আজঃ মঙ্গলবার ২৩ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম

লিটনের ব্যাটে জয়ের হাতছানি বাংলাদেশের

প্রকাশিত:শনিবার ০৮ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ০৮ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
ক্রীড়া প্রতিবেদক

Image

শ্রীলঙ্কার ছোট লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে পাওয়ারপ্লেতে ৩ উইকেট হারিয়ে বিপর্যয়ে পড়ে বাংলাদেশ। সেই চাপ সামলে বাংলাদেশকে চালকের আসনে বসিয়েছেন লিটন দাস এবং তাওহীদ হৃদয়। ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গার পরপর ৩ বলে ৩ ছক্কা মেরে হৃদয় আউট হলেও লিটনের ব্যাটে জয়ের পথে এগিয়ে আছে টাইগাররা।

এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত বাংলাদেশের সংগ্রহ ১২ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে ৯২ রান। জয়ের জন্য ৪৮ বলে টাইগারদের প্রয়োজন ৩৩ রান, হাতে আছে ৬ উইকেট।

ছোট লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে প্রথম ওভারেই সৌম্য সরকারের উইকেট হারায় বাংলাদেশ। ধনঞ্জয়া ডি সিলভার বলে লেগ সাইডে শট খেলতে গিয়ে মিড অনে ক্যাচ তুলে দেন সৌম্য। দলীয় ১ রানে প্রথম উইকেট হারায় বাংলাদেশ। দ্বিতীয় ওভারে নুয়ান থুসারা বোল্ড করেন তানজিম তামিমকে।

৬ রানে ২ উইকেট হারানোর পর দেখেশুনে খেলতে শুরু করেন অধিনায়ক নাজমুল শান্ত এবং লিটন দাস। দুজনে মিলে ২২ রানের জুটিও গড়েন। তবে ষষ্ঠ ওভারে থুসারার বলে ড্রাইভ করতে গিয়ে সহজ ক্যাচ তুলে দেন শান্ত। ১৩ বলে ৭ রান করে ফেরেন অধিনায়ক।

এর আগে ব্যাটিংয়ে নেমে পাথুম নিসাঙ্কার ব্যাটে ভালো শুরু পেয়েছিল শ্রীলঙ্কা। তবে মুস্তাফিজুর রহমান, তাসকিন আহমেদ এবং রিশাদ হোসেনের জাদুতে লঙ্কানদের অল্প রানেই আটকে দিয়েছে টাইগাররা।

২৮ বলে ৪৭ রান করেছেন নিসাঙ্কা। বাংলাদেশের হয়ে ৩টি করে উইকেট নিয়েছেন মুস্তাফিজুর রহমান এবং রিশাদ হোসেন। তাসকিন আহমেদ নিয়েছেন ২ উইকেট।


আরও খবর



ব্রিটিশ সরকারের সঙ্গে আমাদের বন্দি বিনিময় চুক্তি নেই: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৭ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৭ জুন ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

তারেক রহমানকে ফিরিয়ে আনতে ব্রিটিশ সরকারের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। বৃহস্পতিবার (২৭ জুন) পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে এক মতবিনিময় সভায় এ কথা বলেন তিনি।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, তারেক রহমানকে ফিরিয়ে আনতে ব্রিটিশ সরকারের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে। তাদের সঙ্গে আমাদের বন্দি বিনিময় চুক্তি নেই, সেটি একটি সমস্যা। তবে দুই দেশ সম্মত হলে তাকে ফিরিয়ে আনা সম্ভব। এ নিয়ে আলোচনা চলছে।

তিনি বলেন, বিএনপি গণতন্ত্রের কথা বলে কিন্তু তাদের দলেই গণতন্ত্র নেই। বাংলাদেশে গণতন্ত্র রক্ষা করেছে শেখ হাসিনা।

এ সময় হাছান মাহমুদ বলেন, ভারত আমাদের বিশ্বস্ত বন্ধু। চীনও আমাদের অবকাঠামো উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে। তিস্তা ভারত-বাংলাদেশের যৌথ নদী। যদি প্রয়োজন অনুযায়ী ভারত আমাদের সহায়তা করে সেটি ভালো। বাংলাদেশে ভারতের ট্রেন চলাচল তো আগে থেকেই আছে। বাংলাদেশ থেকে ট্রেন শুধু ভারতে যাবে না, নেপাল আর ভুটানেও যাবে। তা নিয়ে আমরা কাজ করছি।

তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৮ জুলাই চীন সফরে যাবেন। এটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ সফর। এই সফরের মাধ্যমে দুই দেশের বন্ধুত্ব আরও অটুট হবে। সফরে যেসব বিষয়ে আলোচনা হবে তা নিয়ে আমরা কাজ করছি। সেখানে রোহিঙ্গা সমস্যা নিয়েও আলোচনা হবে।

নিউজ ট্যাগ: তারেক রহমান

আরও খবর
মেট্রোরেল চলাচল পুরোপুরি বন্ধ

বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০২৪




সপ্তাহের শেষ দিকে বাড়তে পারে বৃষ্টি

প্রকাশিত:রবিবার ১৪ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১৪ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

সারা দেশেই বিক্ষিপ্তভাবে বৃষ্টিপাত হচ্ছে গত কয়েক দিন ধরে। আগামী তিন দিন পর্যন্ত এই বৃষ্টি অব্যাহত থাকতে পারে। তবে তিন দিন পর বৃষ্টিপাত বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। রোববার (১৪ জুলাই) আবহাওয়া অধিদফতর সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

রোববার সন্ধ্যা ৬টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, মৌসুমি বায়ুর অক্ষ পাঞ্জাব, হরিয়ানা, উত্তর প্রদেশ, বিহার, পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশের উত্তরাঞ্চল হয়ে আসাম পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। এর একটি বর্ধিতাংশ বিস্তৃত রয়েছে উত্তর বঙ্গপ্রসাগর পর্যন্ত। মৌসুমি বায়ু বাংলাদেশের ওপর মোটামুটি সক্রিয় এবং উত্তর বঙ্গোপসাগরে মাঝারি অবস্থায় রয়েছে।

আজ রংপুর, ময়মনসিংহ, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের অনেক জায়গায়; রাজশাহী, ঢাকা, খুলনা ও বরিশাল বিভাগের দু-এক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে রংপুর, ময়মনসিংহ, সিলেট ও চট্টগ্রাম বিভাগের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী বর্ষণ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এ সময় সারা দেশে দিন ও রাতের তাপমাত্রা কিছুটা বাড়তে পারে।

সোমবার (১৫ জুলাই) সকাল ৯টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার পূর্বাভাসে বলা হয়, রংপুর, ময়মনসিংহ, সিলেট ও চট্টগ্রাম বিভাগের অনেক জায়গায়; রাজশাহী, ঢাকা, খুলনা ও বরিশাল বিভাগের দু-এক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে রংপুর, ময়মনসিংহ, সিলেট ও চট্টগ্রাম বিভাগের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী বর্ষণ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। দিনের তাপমাত্রা কিছুটা বাড়তে পারে। রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকবে।

মঙ্গলবার (১৬ জুলাই) সকাল ৯টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, রংপুর, ময়মনসিংহ, সিলেট ও চট্টগ্রাম বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় রাজশাহী, ঢাকা, খুলনা ও বরিশাল বিভাগের দু-এক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে রংপুর, ময়মনসিংহ, সিলেট বিভাগের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। দিনের তাপমাত্রা কিছুটা বাড়তে পারে। এ সময় সারা দেশে দিন ও রাতের তাপমাত্রা অপরিবর্তিত থাকতে পারে।


আরও খবর



পরীক্ষাকেন্দ্রে অনিয়মের অভিযোগ, ৭ শিক্ষককে স্থায়ী বহিষ্কার

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৫ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৫ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
অলিউল্লাহ্ ইমরান, বরগুনা

Image

বরগুনা দারুল উলুম নেছারিয়া (কামিল) মাদ্রাসায় এইচএসসি পরীক্ষায় অনিয়মের অভিযোগে চারটি মাদ্রাসার অধ্যক্ষসহ সাত শিক্ষককে হল থেকে স্থায়ী বহিষ্কার করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) নির্দেশে তাদের বহিষ্কার করেন হল সুপার বরগুনা দারুল উলুম সিনিয়র নেছারিয়া কামিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মো. মামুন অর রশীদ। বহিষ্কৃত শিক্ষকরা ভবিষ্যতে কোনো পরীক্ষায় দায়িত্ব পালন করতে পারবেন না।

বহিষ্কৃতরা হলেন বদরখালী ইসলামিয়া আলিম মাদ্রাসার অধ্যক্ষ আশরাফ আলী, কেওড়াবুনিয়া ইসহাকিয়া আলিম মাদ্রাসার উপাধ্যক্ষ রেজাউল ইসলাম, পূর্ব গুদিঘাটা কামিল মাদ্রাসার সহকারী অধ্যক্ষ সগির হোসাইন ও বেলাল হোসাইন। এ ৩টি মাদ্রাসার প্রভাষক বেলাল হোসেন, মোহাম্মদ ইসমাইল ও মিজানুর রহমান। তবে অনৈতিক সুবিধা নেওয়া ৮০ শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেননি তারা।

বরগুনা সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শামীম মিঞা বলেন, বাংলা প্রথম পত্রের পরীক্ষায় সদরের আলিয়া মাদ্রাসার ৬, ৭ ও ৯ নম্বর হলে ৮০ জন পরীক্ষার্থীকে অনৈতিক সুবিধা দেওয়ার জন্য নৈর্ব্যত্তিকের কোড পরিবর্তন করে প্রশ্নপত্র দেয় ওই ৭ শিক্ষক। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে অনিয়মের প্রমাণ পেয়ে ৭ শিক্ষককে স্থায়ী বহিষ্কার করা হয়।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত শিক্ষকরা বলেন, আমাদের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ এনে বহিষ্কার করা হয়েছে তা সঠিক নয়।


আরও খবর



ফায়ার সার্ভিসের গাড়ির টোল না নেওয়ার নির্দেশ

প্রকাশিত:সোমবার ০১ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ০১ জুলাই ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আদালত প্রতিবেদক

Image

হাইওয়ে, ব্রিজ, ফেরি ও রোডে চলাচলের ক্ষেত্রে ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি থেকে টোল আদায় না করতে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি চলাচলে টোল নেওয়া কেন বেআইনি ও অবৈধ ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন আদালত।

এ সংক্রান্ত বিষয়ে দায়ের করা এক রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানিতে সোমবার (১ জুলাই) হাইকোর্টের বিচারপতি মোস্তফা জামান ইসলাম ও বিচারপতি মাসুদ হোসেন দোলনের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মোহাম্মদ মনির উদ্দিন আদালতে রিট আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন।

আদেশের বিষয়টি নিশ্চিত করে তিনি বলেন, এর আগে গত ৭ মে জনস্বার্থে রিটটি দায়ের করেছিলেন।


আরও খবর
কোটা নিয়ে আপিল বিভাগে শুনানি রোববার

বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০২৪




সাদিক অ্যাগ্রোর ব্রাহমা কেলেঙ্কারি তদন্তে বিমানবন্দর কাস্টমসে দুদক

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০২ জুলাই 2০২4 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০২ জুলাই 2০২4 | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

জব্দ হওয়ার পরও আমদানি করা ১৮টি আমেরিকান ব্রাহমা গরু কীভাবে সাদিক অ্যাগ্রোতে নিয়ে গেলেন প্রতিষ্ঠানটির স্বত্ত্বাধিকারী মো. ইমরান হোসেন, তা তদন্তে এবার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কাস্টমসে অভিযান পরিচালনা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

মঙ্গলবার (২ জুলাই) দুপুরে এই অভিযান শুরু হয়। এর আগে গতকাল আলোচিত ব্রাহমা কেলেঙ্কারিতে ইমরান হোসেনের সঙ্গে যোগসাজশের অভিযোগে ঢাকার সাভারের কেন্দ্রীয় গো-প্রজনন ও দুগ্ধ খামারে বিশেষ অভিযান চালায় কমিশন। অভিযানে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ নথিপত্র হাতে আসে দুদকের। আমদানি নিষিদ্ধ বিশালাকার গরুগুলো দেশে আনার ক্ষেত্রে সাদিক অ্যাগ্রো ও এর স্বত্ত্বাধিকারী ইমরানের দরপত্র জালিয়াতিসহ বিভিন্ন দুর্নীতির অভিযোগ খতিয়ে দেখছে সংস্থাটি।

সম্প্রতি সাদিক অ্যাগ্রো থেকে ১৫ লাখ টাকা দাম হাঁকানো বিটল জাতের একটি ছাগল ১২ লাখ টাকায় কিনে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে আলোড়ন সৃষ্টি করেন মুশফিকুর রহমান ইফাত নামে এক তরুণ। পরে এ ঘটনাটি সংবাদ আকারে গণমাধ্যমে প্রকাশ পেলে সামনে চলে আসে তার বাবা মতিউর রহমানের নাম, যিনি জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) একজন উচ্চপদস্ত কর্মকর্তা। সঙ্গে সঙ্গে প্রশ্ন উঠে যায়, একজন সরকারি আমলা হয়ে কীভাবে তার ছেলে বিলাসবহুল সব শখ পূরণ করেন। এরপর একে একে খোঁজ মিলতে থাকে এনবিআরের এ কর্মকর্তার অবৈধ পন্থায় অর্জিত অঢেল সম্পদের। জোরেশোরে তদন্ত শুরু করে দুদক। এরই মধ্যে ব্যাপক সমালোচনা শুরু হয় সাদিক এগ্রোর স্বত্ত্বাধিকারী ইমরান হোসেন এবং তার উচ্চবংশীয় পশুর খামার নিয়েও। পরবর্তীতে সামনে চলে আসে জালিয়াতির আশ্রয় নিয়ে গরু আমদানি করে ইমরানের অ্যাগ্রো ব্যবসার ব্যাপারটিও। ফলশ্রুতিতে মতিউর রহমানের পাশাপাশি ইমরান হোসেনের বিরুদ্ধেও দুর্নীতির অভিযোগ তদন্তে নামে দুদক।

গতকাল সাভারের কেন্দ্রীয় গো-প্রজনন ও দুগ্ধ খামারে অভিযান চলাকালে দুর্নীতি দমন কমিশনের সহকারী পরিচালক আবুল কালাম আজাদ জানান, ২০২১ সালে ১৮টি আমেরিকান ব্রাহামা জাতের গরু বাংলাদেশে এনে তোলপাড় সৃষ্টি করেন ইমরান হোসেন। কিন্তু ব্রাহমা জাতের গরু আমদানি নিষিদ্ধ থাকায় সেগুলো বাজেয়াপ্ত করে ঢাকা কাস্টমস।

করোনা মহামারির বিধিনিষেধের মধ্যে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে আনা ব্রাহমা জাতের গরুগুলো বিমানবন্দরে ধরা পড়লে সেসময় গ্রহণ করতে যাননি কেউ। পরে জানা যায়, ওই গরুগুলোর আমদানিকারক সাদিক অ্যাগ্রো লিমিটেড। তারা কাগজপত্র জালিয়াতির মাধ্যমে শাহিওয়াল গরুর নাম দিয়ে ব্রাহমা আমদানি করেছিল। আর এটা করা হয় প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের জাল কাগজপত্র ব্যবহার করে।

জব্দ গরুগুলো প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের মাধ্যমে সাভারের কেন্দ্রীয় গো প্রজনন ও দুগ্ধ খামারে রাখা হয়। পরবর্তীতে রহস্যজনকভাবে গরুগুলো চলে যায় ইমরানের সাদিক অ্যাগ্রোতে। কিন্তু কোন প্রক্রিয়ায় সরকারের এই প্রতিষ্ঠান থেকে নিষিদ্ধ ব্রাহমা জাতের গরুগুলো সাদিক এগ্রোকে দেওয়া হয়েছে, সেসবসহ অন্যান্য বিষয়ে খোঁজ নিচ্ছে দুদক।

আগের দিন কেন্দ্রীয় গো প্রজনন ও দুগ্ধ খামারের পরিচালক ডা. মনিরুল ইসলাম জানান, বাজেয়াপ্ত হওয়ার পর মন্ত্রণালয় ও অধিদপ্তরের কয়েকজন উর্ধ্বতন কর্মকর্তাকে ম্যানেজ করে মাংস বিক্রির শর্তে ব্রাহমা জাতের গরুগুলোকে কৌশলে নিলামে তুলে সাদিক অ্যাগ্রোতে নিয়ে যান ইমরান। নিলামে বিক্রি হওয়া গরুগুলো জবাই করে সেই মাংস ঈদুল ফিতরের সময় সুলভ মূল্যে বিক্রির কথা থাকলেও তা করেনি তিনি। পরিবর্তে কম দামী গরুর মাংস বিক্রি করেন এবং ব্রাহমা জাতের সেই গরুগুলো উচ্চ বংশের গরু বলে কোটি টাকা দাম হাঁকেন।

প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা বলেন, জাতীয় প্রাণিসম্পদ উন্নয়ন নীতিমালার আলোকে যেসব গরুর জাত পালনের অনুমতি আছে, সেখানে ব্রাহমা জাতের কোনো অনুমোদন নেই। ফলে এই জাত পালনের কোনো অনুমোদন আমরা দিইনি। কিন্তু অবৈধভাবে আনা ব্রাহমা গরুগুলো ছিল প্রজনন অনুপযোগী। ফলে নিয়ম অনুসারে এসব প্রজনন অনুপযোগী গরু খামারিদের সংগঠনের কাছে হস্তান্তর করা হয়। কোনো ব্যক্তিকে দেওয়া হয়নি। কিন্তু ইমরান কৌশলে এসব গরু নিজের নামে নিয়ে নিয়েছেন। তার ওপর শর্তানুযায়ী এসব গরুর মাংস বিক্রি না করে কোরবানীর পশু হিসেবে বাজারেও বিক্রি করেছেন। ২০২৩ ও ২০২৪ সালের প্রাণিসম্পদ সেবা সপ্তাহ ও প্রদর্শনীতে প্রকাশ্যে ইমরান এই ব্রাহমা জাতীয় নিষিদ্ধ গরু উঠিয়েছিলেন।


আরও খবর