আজঃ মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

বেগম রোকেয়া দিবস আজ

প্রকাশিত:শনিবার ০৯ ডিসেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:শনিবার ০৯ ডিসেম্বর ২০২৩ | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

আজ ৯ ডিসেম্বর, বেগম রোকেয়া দিবস। নারীর ক্ষমতায়ন ও শিক্ষা, আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন, অধিকার ও সমতাভিত্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠায় বেগম রোকেয়ার অবদান ও নারী জাগরণের অগ্রযাত্রায় অন্তহীন প্রেরণার উৎস হিসেবে প্রতিবছর এই দিবসটি পালন করা হয়।

দিবসটি উপলক্ষে রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও সংস্থা ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। রাষ্ট্রপতি মো. সাহাবুদ্দিন ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই দিবসটি উপলক্ষে পৃথক বাণী দিয়েছেন।

বেগম রোকেয়া দিবস ও বেগম রোকেয়া পদক ২০২৩ প্রদান উপলক্ষে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করেছে মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয়। নারী জাগরণে উদ্বুদ্ধকরণসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ অবদান ও গৌরবোজ্জ্বল ভূমিকা রাখায় এ বছর পাঁচজন বিশিষ্ট নারীকে বেগম রোকেয়া পদক দেওয়া হচ্ছে।

পদকপ্রাপ্ত পাঁচজন বিশিষ্ট নারী ও তাদের অবদানের ক্ষেত্র হলো- নারী শিক্ষায় বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম নারী উপাচার্য খালেদা একরাম, মরণোত্তর (ঢাকা জেলা), নারী অধিকার প্রতিষ্ঠায় ডা. হালিদা হানুম আখতার (রংপুর জেলা), নারীর আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে কামরুন্নেছা আশরাফ দিনা, মরণোত্তর (নেত্রকোনা জেলা), নারী জাগরণে উদ্বুদ্ধকরণে নিশাত মজুমদার (লক্ষীপুর জেলা) এবং পল্লী উন্নয়নে রনিতা বালা (ঠাকুরগাঁও জেলা)।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে পদক প্রদান করবেন।

বেগম রোকেয়া দিবস উপলক্ষে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে সংবাদপত্রে বিশেষ ক্রোড়পত্র ও স্মরণিকা প্রকাশ করা হবে। বাংলাদেশ টেলিভিশন, বাংলাদেশ বেতারসহ বিভিন্ন গণমাধ্যম এ উপলক্ষে বিশেষ অনুষ্ঠান ও নিবন্ধ প্রচার ও প্রকাশ করবে। নারী শিক্ষা, নারীর অধিকার প্রতিষ্ঠা ও সচেতনতা বৃদ্ধি করতে ব্যানার, ফেস্টুন, পোস্টার বিতরণ ও স্থাপন করা হবে।


আরও খবর



একই দিনে তিন উৎসব, নিজেকে সাজাবেন যেভাবে

প্রকাশিত:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
জীবন ধারা ডেস্ক

Image

বসন্ত মানেই রঙের ছড়াছড়ি। শীতের জরাজীর্ণতা কাটিয়ে, ফুলে ফুলে সেজে ওঠার আনন্দময় প্রস্তুতি এখন প্রকৃতিজুড়ে। বসন্তবরণকে ঘিরে শুরু হয় নানা আয়োজন। তবে ঘটনাক্রমে এ বছর ১৪ ফেব্রুয়ারিতে একই সাথে ভালোবাসা দিবস, পহেলা ফাল্গুন ও সরস্বতী পূজা! একই দিনে বাঙালি তিনটি উৎসব পালন করবে।

এমন উৎসবমুখর দিনে নিজেকেও সুন্দরভাবে সাজিয়ে তুলতে কে না চায়! জেনে নেই এবার ১৪ ফেব্রুয়ারিতে কীভাবে নিজেকে ভিন্নভাবে উপস্থাপন করতে পারি।

পোশাক: ফাল্গুনে সবাই হলুদ বা সুবজ শাড়িতেই নিজেদের জড়িয়ে রাখতে পছন্দ করে। ভালোবাসা দিবসে আবার অনেকেই লাল পোশাক পরতে পছন্দ করেন। অন্যদিকে সরস্বতী পূজা মানেই লাল-সাদা শাড়ি। তাই নিজেদের পছন্দের রঙের শাড়ি নির্বাচন করতে পারেন এবারের ১৪ ফেব্রুয়ারিতে। ছেলেরা সাদা, হলুদ বা লাল রঙের পাঞ্জাবি পরতে পারেন। যেহেতু এখন দিনের বেলায় বেশ গরম পড়ে আর সন্ধ্যার পর হালকা শীত। তাই ভারি পোশাকের বদলে হালকা সুতির পোশাক পরাই আরামদায়ক। শাড়ি,পাঞ্জাবির সাথে শাল রাখতে পারেন সন্ধ্যায় বের হলে।

সাজসজ্জা: পোশাকের সঙ্গে চাই মানানসই সাজ। দিনের বেলা বের হলে হালকা মেকআপ করুন। চোখ সাজাতে হালকা আইশ্যাডো, মাশকারা আর গাঢ় করে আইলাইনার ও কাজল দিতে পারেন। যেহেতু চোখের মেকআপ একটু গাঢ়, তাই সামঞ্জস্য রাখতে ঠোঁটের মেকআপ মিউটেড রাখা ভালো। বিউটি ই-কমার্স প্লাটফর্ম চয়েজ লিগ্যাসির মেকআপ আর্টিস্ট তামান্না রহমান খান বলেন, বর্তমান আবহাওয়াতে পারফেক্ট মেকআপ এর জন্য বেইজ মেকআপটা ভালো হওয়া জরুরি। আর নিখুঁত মেকআপ লুকের জন্য স্কিন হাইড্রেশনের দিকে বেশি গুরুত্ব দিতে হবে। সেজন্য স্কিন টাইপ অনুযায়ী ক্লিঞ্জার, মশ্চারাইজার, প্রাইমার অ্যাপ্লাই করে স্কিন প্রিপেয়ার করে নিতে হবে।

তিনি বলেন, শুষ্ক ত্বকের জন্য হাইড্রেটিং প্রোডাক্ট এবং তৈলাক্ত ত্বকের জন্য ম্যাটিফাইং প্রোডাক্ট ব্যাবহার করতে হবে। ফাউন্ডেশনের বদলে স্কিন টিন্ট ব্যবহার করা যেতে পারে। মনে রাখতে হবে, ফ্রেশ এবং ক্লিন লুকের জন্য যত কম প্রোডাক্ট ব্যবহার করা যায় ততই ভালো। এছাড়া, লিপস্টিক দেয়ার আগে অবশ্যই লিপ বাম বা ভ্যাজলিন ব্যবহার করতে হবে। এবং সবশেষে মেকআপ সেটিং মিস্ট ব্যবহার করতে হবে সুন্দর ফিনিশিং লুক দেয়ার জন্য।

চুলের সাজ: খোলা চুল, বেণী কিংবা খোপা, তিনটিই বেশ মানায় শাড়ির সাথে। তবে এদিন ফুলের বাহার সবখানেই। তাই চুলে জড়িয়ে নিতে পারেন একটু ফুল। লাল, হলুদ, সাদা কিংবা আপনার পোশাকের সঙ্গে মানিয়ে বাছাই করতে পারেন চুলের ফুল।

গয়না: দেশজ উপকরণে তৈরি কাঠ, পুঁতি বা মাটির গহনা পরতে পারেন। কানে বড় দুল পরলে, গলায় কিছু না পরলেও হবে। পরতে চাইলে ছোট পুতির বা মাটির লম্বা মালা পরতে পারেন। শুধু যদি ঘোরার পরিকল্পনা থাকে তাহলে হাত ভরে কাচের রেশমী চুড়ি পরতে পারেন। আর কর্মজীবি নারী বা ছাত্রীরা হাত ভরে চুড়ি না পরে কাঠ, সুতা বা মেটালের মোটা একটা বা দুইটা চুড়ি পরতে পারেন। এতে করে উৎসবের আমেজও বজায় থাকবে আর কাজ করতেও অসুবিধাও হবে না। ছেলেরা পোশাকের সাথে মানানসই হাতঘড়ি বা ব্রেসলেট পরতে পারেন।

ছবি : ফ্যাশন হাউজ মিরা।


আরও খবর
খাতনা করার আগে-পরে যেসব বিষয় জানা জরুরি

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

নারীর জন্য প্রয়োজনীয় পাঁচ ভিটামিন

রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




টাঙ্গাইলে ট্রেনে কাটা পড়ে বাবা-ছে‌লেসহ তিনজন নিহত

প্রকাশিত:শনিবার ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
লতিফ তালুকদার, কালিহাতী (টাঙ্গাইল)

Image

টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে ট্রেনে কাটা পড়ে বাবা-শিশু ছেলেসহ তিনজন নিহত হয়েছেন। শুক্রবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে কালিহাতীর আনালিয়াবাড়ি এলাকায় এ মর্মান্তিক দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- নাটোর বড়াই গ্রামের আলাউদ্দিনের ছেলে রতন (২৭) ও তার ছেলে সানি (৬) এবং শরিফ (৪০) রাজশাহীর পুঠিয়া উপজেলার বেলপুকুর গ্রামের মাহিন্দ্রা গ্রামের আলম মণ্ডলের ছেলে।

বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব থানার ওসি আলমগীর জানান, স্থানীয়রা ট্রেনে কাটা পড়ে লাশ দেখে পুলিশে খবর দেয়। খবর পেয়ে রাত সাড়ে ৮টার দিকে ঘটনাস্থলে গিয়ে রেলওয়ে পুলিশকে জানানো হয়েছে।

টাঙ্গাইল ঘারিন্দা রেলওয়ে পুলিশের এসআই আলী আকবর জানান, রাত ৮টা ২০ মিনিটে ঢাকাগামী চিলাহাটি এক্সপ্রেস ট্রেনে কাটা পড়ে তাদের মৃত্যু হয়েছে। নিহতরা নাটোর থেকে বাসে করে ঢাকা যাচ্ছিলেন বাসটি ঘটনাস্থলে পৌঁছালে নষ্ট হয়। এ সময় তারা বাস থেকে নেমে পাশে রেল লাইনে হাঁটাহাঁটি করতে গেলে ট্রেনে কাটা পড়ে ঘটনাস্থলেই তারা মারা যান। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে মর্গে পাঠানো হবে।

টাঙ্গাইল-৪ কালিহাতী আসনে সংসদ সদস্য আবদুল লতিফ সিদ্দিকী খবর পেয়ে রাত সাড়ে ১০টার দিকে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।


আরও খবর
ঝিনাইদহ জেলা কারাগারে কয়েদির মৃত্যু

সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




একুশে ফেব্রুয়ারিতেও চলবে মেট্রোরেল

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | অনলাইন সংস্করণ
নিজস্ব প্রতিবেদক

Image

নিয়মিত সময়সূচি অনুযায়ী মহান শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসেও (২১ ফেব্রুয়ারি) মেট্রোরেল চলাচল করবে।

ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেড থেকে বলা হয়, কেবল শুক্রবার মেট্রোরেল বন্ধ থাকে। এদিন মেট্রোরেলের সাপ্তাহিক বন্ধ। এছাড়া অন্যান্য যেকোনো সরকারি ছুটি ও অনুষ্ঠানের দিন মেট্রোরেল চলাচল করবে।এর আগেও দ্বাদশ জাতীয় নির্বাচনসহ সরকারি বিভিন্ন ছুটির দিনেও মেট্রোরেল চলাচল করেছে।

বর্তমানে মেট্রোরেল উত্তরা উত্তর থেকে মতিঝিল পর্যন্ত চলাচল করছে। সকাল ৭টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত মেট্রোরেল চলাচল করছে। ১৬টি স্টেশনে থেকে যাত্রীরা মেট্রোরেলে ওঠা-নামা করতে পারেন। ভাড়া কাছের দূরত্বে সর্বনিম্ন ২০ টাকা থেকে দূরের দূরত্বে ১০০ টাকা পর্যন্ত।


আরও খবর



২৪ দিনে প্রবাসী আয় ১৮ হাজার কোটি টাকা

প্রকাশিত:রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | অনলাইন সংস্করণ
অর্থ ও বাণিজ্য ডেস্ক

Image

চলতি মাসের (ফেব্রুয়ারি) প্রথম ২৪ দিনে প্রবাসীরা ১৬৫ কোটি ৬১ লাখ মার্কিন ডলার রেমিট্যান্স দেশে পাঠিয়েছেন। প্রতি ডলার ১১০ টাকা ধরে যার পরিমাণ ১৮ হাজার ১০৭ কোটি টাকা। রোববার (২৫ ফেব্রুয়ারি) বাংলাদেশ ব্যাংকের হালনাগাদ প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্সের মধ্যে বেসরকারি ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে ১৪০ কোটি ৪০ লাখ ডলার। এ ছাড়া রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে ১৭ কোটি ৫৫ লাখ ডলার, বিশেষায়িত একটি ব্যাংকের মাধ্যমে ৬ কোটি ৩০ লাখ মার্কিন ডলার এবং বিদেশি ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে এসেছে ৩৫ লাখ মার্কিন ডলার। এর আগে, চলতি বছরের প্রথম মাসে (জানুয়ারি) প্রবাসীরা রেমিট্যান্স পাঠিয়েছিলেন ২১০ কোটি মার্কিন ডলার।

উল্লেখ্য, গত বছরের জানুয়ারিতে রেমিট্যান্স আসে ১৯৫ কোটি ৮৮ লাখ ডলার, ফেব্রুয়ারিতে ১৫৬ কোটি ডলার, মার্চে ২০২ কোটি, এপ্রিলে ১৬৮ কোটি, মে মাসে ১৬৯ কোটি, জুনে ২২০ কোটি, জুলাইয়ে ১৯৭ কোটি, আগস্টে ১৫৯ কোটি ৯৪ লাখ, সেপ্টেম্বর মাসে ১৩৩ কোটি, অক্টোবরে ১৯৭ কোটি, নভেম্বর ১৯৩ কোটি এবং ডিসেম্বরে প্রবাসীরা পাঠিয়েছিলেন ১৯৯ কোটি ডলার।

২০২২-২৩ অর্থবছরে দেশে মোট রেমিট্যান্স এসেছে ২ হাজার ১৬১ কোটি ৭ লাখ মার্কিন ডলার। তার আগের ২০২১-২০২২ অর্থবছরে মোট রেমিট্যান্স এসেছিল ২ হাজার ১০৩ কোটি ১৭ লাখ মার্কিন ডলার।


আরও খবর



রোহিঙ্গাদের জোরপূর্বক তুলে নিয়ে সেনাবাহিনীতে নিয়োগ দিচ্ছে জান্তা সরকার

প্রকাশিত:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | অনলাইন সংস্করণ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

Image

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের অভ্যন্তরীণ বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গাদের গ্রাম ও ক্যাম্প (আইডিপি) থেকে জোরপূর্বক তুলে নিয়ে সেনাবাহিনীতে নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে। আশঙ্কা করা হচ্ছে, এসব রোহিঙ্গাকে বিচ্ছিন্নতাবাদী ও গণতন্ত্রপন্থীদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে মানবঢাল হিসেবে ব্যবহার করবে দেশটির জান্তা সরকার।

মানবাধিকার কর্মী ও স্থানীয় বাসিন্দারাদের বরাতে গণমাধ্যমের প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, রোহিঙ্গা পুরুষদের যুদ্ধবিধ্বস্ত রাজ্যে পাঠাতে জান্তার সামরিক বাহিনীতে যোগ দিতে বাধ্য করা হচ্ছে। রাখাইনের গ্রাম ও ক্যাম্প থেকে কমপক্ষে ৪০০ রোহিঙ্গা পুরুষকে দুই সপ্তাহের প্রাথমিক প্রশিক্ষণের জন্য সামরিক ঘাঁটিতে নেওয়া হয়েছে।

ফ্রি রোহিঙ্গা কোয়ালিশনের সহ-প্রতিষ্ঠাতা নে সান লুইন বলেন, প্রশিক্ষণের সময়কাল মাত্র দুই সপ্তাহ। জান্তা বাহিনী তাদেরকে মানবঢাল হিসেবে ব্যবহার করতে মাত্র দুই সপ্তাহের প্রশিক্ষণ দিয়েছে।

শহরতলীর বাসিন্দা এবং রোহিঙ্গা কর্মীরা জানিয়েছেন, আরাকান আর্মির (এএ) বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য সিতওয়ে ও বুথিদাউং শহরের গ্রাম এবং আইডিপি ক্যাম্প থেকে ইতোমধ্যে অন্তত ৪০০ রোহিঙ্গা পুরুষকে জোরপূর্বক তুলে নিয়ে গিয়ে জান্তা বাহিনীতে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

১০ ফেব্রুয়ারি সেনাবাহিনীতে ১৮ থেকে ৩৫ বছর বয়সী পুরুষদের বাধ্যতামূলক কাজ করার আইন করার পর থেকে জান্তা এই প্রক্রিয়া শুরু করে। সামরিক বাহিনী রোহিঙ্গা সম্প্রদায়ের নেতাদের এবং প্রশাসকদের গ্রাম এবং বুথিডাং, মংডু ও সিতওয়ে আইডিপি ক্যাম্পে পুরুষদের তালিকা তৈরি করার জন্য চাপ দিয়েছে। প্রতিটি ছোট গ্রামের জন্য কমপক্ষে ৫০ পুরুষ এবং প্রতিটি আইডিপি ক্যাম্প ও বড় গ্রাম থেকে কমপক্ষে ১০০ পুরুষের তালিকা তৈরি করার কথা বলা হয়েছে।

নে সান লুইন বলেন, বুধবার আমরা যা নিশ্চিত হতে পেরেছি তা হচ্ছে, সিতওয়ের আইডিপি ক্যাম্প থেকে অন্তত ৩০০ জনের খসড়া করা হয়েছে এবং তারা এখন (সামরিক) প্রশিক্ষণের মাঠে রয়েছে।

জান্তা সেনারা ১৮ ও ১৯ ফেব্রুয়ারি বুথিডাং শহরতলীর চারটি গ্রাম থেকে কমপক্ষে ১০০ জনকে গ্রেফতার করেছে এবং তাদের প্রাথমিক সামরিক প্রশিক্ষণের জন্য নিকটবর্তী একটি সামরিক ঘাঁটিতে পাঠিয়েছে বলে জানান লুইন।

প্রসঙ্গত, নতুন সেনা নিয়োগ আইন শুধুমাত্র মিয়ানমারের নাগরিকদের জন্য প্রযোজ্য। রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারের নাগরিক হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া হয় না।

রাখাইন রাজ্যের রোহিঙ্গা বাসিন্দা এবং মানবাধিকার কর্মীরা জানিয়েছেন, সামরিক জান্তা রোহিঙ্গা পুরুষদের বলেছে যে তারা সেনাবাহিনীতে চাকরি করলে প্রত্যেকে এক বস্তা চাল, একটি নাগরিকত্বের পরিচয়পত্র এবং মাসিক এক লাখ ৫০ হাজার কিয়াট (৪১ ডলার) বেতন পাবে।


আরও খবর
বিশ্ববাজারে আবারো কমেছে জ্বালানি তেলের দাম

মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪