আজঃ সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

চার বিভাগে আওয়ামী লীগের ১৫১ প্রার্থী চূড়ান্ত

প্রকাশিত:শনিবার ২৫ নভেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:শনিবার ২৫ নভেম্বর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক

Image

আগামী নির্বাচনের জন্য আরও চারটি বিভাগে আওয়ামী লীগের প্রার্থী চূড়ান্ত করা হয়েছে। গতকাল শুক্রবার দলের সংসদীয় মনোনয়ন বোর্ডের দ্বিতীয় দিনের বৈঠকে খুলনা, বরিশাল, ময়মনসিংহ ও ঢাকা বিভাগের ১৫১টি আসনে দলীয় প্রার্থীদের মনোনয়ন দেওয়া হয়। এদিনও বর্তমান এমপিদের কয়েকজন মনোনয়নবঞ্চিত হন। তাদের জায়গায় নতুন প্রার্থী দেওয়া হয়েছে।

এ নিয়ে দুদিনে ছয় বিভাগের ২২৩টি আসনে দলীয় প্রার্থী নির্ধারণ করল ক্ষমতাসীন দলটি। আগের দিন বৃহস্পতিবার চূড়ান্ত হয়েছিল রংপুর ও রাজশাহী বিভাগের ৭২টি আসনের প্রার্থী। তবে প্রথম দিনের মতো গতকালও দল মনোনীত প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করা হয়নি। এমনকি কৌশলগত কারণে এদিন কোন কোন বিভাগের প্রার্থী চূড়ান্ত হয়েছে, সেটাও জানানো হয়নি। বলা হয়েছে, ৩০০ আসনের প্রার্থী চূড়ান্ত করার পর আগামীকাল রোববার আনুষ্ঠানিকভাবে দলের প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করা হবে। এদিকে, আগামীকাল রোববার গণভবনে দলীয় মনোনয়নপ্রত্যাশীদের সঙ্গে মতবিনিময় সভা ডেকেছে আওয়ামী লীগ।

গতকাল শুক্রবার টানা দ্বিতীয় দিনের মতো বৈঠকে বসে আওয়ামী লীগের সংসদীয় মনোনয়ন বোর্ড। এদিন দুদফা বৈঠক হয়। সকাল ১০টায় শুরু হয়ে তিন ঘণ্টারও বেশি চলা প্রথম বৈঠকে খুলনা ও বরিশাল বিভাগের ৫৭টি এবং সন্ধ্যা থেকে রাত প্রায় ১০টা পর্যন্ত আরেক দফা বৈঠকে বসে ময়মনসিংহ ও ঢাকা বিভাগের ৯৪টি আসনে দলীয় প্রার্থী চূড়ান্ত করা হয় বলে বৈঠক সূত্রে জানা গেছে। বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও দলের সংসদীয় মনোনয়ন বোর্ডের সভাপতি শেখ হাসিনা।

আজ শনিবার সকাল ১০টা থেকে সংসদীয় মনোনয়ন বোর্ডের তৃতীয় দিনের বৈঠক বসবে। সেখানে সিলেট ও চট্টগ্রামের দলীয় প্রার্থী চূড়ান্ত করার কথা রয়েছে। এ দুই বিভাগের আসন সংখ্যা ৭৭।

প্রথম দফার বৈঠক শেষে বিকেলে দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনার ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে প্রেস ব্রিফিংয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, কৌশলগত কারণে আজ কোন কোন বিভাগের মনোনয়ন চূড়ান্ত হয়েছে, তা আর প্রকাশ করা হচ্ছে না। একসঙ্গে ৩০০ আসনের প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করা হবে। শনিবার সম্ভব না হলে রোববার এ তালিকা প্রকাশ করা হবে।

তিনি বলেন, আমরা যখন বিভাগের নাম ঘোষণা করি, তখন ভিড় বেড়ে যায়। নির্দিষ্ট বিভাগ শুনলে পীড়াপীড়ি শুরু হয়ে যায় কীভাবে নাম বের করা যায়। সে কারণে বিভাগের নাম ঘোষণা করছি না। আমরা দলীয় মনোনয়নের ব্যাপারটাও সুনির্দিষ্ট করে এখনই বলছি না। কারণ এর মধ্যে আমরা যেসব প্রার্থী দিয়েছি, সেসব মনোনয়নে ভুলত্রুটিও থাকতে পারে। সেটাও সংশোধনের একটা সুযোগ রেখেছি। এ কারণে আমরা ঠিক করেছি, ভিন্নভাবে জেলাওয়ারি বা বিভাগওয়ারি প্রার্থিতা ঘোষণা করব না। একসঙ্গে ৩০০ আসনের প্রার্থিতা ঘোষণা করতে চাই।

ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, আজকের সভায়ও কিছু পুরোনো এমপি বাদ গেছেন; নতুনরাও মনোনয়ন পেয়েছেন। সম্ভাব্য জয়ী প্রার্থী আমরা বাদ দিইনি।

দলীয় মনোনয়নের ক্ষেত্রে বর্তমান এমপিদের বাদ পড়ার কারণ সম্পর্কে তিনি বলেন, যারা সম্ভাব্য জয়ী কিংবা জয়ের সম্ভাবনা নেই এবং জনগণের কাছে গ্রহণযোগ্যতা হারিয়ে ফেলেছেন, তারাই বাদ পড়ছেন। নারী-পুরুষ সব প্রার্থীর মনোনয়নের ক্ষেত্রেই এটা প্রযোজ্য।

আওয়ামী লীগের সংসদীয় মনোনয়ন বোর্ডের বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন আমির হোসেন আমু, তোফায়েল আহমেদ, ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, শেখ ফজলুল করিম সেলিম, আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ, কাজী জাফরউল্লাহ, রমেশ চন্দ্র সেন, ওবায়দুল কাদের, রশিদুল আলম এবং ডা. দীপু মনি। দাপ্তরিক কাজের প্রয়োজনে দলের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. আবদুস সোবহান গোলাপ, দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া এবং উপদপ্তর সম্পাদক সায়েম খান বৈঠকে যোগ দেন।

বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, গতকাল চূড়ান্ত হওয়া চার বিভাগের আসনগুলোর বেশির ভাগ আসনেই বর্তমান এমপিদের ফের মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে। কয়েকজন বাদ পড়েছেন। জনপ্রিয়তা হারানোসহ নানা বিতর্কিত কর্মকাণ্ডে জড়িত হওয়ায় এসব এমপি এবার দলীয় মনোনয়নের জন্য বিবেচনায় আসেননি। তাদের জায়গায় কয়েকজন তরুণ নেতাকে দলের মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে।

দলীয় সূত্রগুলো বলছে, আসন্ন জাতীয় নির্বাচনের জন্য ৩০০ আসনেই প্রার্থী মনোনয়ন দিয়ে রাখছে আওয়ামী লীগ। এমনকি ১৪ দলীয় জোট শরিক এবং মহাজোটের শরিক জাতীয় পার্টির এমপিদের আসনেও দলীয় প্রার্থী চূড়ান্ত করা হচ্ছে। পরে জোটগত আসন সমঝোতা হলে শরিক দলগুলোকে ছাড় দেওয়া আসন থেকে দলীয় প্রার্থীদের প্রত্যাহার করে নেওয়া হবে। জাতীয় পার্টির সঙ্গে সমঝোতার বিষয়টি এখন পর্যন্ত একরকম অনিশ্চিত থাকায় একাদশ সংসদের প্রধান বিরোধী দলের এমপিদের আসন বিষয়ে আওয়ামী লীগের অবস্থান এখনও পরিষ্কার হয়নি। জাতীয় পার্টি এরই মধ্যে এককভাবে ৩০০ আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতার সিদ্ধান্ত নিয়ে আলাদাভাবে প্রার্থী বাছাই শুরু করেছে।  

গতকাল চূড়ান্ত হওয়া আসনগুলোর প্রার্থী নিয়ে নানা গুঞ্জন চলছে। মনোনয়ন চূড়ান্ত হয়েছে বলে শোনা যাচ্ছে, এমন প্রার্থী এবং তাদের সমর্থকরাও নানা দোলাচলে ভুগছেন। এখন মনোনয়ন দেওয়া হলেও পরে বাদ পড়েন কিনা এমন দুশ্চিন্তাও দেখা দিয়েছে অনেকের মধ্যে। আবার বিভিন্ন মাধ্যমে একই আসনে একাধিক ব্যক্তির পক্ষে মনোনয়ন পাওয়ার দাবি করায় এ নিয়ে বিভ্রান্তিও দেখা দিয়েছে নেতাকর্মীর মধ্যে। অনেক প্রার্থীর মনোনয়ন নিশ্চিত হওয়ার দাবি করে বিভিন্ন এলাকায় কর্মী-সমর্থক মিষ্টি বিতরণ করেছেন। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে অভিনন্দনের বন্যা বয়ে গেছে।

তবে এখন অনেক প্রার্থীর নাম চূড়ান্ত হলেও দলীয় মনোনয়ন বোর্ডের প্রধান হিসেবে শেখ হাসিনা চূড়ান্ত পর্যায়ে এই প্রার্থী তালিকায় রদবদল আনতে পারেন বলেও জানিয়েছে দলীয় সূত্রগুলো।

শুক্রবার সংসদীয় মনোনয়ন বোর্ডের বৈঠকে মনোনয়নপ্রাপ্তদের মধ্যে জাতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান মাগুরা-১ এবং চিত্রনায়ক ফেরদৌস ঢাকা-১০ আসন থেকে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন বলে জানা গেছে। এ ছাড়া ঢাকা-১৩ আসনে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক, যশোর-২ আসনে দলের বর্ষীয়ান নেতা ও সাবেক বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদের জামাতা ডা. তৌহিদুজ্জামান তুহিন, বরিশাল-২ আসনে তালুকদার মোহাম্মদ ইউনুস এবং বরিশাল-৪ আসনে ড. শাম্মী আহমেদ মনোনয়ন পেয়েছেন। এসব আসনের পুরোনো এমপিরা বাদ পড়েছেন বলে জানা গেছে।

অন্যদিকে, ঢাকা-৬ আসনে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন, ঢাকা-৮ আসনে দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম এবং ঢাকা-৭ আসনের বর্তমান এমপি হাজী মোহাম্মদ সেলিমের জায়গায় তাঁর ছেলে ইরফান সেলিমকে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে।

বিভিন্ন সূত্র থেকে পাওয়া তথ্যানুযায়ী কুষ্টিয়া-১ আসন থেকে আ কা ম সরওয়ার জাহান বাদশাহ, কুষ্টিয়া-৩ আসনে মাহবুবউল-আলম হানিফ, মাগুরা-২ আসনে ড. বীরেন শিকদার, বাগেরহাট-১ আসনে শেখ হেলাল উদ্দিন, বাগেরহাট-২ আসনে শেখ সারহান নাসের তন্ময়, বাগেরহাট-৩ আসনে হাবিবুন নাহার, খুলনা-১ আসনে পঞ্চানন বিশ্বাস, খুলনা-২ আসনে শেখ সালাহ উদ্দিন জুয়েল, খুলনা-৩ আসনে মন্নুজান সুফিয়ান, খুলনা-৪ আসনে আবদুস সালাম মুর্শেদী, খুলনা-৫ আসনে নারায়ণ চন্দ্র চন্দ, চুয়াডাঙ্গা-১ আসনে সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন, চুয়াডাঙ্গা-২ আসনে আলী আজগার টগর, মেহেরপুর-১ আসনে ফরহাদ হোসেন, মেহেরপুর-২ আসনে সাহিদুজ্জামান খোকন, ভোলা-১ আসনে তোফায়েল আহমেদ, ভোলা-২ আসনে আলী আজম মুকুল, ভোলা-৪ আসনে আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব, বরিশাল-১ আসনে আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ, বরিশাল-৩ আসনে সরদার খালেদ হোসেন স্বপন, বরিশাল-৫ আসনে জাহিদ ফারুক শামীম, বরিশাল-৬ আসনে মেজর জেনারেল (অব.) হাফিজ মল্লিক, পিরোজপুর-১ আসনে শ ম রেজাউল করিম, পিরোজপুর-৩ আসনে আশরাফুল ইসলাম, পটুয়াখালী-১ আসনে অ্যাডভোকেট আফজাল হোসেন, পটুয়াখালী-২ আসনে আ স ম ফিরোজ, পটুয়াখালী-৩ আসনে এস এম শাহজাদা এবং পটুয়াখালী-৪ আসনে মহিবুর রহমান মহিব দলের মনোনয়ন পেয়েছেন বলে জানা গেছে।


আরও খবর



একমাত্র দেশ হিসেবে যুদ্ধবিরতির প্রস্তাবে যুক্তরাষ্ট্রের ভেটো

প্রকাশিত:বুধবার ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে আলজেরিয়ার উত্থাপিত গাজা যুদ্ধবিরতির প্রস্তাবে ভেটো দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

মঙ্গলবার (২০ ফেব্রুয়ারি) যুদ্ধবিরতির নতুন প্রস্তাবের ওপর ভোটাভুটি হয়। এতে নিরাপত্তা পরিষদের ১৫ সদস্যের মধ্যে ১২ সদস্য পক্ষে ভোট দেয়। ভোট দান থেকে বিরত ছিল যক্তরাজ্য। আর একমাত্র দেশ হিসেবে এতে ভেটো দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের ১৫ সদস্যের পাঁচটি দেশ স্থায়ী সদস্য। যাদের সবার যে কোনো প্রস্তাবে ভেটো দেওয়ার ক্ষমতা রয়েছে।

১৫টি দেশের মধ্যে ১৩টি দেশের যুদ্ধবিরতির পক্ষে ভোট দেওয়ার মাধ্যমে ফুটে উঠেছে ফিলিস্তিনের অবরুদ্ধ গাজায় চার মাসেরও বেশি সময় ধরে চলা ইসরায়েলি বর্বরতা বন্ধ হোক এমনটি চাচ্ছে বিশ্বের সব দেশ।

গত ৭ অক্টোবর ফিলিস্তিনি সশস্ত্র গোষ্ঠী হামাস ইসরায়েলের বিভিন্ন অবৈধ বসতিতে হামলা চালিয়ে ১ হাজার ২০০ জনকে হত্যা ও প্রায় ২৫০ জনকে ধরে গাজায় নিয়ে আসে।

এরপর গাজায় বর্বরতা শুরু করে ইসরায়েলি সেনারা। তাদের হামলায় এখন পর্যন্ত এ উপত্যকায় ২৯ হাজারের বেশি মানুষ নিহত হয়েছেন। এছাড়া আহত হয়েছেন আরও প্রায় ৭০ হাজার।

হামাস ও ইসরায়েলের যুদ্ধ শুরু হওয়ার নিরাপত্তা পরিষদে ওঠা যুদ্ধবিরতির প্রস্তাবে এটি যুক্তরাষ্ট্রের তৃতীয় ভেটো।

আলজেরিয়ার তোলা এই যুদ্ধবিরতির প্রস্তাবে যুক্তরাষ্ট্র ভেটো দেবে সেটি আগে থেকেই সবাই জানতেন। তবে বিশ্বের বেশিরভাগ দেশ যে যুদ্ধ বন্ধ চায়, সেটি দেখাতে নতুন এই প্রস্তাবটি নিরাপত্তা পরিষদে তোলা হয়েছিল।

যুদ্ধবিরতির এ প্রস্তাবটি নিরাপত্তা পরিষদে ওঠার আগে যুক্তরাষ্ট্র নিজেদের পক্ষ থেকে একটি পাল্টা প্রস্তাব দেয়। এতে বলা হয়, উপযুক্ত সময়ে অস্থায়ী যুদ্ধবিরতি কার্যকর করা হবে এবং ত্রাণের ওপর থেকে সব ধরনের বিধিনিষেধ তুলে নিতে হবে। এর বদলে হামাসকে ইসরায়েলের সব জিম্মিকে মুক্তি দিতে হবে।


আরও খবর



সিরিয়ায় মার্কিন সামরিক ঘাঁটিতে হামলা, নিহত ৬

প্রকাশিত:সোমবার ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

সিরিয়ায় মার্কিন সামরিক ঘাঁটিতে হামলা হয়েছে। এতে অন্তত ছয়জন নিহত হয়েছেন। রোববার (০৪ ফেব্রুয়ারি) গভীর রাতে এ হামলা চালানো হয়েছে বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা এপি।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সিরিয়ার পূর্বাঞ্চলে মার্কিন সেনাদের বসবাস করা একটি ঘাঁটিকে লক্ষ্য করে হামলা চালানো হয়েছে। এতে করে মার্কিন সমর্থিত সিরিয়ান ডেমোক্রেটিক ফোর্সের (এসপিএফ) ছয় সেনা নিহত হয়েছেন।

সূত্রের বরাতে আলজাজিরা জানিয়েছে, সিরিয়ার দেইর আল যুহর প্রদেশে একটি সেনাদের প্রশিক্ষণ ঘাঁটিতে লক্ষ্য করে হামলা চালানো হয়েছে। এ সময় একটি ড্রোন সেনাদের ডরমিটরিতে আঘাত হেনেছে। মার্কিন সেনারাও হামলার শিকার ঘাঁটিতে অবস্থান করছিলেন।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স স্থানীয় দুটি সূত্রের বরাতে জানিয়েছে, সেনাঘাঁটিকে লক্ষ্য করে ছোড়া এ ড্রোন এমন এলাকা থেকে ছোড়া হয়েছে যেখানে ইরানপন্থি প্রক্সি গ্রুপ সক্রিয় রয়েছে। 

আরও পড়ুন>> জানুয়ারিতে রপ্তানি আয়ে রেকর্ড গড়ল বাংলাদেশ

এ ঘটনায় পাল্টা হামলার হুঁশিয়ারি দিয়েছে এসডিএফ। তারা জানিয়েছে, হামলাকারীদের লক্ষ্য করে জবাবে পাল্টা হামলার অধিকার তাদের রয়েছে।

এদিকে এ হামলার ঘটনায় দায় স্বীকার করেছে ইরানপন্থি ইরাকের সশস্ত্রগোষ্ঠী ইসলামিক রেজিস্ট্যান্স। গোষ্ঠীটি হামলার দায় স্বীকার ও ড্রোন নিক্ষেপের ভিডিও প্রকাশ করেছে।

এর অগে গত ২৮ জানুয়ারি সিরিয়ার সীমান্তবর্তী জর্ডানে একটি মার্কিন ঘাঁটিতে ড্রোন হামলা চালানো হয়। এতে তিন মার্কিন সেনা নিহত ও ৪১ জন সেনা আহত হন। গত ৭ অক্টোবর গাজা যুদ্ধ শুরু হলে এটিই প্রথম এ অঞ্চলে কোনো মার্কিন সেনা নিহতের ঘটনা। এ হামলার পর পাল্টা জবাব দেওয়ার অঙ্গীকার করে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন প্রশাসন। এ হামলার ঘটনায়ও সশস্ত্র গোষ্ঠীটি দায় স্বীকার করে।


আরও খবর



বিশ্বের দূষিত শহরের তালিকায় শীর্ষে দিল্লি, ঢাকা দ্বিতীয়

প্রকাশিত:বুধবার ৩১ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ৩১ জানুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

বায়ুদূষণের তালিকায় আজ রাজধানী ঢাকার অবস্থান দ্বিতীয়। অন্যদিকে, তালিকার শীর্ষে রয়েছে ভারতের দিল্লি। বুধবার (৩১ জানুয়ারি) সকাল ৮টা ১৭ মিনিটে বায়ুর মান পর্যবেক্ষণকারী সংস্থা এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্সের (আইকিউএয়ার) সূচক থেকে জানা গেছে এসব তথ্য।

দূষণ তালিকায় শীর্ষে থাকা দিল্লির স্কোর ২৮৮ অর্থাৎ সেখানকার বায়ুর মান খুবই অস্বাস্থ্যকর পর্যায়ে রয়েছে। দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকা। এই শহরের স্কোর ২৭১ অর্থাৎ এখানকার বায়ুর মানও খুবই অস্বাস্থ্যকর।

তালিকায় ৩ নম্বরে রয়েছে ঘানার আক্রা এবং এই শহরের স্কোর ২১৯ অর্থাৎ সেখানকার বাতাসও খুবই অস্বাস্থ্যকর। এরপরে রয়েছে নেপালের কাঠমান্ডু ও ভারতের কলকাতা ।

আইকিউএয়ার অনুযায়ী, স্কোর শূন্য থেকে ৫০ এর মধ্যে থাকলে বায়ুর মান ভালো বলে বিবেচিত হয়। ৫১ থেকে ১০০ হলে মাঝারি বা সহনীয় ধরা হয় বায়ুর মান। সংবেদনশীল গোষ্ঠীর জন্য অস্বাস্থ্যকর হিসেবে বিবেচিত হয় ১০১ থেকে ১৫০ স্কোর। ১৫১ থেকে ২০০ পর্যন্ত অস্বাস্থ্যকর হিসেবে বিবেচিত হয়। স্কোর ২০১ থেকে ৩০০ হলে খুবই অস্বাস্থ্যকর বলে বিবেচনা করা হয়। এছাড়া ৩০১-এর বেশি হলে তা দুর্যোগপূর্ণ বলে বিবেচিত হয়।


আরও খবর
ছুটির দিনেও ঢাকার বায়ু ‌‘অস্বাস্থ্যকর’

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




প্রতিটি সেবা আমরা নিজেরাই তৈরি করতে চাই: পলক

প্রকাশিত:বুধবার ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, প্রতিটি সেবা আমরা নিজস্ব উদ্ভাবক, গবেষকের মাধ্যমে তৈরি করতে চাই। আমরা বাংলাদেশে ফেসবুক ব্যবহার করতে বাধা দেব না, কিন্তু আমাদের নিজস্ব একটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম থাকতে হবে। সেজন্য আমরা দেশি উদ্ভাবক, গবেষকদের উৎসাহিত এবং প্রয়োজনীয় সহযোগিতা করছি।

বুধবার (২১ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে ঢাকায় আগারগাঁওয়ে আইসিটি টাওয়ারের বিসিসি মিলনায়তনে ভাষা শহীদদের স্মরণে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, গত পাঁচ বছর আমি খুব বেশি আশাবাদী ছিলাম না। তবে আমাদের শিক্ষক, ছাত্র-ছাত্রী, বিশ্ববিদ্যালয়, আইসিটি, কম্পিউটার কাউন্সিল মিলে এখন আমরা এমন একটা অবস্থানে এসেছি যে, এখন আমি খুবই আশাবাদী। বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যে ‌স্মার্ট বাংলাদেশ এর রূপকল্প ঘোষণা করেছেন, তার নেতৃত্ব দেওয়ার জন্য নতুন প্রজন্ম ইতোমধ্যে তৈরি হয়ে গেছে।

তিনি আরও বলেন, আমাদের লক্ষ্য আত্মনির্ভরশীল স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ে তোলা। পরনির্ভরশীল বাংলাদেশ গড়ে তোলা নয়। আমরা সারা বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে যোগাযোগ রেখে চলব।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমরা জিপন প্রযুক্তির মাধ্যমে দ্রুত গতির ইন্টারনেট বাংলাদেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে পৌঁছে দিতে চাই। সেজন্য গ্রাহক প্রান্তে অপটিক্যাল ফাইবার দিয়ে ইন্টারনেট সেবা দিচ্ছি। আমরা বিটিসিএলকে আধুনিক প্রতিষ্ঠানে পরিণত করতে চাই। আমরা এখন সুলভ মূল্যে ইন্টারনেট সেবা দিচ্ছি।


আরও খবর



সিগারেট কেনার ৫০ টাকা না দেওয়ায় বন্ধুকে হত্যা

প্রকাশিত:সোমবার ২৯ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৯ জানুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
নোয়াখালী প্রতিনিধি

Image

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে সিগারেট কেনার ৫০ টাকা না দেওয়ায় অটোরিকশা চালক বন্ধুকে ইটের আঘাতে হত্যা করার বলে আদালতে স্বীকারোক্তি দিয়েছেন আসামি।

রবিবার (২৮ জানুয়ারি) বিকালে জেলা চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্টেট মো. ইকবাল হোসাইন এ জবানবন্দি রেকর্ড করেন।

বেগমগঞ্জ থানা প্রাঙ্গণে এক সংবাদ সম্মেলনে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক্রাইম অ্যান্ড অপস) বিজয়া সেন এসব তথ্য নিশ্চিত করেন। 

নিহত মামুনুর রশিদ বেগমগঞ্জ উপজেলার রাজাগঞ্জ ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের বাকীপুর গ্রামের বাসিন্দা। অপরদিকে আসামি সোহাগ বেগমগঞ্জ উপজেলার ছয়ানী ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের দক্ষিণ দোয়ালিয়া গ্রামের বাসিন্দা।

বেগমগঞ্জ থানা প্রাঙ্গণে এক সংবাদ সম্মেলনে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক্রাইম অ্যান্ড অপস) বিজয়া সেন এসব তথ্য নিশ্চিত করেন। 

তিনি বলেন, গত ২২ তারিখ থেকে অটোরিকশা চালক মামুন নিখোঁজ ছিল। গত ২৬ জানুয়ারি সকাল ১০টায় উপজেলার রাজগঞ্জ ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের বাকীপুর গ্রামের একটি সুপারি বাগান থেকে তার মরদেহটি উদ্ধার করা হয়। ২৪ ঘণ্টার মধ্যে রাজগঞ্জ ইউনিয়নের মামুন হত্যা মামলার রহস্য উদঘাটন করেছে পুলিশ। আসামি আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। মূলত তাদের মধ্যে একবছর ধরে বন্ধুত্ব। তারা একসঙ্গে নেশা করত। হত্যাকাণ্ডের কারণ ৫০ টাকার সিগারেট ক্রয়ের টাকা না দেওয়া। মামুন গাঁজা খেতে চাওয়ায় ৫০ টাকার সিগারেট আনেন সোহাগ। কিন্তু সেই টাকা না দেওয়ায় কথা-কাটাকাটি হয় তাদের মধ্যে। একপর্যায়ে সোহাগ ইট দিয়ে মামুনের মাথায় আঘাত করেন। তারপর ইটটি পাশে থাকা পুকুরে ফেলে পালিয়ে যান।

তিনি আরও বলেন, সুরতহাল করার সময় ভুক্তভোগীর মাথার পিছনের ডান পাশে, কপালের বাম পাশে জখমের চিহ্ন দেখা যায়। মরদেহ আংশিক পঁচা, পেট ফোলা ও মুখমন্ডল বিকৃত অবস্থায় দেখা যায়। আমরা আলামত হিসেবে মাথায় আঘাত করা ইটটি পুকুর থেকে উদ্ধার করি। ঘটনাস্থলের পাশে বাগান হতে ভুক্তভোগীর পরিহিত স্যান্ডেল উদ্ধারপূর্বক জব্দ করা হয়। আসামিকে চরজব্বর থানা এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ সময় তার কাছ থেকে এক পুরিয়া গাঁজা জব্দ করা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বেগমগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আনোয়ারুল ইসলাম, পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) ফরিদুল আলম, থানার এসআই (নিরস্ত্র) ফিরোজ আহমেদ ও তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই (নিরস্ত্র) আওলাদ হোসেন রিকাবদার প্রমুখ।


আরও খবর