আজঃ শনিবার ০২ মার্চ 2০২4
শিরোনাম

পরিবর্তন হতে পারে ঘুমধুম সীমান্তে এসএসসির পরীক্ষাকেন্দ্র

প্রকাশিত:রবিবার ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
জেলা প্রতিনিধি

Image

মিয়ানমারের অভ্যন্তরীণ সংঘাত কেন্দ্র করে সীমান্ত পরিস্তিতি বিবেচনায় বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুমের একটি স্কুলে এসএসসি পরীক্ষার কেন্দ্র পরিবর্তন করা হতে পারে। পরিবর্তন হলে পাশের আরেকটি স্কুলে কেন্দ্র স্থানান্তর করা হবে। সার্বিক পরিস্থিতি জানানো হয়েছে শিক্ষা বোর্ডকে। তারা এ ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে।

ঘুমধুম ইউনিয়নে সীমান্তঘেঁষা ঘুমধুম উচ্চ বিদ্যালয়ে এসএসসির পরীক্ষার কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহৃত হয়। এবার এই কেন্দ্রে পরীক্ষার্থী ৫০২ জন। তাদের মধ্যে ঘুমধুম উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ১৫৯ জন। বাকিরা কক্সবাজারের বালুখালী ও কুতুপালংয়ের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের। সীমান্ত পরিস্থিত বিবেচনা করে ঘুমধুম উচ্চ বিদ্যালয় থেকে পরীক্ষা কেন্দ্র স্থানান্তর হতে পারে উত্তর ঘুমধুম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে।

সংশ্লিষ্টরা জানান, পরীক্ষার্থীদের যাতে কোনো সমস্যা না হয় সেজন্য পদক্ষেপ নিচ্ছে স্থানীয় প্রশাসন। গতকাল (শনিবার) কেন্দ্রটি পরিদর্শন করেছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শান্তনু কুমার দাশ ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) উম্মে কুলসুম। তারা চিঠি দিয়ে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ পরবর্তী সিদ্ধান্ত জানাবেন।

ঘুমধুম উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ খায়রুল বশর বলেন, পরীক্ষা যেহেতু নিতে হবে সেজন্য উত্তর ঘুমধুম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কেন্দ্র স্থাপনের জন্য বিকল্প হিসেবে বিবেচনা করছি। সেখানে কেন্দ্র হস্তান্তর করার জন্য প্রাথমিক ও গণশিক্ষা অধিদপ্তরের অনুমোদন প্রয়োজন। বিষয়টি তাদেরকে জানানো হয়েছে।

আগামী ১৫ ফেব্রুয়ারি বাংলা প্রথম পত্রের মধ্য দিয়ে শুরু হবে এবারের এসএসসি পরীক্ষা। শেষ হবে ১২ মার্চ। ২০২২ সালে এসএসসি পরীক্ষার সময়ও সীমান্তে সংঘর্ষ ছিল। সে সময় কেন্দ্রটি কক্সবাজার জেলার উখিয়া কুতুপালং উচ্চ বিদ্যালয়ে স্থানান্তর করা হয়েছিল।

নাইক্ষ্যংছড়ির ইউএনও শান্তনু কুমার দাশ বলেন, পরীক্ষাকেন্দ্রটি বাতিল কিংবা বিকল্প কেন্দ্র করা হয়নি। আগের পরীক্ষা কেন্দ্র বহাল আছে। সার্বিক পরিস্থিতি জানিয়ে শিক্ষা বোর্ডে চিঠি দিয়েছি। বোর্ড বিবেচনা করে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেবে।


আরও খবর



চীনে সেতুতে জাহাজের ধাক্কা, ভেঙে নদীতে পড়ল গাড়ি

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

চীনের গুয়াংজুতে পণ্যবাহী জাহাজের ধাক্কায় মাঝ বরাবর ভেঙে গেছে একটি সেতু। এতে ওই মূহুর্তে সেতুর ওপর দিয়ে যেতে থাকা বাসসহ পাঁচটি যানবাহন নদীতে পড়ে তলিয়ে গেছে।

বৃহস্পতিবার (২২ ফেব্রুয়ারি) ভোরে গুয়াংজু প্রদেশের নানশা জেলায় পার্ল নদীতে এ দুর্ঘটনা ঘটেছে। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত দুর্ঘটনায় দুজন নিহত হয়েছেন বলে জানা গেছে। সঙ্গে আহত হয়েছেন জাহাজের একজন ক্রু। এছাড়া এ ঘটনায় এখনও তিনজন নিখোঁজ রয়েছেন বলে জানিয়েছে স্থানীয় কর্তৃপক্ষ। খবর সাউথ চায়না মর্নিং পোস্টের।

চীনের রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম সিসিটিভির এক ফুটেজে দেখা গেছে, সেতুর একটি অংশ ভেঙে নদীতে তলিয়ে গেছে। সেতুর নিচে আটকে আছে দুর্ঘটনা কবলিত জাহাজটি। তবে, জাহাজে কোনও মালামাল ছিলো না বলেই মনে হয়েছে। 

আরও পড়ুন>> ফিলিপাইনে ট্রাক খাদে পড়ে ১৫ জন নিহত

এ ঘটনার পরপরই সেতুর আশেপাশের বাসিন্দাদের অন্যত্র সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। আটক করা হয়েছে জাহাজের ক্যাপ্টেনকে। আশেপাশের এলাকায় পানি সরবরাহ ও ইন্টারনেটের মতো পরিষেবাও আপাতত স্থগিত করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, পার্ল নদীর মোহনায় অবস্থিত গুয়াংজু হলো চীনের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ও ব্যস্ততম বাণিজ্যিক বন্দর নগরী। আর ঘটনাস্থল নানশা জেলা দক্ষিণ চীনের অন্যতম দ্রুততম বর্ধনশীল বন্দর। ২০০৪ সালে চালু হওয়ার পর থেকে প্রতি বছরই এ বন্দরে কার্গো জাহাজ চলাচল বেড়ে চলেছে।

প্রতিবেদন অনুযায়ী, সেতুটিতে ত্রুটি দেখা দেওয়ায় বেশ কিছুদিন আগেই এটা সংস্কারের পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছিলো। কিন্তু তিনবার স্থগিত হয়ে যায় সংস্কারের উদ্যোগ। এছাড়া ২০২১ সালে নৌযানের সঙ্গে সংঘর্ষ এড়িয়ে সেতুর কাঠামোগত নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য বিশেষ পরিকল্পনাও নেওয়া হয়েছিল।


আরও খবর



বিএসএমএমইউর ইউরোলেজি বিভাগের রিসার্চ সেলের বর্ষপূতি

প্রকাশিত:রবিবার ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
প্রেস বিজ্ঞপ্তি

Image

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) ইউরোলেজি বিভাগের রিসার্চ সেলের বর্ষপূর্তি উদযাপিত হয়েছে। রবিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের সি ব্লকের ইউরোলজি বিভাগ আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মোঃ শারফুদ্দিন আহমেদ।

অধ্যাপক ডা. মোঃ শারফুদ্দিন আহমেদ বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ইউরোলোজি বিভাগ অনেকদূর এগিয়েছি। যাদের হাত ধরে বর্তমান এই ইউরোলোজি বিভাগে এগিয়েছে তাদের আমরা ভুলে যাই নি। যারা অবসরে গেছেন তাদেরও এ বিভাগে কাজের মাধ্যমে দেশের মানুষকে সেবা করার সুযোগ রয়েছে। সুপার স্পেশালাইজড হাসপাতালে তারা চাইলেই কাজ করতে  পারে।

উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মোঃ শারফুদ্দিন আহমেদ বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ইউরোলোজি বিভাগে ক্যাডাভেরিক ট্রান্সপ্লান্টের ইতিহাস করেছে। এই ট্রান্সপ্লান্ট চিকিৎসা আরো কার্যক্রম জোরদার ও সম্প্রসারিত করা হবে। এজন্য আমাদের দক্ষ জনবল তৈরি করতে হবে। দেশের শীর্ষ প্রতিষ্ঠান হিসেবে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ইউরোলেজি বিভাগের ট্রান্সপ্লান্ট ডিভিশনকেই দায়িত্ব নিতে হবে। কিডনি ছাড়াও ক্যাডাভেরিক ট্রান্সপ্লান্টের কারণে লিভার, হার্ট, প্যানক্রিয়াস, কর্ণিয়া, স্কিন প্রতিস্থাপনসহ বোনম্যারো ট্রান্সপ্লান্ট চিকিৎসা দেশ ব্যাপী সস্প্রসারিত করতে হবে।

তিনি বলেন, সারা দেশে বর্তমানে সতের হাজার রোগীর কিডনি ডায়ালাইলিস করা লাগে। এদের মধ্যে তিন হাজার রোগীর ট্রান্সপ্লান্ট প্রয়োজন হয়। কিন্তু  আমরা পারি মাত্র তিনশ রোগীর ট্রান্সপ্লান্ট করতে। এজন্য বিদেশে রোগীরা ছুটছেন। দেশের অর্থ বিদেশে চলে যাচ্ছে। আইনী জটিলতার কারণে দেশে মানবিক কারণে অঙ্গদান করা যাচ্ছে না। মানবিক কারণে অঙ্গ প্রতিস্থাপন আইন সংশোধন করতে হবে।

উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মোঃ শারফুদ্দিন আহমেদ আরো বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণা কার্যক্রম জোরদার করা হয়েছে। একই সাথে গবেষণা ও থিসিস কার্যক্রমে যাতে কোনো কেউ কোনো ধরণের অনৈতিক পথ অবলম্বন করতে না পারে তার প্রতিরোধের ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ডা. মোঃ হাবিবুর রহমান দুলাল। অনুষ্ঠানে ইউরোলোজি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. ইশতিয়াক আহমেদ শামীম, অধ্যাপক ডা. মোঃ আব্দুল সালাম, অধ্যাপক ডা. সাজিদ হাসান,  অধ্যাপক ডা. একেএম খুরশীদুল আলম, অধ্যাপক ডা. তৌহিদ মোঃ সাইফুল ইসলাম (দিপু), নেফ্রোলোজি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. মোঃ নজরুল ইসলাম, রেজিস্ট্রার অধ্যাপক ডা. মোহম্মদ হাফিজুর রহমান প্রমুখসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন স্তরের শিক্ষক, শিক্ষার্থীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ইউরোলোজি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. মোঃ ফারুক হোসেন।

নিউজ ট্যাগ: বিএসএমএমইউ

আরও খবর



কারাগারে পোস্টাল ভোট দিলেন ইমরান খান

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

পাকিস্তানে জাতীয় নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। বৃহস্পতিবার (০৮ ফেব্রুয়ারি) স্থানীয় সময় সকাল ৮টা থেকে শুরু হওয়া এই ভোটগ্রহণ চলবে একটানা বিকেল ৫টা পর্যন্ত।

এদিকে কারাগার থেকেই নিজের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন দেশটির সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। তবে ইমরান খানের স্ত্রী বুশরা বিবি ভোটে অংশ নিতে পারেননি। বৃহস্পতিবার (০৮ ফেব্রুয়ারি) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে পাকিস্তানি সংবাদমাধ্যম দ্য ডন।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান এবং অন্যান্য বিশিষ্ট রাজনৈতিক বন্দিরা আদিয়ালা জেল থেকে পোস্টাল ব্যালটের মাধ্যমে তাদের ভোট দিয়েছেন। ডাকযোগে যারা ভোট দিতে পেরেছেন তাদের মধ্যে সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশি, পাঞ্জাবের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী চৌধুরী পারভেজ এলাহি, আওয়ামী মুসলিম লীগের প্রধান শেখ রশিদ এবং সাবেক তথ্যমন্ত্রী ফাওয়াদ চৌধুরীও রয়েছেন।

তবে ইমরান খানের স্ত্রী বুশরা বিবি ভোটে অংশ নিতে পারেননি কারণ পোস্টাল ভোটিং প্রক্রিয়া শেষ হওয়ার পরে তাকে দোষী সাব্যস্ত এবং গ্রেপ্তার করা হয়।


আরও খবর



স্বামীকে আটকে স্ত্রীকে ধর্ষণ: ছাত্রলীগ নেতাসহ রিমান্ডে ৪ জন

প্রকাশিত:রবিবার ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আদালত প্রতিবেদক

Image

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) মীর মশাররফ হোসেন হলে স্বামীকে আটকে রেখে স্ত্রীকে দলবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেপ্তার ছাত্রলীগ নেতা মোস্তাফিজুরসহ চার আসামির তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

রোববার (৪ ফেব্রুয়ারি) ঢাকার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট রাবেয়া বেগমের আদালত তাদের এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

রিমান্ডে নেয়া অপর আসামিরা হলেন- সাব্বির হাসান, সাগর সিদ্দিক ও হাসানুজ্জামান।

এদিন, তাদেরকে আদালতে হাজির করে মামলার সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে ৭ দিনের রিমান্ডে নিতে আবেদন করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক মিজানুর রহমান। অপরদিকে আসামি পক্ষে রিমান্ড বাতিল ও জামিন চেয়ে শুনানি করা হয়।

শনিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে মীর মশাররফ হোসেন হলের 'এ' ব্লকের ৩১৭ নম্বর কক্ষে স্বামীকে আটকে রেখে হল সংলগ্ন পাশের জঙ্গলে নিয়ে স্ত্রীকে ধর্ষণ করা হয়।

ভুক্তভোগী নারীর স্বামী আশুলিয়া থানায় ছয়জনকে আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন। এ ঘটনায় চারজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

তারা হলেন- জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের ছাত্র ও বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের আন্তর্জাতিকবিষয়ক সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান, একই বিভাগের সাগর সিদ্দিকী ও হাসানুজ্জামান এবং উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী সাব্বির হাসান।

পলাতক আছেন ভুক্তভোগীর পূর্বপরিচিত মো. মামুনুর রশিদ এবং স্বামীকে আটকে রাখায় সহায়তা ও মারধর করা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের শিক্ষার্থী মো. মুরাদ। তাদেরকে গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।


আরও খবর
জজ কোর্ট চত্বরে ককটেল বিস্ফোরণ

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




মুক্তি পেলেন সাবেক থাই প্রধানমন্ত্রী থাকসিন সিনাওয়াত্রা

প্রকাশিত:রবিবার ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

থাইল্যান্ডের সাবেক প্রধানমন্ত্রী থাকসিন সিনাওয়াত্রা মুক্তি পেয়েছেন। আজ রোববার (১৮ ফেব্রুয়ারি) ভোরে দেশটির পুলিশ হাসপাতাল থেকে মুক্তি পেয়ে তিনি রাজধানী ব্যাংককে নিজের বাসভবনে ফিরে যান। ১৫ বছর স্বেচ্ছানির্বাসনে থেকে দেশে ফেরার ছয় মাসের মাথায় কারাগার থেকে মুক্তি পেলেন তিনি। খবর এএফপির।

থাইল্যান্ডের দুবারের নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করা এই বিতর্কিত ধনকুবের ২০০৬ সালে এক সামরিক অভ্যুত্থানের মাধ্যমে ক্ষমতাচ্যুত হয়েছিলেন। গত বছরের আগস্টে দেশে ফেরার পর ক্ষমতার অপব্যবহার ও দুর্নীতির কারণে আট বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয় তাকে। তবে দেশে ফেরার কয়েকদিনের মাথায় থাইল্যান্ডের রাজা মাহা ভাজিরালংকর্ন তার শাস্তি কমিয়ে আনেন এক বছরে। পরে গত সপ্তাহে সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয় ৭৪ বছর বয়সী থাকসিন সিনাওয়াত্রা তার স্বাস্থ্য ও বয়সের কারণে কারাদণ্ডের মেয়াদ শেষ হওয়ার আগেই মুক্তি পাবেন। 

আরও পড়ুন>> বৈশ্বিক শান্তি সম্মেলনে যোগ দিতে বাংলাদেশকে আমন্ত্রণ জানিয়ে জেলেনস্কির টুইট

আজ রোববার ভোরে পুলিশ হাসপাতাল থেকে মুক্তির পর থাকসিন তার দুই মেয়ে পায়েতংতার্ন ও পিনতংতার সঙ্গে গাড়িতে করে তার বাড়িতে ফিরে আসেন। তবে এ সময় বেশকিছু লোককে হাসপাতালের বাইরে তার মুক্তির প্রতিবাদ জানাতে দেখা যায়। তার মুক্তির বিষয়ে অবশ্য বিস্তারিত জানা যায়নি। তবে ধরে নেওয়া হচ্ছে তিনি নজরদারিতে থাকবেন এবং তার পায়ের গোড়ালিতে একটি ট্যাগ বসানো থাকবে। পাশাপাশি তার চলাফেরাতেও থাকবে বিধিনিষেধ।

গত বছর যে দিনে থাকসিন সিনাওয়াত্রা দেশে ফিরে আসেন, সেই দিনেই তার দল পিউ থাই পার্টি সেনা সমর্থিত দলের সঙ্গে জোট গঠন করে ক্ষমতায় ফিরে আসে। ওই সময় থেকেই অনেকে ধারণা করেছিলেন, তার কারাদণ্ডের মেয়াদ কমিয়ে আনতে নেপথ্যে সমঝোতা হয়েছে। এই গুজব আরও জোরালো হয়ে ওঠে যখন দেখা যায়, জেলখানা থেকে তাকে পুলিশ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

থাকসিন সিনাওয়াত্রা বুকের সমস্যা ও উচ্চ রক্তচাপের সমস্যায় ভুগছেন। আর এই সমস্যা নিয়েই তিনি হাসপাতালে গিয়েছিলেন। পরের কয়েক মাসে তার শরীরে দুটি অস্ত্রোপচার করা হয় বলে তার পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছিল।

সরকারি দলের সঙ্গে পিউ থাই পার্টির কোনো চুক্তির বিষয়কে অস্বীকার করেছেন থাই প্রধানমন্ত্রী শ্রেত্থা থাভিসিন। বরং তিনি বলেন, থাকসিন তার কারাদণ্ডের মেয়াদ পূর্ণ করেছেন। যদিও থাকসিন সিনাওয়াত্রাকে কারাগারের কক্ষে সময় কাটাতে হয়নি।


আরও খবর