আজঃ বৃহস্পতিবার ১৩ মে ২০২১
শিরোনাম

সাহরিতে যে খাবারগুলো এড়িয়ে চলা উচিত

প্রকাশিত:শুক্রবার ৩০ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ৩০ এপ্রিল ২০২১ | ১১৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

রমজান মাস চলছে। সেহরি থেকে ইফতার আর ইফতার থেকে সেহরি পর্যন্ত ইবাদতে ব্যস্ত সময় পার করেন মুসলিমরা। এবার প্রখর গরমে রোজা চলছে। বাইরে চলাফেরায় বেশ সাবধানতা অবলম্বন করতে হচ্ছে সবাইকে। এদিকে দেশে গত ২৬ এপ্রিল রাজধানী ঢাকায় গত ২৬ বছরের রেকর্ড ভেঙে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা উঠেছিল ৪০ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াসে। তীব্র এই গরমে রোজাদারদের সেহরি ও ইফতারের খাদ্য তালিকায় বেশ কিছু পরিবর্তন আনা প্রয়োজন।

রোজায় শরীর ও মন ভালো রাখার জন্যই খাদ্য তালিকায় পরিবর্তন অনেক বেশি জরুরি। এমন খাবার খাওয়া যাবে না যা শরীরের ক্ষতি করে এবং রোজা রাখতে সমস্যার কারণ হয়ে দাঁড়ায়। এবার তাহলে রোজাদারদের সেহরিতে যে খাবারগুলো এড়িয়ে চলা উচিত তা তুলে ধরা হলো-

কাঁচা শাক-সবজি : ডায়েট অবশ্যই করবেন। ডায়েটে সালাদ অন্তর্ভুক্ত করা ভালো হলেও সেহরিতে এসব না রাখা ভালো। কাঁচা শাক-সবজিতে ফাইবারের পরিমাণ অনেক বেশি থাকে। এতে হজমজনিত সমস্যা হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। এছাড়া এসব খাওয়ার ফলে গ্যাস, পেট ব্যথা কিংবা পেট ফোলাভাব সমস্যা হতে পারে।

ফাস্টফুড : অধিকাংশ ফাস্টফুড তৈরির সময় চিনি বা চিনিজাতীয় জিনিস ব্যবহার করতে হয়। এছাড়া ফাস্টফুডে ফাইবার জাতীয় খাবার খুবই কম থাকে। এসব খাবার শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ধীরে ধীরে নষ্ট করে দেয়।

কফি : অনেকের অভ্যাস সকালের নাস্তার পর এক কাপ কফি পান করা। তাই তারা সেহরিতেও কফি পান করে থাকেন। বিষয়টিকে সাধারণভাবে নিলেও এটি শরীরকে বিশেষ ক্ষতির মুখে ফেলে দিতে পারে। সেহরিতে কফি পানের পর সারাদিন রোজা থাকায় পেটে অ্যাসিডিক রস হওয়ার সম্ভাবনা থাকে যা গ্যাস্ট্রাইটিসের কারণও হতে পারে।

প্যাকেটজাত ফলমূল বা রস : সেহরিতে কখনোই প্যাকেটজাত ফলমূল কিংবা ফলের রস পান করবেন না। প্যাকেটজাত ফলে অতিরিক্ত চিনি যোগ করা হয়। যা কিনা স্বাস্থ্যের জন্য মোটেও ভালো নয়।


আরও খবর



ঝটপট ওজন কমাতে রাতের খাবারে কিছু কৌশল

প্রকাশিত:শনিবার ০১ মে ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ০১ মে ২০২১ | ৯৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সারাদিন কম খেয়ে রাতে ভারী খাবার খাওয়া অনেকেরই অভ্যাস। এই অভ্যাসের কারণে ওজনটাও বেড়ে যায় দ্রুত। তখন আবার অনেকেই রাতের খাবার একেবারেই বাদ দিয়ে ফেলেন। এই অভ্যাসটাও ক্ষতির কারণ। তাহলে কী করবেন? জেনে নিন কিছু কৌশল।

ছোট প্লেট: ছোট এবং সমতল প্লেটে রাতের খাবার খাবেন। তাহলে খুব বেশি খাবার খেয়ে ফেলার ঝুঁকি অনেকটাই কমে যাবে।

সেদ্ধ বা কম তেল: ওজন কমাতে চাইলে রাতে তেল ছাড়া সেদ্ধ খাবার খাওয়ার চেষ্টা করুন। আর যদি সেদ্ধ খাবার একেবারেই ভালো না লাগে, তাহলে খুব অল্প পরিমাণে অলিভ ওয়েল বা নারিকেল তেল দিয়ে খাবার রান্না করুন।

বিকেলের নাস্তা: বিকেল বেলা হালকা নাস্তা করুন। এতে পেট ভরা থাকবে এবং রাতে খাওয়ার সময়ে অতিরিক্ত খেয়ে ফেলার সম্ভাবনা অনেকটাই কমে যাবে।

দেরিতে না খাওয়া: রাত ৮টার মধ্যে খাবার খেয়ে নিন। দেরীতে রাতের খাবার খাওয়ার অভ্যাসের কারণে ওজন বাড়ে।

টেবিলে বসে খাওয়া: চেষ্টা করুন পরিবারের সঙ্গে খাবার টেবিলে বসে খেতে। খাওয়ার সময় মোবাইল ফোন ব্যবহার করবেন না এবং টেলিভিশন দেখবেন না। কারণ, এতে অন্যমনস্ক হয়ে বেশি ক্যালরি গ্রহণ করার সম্ভাবনা থাকে।

এক গ্লাস পানি: খেতে বসার আগে এক গ্লাস পানি খেয়ে নিন। তাহলে অতিরিক্ত খেয়ে ফেলার সম্ভাবনা কমে যাবে। 


আরও খবর



মুখে গ্রহণ করার করোনার ওষুধ আনছে ফাইজার

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৯ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৯ এপ্রিল ২০২১ | ১১৪জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

যুক্তরাষ্ট্রের ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানি ফাইজার করোনা প্রতিরোধে টিকা আনার পর এবার কাজ করছে এই রোগের চিকিৎসায় অ্যান্টি-ভাইরালওষুধ নিয়ে। মুখে গ্রহণ করার এ ওষুধটি করোনা প্রতিরোধে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে।

ওষুধটি আসতে পারে বছরের শেষদিকে।

যুক্তরাষ্ট্রের গণমাধ্যম সিএনবিসিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ফাইজারের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) আলবার্ট বোরলা এসব কথা বলেছেন।

ওষুধটির বিষয়ে আলবার্ট বোরলা বলেন, যদি ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল ঠিকমতো হয় এবং ফুড এবং ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (এফডিএ) অনুমোদন দেয় তবে বছরের শেষের দিকে যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে ওষুধটি পৌঁছে দেওয়া সম্ভব হবে।

ওষুধটি করোনার নানা ধরন প্রতিরোধে আরও কার্যকর হবে বলে আশাবাদী ফাইজারের সিইও।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ওষুধটি করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে গেম চেঞ্জার হতে পারে। আক্রান্ত হওয়ার পর প্রাথমিক পর্যায়ের রোগীদের এ ওষুধ হাসপাতালে যাওয়া থেকে বিরত রাখবে।

গবেষকরা আশা করছেন, এ ওষুধ করোনাকে বিস্তৃত হতে দেবে না। পাশাপাশি এটা রোগীকে আক্রান্ত হওয়ার পরপরই হাসপাতালমুখী হওয়া থেকেও বিরত রাখবে।

খবরে বলা হয়, ফাইজার ৬ মাস থেকে ১১ বছর বয়সীদের জন্য একটি ভ্যাকসিন তৈরির চেষ্টা চলাচ্ছে। অপরদিকে ১২ থেকে ১৫ বছর বয়সীদের জন্য তৈরি তাদের ভ্যাকসিন শতভাগ কার্যকর বলে প্রমাণ পাওয়া গেছে। এটি অনুমোদন পাওয়ার বিষয়ে ফাইজার আশাবাদী।

মার্কিন কোম্পানি ফাইজার ও জার্মান প্রতিষ্ঠান বায়োএনটেক যৌথভাবে করোনাভাইরাসের টিকা তৈরি করেছে। এর প্রয়োগ চলছে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে। ফাইজারের দাবি, তাদের উদ্ভাবিত করোনার টিকা ৯৫ শতাংশ কার্যকর।


আরও খবর



ক্যাচ মিসের মাশুল দিয়ে হতাশাময় সেশন বাংলাদেশের

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৯ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৯ এপ্রিল ২০২১ | ৯৯জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

প্রথম টেস্টের ছবিই ভেসে উঠছে ক্যান্ডিতে। পিচ বোলারদের সাহায্য করলেও উইকেটের দেখা নেই বাংলাদেশের। লাঞ্চ বিরতির পরও সাফল্য আসেনি। উইকেট অক্ষত রেখে শ্রীলঙ্কার স্কোর ১০০ ছাড়িয়ে গেছে।

নাজমুল হোসেন শান্ত ক্যাচটি তালুবন্দি করতে পারলে দৃশ্যপট অন্যরকম হতে পারতো। তার ক্যাচ মিসে দ্বিতীয় জীবন পাওয়া দিমুথ করুণারত্নে সুযোগ কাজে লাগিয়ে তুলে নিয়েছেন টেস্ট ক্যারিয়ারের ২৬তম হাফসেঞ্চুরি। ২৮ রানে জীবন পাওয়া লঙ্কান অধিনায়ক ইতিমত্যে পূরণ করেছেন টেস্টের ৫ হাজার রানের মাইলফলকও।

করুণারত্নের সঙ্গে সমানতালে লড়ে যাচ্ছেন আরেক ওপেনার লাহিরু থিরিমানে। বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান বোলারদের কোনও সুযোগই দিচ্ছেন না। চমৎকার ব্যাটিংয়ে তিনিও পেয়েছেন হাফসেঞ্চুরি। ১০২ বলে পূরণ করেছেন লাল বলের ক্রিকেটের ১১তম ফিফটি। তাদের দৃঢ়তায় কঠিন সময় যাচ্ছে তাসকিন আহমেদ-আবু জায়েদ রাহীদের। অথচ শান্ত ক্যাচটি নিতে পারলে উইকেট উদযাপন করতে পারতেন তাসকিন।

ক্যান্ডির দ্বিতীয় টেস্টেও তাই লঙ্কান ব্যাটসম্যানদের দাপট। ৩৭ ওভারে কোনও উইকেট না হারিয়ে স্বাগতিকদের সংগ্রহ ছিল ১১৪।

এই ক্যাচ ফেলে দিলেন শান্ত!

সুযোগ খুব বেশি দিচ্ছেন না শ্রীলঙ্কার ব্যাটসম্যানরা। অনেক চেষ্টার পর এলো প্রথম দিনের সবচেয়ে সহজ সুযোগ। কিন্তু হেলার নষ্ট করলেন নাজমুল হোসেন শান্ত। স্লিপে দাঁড়িয়ে বল হাতে নিলেন কিন্তু তালুবন্দি করতে পারলেন না। বোলার তাসকিন আহমেদের সঙ্গে আক্ষেপে পুড়লো বাংলাদেশের ক্রিকেটপ্রেমীরা।

দ্বিতীয় টেস্টেও দুর্দান্ত সব ডেলিভারি দিচ্ছেন তাসকিন। বেশ কয়েকবার কঠিন পরীক্ষা নিয়েছেন শ্রীলঙ্কান ওপেনারদের। চমৎকার বোলিংয়ের পুরস্কারও পেতে যাচ্ছিলেন তিনি। কিন্তু সতীর্থ ফিল্ডার শান্ত সুবর্ণ ‍সুযোগ নষ্ট করলে উইকেট বঞ্চিত তাসকিন। ডানহাতি পেসারের দুর্দান্ত ডেলিভারি দিমুথ করুণারত্নের ব্যাটের কানায় লেগে গেলে স্লিপে দাঁড়ানো শান্ত হাতে নিয়েও বল রাখতে পারেননি। ফলে করুণারত্নে পেলেন দ্বিতীয় জীবন

এক বল পরই দলীয় ৫০ রান ছাড়ায় শ্রীলঙ্কা। ফলে কোনও উইকেট না হারিয়েই ফিফটি পেয়েছে স্বাগতিকরা। আর প্রথম সেশনে বাংলাদেশকে থাকতে হয় উইকেটশূন্য। লাঞ্চ বিরতিতে যাওয়ার সময় শ্রীলঙ্কার স্কোর ছিল ২৭ ওভারে ৬৬ রান।

রিভিউ নষ্ট করলো বাংলাদেশ

রিভিউয়ের সঠিক ব্যবহারে এখনও পারদর্শী হয়ে উঠতে পারেনি বাংলাদেশ। ক্যান্ডি টেস্টের প্রথম দিনের খেলায় যেমন নষ্ট করলো একটি রিভিউ। আবু জায়েদ রাহীর বল দিমুথ করুণারত্নের ব্যাটের বেশ খানিকটা বাইরে দিয়ে যাওয়ার পরও রিভিউ নিয়েছিলেন অধিনায়ক মুমিনুল হক।

১২তম ওভারের চতুর্থ বলটি করেছিলেন রাহী। অফ স্টাম্পের বাইরে পিচ করা বল হয়তো পয়েন্ট দিয়ে মারতে চেয়েছিলেন বাঁহাতি করুণারত্নে। কিন্তু বাড়তি বাউন্স পাওয়ায় চাহিদা অনুযায়ী খেলতে পারেননি। বল সরাসরি জমা পড়ে উইকেটকিপার লিটন দাসের গ্লাভসে। বোলার রাহী আবেদন করতেই থাকলেন, তাতেও আম্পায়ারের সাড়া মেলেনি। এই অবস্থায় বেশ খানিকটা সময় নিয়ে অতঃপর রিভিউ নিলেন মুমিনুল।

কিন্তু রিপ্লেতে দেখা যায়, ব্যাট-বলে কোনও সংযোগ হয়নি। ফলে রিভিউ হারায় বাংলাদেশ।

বাংলাদেশের বোলারদের সামনে অবশ্য সুবিধা করতে পারছেন না শ্রীলঙ্কার দুই ওপেনার করুণারত্নে ও লাহিরু থিরিমানে। শুরু থেকেই তারা সতর্ক। বেশ কয়েকবার পরীক্ষাও দিতে হয়েছে তাদের। যদিও ঠাণ্ডা মাথার ব্যাটিংয়ে উইকেট অক্ষত রেখেছেন দুই ওপেনার। প্রথম ঘণ্টায় কোনও উইকেট না হারিয়ে স্বাগতিকদের স্কোর ছিল ১৪ ওভারে ২২।


আরও খবর



হেফাজতের শীর্ষ নেতাদের আইনের আওতায় আনার ইঙ্গিত

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২০ এপ্রিল ২০21 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২০ এপ্রিল ২০21 | ১৩৯জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
২০১৬ সালের পাঁচটি মামলা ও সাম্প্রতিক সময়ের ১৮টি মামলাসহ মোট ২৩টি মামলার তদন্ত করবে সিআইডি। আমরা আশা করছি, খুব দ্রুততম সময়ের মধ্যেই তদন্ত শেষ করব এবং যারা এখনো আইনের

হেফাজত নেতাদের বিরুদ্ধে ২৩ মামলার তদন্তের কথা জানিয়েছেন সিআইডি প্রধান ব্যারিস্টার মাহবুবুর রহমান। এছাড়া হেফাজতের শীর্ষ নেতাদের আইনের আওতায় আনার ইঙ্গিত দিয়েছেন তিনি। মঙ্গলবার (২০ এপ্রিল) সিআইডির মালিবাগ কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি একথা জানান।

মামুনুল হক বিষয়ে ব্যারিস্টার মাহবুবুর রহমান জানান, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আগমনকে কেন্দ্র করে নারায়ণগঞ্জে নাশকতার ঘটনার মামলায় মামুনুল হককে গ্রেফতার দেখিয়ে রিমান্ডে নেওয়া হতে পারে। এসময় সিআইডি প্রধান হেফাজতের শীর্ষ নেতাদেরও আইনের আওতায় আনার ইঙ্গিত দেন।

এর আগে সিআইডি প্রধান জানিয়েছেন, ২০১৬ সালের পাঁচটি মামলা ও সাম্প্রতিক সময়ের ১৮টি মামলাসহ মোট ২৩টি মামলার তদন্ত করবে সিআইডি। আমরা আশা করছি, খুব দ্রুততম সময়ের মধ্যেই তদন্ত শেষ করব এবং যারা এখনো আইনের আওতায় আসেনি তাদের আইনের আওতায় আনার চেষ্টা করব।

হামলা, ভাঙচুর ও সহিংসতার ঘটনায় যারা উপস্থিত ছিল, মদত দিয়েছে, উসকানি দিয়েছে, জ্বালাও-পোড়াও করেছে তাদের ফুটেজ ফরেনসিক করা হবে। ফরেনসিক করে যাদের পাওয়া যাবে তাদের সবাইকেই আমরা আইনের আওতায় আনব। এরই মধ্যে যেসব হেফাজত নেতা পুলিশের কাছে গ্রেফতার হয়েছেন প্রয়োজনে তাদেরও সিআইডি জিজ্ঞাসাবাদ করবে বলে জানান ব্যারিস্টার মাহবুবুর রহমান।


আরও খবর



ভারতে করোনার সংক্রমণ বৃদ্ধিতে ‘ডাবল মিউট্যান্ট’ দায়ী, আশঙ্কা কর্মকর্তাদের

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৬ মে ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ মে ২০২১ | ৭২জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ভারতে নভেল করোনাভাইরাসের ভয়াল দ্বিতীয় ঢেউ বা তীব্র সংক্রমণের পেছনে ভাইরাসটির ডাবল মিউট্যান্ট ভ্যারিয়ান্ট দায়ী হতে পারে বলে জানিয়েছেন দেশটির কর্মকর্তারা। সংবাদমাধ্যম বিবিসি এ খবর জানিয়েছে।

ভারতে করোনায় আক্রান্তের উচ্চ হার রয়েছে এমন বেশ কয়েকটি রাজ্যে ভাইরাসের নমুনা পরীক্ষায় করোনার মিউট্যান্ট বা বি.১.৬১৭ ভ্যারিয়ান্টের অস্তিত্ব পাওয়া গেছে। ভারতের জাতীয় রোগ সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণ কেন্দ্রের একজন কর্মকর্তা বলেন, ভাইরাসের এই ধরনটি তাঁরা গত মার্চে শনাক্ত করেছিলেন। ডাবল মিউট্যান্ট বলতে বুঝায়, যখন ভাইরাসটির মিউটেশন একসঙ্গে দুবার ঘটে। তবে কেবল এ ধরনটিই সংক্রমণের তীব্রতার জন্য দায়ী কি না, সে বিষয়ে নিশ্চয়তা দিতে পারেননি ওই কর্মকর্তা।

ভারতে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়েছে চার লাখ ১২ হাজারের বেশি মানুষ। আর, এ সময়ে মারা গেছে তিন হাজার ৯৮০ জন। এদিকে, ভারতে করোনার তৃতীয় ঢেউ শিগগিরই শুরু হতে পারে বলে সরকারের বিজ্ঞান বিষয়ক একজন উপদেষ্টা হুঁশিয়ার করেছেন। ভারত সরকারের বিজ্ঞানবিষয়ক উপদেষ্টা কে বিজয়রাঘবন দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের এক ব্রিফিংয়ে স্বীকার করেন যে, ভারতে করোনার সংক্রমণ বৃদ্ধির ভয়াবহতার বিষয়ে বিশেষজ্ঞেরা আঁচ করতে পারেননি। কে বিজয়রাঘবন বলেন, ভাইরাস যেভাবে উচ্চ হারে ছড়াচ্ছে, তাতে তৃতীয় পর্যায়ের (তৃতীয় ঢেউ) সংক্রমণ অনিবার্য।

তবে, এই তৃতীয় পর্যায় কখন আসবে, তা স্পষ্ট নয়... আমাদের (সংক্রমণের) নতুন ঢেউয়ের জন্য প্রস্তুত থাকা উচিত, যোগ করেন কে বিজয়রাঘবন। এদিকে, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, গত সপ্তাহে সারা বিশ্বে যত মানুষ নতুন করে নভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে, তার প্রায় অর্ধেকই হয়েছে ভারত। কেবল তাই নয়, গত সপ্তাহে বিশ্বে করোনায় মোট মৃত্যুর চার ভাগের এক ভাগ ছিল ভারতে।



আরও খবর