আজঃ বৃহস্পতিবার ২৪ জুন ২০২১
শিরোনাম

করোনায় আরও ৩৬ মৃত্যু, বেড়েছে শনাক্তের হার

প্রকাশিত:বুধবার ০৯ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ০৯ জুন ২০২১ | ৯৩জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
গত ২৪ ঘণ্টায় ৫১০টি ল্যাবে ২০ হাজার ৫৮৪টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। নমুনা সংগ্রহ করা হয় ২০ হাজার ৬০৪টি। নমুনা শনাক্তের হার ১২ দশমিক ৩৩ শতাংশ

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে আরও ৩৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১২ হাজার ৯৪৯ জনে দাঁড়িয়েছে। এ ছাড়া দেশে নতুন করে আরও দুই হাজার ৫৩৭ জন আক্রান্ত হয়েছে। দেশে মোট আট লাখ ১৭ হাজার ৮১৯ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা থেকে সুস্থ হয়েছে দুই হাজার ২৬৭ জন। এ নিয়ে দেশে মোট সাত লাখ ৫৭ হাজার ৫৬৯ জন করোনা থেকে সুস্থ হলো।

আজ বুধবার বিকেলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় ৫১০টি ল্যাবে ২০ হাজার ৫৮৪টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। নমুনা সংগ্রহ করা হয় ২০ হাজার ৬০৪টি। নমুনা শনাক্তের হার ১২ দশমিক ৩৩ শতাংশ।

২৪ ঘণ্টায় নতুন ৩৬ জন মৃত্যুবরণকারীর মধ্যে পুরুষ ১৭ জন ও নারী ১৯ জন। এ পর্যন্ত পুরুষ মৃত্যুবরণ করেছে নয় হাজার ৩১৯ জন ও নারী তিন হাজার ৬৩০ জন। মৃত্যুবরণকারীদের মধ্যে ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে একজন, ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে দুজন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের চারজন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের আটজন ও ষাটোর্ধ্ব ২১ জন রয়েছেন।

২৪ ঘণ্টায় মৃত্যুবরণকারীদের মধ্যে ঢাকা বিভাগে ছয়জন, চট্টগ্রাম বিভাগে ছয়জন, রাজশাহী বিভাগে নয়জন, খুলনা বিভাগে ১০ জন, সিলেট বিভাগে একজন ও রংপুর বিভাগে চারজন রয়েছে। এ ছাড়া সরকারি হাসপাতালে ৩৩ জন ও বেসরকারিতে তিনজন মৃত্যুবরণ করেছেন।

দেশে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয় গত বছরের ৮ মার্চ। ওই বছরের ১৮ জুন তিন হাজার ৮০৩ জন নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হওয়ার মধ্যে দিয়ে লাখ ছাড়িয়েছিল করোনার রোগী। সেদিন পর্যন্ত মোট শনাক্ত ছিল এক লাখ দুই হাজার ২৯২ জন। এ ছাড়া দেশে করোনাভাইরাসে প্রথম মৃত্যুর ঘটনা ঘটে গত বছরের ১৮ মার্চ।


আরও খবর
করোনায় আরও ৭৬ জনের মৃত্যু

মঙ্গলবার ২২ জুন ২০২১




করোনা নির্মূলে ৭০ শতাংশ মানুষকে টিকা দিতে হবে : ডব্লিউএইচও

প্রকাশিত:শনিবার ২৯ মে ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ২৯ মে ২০২১ | ১৩৩জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিওএইচও) ইউরোপীয় বিষয়ক পরিচালক সতর্ক করে বলেছেন, ৭০ শতাংশ লোককে টিকার আওতায় না আনতে পারলে মহামারির অবসান ঘটানো যাবে না। ইউরোপে টিকা দেয়ার গতি খুব ধীর হওয়ার প্রেক্ষাপটে শুক্রবার তিনি এ সতর্কতা উচ্চারণ করেন।

ডব্লিওএইচওর ইউরোপ বিষয়ক আঞ্চলিক পরিচালক হ্যান্স ক্লুগ এক সাক্ষাৎকারে বলেছেন, নূন্যতম ৭০ শতাংশ লোককে আমরা টিকা দিতে না পারলে মহামারি শেষ হবে না।

তিনি বলেন, নভেল করোনা ভাইরাসের নতুন ধরন নিয়ে তার মূল উদ্বেগ।

ক্লুগ বলেন, আমরা জেনেছি বি.১৬১৭ (ভারতীয় ধরন) বি.১১৭ (ব্রিটিশ ধরন) এর চেয়ে অনেক বেশি সংক্রামক। আগের যে কোন ধরনের চেয়ে ভারতীয় ধরন খুব বেশি দ্রুত ছড়িয়েছে। তিনি টিকা দেয়ার গতিকে আরো দ্রুত করার ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

তিনি বলেন, আমাদের সবচেয়ে ভালো বন্ধু -গতি। সময় আমাদের বিরুদ্ধে কাজ করছে। অথচ টিকা দেয়ার গতি খুব ধীর। এ গতি ত্বরান্বিত করা দরকার।

এএফপির হিসেব মতে, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ইউরোপীয় অঞ্চলের ৫৩টি দেশের মোট জনসংখ্যা মাত্র ২৬ শতাংশ লোক টিকার প্রথম ডোজ পেয়েছে। এসব অঞ্চলের মধ্যে মধ্য এশিয়ার কিছু দেশও রয়েছে। এদিকে ইউরোপীয় ইউনিয়নে মোট ৩৬.৬ শতাংশ লোক টিকার অন্তত একটি ডোজ পেয়েছে।

নিউজ ট্যাগ: ডব্লিউএইচও

আরও খবর
করোনার ডেল্টা প্লাসে প্রথম মৃত্যু

বৃহস্পতিবার ২৪ জুন ২০২১




বিশ্বে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা ৩৮ লাখ ৮২ হাজার ছাড়ালো

প্রকাশিত:সোমবার ২১ জুন 20২১ | হালনাগাদ:সোমবার ২১ জুন 20২১ | ৩৯জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও প্রাণহানির সংখ্যা কোনোভাবেই কমছে না। সর্বশেষ করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৭ কোটি ৯২ লাখ ৫২ হাজার ৪১৬ জন। আর এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বিশ্বে মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩৮ লাখ ৮২ হাজার ৮ জনে। এর মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ১৬ কোটি ৩৮ লাখ ৫ হাজার ৩২৫ জন।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও প্রাণহানির পরিসংখ্যান রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডওমিটার থেকে সোমবার (২১ জুন) সকালে এই তথ্য জানা গেছে।

ওয়ার্ল্ডওমিটারের সবশেষ তথ্য অনুযায়ী, করোনায় এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ও মৃত্যু হয়েছে বিশ্বের ক্ষমতাধর দেশ যুক্তরাষ্ট্রে। তালিকায় শীর্ষে থাকা দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনা সংক্রমিত হয়েছেন ৩ কোটি ৪৪ লাখ ৬ হাজার ১জন আর ৬ লাখ ১৭হাজার ১৬৬ জন মারা গেছেন।

করোনায় আক্রান্তের তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে প্রতিবেশী দেশ ভারত। তবে ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃতের তালিকায় দেশটির অবস্থান চতুর্থ। দেশটিতে মোট আক্রান্ত ২ কোটি ৯৯ লাখ ৩৪ হাজার ৩৬১ জন এবং মারা গেছেন ৩ লাখ ৮৮ হাজার ১৬৪ জন।

লাতিন আমেরিকার দেশ ব্রাজিল করোনায় আক্রান্তের দিক থেকে তৃতীয় ও মৃত্যুর সংখ্যায় তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে। দেশটিতে মোট শনাক্ত রোগী ১ কোটি ৭৯ লাখ ২৭ হাজার ৯২৮ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৫ লাখ ১ হাজার ৯১৮ জনের।

নিউজ ট্যাগ: করোনাভাইরাস

আরও খবর
করোনায় আরও ৭৬ জনের মৃত্যু

মঙ্গলবার ২২ জুন ২০২১




ছাত্রীকে ধর্ষণের পর হুমকি দিলো মাদরাসা শিক্ষক!

প্রকাশিত:বুধবার ০২ জুন 2০২1 | হালনাগাদ:বুধবার ০২ জুন 2০২1 | ১২২জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image
রাত প্রায় আড়াইটার দিকে মাও. মিন্টু হলরুমে প্রবেশ করে ওই ছাত্রীকে ভয়ভীতি দেখিয়ে ধর্ষণ করে এবং বিষয়টি জানাজানি না করার জন্য হুমকি দেয়

বগুড়ার শিবগঞ্জে সপ্তম শ্রেণির এক মাদরাসা ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে মাও. আবদুর রহমান মিন্টু (৩২) নামের এক মাদরাসা অধ্যক্ষকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তার মিন্টু শিবগঞ্জ উপজেলার বিহার ইউনিয়নের পার লক্ষ্মীপুর চাঁনপাড়া গ্রামের মৃত সোলাইমান আলীর ছেলে এবং শিবগঞ্জ পৌর এলাকায় অবস্থিত বানাইল কলেজ পাড়া মহল্লার হযরত ফাতেমা (রা.) হাফেজিয়া মহিলা মাদরাসার মুহতামিম (অধ্যক্ষ)।

মঙ্গলবার (১ জুন) বিকেলে থানায় দায়ের হওয়া একটি ধর্ষণ মামলায় রাতেই শিবগঞ্জ এলাকা থেকে পুলিশ গ্রেপ্তার করে তাকে। বুধবার (২ জুন) দুপুরে এ তথ্য নিশ্চিত করেন শিবগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সিরাজুল ইসলাম।

পুলিশ সূত্র জানায়, হযরত ফাতেমা (রা.) হাফেজিয়া মহিলা মাদরাসাটি আবাসিক। সেখানে আরও ১১ থেকে ১২ জন ছাত্রী একসঙ্গে হলরুমে থাকতো। তাদের সঙ্গে ভুক্তভোগী ছাত্রীও লেখাপড়া করতো। সে হলরুমের পাশেই পরিবারের সঙ্গে বসবাস করেন অধ্যক্ষ মাও. আবদুর রহমান মিন্টু। রবিবার (৩০ মে) ছাত্রীরা সবাই রাতের খাবার খেয়ে ঘুমিয়ে পড়ে। রাত প্রায় আড়াইটার দিকে মাও. মিন্টু হলরুমে প্রবেশ করে ওই ছাত্রীকে ভয়ভীতি দেখিয়ে ধর্ষণ করে এবং বিষয়টি জানাজানি না করার জন্য হুমকি দেয়। কিন্তু ওই ছাত্রী বিষয়টি তার পরিবারকে জানায়। পরে পরিবার থেকে মামলা করা হয় ওই অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে।

শিবগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ( ওসি) সিরাজুল ইসলাম জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে অভিযুক্ত মিন্টু ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছে। সে এর আগেও মাদরাসার আরও একাধিক ছাত্রীকে ধর্ষণ করেছে বলে জানিয়েছে। তবে তারা আত্মসম্মানের ভয়ে আইনের আশ্রয় নেয়নি।


আরও খবর



ফিলিস্তিনি আন্দোলনের নতুন মধ্যমণি যমজ ভাই-বোন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৮ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৮ জুন ২০২১ | ৮৯জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

গাজায় যুদ্ধবিরতির দুসপ্তাহের মাথায় আবারও ইসরায়েল অধিকৃত পূর্ব জেরুসালেমের শেখ জারাহ মহল্লায় উত্তাপ ছড়িয়ে পড়ার লক্ষণ দেখা যাচ্ছে। রোববার (৬ জুন) ইসরায়েলি পুলিশ শেখ জারার একটি এল কুর্দ পরিবারের বাড়িতে ঢুকে ২৩ বছরের তরুণী মুনা এল কুর্দকে ধরে নিয়ে যায়। খবর পেয়ে তার যমজ ভাই মোহাম্মেদ এল কুর্দ পুলিশ স্টেশনে গিয়ে স্বেচ্ছায় গ্রেপ্তারবরণ করেন।

তাদের আটকের খবর সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে মুহূর্তের মধ্যে তাদের প্রচুর সমর্থক দলে দলে পূর্ব জেরুজালেমের ওই পুলিশ স্টেশনের কাছে জড়ো হয়ে বিক্ষোভ শুরু করে। সে সময় পুলিশের ছোঁড়া স্টান গ্রেনেড, কাঁদানে গ্যাসে বেশ কয়েকজন ফিলিস্তিনি জখম হয়।

এর কয়েক ঘণ্টা পর পুলিশ তাদেরকে ছেড়ে দেয়। কিন্তু এই দুই যমজ ফিলিস্তিনি ভাই-বোন এখন ইসরায়েলের বিরুদ্ধে ফিলিস্তিনিদের প্রতিবাদ আন্দোলনের মধ্যমণি হয়ে উঠেছেন।

মুনা এবং মোহাম্মেদের বাবা নাবিল এল কুর্দ পরে সাংবাদিকদের বলেন, হঠাৎ ঘরে ঢুকে পুলিশের তল্লাশি এবং মেয়েকে হাতকড়া পরিয়ে নিয়ে যাওয়ার ঘটনায় তিনি হতবাক হয়ে পড়েছিলেন। কেন বিনা উস্কানিতে তার মেয়েকে ইসরায়েলি পুলিশ ধরে নিয়ে যায়।

এক বিবৃতিতে ইসরায়েলি পুলিশ জানায়, সম্প্রতি পূর্ব জেরুসালেমে দাঙ্গায় উস্কানি দেওয়ার অভিযোগে করা এক মামলায় মুনা এল কুর্দকে আটক করা হয়।

সেই সময় মুনা বা তার ভাই মোহাম্মেদ শেখ জারাহ বা আল আকসা মসজিদ চত্বরে ইসরায়েলি পুলিশের দিকে পাথর ছুঁড়েছিলেন কিনা বা ছুঁড়তে উৎসাহ দিয়েছিলেন কিনা তা নিশ্চিত নয়। তবে শেখ জারাহ থেকে ফিলিস্তিনি উচ্ছেদের বিরুদ্ধে দেশে-বিদেশে প্রতিবাদ তৈরিতে মুখ্য ভূমিকা রেখেছেন এই দুই ভাই-বোন।

গত কমাসে তরুণ বয়সী এই দুই ভাই-বোন শেখ জারাহ থেকে উচ্ছেদ ঠেকানোর আন্দোলন এবং সার্বিকভাবে ইসরায়েলি দখলদারিত্বের বিরুদ্ধে ফিলিস্তিনি প্রতিবাদ আন্দোলনের অত্যন্ত পরিচিত দুই মুখ। বিশেষ করে সোশাল মিডিয়ায় এই আন্দোলনে তারা কার্যত নেতৃত্ব দিচ্ছেন। তারা দুজনই টুইটার এবং ইনস্ট্রগ্রামসহ সোশ্যাল মিডিয়ার বিভিন্ন প্লাটফর্মে খুবই সরব।

ইনস্টাগ্রামে মুনার ফলোয়ারের সংখ্যা এখন ১৩ লাখের মত। আর টুইটারে অ্যাকাউন্ট খুলছেন মার্চ মাসে, এরই মধ্যে তার ফলোয়ারের সংখ্যা ৬৪ হাজার। দিনে দিনে সেই সংখ্যা বাড়ছে।

তিন মাস আগে মুনা 'সেভ শেখ জারাহ' হ্যাশটাগে সোশ্যাল মিডিয়ায় যে ক্যাম্পেইন শুরু করেন, সেটাই সারা বিশ্বের ফিলিস্তিনি এবং তাদের সমর্থকদের নজর কাড়ে। দ্রুত তা বড় একটি আন্দোলনে দানা বাঁধে।

মোহাম্মেদ এই মুহূর্তে জেরুজালেমে থাকলেও উচ্চশিক্ষার জন্য নিউইয়র্কে থাকেন তিনি। কিন্তু সেখানে বসেই ফিলিস্তিনিদের দুর্ভোগের বিভিন্ন ইস্যুতে তিনি অনলাইনে এবং মূলধারার মিডিয়াতে নিয়মিত লেখালেখি করেন। বয়স মাত্র ২৩ হলেও সিএনএন, গার্ডিয়ান বা আল জাজিরাসহ প্রথম সারির মিডিয়ায় তার একাধিক সাক্ষাৎকার এবং লেখা প্রচার হয়েছে।

ফিলিস্তিনিদের দুর্ভোগের ইতিহাস নিয়ে লেখা তার একটি বই বর্তমানে প্রকাশের অপেক্ষায় রয়েছে।

রবিবার (৬ জুন) পুলিশের হাত থেকে ছাড়া পাওয়ার পর মুনা সাংবাদিকদের সামনে বলেন, আমাদের ভয় দেখাতে, আতঙ্কিত করতে তারা (ইসরায়েল) যাই করুক না কেন, যতবারই আমাদের গ্রেপ্তার করুক, আমরা ভয় পাইনা।

পরপরই ভাই মোহাম্মেদ টুইট করেছেন, আমরা স্বাধীন, মুক্ত। আমাদের ভয় নেই। তারা (ইসরায়েল) কখনই আমাদের আতঙ্কিত করতে পারবে না।

তাদের এসব কথা, টুইট হাজার হাজার শেয়ার হচ্ছে।

কেন মুনা এবং মোহাম্মেদ এই বয়সে শেখ জারাহ নিয়ে এতটা তৎপর হয়ে পড়লেন? কারণ, শেখ জারায় যা হচ্ছে তার সরাসরি শিকার হয়ে পড়েছেন তারা এবং তাদের পরিবার। যে চারটি পরিবারকে বাড়ি থেকে বের করে দিয়ে ইহুদি বসতি স্থাপনকারীদের হাতে তুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে আল কুর্দ পরিবার তাদেরই একটি।

যে চারটি পরিবারকে শেখ জারাহ থেকে উচ্ছেদ করার পক্ষে জেরুজালেমের একটি আদালত রায় দিয়েছে তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ হলো- যে জমিতে তাদের বাড়ি তার মালিক তারা নয়। ১৯৪৮ সালে ইসরায়েল রাষ্ট্র তৈরির আগে ওই জমি ছিল ইহুদিদের এবং তাদেরকে সেই জমি ফেরত দেয়া হচ্ছে।

কুর্দ পরিবার বলছে, ১৯৪৮ সালে ইসরায়েল রাষ্ট্র তৈরির সময় হাইফা শহর থেকে বাড়ি-ঘর ফেলে তারা পূর্ব জেরুজালেমে পালিয়ে আসলে শেখ জারায় তাদের পুনর্বাসন করা হয়। পূর্ব জেরুজালেম তখন জর্ডানের নিয়ন্ত্রণে ছিল।



আরও খবর
করোনার ডেল্টা প্লাসে প্রথম মৃত্যু

বৃহস্পতিবার ২৪ জুন ২০২১




বাছাইপর্বের ম্যাচ কঠিন হবে: মেসি

প্রকাশিত:সোমবার ৩১ মে ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ৩১ মে ২০২১ | ৯৬জন দেখেছেন
দর্পণ নিউজ ডেস্ক

Image

‘আমি বেশ উচ্ছ্বসিত। নিজের সেরাটা দেয়ার জন্য মুখিয়ে আছি। সত্যি কথা বলতে বর্তমানে কঠিন এক পরিস্থিতি দিয়ে যাচ্ছি আমরা। আমাদের প্রস্তুতিও তেমন হয়নি। ধীরে ধীরে আমরা চেষ্টা করছি দল হিসেবে নিজেদের মানিয়ে নেয়ার। বাছাই পর্বের ম্যাচগুলো বেশ কঠিন হতে চলেছে।’ বিশ্বকাপ বাছাই পর্বের ক্যাম্পে যোগ দেয়ার পর এক ভিডিও বার্তায় এসব কথা বলেছেন আর্জেন্টিনার অধিনায়ক লিওনেল মেসি।

দক্ষিণ আমেরিকা অঞ্চলের বিশ্বকাপ বাছাই পর্বের ম্যাচে আগামী ৪ জুন চিলির বিপক্ষে নামবে আলবিসেলেস্তেরা। ৮ জুন মেসিদের প্রতিপক্ষ কলম্বিয়া।

ছয়বারের ব্যালন ডি’ অর জয়ী বলেন, ‘মাঠে নামাতে তর সইছে নতুনদের। পুরাতনদেরও একই অবস্থা। বেশ কিছুদিন ধরে স্কালোনির (প্রধান কোচ লিওনেল স্কালোনি) অধীনে কাজ করছি আমরা। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে দল হিসেবে শক্তিশালী হওয়া।’

গেল নভেম্বরে প্যারাগুয়ের বিপক্ষে ১-১ গোলে ড্র করেছিল আর্জেন্টিনা। পেরুর বিপক্ষে ২-০ গোলে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে মেসি নেতৃত্বাধীন দলটি।

‘সবশেষ বাছাই পর্বে ফল আমাদের পক্ষে ছিল। দীর্ঘ সময় কেটে গেছে। আমরা এক হতে পারিনি। জেতার জন্য আমাদের ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।’ যোগ করেন বার্সেলোনা মহাতারকা।

১১ দিনের ব্যবধানে দুইবার মুখোমুখি হতে হচ্ছে চিলির বিপক্ষে। আগামী ১৪ জুন কোপা আমেরিকার উদ্বোধনী ম্যাচে মাঠে নামবে দল দুটি। তার আগে সর্তক আর্জেন্টাইন অধিনায়ক।

মেসি বলেন, ‘চিলি বেশ কঠিন প্রতিপক্ষ। তাদের দলে বেশ ভালো মানের খেলোয়াড় রয়েছে। সম্প্রতি কাদের নতুন কোচ নিয়োগ দেয়া হয়েছে (মার্টিন লাসারতে)। তার অধীনে বেশি ম্যাচ খেলার সুযোগ হয়নি দলটির। তারুণ্য-অভিজ্ঞের মিশেলে তারা বেশ ভালো দল।’

দুই বছর আগে ব্রাজিলের মাঠে বসেছিল কোপা আমেরিকার আয়োজন। তৃতীয় স্থান অর্জন করেছিল লিওনেল স্কালোনির শিষ্যরা। ‘কোপা আমেরিকার গেল আসরে আমরা বেশ ভালোই করেছিলাম। তবে ফল নিয়ে আমরা সন্তুষ্ট নই। নতুন টুর্নামেন্টে আমাদের আরও ভালো করতে হবে।’


নিউজ ট্যাগ: লিওনেল মেসি

আরও খবর
কলম্বিয়াকে ২-১ গোলে হারাল ব্রাজিল

বৃহস্পতিবার ২৪ জুন ২০২১