আজঃ বৃহস্পতিবার ১৩ মে ২০২১
শিরোনাম

সন্ত্রাসী হামলায় পিরোজপুরে জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহসভাপতি আহত

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৪ মে ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৪ মে ২০২১ | ১৪০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
হামলার সাথে জড়ির কাউন্সিলর মো. আবু শিকদারের বাড়ি ও হামলায় আহত সোহাগ শিকাদরের বাড়ি একই এলাকার পাশাপাশি। এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে এদের উভয়ের মধ্যে দ্বন্দ্ব রয়েছে

পিরোজপুরে সন্ত্রাসী হামলায় জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহসভাপতি মো. সোহাগ শিকদার (৩০) সহ ৩ ছাত্রলীগ নেতা গুরুতর আহত হয়েছেন। এ সময় তাদের বহরে থাকা ৪টি মোটর সাইকল ভাংচুর করা হয়। ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার সন্ধ্যায় পৌর সভার ২নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আবু শিকদারের বাড়ির সামনের রাস্তায়। আহতরা জেলা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

আহতরা হলেন জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহসভাপতি ও পৌরসভার ২নং ওয়ার্ডের কুমারখালী এলাকার শাহে আলম শিকদারের ছেলে সোহাগ শিকদার, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য ও পৌরসভার পালপাড়া এলাকার সেলিম কাজীর ছেলে কাইয়ুম কাজী (২২) ও শহরের সাপলাই মোড় এলাকার তপন চন্দ্র শীলের ছেলে ছাত্রলীগ কর্মী কৃষ্ণ শীল (২৫)।

সদর থানার ওসি মো. নুরুল ইসলাম বাদল ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, এ ঘটনা শুনে সেখানে পুলিশ পাঠানো হয়েছিলো। হামলাকারীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

আহত জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহসভাপতি সোহাগ শিকদার জানান, তিনি সহ ছাত্র ও যুবলীগের কয়েক জন কর্মী ওই দিন সন্ধ্যার আগে বাজার থেকে ইফতার কিনে মোটর সাইকেলে করে বাড়িতে যাচ্ছিলেন। এ সময় ওই ওয়ার্ড কাউন্সিলরের বাড়ির সামনে বসে কাউন্সিলর আবু শিকদার ও ছেলে এম শিকদার, স্থাণীয় ক্যাডার আরমান, ওসমান সহ ৮-১০ জনে পূর্ব পরিকল্পিভাবে তাদের উপর হামলা করে। এ সময় তাদের বহন করা ৪টি মোটর সাইকেল ভাংচুর করে হামলাকারীরা।

জানা গেছে, হামলার সাথে জড়ির কাউন্সিলর মো. আবু শিকদারের বাড়ি ও হামলায় আহত সোহাগ শিকাদরের বাড়ি একই এলাকার পাশাপাশি। এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে এদের উভয়ের মধ্যে দ্বন্দ্ব রয়েছে। কাউন্সিলর আবু শিকদার ওই ওয়ার্ড বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ছিলেন।

অভিযোগ রয়েছে, হামলার সাথে জড়িত সোহাগ কয়েকদিন আগে একই এলাকায় দায়িত্বে থাকা ৩ পুলিশের এসআইসহ ৭ পুলিশ সদস্যকে পিটিয়ে আহত করে। ওই মামলায় তারা প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে।

এ ব্যাপারে জানতে কাউন্সিলর মো. আবু শিকদারের সাথে মুঠো ফোনে কথা হলে তিনি জানান, আমি মসজিদে ইফতারি করতে যাওয়ার কালে সোহাগ শিকদার ৪টি মোটরসাইকলে করে এলাকায় ঢুকে আমার বাড়ির সামনে গিয়ে আমার জামাতা ও আমাকে গালাগালি করে। এর প্রতিবাদ করলে তার লোকজন আমার সাথে রূঢ় আচরণ করে। এ নিয়ে এলাকাবাসী প্রতিবাদ করে তাদের আটকে রাখে। কোন মার-ধরের ঘটনা ঘটে নি।

নিউজ ট্যাগ: পিরোজপুর

আরও খবর



নিজ কর্মস্থলের বাইরে না যাওয়ার বিষয়ে কঠোর নির্দেশনা

প্রকাশিত:বুধবার ০৫ মে ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ০৫ মে ২০২১ | ৫০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

করোনা সংক্রমণের দিক থেকে বাংলাদেশ যথেষ্ট ঝুঁকির মধ্যে আছে। একারণে আগামী দিনগুলোতে স্বাস্থ্যবিধি মানার ক্ষেত্রে সতর্ক থাকার অবস্থান নিয়েছে সরকার। এ কারণে লকডাউন তুলে না নিয়ে তা বাড়ানোর আদেশ জারি করা হয়েছে। চলমান লকডাউন বা আরোপিত বিধিনিষেধ আগামী ১৬ মে রবিবার মধ্যরাত পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে।

তবে এই সময়ে চলমান লকডাউনের কৌশল পরিবর্তন করেছে সরকার। তিন দিনের ঈদের ছুটির দুই দিন শুক্রবার ও শনিবার পড়লেও বাড়ানো হয়নি এ ছুটি। শুধু তাই নয়, সরকারি-বেসরকারি কলকারখানা কোনও প্রতিষ্ঠানও সরকার নির্ধারিত তিন দিনের ছুটি বাড়িয়ে ভোগ করতে পারবে না।

এখানেই শেষ নয়, ঈদের ছুটি তিন দিন নিজ নিজ কর্মস্থলের বাইরে না যাওয়ার বিষয়ে কঠোর নির্দেশনা দিয়েছে সরকার। বলা হয়েছে, সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ঈদের ছুটিকালীন তিনদিন স্ব স্ব কর্মস্থলে থাকা আবশ্যিক। করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যে সরকারি, আধা-সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত, বেসরকারি অফিস এবং ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ঈদের ছুটিতে বাধ্যতামূলকভাবে কর্মস্থলে থাকতে হবে।

পাশাপাশি বিক্ষোভ, দাবি-দাওয়া নিয়ন্ত্রণে গণপরিবহন চলাচলের অনুমতি দিয়েছে সরকার। তবে আন্তঃজেলা বাস সার্ভিস বন্ধ রাখা হয়েছে। বলা হয়েছে, এক জেলার গাড়ি অন্য জেলায় যেতে পারবে না। আর সীমানা জটিলতায় ট্রেন ও লঞ্চ চলাচল পুরোপুরি বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

সরকারি প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, মাস্ক না পড়লে কঠোর ব্যবস্থা নিতে পারবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। প্রয়োজনে মোবাইল কোর্টে সাজাও দেওয়া যাবে। মার্কেট বা শপিংমল স্বাস্থ্যবিধি সংক্রান্ত আদেশ না মানলে তাৎক্ষণিক বন্ধ করে দেওয়া হবে। কোনও ছাড় নয়। এসব কঠোর বিধিনিষেধ আগের আদেশে ছিল না।

নিউজ ট্যাগ: করোনাভাইরাস

আরও খবর



নন্দীগ্রামে মমতা নন শুভেন্দুই জয়ী : নির্বাচন কমিশন

প্রকাশিত:সোমবার ০৩ মে ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ০৩ মে ২০২১ | ১০৬জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

সেই বিকেল থেকে অনেক দ্বিধা-দ্বন্দ্বের পর শেষ পর্যন্ত নন্দীগ্রাম আসনে শুভেন্দু অধিকারীকেই জয়ী ঘোষণা করেছে পশ্চিমবঙ্গের নির্বাচন কমিশন। তবে কেউ ভোট পুনর্গনার আবেদন করলে সেটা করা হবে বলে জানিয়েছে সংস্থাটি।

এর আগে রবিবার (২ মে) বিকেলে প্রথমে বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নন্দীগ্রাম আসনে জিতেছেন বলে খবর মেলে। ঘণ্টাখানেকের মধ্যে আবার ফল পরিবর্তন হয়ে শুভেন্দুর দিকে ঝোঁকে। এরপর ফলই স্থগিত ঘোষণা করে কমিশন।

পরে স্থানীয় সময় রাত ৮টার দিকে কমিশন আবার জানায় শুভেন্দু অধিকারী ১ লাখ ৯ হাজার ৬৭৩ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন। মমতা পেয়েছেন ১ লাখ ৭ হাজার ৯৩৭ ভোট।

ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমগুলোতে শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত তৃণমূল কংগ্রেস ২১৫ এবং ৭৫ আসনে বিজেপি জয়ী বা এগিয়ে রয়েছে।


আরও খবর



বিপদের সময় ভারতের পাশে দাঁড়ালো সৌদি আরব

প্রকাশিত:সোমবার ২৬ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ এপ্রিল ২০২১ | ৮১জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

মহামারি করোনাভাইরাসে নাকাল ভারত। বিশ্বের সব রেকর্ড ভেঙে প্রতিদিন লাখ লাখ মানুষ সেখানে আক্রান্ত হচ্ছে। আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ায় তৈরি হয়েছে তীব্র অক্সিজেন সংকট। অক্সিজেনের জন্য দেশজুড়ে হাহাকার শুরু হয়েছে।

এমন সময় ৮০ মেট্রিক টন তরল অক্সিজেন নিয়ে ভারতের পাশে দাঁড়িয়েছে সৌদি আরব। খবর দ্য হিন্দু ও ইন্ডিয়া টিভির।

ভারতের অক্সিজেন সংকট কমাতে এই অক্সিজেন দ্রুতই পাঠাবে সৌদি আরব। আদানি গ্রুপ ও লিন্ডে কোম্পানির মাধ্যমে এই অক্সিজেন ভারতে আসবে। এমনটাই জানিয়েছে সৌদি আরবে অবস্থিত ভারতীয় দূতাবাস।

রবিবার (২৫ এপ্রিল) ভারতে একদিনে রেকর্ড ৩ লাখ ৪৯ হাজার ৬৯১ জন নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছে। তাতে দেশটির মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১ কোটি ৬৯ লাখ ৬০ হাজার ১৭২।

এদিন সেখানে মারা গেছে ২ হাজার ৭৬৭ জন। তাতে মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১ লাখ ৯২ হাজার ৩১১ জন।


আরও খবর



ঈদের পর ১ সপ্তাহ লকডাউন বাড়ানোর পরিকল্পনা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১১ মে ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১১ মে ২০২১ | ১০২জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

দেশে করোনা ভাইরাসের ভারতীয় ভ্যারিয়েন্টের কারণে চলমান লকডাউন আরও এক সপ্তাহ বাড়ানোর পরিকল্পনা রয়েছে বলে জানিয়েছেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন। জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী আজ বলেন, আমাদের পরিকল্পনা আছে আর এক সপ্তাহ লকডাউন বাড়ানোর।

কারণ দেশে ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট পাওয়া গেছে। এটা ঝুঁকির মধ্যে ফেলতে পারে। সংক্রমণ এড়াতে এই সিদ্ধান্ত আগামী ১৬ মে জানানো হবে বলেও জানিয়েছেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী।

তিনি বলেন, আমাদের সবাইকে মাস্ক পরতে হবে। মাস্ক পরলেই নিরাপদ, আর না পরলে বিপদ- এই কথাটি মাথায় রাখতে হবে। চলতি বছর করোনা সংক্রমণ বাড়ায় গত ৫ এপ্রিল থেকে লকডাউন ঘোষণা করা হয়। ১৩ এপ্রিল পর্যন্ত ঢিলেঢালা লকডাউন পালন হলেও সংক্রমণ আরও বেড়ে যাওয়ায় ১৪ এপ্রিল থেকে কঠোর লকডাউন ঘোষণা করে সরকার। আর এবারের ঈদে লঞ্চ-ট্রেন এবং দূরপাল্লার বাস বন্ধ রাখা হয়েছে।  


আরও খবর



পরিবারসহ কাদের মির্জাকে হত্যার হুমকি

প্রকাশিত:রবিবার ১৮ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১৮ এপ্রিল ২০২১ | ১০৭জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
কোম্পানীগঞ্জে যে ঘটনা ঘটেছে আমি শেষবারের মতো বলছি, ঢাকা থেকে বিচার বিভাগীয় তদন্ত দেন। নোয়াখালী থেকে হলে একরাম-নিজামের কাছে বিক্রি হবে। ঢাকা থেকে ডিজিএফআই-এনএসআই এর চৌকস কর্মকর্তা

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ছোট ভাই বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা ও তার ছেলেসহ পরিবারকে মুঠোফোনে হত্যার হুমকি দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। গতকাল শনিবার রাত ৮টা ৫ মিনিটে মেয়রকে ফোন করে হত্যার হুমকি দেয় দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় তিনি বাদী হয়ে কোম্পানীগঞ্জ থানায় শনিবার রাত সাড়ে ১১টায় একটি সাধারণ ডায়রি (জিডি) করেছেন। জিডি নং-৮১১, তারিখ- ১৭/০৪/২০২১।

জিডিতে মেয়র আবদুল কাদের মির্জা উল্লেখ করেন, শনিবার সন্ধ্যা ৮টা ৫মিনিটে +৯৯১৬০০১৬১৬০ নাম্বার থেকে আমার ব্যবহৃত মোবাইল নম্বরে ফোন করে আমি ও আমার একমাত্র সন্তান মির্জা মাসরুর কাদের তাশিকসহ স্বপরিবারকে হত্যার হুমকি দিয়েছে। বহিরাগত ও স্থানীয় কতিপয় অজ্ঞাতনামা সন্ত্রাসীর যোগসাজসে পরিকল্পিত ভাবে আমাদের প্রাণ নাশের হুমকি দিয়েছে। এ অবস্থায় বর্ণিত মোবাইলের কললিস্ট সংগ্রহক্রমে আইনানুগ ব্যাবস্থা গ্রহণ করা আবশ্যক।

কোম্পানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর জাহিদুল হক রনি জিডির বিষয় নিশ্চিত করে বলেন, ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি অবহিত করেছি। এ বিষয়ে তদন্ত সাপেক্ষে আইননুসারে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এর আগে নিজেই সপরিবারে বিষপানে আত্মহত্যার হুমকি দেন নোয়াখালীর বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা। গত শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টায় ফেসবুক লাইভে এসে এ হুমকি দেন তিনি। এ সময় ৫০ মিনিট বক্তব্য দেন মেয়র কাদের মির্জা।

আবদুল কাদের মির্জা বলেন, কোম্পানীগঞ্জে যে ঘটনা ঘটেছে আমি শেষবারের মতো বলছি, ঢাকা থেকে বিচার বিভাগীয় তদন্ত দেন। নোয়াখালী থেকে হলে একরাম-নিজামের কাছে বিক্রি হবে। ঢাকা থেকে ডিজিএফআই-এনএসআই এর চৌকস কর্মকর্তা আছেন, তাদের দিয়ে তদন্ত দেন। সেই তদন্তে যদি আমার ভাই শাহাদাৎ, ছেলে তাশিক ও আমিসহ অনুসারীরা অন্যায়কারী প্রমাণিত হয় তাহলে আমরা কাঠগড়ায় দাঁড়াতে বাধ্য। কারণ আমরা আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। কিন্তু এই অত্যাচার আর সইবো না, হয়তোবা পুরো পরিবারকে বিষ খেয়ে জীবন দিতে হবে। এটা ছাড়া বিকল্প পথ নাই। আগে বলেছি আল্লাহর দিকে তাকানো ছাড়া উপায় নাই, এখন বলছি বিষ খেয়ে জীবন দেওয়া ছাড়া উপায় নাই। বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালের সামনে বিষ খেয়ে বুকের ওপর লিখে রাখব সে কথা; তা এখন বলব না। আমি রমজান মাসে লাইভ থেকে বিরত থাকার অঙ্গীকার করেছিলাম কিন্তু বারবার আমার ওপর হামলা হলেও আমি কোনো প্রতিকার পাইনি। আমার পরিবারের ওপর অত্যাচারের কোনো প্রতিকার পাইনি।

ওবায়দুল কাদেরের স্ত্রী ইসরাতুন্নেছা কাদেরকে উদ্দেশ করে কাদের মির্জা বলেন, আপনার (ওবাদুল কাদের) স্ত্রী ২০ লাখ টাকা দামের শাড়ি পরে, আর আমার গরিব মানুষ ২০০ টাকার জন্য ছেড়া কাপড় পরে রাস্তায় রাস্তায় ঘুরে বেড়ায়। এটা কি চলতে দেওয়া যায়, এ জন্য কি বঙ্গবন্ধু দেশ স্বাধীন করেছে?


আরও খবর