২০২০ সালে তিনি মাঠ পর্যায়ের গবেষণা ও পদ্ধতিগত প্রয়োগ আবিষ্কারের স্বীকৃতি স্বরূপ ওয়ার্ল্ড ফুড প্রাইজ ফাউন্ডেশনের নরম্যান ই বোরলাগ পুরস্কার লাভ করেন। সালমা বাংলাদেশের ক্ষুদ্র খামারিদের সঙ্গে গবাদিপশু পালন, পশু চিকিৎসা পৌঁছে দেওয়া এবং খামারিদের প্রশিক্ষণ ও শিক্ষার চেষ্টা চালান। তাকে দেওয়া পুরস্কারটি ছিল এসব কাজেরই স্বীকৃতি।

অন্যদিকে, ফেরদৌসী কাদরী হলেন আন্তর্জাতিক উদরাময় রোগ গবেষণা কেন্দ্রে (আইসিডিডিআর,বি) কর্মরত একজন এমিরেটস বিজ্ঞানী। রোগ সংক্রমণের প্রথম দিকেই পরীক্ষার পদ্ধতি, বৈশ্বিক টিকাদানসহ উন্নয়নশীল দেশে শিশুদের মধ্যে সংক্রামক ব্যাধি বিস্তার নিয়ে করা তার গবেষণার জন্য ২০২০ সালে তিনি ল'রিয়েল-ইউনেস্কো ফর উইমেন ইন সায়েন্স পুরস্কার লাভ করেন।

সামিয়া সাবরিনা বাংলাদেশ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক। উন্নয়নশীল দেশের জন্য তড়িৎ বিজ্ঞানে ন্যানোমেটারিয়াল নামে পরিচিত সূক্ষ্ম বস্তুকণার প্রয়োগ ও উপযোগ নিয়ে করা গবেষণার স্বীকৃতি স্বরূপ ২০২০ সালে তিনি ওডব্লিউএসডি- এলসিভার ফাউন্ডেশন অ্যাওয়ার্ড ফর আর্লি ক্যারিয়ার উইমেন সায়েন্টিস্ট পুরস্কার পান।


আরও খবর



আইন করে কিশোরীর সঙ্গে যৌন সম্পর্ক নিষিদ্ধ করলো ফ্রান্স

প্রকাশিত:শনিবার ১৭ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ১৭ এপ্রিল ২০২১ | ১১৭জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
ফ্রান্সে এতদিন নারীদের ক্ষেত্রে সম্মতিসূচক শারীরিক সম্পর্কের বয়স ছিল ১৫ বছর। যদি এর চেয়ে কম বয়সী কেউ ধর্ষণের শিকার হতো, তাহলে অভিযুক্তের আইনজীবী সেই ঘটনাকে সম্মতিসূচক সহবাস প্রমাণের চেষ্টা করতে পারতেন

কোনো কিশোরী অর্থাৎ ১৫ বছরের কম বয়সী মেয়ের সঙ্গে যৌন সম্পর্ক শাস্তিযোগ্য অপরাধ বলে ঘোষণা করলো ফ্রান্স। মেয়ের সম্মতিতেও যদি এই সম্পর্ক স্থাপিত হয় তবুও তা ধর্ষণ বলে বিবেচিত হবে বলে নতুন এক আইন পাস করেছে দেশটি।

ফ্রান্সে এতদিন নারীদের ক্ষেত্রে সম্মতিসূচক শারীরিক সম্পর্কের বয়স ছিল ১৫ বছর। যদি এর চেয়ে কম বয়সী কেউ ধর্ষণের শিকার হতো, তাহলে অভিযুক্তের আইনজীবী সেই ঘটনাকে সম্মতিসূচক সহবাস প্রমাণের চেষ্টা করতে পারতেন। এর মাধ্যমে অনেক ধর্ষণের ঘটনাই সম্মতিপূর্ণ সহবাস হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করে অভিযুক্তরা শাস্তি এড়িয়ে যেতেন।

তবে নতুন আইনের ফলে ওই সুযোগ আর থাকছে না। এখন থেকে ১৫ বছরের কম বয়সী কোনো মেয়ের সঙ্গে যৌন সম্পর্ক হলেই সেটি ধর্ষণ হিসেবে ধরা হবে এবং দোষীকে সর্বোচ্চ ২০ বছরের কারাদণ্ড দেয়া হবে।

ফরাসি আইনমন্ত্রী এরিক মোরেট্টি এই আইন পাস হওয়ার ঘটনাটিকে তাদের সমাজব্যবস্থা ও শিশুদের জন্য ঐতিহাসিক বলে উল্লেখ করেছেন। অবশ্য এর নেতিবাচক প্রভাব নিয়ে উদ্বেগ জানিয়েছেন আইনজীবীদের একাংশ। দুজনের সম্মতিতে সহবাস হলেও আইন অনুযায়ী কেবল একজন ধর্ষণের সাজা পাবেন- এটা কি অবিচার নয়, এমন প্রশ্ন তাদের।


আরও খবর



১৩ বছরের মধ্যে চালের মজুদ সর্বনিম্ন

প্রকাশিত:বুধবার ২৮ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ২৮ এপ্রিল ২০২১ | ১০৪জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
চালের মজুদ সঙ্কটে খাদ্য মন্ত্রণালয়ের গাফিলতিকে দায়ী করছেন কৃষিবিদ ও বাজার বিশ্লেষকরা। এদিকে খুচরা বাজারে সব ধরনের চাল বিক্রি হচ্ছে আগের বাড়তি দামে। কেজি প্রতি মোটা চাল বিক্রি হচ্ছে ৪৮ থেকে ৫০ টাকায়, আর চিকন চাল ৬০ থেকে ৭০ টাকায়

আমদানির পরও চাহিদার মাত্র ২০ শতাংশ চালের মজুদ রয়েছে সরকারি গুদামগুলোতে। যা গত ১৩ বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন। খাদ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী, গুদামে যেখানে চালের মজুদ থাকার কথা কমপক্ষে ১৫ লাখ মেট্রিক টন, সেখানে রয়েছে মাত্র ৩ লাখ টন। বাজার বিশ্লেষকরা বলছেন, মজুদের ব্যাপারে খাদ্য মন্ত্রণালয়ের অদূরদর্শিতাই সঙ্কটের প্রধান কারণ। তবে খাদ্যমন্ত্রীর দাবি, আমদানি ব্যবস্থাপনায় দেরি হওয়ায় মজুদ কমেছে।

করোনায় দেশে চালের ঘাটতির আশঙ্কায় গেল বছরের আগস্টেই ২০ লাখ টন চাল আমদানির অনুমতি দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তবে সরকারিভাবে ১০ লাখ টন চাল আমদানির কার্যক্রম শুরু করতে খাদ্য মন্ত্রণালয়ের সময় লেগে যায় চার মাস। আর সাড়ে ৩৭ শতাংশ শুল্ক কমিয়ে বেসরকারি খাতকে আমদানির অনুমতি দেয়ার বিষয়টি গড়ায় ফেব্রুয়ারি মাস পর্যন্ত।

খাদ্য মন্ত্রণালয়ের হিসাবে, ২১ এপ্রিল পর্যন্ত সরকারিভাবে চাল আমদানি হয়েছে মাত্র ২ লাখ ৫৯ হাজার টন। আর বেসরকারিভাবে হয়েছে সাড়ে ৬ লাখ টন। এর মধ্যে তলানিতে ঠেকেছে সরকারি মজুদ, রয়েছে মাত্র ৩ লাখ টন যা চাহিদার ২০ শতাংশ।

আমদানিকারক নিরব বরণ সাহা বলছেন, প্রথমত কারণ ছিল বর্ডার থেকে সময়মতো পণ্য না আসা। একসঙ্গে যদি একদিনে বিভিন্ন বর্ডার থেকে এক লাখ মেট্রিক টন (কম-বেশি) পণ্য প্রবেশ করতো তাহলে স্বাভাবিকভাবে এখানে ধারাটা ঠিক থাকতো।

চালের মজুদ সঙ্কটে খাদ্য মন্ত্রণালয়ের গাফিলতিকে দায়ী করছেন কৃষিবিদ ও বাজার বিশ্লেষকরা। এদিকে খুচরা বাজারে সব ধরনের চাল বিক্রি হচ্ছে আগের বাড়তি দামে। কেজি প্রতি মোটা চাল বিক্রি হচ্ছে ৪৮ থেকে ৫০ টাকায়, আর চিকন চাল ৬০ থেকে ৭০ টাকায়।

কৃষি অর্থনীতিবিদ ড. এম আসাদুজ্জামান বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশের পরও যে ৮ মাস খাদ্য মন্ত্রণালয় বসে থাকলো তার জবাবদিহিতা তো শেষ পর্যন্ত করতে হবে তাদের। বাজার বিশ্লেষক এস এম নাজের হোসেন বলেন, সফল না হওয়ার পেছনে মনে করি খাদ্য মন্ত্রণালয়ের গাফিলতি এবং অদক্ষতা ছিল। তারা যদি বিষয়টিতে সঠিকভাবে মনোযোগ দিতেন তাহলে আজকের এই সঙ্কট হতো না।

খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেন, গাড়ি ভাড়া করে সরবরাহ করা হচ্ছে। চাল আসতেছে। স্থানীয় প্রক্রিয়া হচ্ছে এবং আমদানিকৃত চাল আগামী ১৬ তারিখের মধ্যে চলে আসবে। আমরা পর্যাপ্ত পরিমাণে আমদানি করব।


আরও খবর