আজঃ বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১
শিরোনাম

যে অভ্যাস গুলো ডেকে আনতে পারে অন্ধত্ব

প্রকাশিত:বুধবার ০৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ০৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৪৩০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বর্তমানে ডিজিটাল ডিভাইসের ব্যবহার অনেক বেড়ে গেছে। এর ক্ষতিকারক প্রভাব পড়ছে আমাদের জীবনে। মোবাইল কম্পিউটারে বেশি সময় দেওয়ার কারণে সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হচ্ছে আমাদের চোখের।

এ ছাড়া আমরা এমন কিছু বিষয়ে অভ্যস্ত হয়ে উঠছি, যার পরিণতি ডেকে আনতে পারে অন্ধত্ব। 

১. অতিরিক্ত রোদে থাকা

অতিরিক্ত পরিমাণে রোদে থাকলে আমাদের চোখের অনেক ক্ষতি করে। চক্ষুবিশেষজ্ঞ ও ফ্লোরিডার এলমকুইস্ট আই গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা ট্রেভর এলমকুইস্ট বলেন, বছরের যে কোনো সময়েই সূর্যের অতিরিক্ত এক্সপোজার আমাদের চোখের স্বাস্থ্যের জন্য অনেক ক্ষতিকারক।

২. ডিজিটাল ডিভাইস ব্যবহার

চক্ষুবিশেষজ্ঞরা বলছেন, ডিজিটাল ডিভাইস ব্যবহারের সময় চোখের চাপ কমানোর জন্য প্রতি ২০ মিনিটে একবার বিরতি দিতে হবে। ২০ মিনিট স্ক্রিনে তাকানোর পর ২০ মিনিটের জন্য বিরতি নিতে হবে এবং ২০ ফুট দূরের বস্তুতে ফোকাস করে তাকাতে হবে। আর এটি না করলে একসময় চোখের মারাত্মক ক্ষতি হতে পারে।

৩. ঘন ঘন চোখ ঘষা

ঘন ঘন চোখ ঘষলে চোখের অনেক ক্ষতি হয়। ইউনিভার্সিটি অব ঠলেডো মেডিকেল সেন্টারের অর্থোপেডিক সার্জন এমডি অ্যান্থনি কৌরি বলেন, চোখ খুব ঘন ঘন ঘষলে চোখের নিচে থাকা ছোট রক্তনালির মাইক্রোভাসকুলারের ক্ষতি হতে পারে।

৪. অপর্যাপ্ত ঘুম

অপর্যাপ্ত ঘুমের ফলে চোখের মারাত্মক ক্ষতি হয়। কৌরি বলেন, রাতে পর্যাপ্ত পরিমাণে না ঘুমালে সেটি বার্ধক্য প্রক্রিয়াকে ত্বরান্বিত করতে পারে। এ ছাড়া এটির ফলে চোখের ডার্ক সার্কেল, চোখের ঝাঁকুনি এবং অস্পষ্ট দৃষ্টিশক্তির মতো সমস্যা দেখা দিতে পারে।

৫. ভুল কন্টাক্ট লেন্স ব্যবহার

আমরা অনেকেই কন্টাক্ট লেন্স ব্যবহার করে থাকি। কিন্তু এটির ভুল ব্যবহারের ফলে চোখ অন্ধ হয়ে যাওয়ার মতো দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। এ ছাড়া কন্টাক্ট লেন্স পরে থাকলে তা ব্যক্টেরিয়ার সংক্রমণ, প্রদাহের ঝুঁকি এবং চোখ শুকিয়ে গিয়ে চোখের অক্সিজেন কমে চোখ জ্বালা করার মতো সমস্যা দেখা দিতে পারে।


আরও খবর
আজ আপনার জন্মদিন হলে

রবিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১

আজ প্রথম প্রেম দিবস

শনিবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১




গ্যারেজ থেকে অটোরিক্সা আনতে গিয়ে প্রাণ গেল ২ জনের

প্রকাশিত:সোমবার ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৪২০জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
মো. আব্দুর রাজ্জাক জানান, নিহত দুই অটোরিক্সা চালক স্থানীয় একটি রিক্সা গ্যারেজে রবিবার (১২ সেপ্টেম্বর) রাতে তাদের রিক্সা চার্জে দেয়

হবিগঞ্জ জেলার মাধবপুর উপজেলার আন্দিউড়া ইউনিয়নে অটোরিক্সা চার্জ দিতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে ২ যুবকের মৃত্যু হয়েছে। নিহতরা হলেন, উপজেলার আন্দিউড়া ইউনিয়নের বাড়াচান্দুরা গ্রামের সুজন মিয়া (২৭), বুল্লা ইউনিয়নের চানখাবু্ল্লা গ্রামের শাহেদ মিয়া (৩৫)।

সোমবার (১৩ সেপ্টেম্বর) সকালে এ ঘটনা ঘটে।

মাধবপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আব্দুর রাজ্জাক জানান, নিহত দুই অটোরিক্সা চালক স্থানীয় একটি রিক্সা গ্যারেজে রবিবার (১২ সেপ্টেম্বর) রাতে তাদের রিক্সা চার্জে দেয়। পরে সোমবার (১৩ সেপ্টেম্বর) সকালে অটোরিক্সা আনার জন্য গেলে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে হয়ে ওই দুজন ঘটনাস্থলেই মারা যান।

তিনি আরও জানান, এ খবর পেয়ে মাধবপুর থানা পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠায়।

নিউজ ট্যাগ: হবিগঞ্জ

আরও খবর



মেসিকে পেছনে ফেললেন সিআর সেভেন

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ১৮৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ফুটবলে অলিখিতভাবে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী দুই তারকা লিওনেল মেসি ও ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো। ব্যালন ডি'অরসহ নানা পুরস্কারের ছোঁয়ায় দারুণ প্রতিদ্বন্দ্বিতা দেখা যায় এ দুজনের মাঝে।

দুই তারকার ভক্ত-অনুরাগীরাও প্রতিদ্বন্দ্বিতায় মাতেন সব সময়। মেসি না রোনাল্ডো - যুগের সেরা কে? - এ নিয়ে চলে বাকবিতণ্ডা। পরিসংখ্যানের পশরা মিলিয়ে বসেন তারা।

সেই আলোচনায় অবশ্য এবার এগিয়ে আছেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো। এক যুগ পর ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে ফিরে সমহিমায় উজ্জ্বল তিনি।

প্রথম তিন ম্যাচে চার গোল করেছেন সিআর সেভেন। অন্যদিকে বার্সেলোনা ছেড়ে পিএসজিতে যোগ দিয়ে নিজেকে এখনো মেলে ধরতে পারছেন না মেসি। দলটির জার্সিতে তিন ম্যাচ খেলে এখনও গোলশূন্য তিনি।

মাঠের পারফরম্যান্স নয়, এবার আয়-রোজগারেও মেসিকে পেছনে ফেললেন পর্তুগিজ তারকা। এ বছর মোট আয়ে মেসিকে ছাড়িয়ে শীর্ষে উঠে এসেছেন রোনাল্ডো।

যুক্তরাষ্ট্রের অর্থনীতিবিষয়ক সাময়িকী ফোর্বস এমনটাই বলছে।

২০২১-২২ মৌসুমে সবচেয়ে বেশি আয় করা ফুটবলারদের তালিকা প্রকাশ করেছে ফোর্বস। তালিকায় মেসিকে হারিয়ে দিয়েছেন রোনাল্ডো। আর দ্বিতীয় স্থানে নেমে গেছেন মেসি।

যদিও এ মুহূর্তে ফুটবলবিশ্বে সর্বোচ্চ বেতন পান মেসি। তার থেকে অনেক কম পাচ্ছেন ম্যানইউ তারকা। তবে মোট আয়ে মেসিকে ছাড়ালেন রোনাল্ডো।

ফোর্বস বলছে, ২০২১-২২ মৌসুমে কর পরিশোধের আগে রোনাল্ডো আয় করতে যাচ্ছেন ১২৫ মিলিয়ন ডলার। বাংলাদেশি মুদ্রায় ১০৬৮ কোটি ৫০ লাখ টাকা! সেখানে মেসির আয় হবে ১১০ মিলিয়ন ডলার (৯৪০ কোটি ২৮ লাখ টাকা)।

এ মৌসুমে রোনাল্ডোর মোট আয়ের মধ্যে ৭০ মিলিয়ন ডলার আসছে বেতন-ভাতা ও সাইনিং বোনাস থেকে। বাকি ৫৫ মিলিয়ন ডলারের উৎস বিভিন্ন স্পন্সরশিপ চুক্তি। এই স্পন্সরশিপ চুক্তির দিক দিয়েই মেসি থেকে অনেক এগিয়ে রোনাল্ডো।

এই খাতে অবশ্য রোনাল্ডোর চেয়ে অনেক এগিয়ে আছেন আর তিন খেলোয়াড়। তারা অবশ্য ফুটবলের নয়। এই খানে সবচেয়ে বেশি আয় করেন সুইস টেনিস তারকা রজার ফেদেরার (৯০ মিলিয়ন ডলার), মার্কিন বাস্কেট বল তারকা লেব্রন জেমস (৬৫ মিলিয়ন ডলার) ও মার্কিন গলফার টাইগার উডস (৬০ মিলিয়ন ডলার)।

মোট আয়ের তালিকায় তৃতীয় অবস্থানে আছেন ফুটবলবিশ্বের অপর সেরা তারকা নেইমার। ব্রাজিলিয়ান সুপারস্টার পাচ্ছেন ৯৫ মিলিয়ন ডলার। আর ৪৩ মিলিয়ন ডলার নিয়ে ৪র্থ স্থানে তারই পিএসজি সতীর্থ ফরাসি তারকা কিলিয়ান এমবাপ্পে।

২ মিলিয়ন ডলার কম নিয়ে পাঁচে উঠে এসেছেন লিভারপুলের মিসরীয় তারকা মোহামেদ সালাহ।

শীর্ষ দশে আছেন রাবর্ট লেওয়ানডোস্কি (৩৫ মিলিয়ন ডলার), আন্দ্রেস ইনিয়েস্তা  (৩৫ মিলিয়ন ডলার), পল পগবা  (৩৪ মিলিয়ন ডলার), গ্যারেথ বেল  (৩২ মিলিয়ন ডলার) ও এডেন হ্যাজার্ড  (২৯ মিলিয়ন ডলার)। 


আরও খবর
টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের থিম সং প্রকাশ

বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১

মুস্তাফিজ-কার্তিক তেওয়াগির বাজিমাত

বুধবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১




শেষটা সুখকর হলো না বাংলাদেশের

প্রকাশিত:শুক্রবার ১০ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১০ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৫৬৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বড় লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে দ্রুত উইকেট হারায় বাংলাদেশ। টপঅর্ডাররা দায়িত্ব নিতে পারেননি। তবে দলের হার এড়ানোর চেষ্টা করেও পারেননি আফিফ হোসেন। শেষ পর্যন্ত ১৩৪ রানে ইনিংস গুটিয়ে নেয় বাংলাদেশ। তাই ২৭ রানে হারে লাল-সবুজের দল। তবে এই ম্যাচে হারলেও সিরিজ ৩-২ ব্যবধানে জিতেছে মাহমুদউল্লাহরা।

অবশ্য শুরুটা ভালো হয়নি বাংলাদেশের। দুই ওপেনার লিটন দাস ও মোহাম্মদ নাঈমের ব্যাটে মন্থরগতিতে শুরু হয় স্বাগতিকদের। এর পর পঞ্চম ওভারে হতাশ করে ফিরে যান লিটন দাস। ধারাবাহিক ব্যর্থ হওয়া লিটন ১২ বলে ১০ রান করে ফেরেন। দলীয় ২৬ রানে প্রথম উইকেট হারায় লাল-সবুজের দল।

লিটনের পর দায়িত্ব নিতে পারেননি নাঈমও। তিনি ফেরেন ২৩ রানে। এরপর বিদায় নেন সৌম্য সরকার ও মুশফিকুর রহিম।

মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে সিরিজের শেষ টি-টোয়েন্টিতে আগে ব্যাট করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ১৬১ রান করে নিউজিল্যান্ড। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৫০ রান করেছেন অধিনায়ক টম ল্যাথাম। গত ১০ ম্যাচে মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে এটিই সর্বোচ্চ সংগ্রহ।

সিরিজের শেষ টি-টোয়েন্টিতেও টস ভাগ্য ছিল কিউই অধিনায়ক টম ল্যাথামের পক্ষে। আগের চার ম্যাচেই ব্যর্থ ছিল নিউজিল্যান্ডের ওপেনিং জুটি। গত ম্যাচগুলোতে শুরুর জুটিতে যথাক্রমে ১, ১৬, ১৬, ০ রান পেয়েছিল কিউইরা।

সেই নিউজিল্যান্ডই আজ পেয়েছে দারুণ সূচনা। ইনিংসে প্রথম পাঁচ ওভারেই দলীয় স্কোর পঞ্চাশ ছাড়ায়  নিউজিল্যান্ড। তবে নিউজিল্যান্ডের শুরুর ছন্দ বেশিক্ষণ স্থায়ী হতে দেননি শরিফুল ইসলাম। ষষ্ঠ ওভারে বল হাতে এসেই জোড়া উইকেট তুলে নেন তিনি।

সে ওভারে রাচিন রবীন্দ্রকে ফিরিয়ে উদ্বোধনী জুটি ভাঙেন শরিফুল। তরুণ এই পেসারের বলে পুল শট খেলতে চেয়েছেন রবীন্দ্র। কিন্তু টাইমিং ঠিক হয়নি। ব্যাটের ওপরের দিকে লেগে বল যায় মিড অফে। সেখান থাকা মুশফিকুর রহিম ঝাঁপিয়ে পড়ে ক্যাচ লুফে নেন। ১২ বলে ১৭ রান করে ফেরেন রবীন্দ্র।

একই ওভারে ফিন অ্যালানকেও বিদায় করেন শরিফুল। রিভিউতে বেঁচে যাওয়া অ্যালানকে বোল্ড করেন শরিফুল। পাওয়ার প্লের শেষ বলে আউট হয়ে ২৪ বলে ৪১ রান করে ফেরেন অ্যালান। দলীয় ৫৮ রানেই জোড়া উইকেট হারায় নিউজিল্যান্ড।

মিডল অর্ডারে নামা দুই কিউই ব্যাটসম্যান উইল ইয়ং ও কলিন ডি গ্র্যান্ডহোমকে স্থায়ী হতে দেননি আফিফ হোসেন ও নাসুম আহমেদ। চলতি সিরিজে প্রথমবার বল হাতে এসেই ইয়ংকে নিজের শিকার বানান আফিফ। রাউন্ড দ্য উইকেটে গিয়ে বল করে ইয়ংকে ফেরান তিনি। ছয় রানে সাজঘরে ফেরেন ইয়ং।

১১তম ওভারে হাতখুলে খেলার আগেই দি গ্র্যান্ডহোমকে থামান নাসুম। তরুণ এই স্পিনারের মিডল স্টামে পিচ করা ফুল লেংথের বলে ছক্কা হাঁকাতে চেয়েছেন গ্র্যান্ডহোম। বল চলে যায় লং অফে। সেখানে দৌড়ে গিয়ে ক্যাচ মুঠোয় জমান শামীম হোসেন। ৯ রানে থামেন দি গ্র্যান্ডহোম।

দারুণ শুরুর পর দ্রুত চার উইকেট হারিয়ে কিছুটা চাপে পড়ে যায় নিউজিল্যান্ড। হেনরি নিকোলসকে নিয়ে সেখান থেকে দলকে উদ্ধার করেন অধিনায়ক টম ল্যাথাম। উইকেট হারানোর চাপ সামলে হাত খুলে খেলেন অধিনায়ক। ল্যাথামের দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ে শেষ পর্যন্ত ১৬১ রান গড়ে নিউজিল্যান্ড। ৫০ রান করে অপরাজিত ছিলেন তিনি।

বল হাতে বাংলাদেশের হয়ে ৪৮ রান দিয়ে দুটি উইকেট নেন শরিফুল ইসলাম। একটি করে উইকেট পান আফিফ, নাসুম ও তাসকিন আহমেদ।


আরও খবর
টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের থিম সং প্রকাশ

বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১

মেসিকে পেছনে ফেললেন সিআর সেভেন

বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১




চিনির কেজি ৭৫ থেকে ৮০ টাকা রাখার সুপারিশ

প্রকাশিত:বুধবার ২৫ আগস্ট ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ২৫ আগস্ট ২০২১ | ৬৫৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

ব্যবসায়ীদের সঙ্গে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের বৈঠকে চিনির কেজি ৭৫ থেকে ৮০ টাকা রাখার সুপারিশ করা হয়েছে। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে বুধবার (২৫ আগস্ট) দুপুরে অনুষ্ঠিত নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের বাজার পরিস্থিতি সংক্রান্ত পর্যালোচনা সভায় এ সুপারিশ করা হয়।

বৈঠক শেষে বাণিজ্য সচিব তপন কান্তি ঘোষ সাংবাদিকদের বলেন, আমরা ব্যবসায়ীদের নিয়ে বাজার পরিস্থিতি পর্যালোচনা করেছি। এটি ছিল বছরের প্রথম বৈঠক। তাই আমরা ব্যবসায়ীদের নিয়ম-নীতি মেনে ব্যবসা করার কথা স্মরণ করিয়ে দিয়েছি। তারাও আমাদের কাছে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

গত মে মাসের সর্বশেষ ঘোষণা অনুযায়ী, প্রতি লিটার খোলা সয়াবিন তেল ১২৯ টাকা, বোতলজাত সয়াবিন তেল ১৫৩ টাকা, পাম সুপার তেল ১১২ টাকা এবং ৫ লিটার সয়াবিন তেলের বোতলের দাম ৭২৮ টাকা নির্ধারণ করা হয়। অপরদিকে আন্তর্জাতিক বাজারে কাঁচামালের দাম বেড়ে যাওয়ায় দেশের বাজারে চিনির দাম বাড়ছে। গত এক মাসে খুচরা বাজারে চিনির দাম অন্তত ১২ শতাংশ বেড়ে ৮০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

এ বিষয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের আমদানি ও অভ্যন্তরীণ বাণিজ্য (আইআইটি) অনুবিভাগের অতিরিক্ত সচিব এএইচএম সফিকুজ্জামান বলেন, চিনির খুচরা মূল্য আপাতত ৭৫ টাকা থেকে ৮০ টাকার মধ্যেই থাকবে। আন্তর্জাতিক বাজারমূল্য বেড়ে যাওয়ার কারণে চিনি ও ভোজ্যতেলের দাম বেড়ে যাচ্ছে। তবে ভোজ্যতেলের দাম আগে যেটা নির্ধারণ করা হয়েছিল সেটাই থাকবে। অগাস্ট মাস শোকের মাস বিবেচনায় এই মাসেই নতুন করে দাম বাড়ানোর কোনো সুযোগ নেই। আন্তর্জাতিক বাজারে দাম বাড়ালেও সেটা পরে বিবেচনা করা হবে।

অতিরিক্ত বাণিজ্য সচিব আরও বলেন, আমাদের সরবরাহে কোনো ঘাটতি নেই, সরবরাহ যথেষ্ট আছে। কোনো কোনো ক্ষেত্রে আমাদের যে বার্ষিক চাহিদা তার থেকেও বেশি সরবরাহ আছে। কিন্তু যেহেতু অনেকগুলো পণ্য আমদানি নির্ভর, তাই আমদানি মূল্য বৃদ্ধিকে কাজে লাগিয়ে যাতে স্থানীয়ভাবে মূল্য বৃদ্ধি ও মজুত না করা হয় সে উদ্দেশ্যে আজকে আমরা ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দকে ডেকেছি।



আরও খবর
পুঁজিবাজারে সূচকের মিশ্র প্রবণতা

বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১

পুঁজিবাজারে সূচকের মিশ্র প্রবণতা

বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১




১১ সেপ্টেম্বরের পর খুলছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৬ আগস্ট ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৬ আগস্ট ২০২১ | ৯৮৫জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

করোনা মহামারির কারণে বন্ধ থাকা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের চলমান ছুটি আগামী ১১ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বাড়ানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২৬ আগস্ট) দুপুরে করোনা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার বিষয়ে আন্তঃমন্ত্রণালয়ের এক বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়।

ভার্চুয়ালি অনুষ্ঠিত এ বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। বৈঠকে শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়সহ টেকনিক্যাল কমিটির সদস্যরা অংশ নেন। বিকেলে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা এম এ খায়ের স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

গত কয়েকদিন ধরে করোনা সংক্রমণের হার নিম্নমুখী। বুধবার পরীক্ষার তুলনায় সংক্রমণের হার ছিল ১৪ দশমিক ৭৬ শতাংশ। মঙ্গলবার ১৫.১২ আর সোমবার ১৫.৫৪ শতাংশ ছিল সংক্রমণের হার।

বিশেষজ্ঞদের ধারণা, সেপ্টেম্বরের মধ্যে সংক্রমণের হার অনেক নেমে যেতে পারে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) মানদণ্ড অনুযায়ী, কোনো দেশ বা এলাকার সংক্রমণ ৫ শতাংশে নেমে এলে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া যায়।

২০২০ সালে ৮ মার্চ দেশে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হওয়ার পর ১৭ মার্চ থেকে এখনো পর্যন্ত বন্ধ রয়েছে দেশের সব স্তরের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। এরপর গত ১৭ মাসে মোট ২২ দফা ছুটি বাড়ানো হয়েছে। এর মধ্যে ২৪ মে ও ১৩ জুন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার ঘোষণা দিয়েও করোনার ঊর্ধ্বগতির কারণে তা সম্ভব হয়নি।



আরও খবর